ঢাকা,শুক্রবার,১১০ ভাদ্র ১৪২৮,২৩,এপ্রিল,২০২১ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : > নিয়ম বহির্ভূতভাবে চলছে পশ্চিমাঞ্চল রেলের জিএম দপ্তর   > কাউয়াদিঘি হাওরে ধান কাটা উৎসব   > পঞ্চগড়ের এক মৌসুমে তিন ফসল   > অস্তিত্ব সংকটে রামগঞ্জে বীরেন্দ্র খাল   > করোনা থেকে সুস্থ হতে ঘরেই যা করবেন   > নোয়াখালীতে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার ইফতার সামগ্রী বিতরণ   > পিএসজি-বায়ার্নকে নিয়ে পেরেজের মিথ্যাচার   > জিৎ করোনায় আক্রান্ত   > টিকার বিকল্প দেশের সন্ধান চলছে, সেরাম দিচ্ছে না   > বিচারকাজে গতি আনতে হাইকোর্টে আরও দুই বেঞ্চ  

   ফিচার
  খাগড়াছড়িতে তৈরি কোটি টাকার খাট
  Publish Time : 27 March 2021, 3:24:24:PM

আলমগীর হোসেন, খাগড়াছড়ি : চার পায়ায় চারটি বড় পরী। চার পরীর হাতে উড়ছে চার প্রজাপতি। আর খাটের চার কোণে চারটি মাঝারি আকারের পরী এবং দুই পাশের ঝলমে চারটি করে আটটি ছোট্ট আকারের পরী। পরী আর প্রজাপতি ছাড়াও নানা রকমের নকশায় তৈরি করা হয়েছে ‘পরী পালং খাট’। সেগুন কাঠের তৈরি এ খাটটি বানিয়েছেন খাগড়াছড়ির গুইমারার স্থানীয় কাঠ ব্যবসায়ী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মো. নুরুন্নবী। নান্দনিকতার ছোঁয়ায় তিন বছর দুই মাসে খাটটি পরিপূর্ণ করে তোলেন আবু বক্কর ছিদ্দিক ওরফে কাঞ্চন মিস্ত্রী। প্রায় ৪০ লাখ টাকা ব্যয়ে তৈরি করা এ খাটের কোনো নকশা বা ক্যাটালগ ছিল না। নিজের মনের আবেগ আর ভালোবাসায় খাটটির নকশা তৈরি করেছেন কাঞ্চন মিস্ত্রী। খাটটি তৈরি করতে স্থানীয় কাঠ ব্যবসায়ী মো. নুরুন্নবীর কাছ থেকে সাড়ে নয় লাখ টাকা মজুরি নিয়েছেন তিনি। ‘পরী পালং খাট’ তৈরির বিষয়টি এরইমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়েছে। খাটটি দেখতে প্রতিদিনই নানা বয়সী মানুষ ভিড় করছেন নুরুন্নবীর বাড়িতে। এছাড়া ঢাকা ও চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন স্থান থেকে আসছেন অনেকে। কথা হয় খাগড়াছড়ি থেকে আসা ব্যবসায়ী মো. আব্দুল গফুরের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘খাটটির কথা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জেনেই শখের বসে দেখতে এসেছি। এমন খাট জীবনে প্রথম দেখলাম।’ খাটটি তৈরি করতে যে পরিমাণ অর্থ ও শ্রম গেছে তা অবিশ্বাস্য উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘একজন সৌখিন মানুষের পক্ষেই এটা তৈরি করা সম্ভব।’ মাটিরাঙ্গার বাসিন্দা মো. মিজানুর রহমান বলেন, ‘এ খাট রুচিবোধের বহিঃপ্রকাশ। শুধু অর্থ থাকলেই এমন একটি নান্দনিক খাট তৈরি সম্ভব নয়। গুইমারা ইউনিয়ন পরিষদের পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার মো. নুরুল ইসলাম বলেন, ‘ফার্নিচার মিস্ত্রি আবু বক্কর ছিদ্দিক যা করেছেন তা সত্যিই প্রশংসনীয়। এ খাট তৈরিতে অর্থ বিনিয়োগ করার মাধ্যমে মো. নুরুন্নবী তার সুন্দর মনের পরিচয় দিয়েছেন। তিনি আরও বলেন বলেন, ‘পরী পালং খাট’ গুইমারাকে দেশবাসীর কাছে নতুন করে পরিচিত করে তুলেছে। কাঞ্চন মিস্ত্রীর এমন প্রতিভা আছে এই খাট না দেখলে জানা হতো না। তার এই কাজ মানুষকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। গুইমারার মুসলিমপাড়ার বাসিন্দা ফার্নিচার মিস্ত্রী কাঞ্চন ২০১৭ সালের দিকে নুরুন্নবীর ইচ্ছায় খাটটি তৈরির কাজ শুরু করেন। তিন বছর দুই মাস পরিশ্রমের পর খাটি তৈরির কাজ শেষ করেন।
চতুর্থ শ্রেণি পর্যন্ত পড়ুয়া ফার্নিচার মিস্ত্রী আবু বক্কর ছিদ্দিক ওরফে কাঞ্চন মিস্ত্রী ১৪ বছর বয়সে কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্ট এলাকায় একটি ফার্নিচার দোকানের সহকারী হিসেবে এ পেশায় কাজ শুরু করেন। চার বছরের মাথায় নিজেই মিস্ত্রী হয়ে যান। পরে তিনি ঢাকা, চট্টগ্রাম ও রাঙামাটিতে বিভিন্ন ফার্নিচার দোকানে কাজ করেন। সর্বশেষ কুষ্টিয়ার একটি ফার্নিচার দোকানে কাজ শেষে নিজের জন্মভূমি খাগড়াছড়ির গুইমারা বাজারে কাজ শুরু করেন। কাঞ্চন মিস্ত্রি জানান, খাটটি তৈরিতে প্রায় একশ ফুট কাঠ লেগেছে। এ খাটের নকশা তৈরি থেকে শুরু করে তিনি একাই সব কাজ করেছেন। তার কোনো সহযোগী ছিল না। তার দীর্ঘদিনের স্বপ্ন ছিল নিজের মনের মতো করে একটি খাট তৈরি করার। কিন্তু সাধ আর সাধ্যের মধ্যে বিস্তর ফারাক ছিল। একসময় তার স্বপ্ন পূরণে এগিয়ে আসেন সৌখিন মানুষ মো. নুরুন্নবী। স্থানীয় ব্যবসায়ী ও আওয়ামী লীগ নেতা নুরন্নবী জানান, ব্যতিক্রমী কিছু করার অভিপ্রায় থেকেই কাঞ্চন মিস্ত্রিকে দিয়ে একটি ভিন্ন মাত্রার খাট তৈরির পরিকল্পনা করেন সৌখিন ব্যবসায়ী মো. নুরুন্নবী। কথাবার্তা চূড়ান্ত হওয়ার পর বিভিন্ন স্থানে কাঠ সংগ্রহ শুরু করেন তিনি। কাজ শুরু করার তিন বছর দুই মাস পর তার স্বপ্নের পূর্ণতা লাভ করে।



সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : 86        
   শেয়ার করুন
Share Button
   আপনার মতামত দিন
     ফিচার
কাউয়াদিঘি হাওরে ধান কাটা উৎসব
.............................................................................................
সুনসান নিরবতায় পর্যটন কেন্দ্র বিছনাকান্দি
.............................................................................................
গোয়াইনঘাটে চলছে ধান কাটার উৎসব
.............................................................................................
বাগাতিপাড়ায় অস্তিত্ব সংকটে শিমুল গাছ
.............................................................................................
দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে কোটি টাকার মধু সংগ্রহ
.............................................................................................
খাগড়াছড়িতে তৈরি কোটি টাকার খাট
.............................................................................................
পাখিদের রক্ষায় গাছে গাছে কৃত্রিম হাড়ি স্থাপন
.............................................................................................
রাণীশংকৈলে যত্রতত্র অবস্থায় ঐতিহ্যবাহী শিব মন্দির
.............................................................................................
তালা উপজেলার গ্রামগঞ্জ থেকে হারিকেন বিলুপ্ত
.............................................................................................
মির্জাগঞ্জে দেখা মিললো বিলুপ্তপ্রায় পলাশ গাছের
.............................................................................................
বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে ঝালকাঠির শঙ্খশিল্প
.............................................................................................
দেওয়ানগঞ্জে ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতা
.............................................................................................
কুমিল্লায় পলো দিয়ে মাছ শিকার
.............................................................................................
পৈত্রিক পেশা ঘোড়া দিয়ে ঘানি ভাঙা
.............................................................................................
বিদেশি পর্যটক আকৃষ্টে পতেঙ্গায় হচ্ছে বিশ্বমানের ট্যুরিস্ট জোন
.............................................................................................
নবীনগরে বিলুপ্তির পথে বাঁশশিল্প
.............................................................................................
মেহেরপুর বিলুপ্তির পথে ঘটকালী প্রথা
.............................................................................................
ঠাকুরগাঁওয়ে ব্যস্ত মৌ-চাষীরা
.............................................................................................
কমলগঞ্জের তাঁতশিল্পে উৎপাদিত পণ্যের চাহিদা বাড়ছে বিশ্ববাজারে
.............................................................................................
থামছেই না টাঙ্গুয়ায় পাখি শিকার
.............................................................................................
হারিয়ে যাচ্ছে শরীয়তপুরের কুটির শিল্প
.............................................................................................
কালের সাক্ষী ৪০০ বছরের বলিয়াদী জমিদার বাড়ি
.............................................................................................
বরগুনায় নৌকা জাদুঘর
.............................................................................................
রাজবাড়ীতে এক বাড়িতে ৫০টি মৌচাক
.............................................................................................
কালের বিবর্তনে হারিয়ে যাচ্ছে গরুর গাড়ির দৌড় প্রতিযোগিতা
.............................................................................................
চৌহালীতে সরিষা ক্ষেতে মধু চাষ
.............................................................................................
ফুরবাড়িতে ভাপা পিঠা বিক্রি করে স্বাবলম্বি সুজন
.............................................................................................
অতিথি পাখিদের কলরবে মুগ্ধ দিনাজপুরের শেখপুরা ইউনিয়নে ভাটিনা গ্রামের মানুষ
.............................................................................................
ঐতিহ্য হারাচ্ছে দাগনভূঞার জমিদার বাড়ি
.............................................................................................
জয়পুরহাটে পরিযায়ি পাখির অভয়ারণ্য পুন্ডুরিয়া গ্রাম
.............................................................................................
কাস্তে বানাতে ব্যস্ত মির্জাগঞ্জের কামারা
.............................................................................................
কুমিল্লার কুচিয়া যাচ্ছে বিদেশে
.............................................................................................
ফুলবাড়িতে বিলুপ্তির পথে ঐতিহ্যবাহী গরুর গাড়ী
.............................................................................................
অপরূপ সৌন্দর্যে ঘেরা রাঙ্গাবালী
.............................................................................................
জাবি ক্যাম্পাসে পরিযায়ী পাখিদের আনাগোনা
.............................................................................................
ঝুটের জোড়া তালির কম্বলে নারীদের ভাগ্য বদলে চেষ্টা
.............................................................................................
সুপারি কেনা-বেচায় ভালো দাম পাওয়ায় ক্রেতা-বিক্রেতাদের মুখে হাসি
.............................................................................................
ঠাকুরগাঁও বুড়ির বাঁধে মাছ ধরা উৎসব
.............................................................................................
ঠাকুরগাঁওয়ের একমাত্র ভারী শিল্প কারখানা সুপ্রিয় জুটমিল
.............................................................................................
গোপালগঞ্জের শাপলার বিল
.............................................................................................
সিরাজদিখানের কোলা ভিলেজ পার্ক
.............................................................................................
শামুক নিধনে ঝুঁকিতে জীববৈচিত্র্য
.............................................................................................
বর্ষার পানি মিলছে দেশি প্রজাতির মাছ
.............................................................................................
স্ট্রিট লাইটের আলোয় আলোকিত ধোবাউড়ার জনপদ
.............................................................................................
পিলপিলের ৪৪ ডিমে চারটি বাচ্চার জন্ম
.............................................................................................
পর্যটকদের জন্য খুলেছে বান্দরবান
.............................................................................................
কদর বেড়েছে মৌসুমি ছাতার কারিগরদের
.............................................................................................
আদর্শ নগর পর্যটন কেন্দ্র হচ্ছে আদর্শ নগরে
.............................................................................................
সুন্দরবনে বেড়েছে মধু উৎপাদন, খুশি মৌয়াল
.............................................................................................
বীরগঞ্জে হারিয়ে যাওয়া মাছ ধরার সামগ্রীর চাহিদা বাড়ছে
.............................................................................................
Digital Truck Scale | Platform Scale | Weighing Bridge Scale
Digital Load Cell
Digital Indicator
Digital Score Board
Junction Box | Chequer Plate | Girder
Digital Scale | Digital Floor Scale

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মো: রিপন তরফদার নিয়াম
প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক : মফিজুর রহমান রোকন
নির্বাহী সম্পাদক : শাহাদাত হোসেন শাহীন
বাণিজ্যিক কার্যালয় : "রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল কমপ্লেক্স"
(৬ষ্ঠ তলা), ২৮/১ সি, টয়েনবি সার্কুলার রোড,
মতিঝিল বা/এ ঢাকা-১০০০| জিপিও বক্স নং-৫৪৭, ঢাকা
ফোন নাম্বার : ০২-৪৭১২০৮০৫/৬, ০২-৯৫৮৭৮৫০
মোবাইল : ০১৭০৭-০৮৯৫৫৩, 01731800427
E-mail: dailyganomukti@gmail.com
Website : http://www.dailyganomukti.com
   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop