ঢাকা,বুধবার,৬ মাঘ ১৪২৮,১৯,জানুয়ারী,২০২২ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : > বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুরের মামলার বাদির উপর হামলা   > ‘গানে গানে চলছে প্রার্থীদের প্রচারণা’   > ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে ১৫ জানুয়ারী থেকে পরিবহন বন্ধের ঘোষণা   > বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাঙচুরকারী বিআইডব্লিউটিএ’র আবুল হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা   > নর্থ সাউথের আরও দুই ট্রাস্টি রেহেনা ও বেনজীরকে দুদকে তলব   > ঢাকায় অবৈধ রিকশার বিরুদ্ধে ডিএসসিসির অভিযান   > পথ যত কণ্টকাকীর্ণ হোক, আমরা থেমে থাকব না : প্রধানমন্ত্রী   > বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর পর মুক্তিযোদ্ধারা পরিচয় দিতে পারেনি : আবুল হাসেম খান এমপি   > শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই জাতি আজ ঐক্যবদ্ধ: এনামুল হক শামীম   > আগামী দুইদিনে শৈত্যপ্রবাহের মাত্রা বাড়বে  

   তথ্য-প্রযুক্তি -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
তরুণদের মোবাইল আসক্তি থেকে বাঁচাতে হবে

স্টাফ রিপোর্টার : “পড়াশোনায়, বিজ্ঞান চর্চায় এবং উদ্ভাবনী কর্মকান্ডে শিক্ষার্থীদের নিয়োজিত করা শিক্ষক ও অভিভাবকদের গুরু দায়িত্ব। শিক্ষক ও অভিভাবকরা এ দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হচ্ছেন বিধায় তরুণ সমাজ মোবাইল আসক্তিসহ নানা অপরাধে জড়িয়ে যাচ্ছে। জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর সারা বছর বিজ্ঞান বক্তৃতা, বিজ্ঞান মেলা, কুইজ প্রতিযোগিতাসহ নানা সৃজনশীল ও মেধা বিকাশের কার্যক্রমে তরুণদের মগ্ন রেখে তাদের চিন্তা চেতনাকে কলুষমুক্ত রাখতে চায়। বিজ্ঞান মেলা শুধু যেন প্রদর্শনীতে আবদ্ধ না থাকে, বরং প্রতিটি উদ্ভাবনকে বাস্তব জীবনে প্রয়োগ করে জীবনমান আধুনিক করা সম্ভব”। শনিবার চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ উপজেলায় ৪৩ তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা এবং সেমিনারে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিজ্ঞান জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী এসব কথা বলেন। এ প্রদর্শনীতে বিমান থেকে অগ্নি নির্বাপন, নগর বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন, সবুজ জ্বালানী উৎপাদন, করোনা সনাক্তকরণে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার ইত্যাদি সহ মোট ১০ টি প্রকল্প প্রদর্শিত হয়। মহাপরিচালক প্রতিটি প্রকল্প ঘুরে ঘুরে দেখেন এবং তরুণ উদ্ভাবকদের অভিনন্দন জানান। এর পরে হাজীগঞ্জ সরকারী মডেল কলেজে “স্মার্টফোনে আসক্তিঃ পড়াশোনার ক্ষতি” শীর্ষক এক সেমিনারের আয়োজন করা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোমেনা আক্তারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সেমিনারে মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী শিক্ষার্থীদের মোবাইল ফোনে আসক্তি থেকে মুক্ত রাখতে পিতামাতা ও শিক্ষকদের পরিমিত জীবন অনুশীলনের তাগিদ প্রদান করেন। এ অনুষ্ঠানে ‘সন্তানদের আসক্তি থেকে বাঁচানোর পূর্বে পিতামাতাকে মোবাইলের আসক্তি থেকে মুক্ত রাখা উচিৎ’- এ মর্মে সাহসী বক্তব্য রাখায় রামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী ‘আয়েশা আক্তার’ কে বিশেষভাবে পুরস্কৃত করা হয়। অনুষ্ঠানে তাঁকে হাজীগঞ্জের ‘গ্রেটা থুনবার্গ’ হিসেবে মহাপরিচালক বিশেষভাবে অভিনন্দিত করেন। এছাড়া দুটি ক্যাটাগরীতে ২ টি গ্রুপকে শ্রেষ্ঠ উদ্ভাবনের জন্য পুরস্কৃত করা হয়।

তরুণদের মোবাইল আসক্তি থেকে বাঁচাতে হবে
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : “পড়াশোনায়, বিজ্ঞান চর্চায় এবং উদ্ভাবনী কর্মকান্ডে শিক্ষার্থীদের নিয়োজিত করা শিক্ষক ও অভিভাবকদের গুরু দায়িত্ব। শিক্ষক ও অভিভাবকরা এ দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হচ্ছেন বিধায় তরুণ সমাজ মোবাইল আসক্তিসহ নানা অপরাধে জড়িয়ে যাচ্ছে। জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর সারা বছর বিজ্ঞান বক্তৃতা, বিজ্ঞান মেলা, কুইজ প্রতিযোগিতাসহ নানা সৃজনশীল ও মেধা বিকাশের কার্যক্রমে তরুণদের মগ্ন রেখে তাদের চিন্তা চেতনাকে কলুষমুক্ত রাখতে চায়। বিজ্ঞান মেলা শুধু যেন প্রদর্শনীতে আবদ্ধ না থাকে, বরং প্রতিটি উদ্ভাবনকে বাস্তব জীবনে প্রয়োগ করে জীবনমান আধুনিক করা সম্ভব”। শনিবার চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ উপজেলায় ৪৩ তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা এবং সেমিনারে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিজ্ঞান জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী এসব কথা বলেন। এ প্রদর্শনীতে বিমান থেকে অগ্নি নির্বাপন, নগর বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন, সবুজ জ্বালানী উৎপাদন, করোনা সনাক্তকরণে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার ইত্যাদি সহ মোট ১০ টি প্রকল্প প্রদর্শিত হয়। মহাপরিচালক প্রতিটি প্রকল্প ঘুরে ঘুরে দেখেন এবং তরুণ উদ্ভাবকদের অভিনন্দন জানান। এর পরে হাজীগঞ্জ সরকারী মডেল কলেজে “স্মার্টফোনে আসক্তিঃ পড়াশোনার ক্ষতি” শীর্ষক এক সেমিনারের আয়োজন করা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোমেনা আক্তারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সেমিনারে মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী শিক্ষার্থীদের মোবাইল ফোনে আসক্তি থেকে মুক্ত রাখতে পিতামাতা ও শিক্ষকদের পরিমিত জীবন অনুশীলনের তাগিদ প্রদান করেন। এ অনুষ্ঠানে ‘সন্তানদের আসক্তি থেকে বাঁচানোর পূর্বে পিতামাতাকে মোবাইলের আসক্তি থেকে মুক্ত রাখা উচিৎ’- এ মর্মে সাহসী বক্তব্য রাখায় রামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী ‘আয়েশা আক্তার’ কে বিশেষভাবে পুরস্কৃত করা হয়। অনুষ্ঠানে তাঁকে হাজীগঞ্জের ‘গ্রেটা থুনবার্গ’ হিসেবে মহাপরিচালক বিশেষভাবে অভিনন্দিত করেন। এছাড়া দুটি ক্যাটাগরীতে ২ টি গ্রুপকে শ্রেষ্ঠ উদ্ভাবনের জন্য পুরস্কৃত করা হয়।

‘আমার বাবা-মাকে সৎ দেখতে চাই’
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর কর্তৃপক্ষ শিশু ও কিশোর শিক্ষার্থীদের নিয়ে ব্যতিক্রমী শুদ্ধাচার কর্মসূচীর আয়োজন করেছে, যার উল্লেখযোগ্য ছিলো “বিজ্ঞান, প্রযুক্তি ও নৈতিকতাঃ একসূত্রে গাঁথা” শীর্ষক বিজ্ঞান বক্তৃতা, রচনা প্রতিযোগিতা, শুদ্ধাচার শপথ এবং সততা স্টোর চালুকরণ। গতকাল সোমবার বিজ্ঞান জাদুঘরের উন্মুক্ত প্রাঙ্গণে রাজধানীর শেরেবাংলা নগর সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও টুইংকেল কিডস গ্রামার স্কুলের শতাধিক শিক্ষার্থীদের নিয়ে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ধারাবাহিক বিজ্ঞান বক্তৃতা, কুইজ প্রতিযোগিতা এবং শুদ্ধাচার বিষয়ক শপথ অনুষ্ঠান ও রচনা প্রতিযোগিতায় মুখর হয়ে উঠে বিজ্ঞান জাদুঘর ভবন ও প্রাঙ্গণ। বিজ্ঞান জাদুঘরের ইতিহাসে এ প্রথমবার “সততা স্টোর” নামক বিক্রেতা বিহীন একটি স্টোরের উদ্বোধন করা হয়। নানা শিক্ষা উপকরণের পসরা সাজিয়ে সুসজ্জিত ভাবে নির্মিত হয় সততা স্টোর। এ স্টোরে শিক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষাসামগ্রী বিক্রয় করা হবে। শিক্ষার্থীরা মূল্য তালিকা দেখে কাক্সিক্ষত সামগ্রী কিনে এর মূল্য নির্দিষ্ট ক্যাশবক্সে রাখবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিদ্যা বিভাগের অবসর প্রাপ্ত অধ্যাপক ড. হাফিজা খাতুনকে সঙ্গে নিয়ে মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী এ সততা স্টোরের উদ্বোধন করেন। এতে প্রায় শতাধিক শিশু শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। এ প্রসঙ্গে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী বলেন, “শিশু বয়স থেকেই শিশু কিশোররা যেন সততার চর্চা করে এবং মিথ্যা, চুরি বা অন্যায় কাজ বর্জন করে, সে লক্ষ্যে তাদের অনুপ্রাণিত করার জন্য বিজ্ঞান জাদুঘরে এ সততা স্টোরের অভিযাত্রা। আগামীতে তারা বিজ্ঞানী, চিকিৎসক, প্রশাসক যেই হোকনা কেন, সততা না থাকলে সব অর্জন ধ্বংস হয়ে যাবে।” এর আগে বিজ্ঞান জাদুঘরের উন্মুক্ত প্রাঙ্গণে খোলা আকাশের নিচে শতাধিক শিক্ষার্থী মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরীর নেতৃত্বে হাত তুলে দৃঢ়বাক্যে শপথ নেয়, “আমরা অন্যায় করবো না, মিথ্যা বলবো না, অসৎ কাজ করবো না, মোবাইলে আসক্ত হবো না, নিয়মিত পড়াশোনা করবো, বাবা -মা ও শিক্ষককে শ্রদ্ধা করবো, রাস্তাঘাটে ময়লা -আবর্জনা , প্লাস্টিক পলিথিন ফেলবো না, মিতব্যয়ী হবো, অপচয় করবো না, হিংসা করবো না, দরিদ্রদের প্রতি সদয় হবো।” শপথ গ্রহণের পর শিক্ষার্থীদের নিয়ে “আমার বাবা-মা কে সৎ দেখতে চাই” শীর্ষক এক রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। এ প্রসঙ্গে মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী বলেন, “পিতা-মাতার সততা সন্তানদের জন্য যেন অনুকরণীয় হয়। সন্তানরা যেন পিতামাতাকে অসৎ উপার্জনে প্ররোচিত না করে এবং পিতামাতার সৎ ও পরিমিত আয়ে সন্তুষ্ট থাকে, সে লক্ষ্যে তাদের অনুপ্রাণিত করাই এ প্রতিযোগিতার উদ্দেশ্য। বিজ্ঞান জাদুঘরের উদ্যোগে বিরল ও ব্যতিক্রমী এ অনুষ্ঠান শিশু কিশোর, শিক্ষক ও অভিভাবকদের মধ্যে নৈতিকতাবোধ জাগরণে ব্যাপক প্রভাব ফেলবে।”

চট্টগ্রামে বিজ্ঞান জাদুঘরের বর্ণাঢ্য বিজ্ঞান উৎসব
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : তিনদিন চট্টগ্রামে (১৯, ২০ ও ২১ নভেম্বর) শুক্র, শনি ও রোববার উৎসবের আমেজে অনুষ্ঠিত হলো বিজ্ঞান জাদুঘরের আয়োজনে রোবট অলিম্পিয়াড, ভ্রাম্যমাণ বিজ্ঞান প্রদর্শনী এবং আকাশের গ্রহ, নক্ষত্র পর্যবেক্ষণ কর্মসূচি। অনুষ্ঠানের প্রথম দিন (শুক্রবার) চট্টগ্রাম গ্রামার স্কুলের ছাদে বসানো হয় বিজ্ঞান জাদুঘরের শক্তিশালী ২টি টেলিস্কোপ এবং আনা হয় স্পেস অবজার্ভেটরী বাস। এখানে প্রায় ২ শতাধিক শিক্ষার্থী ও শিক্ষক সাম্প্রতিক চন্দ্রগ্রহণ এবং আকাশের গ্রহ ও নক্ষত্র পর্যবেক্ষণ করে। দ্বিতীয় দিন (শনিবার) চট্টগ্রামের খ্যাতনামা প্রতিষ্ঠান প্রেসিডেন্সী ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে অনুষ্ঠিত হয় রোবটিক অলিম্পিয়াড এবং সেমিনার। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ৩ শতাধিক শিক্ষার্থী, প্রতিযোগী ও ক্ষুদে বিজ্ঞানী এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। সেমিনারে চুয়েটের অধ্যাপক ড.কৌশিক দেব পেপার উপস্থাপন করেন। শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে অনুপ্রেরণামূলক বক্তব্য রাখেন জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী। এ দিন সন্ধ্যায় চট্টগ্রামের লালখান পাহাড়ে অবস্থিত চট্টগ্রাম বালিকা সদন নামক এতিম খানার ২শ শিক্ষার্থীদের জন্য আয়োজন করা হয় মহাকাশ পর্যবেক্ষণ ক্যাম্প। তারা এখান থেকে কোটি কোটি মাইল দূরের শনি, শুক্র ও বৃহস্পতি গ্রহ পর্যবেক্ষণ করে। উন্মুক্ত আকাশে মহাজাগতিক দৃশ্য দেখে আবেগে উদ্বোলিত হয় এতিম শিশুরা, যারা কখনো টেলিস্কোপে এসব দেখেনি। পরদিন (রোববার) বন্দর নগরীর কাতালগঞ্জ ক্যাম্পাসে অবস্থিত প্রেসিডেন্সী ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের শিশু শিক্ষার্থীদের জন্য আয়োজন করা হয় ভ্রাম্যমাণ ৪ডি বিজ্ঞান প্রদর্শনী। শত শত শিক্ষার্থী এখানে বিজ্ঞানের অজানা রহস্য অবলোকন করে। একইদিন চট্টগ্রাম সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ ও শিক্ষকদের নিয়ে বিজ্ঞান শিক্ষার সংকট ও সম্ভাবনা নিয়ে বৈঠক করেন জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী। তিনি এ কলেজের ৪টি বিজ্ঞান ল্যাবরেটরি পরিদর্শন করেন এবং এসবের উন্নয়নে প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান করেন। সন্ধ্যায় এ কলেজের মাঠে বসানো হয় বিজ্ঞান জাদুঘরের ২টি শক্তিশালী টেলিস্কোপ। অংশ নেয় শত শত শিক্ষার্থী। তাদেরকে দেখানো হয় আকাশে অবস্থানরত শনি, শুক্র ও বৃহস্পতি গ্রহ। অংশ নেয় কলেজের শিক্ষকরাও। এ কর্মসূচি সম্পর্কে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী বলেন, বিজ্ঞানকে বই পুস্তকের মধ্যে সীমিত রাখার দিন শেষ। বিজ্ঞান জাদুঘর শিক্ষার্থীদের মনে উদ্ভাবনী চেতনা ও সৃজনশীলতা তৈরী করতে চায়। প্রতিটি উদ্ভাবন থেকে দেশের পরিবেশগত, অর্থনৈতিক ও প্রশাসনিকক্ষেত্রে সুশাসনের পথ নির্দেশনা বের করে আনতে হবে।

বিজ্ঞান জাদুঘরে জলবায়ু রক্ষার শপথ
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরে একদল শিশু কিশোর গতকাল রোববার উপস্থিত হয়ে জলবায়ু রক্ষার শপথ নিয়েছে। তারা জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরীর সঙ্গে হাত তুলে এক বাক্যে উচ্চারণ করে, “কার্বন কমাতে হবে, গাড়ির ব্যবহার কমাতে হবে, সবুজ প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়াতে হবে, ভোগবিলাস অপচয় হ্রাস করতে হবে, সাইকেলে চড়তে হবে, সবুজ রক্ষা করতে হবে এবং এভাবে পৃথিবীকে বাঁচাতে হবে।” তরুণ প্রজন্মকে পরিবেশ সচেতন করতে এবং সম্প্রতি গ্লাসগো’তে অনুষ্ঠিত জলবায়ু সম্মেলনের বিষয়ে গ্রেটা থানবার্গের মত সাহসী হতে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে মর্মে জানান জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী। এর আগে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের নিয়ে ‘কার্বন কমাও, জীবন বাঁচাও’ শীর্ষক শিরোনামে এক বিজ্ঞান বক্তৃতা ও কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। এ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিক্ষার্থী হলেন, রিয়া আক্তার, তনিমা ইসলাম, মোঃ ইয়াসিন সরকার, ইফফাত হূমায়েরা, ফয়সাল মাহমুদ এবং শীমু আক্তার। অনুষ্ঠান শেষে বিজয়ীদের পুরস্কৃত করা হয়।

দুর্নীতি দমনে প্রযুক্তির ব্যবহার অপরিহার্য: মুনীর চৌধুরী
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী বলেন, “বাংলাদেশ এবং আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপটে দুর্নীতির ঘটনা উদ্ঘাটনে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার এখন সময়ের দাবী। দুর্নীতি মানে শুধু আর্থিক লেন দেন নয়। পক্ষপাতমূলক আচরণ, ব্যক্তিস্বার্থে সিদ্ধান্ত গ্রহণ ইত্যাদিও দুর্নীতির সমতুল্য অপরাধ। গতকাল রোববার জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরে ‘দুর্নীতি দমনে প্রযুক্তির প্রয়োজনীয়তা’ শীর্ষক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব গভর্নেন্স এন্ড ম্যানেজমেন্ট এর পক্ষ থেকে সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পদস্থ কর্মকর্তারা অংশগ্রহণ করেন। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন কালে তিনি এসব কথা বলেন। মুনীর চৌধুরী বলেন, নগদ অর্থের মাধ্যমে লেনদেন না করে ডিজিটাল সেবা পদ্ধতির মাধ্যমে সরকার দুর্নীতি বন্ধের প্রয়াস গ্রহণ করেছে। তবে প্রযুক্তি ব্যবহারকারী মানুষটি সৎ ও শুদ্ধ কীনা, তার উপর প্রযুক্তির সফলতা নির্ভর করছে। নতুবা সিস্টেম পরিবর্তন করে বা প্রযুক্তি ব্যবহার করেও দুর্নীতি দমন করা যাবেনা। মানুষকে আল্লাহ্ অফুরন্ত কর্মশক্তি ও চিন্তাশক্তি দিয়েছেন, তা’ মানবকল্যাণে কাজে লাগানোই মানবজীবনের সার্থকতা। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিআইজিএম এর পলিসি এনালাইসিস কোর্সের চীফ কো-অর্ডিনেটর বণিক গৌর সুন্দর। এছাড়া প্রশিক্ষণার্থীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ বেতারের আঞ্চলিক পরিচালক মিস রওনক জাহান এবং বাংলাদেশ বেতারের উপ-বার্তা নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ মহসীন মিয়া। জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের পরিচালক মোঃ হাবিবুর রহমান স্বাগত বক্তব্যে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের চলমান উন্নয়ন কর্মকান্ডসহ বিজ্ঞানমনস্ক জাতি গঠনে প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য বিস্তারিত তুলে ধরেন। অনুষ্ঠান শেষে অংশগ্রহণকারীরা জাদুঘরের গ্যালারিসমূহ পরিদর্শন করেন।

জলবায়ু রক্ষায় সবুজ বাংলাদেশ গড়ার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের তাগিদ
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি হ্রাসে বৃক্ষ রোপনের তাগিদ দিয়েছে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর। গত ১ আগস্ট ও আজ ৩ আগস্ট রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সায়েন্স ক্লাব এবং রাজধানীর শেরেবাংলা নগর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে জুম প্লাটফর্মে আয়োজিত বঙ্গবন্ধু স্মারক বিজ্ঞান বক্তৃতা প্রতিযোগিতায় তরুন শিক্ষার্থীদের পরিবেশ রক্ষায় এগিয়ে আসার আহ্বান জানান হয়। শোকাবহ আগস্ট উপলক্ষ্যে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মরণে ১ আগস্ট থেকে এ প্রতিযোগিতা শুরু হয়। অনুষ্ঠানে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী বলেন, “প্রাকৃতিক ভারসাম্যের জন্য ২৫% বনভূমি থাকা আবশ্যক। কিন্তু মানুষের ভোগবাদী প্রবণতার কারণে বৃক্ষ সম্পদ ধ্বংস হচ্ছে। সাম্প্রতিক ২টি প্রলংকরী ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’ ও ‘ইয়াস’ এর ধ্বংসযজ্ঞ থেকে বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের বিশাল অংশ সুরক্ষিত হয়েছে সুন্দরবনের বৃক্ষরাজির কারণে। বৃক্ষ সম্পদ মহান আল্লাহ তা’আলার এক বিশাল নিয়ামত। ১টি বৃক্ষ ৯০০কেজি কার্বন-ডাই-অক্সাইড শোষন করে এবং ৭০০কেজি অক্সিজেন সরবরাহ করে। বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) বৃক্ষরোপনকে সাদকায়ে জারিয়া হিসেবে অভিহিত করেছেন। সুতরাং স্কুল, কলেজ ও বাসাবাড়ির আঙ্গিনায় এমনকি ভবনের বারান্দায় টবে হলেও গাছ লাগিয়ে পরিবেশ সুরক্ষা করতে হবে। বিজ্ঞান জাদুঘর এ লক্ষ্যে আগামীতে শিশু-কিশোরদের নিয়ে ব্যপক বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি পালন করবে।” অনুষ্ঠানে বিজ্ঞান জাদুঘরের কর্মকর্তা-কর্মচারি এবং সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।
এ প্রতিযোগিতায় শীর্ষস্থান অধিকার করে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সায়েন্স ক্লাবের আমেনা আক্তার ও শেরেবাংলা নগর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের তাজরিন উদ্দীন প্রথমা।

বছরে দু’বার শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্রের রক্ষনাবেক্ষণ জরুরী
                                  

স্টাফ রিপোর্টার: দেশের শিশু, কিশোর ও শিক্ষার্থীসহ নাগরিকদের অগ্নিদূর্ঘটনা সম্পর্কে সচেতন করল জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর। মঙ্গলবার বিজ্ঞান জাদুঘর কর্তৃক আয়োজিত ‘বৈদ্যুতিক দূর্ঘটনা রোধে করণীয়’ শীর্ষক বিজ্ঞান বক্তৃতা অনুষ্ঠানে বক্তারা অগ্নিদূর্ঘটনার অন্যতম কারণ হিসেবে বৈদ্যুতিক অব্যবস্থাপনাকে চিহ্নিত করেন।

এতে বলা হয়, ভবন নির্মানে নিম্নমানের বৈদ্যুতিক সামগ্রী তথা নিম্নমানের তার ও প্লাগ ব্যবহার মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ। এছাড়া গ্যাসের চুলার অসতর্ক ব্যবহারও দূর্ঘটনার কারণ। অনুষ্ঠানে ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ হানিফ উদ্দিন বলেন, “বাসাবাড়ীতে দাহ্য পদার্থ খোলা রাখা যাবে না। রান্নার তেলের বোতল মোটা কাপড়/চট্ দিয়ে ঢেকে রাখা নিরাপদ। মেইন সুইচ্ হাতের নাগালে রাখতে হবে। অতি সতর্কতার সঙ্গে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে হবে নতুবা ‘হাত’ দাহ্য পদার্থে পরিণত হবে। দমকল বাহিনী আসার আগে প্রতিটি বাসাবাড়িতে কমপক্ষে ২০ মিনিট অগ্নিনির্বাপনের নিজস্ব ব্যবস্থাপনা থাকতে হবে। পানির বালতি, বালি ও হাতুড়ি প্রস্তুত রাখতে হবে। সম্প্রতি রূপগঞ্জের জুস কারখানায় সংঘটিত অগ্নিকান্ডে হাতুড়ির অভাবে তালাবদ্ধ দরজা খুলতে না পারায় ব্যাপক প্রাণহানি ঘটেছে।”

অনুষ্ঠানে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী বলেন, “দুর্ঘটনা এড়াতে বছরে কমপক্ষে দু’বার শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্র পরিস্কার/রক্ষনাবেক্ষণ করা প্রয়োজন। এছাড়া আনাড়ী লোক বাদ দিয়ে দক্ষ ও প্রশিক্ষিত ইলেক্ট্রিশিয়ান দিয়ে বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি পরীক্ষা করাতে হবে। মানসম্মত প্লাগ, তার, ক্যাবল, সুইচ ইত্যাদি যন্ত্রপাতি ক্রয় এবং যথাযথ রক্ষনাবেক্ষণ দূর্ঘটনা মুক্ত থাকার অপরিহার্য শর্ত। বৈদ্যুতিক ব্যবস্থাপনায় নাগরিকদের অজ্ঞতা ও অসতর্কতা দূর করতে বিজ্ঞান জাদুঘর বিজ্ঞান শিক্ষার মাধ্যমে নাগরিক জীবনে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চায়। প্রতিটি সমস্যা বা ঝুকিকে বিজ্ঞান সম্মত ভাবে সমাধান করতে হবে।”

অনুষ্ঠানে গাজীপুরের কামারজুরী ইউসুফ আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির শিক্ষার্থী জারিন তাসনিম, চট্টগ্রামের হালিশহর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের ১০ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী নাজিফা ইসলাম এবং জয়দেবপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী তাহসিন আরা ঐশি বক্তব্য রাখেন। শ্রেষ্ঠ বক্তা হিসেবে তাহসিন আরা ঐশি কে নির্বাচিত করা হয়।

বিজ্ঞান শিক্ষায় বিপ্লব ঘটাতে পারে বিজ্ঞান জাদুঘর
                                  

 

স্টার রিপোর্টার: অপ্রাতিষ্ঠানিক বিজ্ঞান শিক্ষার মাধ্যমে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর বিজ্ঞান চর্চার যে অফুরন্ত সুযোগ সৃষ্টি করেছে, তা দিয়ে দেশে বিজ্ঞান বিপ্লব ঘটানো সম্ভব। দেশকে উন্নত করতে হলে বিজ্ঞান মনস্ক হতে হবে। গাণিতিক মডেলকে প্রাধান্য দিয়ে বিজ্ঞান শিক্ষার প্রসার ঘটাতে হবে। মফস্বল এলাকায় শিক্ষকদের অবহেলায় বিজ্ঞান শিক্ষা পিছিয়ে যাচ্ছে। জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে বিজ্ঞান জাদুঘরের কর্মকান্ডকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়ে বিস্তৃত করতে হবে। অন্ততঃপক্ষে বিভাগীয় পর্যায়ে বিজ্ঞান জাদুঘরের শাখা স্থাপন সময়ের দাবি।

বিজ্ঞান জাদুঘরের মাধ্যমে গবেষনা খাতে তহবিল বরাদ্দ দেয়া উচিৎ, যা বিজ্ঞান চর্চাকে শাণিত করবে। বিজ্ঞান জাদুঘরের চলমান সকল প্রসংসনীয় কার্যক্রম টেকসই করতে হবে। অংশীজনদের মতামত নিয়ে ভবিষ্যত পরিকল্পনা প্রণয়ন করতে হবে। বিজ্ঞান জাদুঘর কর্তৃক প্রান্তিক পর্যায়ে ইনোভেশন ক্লাব এবং রোবটিকস ক্লাবগুলোকে পৃষ্ঠপোষকতা প্রদান করতে হবে। অনলাইন কার্যক্রমের ব্যাপ্তি বাড়াতে হবে এবং বিজ্ঞান জাদুঘরের সাথে শিক্ষা মন্ত্রণালয়, তথ্য প্রযুক্তি বিভাগ, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সম্পৃক্ততা থাকতে হবে।

রোববার জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর কর্তৃক আয়োজিত এক ভার্চুয়াল অংশীজন সভায় দেশের খ্যাতনামা বিজ্ঞানী, বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক, গবেষক, সরকারি কর্মকর্তা, বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থী ও শিক্ষক এবং তরুন বিজ্ঞানী ও বিজ্ঞান সেবী সংগঠনের কর্মকর্তারা এ অভিমত প্রকাশ করেন।

বিজ্ঞান জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী বলেন, “মহান আল্লাহ তা’আলারসৃষ্টিবৈচিত্র এবং প্রকৃতির রহস্য উন্মোচন করাই বিজ্ঞান। প্রকৃতি এবং বিজ্ঞানের সমন্বয়ে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর বিজ্ঞান চর্চাকে শিক্ষার্থী, গবেষক ও ক্ষুদে বিজ্ঞানীদের মধ্যে ছড়িয়ে দিয়ে তাদের সুপ্ত উদ্ভাবনী ক্ষমতাকে বিকশিত করতে চায়। অপ্রাতিষ্ঠানিকভাবে বিনোদনের মাধ্যমে জাদুঘর কর্তৃপক্ষশিশুদের মগজে ঢুকিয়ে দিচ্ছে বিজ্ঞান। করোনার এ মহাসংকটে বিজ্ঞান জাদুঘর প্রায় অচল হয়ে পড়া শিক্ষা ব্যবস্থায় ৪ হাজারের বেশী বিজ্ঞান মেলা, সেমিনার, অলিম্পিয়াড, কুইজ প্রতিযোগিতা এবং বিজ্ঞান বক্তৃতা অনলাইনে আয়োজন করে শিশু-কিশোরদের জাগ্রত রেখেছে। আগামীতে অংশীজনদের মতামত নিয়ে বিজ্ঞান জাদুঘরের কার্যক্রমকে আধুনিকায়ন করে ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করা হবে।”

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রানীবিদ্যা বিভাগের চেয়ারম্যান ড. নিয়ামুল নাসের, বিজ্ঞান একাডেমির পরিচালক ড. এম এ মাজেদ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক আমির মোহাম্মাদ নাসরুল্লাহ, ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আবুল কাশেম, অধ্যাপক নাসিম আক্তার, পিকেএসএফ এর পরিচালক ড. ফজলে রাব্বি সাদিক আহমেদ, চট্টগ্রাম গ্রামার স্কুলের অধ্যক্ষ তৌসিন খান, পরিবেশ অধিদপ্তরের উপপরিচালক কমল চন্দ্র হাওলাদার, নারায়নগঞ্জ ডকইয়ার্ডের কনসালটেন্ট ইঞ্জিনিয়ার আলমগির হোসেন, শেরে বাংলা নগর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা নন্দিতা সরকার, মাইলস্টোন স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক শাহজাহান সাজু, মিশন ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক উত্থান সাহা, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সায়েন্স ক্লাবের সভাপতি ইশতেহার আহমেদ, জাহাঙ্গিরনগর বিশ্ববিদ্যালয় সায়েন্স ক্লাবের সভাপতি তারেক আজিজ, চট্টগ্রাম রিসার্স ল্যাবের সভাপতি জাহেদ হোসেন নোবেল, বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতির মাহমুদ মীম এবং বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থী তাসনিয়া ইসলাম তিথি, হুমায়রা জেরিন ও উম্মে রুম্মান।

 

এক বছরে ২৪৭৭ কোটি ডলার রেমিট্যান্স
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : করোনা মহামারির মাঝেও প্রবাসী বাংলাদেশিরা রেমিট্যান্স পাঠিয়েছে রেকর্ড পরিমাণ। ২০২০-২১ অর্থবছরে দেশে ২৪৭৭ কোটি ৭৭ লাখ ডলার রেমিট্যান্স এসেছে, যা আগের অর্থবছরের চেয়ে ৩৬.১০ শতাংশ বেশি। এর আগে কোনও অর্থবছরে এত পরিমাণ রেমিট্যান্স আসেনি বাংলাদেশে। গতকাল সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, গত ২০২০-২১ অর্থবছরের শেষ মাস জুনে প্রবাসী বাংলাদেশিরা ১৯৪ কোটি ডলার ডলার রেমিট্যান্স দেশে পাঠিয়েছেন। গত বছরের জুনে প্রবাসীদের রেমিট্যান্স পাঠিয়েছিলেন ১৮৩ কোটি ২৬ লাখ ডলার। অর্থাৎ আগের অর্থবছরের তুলনায় গত অর্থবছর প্রবাসীরা ৬৫৭ কোটি ডলার রেমিট্যান্স বেশি পাঠিয়েছেন। অর্থাৎ সদ্য সমাপ্ত অর্থবছরে দেশে রেমিট্যান্স আহরণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২৪৭৭ কোটি ৭৭ লাখ ডলার। আর ২০১৯-২০ অর্থবছরে তারা পাঠিয়েছিলেন ১৮২০ কোটি ডলার। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে দেশে রেমিট্যান্স আহরণের রেকর্ড হয়। ওই সময় ১ হাজার ৬৪২ কোটি ডলার রেমিট্যান্স দেশে আসে। এদিকে রেমিট্যান্সের প্রবাহ চাঙ্গা থাকায় ইতিবাচক অবস্থায় রয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ। জুন মাস শেষে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৪৬.৪২ বিলিয়ন ডলার বা প্রায় ৪ হাজার ৬৪২ কোটি ডলার। প্রতি মাসে ৪ বিলিয়ন ডলার আমদানি ব্যয় হিসেবে মজুদ এ বৈদেশিক মুদ্রা দিয়ে সাড়ে ১১ মাসের আমদানি ব্যয় মেটানো সম্ভব। ২০১৯ সালের ১লা জুলাই থেকে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সে ২ শতাংশ হারে প্রণোদনা দিচ্ছে সরকার। অর্থাৎ কোনো প্রবাসী ১০০ টাকা দেশে পাঠালে তার সঙ্গে আরও ২ টাকা যোগ করে মোট ১০২ টাকা পাচ্ছেন সুবিধাভোগী।

বুয়েটের ‘অক্সিজেট’ ডিভাইস প্রধানমন্ত্রীর নজরে আনুন: হাইকোর্ট
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : অক্সিজেনের চাহিদা পূরণে বুয়েটের উদ্ভাবিত ‘অক্সিজেট’ নামক স্বল্পমূল্যের সি-প্যাপ ভেন্টিলেটর ডিভাইসের অনুমোদনের বিষয়ে ব্যবস্থার জন্য প্রধানমন্ত্রীর নজরে আনার পরামর্শ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আদালত আইনজীবীর উদ্দেশে বলেন, প্রধানমন্ত্রী ইনোভেটিভ মাইন্ডের। বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর নজরে আনার জন্য তার মুখ্য সচিবকে লিখিতভাবে জানান। একইসঙ্গে স্বাস্থ্য সচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এবং অ্যাটর্নি জেনারেলকেও জানান। ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের পর সংশ্লিষ্ট সংস্থা এটির অনুমোদন দিচ্ছে না-এ বিষয়টি সোমবার আদালতের নজরে আনেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অনিক আর হক। তখন বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের একক বেঞ্চ এমন পরামর্শ দেন। অক্সিজেট সি-প্যাপ প্রকল্পটির আর্থিক সহায়তা দিয়েছে বাংলাদেশ সরকারের আইসিটি বিভাগের উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমি প্রতিষ্ঠাকরণ (আইডিয়া) শীর্ষক প্রকল্প, অঙ্কুর ইন্টারন্যাশনাল ফাউন্ডেশন এবং মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন। প্রকল্প বাস্তবায়নে নিয়োজিত রয়েছেন বুয়েট বায়োমেডিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের মীমনুর রশিদ, কাওসার আহমেদ, ফারহান মুহিব, কায়সার আহমেদ, সাঈদুর রহমান এবং সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে রয়েছেন বায়োমেডিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. তওফিক হাসান। গত ১১ মে বুয়েটের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, এই যন্ত্র কোনো প্রকার বিদ্যুৎ শক্তি ছাড়াই শুধুমাত্র অক্সিজেন সিলিন্ডার বা মেডিক্যাল অক্সিজেন লাইনের সঙ্গে সংযুক্ত করে ব্যবহার করা যাবে। এতে আরও বলা হয়, করোনা আক্রান্ত রোগীর শরীরে অক্সিজেনের ঘাটতি দেখা দিলে প্রথমে স্বল্প মাত্রায় অক্সিজেন দেওয়া হয়। কিন্তু এই স্বল্প মাত্রায় রোগীর অবস্থার উন্নতি না হলে উচ্চগতির অক্সিজেন প্রবাহ প্রয়োজন পড়ে যা রোগীর অবস্থার অবনতি রোধ করতে পারে। করোনা প্রকোপ শীর্ষে থাকা অবস্থায় আমাদের দেশের হাসপাতালগুলোতে অনেক সময় পর্যাপ্ত পরিমাণে হাই-ফ্লো ন্যাজাল ক্যানুলা যন্ত্র পাওয়া যায় না। এছাড়াও এ যন্ত্রগুলো ব্যয় বহুল ও ব্যবহার েেকৗশল জটিল হওয়ায় অনেক ক্ষেত্রে দক্ষ কর্মীর প্রয়োজন হয়। সহজে ব্যবহারযোগ্য অক্সিজেট সি-প্যাপ এই ঘাটতি পূরণে সাহায্য করবে। আইনজীবী অনীক আর হক বলেন, দ্বিতীয় ধাপের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল সম্পন্ন হয়েছে অক্সিজেটের। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের কয়েকজন করোনা রোগীকে এ যন্ত্র দিয়ে হাই ফ্লো অক্সিজেন দেওয়া হয়েছে। কিন্তু ডিজিডিএ এটা ব্যবহারের অনুমতি দিচ্ছে না। তারা বলেছে, কোম্পানির উৎপাদিত পণ্য না হলে অনুমতি দেওয়া সম্ভব নয়। তখন আদালত বলেন, সরকারের ক্রয়নীতি আছে। বিভিন্ন পদ্ধতি আছে।
এ সময় আইনজীবী অনীক আর হক বলেন, হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানুলার সংকটে প্রাণহানি বাড়ছে। সেক্ষেত্রে অক্সিজেট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। বিচারপতি ইনায়েতুর রহিম বলেন, এই ধরনের ডিভাইস নিয়ে পাবলিক ক্যাম্পেইন দরকার। আপনি (আইনজীবী) এ বিষয়ে স্বাস্থ্য সচিব ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে চিঠি দেন। আমাদের প্রধানমন্ত্রী ইনোভেটিভ মাইন্ডের। তার নজরে আনার জন্য মুখ্য সচিবকে চিঠি দেন।

দক্ষ নেতৃত্বে রাষ্ট্রের আমূল পরিবর্তন সম্ভব: মোঃ আনোয়ার হোসেন
                                  

স্টাফ রিপোর্টার: বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেছেন, “ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সুফল জনগণের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছাতে কর্মকর্তা- কর্মচারীদের দক্ষতা ও কর্মস্পৃহা নিয়ে কাজ করতে হবে। দক্ষ নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠান ও রাষ্ট্রের চেহারা পাল্টে যায়। ০৯টা-০৫ টা চাকুরি বড় কথা নয়। প্রতিদিন কি কাজ করলাম, কি অবদান রাখলাম, কোন কাজ অসমাপ্ত রাখলাম- সেগুলিই বিবেচ্য। ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নে প্রতিটি কাজ টাইম-বাউন্ড করতে হবে। আজ কাজ করার যে সুযোগ, কাল তা নাও থাকতে পারে।”

দীর্ঘ ৩৪ বছরের কর্মজীবনের বিদায় লগ্নে আজ মঙ্গলবার জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর আয়োজিত এক বিদায়ী সভায় তিনি একথা বলেন। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী, বিসিএসআইআর এর চেয়ারম্যান ড. মোঃ আফতাব আলী শেখ, বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মোঃ মোজাম্মেল হক, বঙ্গবন্ধু শেখমুজিবুর রহমান নভোখিয়েটারের মহাপরিচালক আব্দুর রাজ্জাক, এনআইবি এর মহাপরিচালক ড. মোঃ সলিমুল্লাহ, ব্যান্সডকের মহাপরিচালক মীর জহুরুল ইসলাম, বিআরআইসিএম এর মহাপরিচালক ড. মালা খান, জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের সাবেক মহাপরিচালক স্বপন কুমার রায়। উক্ত অনুষ্ঠানে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের শতাধিক কর্মকর্তা ও কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

এআর/ তুষার

 

জাতীয় বিজ্ঞান জাদুঘরে এরোনটিক্স প্রশিক্ষণ
                                  

স্টাফ রিপোর্টার: জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরে আজ বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ) বিমান উড্ডয়ন, পরিচালনা এবং ব্যবস্থাপনার  উপর এক বিশেষ প্রশিক্ষণ কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়। সংস্থার ২১ জন কর্মকর্তা-কর্মচারি এ প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেন। মালয়েশিয়া থেকে ডিগ্রীপ্রাপ্ত বাংলাদেশের তরুণ এরোনটিক্যাল প্রকৌশলী তানজিয়া রশীদ এবং অস্ট্রেলিয়া থেকে ডিগ্রীপ্রাপ্ত পাইলট সালেকীন তাজ এ প্রশিক্ষণ পরিচালনা করেন।

অনুষ্ঠানে বক্তৃতা প্রদান কালে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী বলেন,“বিজ্ঞান জাদুঘরের অনন্য সম্পদ ১৯৫২ সনের ইবধাবৎ বিমান দুটির ঐতিহাসিক গুরুত্ব আছে।এই বিমানগুলোর প্রতি শিক্ষার্থীদের আকর্ষণ বাড়ছে, যা’আগামীতে তরুণদের বিমান প্রকৌশলী ও বিজ্ঞানী হবার অনুপ্রেরণা যোগাবে। তবে যে কোন প্রতিষ্ঠানের সফলতা নির্ভর করে এর সম্পদ কত দক্ষতা এবং সততার সঙ্গে ব্যবহৃত হচ্ছে, নতুবা সব উন্নয়ন বা অর্জন ম্লান হয়ে যাবে। বিজ্ঞান জাদুঘরের প্রত্যেক কর্মীকে প্রযুক্তি বান্ধব এবং দর্শক বান্ধব হতে হবে,এর প্রতিটি সম্পদের সযত্ন ব্যবহার ও সুরক্ষার জন্য নৈতিক ও দায়িত্বশীল হতে হবে।”

 উল্লেখ্য, ১৯৫২ সনে কানাডায়  নির্মিত পরিত্যক্ত দুটি ইবধাবৎ বিমান সম্প্রতি সংস্কার ও আধুনিকীকরণ করে প্রদর্শনী উপযোগী করা হয়েছে। এগুলোর দক্ষ ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে এ প্রশিক্ষণের  আয়োজন করা হয়েছে। 

বিজ্ঞান জাদুঘরে আন্তর্জাতিক ক্যান্সার দিবস পালিত
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : আন্তর্জাতিক ক্যান্সার দিবস’ উপলক্ষে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরে সম্প্রতি এক সেমিনারের আয়োজন করেন। অনুষ্ঠানে মূল আলোচক ছিলেন জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইনস্টিটিউট হাসপাতালের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো: হাবিবুল্লাহ তালুকদার রাসকিন। তিনি বলেন, বছরে প্রায় ১ লাখ ৯ হাজার মানুষ ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যায়। শুধু চিকিৎসায় ক্যান্সার নিরাময় সম্ভব নয়। ক্যান্সার সম্পর্কে সচেতন হলে ক্যান্সার রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব। ক্যান্সার নিরাময়ের জন্য যে সব জিনিসকে ’না’ বলতে হবে, তা হলো তামাক, বাল্য বিবাহ, রেড মিট, জাঙ্ক ফুড, ফাস্ট ফুড ও আর্সেনিক যুক্ত পানি। যে সব ভালো দিকগুলো মেনে চলতে হবে, সেগুলো হলো শাক সবজি ও ফলমূল, পরিষ্কার পরিছন্নতা, কায়িক পরিশ্রম, ব্রেস্ট ফিডিং এবং ভেকসিন গ্রহণ। অনুষ্ঠানে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী বলেন, “আমাদের ভোগবাদী, অপচয়মুখী এবং অতি যান্ত্রিকতাময় অলস জীবন পরিহার করে পরিমিত জীবন যাপনে অভ্যস্ত হতে হবে। সৎ উপার্জন, মহান সৃষ্টি কর্তার আদেশ পালন এবং নৈতিক জীবন মেনে চললে ক্যান্সারসহ অনেক রোগব্যাধি থেকে বেঁচে থাক যায়।

বিজ্ঞান জাদুঘরে রোবট প্রযুক্তি মেলা
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী বলেন “প্রযুক্তির উদ্ভাবন দিয়ে বাংলাদেশকে এগুতে হবে। উদ্ভাবনের মাধ্যমে জন সেবার মান উন্নয়ন, সম্পদ আহরণ, পরিবেশ দূষণ নিয়ন্ত্রণ, খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ এবং কৃষি ও শিল্পখাতে উৎপাদনশীলতা বাড়িয়ে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনা যায়। ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নে তরুণ বিজ্ঞানীরা অগ্রসৈনিক। তবে প্রযুক্তির উৎকর্ষতার সঙ্গে নৈতিকতার সমন্বয় থাকতে হবে। নতুবা প্রযুক্তি অর্থহীন হয়ে যাবে।” গতকাল মঙ্গলবার রোবট বিষয়ক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। অনুষ্ঠানে রাজধানীসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা থেকে ১২ টি টিম মেলায় অংশগ্রহণ করে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন যুব কর্মসূচির প্রধান ও বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতির সহসভাপতি মুনীর হাসান, বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের রোবোটিক্স এন্ড মেটাটোনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রফেসর ড. নাফিফা জামান। মেলায় ১ম স্থান অধিকার করেন ঢাকা কলেজের দলনেতা সানি জুবায়ের সিগমা- এ ফায়ার ফাইটিং রোবট, ২য় স্থান অধিকার করেন চট্টগ্রাম গ্রামার স্কুল এর দলনেতা কাজী মোসতাহিদ লাবিব, ট্রান্সরোভার এবং ৩য় স্থান অধিকার করেন চট্টগ্রাম ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক কলেজের দলনেতা মিসবাহ্ উদ্দিন ইনান, ফিউচার ফাইড ট্রেন । অনুষ্ঠানে ১২টি প্রজেক্টের মাধ্যমে রোবটের প্রযুক্তিগত উদ্ভাবন প্রদর্শন করা হয়।

বিজ্ঞান জাদুঘরে আসছে আধুনিক প্রযুক্তির মিউজিয়াম বাস
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জগতে এবার সংযোজন হচ্ছে বিজ্ঞান জাদুঘরের অত্যাধুনিক মডেলের মিউজিয়াম বাস। প্রায় ১০ কোটি ৬২ লক্ষ টাকা ব্যয়ে এ বাসগুলো ‘ভ্রাম্যমাণ বিজ্ঞান জাদুঘর’ হিসেবে শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞান শিক্ষা প্রদানের কাজে ব্যবহৃত হবে। প্রতিটি আড়াই কোটি টাকার বেশী মূল্যমানের বাসে ১৫৮ ধরনের প্রদর্শনীবস্তু থাকবে, যেখানে থাকছে হিউমেনয়ড রোবট, হাইড্রো পাওয়ার মডেল, সিম্পল হারমোনিক মোশন, ভ্যান ডি গ্রাফ জেনারেটর, লজিক গেইট, নাম্বার কনভার্শন সিস্টেম, হিউমেন বডি মডেল ও শক্তিশালী ৩০টি অত্যাধুনিক কম্পিউটার। বাসগুলোর বডি ফেবরিকেশনের কাজ প্রায় শেষ হয়েছে। এখন যন্ত্রপাতি বসানোর কাজ চলছে বিজ্ঞান জাদুঘর ক্যাম্পাসে। এ প্রসঙ্গে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী বলেন, অনন্য প্রযুক্তি শৈলীতে নির্মিত ভ্রাম্যমাণ মিউজিয়াম বাস সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে মাইলফলক। মাধ্যমিক পর্যায়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিজ্ঞান শিক্ষার সীমাবদ্ধতা দূর করে বিনোদনের মাধ্যমে এগুলো বিজ্ঞান শিক্ষার উৎকৃষ্ট মাধ্যম হিসেবে অবদান রাখবে। তিনি বলেন, জাদুঘর কর্তৃপক্ষের সার্বক্ষণিক কঠোর নজরদারী ও নির্দেশনায় যূগোপযোগী করে এসব বাস নির্মিত হচ্ছে। আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন শেষে মুজিববর্ষকে স্মরণীয় করে সীমিত পরিসরে কোভিড স্বাস্থ্য বিধি মেনে ছোট ছোট অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিজ্ঞান শিক্ষার্থীদের জন্য ভ্রাম্যমাণ এ বাসগুলো চালু করা হবে।

বিজ্ঞান জাদুঘরে হাতে কলমে আগুন নেভানোর প্রশিক্ষণ
                                  

স্টাফ রিপোর্টার: ঘরে ঘরে গ্যাস দুর্ঘটনা, মানুষ পুড়ে ছাই হয়ে যাচ্ছে। রান্না শেষে গ্যাসের চুলা আমরা নিভাই না। চুলা নিয়মিত রক্ষণাবেক্ষণ করি না। নিম্নমানের চুলা ব্যবহার করি। অবৈধ গ্যাস সংযোগ ব্যবহার করি। বিল্ডিং কোড মানতে চাই না। নির্বিবেকে আইন ভেঙে সরকারকে দায়ী করি। সরকার একা কিছু করতে পারেনা। নাগরিক হিসেবে আমাদের অস্থিমজ্জায় ছড়িয়ে আছে আইন অমান্যতা। গ্যাসের চুলা বা সিলিন্ডার থেকে সৃষ্ট বিস্ফোরণ এবং অগ্নিকান্ড রোধে প্রযুক্তির ব্যবহার এখন সময়ের দাবি। প্রযুক্তির উদ্ভাবনে বিজ্ঞান জাদুঘর উদ্ভাবকদের অনুপ্রেরণা যোগাবে ও প্রণোদনা দেবে। আমরা এমন প্রযুক্তি দেখতে চাই, যা’ স্মার্ট ফোন বা সেন্সরের মাধ্যমে তাৎক্ষিণিক অগ্নিকান্ডের বার্তা দেবে এবং বাসিন্দাদের সতর্ক করবে। ফ্ল্যাটে ফ্ল্যাটে লাখ লাখ টাকা সার্ভিস চার্জ নেয়া হয়। তার একটি অংশ বাসিন্দাদের অগ্নি নিরাপত্তায় ব্যয় করা উচিত” সম্প্রতি জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরে “ঘরে ঘরে অগ্নি দুর্ঘটনার ঝুঁকিঃ সমাধানে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি” শীর্ষক অগ্নি নিরাপত্তা বিষয়ক এক প্রাণবন্ত সেমিনারে মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী এ কথা বলেন। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মো: মামুনুর রশীদ এ্যাডজুটেন্ট, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স ট্রেনিং কমপ্লেক্স। মূল প্রবন্ধের উপর আলোচনা করেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারি অধ্যাপক ড. মনন মাহবুব এবং শিল্প মন্ত্রণালয়ের উপ-প্রধান বয়লার পরিদর্শক প্রকৌশলী মো: জিয়াউল হক। কোভিড-১৯ স্বাস্থ্য বিধি মেনে অনুষ্ঠানে অংশ নেন শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবক এবং সরকারি কর্মকর্তারা। সেমিনারে শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকদের নিয়ে গ্যাস সিলিন্ডার থেকে আগুন ছড়ালে তা’ নিভানোর উপর হাতে কলমে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।


   Page 1 of 77
     তথ্য-প্রযুক্তি
তরুণদের মোবাইল আসক্তি থেকে বাঁচাতে হবে
.............................................................................................
‘আমার বাবা-মাকে সৎ দেখতে চাই’
.............................................................................................
চট্টগ্রামে বিজ্ঞান জাদুঘরের বর্ণাঢ্য বিজ্ঞান উৎসব
.............................................................................................
বিজ্ঞান জাদুঘরে জলবায়ু রক্ষার শপথ
.............................................................................................
দুর্নীতি দমনে প্রযুক্তির ব্যবহার অপরিহার্য: মুনীর চৌধুরী
.............................................................................................
জলবায়ু রক্ষায় সবুজ বাংলাদেশ গড়ার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের তাগিদ
.............................................................................................
বছরে দু’বার শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্রের রক্ষনাবেক্ষণ জরুরী
.............................................................................................
বিজ্ঞান শিক্ষায় বিপ্লব ঘটাতে পারে বিজ্ঞান জাদুঘর
.............................................................................................
এক বছরে ২৪৭৭ কোটি ডলার রেমিট্যান্স
.............................................................................................
বুয়েটের ‘অক্সিজেট’ ডিভাইস প্রধানমন্ত্রীর নজরে আনুন: হাইকোর্ট
.............................................................................................
দক্ষ নেতৃত্বে রাষ্ট্রের আমূল পরিবর্তন সম্ভব: মোঃ আনোয়ার হোসেন
.............................................................................................
জাতীয় বিজ্ঞান জাদুঘরে এরোনটিক্স প্রশিক্ষণ
.............................................................................................
বিজ্ঞান জাদুঘরে আন্তর্জাতিক ক্যান্সার দিবস পালিত
.............................................................................................
বিজ্ঞান জাদুঘরে রোবট প্রযুক্তি মেলা
.............................................................................................
বিজ্ঞান জাদুঘরে আসছে আধুনিক প্রযুক্তির মিউজিয়াম বাস
.............................................................................................
বিজ্ঞান জাদুঘরে হাতে কলমে আগুন নেভানোর প্রশিক্ষণ
.............................................................................................
বিজ্ঞান মনস্ক জাতি গঠনে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর: মহাপরিচালক
.............................................................................................
প্রযুক্তি দিয়ে দূষন নিয়ন্ত্রণের তাগিদ দিলো বিজ্ঞান জাদুঘর
.............................................................................................
শিক্ষার্থীদের প্রকৃতিবান্ধব জীবন চর্চার তাগিদ দিলেন মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী
.............................................................................................
বিজ্ঞান শিক্ষকতা চাকুরী নয়: সিঙ্গাইরে বললেন মুনীর চৌধুরী
.............................................................................................
মানুষের কাছে এখনও অজানা জাতীয় বিজ্ঞান জাদুঘর
.............................................................................................
ফ্রিল্যান্সারদের পরিচয়পত্র দেয়ার কার্যক্রম উদ্বোধন আজ
.............................................................................................
নড়াইলের সাদাত আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরস্কারে ভূষিত
.............................................................................................
বিজ্ঞান জাদুঘরে দুই মেধাবী প্রকৌশলীর সংবর্ধনা
.............................................................................................
বিজ্ঞান জাদুঘরে শেখ রাসেলকে স্মরণ: শূন্যতা পূরণ করবে তরুন মেধাবীরা
.............................................................................................
শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও বন্ধ হয়নি বিজ্ঞান চচা: মুনীর চৌধুরী
.............................................................................................
হেরে গেল মাইক্রোসফট, টিকটক কিনছে ওরাকল
.............................................................................................
বাংলাদেশের তথ্যের মান খুবই দুর্বল: বিশ্বব্যাংক
.............................................................................................
বিজ্ঞান জাদুঘরের উদ্যোগে এতিম শিশুদের মাঝে খাবার ও উপহার বিতরণ
.............................................................................................
বন্ধ হচ্ছে গুগল প্লে মিউজিক
.............................................................................................
ফ্রিল্যান্সারদের জন্য ‘সবচেয়ে কঠিন’ শহর ঢাকা
.............................................................................................
বিল গেটস, ওবামাসহ প্রভাবশালীদের টুইটার অ্যাকাউন্ট হ্যাক
.............................................................................................
চালক ছাড়াই চলবে গাড়ি
.............................................................................................
টিভি সেবা খরচ বাড়ালো ইউটিউব
.............................................................................................
রাজনীতিকদের পোস্টে ‘সম্ভাব্য ক্ষতিকারক’ লেবেল দেবে ফেসবুক
.............................................................................................
কখন হাত ধুঁতে হবে বলে দেবে ঘড়ি
.............................................................................................
ভার্চুয়াল স্নাতক ডিগ্রিধারীদের মালালার অভিনন্দন
.............................................................................................
হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীদের জন্য সুসংবাদ
.............................................................................................
মুজিববর্ষে একশ সার্ভিসে দশ কোটি মানুষকে সুবিধা দেয়া হবে-পলক
.............................................................................................
হুয়াওয়ে ৫ জি রায়ের সিদ্ধান্ত `কয়েকটি ভাল বিকল্প সহ`
.............................................................................................
১৬ বছরে পা রাখলো বাংলা উইকিপিডিয়া
.............................................................................................
তরুণ প্রজন্মকে প্রযুক্তির সাথে সম্পৃক্ত করে গড়ে তুলতে হবে : পলক
.............................................................................................
ফেসবুক এবং ইউটিউব মডারেটররা পিটিএসডি প্রকাশে স্বাক্ষর করেছেন
.............................................................................................
প্রযুক্তি হুমকিতে ফেলতে যাচ্ছে যে সাতটি পেশা
.............................................................................................
শিগগির রফতানিতে গার্মেন্টকে ছাড়াবে আইটি খাত : জয়
.............................................................................................
ডিজিটাল বাংলাদেশ মেলার উদ্বোধন করলেন জয়
.............................................................................................
স্যার ডেভিড অ্যাটেনবারো জলবায়ু `সঙ্কটের মুহুর্ত` সম্পর্কে সতর্ক করেছেন
.............................................................................................
প্রথমবারের মতো ৫জি ব্যবহারের সুযোগ আগামি-বৃহস্পতিবার
.............................................................................................
মিলিয়ন ডলার খরচ করে মহাকাশে যাচ্ছেন প্রথম যে পর্যটকরা
.............................................................................................
স্পেসএক্স আরও ৬০ টি স্টারলিঙ্ক উপগ্রহকে কক্ষপথে প্রেরণ করে
.............................................................................................

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মো: রিপন তরফদার নিয়াম
প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক : মফিজুর রহমান রোকন
নির্বাহী সম্পাদক : শাহাদাত হোসেন শাহীন
বাণিজ্যিক কার্যালয় : "রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল কমপ্লেক্স"
(৬ষ্ঠ তলা), ২৮/১ সি, টয়েনবি সার্কুলার রোড,
মতিঝিল বা/এ ঢাকা-১০০০| জিপিও বক্স নং-৫৪৭, ঢাকা
ফোন নাম্বার : ০২-৪৭১২০৮০৫/৬, ০২-৯৫৮৭৮৫০
মোবাইল : ০১৭০৭-০৮৯৫৫৩, 01731800427
E-mail: dailyganomukti@gmail.com
Website : http://www.dailyganomukti.com
   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop