ঢাকা,সোমবার,১৭ আষাঢ় ১৪২৭,০১,মার্চ,২০২১ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : > মুজিব বর্ষে পল্লী বিদ্যুতের নিজস্ব অর্থায়নে কুড়িগ্রামে গৃহহীন পরিবারকে পাকা ঘর হস্তান্তর   > ড. ইউনূসকে হাইকোর্টে তলব লিখিত আদেশ প্রকাশ   > বিপুল অর্থ ব্যয়ে গ্রামাঞ্চলে শতভাগ নিরাপদ পানি সরবরাহ নিশ্চিত করার উদ্যোগ   > শায়েস্তাগঞ্জে বাস ও টমটমের মুখোমুখি সংঘর্ষ ১ জন নিহত   > মৌলভীবাজারে কেক কাটা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত   > ইংল্যান্ড ছেড়ে জার্মানিতে মুসিয়ালা   > এবার জল্পনার অবসান   > আমরাও মানুষ কাজের ব্যবস্থা হলে মুক্তি মিলবে এই বিড়ম্বনার জীবন থেকে   > টানা দরপতনে শেয়ারবাজারে ৩৫ হাজার কোটি টাকা ক্ষতি   > আল জাজিরার প্রতিবেদন তৈরিতে জড়িত দেশিয়দের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  

   ফিচার
  মেহেরপুর বিলুপ্তির পথে ঘটকালী প্রথা
  Publish Time : 11 February 2021, 3:20:28:PM

নুহু বাঙ্গালী, মেহেরপুর : মেহেরপুরের গাংনীর মিনাপাড়া গ্রামের ইমান আলী। ছোটকালে হাসির ছলে এক বন্ধুর বিয়ে দেন পাশের গ্রামের এক অনাথ মেয়ের সাথে। সে সময় গ্রামের মৌলভীর মুখে শুনেছেন ১০১ টি বিয়ে দিলে জান্নাতী হওয়া যায়। এ থেকেই শুরু করেন এ ঘটকালী। গত ২২ বছরে দশ হাজারেরও বেশি ছেলে মেয়ের বিয়ে দিয়েছেন তিনি। এখন সবাই তাকে ইমান ঘটক নামে চিনেন। তবে এখন আর হাক ডাক নেই। মোবাইল ফোনের বদৌলতে ফেসবুক, হোয়াট্স আপের মাধ্যমে ছেলে মেয়েরা প্রেমজ সম্পর্ক করে একাই বিয়ে করছেন। কখনও পরিবারের লোকজন নিজেরাই বিয়ের ব্যবস্থা করছেন। ঘটকের আর তেমন প্রয়োজন পড়ছে না। বিলুপ্তির পথে এ ঘটকালী প্রথা।
বছর বিশেক আগেও গ্রাম গঞ্জে চোখে পড়তো ঘটকরা পান চিবুতে চিবুতে ছাতা বগলে হেঁটে চলেছেন গ্রামের পর গ্রাম। সজাগ দৃষ্টি কার বাড়িতে রয়েছে বিবাহযোগ্য ছেলে মেয়ে। ঘটকের কাছে টাকা-পয়সা তেমন মুখ্য নয়, বরং বিয়ের ঘটকালি করে তিনি অনেক আনন্দ পান। তাঁর আবার নিন্দুকেরও অভাব নেই। বিয়েটি সুখের হলে ঘটকের কথা কেউ তেমন মনে রাখে না। তবে বিয়ের পর যদি অশান্তি বা ঝামেলা দেখা দেয় তাহলে সব দোষ গিয়ে পড়ে ঘটকের ঘাড়ে। রাইপুর গ্রামের নজরুল ইসলাম জানান, ঘটকদের কথা চালাচালির ধরনই আলাদা। সাতশ’ সাতবার কথা চালাচালি না হলে নাকি বিয়ে হয় না। অর্থাৎ সামাজিক বিয়েতে কথা খরচ করতে হয় প্রচুর। ঘটকের প্রধান কাজই হচ্ছে মেয়ের বাড়িতে ছেলে এবং ছেলের পরিবারের বংশগৌরব ও গুণ-গরিমা প্রকাশ করা, আর ছেলের বাড়িতে মেয়ের রূপসৌন্দর্য ও শিক্ষা-দীক্ষা তুলে ধরা। এভাবেই তিনি দুটি পরিবারকে বিয়ের ব্যাপারে আগ্রহী করে তোলেন। ঘটকের মাধ্যমে পছন্দের পর্বটি শেষ হলে বিয়ের কথাবার্তা ও চূড়ান্ত হয় বিয়ের দিনক্ষণ। বিয়ের আগের দিন হয় গায়েহলুদ অনুষ্ঠান। বিয়ের অন্যতম অনুষঙ্গ হচ্ছে ভূরিভোজ। ভোজনপর্ব শেষ হলে শুরু হয় বিয়ের মূলপর্ব। কাজি এসে বিয়ে রেজিস্ট্রির কাজটি সমাধা করেন। বিয়ে হয়ে গেলে চলে কনে বিদায়ের পালা। বরের বাড়িতে বধু বরণসহ কিছু আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে অন্দরমহলে অর্থাৎ সাজানো বাসরঘরে নিয়ে যাওয়া হয়। শুরু হয় বর-কনের দাম্পত্য জীবন। বিয়ে হয়ে গেলে আসে ঘটক বিদায়ের পালা। ছেলে বা মেয়ের পক্ষ থেকে তিনি পান কিছু নগদ টাকা, কখনওবা সঙ্গে জামাকাপড় ও একটা ছাতা।
গাংনী উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট শফিকুল আলম জানান, সৃষ্টির আদিকাল থেকেই এ ঘটকালী প্রথাটি চালু। আগে গ্রাম গঞ্জে পেশাদারীত্ব ঘটক প্রথা ছিল না। তারা টাকা পয়সা নিয়েও কোন চিন্তা করতো না। ১৯৮০ সালের গোড়ার দিকে এ প্রথাটি ব্যাপকতা পায়। বিভিন্ন পত্র পত্রিকাতেও ঘটকের বিজ্ঞাপণ দেখা দেয়। এতে খরচ খরচাটাও বেশি। বর্তমানে কেউ আর বেশি খরচ করতেও চাচ্ছে না আবার নিজেরাই এ ঘটকালীর কাজটি করছেন।
রুয়েরকান্দি গ্রামের ঘটক রশিদ জানান, গত ১৫ বছরে সে ১৭০৩ টি বিয়ে দিয়েছেন। এর মধ্যে বিচ্ছেদের ঘটনা ঘটেছে ১৫ টি। ঘটকের প্রচলন না থাকায় এখন ঘটকালী ছেড়ে দিয়ে ইজিবাইক চালাচ্ছেন। তিনি আরো জানান, আগে ঘটক ছাড়া বিয়ে কল্পনা করা যেতো না। আর এখন ছেলে মেয়েরা এমনকি বিধবারাও ঘর পালিয়ে বিয়ে করছে। তাছাড়া এখন ছেলে মেয়েরা আর তাদের পরিবারের লোকজন নিজেরাই বিয়ের দেখা শোনা পর্বটি সেরে ফেলায় আর ঘটকের প্রয়োজন পড়ছে না। আগে ঘটকের আগমনে বিয়ে বাড়িতে নানা গীত গাইতো। যা বিভিন্ন নাটকেও দেখা যায়। এখন আর যেমন বিয়ে নেই পারিবারিকভাবে, তেমন এ ঘটকালি প্রথাটির প্রচলনও হারাতে বসেছে।



সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : 53        
   শেয়ার করুন
Share Button
   আপনার মতামত দিন
     ফিচার
পৈত্রিক পেশা ঘোড়া দিয়ে ঘানি ভাঙা
.............................................................................................
বিদেশি পর্যটক আকৃষ্টে পতেঙ্গায় হচ্ছে বিশ্বমানের ট্যুরিস্ট জোন
.............................................................................................
নবীনগরে বিলুপ্তির পথে বাঁশশিল্প
.............................................................................................
মেহেরপুর বিলুপ্তির পথে ঘটকালী প্রথা
.............................................................................................
ঠাকুরগাঁওয়ে ব্যস্ত মৌ-চাষীরা
.............................................................................................
কমলগঞ্জের তাঁতশিল্পে উৎপাদিত পণ্যের চাহিদা বাড়ছে বিশ্ববাজারে
.............................................................................................
থামছেই না টাঙ্গুয়ায় পাখি শিকার
.............................................................................................
হারিয়ে যাচ্ছে শরীয়তপুরের কুটির শিল্প
.............................................................................................
কালের সাক্ষী ৪০০ বছরের বলিয়াদী জমিদার বাড়ি
.............................................................................................
বরগুনায় নৌকা জাদুঘর
.............................................................................................
রাজবাড়ীতে এক বাড়িতে ৫০টি মৌচাক
.............................................................................................
কালের বিবর্তনে হারিয়ে যাচ্ছে গরুর গাড়ির দৌড় প্রতিযোগিতা
.............................................................................................
চৌহালীতে সরিষা ক্ষেতে মধু চাষ
.............................................................................................
ফুরবাড়িতে ভাপা পিঠা বিক্রি করে স্বাবলম্বি সুজন
.............................................................................................
অতিথি পাখিদের কলরবে মুগ্ধ দিনাজপুরের শেখপুরা ইউনিয়নে ভাটিনা গ্রামের মানুষ
.............................................................................................
ঐতিহ্য হারাচ্ছে দাগনভূঞার জমিদার বাড়ি
.............................................................................................
জয়পুরহাটে পরিযায়ি পাখির অভয়ারণ্য পুন্ডুরিয়া গ্রাম
.............................................................................................
কাস্তে বানাতে ব্যস্ত মির্জাগঞ্জের কামারা
.............................................................................................
কুমিল্লার কুচিয়া যাচ্ছে বিদেশে
.............................................................................................
ফুলবাড়িতে বিলুপ্তির পথে ঐতিহ্যবাহী গরুর গাড়ী
.............................................................................................
অপরূপ সৌন্দর্যে ঘেরা রাঙ্গাবালী
.............................................................................................
জাবি ক্যাম্পাসে পরিযায়ী পাখিদের আনাগোনা
.............................................................................................
ঝুটের জোড়া তালির কম্বলে নারীদের ভাগ্য বদলে চেষ্টা
.............................................................................................
সুপারি কেনা-বেচায় ভালো দাম পাওয়ায় ক্রেতা-বিক্রেতাদের মুখে হাসি
.............................................................................................
ঠাকুরগাঁও বুড়ির বাঁধে মাছ ধরা উৎসব
.............................................................................................
ঠাকুরগাঁওয়ের একমাত্র ভারী শিল্প কারখানা সুপ্রিয় জুটমিল
.............................................................................................
গোপালগঞ্জের শাপলার বিল
.............................................................................................
সিরাজদিখানের কোলা ভিলেজ পার্ক
.............................................................................................
শামুক নিধনে ঝুঁকিতে জীববৈচিত্র্য
.............................................................................................
বর্ষার পানি মিলছে দেশি প্রজাতির মাছ
.............................................................................................
স্ট্রিট লাইটের আলোয় আলোকিত ধোবাউড়ার জনপদ
.............................................................................................
পিলপিলের ৪৪ ডিমে চারটি বাচ্চার জন্ম
.............................................................................................
পর্যটকদের জন্য খুলেছে বান্দরবান
.............................................................................................
কদর বেড়েছে মৌসুমি ছাতার কারিগরদের
.............................................................................................
আদর্শ নগর পর্যটন কেন্দ্র হচ্ছে আদর্শ নগরে
.............................................................................................
সুন্দরবনে বেড়েছে মধু উৎপাদন, খুশি মৌয়াল
.............................................................................................
বীরগঞ্জে হারিয়ে যাওয়া মাছ ধরার সামগ্রীর চাহিদা বাড়ছে
.............................................................................................
রামসাগর জাতীয় উদ্যানে কোলাহল মুক্ত পরিবেশে চিত্রা হরিন দল
.............................................................................................
দস্যুতা দমন ও মৎস্য সম্পদ রক্ষায় কাজ করছে পুলিশ-কোস্টগার্ড-র‌্যাব
.............................................................................................
নৌকা তৈরী ও কেনাবেচার ধুম!
.............................................................................................
কোরবানীর হাট মাতাতে আসছে ‘বাংলার বস’ ও ‘বাংলার সম্রাট’
.............................................................................................
করোনাকালে জলকেলিতে ব্যস্ত পথশিশু-কিশোরেরা
.............................................................................................
করোনা পরিস্থিতির উন্নতি না হলে বন্ধ থাকবে সিলেটের সব হোটেল
.............................................................................................
নাজিরপুরে বর্ষা মৌসুমে জমে উঠেছে চাইয়ের হাট
.............................................................................................
রাসিক মেয়র লিটনের স্বপ্ন নগরীতে এখন ফুলের সুবাস
.............................................................................................
শরীয়তপুর উন্নয়নের স্বপ্ন
.............................................................................................
যেভাবে করোনাভাইরাস পরীক্ষা করা হয়
.............................................................................................
দিনাজপুরে উঠছে প্রচুর রসালো মিষ্টি লিচু
.............................................................................................
শাল, গজারি, আদিবাসী, আনারস, রাবার চাষ সহ নানা ঐতিহ্যের মধুপুর
.............................................................................................
আমাদেরকে কী সবকিছুই আইন করেই মানাতে হবে?
.............................................................................................
Digital Truck Scale | Platform Scale | Weighing Bridge Scale
Digital Load Cell
Digital Indicator
Digital Score Board
Junction Box | Chequer Plate | Girder
Digital Scale | Digital Floor Scale

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মো: রিপন তরফদার নিয়াম
প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক : মফিজুর রহমান রোকন
নির্বাহী সম্পাদক : শাহাদাত হোসেন শাহীন
বাণিজ্যিক কার্যালয় : "রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল কমপ্লেক্স"
(৬ষ্ঠ তলা), ২৮/১ সি, টয়েনবি সার্কুলার রোড,
মতিঝিল বা/এ ঢাকা-১০০০| জিপিও বক্স নং-৫৪৭, ঢাকা
ফোন নাম্বার : ০২-৪৭১২০৮০৫/৬, ০২-৯৫৮৭৮৫০
মোবাইল : ০১৭০৭-০৮৯৫৫৩, 01731800427
E-mail: dailyganomukti@gmail.com
Website : http://www.dailyganomukti.com
   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop