ঢাকা, সোমবার , ১৩ আশ্বিন ১৪২৭ , ২৮ সেপ্টেম্বর , ২০২০ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : > করোনায় দেশে আরো ৩২ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১,২৭৫   > এক্সট্রাকশনের পর নেটফ্লিক্সের নতুন ছবিতে ক্রিস হেমসওয়ার্থ   > ঠাকুরগাঁওয়ে সুরক্ষা সামগ্রী ও স্বাস্থ্য উপকরণ বিতরণ   > বিনামূল্যে গ্রামীন জনপদের প্রান্তিক মায়েরা পাচ্ছে জরায়ু ও স্তন ক্যান্সার নির্ণয়ের সেবা   > বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্বপাড়ে বাঁধের পুনঃনির্মাণ কাজ শেষ না হতেই ভাঙন   > টাঙ্গাইলে গৃহবধূর আত্মহত্যা!   > নীলফামারীতে ভিটামিন"এ" ক্যাম্পেইন সাংবাদিক ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা   > সাংগুতে বিপুল পরিমান ইয়াবা উদ্ধার করেছে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড   > মোংলায় বিশ্ব নদী দিবস পালন   > বৌদ্ধবিহারে বিশ্ববিদ্যালয় পুন:প্রতিষ্ঠার দাবি  

   অপরাধ জগত -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
পানগাঁও কাষ্টম কর্তৃক ৩২ লক্ষ টাকার শুল্ক ফাঁকি উৎঘাটন

স্টাফ রিপোর্টার : পানগাঁও কাষ্টমস হাউসের মাধ্যমে চায়না থেকে আমদানীকৃত একটি পণ্য চালানে কাষ্টমস কর্তৃক ৩২ লক্ষ টাকার শুল্ক ফাঁকি উৎঘাটিত হয়েছে। কাষ্টমস সূত্র মতে M/s. N. Rayhan Plastic Shop নামের আমদানীকারক B/E No. 1728 dated 20.09.2020 এর মাধ্যমে ফ্যান- মোটর ঘোষণায় একটি পণ্য চালানে প্রায় ২৯ মে. টন এর শুল্ক ফাঁকি কাষ্টমস কর্তৃক উৎঘাটিত হয়েছে। যাতে জাতীয় শুল্ক করাদি ফাঁকির পরিমাণ প্রতিরোধ করা হয়েছে প্রায় ৩২ লক্ষ টাকা। এ ছাড়া উক্ত ৩২ লক্ষ টাকা ও জরিমানা বাবদ অন্যান্য প্রযোজ্য শুল্ককরাদিসহ আনুমানিক ৯০ লক্ষ টাকা সরকারি কোষাগারে অতিরিক্ত আদায় হবে মর্মে কাষ্টমস সূত্রে জানা গেছে।
প্রসঙ্গতঃ উল্লেখ্য যে, বর্তমানে কাষ্টম হাউস কমলাপুর (ICD) ঢাকা এর কমিশনার মোবারা খানম অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসাবে কাষ্টম হাউস (ICT) পানগাঁও, ঢাকা এর কমিশনারের দায়িত্ব পালন করছেন।

পানগাঁও কাষ্টম কর্তৃক ৩২ লক্ষ টাকার শুল্ক ফাঁকি উৎঘাটন
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : পানগাঁও কাষ্টমস হাউসের মাধ্যমে চায়না থেকে আমদানীকৃত একটি পণ্য চালানে কাষ্টমস কর্তৃক ৩২ লক্ষ টাকার শুল্ক ফাঁকি উৎঘাটিত হয়েছে। কাষ্টমস সূত্র মতে M/s. N. Rayhan Plastic Shop নামের আমদানীকারক B/E No. 1728 dated 20.09.2020 এর মাধ্যমে ফ্যান- মোটর ঘোষণায় একটি পণ্য চালানে প্রায় ২৯ মে. টন এর শুল্ক ফাঁকি কাষ্টমস কর্তৃক উৎঘাটিত হয়েছে। যাতে জাতীয় শুল্ক করাদি ফাঁকির পরিমাণ প্রতিরোধ করা হয়েছে প্রায় ৩২ লক্ষ টাকা। এ ছাড়া উক্ত ৩২ লক্ষ টাকা ও জরিমানা বাবদ অন্যান্য প্রযোজ্য শুল্ককরাদিসহ আনুমানিক ৯০ লক্ষ টাকা সরকারি কোষাগারে অতিরিক্ত আদায় হবে মর্মে কাষ্টমস সূত্রে জানা গেছে।
প্রসঙ্গতঃ উল্লেখ্য যে, বর্তমানে কাষ্টম হাউস কমলাপুর (ICD) ঢাকা এর কমিশনার মোবারা খানম অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসাবে কাষ্টম হাউস (ICT) পানগাঁও, ঢাকা এর কমিশনারের দায়িত্ব পালন করছেন।

টাঙ্গাইলে ট্রান্সফর্মারের ভিতরে ফেন্সিডিল পাঁচার, আটক ২
                                  

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলে বৈদ্যুতিক ট্রান্সফর্মারের ভিতরে অভিনব কায়দায় ফেন্সিডিল পাঁচারের সময় মিজান ও শফিক নামে দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব-১২। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে শহরের রাবনা বাইপাস এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। এ সময় ট্রান্সফর্মারের ভিতর থেকে বিপুল পরিমাণ ফেন্সিডিল উদ্ধার করে র‌্যাব। এছাড়াও জব্দ করা হয়েছে পিক আপ ভ্যানটিও।
আটক মিজানুর রহমান দিনাজপুর জেলার হাকিমপুর উপজেলার ছাতিনী রায় পাড়া গ্রামের নুর হোসেন কাজীর ছেলে এবং শফিক উদ্দিন নরসিংদী জেলার মনোহরদী উপজেলার খিদিরপুর গ্রামের শাহাব উদ্দিনের ছেলে। সিরাজগঞ্জ র‌্যাবের কোম্পানি কমান্ডার সহকারি পুলিশ সুপার মহি উদ্দিন মিরাজ ও টাঙ্গাইল র‌্যাবের কোম্পানি কমান্ডার সহকারি পুলিশ সুপার কিশোর রায়ের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়।
র‌্যাব জানায়, দিনাপুরের হিলি থেকে পিক-আপ ভ্যানে ট্রান্সফর্মারের ভিতর ফেন্সিডিল নিয়ে দুই মাদক ব্যবসায়ী মিজান ও শফিক ঢাকা যাচ্ছিলো। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিরাজগঞ্জ ও টাঙ্গাইল র‌্যাবের একটি দল মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের রাবনা বাইপাস এলাকা থেকে পিকআপ ভ্যানটি আটক করে। এ সময় ট্রান্সফর্মারের ভিতর থেকে ৫২০ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়। আটক করা হয় মাদক ব্যবসায়ী মিজান ও শফিককে।

রামগতিতে ৬ জেলে আটক
                                  

রামগতি (লক্ষীপুর) প্রতিনিধি : লক্ষীপুরে রামগতির মেঘনা নদীতে অবৈধ কারেন্ট জাল দিয়ে মাছ শিকার করার দায়ে ৬ জেলেকে আটক করেছে নৌ-পুলিশ। এ সময় ৫ হাজার মিটার কারেন্ট জাল ও দুইটি নৌকা জব্দ করা হয়। গত রবিবার মেঘনা নদীর জারির দোনা ঘাটসহ বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আটকৃতরা হলো, নোয়াখালী জেলার সুবর্ন চরের চর জব্বর এলাকার বাসিন্দা আজিরন ব্যাপারীর ছেলে মো. মনির হোসেন (৪৫), একই এলাকার মনু মাঝির ছেলে মো. জাফর(২৫), মো. শাহজান মালের ছেলে মো. জাহের(১৯), অলিউর রহমানের ছেলে মো. রফিক (৪৫) ।
এ বিষয়ে বড়খেরী নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ও পুলিশ পরিদর্শক মো. কামরুজ্জামান বলেন, নদীতে কারেন্ট জালের ব্যবহার ও জাটকা ইলিশ শিকার বন্ধে এ অভিযান চালানো হয়। এ সময় অবৈধ কারেন্ট জাল দিয়ে মাছ শিকার করার দায়ে তাদের মেঘনা নদীর বিভিন্ন এলাকা থেকে আটক করা হয়। আটককৃতদের জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

পিবিআই এর অভিযানে অপহৃত আজিজ উদ্ধার, গ্রেফতার ৩
                                  

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থেকে এক মাস আগে অপহৃত হওয়া আব্দুল আজিজকে উদ্ধার করেছে নারায়ণগঞ্জ পিবিআই। গ্রেফতার করেছে ৩ অপহণরকারী লিপি আক্তার, রবিন ও সুমনকে। আজ শনিবার দুপুরে সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় অবস্থিত নারায়ণগঞ্জ পিবিআই কার্যালয়ে উপস্থিত সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম পিপিএম। দুই লাখ টাকা মুক্তিপণের জন্য আব্দুল আজিজকে অপহরণ করে বলে পুলিশ জানায়।

জানা যায়, সোনারগাঁ এলাকার আব্দুল আজিজ (২১) গত ৪ আগষ্ট বাসা থেকে বের হওয়ার পর থেকে তার কোন খোঁজ নেই। এ ঘটনায় পরিবার সোনারগাঁ থানায় জিডি করেন। এরপর আব্দুল আজিজের কোন হদিস নেই পরিবারের কাছে। গত বৃহস্পতিবার অপহৃত আব্দুল আজিজের ভাই মাছুম পিবিআইকে জানায়, অপহরণকারীদের ২ লাখ টাকা প্রদান না করলে তার ভাই আজিজকে খুন করে ফেলবে। এমন অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ সুপার অপহৃত ব্যক্তিকে উদ্ধার এবং আসামীদের গ্রেফতার করতে পুলিশ পরিদর্শক মোহাম্মদ নাছিরউদ্দিন সরকারকে দায়িত্ব দেয়। এরপর ব্যাপক অনুসন্ধ্যান করে পুলিশ জানতে পারে আব্দুল আজিজের স্বজনদের কাছ থেকে বিভিন্ন সময়ে ১৫ হাজার টাকা বিকাশের মাধ্যমে নিয়েছে অপহরণকারীরা। এরপর অপহরণকারীরা ২ লাখ টাকা দাবি করে আজিজের স্বজনদের কাছে। সময়মত টাকা না দিলে আজিজকে হত্যা করা হবে বলে হুমকি দেয় অপহরণকারীরা।

পিবিআই পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম (পিপিএম) এর নির্দেশে এক শ্বাসরুদ্ধকর অভিযান পরিচালনা করে মাত্র ৬ ঘন্টার মধ্যে এক মাস পূর্বে অপহৃত আব্দুল আজিজকে অপহরনকারী রবিন এর ঢাকা শহরের উত্তর বাড্ডাস্থ বাসা থেকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করে এবং রবিনকে আটক করে। এরপর রবিনের তথ্য অনুযায়ী সুমন ও উক্ত ঘটনার মূল হোতা লিপি আক্তারকে মাদারীপুর জেলার শিবচর থানাস্থ মির্জাচর এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। তদন্তকারী কর্মকর্তা নাছির উদ্দিন জানায়, অপহরণকারীরা ঘটনার কথা স্বীকার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা মাদক ব্যবসাসহ নানা অপকর্মে জড়িত। তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় মামলা রয়েছে। তিনি আরও জানান, আসামী ৩ জনকে সোনারগাঁ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

লক্ষ্মীপুর মাতৃমঙ্গলে ডেলিভারী চিকিৎসা না দিয়ে স্বজনের সাথে ডাক্তারের দূর্ব্যবহার
                                  

নজরুল ইসলাম দীপু : বিভিন্ন সময়ে অনিয়ম ও টেষ্ট বানিজ্যের পর এবার প্রসূতী মা কে জরুরী চিকিৎসা (ডেলিভারী) না করে রোগীর স্বজনদের সাথে দুর্ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে লক্ষ্মীপুর মা ও শিশু কল্যান কেন্দ্রের (মাতৃমঙ্গল) মেডিকেল অফিসার ডা: হ্যাপী কর্মকারের বিরুদ্ধে। ২৪ ঘন্টার মাতৃত্ব সেবা দেওয়ার কথা থাকলেও শুধুমাত্র ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন ছাড়া আল্টাসনোগ্রাফী না করার অভিযোগে রোগীকে তাড়িয়ে দেন হাসপাতাল থেকে। সেবা না পেয়ে পরে ওই দিনই স্থানীয় একটি হাসপাতালে মা হন ওই রোগী। এর আগে মা ও শিশু কল্যান কেন্দ্রের ভিজিটর ও ডাক্তারদের বিরুদ্ধে টেষ্ট বাণিজ্য ও রোগী হয়রানীর অভিযোগ বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার দুপুরে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চর রমনী মোহন ইউনিয়নের রোজিনা নামে এক জরুরী প্রসূতী মায়ের ডেলিভারীর জন্য মা ও শিশু কল্যান কেন্দ্রের মেডিকেল অফিসার ডা: হ্যাপী কর্মকারের নিকট আসলে তার প্রেসক্রিপশন ছাড়া আল্টাসনোগ্রাফী টেষ্ট করায় রোগীকে সেবা দিয়ে রোগীর স্বজনের সাথে দুর্ব্যবহারের অডিও রেকর্ড প্রতিবেদকের কাছে এসে পৌছেছে। অডিও রেকর্ডের কথোপকথন পাঠকের জন্য হুবুহু তুলে ধরা হলো।

রোগীর স্বজন: ম্যাডাম সমস্যা হয়েছে কি, ওর ডেট ওভার হয়ে গেছিল।

ডাক্তার: আল্ট্রা করাইতে কে বলছিল?

রোগীর স্বজন: আগে আল্ট্রা টা করাইছি যাতে রিপোর্টটা দেখাইতে সুবিধা হয়। ও তো ডাক্তার দেখায়নাই। শুধু আল্ট্রা টা করছে জনসেবাতে।

ডাক্তার: এখন অফিস বন্ধ, তুমি বাইরে যাও। আমি আজকে ওকে দেখবো না। এটা সম্ভব না। কেউ আল্ট্রা করে পাঠালো, সেটা আমি দেখবো। আমাকে তুমি ডিজঅনার করতেছো। আমি তো ডাক্তার।

রোগীর স্বজন: না না, ম্যাডাম সমস্যা হইছে কি আমি আপনাকে একটু আমার কথাটা শুনাই।

ডাক্তার: না না আমি তোমার কথা শুনবো না, আমি তোমার কথা শুনতে বাধ্য না। ও তো আমার রোগী না। ও রুনা আপার রোগী। রুনা আপার সাথে গিয়ে কথা বলো। কেনো তুমি এটা তো রুনা ম্যাডামকে দেখাইছিলা।

রোগীর স্বজন: এটা তো প্রাইভেটে আগে দেখাইছি।

ডাক্তার: এখন দেখাও গিয়ে! সমস্যা কি?

রোগীর স্বজন: আগে প্রাইভেটে দেখছে বলে আপনারা দেখবেন না?

ডাক্তার: দেখবো, কেনো তুমি অফিস টাইমে আসছো? টিকিট কাটছো? হাসপাতালে এসে? রেজিষ্ট্রেশন নাম্বার নিছো? আমি লিখে দিছি আল্ট্রা টা? অযথা আল্ট্রা করে আসছো। তাহলে কেন দেখবো? তোমার বাসায় যদি তুমি আমাকে দাওয়াত না দাও, আমাকে যদি পারমিশন না দাও, আমি কি যাবো? তোমার বাসায়?

রোগীর স্বজন: না না আপনার কথা তো অবশ্যই শোনা... সমস্যা হচ্ছে ওকে আমি পাঠাইছি মাতৃমঙ্গলে আসার জন্য।

ডাক্তার : ও মাতৃমঙ্গলে আসছে, ও কি টিকেট নিছে? রেজিষ্ট্রেশন নাম্বার দিছে? ও চেক আপ করছে? ও চেক আপ করার পর আমার রুমে আসছে? ও কে আমি দেখছি? যে ওর কি লাগবে? আল্ট্রা লাগবে না কি লাগবে? তুমি গিয়ে আল্ট্রা করে আসছো তাহলে তুমি ওদের গিয়ে দেখাও। ওরা ডাক্তারের ব্যবস্থা করে দিবে। আর এখন তো অফিস টাইম না। সব কিছুর একটা সিষ্ট্রেম আছে, লিগ্যালিটি আছে, লয়ালিটি আছে।

রোগীর মা: রাগ কইরেন না আপা রাগ কইরেন না। আমরা জানি না।

ডাক্তার: এই রিক্সা ডাকো তো (স্টাফকে)

রোগীর মা: আমরা ভুল কইরালাইছি।

ডাক্তার: যাও যাও, আমি তোমাদের জন্য বসে থাকিনাই। আমি আমার অফিসের কাজের জন্য বসে আছি। ...

ভূক্তভোগী রোজিনার স্বজন অভিযোগ করে বলেন, গত ২৭ আগস্ট সকালে ডেলিভারী ব্যাথা শুরু হলে রোজিনাকে লক্ষ্মীপুর মা ও শিশু কেন্দ্রে নিয়ে আসি। এর ১২ দিন পূর্বে ডেলিভারী তারিখ ছিল। কিন্তু ডেলিভারী তারিখ অতিক্রম হওয়ায় আসার সময় নিজ উদ্যোগেই একটি আল্ট্রাসনোগ্রাফী টেষ্ট করিয়ে নিয়ে আনি। হাসপাতালে প্রায় ১ ঘন্টার বেশি সময় বসে থাকার পর ডাক্তার হ্যাপী কর্মকারের স্বাক্ষাৎ পেতে তার রুমে যাই। ডাক্তারকে রিপোর্ট ফাইল দেওয়ার সাথে সাথে উনি (ডাঃ হ্যাপী কর্মকার) ফাইলটি ছুঁড়ে ফেলে দেন। পরে আমাদের সাথে দূর্ব্যবহার করে রুম থেকে বের করে দেন। পরে নিরুপায় হয়ে স্থানীয় একটি প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে গেলে ঘন্টাখানেক পরে বাচ্চা দুনিয়ায় আসে।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ডা: হ্যাপী কর্মকার মুঠোফোনে বলেন, এধরনের কোনো ঘটনা ঘটেছে কিনা আমার জানা নেই। এটি সত্য নয়। এমন ঘটলে অভিযোগ করতে বলেন রোগীকে। তবে রোগী ও ফাইলপত্র নিয়ে সাংবাদিকদের অফিসে গিয়ে কথা বলতে বলেন তিনি।

জরুরী মাতৃত্ব সেবা কেন্দ্র হিসেবে পরিচিত মাতৃমঙ্গল হাসপাতালে ডেলিভারী ও জরুরী অপারেশন রোগীদের জন্য ২৪ ঘন্টা সেবা চালু থাকলেও এবং এসকল রোগীদের কোন আউটডোর টিকিট ব্যবস্থা না থাকলেও রোজিনাকে অফিস সময়, টিকিট ও টেষ্ট করাইছিলো কেন সে অজুহাতে চিকিৎসা সেবা না দেওয়ার প্রসঙ্গে জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক ডা: আশফাকুর রহমান মামুন বলেন, বিষয়টি কারো কাম্য নয়। রোগীকে সেবা দেওয়া যেতো। সাম্প্রতিক বিষয় নিয়ে উর্ধতন কর্তৃপক্ষ তদন্ত করছেন।

ডা. সাবরিনার বিরুদ্ধে ইসির মামলা
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক: প্রথম জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) তথ্য গোপন করে দ্বিতীয় এনআইডি করায় জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের বরখাস্ত চিকিৎসক ডা. সাবরিনা শারমিন ওরফে সাবরিনা আরিফ চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। গতকাল রোববার (৩০ আগস্ট) রাজধানীর বাড্ডা থানায় মামলাটি করেন গুলশান থানা নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ মমিন মিয়া।

মামলার বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. পারভেজ ইসলাম।


তিনি বলেন, ‘বিষয়টি সত্য। গতকাল মামলা করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে যে, প্রথম জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য গোপন করে দ্বিতীয় জাতীয় পরিচয়পত্র করেছেন তিনি।’

করোনাভাইরাস পরীক্ষা নিয়ে জেকেজি হেলথ কেয়ারের জালিয়াতির ঘটনায় দায়ের হওয়ায় মামলায় প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা ও তার স্বামী প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী আরিফুল হক চৌধুরী গ্রেফতার হয়ে কারাগারে আছেন। ওই মামলায় তাদের বিচার চলছে।

ইসি সূত্র জানায়, ডা. সাবরিনার দুই এনআইডিতে দুই স্বামীর নাম উল্লেখ আছে। একটি এনআইডির চেয়ে অন্যটিতে বয়স কম দেখানো হয়েছে। বর্তমান তার দুটি এনআইডিই সক্রিয়। দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) বিষয়টি টের পাওয়ার পর বিস্তারিত জানতে ইসির কাছে তথ্য চেয়েছে।

সূত্র আরও জানায়, ডা. সাবরিনা ২০১৬ সালের ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময় দ্বিতীয়বার ভোটার হন। তিনি প্রথমে ভোটার হন সাবরীনা শারমিন হোসেন নাম দিয়ে। এর একটিতে জন্মতারিখ ১৯৭৮ সালের ২ ডিসেম্বর। অন্যটিতে ১৯৮৩ সালের ২ ডিসেম্বর। দুটি আইডিতে বয়সের ফারাক পাঁচ বছর।

একটিতে স্বামীর নাম হিসেবে ব্যবহার করেছেন আর. এইচ. হক। আর দ্বিতীয়টিতে স্বামীর নাম লেখা হয়েছে আরিফুল চৌধুরী। একটিতে বাবার নাম সৈয়দ মুশাররফ হোসেন ও মায়ের নাম কিশোয়ার জেসমীন। অপরটিতে মা-বাবার নাম সৈয়দ মুশাররফ হুসেন ও জেসমিন হুসেন দিয়েছেন।

দুই এনআইডিতে দুই ঠিকানা ব্যবহার করছেন ডা. সাবরিনা। একটিতে মোহাম্মদপুরের পিসিকালচার হাউজিং সোসাইটির ঠিকানা, অন্যটিতে বাড্ডা এলাকার প্রগতি সরণির আনোয়ার ল্যান্ডমার্কের ঠিকানা ব্যবহার করা হয়েছে।

জানা গেছে, ২০১০ সালের জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন আইনের ১৪ ও ১৫ ধারায় নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে এ মামলা দায়ের করা হয়েছে। ১৪ ধারায় মিথ্যা তথ্য দেয়ার অভিযোগ প্রমাণিত হলে সর্বোচ্চ এক বছরের কারাদণ্ড এবং ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড হতে পারে ডা. সাবরিনা। আর ১৫ ধারায় একাধিক জাতীয় পরিচয়পত্র নেওয়ার অভিযোগ প্রমাণিত হলেও একই শাস্তি হতে পারে।

এদিকে করোনাকাণ্ডে গ্রেফতার রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান সাহেদ করিম ওরফে মোহাম্মদ সাহেদের এনআইডি স্থগিত করে ইসি। তিনি নিজের নাম সংশোধন করে ‘সাহেদ করিম’ থেকে ‘মোহাম্মদ সাহেদ’ হয়ে যান। মিথ্যা তথ্য দিয়ে এ কাজ করায় সে ঘটনাটিরও তদন্ত চলছে।

এমটি/ এসএইচ

কয়েদি পালিয়ে যাওয়ায় তিন কারারক্ষী বরখাস্ত
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক: পুরান ঢাকার স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (মিটফোর্ড) চিকিৎসাধীন থাকা মাদক মামলার আসামি মিন্টু মিয়া (২৮) পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার জন্য তিন কারারক্ষীকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছে কারাগার কর্তৃপক্ষ।

শনিবার (২৯ আগস্ট) ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার ইকবাল কবীর চৌধুরী এ তথ্য জানান।


তিনি বলেন, চিকিৎসাধীন কয়েদি পালানোর ঘটনার পরপরই দায়িত্বে অবহেলার জন্য দায়িত্বরত তিন কারারক্ষীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ তিনজন হলেন সহকারী প্রধান কারারক্ষী মোবারক মিয়া, কারারক্ষী কামরুল ইসলাম ও আব্দুল আলীম।

এর আগে ভোর সাড়ে ৪টার দিকে কারারক্ষীদের পাহারায় মিটফোর্ড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় আসামি মিন্টু মিয়া পালিয়ে যান। পরে দুপুরে হাসপাতালের নিকটস্থ বাবুবাজার ব্রিজের নিচ থেকে হাতকড়া পরা অবস্থায় তাকে পাকড়াও করে কারা কর্তৃপক্ষ।

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের কারাধ্যক্ষ মাহবুবুল ইসলাম বলেন, দুপুর ২টায় কারারক্ষীরাই তাকে হ্যান্ডকাফ পরা অবস্থায় আটক করেন। তিনি বাবুবাজার এলাকায় হ্যান্ডকাফ পরে ঘোরাঘুরি করছিলেন, এমন তথ্য পেয়ে তাকে ব্রিজের নিচ থেকে আটক করা হয়।

মিন্টু মিয়া টাঙ্গাইলের গোপালপুর থানার মাদক মামলার আসামি। এর আগেও তিনি শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। আবার অসুস্থ হয়ে পড়ায় তাকে মিটফোর্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।


এর আগে চলতি মাসের শুরুতে গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে আবু বক্কর ছিদ্দিক নামে এক কয়েদি পালিয়ে যান। ঘটনার পরপরই কয়েকজন কারারক্ষীর বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয় কারা কর্তৃপক্ষ।

এমটি/ এসএইচ

নারায়ণগঞ্জ পাসপোর্ট অফিসে অভিযান, ৭ দালাল গ্রেফতার
                                  

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : নারায়ণগঞ্জের জালকুড়িতে অবস্থিত আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সামনে থেকে দালাল চক্রের ৭ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। গত মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) বেলা ১২টায় গোয়েন্দা পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে, আল আমিন, জিসান, মাসুদুর রহমান , আফজাল ইসলাম ওরফে পারভেজ, আনিসুজ্জামান রাশেদ, রিয়াদ হোসেন, মেহেদী হাসান।

বিকেলে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ডিবি পুলিশের কর্মকর্তারা। এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহেদ পারভেজ বলেন, পাসপোর্ট অফিসের সামনে থেকে দালাল চক্র নির্মূল করার লক্ষ্যে আমরা অভিযান পরিচালনা করেছি। এসময় অফিসের আশপাশ থেকেই ৭ দালাল সদস্যকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি। এরা বিভিন্ন ডাক্তার ও উর্ধতন কর্মকর্তাদের সিল জাল করে তা ব্যবহার করে আসছিলো।

তিনি আরও বলেন, ডিবির এসআই খোকন চন্দ্র সরকারের নেতৃত্বে পরিচালিত অভিযানে ৫টি পাসপোর্ট, ২টি ল্যাপটপ, ২টি ডেস্কটপ, ১টি প্রিন্টার, ২টি ভুয়া সিল ও নগদ ৭৭ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। সিল দুটি দুজন সরকারি ডাক্তারের নাম লেখা থাকলেও আমরা জেলা সিভিল সার্জনের মাধ্যমে নিশ্চিত হয়েছি এই নামে কোন ডাক্তার নারায়ণগঞ্জে কর্মরত নেই।

১৯ মাস পর শাকিল হত্যার রহস্য উদঘাটন, গ্রেফতার ৩
                                  

এ এইচ ইমরান, নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জের সোনার গায়ের শাকিল (১৮) হত্যাকান্ডের রহস্য উদগাটন করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। দীর্ঘ ১৯ মাস পর ক্লু ল্যাস এ হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন হয়। এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ৩ জনকে আটক করা হয়। আটককৃতদের তথ্য অনুযায়ী অটোরিক্সা, মোবাইল ফোন সেট উদ্ধার করা হয়। মূলত অটো রিক্সা ছিনতাই করতেই শাকিলকে হত্যা করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে সিদ্ধিগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় অবস্থিত নারায়ণগঞ্জ পিবিআই কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার মনিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।
জানা যায়, আড়াইহাজার থানার বালিয়াপাড়া এলাকার আবু বক্কও সিদ্দিকের ছেলে শাকিল অটোরিক্সাসহ নিখোজ হয়। এ সময় অজ্ঞাতনামা আসামীরা শাকিলকে হত্যা করে তার অটোরিক্সা ও মােবাইল ফোন সেট নিয়ে যায়। পরবর্তীতে শাকিলের লাশ সোনারগা থানার গজারিয়া এলাকা থেকে পুলিশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় শাকিলের ছোট ভাই সজিব বাদি হয়ে গত ২০১৮ সালের ১৩ নভেম্বর অজ্ঞাতনামা আসামীদের বিরুদ্ধে সোনারগাঁ থানার মামলা দায়ের করে। পরবর্তীতে পুলিশ হেড কোয়ার্টারের নির্দেশে মামলাটি ২০১৯ সালের জানুয়ারী মাসে পিবিআই নারায়ণগঞ্জে হস্তান্তর করা হয়। এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নিযুক্ত করা হয় পরিদর্শক আলী আকবর হোসেনকে। তদন্তকারী কর্মকর্তা তথ্য প্রযুক্তি ও স্থানীয় সূত্রকে কাজে লাগিয়ে শাকিলের ব্যবহৃত মোবাইল ফোন সেট উদ্ধার করে। মোবাইল ফোন বিক্রেতা আমিনুল ইসলাম ও মোঃ আরিফ চৌধুরীকে রূপগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের তথ্যের ভিত্তিতে শাকিলের ব্যবহৃত অটোরিক্রাটি মো. আরব আলীর কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারকৃত ৩ আসামী শাকিলকে হত্যা করে অটোরিকআস ও মোবাইাল ফোনসেট চিনিয়ে নেয়অর কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে।
এ বিষয়ে পিবিআই নারায়ণগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার জনাব মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম (পিপিএম) জানান, অপরাধ তদন্তে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি অবলম্বন করায় পিবিআই এখন সাফল্যের শীর্ষে অবস্থান করছে। উপরন্তু পিবিআই নারায়ণগঞ্জ জেলায় একটি ক্রাইমসিন ভ্যান যুক্ত হওয়ায় খুন, ডাকাতি, ধর্ষণসহ চাঞ্চল্যকর মামলার রহস্য উদ্ঘাটনে নব দিগন্তের সূচনা করবে এবং পিবিআই এর সাফল্যের ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সন্ধান মেলেনি কারাগার থেকে পালানো কয়েদির
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : দিনের আলোয় গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারের ১৮ ফুট উঁচু সীমানাদেয়াল টপকে পালিয়েছেন যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত বন্দি আবু বকর সিদ্দিক। কঠোর নিরাপত্তার চাদরে মোড়ানো কারাগারের দেয়াল টপকাতে তিনি মই ব্যবহার করেন বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সূত্র। অথচ কারাগারটির চার কোনায় অনেক উঁচুতে স্থাপিত পর্যবেক্ষণ টাওয়ারে সর্বক্ষণ রয়েছে নিরাপত্তা প্রহরী। ভেতরের উন্মুক্ত স্থানে কে কী করছে তা সহজেই চোখে পড়ে তাদের। কিন্তু সবার চোখ ফাঁকি দিয়ে বেরিয়ে গেছেন আবু বকর। গতকাল বুধবার পর্যন্ত তাঁকে খুঁজে পায়নি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বা কারা কর্তৃপক্ষ।

এদিকে বন্দি আবু বকরের পালিয়ে যাওয়ার ঘটনা তদন্তে গঠিত তিন সদস্যর কমিটিতে আরো দুজন যুক্ত হয়েছেন। এ কারণে আগে বেঁধে দেওয়া তিন দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়নি কমিটি। আইজি (প্রিজন্স) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম মোস্তফা কামাল পাশা বলেন, ‘তদন্ত কমিটিতে আরো দুজন যুক্ত হওয়ায় তদন্ত রিপোর্ট দিতে দেরি হচ্ছে।’ আজ বৃহস্পতিবার কাঙ্ক্ষিত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, তদন্ত কমিটি ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরা থেকে বকরের পালিয়ে যাওয়ার পুরো চিত্র পেয়েছে। এরই মধ্যে দায়িত্বে অবহেলার কারণে ১২ জন কারারক্ষীর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। কারা সূত্র জানায়, কারাগারের ভেতরে বিভিন্ন কাজ করার জন্য ল্যাডার (মই) রয়েছে। আবু বকর সেই মই দিয়ে অনেকবার বিদ্যুতের কাজ করেছেন।

ঘটনার দিন দুপুরের পর তিনি মইটি নিয়ে অনেকের চোখের সামনে দিয়েই সীমানাপ্রাচীরের দিকে যান। তখন তিনি কোনো কাজে যাচ্ছেন ভেবে কেউ কিছু বলেনি। তাঁকে পাহারাও দেননি কোনো কারারক্ষী। এই সুযোগে মই লাগিয়ে সহজেই তিনি উঠে যান দেয়ালের ওপর। পরে লাফ দিয়ে বাইরের দিকে নেমে পালিয়েও যান। সন্ধ্যায় লক-আপ করার সময় বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নজরে আসে।

গত ৬ আগস্ট গাজীপুরের কাশিমপুর-২ কারাগার থেকে এভাবে পালিয়ে যান বন্দি আবু বকর। এরপর অতিরিক্ত আইজি (প্রিজন্স) কর্নেল আবরার হোসেনকে প্রধান করে তিন সদস্যর তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিতে রয়েছেন ডিআইজি প্রিজন্স তৌহিদুল ইসলাম ও একজন জেলার।

জঙ্গিদের হামলার টার্গেট ছিল হজরত শাহজালাল মাজার : সিটিটিসি প্রধান
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : পুলিশের কাউন্টার অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান মরিুল ইসলাম জানিয়েছেন, গ্রেপ্তারকৃত জঙ্গিদের হামলার টার্গেট ছিলো সিলেটের হজরত শাহজালাল (রহ.) মাজার। এই হামলার পরিকল্পনা ব্যর্থ হওয়ায় নব্য জেএমবির সদস্যরা রাজধানীর পল্টন ও নওগাঁর সাপাহারে বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়েছিল। সিলেটে নব্য জেএমবির পাঁচ সদস্যকে গ্রেপ্তারের পর আজ বুধবার সাংবাদিক বৈঠক ডেকে এসব তথ্য জানান ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মো. মনিরুল ইসলাম। ঈদের আগে ঢাকার পল্টনে পুলিশের মোটরসাইকেলে বোমা রাখার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে তাদেরকে সিলেট গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছে, শেখ সুলতান মোহাম্মদ নাইমুজ্জামান, সায়েম মির্জা, রুবেল আহমেদ, সানাউল ইসলাম সাদিক ও আব্দুর রহিম জুয়েল।
সিটিটিসি এবং পুলিশ সদরদপ্তরের ল ফুল ইন্টারসেপশন সেলের (এলআইসি) একটি দল রবিবার রাত থেকে মঙ্গলবার ভোর পর্যন্ত সিলেটের মিরাবাজার, টুকেরবাজার ও দক্ষিণ সুরমায় অভিযান চালিয়ে পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেন। গ্রেপ্তারদের কাছ থেকে বোমা তৈরির সরঞ্জাম, ল্যাপটপ ও মোবাইল জব্দ করা হয়েছে। মনিরুল ইসলাম বলেন, নব্য জেএমবির এই দলটি ২৩ জুলাই হজরত শাহজালাল (রহ.) এর মাজারে হামলার পরিকল্পনা করেছিল। কিন্তু পুলিশের কড়া নজরদারিতে তারা ব্যর্থ হয় এবং ২৪ জুলাই পল্টন চেকপোস্টের পাশে ও ৩১ জুলাই নওগাঁ জেলার সাপাহার এলাকায় হিন্দু মন্দিরে বোমা হামলা ঘটনা ঘটায়। নওগাঁয় বিস্ফোরিত হয়েছিলো একটি ককটেল। তিনি জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা নিজেদেরকে নব্য জেএমবির সামরিক শাখার সদস্য বলে স্বীকার করেছে। কথিত আইএসের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য এসব হামলার পরিকল্পনা করেছিল বলে জানিয়েছে।
মনিরুল জানান, নব্য জেএমবির শুরা সদস্য শেখ সুলতান মোহাম্মদ নাইমুজ্জামানের নেতৃত্বে শাপলাবাগের একটি বাসায় কম্পিউটার প্রশিক্ষণের আড়ালে সামরিক প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছি। নাইমুজ্জামান ২০১৯ সালে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে অনার্স করেছে এবং ছাত্রজীবনে ছাত্রশিবিরের সক্রিয় সদস্য ছিল। সংগঠনের সদস্যদের সামরিক প্রশিক্ষণ দিতেই সে শাপলাবাগের বাসাটি ভাড়া নেয়। গ্রেপ্তার অন্যদের মধ্যে সানাউল ইসলাম সাদিক শাহ্জালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগের শিক্ষার্থী। রুবেল আহমেদ ২০১৬ সালে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ব্লু বার্ড সিলেট শাখা থেকে এইচএসসি পরীক্ষা দিয়েছেন। টুকেরবাজারে সার, বীজ ও কীটনাশকের ব্যবসা রয়েছে তার।
আব্দুর রহিম জুয়েল রেন্ট-এ-কার চালক। তার গাড়ি ব্যবহার করে সন্ত্রাসী হামলার পরিকল্পনা করা হয়েছিল। আর সায়েম মির্জা মদন মোহন কলেজের অর্নাস শেষ বর্ষের ছাত্র। তিনিও ছাত্রশিবিরের সঙ্গে জড়িত।
মনিরুল ইসলাম বলেন, নব্য জেএমবির এই দলের আরও কয়েকজন সদস্য পলাতক রয়েছে। তাদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।
জঙ্গিদের এখন বড় হামলা করার সামর্থ্য নেই জানিয়ে মনিরুল ইসলাম বলেন, ২০০৫ সালের ১৭ অগাস্ট হামলাটি জেএমবির দিক থেকে ছিল সাংগঠনিক এবং সফল। তবে বর্তমানে সাংগঠনিক কাঠামো বলতে গেলে তেমন নেই। পুরনো জেএমবির নেতা সালাউদ্দিন সালেহীন ভারতে লুকিয়ে থাকতে পারে বলে এক প্রশ্নের জবাবে জানান মনিরুল ইসলাম।

চাঞ্চল্যকর নুর বানু হত্যাকান্ডের রহস্য উদ্ঘাটন করল পিবিআই নারায়ণগঞ্জ
                                  

এ এইচ ইমরান, নারায়ণগঞ্জ ব্যুরো: চাঞ্চল্যকর নুর বানু হত্যা মামলার রহস্য উদ্ঘাটন করেছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পিবিআই। হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত আসামী কামরুজ্জামান ১৬৪ ধারায় আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন।

জানা যায়, গতবছর ৩০ জুন নারায়ণগঞ্জ জেলার রুপগঞ্জ থানাধীন গন্ধর্বপুর এলাকায় একটি পরিত্যক্ত বাড়ীতে অজ্ঞাত আসামীরা নুর বানু (৫৫) কে করাত দিয়ে গলা কেটে নির্মমভাবে হত্যা করে। হত্যাকান্ডের শিকার নুর বানু গন্ধর্বপুর এলাকার মৃত আব্দুল রাজ্জাকের স্ত্রী। তিনি ৪ মেয়ে ১ ছেলের জননী ছিলেন। এ ঘটনায় নিহত নুরবানুর ছেলে ইলিয়াস মিয়া বাদী হয়ে রূপগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘ ৫ মাস তদন্ত করেও হত্যার রহস্য উদ্ঘাটনে ব্যর্থ হয় জেলা পুলিশ। পরবর্তীতে মামলাটি পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স মাধ্যমে তদন্তভার দেওয়া হয় নারায়ণগঞ্জ জেলা পিবিআইকে। পরে পিবিআই`র তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক নাছির উদ্দিন সরকার, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম (পিপিএম) এর তদারকি ও দিক নির্দেশনায় গতানুগতিক তদন্তের পাশাপাশি বিজ্ঞান ভিত্তিক ও তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় দীর্ঘ ১১ মাস পর চাঞ্চল্যকর নুর বানু (৫৫) হত্যাকান্ডের রহস্য উদ্ঘাটন করেন। এ হত্যাকান্ডে জড়িত একই এলাকার আসামী কামরুজ্জামান (৩৬) কে গত ২৩ জুলাই সোনারগাঁ থানাধীন কাঁচপুর এলাকা হতে গ্রেফতার করা হয়। ধৃত আসামী কামরুজ্জামান ২৫ জুলাই বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ কাউছার আলম এর আদালতে উপস্থাপন করলে সে প্রত্যক্ষভাবে নুর বানু হত্যাকান্ডের সাথে নিজেকে জড়িয়ে তার আরো ২ সহযোগী আসামী জাহাঙ্গীর (৫০) ও রুবেল হোসেন (৩০) দ্বয়ের নাম উল্লেখ করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি প্রদান করেন। ইতিমধ্যে হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত রুবেল হোসেন (৩০) কে গ্রেফতার করেছে পিবিআই।
এ বিষয়ে পিবিআই নারায়ণগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার জনাব মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম (পিপিএম) জানান, অপরাধ তদন্তে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি অবলম্বন করায় পিবিআই এখন সাফল্যের শীর্ষে অবস্থান করছে। উপরন্তু পিবিআই নারায়ণগঞ্জ জেলায় একটি ক্রাইমসিন ভ্যান যুক্ত হওয়ায় খুন, ডাকাতি, ধর্ষণ সহ চাঞ্চল্যকর মামলার রহস্য উদ্ঘাটনে নব দিগন্তের সূচনা করছে এবং পিবিআই এর সাফল্যের ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে বলে জানান চৌকাস এ পুলিশ সুপার মনিরুল ইসলাম।

কমলগঞ্জে চা বাগান থেকে ৭৪ লিটার চোলাই মদসহ ৫ জন আটক
                                  

এম এ কাদির চৌধুরী ফারহান : মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর চা বাগানের ডিভিশন পদ্মছড়া বাগানের বিভিন্ন চা শ্রমিকের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ৭৪ লিটার দেশীয় চোলাই মদসহ ৫ ব্যক্তিকে আটক করেছে কমলগঞ্জ থানা পুলিশ। আটক ব্যক্তিরা হলো-রামসরণ দেশওয়ারা (৩১), রাজেন তাঁতি (৪৫), বাবুলাল ভূইয়া (৫০), রাজমোহন মুন্ড (৪০) ও টুকুন মুন্ডা (৩৫)।
গত শুক্রবার (২৪ জুলাই) রাত সাড়ে ৮টায় কমলগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক সিরাজুল ইসলাম এর নেতৃত্বে সহকারী উপ-পরিদর্শক মিজানুর রহমান, গোলাম মোস্তফা, সবুজ আহমেদসহ পুলিশ সদস্যরা অভিযান চালিয়ে ৭৪ লিটার দেশীয় চোলাই মদ ও মদ বানানোর সরঞ্জামসহ তাদের আটক করা হয়।
কমলগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক সিরাজুল ইসলাম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার রাতে পদ্ধছড়া চা বাগানের বিভিন্ন বাড়িতে তল্লাশি করে ৭৪ লিটার দেশি চোলাই মদসহ তাদের আটক করা হয়। এ ব্যাপারে কমলগঞ্জ থানায় মাদকদ্রব্য আইনে একটি মামলা হয়েছে। শনিবার (২৬ জুলাই) দুপুরে তাদেরকে মৌলভীবাজার আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

হাসপাতাল প্রতারণা : প্যাথলজি রিপোর্টে মৃত চিকিৎসকের স্বাক্ষর!
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : রিজেন্ট ও জেকেজি হাসপাতালের প্রতারণার খবর প্রকাশের পর থেকে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে বিভিন্ন হাসপাতালের দুর্নীতির খবর পাওয়া যাচ্ছে। সাহাবুদ্দিন মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও নারায়ণগঞ্জের ল্যাব এইডের পর এবার সেই তালিকায় নাম যোগ হলো বরিশালের একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারের।

মৃত চিকিৎসকের স্বাক্ষর ব্যবহার করে প্যাথলজি রিপোর্ট তৈরি করায় ‘দি সেন্ট্রাল মেডিকেল সার্ভিসেস’ নামে নগরীর জর্ডান রোড এলাকার ওই ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে সিলগালা ও দুই মালিককে ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

গতকাল বুধবার রাতে এ অভিযান চালানো হয় বলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক বরিশাল জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জিয়াউর রহমান জানান। দণ্ডিতরা হলেন- সেন্ট্রাল মেডিকেল সার্ভিসেসের মালিক জসিম উদ্দিন মিলন, এ কে চৌধুরী ও চিকিৎসক নূর এ সরোয়ার সৈকত।

গোপন খবরের ভিত্তিতে সিভিল সার্জনের প্রতিনিধি ও র‌্যাব সদস্যদের নিয়ে গতরাতে ওই ডায়াগনস্টিকে অভিযান চালান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জিয়াউর রহমান। সেখানে গাজী আমানুল্লাহ খান নামে এক চিকিৎসকের স্বাক্ষরে প্যাথলজি রিপোর্ট তৈরি করা হচ্ছিল। অথচ ওই চিকিৎসক গত ১৯ জুলাই ঢাকার একটি হাসপাতালে মারা যান। তিনি দীর্ঘদিন অসুস্থ ছিলেন।

এছাড়া কয়েকদিন আগে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া চিকিৎসক এমদাদুল্লাহ খানের নামও ডায়াগস্টিক সেন্টারের সাইনবোর্ডে ব্যবহার করা হয়েছে।

জিয়াউর রহমান বলেন, ওই ডায়াগনস্টিক সেন্টারের চিকিৎসক নূর এ সরোয়ার সৈকত নিজেকে শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছিলেন। সেন্টারটি সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে। সৈকতকে ৬ মাসের সাজা দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া ডায়াগস্টিক সেন্টারের দুই মালিককে ৬ মাস করে কারাদণ্ড দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

নরসিংদীর শীর্ষ সন্ত্রাসী বিল্লাল অস্ত্রসহ গ্রেফতার
                                  

নরসিংদী প্রতিনিধি : নরসিংদী মডেল থানা পুলিশ জেলার শীর্ষ সন্ত্রাসী বিল্লালকে অস্ত্র ও গুলিসহ গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে। গত সোমবার গভীর রাতে শহরের চৌয়ালা মহল্লা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। নরসিংদী জেলা গোয়েন্দা শাখার পুলিশ পরিদর্শক (নি:) এবং জেলা পুলিশের মিডিয়া সমন্বয়ক রুপণ কুমার সরকার জানান, গোগন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে নরসিংদী মডেল থানার ইনচার্জ মোঃ সৈয়দুজ্জামানের নেতৃত্বে পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) তোফাজ্জল হোসেন, এসআই এম নঈমুল ইসলাম মোস্তাক, এসআই মেহেদী হাসান, এএসআই দীপক কুমার সরকার, এএসআই আল-আমিন ও সঙ্গীয় ফোর্সসহ নরসিংদী শহরের চৌয়ালা এলাকায় এক বিশেষ অভিযান চালিয়ে নরসিংদী জেলার তালিকাভূক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী বিল্লাল ওরফে চোরা বিল্লাল ওরফে মিশরী বিল্লাল ওরফে টাইগার বিল্লালকে গ্রেফতার করে। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী চৌয়ালাস্থ তালতলায় বিল্লালের নিজ বাড়ীর স্টীলের আলমারির নিচ থেকে একটি রিভলবার ও ৬ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করে। ধৃত বিল্লাল দীর্ঘদিন যাবত নরসিংদীসহ আশপাশ জেলায় সন্ত্রাসীমূলক কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিল। বিল্লালের বিরুদ্ধে ইতিপূর্বে অস্ত্র, হত্যা ও ডাকাতিসহ নরসিংদী মডেল থানায় ১১টি মামলা রয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।
বিল্লাল শহরের চৌয়ালা মহল্লার আব্দুল বারেকের পুত্র। এ ব্যাপারে নরসিংদী মডেল থানায় তার বিরুদ্ধে একটি অস্ত্র আইনের মামলা দায়ের করা হয়েছে।

নন্দীগ্রামের বিভিন্ন হাট বাজারে প্রকাশ্যে বিক্রি হচ্ছে নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল
                                  

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজারে প্রকাশ্যে ও অবাধে বিক্রি হচ্ছে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল। বাংলাদেশের মৎস্য সম্পদকে রক্ষা করতে সরকার কারেন্ট জাল কে নিষিদ্ধ ঘোষণা করলেও, সরকারি আইনের কোন তোয়াক্কা না করে উপজেলার হাট বাজারে প্রকাশ্যে বিক্রি হচ্ছে কারেন্ট জাল। সরেজমিনে উপজেলার বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায়, চলতি বৃষ্টির ভরা মৌসূমে মৎস্য শিকারির চাহিদার উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন প্রকার কারেন্ট জালের পসরা সাজিয়ে সবার চোখের সামনেই তা বিক্রি করছে। কারেন্ট জাল বিক্রি করার মত অবৈধ ও আইন বিরোধী কাজ করছেন আপনার মনে প্রশাসনের কোন ভয় নেই এমন প্রশ্নের জবাবে এক কারেন্ট জাল বিক্রেতা বলেন, আমরা হাট কর্তৃপক্ষের সাথে চুক্তি করে ব্যাবসা করছি, পুলিশ প্রশাসন দেখার দায়িত্ব তাদের , আপনারা হাট কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলেন। উক্ত বিষয়ে হাট কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বললে তারা জানান, লক্ষ লক্ষ টাকা দিয়ে হাট নিয়েছি, আমরা যা ইচ্ছা তাই করবো, নন্দীগ্রামের বড় বড় কর্তারা যেখানে চুপ চাপ আছে সেখানে তোমাদের কিছু করার থাকলে কর, এতে বুঝা যায় হাট কর্তৃপক্ষের সেল্টারে প্রকাশ্যে বিক্রি হচ্ছে সরকার নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল, তাই মৎস্য সম্পদ রক্ষার্থে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সু-দৃস্টি প্রয়োজন বলে মনে করেন সুশীল সমাজ।


   Page 1 of 33
     অপরাধ জগত
পানগাঁও কাষ্টম কর্তৃক ৩২ লক্ষ টাকার শুল্ক ফাঁকি উৎঘাটন
.............................................................................................
টাঙ্গাইলে ট্রান্সফর্মারের ভিতরে ফেন্সিডিল পাঁচার, আটক ২
.............................................................................................
রামগতিতে ৬ জেলে আটক
.............................................................................................
পিবিআই এর অভিযানে অপহৃত আজিজ উদ্ধার, গ্রেফতার ৩
.............................................................................................
লক্ষ্মীপুর মাতৃমঙ্গলে ডেলিভারী চিকিৎসা না দিয়ে স্বজনের সাথে ডাক্তারের দূর্ব্যবহার
.............................................................................................
ডা. সাবরিনার বিরুদ্ধে ইসির মামলা
.............................................................................................
কয়েদি পালিয়ে যাওয়ায় তিন কারারক্ষী বরখাস্ত
.............................................................................................
নারায়ণগঞ্জ পাসপোর্ট অফিসে অভিযান, ৭ দালাল গ্রেফতার
.............................................................................................
১৯ মাস পর শাকিল হত্যার রহস্য উদঘাটন, গ্রেফতার ৩
.............................................................................................
সন্ধান মেলেনি কারাগার থেকে পালানো কয়েদির
.............................................................................................
জঙ্গিদের হামলার টার্গেট ছিল হজরত শাহজালাল মাজার : সিটিটিসি প্রধান
.............................................................................................
চাঞ্চল্যকর নুর বানু হত্যাকান্ডের রহস্য উদ্ঘাটন করল পিবিআই নারায়ণগঞ্জ
.............................................................................................
কমলগঞ্জে চা বাগান থেকে ৭৪ লিটার চোলাই মদসহ ৫ জন আটক
.............................................................................................
হাসপাতাল প্রতারণা : প্যাথলজি রিপোর্টে মৃত চিকিৎসকের স্বাক্ষর!
.............................................................................................
নরসিংদীর শীর্ষ সন্ত্রাসী বিল্লাল অস্ত্রসহ গ্রেফতার
.............................................................................................
নন্দীগ্রামের বিভিন্ন হাট বাজারে প্রকাশ্যে বিক্রি হচ্ছে নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল
.............................................................................................
নরসিংদী জেলা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়কের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ
.............................................................................................
৬০ বোতল ফেন্সিডিলসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার
.............................................................................................
গাজীপুরে দুইবস্তা জাল টাকা ও ৭শ’ পিস ইয়াবা উদ্ধার
.............................................................................................
সেনবাগে প্রতিবন্ধী ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি বন্দুক যুদ্ধে নিহত
.............................................................................................
কুষ্টিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে ইয়াবা ট্যাবলেট সহ ০১ জন গ্রেফতার
.............................................................................................
ফটিকছড়িতে বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্রসহ যুবক আটক
.............................................................................................
বাড়ি নির্মাণের টাকা না দেওয়ায় শাশুড়িকে গুলি, জামাতা আটক, পিস্তল ও গুলি জব্দ
.............................................................................................
শ্রীপুরে চাঁদাবাজি করতে গিয়ে ভুয়া সাংবাদিকসহ সহযোগী আটক
.............................................................................................
গাজীপুর মহানগরে দুই খুন!
.............................................................................................
সখিপুরে শ্বশুরের ধর্ষণে বাকপ্রতিবন্ধী পুত্রবধূ অন্তসত্ত্বা
.............................................................................................
নীলফামারীতে জাল টাকার নোটসহ প্রতারক চক্রের ৫ সদস্য গ্রেফতার
.............................................................................................
নৈশপ্রহরীকে শ্বাসরোধে হত্যার পর পুলিশের গুলিতে দুই ডাকাত নিহত
.............................................................................................
রূপগঞ্জে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে সন্ত্রাসীদের হামলা, দুই নারীর শ্লীলতাহানি!
.............................................................................................
শরীয়তপুরে ডামুড্যায় ইয়াবা ও নগদ টাকাসহ বেদে সম্প্রদায়ের ০১ জন গ্রেফতার
.............................................................................................
আক্কেলপুরে শশুর বাড়িতে স্ত্রীকে ছুরিকাঘাতে হত্যার অভিযোগ, স্বামী আটক
.............................................................................................
ঝিনাইদহে কৃষকের বাড়িতে ডাকাতি, গরু-নগদ টাকাসহ স্বর্ণালংকার লুট
.............................................................................................
মোহনগঞ্জে ব্যবসায়ীদে কাছ থেকে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ
.............................................................................................
আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মুন্সীগঞ্জের চরাঞ্চলে হামলা, ককটেল বিস্ফোরণ, গুলি আহত ১০
.............................................................................................
আক্কেলপুরে তিন অপহরণকারীকে আটক করেছে পুলিশ
.............................................................................................
কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের হিসাব রক্ষকের কাছে অধিদপ্তরও অসহায়
.............................................................................................
কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে এবার জনবল নিয়োগের টেন্ডারে জালিয়াতি ও দুর্নীতি ফাঁস
.............................................................................................
মোহনগঞ্জে গৃহবধুকে গলাটিপে হত্যা, স্বামী-শ্বশুর-শাশুরী ও দেবর আটক
.............................................................................................
ঝিনাইদহে বাড়িওয়ালার সহযোগিতায় ভাড়াটিয়ার স্ত্রী ধর্ষণের স্বীকার, থানায় মামলা
.............................................................................................
আন্তঃজেলা ৮ ডাকাত গ্রেফতার, লুণ্ঠিত মালামাল উদ্ধার
.............................................................................................
নড়িয়ায় আট বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে ধর্ষক গ্রেফতার
.............................................................................................
টাঙ্গাইলে ভুয়া র‌্যাব পরিচয়ে চাঁদাবাজি, গ্রেফতার-২
.............................................................................................
মধুপুরে গণপিটুনিতে নিহত ১
.............................................................................................
মোংলায় ২১৯ প্রবাসীর মধ্যে ১২১ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে
.............................................................................................
ধামরাইয়ে পৃথক স্থানে ধর্ষনের শিকার ৩
.............................................................................................
বাগেরহাটে বেশি দামে চাল বিক্রি করায় জরিমানা ৬ ব্যবসায়ী
.............................................................................................
সান্তাহারে পরোয়ানা আসামি গ্রেফতার ৩
.............................................................................................
খাগড়াছড়িতে করোনায় মৃত্যু গুজব ছড়ানোর অভিযোগে গ্রেফতার-৩
.............................................................................................
ধামরাইয়ে পুলিশ কনেষ্টবল সুমনের দুদকের হস্থক্ষেপ কামনা
.............................................................................................
কালীগঞ্জে ধর্ষণে কিশোরী অন্তঃসত্ত্বা আটক-২
.............................................................................................

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মো: রিপন তরফদার নিয়াম
প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক : মফিজুর রহমান রোকন
নির্বাহী সম্পাদক : শাহাদাত হোসেন শাহীন
বাণিজ্যিক কার্যালয় : "রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল কমপ্লেক্স"
(৬ষ্ঠ তলা), ২৮/১ সি, টয়েনবি সার্কুলার রোড,
মতিঝিল বা/এ ঢাকা-১০০০| জিপিও বক্স নং-৫৪৭, ঢাকা
ফোন নাম্বার : ০২-৪৭১২০৮০৫/৬, ০২-৯৫৮৭৮৫০
মোবাইল : ০১৭০৭-০৮৯৫৫৩, 01731800427
E-mail: dailyganomukti@gmail.com
Website : http://www.dailyganomukti.com
   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD