| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : > ইবি ছাত্রলীগের দুগ্রুপে সংঘর্ষের ঘটনায় তদন্ত কমিটি   > ‘ভোটে বিচ্যুতি হলে সরকার হটানোর আন্দোলন’   > পর্দা নয় এবার বাস্তবে বাংলাদেশি ‘ভাইজান’কে দেখল ভারতবাসী!   > সরকারের ধারাবাহিকতা দেশের অগ্রগতি দৃশ্যমান করেছে : প্রধানমন্ত্রী   > মেডিকেল শিক্ষার্থীর দায়বদ্ধতা রয়েছে জনগণের কাছে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী   > হেলিকপ্টার থেকে প্রধানমন্ত্রীর মোবাইলে পদ্মা সেতুর ছবি   > পাকিস্তানের জয়ের পর শোয়েব মালিকের টুইটবার্তা   > সীমান্ত হত্যা: বিএসএফের `গরু পাচার` যুক্তি মানছে না বিজিবি   > ১৩ অভিজাত ক্লাবে জুয়ার বিষয়ে রায় আগামী ২৮ জানুয়ারি   > মুজিববর্ষে বিএসএমএমইউতে বিনামূল্যে চিকিৎসা  

   বিনোদন -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
পর্দা নয় এবার বাস্তবে বাংলাদেশি ‘ভাইজান’কে দেখল ভারতবাসী!

বিনোদন ডেস্ক : লিউড অভিনেতা সালমান খান অভিনীত ‘বজরাঙ্গি ভাইজান’ সিনেমার কথা নিশ্চয়ই সবার মনে আছে।

ছবিটি এক বোবা শিশুকন্যাকে নিয়ে নির্মিত, যার বাড়ি পাকিস্তানে। ভারতে মায়ের সঙ্গে চিকিৎসা নিতে এসে হারিয়ে যায় শিশুটি।

 কিন্তু কথা বলতে না পারা শিশুটির প্রতি গভীর ভালোবাসা ও মানবতার খাতিরে তাকে নিয়ে পাকিস্তান যান নায়ক সালমান খান।

এবং বহু কষ্টে শিশুটির পরিবারকে খুঁজে বের করেন।

সিনেমার পর্দায় এমন দৃশ্য দেখানো হলেও এবার বাস্তবে বাংলাদেশি ‘ভাইজানের’ সাক্ষাৎ পেল ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মানুষ।

জানা গেছে, পথ হারিয়ে বাংলাদেশ চলে আসা এক বোবা ছেলেকে ভারতে তার

পরিবারের কাছে ফেরত দিতে বাংলাদেশি যুবক আরিফুল বর্তমানে নদীয়ার পথে পথে ঘুরে বেড়াচ্ছেন।

কখনও পথচারী মানুষকে, কখনও চা বা মুদির দোকানে ঢুকে একটা ছবি দেখিয়ে তিনি জানতে চাইছেন—

‘দেখুন, ছেলেটাকে চিনতে পারছেন?’ কেউ বিরক্ত হচ্ছেন। কেউ মাথা নেড়ে বলছেন— ‘চিনতে পারছি না তো!’

আরিফুল ইসলামের বাড়ি বাংলাদেশের কুষ্টিয়ায় দামুড়হুদা থানার ছয়ঘরিয়া গ্রামে।

নদীয়ার কৃষ্ণগঞ্জে গেদে চেকপোস্ট থেকে তার গ্রাম দুই কিলোমিটার দূরে।

অনেক কষ্টে টাকা জমিয়ে ভারতে যাওয়ার পাসপোর্ট-ভিসা করেছেন।

আপাতত হাঁসখালীর কমলপুর গ্রামে এক দূর সম্পর্কের আত্মীয়ের বাড়িতে উঠেছেন আরিফুল।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকেই বেরিয়ে পড়েছেন ছবি হাতে। বৃহস্পতিবারের মধ্যে চষে বেরিয়েছেন কমলপুর, গাজনা, বগুলা, মাজদিয়া– এমনকি সীমান্ত লাগোয়া বানপুর বাজারও।

গত মঙ্গলবার গেদে চেকপোস্ট হয়ে ভারতে ঢুকেন আরিফুল। উদ্দেশ্য, একদিন আচমকা খুঁজে পাওয়া ১৪ বছরের মূক-বধির কিশোরকে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেবেনই।

আরিফুলের বরাতে আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, সেদিন ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তঘেঁষা জমিতে চাষ করছিলেন আরিফুল।

হঠাৎই দেখতে পান, মাঠের মাঝে বসে কান্নাকাটি করছে এক কিশোর।

তার সন্দেহ হয়, কোনোভাবে সীমান্ত পেরিয়ে সে বাংলাদেশে ঢুকে পড়েছে। কাছে গিয়ে নাম-ঠিকানা জানতে চান তিনি।

কিন্তু প্রশ্নের উত্তর মেলেনি। ধীরে-ধীরে আরিফুল বুঝতে পারেন, ছেলেটি শুনতে বা বলতে পারে না।

এর পর ছেলেটিকে তিনি বাড়ি নিয়ে যান। সেই থেকে আরিফুলের বাড়িতেই রয়েছে ছেলেটি। বাড়ির ছেলেই হয়ে গেছে প্রায়।

তবে ছেলেটি হিন্দু না মুসলিম তা জানেন না তারা। কিন্তু আরিফুলের মা আঞ্জু বিবি আদর করে তার নাম রেখেছেন ‘মনসুর’।

আরিফুল বলেন, ছেলেটি প্রথম দিন থেকে আঙুল দিয়ে শুধু ভারতের দিকে দেখাত। সে কারণেই এখানে ওর বাড়ি খুঁজতে এসেছি।’

আরিফুল জানান, তারা ছয় ভাই, মনসুরকে নিয়ে সাত। দরিদ্র কৃষক পরিবার। এতদিন পয়সা জোগাড় করে ভারতে আসতে পারেননি।

তবে মনসুরের মনখারাপ তাকে আসতে বাধ্য করেছে।

তিনি বলেন, ‘ছেলেটির রোজ চোখের জল ফেলতে দেখে মা ঠিক থাকতে পারে না।

বলেছে, যেমন করেই হোক তাকে তার পরিবারের কাছে ফেরাতে হবে।’

 

পর্দা নয় এবার বাস্তবে বাংলাদেশি ‘ভাইজান’কে দেখল ভারতবাসী!
                                  

বিনোদন ডেস্ক : লিউড অভিনেতা সালমান খান অভিনীত ‘বজরাঙ্গি ভাইজান’ সিনেমার কথা নিশ্চয়ই সবার মনে আছে।

ছবিটি এক বোবা শিশুকন্যাকে নিয়ে নির্মিত, যার বাড়ি পাকিস্তানে। ভারতে মায়ের সঙ্গে চিকিৎসা নিতে এসে হারিয়ে যায় শিশুটি।

 কিন্তু কথা বলতে না পারা শিশুটির প্রতি গভীর ভালোবাসা ও মানবতার খাতিরে তাকে নিয়ে পাকিস্তান যান নায়ক সালমান খান।

এবং বহু কষ্টে শিশুটির পরিবারকে খুঁজে বের করেন।

সিনেমার পর্দায় এমন দৃশ্য দেখানো হলেও এবার বাস্তবে বাংলাদেশি ‘ভাইজানের’ সাক্ষাৎ পেল ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মানুষ।

জানা গেছে, পথ হারিয়ে বাংলাদেশ চলে আসা এক বোবা ছেলেকে ভারতে তার

পরিবারের কাছে ফেরত দিতে বাংলাদেশি যুবক আরিফুল বর্তমানে নদীয়ার পথে পথে ঘুরে বেড়াচ্ছেন।

কখনও পথচারী মানুষকে, কখনও চা বা মুদির দোকানে ঢুকে একটা ছবি দেখিয়ে তিনি জানতে চাইছেন—

‘দেখুন, ছেলেটাকে চিনতে পারছেন?’ কেউ বিরক্ত হচ্ছেন। কেউ মাথা নেড়ে বলছেন— ‘চিনতে পারছি না তো!’

আরিফুল ইসলামের বাড়ি বাংলাদেশের কুষ্টিয়ায় দামুড়হুদা থানার ছয়ঘরিয়া গ্রামে।

নদীয়ার কৃষ্ণগঞ্জে গেদে চেকপোস্ট থেকে তার গ্রাম দুই কিলোমিটার দূরে।

অনেক কষ্টে টাকা জমিয়ে ভারতে যাওয়ার পাসপোর্ট-ভিসা করেছেন।

আপাতত হাঁসখালীর কমলপুর গ্রামে এক দূর সম্পর্কের আত্মীয়ের বাড়িতে উঠেছেন আরিফুল।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকেই বেরিয়ে পড়েছেন ছবি হাতে। বৃহস্পতিবারের মধ্যে চষে বেরিয়েছেন কমলপুর, গাজনা, বগুলা, মাজদিয়া– এমনকি সীমান্ত লাগোয়া বানপুর বাজারও।

গত মঙ্গলবার গেদে চেকপোস্ট হয়ে ভারতে ঢুকেন আরিফুল। উদ্দেশ্য, একদিন আচমকা খুঁজে পাওয়া ১৪ বছরের মূক-বধির কিশোরকে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেবেনই।

আরিফুলের বরাতে আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, সেদিন ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তঘেঁষা জমিতে চাষ করছিলেন আরিফুল।

হঠাৎই দেখতে পান, মাঠের মাঝে বসে কান্নাকাটি করছে এক কিশোর।

তার সন্দেহ হয়, কোনোভাবে সীমান্ত পেরিয়ে সে বাংলাদেশে ঢুকে পড়েছে। কাছে গিয়ে নাম-ঠিকানা জানতে চান তিনি।

কিন্তু প্রশ্নের উত্তর মেলেনি। ধীরে-ধীরে আরিফুল বুঝতে পারেন, ছেলেটি শুনতে বা বলতে পারে না।

এর পর ছেলেটিকে তিনি বাড়ি নিয়ে যান। সেই থেকে আরিফুলের বাড়িতেই রয়েছে ছেলেটি। বাড়ির ছেলেই হয়ে গেছে প্রায়।

তবে ছেলেটি হিন্দু না মুসলিম তা জানেন না তারা। কিন্তু আরিফুলের মা আঞ্জু বিবি আদর করে তার নাম রেখেছেন ‘মনসুর’।

আরিফুল বলেন, ছেলেটি প্রথম দিন থেকে আঙুল দিয়ে শুধু ভারতের দিকে দেখাত। সে কারণেই এখানে ওর বাড়ি খুঁজতে এসেছি।’

আরিফুল জানান, তারা ছয় ভাই, মনসুরকে নিয়ে সাত। দরিদ্র কৃষক পরিবার। এতদিন পয়সা জোগাড় করে ভারতে আসতে পারেননি।

তবে মনসুরের মনখারাপ তাকে আসতে বাধ্য করেছে।

তিনি বলেন, ‘ছেলেটির রোজ চোখের জল ফেলতে দেখে মা ঠিক থাকতে পারে না।

বলেছে, যেমন করেই হোক তাকে তার পরিবারের কাছে ফেরাতে হবে।’

 

আজ নায়করাজের ৭৯তম জন্মদিন
                                  

বিনোদন ডেস্ক : বাংলা সিনেমার কিংবদন্তী অভিনেতা প্রয়াত নায়ক রাজ রাজ্জাকের ৭৯তম জন্মদিন আজ। 

১৯৪২ সালের ২৩ জানুয়ারি ভারতের কলকাতার একটি সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন রাজ্জাক।

তার পুরো নাম আব্দুর রাজ্জাক। কলকাতার থিয়েটারে অভিনয় করার মাধ্যমে রাজ্জাক তার অভিনয় জীবনের শুরু করেন।

১৯৫৯ সালে ভারতের মুম্বাইয়ের ফিল্মালয়তে সিনেমার ওপর পড়াশুনা ও ডিপ্লোমা গ্রহণ করেন।

এরপর কলকাতায় ফিরে এসে শিলালিপি ও আরও একটি সিনেমায় অভিনয় করেন।

১৯৬৪ সালে কলকাতায় সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার কবলে পড়ে রাজ্জাক তার পরিবার পরিজন নিয়ে ঢাকায় চলে আসতে বাধ্য হন।

৬০ এর দশকের শেষ থেকে ’৭০ ও ’৮০ এর দশকে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে ওঠেন রাজ্জাক।

অভিনয় করেছেন ৩ শতাধিক চলচ্চিত্রে।

রাজ্জাক অভিনিত জননন্দিত সিনেমাগুলোর মধ্যে রয়েছে ‘নীল আকাশের নীচে, ময়নামতি, মধু মিলন, পীচ ঢালা পথ,

যে আগুনে পুড়ি, জীবন থেকে নেয়া, কী যে করি, অবুঝ মন, রংবাজ, বেঈমান,

আলোর মিছিল, অশিক্ষিত, অনন্ত প্রেম, বাদী থেকে বেগম ইত্যাদি।

কাজের স্বকৃতি স্বরূপ পেয়েছেন একাধিক জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার। ২১শে আগস্ট ২০১৭ সালে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

 

জিন্দেগি তামাশা : ধর্মীয় কোন্দলের পরে পাকিস্তান চলচ্চিত্র স্থগিত
                                  
বিনোদন ডেস্ক : একজন ইসলামপন্থী রাজনৈতিক দল তার সংগ্রামী আলেমের চরিত্রে অভিনয় করার বিষয়ে 
আপত্তি জানালে পাকিস্তান একটি পুরষ্কারপ্রাপ্ত চলচ্চিত্রের মুক্তি স্থগিত করেছে।
দলটি বলেছে যে ছবিটি "জনগণকে ইসলাম ও নবী থেকে বিচ্যুত করার দিকে পরিচালিত করতে পারে", 
কর্মকর্তারা সতর্ক করে দিয়েছিলেন যে স্ক্রিনিং অশান্তির কারণ হতে পারে।
জিন্দেগি তামাশা (সার্কাস অফ লাইফ) একজন বিয়েতে নেচে নেচে নেওয়ার
একটি ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পরে একজনকে এড়িয়ে চলা হয়েছে। 
চলচ্চিত্রটির পরিচালক বলেছেন যে, তিনি কখনই কাউকে আপত্তি করার ইচ্ছা করেননি।
স্থগিতের আগে, চলচ্চিত্রটি তৈরি করা খ্যাতিমান পাকিস্তানি চলচ্চিত্র নির্মাতা সরমাদ খুসাত বলেছিলেন যে তিনি,
তাঁর পরিবার এবং দলকে বুলি ও হুমকির শিকার করা হয়েছিল।
"ধর্মের নামে ঘৃণা, ভয় এবং ক্ষোভের ছাপ ফেলবেন না।"
চলচ্চিত্র নিয়ে বিতর্ক পাকিস্তানি সমাজে আবারও গভীর বিভেদ প্রকাশ করেছে যেহেতু ,
সাম্প্রতিক বছরগুলিতে ধর্মীয় গোষ্ঠীগুলি আরও সোচ্চার হয়ে উঠেছে।
রাজনৈতিক গণমাধ্যম তেহরিক-ই-লাবাইক পাকিস্তানের (টিএলপি)
একজন মুখপাত্র স্থানীয় গণমাধ্যমে উদ্ধৃত করে বলেছেন যে চলচ্চিত্রটির বিষয়বস্তু "নিন্দনীয়"।
ব্লাসফেমির অভিযোগ পাকিস্তানের একটি অত্যন্ত সংবেদনশীল এবং এই অভিযোগকারীদের কট্টরপন্থী গোষ্ঠীগুলির দ্বারা লক্ষ্য করে দেখেছে।
দেশের বেশ কয়েকটি বিতর্কিত মামলা বিশ্বব্যাপী শিরোনাম পেয়েছে।
`একটি গুরুতর পরীক্ষা` গত বছরের মর্যাদাপূর্ণ বুসান আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে জিন্দেগি তামাশার বিশ্ব প্রিমিয়ার ছিল,
যেখানে এটি শীর্ষ কল্পিত পুরষ্কারে ভূষিত হয়েছিল। এটি ২৪ শে জানুয়ারী পাকিস্তানের পর্দায় আঘাত হানার কথা ছিল এবং
সেই তারিখের আগে এই ছবির একটি ট্রেলার প্রকাশিত হয়েছিল
একটি দাড়িওয়ালা লোককে দেখিয়েছিলেন যিনি নাট (ধর্মীয় কবিতা) গায়ক
তবে দেশের প্রধান সেন্সর বোর্ড পাশাপাশি প্রাদেশিক বোর্ডগুলি সাফ হওয়া সত্ত্বেও, চলচ্চিত্রটি এখন ধরে রাখা হয়েছে।
গত সপ্তাহে মিঃ খুসাত প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি খোলা চিঠি প্রকাশ করেছিলেন,
যাতে তিনি অভিযোগ ও হুমকির ডাক দিয়ে ডুবে যাচ্ছিলেন এবং ছবিটি মুক্তি না দেওয়ার বিষয়ে বিবেচনা করছেন।
এরপরে টিএলপি ছবিটির পরিকল্পিত মুক্তির প্রতিবাদে সারাদেশে গণ-সমাবেশের ডাক দেয়।
"এই ছবিতে নাট পাঠকের বৈশিষ্ট্য এমন যে এটি জনসাধারণকে অস্বস্তি সৃষ্টি করতে পারে এবং 
তাদেরকে ইসলাম ও নবী (মুহাম্মদ) থেকে বিচ্যুত হতে পারে," গ্রুপটি এক বিবৃতিতে বলেছে।
"সুতরাং এই সিনেমাটি মুক্তি দেওয়া উচিত নয় কারণ এটি অন্যথায় ইসলামিক প্রজাতন্ত্রের পাকিস্তানের মুসলমানদের গুরুতর পরীক্ষা হতে পারে।"
গত মঙ্গলবার তথ্য ও সম্প্রচার বিষয়ক প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ফিরদৌস আশিক আওয়ান 
টুইটারে বলেছিলেন যে, চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড ইসলামিক আইডোলজিকাল কাউন্সিলের সাথে
পরামর্শ না করা পর্যন্ত মুক্তি পেতে বিলম্ব করতে বলা হয়েছিল, এটি একটি উপদেষ্টা সংস্থা।
প্রভাবশালী তবে কোন বাধ্যবাধকতা নেই।
 এই ঘোষণার পরে, টিএলপি দেশব্যাপী বিক্ষোভের ডাক বাতিল করে।
 ছবিটির বিরোধী কারা?
টিএলপি হ`ল তেহরিক-ই-লাবাইক ইয়া রাসূলুল্লাহ (টিএলআইআরএ) আন্দোলনের রাজনৈতিক বাহিনী 
যা পূর্বে ব্লাসফেমির ইস্যুতে প্রতিবাদ করতে বিপুল জনসমাগম করেছে।
খাদিম হুসেন রিজভীর নেতৃত্বে এটি ২০১১ সালে পাঞ্জাবের গভর্নর সালমান তাসিরকে হত্যা করেছিল 
এমন এক পুলিশকর্মী মমতাজ কাদরীকে ফাঁসি দেওয়ার বিরোধিতা করার বিষয়টি
প্রধান হয়ে উঠেছিল কারণ তিনি নিন্দা আইনবিরোধী বক্তব্য রেখেছিলেন।
পাকিস্তানি আইন অনুসারে যারা নবী মুহাম্মদকে অপমান করার জন্য দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন, তারা মৃত্যুদণ্ডের মুখোমুখি হতে পারেন।
টিএলপি ২০১৩ সালে তত্কালীন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার জন্য 
কয়েক সপ্তাহ ধরে ফেডারেল রাজধানীতে একটি তালা ঝুলিয়ে যখন তার শক্তি প্রদর্শন করেছিল।
 তবে, গত বছর এটির প্রভাবের কিছুটা হ্রাস পেয়েছিল যখন খাদিম হুসেন রিজভী সহ 
শীর্ষস্থানীয় নেতারা খ্রিস্টান মহিলা আসিয়া বিবির মুক্তির বিরুদ্ধে হিংস্র প্রতিবাদে জড়িত থাকার জন্য গ্রেপ্তার হয়েছিল,
যারা নিন্দার অভিযোগে কারাগারে বন্দী ছিল।

 

মৃত্যুর হুমকি নিয়ে তাকে টিভি অনুষ্ঠান করতে হয়
                                  

বিনোদন ডেস্ক : আফগানিস্তানের টেলিভিশন অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে বিপ্লবী আর প্রেরণাদায়ক রীতি চালু করেছেন

মোজদাহ জামালজাদাহ। কিন্তু তালাক নিয়ে একটি অনুষ্ঠান করার পর তিনি নিজের দেশেই শত্রুতার মুখে পড়েছেন।

`ইসলাম ধর্মের ইমাম এবং সব ধরণের চরমপন্থিদের কাছ থেকে আমরা অব্যাহতভাবে টেলিফোন পেতে শুরু করেছিলাম।

টেলিভিশন স্টেশনে ফোন করে তারা বলতো যে, আমাকে বাদ দেয়া না হলে এবং

অনুষ্ঠানটি বন্ধ করা না হলে টিভি স্টেশন উড়িয়ে দেয়া হবে,`` বিবিসি ওয়ার্ল্ড সার্ভিস আউটলুক অনুষ্ঠানে বলছেন জামালজাদাহ।

আফগানিস্তানের ওয়ানটিভিতে প্রচারিত `মোজদাহ শো` ২০১০ থেকে ২০১১ সালে নারী ও শিশু অধিকার নিয়ে অনুষ্ঠান প্রচার করেছে।

`আফগানিস্তানের অপরাহ`

সপ্তাহে দুইদিনের আলোচনা অনুষ্ঠানে অতিথিরা আসেন, যাদের দর্শকরা প্রশ্ন করেন।

দর্শকপ্রিয়তা এবং বিজ্ঞাপনদাতাদের দিক থেকে এটি একটি সফল অনুষ্ঠান ছিল।

তার জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে। তাকে একসময় যুক্তরাষ্ট্রের জনপ্রিয় টিভি অনুষ্ঠান

অপরাহ উইনফ্রে শোর সঙ্গে তুলনা করে `অপরা অব আফগানিস্তান` বলে ডাকা হতে থাকে।

অনুষ্ঠানে অংশ নিতে যে নারীরা আসতেন, তাদের কাছ থেকে শোনা বক্তব্য তাকে আরো উৎসাহিত করে তোলে।

দর্শক হিসাবে আসা একজন নারী জামালজাদাহকে বলেছিলেন,

এই অনুষ্ঠানের কারণে তার স্বামী তাদের বাচ্চাদের মারধর করা বন্ধ করেছে ।

``আরেকজন বলেছেন, আমাদের ১২ বছর বয়সী মেয়েকে বিয়ে দিতে যাচ্ছিলেন আমার স্বামী।

মোজদাহ অনুষ্ঠান দেখার পর এখন তিনি তার মন পরিবর্তন করেছেন।``

বিদ্বেষ ও প্রত্যাখ্যান

প্রযোজকের পরামর্শ উপেক্ষা করে তালাকপ্রাপ্তিতে নারীদের অধিকার নিয়ে

একটি অনুষ্ঠান প্রচারের পর তার অনুষ্ঠানটি ঝুঁকির মধ্যে পড়ে।

``আমি বিদ্বেষের ব্যাপারটি টের পেতে শুরু করেছিলাম।

আমি বুঝতে পারছিলাম যে, আমাকে প্রত্যাখ্যান করা হচ্ছে। আমি এটা অনেক বেশি দূর টেনে নিয়ে গিয়েছিলাম।``

এক বছরে একশো তিনজন আফগান নারী নিজেদের শরীরে আগুন লাগিয়ে দিয়েছেন,

এরকম একটি সংবাদ পড়ার পরে তিনি ওই বিষয়টি বেছে নিয়েছিলেন।

বেশিরভাগই কষ্টদায়ক মৃত্যুকে বেছে নিয়েছিলেন, তারা অবমাননাকর বিয়ের মধ্যে আর থাকতে পারছিলেন না।

স্বামীদের সম্মতি ছাড়া আফগানিস্তানে নারীদের জন্য বিবাহ বিচ্ছেদ করা তখনো কঠিন ছিল-এখনো রয়েছে।

এই বিষয়টি নিয়ে প্রকাশ্যে একটি আলোচনা শুরু করতে চেয়েছিলেন জামালজাদাহ।

বিশ্রী অনুষ্ঠান

জামালজাদাহ তার অনুষ্ঠানে একটি কঠিন ভারসাম্য বজায় রাখার চেষ্টা করেছিলেন।

তিনি অনুষ্ঠানের শুরুতেই প্রথাগত রীতিনীতির গুরুত্ব তুলে ধরেন।

কিন্তু এরপরে যুক্তি তুলে ধরেন যে, পারিবারিক সম্মানের চেয়ে নারীদের শারীরিক এবং

মানসিকভাবে ভালো থাকার বিষয়টি বেশি গুরুত্বপূর্ণ হওয়া উচিত।

``আমি প্রশ্ন করি, কীভাবে একটি পরিবার তাদের মেয়েকে এরকম খারাপ পরিস্থিতিতে থাকা মেনে নিতে পারে?``

কিন্তু তার দর্শকরা পিছিয়ে যায়। যখন তিনি তাদের কাছ থেকে প্রশ্ন আহবান করেন, তিনি নীরবতার মুখোমুখি হন।

``এটা ছিল আমার প্রথম বিশ্রী অনুষ্ঠান। এর আগের প্রতিটা অনুষ্ঠানে গান হয়েছে, মজা, হাততালি পড়েছে।

হঠাৎ করে যেন সব কিছু পাল্টে গেল।`` অনুষ্ঠানটি প্রচারের পর হইচই শুরু হয়ে গেল।

কাবুল ছাড়তে বাধ্য হওয়া

সেই সময়ে কাবুলের একটি বিশাল বাড়ি ভাড়া নিয়ে থাকতে জামালজাদাহ, তার সশস্ত্র নিরাপত্তা রক্ষীও ছিল।

তিনি ভেবেছিলেন, তিনি পরিস্থিতির সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে পারবেন।

``টেলিভিশন কোম্পানির চেয়ারম্যান বললেন, তোমাকে আমরা এমন নিরাপত্তা দিতে পারবো না, যা তোমাকে নিরাপদ রাখতে পারবে।``

তিনি জামালজাদাহকে কাবুল ছেড়ে যাওয়ার পরামর্শ দিলেন।

``আমি সেটা গ্রহণ করলাম। আমার নিজেকে পরাজিত মনে হচ্ছিল। এটা ছিল আমার পাওয়া সবচেয়ে বড় কষ্ট।

আমি হতাশায় ভুগছি বলে মনে হলো। এটা ছিল আমার জীবনের সবচেয়ে খারাপ সময়।``

তিনি কানাডায় ফিরে গেলেন। কিন্তু সেখানে গিয়ে তিনি গুজব শুনতে পেলেন যে, তাকে নাকি গুলি হত্যা করা হয়েছে।

এমনটাও প্রচার করা হয়েছিল যে, তার মাথা এবং নাক কেটে ফেলা হয়েছে।

কঠিন শৈশব

কিন্তু এটাই প্রথম নয় যে, তিনি কোন স্থান থেকে পালাতে বাধ্য হলেন।

লাখ লাখ আফগানের মতো, জামালজাদাহকে মৃত্যু এবং ধ্বংসের অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হতে হয়েছিল।

``আমি হয়তো আমার চাচাতো ভাইদের সঙ্গে মাঠে খেলা করছিলাম।

হঠাৎ আমরা রকেট বিস্ফোরণের শব্দ শুনতে পাই, `` জামালজাদাহ বলছেন বিবিসিকে।

এমনকি একটি শিশু হওয়া সত্ত্বেও তাকে হুমকি ও সহিংসতার সংস্কৃতির সঙ্গে পরিচিত হতে হয়েছে।

``আমার মা সবসময়েই বলতো আমরা যেন জানালা থেকে দূরে সরে থাকি।

আমি জানতাম, তা না হলে কি ফলাফল ঘটতে পারে।``

আমার পিতা ছিলেন একজন স্পষ্টভাষী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক, যাকে বলা হয়েছিল যে, তার জীবন ঝুঁকিতে রয়েছে।

এই হুমকির কারণে তিনি পরিবারের সবাইকে নিয়ে দেশ থেকে পালিয়ে যান।

জামালজাদাহ, তার বাবা-মা এবং ছোট দুই ভাই প্রথমে পাকিস্তানে গিয়ে আশ্রয় নেন। পরবর্তীতে তারা কানাডায় আশ্রয় পান।

অপরাহ ফ্যান

কিশোরী বয়স থেকেই তিনি যুক্তরাষ্ট্রের টেলিভিশনের আলোচনা অনুষ্ঠান অপরাহ উইনফ্রে অনুষ্ঠানের ভক্ত হয়ে ওঠেন।

পাশাপাশি সংগীতের প্রতিও আগ্রহ তৈরি হয় জামালজাদাহের।

তিনি আঠারো বছর বয়স থেকে সংগীত শিক্ষা নিতে শুরু করেন। কয়েক বছরে তিনি তার গান ইউটিউবে আপলোড করতে শুরু করেন।

`আফগান নাম`- নামে তার একটি গানের জন্য তিনি পরিচিত হয়ে ওঠেন এবং তার সামনে আরো অনেক সুযোগ চলে আসে।

২০০৯ সালে যখন তার বয়স বিশের কোঠায়, তখন কাবুলের নতুন একটি বেসরকারি টেলিভিশন,

ওয়ানটিভির আমন্ত্রণে মায়ের সঙ্গে কাবুলে ফিরে আসেন জামালজাদাহ। সেখানে তার একটি ট্যালেন্ট শো উপস্থাপন করার কথা।

`আপনারা কি অপরাহকে চেনেন?`

``আমি মনে করেছিলাম, আমি একটি টেলিভিশন অনুষ্ঠানের উপস্থাপিকা হবো। সেটা ভালোই হতো।

কিন্তু হঠাৎ করে একদিন আমার মা আমার রুমে এসে জিজ্ঞেস করলেন, আমি কি কিছু বলতে পারি?``

তার মা, নাসরিন জামালজাদাহ টেলিভিশনের কর্মকর্তাদের বলেছিলেন,

তার মেয়েকে যদি পরিবার এবং কানাডার আরাম ছেড়ে এসে আফগানিস্তানে থাকতে হয়,

 তাহলে সেটার ভালো কোন কারণ থাকা উচিত।

তার মা টিভি কর্মকর্তাদের জিজ্ঞেস করেন, ``আপনারা কি অপরাহকে চেনেন?`` এটা ছিল নাটকীয় একটা মধ্যবর্তিতা।

তবে সৌভাগ্যক্রমে, চ্যানেলটির শীর্ষ কর্মকর্তারা যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাজ্য থেকে এসেছেন,

যেখানে অপরাহ উইনফ্রে ঘরে ঘরে পরিচিত একটি নাম।

এভাবেই মোজদাহ অনুষ্ঠানের সৃষ্টি হয়।

শুরুর দিকে শিশুদের ওপর সহিংসতাকে প্রাধান্য দিয়ে অনুষ্ঠান করা হতো।

উইনফ্রেকে দেখে অনুপ্রাণিত জামালজাদাহ চেয়েছিলেন নারীকেন্দ্রিক নানা বিষয় নিয়ে অনুষ্ঠান করতে।

তবে তার জন্য দুর্ভাগ্য, যুক্তরাষ্ট্রের টেলিভিশনের মতো খোলা আলোচনার জন্য উদার হতে পারেনি আফগান সমাজ।

অপরাহের সঙ্গে পরিচয়

অনুষ্ঠানটি বন্ধ হয়ে গেলেও, জামালজাদাহের আন্তর্জাতিক আবেদন কমেনি।

যখন অনুষ্ঠানটির সমাপ্তি ঘটে, তিনি অপরাহ উইনফ্রের বিদায়ী অনুষ্ঠানে অংশ নেয়ার আমন্ত্রণ পান।

ছোটবেলার আদর্শ এবং হলিউড তারকা টম ক্রুজের সঙ্গে পরিচয়ের পর তার কষ্টের যেন খানিকটা উপশম ঘটে।

একটি ছোট্ট বিরতির পর তিনি একবছরের জন্য আফগানিস্তানে একটি ট্যালেন্ট শো করা জন্য ফিরে যান।

তিনি আস্তে আস্তে উপলব্ধি করতে শুরু করেন, গভীরভাবে খোদিত বিশ্বাস পরিবর্তনের ব্যাপারটি বড় একটি চ্যালেঞ্জ।

``আফগানিস্তান একসময় বিশ্বের অন্যতম উদার ইসলামিক দেশ ছিল।

একপর্যায়ে এশিয়ার প্যারিস হিসাবে পরিচিতি পেয়েছিল কাবুল। একটা সময় ছিল যখন নারীরা মিনি স্কার্ট পড়তেন।

আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি, মানুষকে মনে করিয়ে দেবো এটা কেমন ছিল।``

বার্তা ছড়িয়ে দেয়া

মোজদাহ, মাঝে মাঝে কনসার্টে যোগ দেয়ার জন্য আফগানিস্তানে ফিরে যান।

তার সাফল্যের পেছনে প্রধান অবদান হিসাবে তিনি কৃতিত্ব দিতে চান পরিবারের অটল সমর্থনকে।

তিনি বিশ্বাস করেন, তার মোজদাহ শো একটি ফারাক তৈরি করে দিয়েছে।

অনুষ্ঠানটি বন্ধ হওয়ার কষ্ট তার দীর্ঘদিন থেকে যাবে,

কিন্তু এর ফলে আফগান নারীদের ক্ষমতায়নের প্রতি তার যে আগ্রহ তৈরি হয়েছে, সেটাও অব্যাহত থাকবে।

নানা বাধা সত্ত্বেও, জামালজাদাহ আশা করেন, সামাজিক মাধ্যমে তিনি তার বার্তা সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে পারবেন।

``আমি তাদের জিততে দিতে পারি না।``

কিমের জাস্টিস প্রজেক্ট
                                  

বিনোদন ডেস্ক : মার্কিন মিডিয়া ব্যক্তিত্ব কিম কার্দাশিয়ানের ছোটবেলা থেকেই স্বপ্ন ছিল একদিন আইনজীবী হবেন।

গতকাল সোমবার মুক্তি পেয়েছে তাঁর ডকুমেন্টারি ফিল্মের ট্রেলার।

নাম ‘কিম কার্দাশিয়ান ওয়েস্ট: দ্য জাস্টিস প্রজেক্ট’। ছবিটি ওয়েব প্ল্যাটফর্ম অক্সিজেনে মুক্তি পাবে আগামী ৫ এপ্রিল।

অক্সিজেনের ইউটিউব চ্যানেল থেকে প্রকাশিত ২ মিনিট ৪ সেকেন্ডের ওই ট্রেলারে দেখা যায়,

অনেকেই সৎবাবা কর্তৃক ধর্ষণের শিকার হয়ে বা নানা আইনি ঝামেলায় জড়িয়ে সাহায্য চায় কিমের কাছে।

কিমও মন দিয়ে তাদের সমস্যা শোনেন। শুধু ভিকটিমের জন্য নয়, অপরাধীদের জন্যও রয়েছে কিমের সমবেদনা।

কিম মনে করেন, প্রতিটি মানুষ জীবনে দ্বিতীয় সুযোগ পাওয়ার অধিকার রাখে। ইনস্টাগ্রামে কিম কার্দাশিয়ান খুবই সক্রিয়।

সেখানেই ট্রেলার শেয়ার করে কিম লেখেন, ‘এই যে আমার নতুন প্রামাণ্য চিত্রের অফিশিয়াল ট্রেলার।

ক্রিমিনাল জাস্টিস খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। আমি বরাবরই এটি নিয়ে আগ্রহী ছিলাম।

আমার গল্পগুলো আপনাদের সঙ্গে ভাগ করে নেওয়ার জন্য আর তর সইছে না।’

কিম এবার তাঁর বেশ কয়েকজন মক্কেলের গল্প তুলে ধরবেন।

সেই মক্কেল, তাঁদের পরিবার আর বন্ধুদেরও দেখা যাবে এই ছবিতে।

দেখা যাবে সাজাপ্রাপ্ত আসামিদেরও। বিলবোর্ডের প্রতিবেদন অনুসারে দুই ঘণ্টাব্যাপী এই ছবিতে মূলত চারটি কেসের ওপর গুরুত্ব দেওয়া হবে।

এদের ভেতর একজন যৌনকর্মী পাচারকারীদের শিকার। একজন তার পরিবারের এক সদস্যকে খুন করেছে।

তার দাবি, ওই সদস্য তাকে ভয়ংকর যৌন নির্যাতন করত। দুজন সাজাপ্রাপ্ত আসামি জানিয়েছে, তারা নিরপরাধ।

কিমের আইনি সহযোগিতায় তারা ছাড়া পায়।

৩৯ বছর বয়সী কিম কার্দাশিয়ান চার সন্তানের মা এবং মার্কিন র‌্যাপার কানাইয়ে ওয়েস্টের স্ত্রী।

 

 

 

‘জোকার’–এর লিওনার্দো, লিওনার্দোর নিরো
                                  

বিনোদন ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসের শ্রাইন থিয়েটারে গত রোববার অনুষ্ঠিত হলো

২৬তম স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড অ্যাওয়ার্ডের (এসএজি) তারাঝলমলে রাত।

এ বছর সেরা অভিনয়শিল্পীর পুরস্কার ঘরে তুললেন জোয়াকিন ফিনিক্স, রেনে জেলওয়েগার, ব্র্যাড পিট ও লরা ডার্ন।

রবার্ট ডি নিরোকে দেওয়া হয় আজীবন সম্মাননা। পাঁচবার মনোনয়নের পর

এ বছর সেরা অভিনেতার পুরস্কার হাতে ‘জোকার’ জোয়াকিন ফিনিক্স জানিয়েছেন, তাঁর অনুপ্রেরণার নাম লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও।

অন্যদিকে, ‘রেভেন্যান্ট’খ্যাত লিওনার্দো জানিয়েছেন, তাঁর অনুপ্রেরণা রবার্ট ডি নিরো।

তাঁকে বড় পর্দায় দেখেই তিনি ‘বড় অভিনেতা’ হওয়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন।

উল্লেখ্য, জোয়াকিন ফিনিক্স সেরা অভিনেতা বিভাগে অস্কারে মনোনয়ন পেয়েছেন।

অন্যদিকে, সেরা সহ–অভিনেতার পুরস্কারটি শোভা পেয়েছে অস্কার মনোনয়ন পাওয়া ব্র্যাড পিটের হাতে।

‘ওয়ান্স আপন আ টাইম ইন হলিউড’ ছবিতে অভিনয় করে তিনি এই পুরস্কার বাগিয়ে নেন।

জয়ীর বক্তব্যে তিনি পুরোনো সম্পর্ক নিয়ে মজা করতে ছাড়েননি। বলেছেন, ‘সত্যি বলতে কি, আমার জন্য এই চরিত্র কঠিন ছিল।

কারণ, আমি এমন এক পুরুষ, যে মাতাল হয়ে শার্ট খোলে। কিন্তু স্ত্রীর সঙ্গে কখনো খারাপ আচরণ করেনি।’

ব্র্যাড পিটের বক্তব্য শুনে সবাই হেসেছে, হাততালি দিয়েছে। ক্যামেরা খুঁজে খুঁজে সাবেক স্ত্রী জেনিফার এনিস্টোনের প্রতিক্রিয়া দেখেছে।

সেই রাতে এনিস্টোনের হাতেও উঠেছে পুরস্কার। ‘দ্য মর্নিং শো’–এর জন্য তিনি ড্রামা সিরিজ বিভাগে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার জিতেছেন।

পুরস্কার হাতে তিনি প্রশংসা করেছেন সহকর্মী অ্যাডাম স্যান্ডলারের।

অ্যানিস্টন মনে করেন, ‘আনকাট জেমস’ সিজনে অ্যাডাম দুর্দান্ত অভিনয় করেও কোনো স্বীকৃতি পাননি।

সুযোগ বুঝে সঠিক মঞ্চে বিশ্বকে তা জানালেন এই অভিনয়শিল্পী।

তিনি তাঁর বক্তব্যে অ্যাডামকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘তুমি দুর্দান্ত পারফর্ম করেছ।

পর্দার সত্যিকারের ম্যাজিক তৈরি করেছ। তোমার জন্য আমার ভালোবাসা।’

লরা ডার্ন ‘ম্যারিজ স্টোরি’ সিনেমায় অভিনয় করে জিতেছেন সেরা অভিনেত্রীর স্বীকৃতি।

মঞ্চে তিনি বাবা ব্রুস ডার্নকে জড়িয়ে ধরেন। এ ছাড়া সেরা হিসেবে পুরস্কার জিতেছেন স্যাম রকওয়েল, মিশেল উইলিয়ামস,

পিটার ডিঙ্কলেজ, টনি শ্যালুব ও ওয়ালার-ব্রিজ। ট্রাম্পের কঠোর সমালোচক,

৭৬ বছর বয়সী রবার্ট ডি নিরো তাঁর ভাষণের একপর্যায়ে বলেন, ‘আমাদের সামনেই সঠিক আর ভুল থাকে।

আর নিজেদের থাকে কমন সেন্স। সেটাকে ব্যবহার করে আমাদের সঠিকটাকে বেছে নেওয়া উচিত।

কিন্তু আমরা তা করছি না। সমস্ত অন্যায়ের বিরুদ্ধে আমি আমার আওয়াজ জারি রাখব।

আমার কণ্ঠ দিয়ে অপশক্তিকে রোধ করার চেষ্টা করে আসছি, করে যাব।’

ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক পুরস্কার পাওয়া দক্ষিণ কোরিয়ার কমেডি

থ্রিলার ‘প্যারাসাইট’ সবাইকে চমকে দিয়ে জিতেছে স্ক্রিন এসএজির সর্বোচ্চ পুরস্কার।

এসএজির ২৬ বছরের ইতিহাসে এবারই প্রথম ইংরেজি ছাড়া ভিন্ন ভাষার কোনো ছবি সম্মিলিত অভিনয়শিল্পী বিভাগে সেরা হলো।

পুরস্কার হাতে পরিচালক বং জুন হো অস্কারের রাতে চোখ রেখে বললেন, ‘হ্যাঁ, অস্কারের দৌড়ে আমরা খুবই গুরুত্বপূর্ণ প্রতিদ্বন্দ্বী।

৯ ফেব্রুয়ারি কী হবে, তা কেউ জানে না। তবে এই মুহূর্তে যা ঘটল, সেটাই এখন গুরুত্বপূর্ণ।’

 

মোদির ওপর ক্রুদ্ধ হয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য নাসির উদ্দিন শাহর
                                  

বিনোদন ডেস্ক : ভারতে বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইন বাতিলের দাবিতে আন্দোলনরত

শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশি নির্যাতনের প্রতিবাদ জানিয়েছেন বলিউডের প্রখ্যাত অভিনেতা ও নাট্যব্যক্তিত্ব নাসির উদ্দিন শাহ।

প্রবীণ এ অভিনেতা বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিজে ছাত্র ছিলেন না বলেই বোধহয় ছাত্রসমাজের প্রতি তার কোনো সহানুভূতি নেই।

গতকাল সোমবার একটি অনলাইন নিউজ পোর্টালে সাক্ষাৎকারে এমন মন্তব্য করেছেন বলে আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে।

নাসির উদ্দিন শাহ বলেন, ‘জানি না আমার বার্থ সার্টিফিকেট আছে কিনা। এত বছর এ দেশে কাজ করছি।

পরিবারের বাকিরা কেউ পুলিশে, কেউ প্রশাসনে, কেউ সেনাবাহিনীতে কাজ করে এসেছে।

আজ যদি ভারতীয় নাগরিকের প্রমাণ দিতে হয়, তাতে উদ্বেগ নয়, ক্রোধই জন্মায়।

আমি উদ্বিগ্ন নই, আমি ক্রুদ্ধ।’ তিনি বলেন, ‘বর্তমান সরকারের একটি প্রধান বৈশিষ্ট্যই হলো ছাত্রসমাজের প্রতি বিদ্বেষ।

তারা নিজেরা কখনও ছাত্র ছিলেন না, বিদ্যাচর্চায় আগ্রহ দেখাননি কখনও এবং তার জন্যই হয়তো এই বিদ্বেষ।

’ ‘ছাত্ররা হলো সেই গোষ্ঠী, যারা চিন্তা করে দেশের ভবিষ্যৎ নিয়ে।

বড় হলে তাদের জন্য কী ভবিষ্যৎ অপেক্ষা করছে, এটি তাদের ভাবতে হয়।

প্রধানমন্ত্রী সেই গোষ্ঠীর অংশ ছিলেন না, তাই তাদের প্রতি তার সহানুভূতিও নেই।

রাষ্ট্রবিজ্ঞানের ডিগ্রির কথা সামনে আসার আগে উনি নিজে কিন্তু বলতেন– আমি পড়াশোনাই করিনি।’

সম্প্রতি নাগরিকত্ব আইনকে ঘিরে দেশজুড়ে যে স্বতঃস্ফূর্ত প্রতিবাদের ঢল নেমেছে,

সেটি খুবই আশাব্যঞ্জক বলে মনে করছেন নাসির উদ্দিন।

 

 

লর্ড হল বিবিসির মহাপরিচালকের পদত্যাগ করবেন
                                  
বিনোদন ডেস্ক : টনি হল সাত বছরের ভূমিকায় বিবিসির মহাপরিচালকের পদত্যাগ করবেন।

লর্ড হল বলেছিলেন যে সিদ্ধান্তটি কঠোর ছিল, যোগ করে :"আমি যদি আমার হৃদয় অনুসরণ করি তবে আমি সত্যই কখনও ছাড়তে চাই না।

"তবে তিনি বলেছিলেন যে ২০২২ সালে বিবিসির মধ্য-মেয়াদী পর্যালোচনা এবং ২০২২ সালে এর সনদ

পুনর্নবীকরণের জন্য বিবিসির একই নেতা থাকা গুরুত্বপূর্ণ বলে তিনি মনে করেছিলেন।

পরে জাতীয় গ্যালারী ঘোষণা করে যে তাকে এর ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান নিযুক্ত করা হয়েছে।

বিবিসির চেয়ারম্যান স্যার ডেভিড ক্লেমেন্তি বলেছিলেন, বিবিসির পরবর্তী নেতার সন্ধান "আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে" শুরু হবে।

তিনি আরও যোগ করেছেন যে বিবিসি "কাজের জন্য সেরা-যোগ্য ব্যক্তি বাছাই করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ"।

বিবিসি নিউজনাট বুঝতে পারে যে লর্ড হল ২০২২ সালে বিবিসির শতবর্ষ পূর্বে থাকতে চেয়েছিলেন,

তবে "বোর্ডের সাথে বড় আলোচনার" পরে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল যে তিনি আগে যাবেন।

কর্মসূচির রাজনৈতিক সম্পাদক নিকোলাস ওয়াট বলেছেন যে সময়টি সরকারী

বৃত্তগুলিতে স্যার ডেভিড দ্বারা "মাস্টারস্ট্রোকের কিছু" হিসাবে ব্যাখ্যা করা হয়েছিল,

যার চেয়ারম্যান হিসাবে এর মেয়াদ ২০২১ সালে শেষ হবে।  

"টনি হল যদি ২০২২ অবধি অপেক্ষা করতেন তবে এটি বিবিসির নতুন চেয়ারম্যান নিয়োগের ব্যবস্থা করা যেত

এবং সেই নতুন চেয়ারম্যানকে বরিস জনসন সরকার নিয়োগ দিতেন," সংবাদদাতা বলেছেন।

সম্ভাব্য উত্তরসূরিরা প্রাক্তন শ্রম রাজনীতিবিদ জেমস পুরেনেল,

যিনি ২০১০ সালে বিবিসির রেডিও এবং শিক্ষার পরিচালক হয়েছিলেন, তিনি বর্তমানে এই ভূমিকা গ্রহণে বুকমার্কদের প্রিয়।

বিবিসির সংবাদ ও বর্তমান বিষয়গুলির পরিচালক ফ্রাঙ্ক আনসওয়ার্থ হলেন আরেক প্রতিযোগী,

যেমন বিবিসি`র প্রথম মহিলা উপ-মহাপরিচালক, গত বছর কর্পোরেশন ছেড়েছিলেন।

মিডিয়া ভাষ্যকাররাও ধারণা করছেন, ইনডিপেন্ডেন্টের অ্যাডাম শেরউইন চ্যানেল ৪-এর

প্রধান নির্বাহী অ্যালেক্স মাহনকে ফ্রেমে থাকতে পারেন বলে মনে করছেন,

অ্যাপলের জে হান্ট এবং বিবিসির বিষয়বস্তুর পরিচালক শার্লোট মুর।

দ্য গার্ডিয়ান এই মহিলা প্রার্থীদের দিকেও ইঙ্গিত করেছে তবে ওফকমের প্রাক্তন প্রধান শ্যারন হোয়াইট এবং

পেঙ্গুইন র‌্যান্ডম হাউস ইউকে-র চেয়ারম্যান গেইল রেবুকের পক্ষে মতবিরোধের কথাও জানিয়েছেন।

নিউজনাথের নিকোলাস ওয়াট বলেছেন যে তিনি শুনছিলেন যে মন্ত্রিসভা "বিবিসির এই নিয়োগের বিষয়ে তাদের সাড়া দেওয়ার প্রত্যাশা করছে",

এবং সংস্কারে আগ্রহী নন এমন "বিবিসি লাইফের" সরকারের কোনও ক্ষুধা নেই।

লর্ড হলের কথা বলতে গিয়ে স্যার ডেভিড বলেছিলেন যে কর্পোরেশন তাকে "ভাগ্যবান" করেছে।

তিনি তাকে "অনুপ্রেরণামূলক সৃজনশীল নেতা" হিসাবে বর্ণনা করেছিলেন যিনি "বিবিসিকে সততা

এবং আমাদের মূল্যবোধের প্রতি অনুরাগ দিয়ে নেতৃত্ব দিয়েছেন"।

সংস্কৃতি সচিব নিকি মরগান লর্ড হলকে তাঁর সেবার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে বলেছিলেন যে

তিনি "তাঁর কর্মজীবনে পাবলিক সার্ভিস সম্প্রচারে বিশাল অবদান রেখেছেন"।

"এই পরিবর্তিত ব্রডকাস্ট ল্যান্ডস্কেপে পরবর্তী ডিজি লর্ড হলের সাফল্যের ভিত্তিতে গড়ে তুলতে হবে," তিনি টুইটারে লিখেছিলেন।

`পরিবর্তন কঠিন ছিল` কর্মীদের উদ্দেশ্যে একটি চিঠিতে লর্ড হল বলেছিলেন যে তিনি বিশ্বাস করেছিলেন যে

তিনি "আমি যোগদানের চেয়ে বিবিসিকে আরও শক্তিশালী জায়গায় রেখে যাব"।

২০১২ সালে তাঁর অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিউজনাট লর্ড ম্যাকএলপাইন সারির পরিপ্রেক্ষিতে জর্জ এন্টুইস্টেলের পদত্যাগের পরে।

লর্ড হল বলেছিলেন যে বিবিসি "একটি খুব আলাদা সংগঠন" অনুভব করেছে যা "আরও উদ্ভাবনী,

আরও উন্মুক্ত, আরও অন্তর্ভুক্ত, আরও দক্ষ [এবং] আরও বাণিজ্যিকভাবে সচেতন" ছিল।

মহাপরিচালক কী করেন? মহাপরিচালক, বা ডিজি হলেন বিবিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, এর প্রধান সম্পাদক।

পোস্টটিতে থাকা ব্যক্তি হলেন কর্পোরেশনের সম্পাদকীয়, পরিচালনা ও সৃজনশীল নেতা, টেলিভিশন,

রেডিও এবং অনলাইন জুড়ে বিশ্বব্যাপী কর্মী পরিচালনার দায়িত্ব রয়েছে।

ডিজি এবং বিবিসি বোর্ড বিবিসির কার্যকরভাবে পরিচালনার জন্য দায়বদ্ধ, তার পাবলিক সার্ভিস এবং

বাণিজ্যিক পরিষেবাগুলি - বিবিসি স্টুডিও সহ - দেশে এবং বিদেশে সরবরাহ করে ডিজি নিয়োগ দিয়েছেন বিবিসি বোর্ডের মাধ্যমে।

এপ্রিল ২০১৯ পর্যন্ত, পোস্টের ধারককে এক বছরে ৪৫০,০০০ দেওয়া হয়। "পরিবর্তন সময়ে সময়ে কঠিন ছিল," তিনি লিখেছেন।

"তবে আমি বিশ্বাস করি যে আমাদের সাম্প্রতিক রূপান্তর রেকর্ডটি কার্যত বিশ্বের অন্য কোনও সৃজনশীল সংস্থার সাথে তুলনা করে।

" লর্ড হল অন্তর্বর্তীকালীন চেয়ার স্যার জন কিংম্যানের কাছ থেকে লন্ডনের জাতীয় গ্যালারিতে দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন,

যিনি সেপ্টেম্বর ২০১৯ এ হান্না রথসচাইল্ডের বিদায়ের পর থেকে এই পদে ছিলেন।  

তিনি বলেছিলেন: "আমি এর সভাপতির ভূমিকা গ্রহণ করতে পেরে গর্বিত।

জাতীয় গ্যালারী কেবল যারা শিল্পকে ইতিমধ্যে ভালবাসে তাদের সেবা করার জন্য নয়,

বরং বিস্তৃত শ্রোতা এবং ভবিষ্যতের প্রজন্মের কাছে পৌঁছে যাওয়ার জন্য।"

ব্যারনেস মরগান তার অ্যাপয়েন্টমেন্টকে স্বাগত জানিয়েছেন, তিনি বলেছিলেন যে তিনি "অভিজ্ঞতার ধন" ভূমিকায় আনবেন।

বিবিসি থেকে লর্ড হলের বিদায়ের বিষয়টি সম্প্রচারকের জন্য আরেকটি অশান্ত সময়ের মধ্যে এসেছিল,

সমান বেতনের বিতর্ক, রাজনৈতিক পক্ষপাত,  বৈচিত্র্য এবং টিভি লাইসেন্স সম্পর্কিত বিষয়গুলি এর এজেন্ডার শীর্ষে রয়েছে।

এই মাসের শুরুর দিকে উপস্থাপক সামিরা আহমেদ সমান বেতনের বিরোধে কর্মসংস্থান ট্রাইব্যুনাল জিতেছিলেন,
রেডিও উপস্থাপিকা সারা মন্টজিও নিশ্চিত করেছেন যে তিনি
"অসম" আচরণের পরে বিবিসির কাছে একটি নিষ্পত্তি এবং ক্ষমা চেয়েছেন।
সাম্প্রতিক সাধারণ নির্বাচন, উপস্থাপক বেতন, তারকা বেতন এবং পর্দার বাইরে 
ও বাইরে বৈচিত্র্যের অভাব নিয়ে রিপোর্ট করা নিয়ে বিবিসিও সমালোচনার মুখোমুখি হয়েছে।
এটি ২০১৮ সালেও স্পটলাইটে ফিরে এসেছিল যখন স্যার ক্লিফ রিচার্ড তার বাড়িতে 
পুলিশি অভিযানের প্রচারের প্রচারককে সম্প্রচারকের বিরুদ্ধে একটি হাইকোর্ট মামলা জিতেছিল।
গত বছর টিভি উপস্থাপক এবং প্রচারক জুন সারপং বিবিসি`র "অন এয়ার প্রতিভা চিত্র" 
উন্নত করার জন্য বিবিসি`র সৃজনশীল বৈচিত্রের প্রথম পরিচালক হিসাবে নিয়োগ পেয়েছিলেন।
জুন সরপং বিবিসি`র বৈচিত্র্য পরিচালককে নিয়োগ দিয়েছেন । 
সরপং বলেছিলেন যে লর্ড হলের "দূরদর্শী নেতৃত্বের" অধীনে কাজ করা "অত্যন্ত আনন্দ এবং সম্মান" হয়েছে।
তিনি টুইটারে লিখেছেন, "তিনি সর্বসম্মত পরিবর্তনের প্রক্রিয়া শুরু করতে আমাকে যে সমর্থন দেখিয়েছেন, 
তা আমি বাড়িয়ে তুলতে পারি না।" "সে আন্তরিকভাবে মিস হবে।"
লর্ড হলের আমলে অন্যান্য উন্নয়নের মধ্যে রয়েছে বিবিসি আইপ্লেয়ারের বৃদ্ধি, বিবিসি স্টুডিওগুলির ক্রমবর্ধমান সাফল্য। 
এবং বিবিসি সাউন্ড এবং স্ট্রিমিং পরিষেবা ব্রিটবক্সের প্রবর্তন।
গত বছর এটিও ঘোষণা করা হয়েছিল যে ৭৫ বছরেরও বেশি বয়সী বিনামূল্যে টিভি লাইসেন্সগুলি  
পেনসনের সুবিধার ভিত্তিতে একটি স্কিম দ্বারা বাতিল এবং প্রতিস্থাপন করা হবে।
গত সপ্তাহে লর্ড হল একটি পরিকল্পনার রূপরেখা দিয়েছেন যা ২০২২ সালের মধ্যে 
লন্ডনের বাইরে অবস্থিত কর্পোরেশনের কমপক্ষে দুই তৃতীয়াংশ কর্মচারী দেখতে পাবে।
লর্ড হল - একটি মিনি জীবনী লর্ড হল, ৬৮,১৯৭৩ সালে বেলফাস্ট নিউজরুমে প্রশিক্ষক হিসাবে কর্পোরেশনে যোগদান করেছিলেন।
তিনি ৩৪ বছর বয়সে নাইন ও`ক্লক নিউজের সম্পাদক হন এবং ১৯৯৬ সালে বিবিসি নিউজের প্রধান নির্বাহী হিসাবে নিযুক্ত হন।
সেখানে থাকাকালীন তিনি বিবিসি রেডিও ৫ লাইভ, নিউজ চ্যানেল, বিবিসি নিউজ ওয়েবসাইট এবং সংসদ চ্যানেল চালু করেছিলেন।
তিনি ২০০১ সালে রয়েল অপেরা হাউজের প্রধান নির্বাহী হওয়ার জন্য ২০০১ সালে চলে গিয়েছিলেন এবং চ্যানেল ৪-এর উপ-চেয়ারম্যানও ছিলেন।
শীর্ষ পদে বিবিসিতে ফিরে আসার আগে তিনি অলিম্পিক গেমসের জন্য লন্ডন আয়োজক কমিটির বোর্ডেও ছিলেন।
লর্ড হল, যার অফিসিয়াল খেতাব দ্য লর্ড হল অফ বারকেনহেড, ২০১০ সালে তাকে ক্রস-বেঞ্চের সমবয়সী করা হয়েছিল।
খবরে প্রতিক্রিয়া রয়্যাল অপেরা হাউস বোর্ডে লর্ড হলের পাশাপাশি
পরিবেশন করা বনি গ্রেয়ার উল্লেখ করেছিলেন যে বিবিসি একটি কঠিন সময় পার করছে।
"আমি মনে করি এটি সংগঠনের জন্য অনেক চাপ এবং তার জন্য অনেক চাপ ছিল,"
নাটকটির লেখক ও সমালোচক ভিক্টোরিয়া ডার্বিশায়ার শোতে বলেছেন। প্রতিভা এজেন্ট জোনাথন শালিত বলেছিলেন যে
ডিরেক্টর জেনারেল চরিত্রে লর্ড হল "চমত্কার" হয়েছিলেন এবং সাত বছরের পরে তাঁর পদে থাকা কারও পক্ষে "স্বাভাবিক" ছিল।
"তিনি শীঘ্রই এগিয়ে যেতে চলেছেন," তিনি একই বিবিসি প্রোগ্রামকে বলেছিলেন।
"আমি মনে করি যে লাইসেন্সের ফিজের মিডওয়ে পয়েন্টটি একজনের তদারকি করা নিশ্চিত করার বিষয়ে
তিনি যে বক্তব্যটি করেছেন তা গুরুত্বপূর্ণ।"ব্রডকাস্ট ট্রেড ইউনিয়ন বাক্টুর প্রধান ফিলিপা চাইল্ডস বলেছিলেন যে লর্ড হল "বিবিসি,
তার কর্মীদের [এবং] লাইসেন্স ফি`র একজন শক্তিশালী উকিল" ছিলেন।
তিনি বলেন, বিদায়ী মহাপরিচালক তাদের "অত্যন্ত ইতিবাচক এবং উত্পাদনশীল কাজের সম্পর্ক"
চলাকালীন সর্বদা "সততা ও স্বচ্ছতার সাথে" অভিনয় করেছিলেন।
প্রবীণ উপস্থাপক ডেভিড ডিম্বলবি বলেছেন যে লর্ড হল সম্প্রচারের আগ্রহের কারণে "জায়গাটি পুনরুদ্ধার করেছিলেন"।
বিবিসির ভবিষ্যতের বিষয়ে, ডিম্বলবি আরও বলেছেন: "এটি সর্বদা স্মরণে রাখার মতো,
আমি মনে করি শেষ পর্যন্ত, মানুষ বিবিসিকে যে রাজনীতিবিদদের হ্রাস করার চেষ্টা করে তার চেয়ে বেশি বিশ্বাস করে।
"আমি বলছি না যে বিবিসির কাছে এই মুহুর্তে বড় ও বড় সমস্যা নেই; আমি মনে করি সেখানে আছে।
" বিবিসির প্রাক্তন চেয়ারম্যান মাইকেল গ্রেড বলেছেন, তিনি বিশ্বাস করেন না যে স্যার ডেভিড
বা বিবিসি বোর্ড সরকারকে জেনারেল পদে নিয়োগে হস্তক্ষেপ করতে দেবে।

 

পেছাল বইমেলা, উদ্বোধন ২ ফেব্রুয়ারি
                                  

ডেস্ক রিপোর্ট : অমর একুশে বইমেলা একদিন পেছানো হয়েছে। এবার বইমেলার উদ্বোধন হবে ২ ফেব্রুয়ারি।

বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবিবুল্লাহ সিরাজী জানিয়েছেন, সিটি নির্বাচনের কারণে বইমেলা একদিন পিছিয়েছে।  

২ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৩টায় প্রধানমন্ত্রী মেলার উদ্বোধন করবেন। এছাড়া অতিথি থাকবেন পশ্চিমবঙ্গের কবি শঙ্খ ঘোষ

এবং মিসরের লেখক, গবেষক ও সাংবাদিক মোহসেন আল-আরিশি।

প্রতি বছর ফেব্রুয়ারির প্রথম দিন থেকেই শুরু হয় বইমেলা। এই দিনেই প্রধানমন্ত্রী মেলার উদ্বোধন করে থাকেন।

এ বছরও ১ ফেব্রুয়ারি থেকেই বইমেলা শুরুর সবকিছু চূড়ান্ত ছিল।

তবে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের তারিখ নিয়ে শুরু হয় জটিলতা। এ কারণে একদিন পিছিয়ে বইমেলা।

২ ফেব্রুয়ারি বইমেলা উদ্বোধনের পর বিকেল ৫টা থেকে সবার জন্য খুলে দেওয়া হবে।

২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত কর্মদিবসগুলোতে প্রতিদিন বিকেল ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত খোলা থাকবে মেলা।

ছুটির দিনগুলোতে মেলা খুলবে সকাল ১১টায়। ২১ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত বইমেলা চলবে।

এবারের বইমেলা অন্য যে কোনোবারের চেয়ে আরো বিস্তৃত পরিসরে আয়োজন করা হবে।

সাড়ে সাত লাখ বর্গফুট জায়গা নিয়ে এবারের মেলা হবে।

একই সঙ্গে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে এবারের মেলা উৎসর্গ করা হয়েছে তাকে।

এবার মেলায় ৪০টি নতুন প্রকাশনা সংস্থা বেড়ে হয়েছে ৪১০টি। এর মধ্যে প্যাভিলিয়ন ২৩টির স্থলে হয়েছে ৩৪টি।

বাড়ছে শিশু চত্বরের আয়তনও। মেলায় টিএসসি ও দোয়েল চত্বর উভয়দিক দিয়ে দুটি মূল প্রবেশপথ,

বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে তিনটি পথ, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রবেশ ও বাইরের মোট ছয়টি পথ থাকবে।

 

 

এন্ড্রু কিশোরের কেমোথেরাপি আবার শুরু
                                  

বিনোদন ডেস্ক : এক মাস বিরতির পর জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী এন্ড্রু কিশোরের কেমোথেরাপি দেয়া শুরু হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন এন্ড্রু কিশোরের স্নেহভাজন কণ্ঠশিল্পী মোমিন বিশ্বাস।

তিনি বলেন, গত এক মাস যাবত শারীরিক কিছু অসুবিধা দেখা দেওয়ায় কেমোথেরাপি সাময়িক বন্ধ ছিল!

আল্লাহর রহমতে মানুষের দোয়ায় শারীরিক সমস্যা কাটিয়ে ওঠায় গতকাল কেমোথেরাপি প্রস্তুত রাখা হয়।

আজ সকাল থেকে পুনরায় কেমোথেরাপি শুরু হয়েছে! এটি তার ১৮তম কেমোথেরাপি।

এটি সফলভাবে শেষ হলে ক্রমান্বয়ে আরও ৬টি কেমোথেরাপি দেওয়া হবে বলে ডাক্তাররা জানিয়েছেন!

এন্ড্রু কিশোরের চিকিৎসা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও

বেশকিছু গণমাধ্যমে বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রকাশ হচ্ছে উল্লেখ করে মোমিন বিশ্বাস বলেন,

প্রতিদিন অনেকে কল করেন, আমরা সঠিক তথ্য জানানোর পরেও

অনেকে সেগুলো না লিখে নিজের মতো করে উল্টাপাল্টা লেখেন, এতে আমরা বিপাকে পড়ি।

এটা আমাদের জন্য কষ্টের। সবাইকে অনুরোধ সঠিক তথ্য প্রচার করবেন। আর দাদার জন্য সবাই প্রার্থনা করবেন।

উল্লেখ্য, ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে বর্তমানে সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এন্ড্রু কিশোর।

গত ৯ সেপ্টেম্বর উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরের উদ্দেশে দেশ ছেড়েছিলেন তিনি।

সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত শাবানা আজমি
                                  

বিনোদন ডেস্ক : ভারতের খ্যাতনামা অভিনয়শিল্পী শাবানা আজমি সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন।

মুম্বাই-পুনে জাতীয় সড়কে তিনি দুর্ঘটনায় পড়েন।

আজ শনিবার বেলা সাড়ে তিনটা নাগাদ এই দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়াসহ আরও বেশি কিছু ভারতীয় গণমাধ্যম।
স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর অনলাইন সংস্করণে বলা হয়েছে, মুম্বাই-পুনে এক্সপ্রেসওয়ে ধরে চলছিল শাবানার গাড়ি।

হঠাৎই সেটিকে সজোরে ধাক্কা মেরে এক ট্রাক। মুহূর্তের মধ্যে অভিনেত্রীর গাড়ি চুরমার হয়ে যায়।

ঘটনাস্থলের ছবিগুলোয় দেখা যায়, গাড়ির ভেতরে বসে থাকা শাবানার মুখের একাধিক অংশ থেকে রক্ত বেরোচ্ছে।

দুর্ঘটনার কবলে পড়ে মুখের একাধিক অংশে ক্ষত হয়েছে।

দুর্ঘটনা ঘটা মাত্রই আশপাশ থেকে স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে উদ্ধার করেন অভিনেত্রীকে।

পেছনের সিটে বসে থাকাতেই প্রাণে বেঁচে যান অভিনেত্রী।

এ দুর্ঘটনায় তাঁর স্বামী জাভেদ আখতার অবশ্য অক্ষত আছেন। তবে তাঁদের সঙ্গে থাকা আরেক নারীর অবস্থা সংকটাপন্ন।
দুর্ঘটনার পর প্রবীণ অভিনেত্রী শাবানা আজমিকে ভর্তি করা হয় নবি মুম্বাইয়ের এমজিএম হাসপাতালে।

সেখানেই আপাতত চিকিৎসাধীন অভিনেত্রী। কীভাবে এই দুর্ঘটনা ঘটল, তা জানতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

হাসপাতাল সূত্রে খবর, শাবানা গুরুতর আহত। আপাতত তিনি স্থিতিশীল বলেই জানানো হয়েছে হাসপাতালের সূত্রে।

শাবান ও তাঁর স্বামী কোথায় যাচ্ছিলেন, সেটা কেউ জানতে পারেননি।

প্রকাশ্যে এল দীপিকার মালতী হয় ওঠার প্রস্থেটিক মেকআপের সম্পূর্ণ ভিডিয়ো
                                  

বিনোদন ডেস্ক : ‘ছপক’ বক্স অফিসে হিট হয়নি। কিন্তু সমালোচকদের প্রশংসা কুড়িয়েছে বিস্তর।

কিন্তু অ্যাসিড আক্রান্ত মালতী আগরওয়ালের লুক নিয়ে আসা সহজ ছিল না মোটেই। সেই অসম্ভবকেই সম্ভব করেছে টিম ‘ছপক’।

প্রস্থেটিক মেকআপের মাধ্যমে নিখুঁত ভাবে দীপিকার মুখে ফুটিয়ে তুলেছে মালতীর মুখ।

সম্প্রতি সিনেমাটির অন্যতম প্রযোজক সংস্থা ফক্স স্টার একটি ভিডিয়ো শেয়ার করেছে।

আর সেখানেই দেখা গিয়েছে দীপিকার মালতী হয়ে ওঠার সম্পূর্ণ জার্নিটি।

মেঘনা গুলজার মানেই পারফেকশন। তাই একটা সময় প্লাস্টারে ঢেকে দেওয়া হয়েছিল দীপিকার নাক এবং মুখও।

দীপিকার ক্লসট্রোফোবিয়া রয়েছে (বদ্ধ জায়গায় দম বন্ধ হয়ে যাওয়ার ভয়)। এক সময় দম বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছিল তাঁর।

মেঘনা বিভিন্ন সাক্ষাৎকারে বারেবারেই বলে এসেছিলেন দীপিকার চেহারার সঙ্গে লক্ষ্মী (মালতী) আগরওয়াল অর্থাৎ যাকে ঘিরে ছপকের গল্পটি,

তাঁর চেহারার অসম্ভব মিল রয়েছে। তাই ওই চরিত্রের জন্য দীপিকাই ছিলেন তাঁর প্রথম পছন্দ।

দীপিকাও প্রাণ ঢেলে কাজ করেছেন ওই ছবিতে। বক্স অফিসে লক্ষ্মীলাভ হয়নি ‘ছপক’-এর।

কিন্তু দীপিকার অভিনয়, লক্ষ্মীর হার না মানার কাহিনি মন ছুঁয়েছে দর্শকদের।

https://youtu.be/qo8LVOjK7-8

ছেলের জন্য গর্বিত হলেন শাহরুখ খান
                                  

বিনোদন ডেস্ক : ফাদারস ডে’র বাকি আছে মাত্র কয়েকটি মাস। এর মধ্যেই ছেলের মাধ্যমে উপহার পেলেন হলিউড বাদশাহ শাহরুখ খান।

ছেলে আব্রাম খান রুপা ও ব্রঞ্জ মেডেল জিতেছে বলেই গর্বিত হয়েছেন তিনি।

ছেলের এ অর্জনে উচ্ছ্বাসিত হয়ে প্রশংসার বাণী লিখে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করেছেন ছবি।

স্কুলে ‘স্পোর্টস মিট’এ দৌড় প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় আব্রাম। এখানেই ছেলে মেডেল জিতেছে।

সেই ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করে শাহরুখ লিখেছেন,

‘আমার ছোট্ট সোনা, রুপা আর ব্রঞ্জ নিয়ে এসেছে আজ।’

বলিউডের কিং খানের এ পোস্টে কমেন্ট ও লাইক এসেছে হাজার হাজার।

 আব্রামকে শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন অনেকে।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালে সারোগেসির মাধ্যমে জন্ম হয় আব্রামের।

আরিয়ান এবং সুহানার জন্মের অনেক বছর পর তৃতীয় সন্তানের জন্য চেষ্টা করলে

শাহরুখ পত্নী গৌরী খানের শারীরিক সমস্যা দেখা দেয়। তখনই সারোগেসির সিদ্ধান্ত নেন গৌরী-শাহরুখ।

বার্লিনাল ট্যালেন্টসে বাংলাদেশের রীতি
                                  

বিনোদন ডেস্ক : বার্লিনাল ট্যালেন্টসের ওয়েবসাইটে সাদিয়া খালিদ রীতি বার্লিন চলচ্চিত্র উৎসব কর্তৃপক্ষের একটি উদ্যোগ বার্লিনাল ট্যালেন্টস।

প্রতি বছর বিশ্বের বিভিন্ন দেশের চলচ্চিত্রকর্মী এতে অংশগ্রহণের সুযোগ পান। এবার বসতে যাচ্ছে এর ১৮তম আসর।

এতে থাকছেন বাংলাদেশের মেয়ে সাদিয়া খালিদ রীতি।

বার্লিনাল ট্যালেন্টসের ওয়েবসাইটে স্থান পেয়েছে তার ছবি ও আগ্রহের বিষয়গুলো।

আগামী ২০ ফেব্রুয়ারি শুরু হবে বার্লিন উৎসবের ৭০তম আসর।

চলবে ১ মার্চ পর্যন্ত। এর মধ্যে ২২ থেকে ২৭ ফেব্রুয়ারি রয়েছে বার্লিনাল ট্যালেন্টস কার্যক্রম। এতে অংশ নেবেন বিশ্বের ৮৬টি দেশের ২৫৫ জন চলচ্চিত্রকর্মী।

তাদের মধ্যে ১২৬ জন নারী। রীতি আছেন এই দলে। তিনিসহ দক্ষিণ এশিয়ার ১৪ জন থাকছেন আন্তর্জাতিক আয়োজনটিতে।

সাদিয়া খালিদের আগ্রহের বিষয়ের মধ্যে আছে সহযোগী কার্যক্রম, ড্রামা সিরিজ, দর্শন, ওয়েব সিরিজ,

নারীর ক্ষমতায়ন, শিল্প/নিরীক্ষা, প্রামাণ্যচিত্র, নাটক, কল্পবিজ্ঞান, ঐতিহাসিক ড্রামা, হরর/অতিপ্রাকৃত ও স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র।

এসব বিভাগে প্রশিক্ষণ নেবেন তিনি। এছাড়া থাকবেন ৪০টি চলচ্চিত্রের প্রজেক্ট ল্যাবে।

বার্লিনাল ট্যালেন্টসে এবার ১১৩ জন পরিচালক, অর্ধশত প্রযোজক, ১৫ জন অভিনয়শিল্পী,

দুই চিত্রনাট্যকার, ১৬ জন চিত্রগ্রাহক, ১৪ জন ভিডিও সম্পাদক, ১২ জন শিল্প নির্দেশক, ১০ জন পরিবেশক, সাতজন সুরকার,

৯ জন শব্দ ডিজাইনার ও আটজন চলচ্চিত্র সমালোচককে সুযোগ দেওয়া হয়েছে। রীতি অংশ নিতে যাচ্ছেন চলচ্চিত্র সমালোচক হিসেবে।

এবারের কর্মশালায় সুযোগ পাওয়া ২৫৫ জনকে বলা হচ্ছে সম্মিলিতভাবে সৃজনশীল।

আগামী ১১ ফেব্রুয়ারি বার্লিনাল ট্যালেন্টসের পুরো প্রোগ্রাম জানাবে আয়োজকরা।

ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, লস অ্যাঞ্জেলেসে পড়াশোনা করেছেন সাদিয়া খালিদ রীতি।

তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশের চলচ্চিত্র সমালোচক হিসেবে আন্তর্জাতিক একটি আয়োজনে অংশ নেবো, এটা অবশ্যই ভালোলাগার ব্যাপার।

এর মাধ্যমে নিঃসন্দেহে আমার অভিজ্ঞতার ঝুলি সমৃদ্ধ হবে। আন্তর্জাতিক উৎসবগুলোতে

বাংলাদেশের ছবির জুতসই মূল্যায়ন পেতে আমাদের চলচ্চিত্র সমালোচকদের জন্য এ ধরনের প্ল্যাটফর্ম গুরুত্বপূর্ণ।’

বার্লিন থেকে ফিরে আগামী ২৮ ও ২৯ ফেব্রুয়ারি ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল ফিল্ম উৎসবে বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন সাদিয়া খালিদ।

২০১৮ সাল থেকে বিচারক হিসেবে বেশকিছু উৎসবে অংশ নিয়েছেন তিনি।

এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ইতালির রিলিজিয়ন টুডে ফেস্টিভ্যাল, ভারতের শিলিগুড়ি শর্টস অ্যান্ড ডকুমেন্টারি ফেস্টিভ্যাল,

নেপালের হিউম্যান রাইটস ফেস্টিভ্যাল, ১৬তম ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব, ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল অব কেরালা প্রভৃতি।

৭২তম কান উৎসবের ফিপরেস্কি বিচারকদের সঙ্গে সাদিয়া খালিদ রীতিগত বছর ৭২তম কান চলচ্চিত্র উৎসবে

ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব ফিল্ম ক্রিটিকসের (ফিপরেস্কি) বিচারক হিসেবে অংশ নেন সাদিয়া খালিদ রীতি।

বাংলাদেশি মেয়েদের মধ্যে তার নামের পাশেই এই অর্জন যুক্ত হলো প্রথম।

ফিপরেস্কির বাংলাদেশ শাখা ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ক্রিটিকস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশে (আইএফসিএবি) ২০১৪ সাল থেকে সক্রিয় এই চলচ্চিত্রকর্মী।

এর দুই বছর পর ফিপরেস্কিতে যুক্ত হন তিনি। ২০০৩ সাল থেকে বাংলাদেশের হয়ে বার্লিনাল ট্যালেন্টসে অংশ নিয়েছেন ১২ জন।

তারা হলেন- সৈয়দা নিগার বানু, হুমাইরা বিলকিস, নার্গিস আক্তার, রেজওয়ান শাহরিয়ার সুমিত, রুবাইয়াত হোসেন,

কামার আহমাদ সাইমন, বরকত হোসেন, ইশতিয়াক জিকো, রাশেদুল হাফিজ, দীপঙ্কর দীপন ও মোহাম্মদ আলি হায়দার।

চলছে ১৮ প্রেক্ষাগৃহে ‘কাঠবিড়ালী’
                                  

বিনোদন ডেস্ক : গেল ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড থেকে বিনা কর্তনে ছাড়পত্র পায় কাঠবিড়ালী

এটি দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান মো: নিজামূল কবীর।

তখনই নিয়ামুল মুক্তা পরিচালিত ও অর্চিতা স্পর্শিয়া অভিনীত এ ছবিটি সবাইকে দেখার আহ্বান জানান তিনি।
কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘এ ছবির নির্মাণ যেমন অসাধারণ তেমনি বেশ কিছু ভালো বার্তা আছে, যা আমাদের জানা উচিত।

আমি কোনও চলচ্চিত্রের ক্ষেত্রে এমনভাবে বলিনি, এবার বলছি- যেন দেশের সব বয়সী মানুষ ছবিটি দেখেন।’

এদিকে আজ (১৭ জানুয়ারি) দেশের ১৮টি প্রেক্ষাগৃহে চলচ্চিত্রটি মুক্তি পাচ্ছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ছবির পরিবেশক জাজ মাল্টিমিডিয়া।
তাসনিমুল তাজের চিত্রনাট্যে এবং নিয়ামুল মুক্তার রচনা ও পরিচালনায় ২০১৭ সালের ২ মার্চ শুরু হয় ‘কাঠবিড়ালী’ চলচ্চিত্রের শুটিং।
এরপর দুই বছর ধরে এর দৃশ্যধারণ হয়। ছবিতে কেন্দ্রীয় চরিত্রে আছেন স্পর্শিয়া।

আরও আছেন আসাদুজ্জামান আবীর ও সাইদ জামান শাওন। ছবিটি নিয়ে স্পর্শিয়া বলেন, ‘এটা আমাদের স্বপ্নের ছবি।

যাকে আমরা দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে লালন-পালন করে আসছি।

ছবিটিতে সবাই সবার সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করেছেন। ছবিটি সেন্সর বোর্ডে প্রশংসিত হয়েছে জেনে কী যে খুশি লেগেছে আমার।

এতে আমাদের আত্মবিশ্বাস আরও বেড়েছে। আশা করি দর্শকদেরও ভালো লাগবে।’
ছবিটিতে আরও অভিনয় করেছেন শাহরিয়ার ফেরদৌস সজিব,

শিল্পী সরকার অপু, হিন্দোল রায়, এ কে আজাদ সেতু, তানজিনা রহমানসহ অনেকে।

অভিনেত্রীকে যৌন হয়রানি, বিকাশের ৩ বছরের জেল
                                  

ডেস্ক রিপোর্ট :  বলিউড অভিনেত্রী জায়রা ওয়াসিমকে যৌন হেনস্থার অভিযোগে এক ব্যক্তিকে তিন বছরের জেল দিয়েছেন আদালত।

সম্প্রতি বিকাশ সাচদেব নামের ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে এই রায় দেন ভারতীয় আদালত।

দেশটির সংবাদ সংস্থা এএনআই জানিয়েছে এ তথ্য।  

সংবাদ সংস্থাটি জানায়, যৌন হয়রানির শিকার হওয়ার সময় জায়রার বয়স ছিল ১৭ বছর।

ভারতের শিশুদের যৌন হয়রানি থেকে বিশেষ সুরক্ষা আদালত অভিযুক্ত বিকাশের তিন বছরের জেল দিয়েছেন। 
২০১৭ সালের ডিসেম্বরে দিল্লি থেকে মুম্বাই ফেরার পথে ওই অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে জায়রার সঙ্গে।

সেসময় ইনস্টাগ্রামে একটি ভিডিওতে সেই বেদনাদায়ক অভিজ্ঞতার কথা জানান জায়রা।
তিনি জানান, বিমানে জায়রা ঘুমানোর চেষ্টা করছিলেন।

পেছন থেকে বিকাশ বারবার তার শরীর স্পর্শ করছিল।

সেসময় বিমানের কোনো কর্মচারীও জায়রাকে সহায়তার জন্য তার পাশে এসে দাঁড়াননি।         


   Page 1 of 177
     বিনোদন
পর্দা নয় এবার বাস্তবে বাংলাদেশি ‘ভাইজান’কে দেখল ভারতবাসী!
.............................................................................................
আজ নায়করাজের ৭৯তম জন্মদিন
.............................................................................................
জিন্দেগি তামাশা : ধর্মীয় কোন্দলের পরে পাকিস্তান চলচ্চিত্র স্থগিত
.............................................................................................
মৃত্যুর হুমকি নিয়ে তাকে টিভি অনুষ্ঠান করতে হয়
.............................................................................................
কিমের জাস্টিস প্রজেক্ট
.............................................................................................
‘জোকার’–এর লিওনার্দো, লিওনার্দোর নিরো
.............................................................................................
মোদির ওপর ক্রুদ্ধ হয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য নাসির উদ্দিন শাহর
.............................................................................................
লর্ড হল বিবিসির মহাপরিচালকের পদত্যাগ করবেন
.............................................................................................
পেছাল বইমেলা, উদ্বোধন ২ ফেব্রুয়ারি
.............................................................................................
এন্ড্রু কিশোরের কেমোথেরাপি আবার শুরু
.............................................................................................
সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত শাবানা আজমি
.............................................................................................
প্রকাশ্যে এল দীপিকার মালতী হয় ওঠার প্রস্থেটিক মেকআপের সম্পূর্ণ ভিডিয়ো
.............................................................................................
ছেলের জন্য গর্বিত হলেন শাহরুখ খান
.............................................................................................
বার্লিনাল ট্যালেন্টসে বাংলাদেশের রীতি
.............................................................................................
চলছে ১৮ প্রেক্ষাগৃহে ‘কাঠবিড়ালী’
.............................................................................................
অভিনেত্রীকে যৌন হয়রানি, বিকাশের ৩ বছরের জেল
.............................................................................................
পিইসি পরীক্ষায় আর বহিষ্কার নয়
.............................................................................................
ভাগ্নির সঙ্গে উৎফুল্ল সালমান
.............................................................................................
আমেরিকায় স্থায়ী হচ্ছেন শাকিব খান
.............................................................................................
ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাতের অভিযোগে রিমান্ডে এক বয়াতি
.............................................................................................
আয়ের দিকে এক নম্বরে অক্ষয় কুমার, পাঁচে সালমান
.............................................................................................
১৫ কেজি ওজন বাড়াতে হবে-কৃতি
.............................................................................................
নতুন ছবির ঘোষণা দিলেন সালমান
.............................................................................................
এক যুগ পরে সকালের প্রত্যুষা বন্ধ , ফিরছে রাতের পরিক্রমা
.............................................................................................
ক্রিকেট খেলবেন আনুশকা
.............................................................................................
ডি’ক্যাপ্রিওর ২৫ কোটি টাকা অনুদান
.............................................................................................
মন্দার মুখে অস্ট্রেলিয়ার পর্যটন খাত
.............................................................................................
আজ শুক্রবার ঢাকায় আসছেন শ্রাবন্তী
.............................................................................................
শাকিব-মিতুর জুটি
.............................................................................................
জেএনইউ নিয়ে দীপিকার `স্ট্যান্ড` কেন ব্যতিক্রমী?
.............................................................................................
তাদের মুখোশ খুলে দিতে হবে : মৌসুমী
.............................................................................................
ফাইভ জি প্রদর্শনের উদ্যোগ ডিজিটাল বাংলাদেশ মেলা
.............................................................................................
গোল্ডেন গ্লোবস ২০২০: ব্রিটিশ তারকাদের সুবর্ণ রাত আছে
.............................................................................................
২০১৮ সালের জুনে, আল-শাবাবের একটি আক্রমণ চলাকালীন সোমালিয়ায় একজন মার্কিন কমান্ডো নিহত হয়েছিল
.............................................................................................
সালমানের সঙ্গে কেন অভিনয় আপত্তি দীপিকা
.............................................................................................
নেভারল্যান্ড ছাড়ছেন : মাইকেল জ্যাকসন সংস্থার বিরুদ্ধে মামলা করতে পারেন অভিযুক্তরা
.............................................................................................
২৫ বছরের যুবকের প্রেমে ম্যাডোনা
.............................................................................................
চালু হচ্ছে `সনি-স্টার সিনেপ্লেক্স` মিরপুরে
.............................................................................................
থার্টি ফার্স্ট নাইট : পটকা-আতশবাজিতে প্রকম্পিত ঢাকা
.............................................................................................
বাংলাদেশ ফিল্ম ক্লাব নির্বাচনে জয়ী পপি
.............................................................................................
ছুটিতে বিরাট-আনুশকা
.............................................................................................
ফুটবল অবসরের পর অভিনয়ে রোনাল্ডো
.............................................................................................
যৌন হয়রানির প্রতিবাদে হওয়া `মি টু` ক্যাম্পেইন কি বলিউডে পরিবর্তন আনতে পেরেছে?
.............................................................................................
২০২০ সালে সন্ধানের জন্য ১০ বাদ্যযন্ত্রের মুহুর্ত
.............................................................................................
৫৪ বছরে পদার্পণ সালমান খান
.............................................................................................
ব্রুস লির কন্যা ইমেজ ব্যবহারের জন্য ফাস্ট ফুড চেইনে মামলা করেছে
.............................................................................................
পাঙ্গা ট্রেইলার: অর্থনৈতিক ফিল্মে তারকাদের জন্য কঙ্গনার শট
.............................................................................................
জাস্টিন বিবার ২০২০ সালে প্রত্যাবর্তনের পরিকল্পনা প্রকাশ করেছেন
.............................................................................................
শাকিব খানের নির্মাণাধীন ভবনের ইট-পাথর গুঁড়িয়ে দিলেন ভ্রাম্যমাণ আদালত
.............................................................................................
ফিল্মস হেড হেড: ২০২০ এ ২০ টি মুভি মিস করা উচিত নয়
.............................................................................................

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মো: রিপন তরফদার নিয়াম ।
প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক : মফিজুর রহমান রোকন ।
নির্বাহী সম্পাদক : শাহাদাত হোসেন শাহীন ।

সম্পাদক কর্তৃক শরীয়তপুর প্রিন্টিং প্রেস, ২৩৪ ফকিরাপুল, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত । সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল কমপ্ল্যাক্স (৬ষ্ঠ তলা) । ২৮/১ সি টয়েনবি সার্কুলার রোড, মতিঝিল, বা/এ ঢাকা-১০০০ । জিপিও বক্স নং-৫৪৭, ঢাকা ।
ফোন নাম্বার : ০২-৯৫৮৭৮৫০, ০২-৫৭১৬০৪০৪
মোবাইল : ০১৭০৭-০৮৯৫৫৩, ০১৯১৬৮২২৫৬৬ ।

E-mail: dailyganomukti@gmail.com
   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি