| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : > মুসলিম নিধন-যজ্ঞ চালিয়েছে উত্তর প্রদেশের পুলিশ   > শিবির সন্দেহে` চার ছাত্রকে পিটিয়ে পুলিশে দেবার অভিযোগ   > বিজিএমইএ ভবন ভাঙ্গা : স্বয়ংক্রিয়ের বদলে সনাতন পদ্ধতিতে কেন   > ঢাকায় পাসপোর্টের জন্য হাহাকার, বিপাকে আবেদনকারীরা   > করোনাভাইরাস কী, কীভাবে ছড়ায়, কীভাবে ঠেকানো যাবে?   > ক্রিকেট : পাকিস্তান সফরে যেভাবে নিরাপত্তা দেয়া হবে বাংলাদেশ জাতীয় দলকে   > জামাল খাসোগজি হত্যা : যুবরাজ বিন সালমানের বিরুদ্ধে আমাজন বস জেফ বেজোসের ফোন হ্যাকে জড়িত থাকার অভিযোগ   > নাগরিকত্ব আইনে স্থগিতাদেশ দিতে রাজি হল না ভারতের সুপ্রিম কোর্ট   > মৃত্যুর হুমকি নিয়ে তাকে টিভি অনুষ্ঠান করতে হয়   > দ্বিতীয় রাউন্ডে জকোভিচ, তৃতীয় রাউন্ডে ওসাকার প্রতিপক্ষ কোরি গাফ  

   নগর-মহানগর -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
রমজান মাসে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখার সুপারিশ

ডেস্ক রিপোর্ট : বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি আগামী রমজান মাসে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখার ব্যাপার যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য মন্ত্রণালয়কে সুপারিশ করেছে ।

আজ রোববার (২২ ডিসেম্বর) জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির এক বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়।

একাদশ জাতীয় সংসদে এটি ছিল বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ৭ম বৈঠক।

বৈঠকে বাংলাদেশ ট্যারিফ কমিশন (সংশোধন) বিল-২০১৯ পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে সংসদে প্রতিবেদন দাখিলেরও সুপারিশ করা হয়।

২০২০ সালের বাণিজ্যমেলা নিয়েও বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনা হয়।

কমিটির সভাপতি তোফায়েল আহমেদের সভাপতিত্বে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কমিটির সদস্য বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী, ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন, মোহাম্মদ হাছান ইমাম খান ও সুলতানা নাদিরা।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব, বিভিন্ন সংস্থার প্রধান, মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

রমজান মাসে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখার সুপারিশ
                                  

ডেস্ক রিপোর্ট : বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি আগামী রমজান মাসে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখার ব্যাপার যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য মন্ত্রণালয়কে সুপারিশ করেছে ।

আজ রোববার (২২ ডিসেম্বর) জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির এক বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়।

একাদশ জাতীয় সংসদে এটি ছিল বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ৭ম বৈঠক।

বৈঠকে বাংলাদেশ ট্যারিফ কমিশন (সংশোধন) বিল-২০১৯ পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে সংসদে প্রতিবেদন দাখিলেরও সুপারিশ করা হয়।

২০২০ সালের বাণিজ্যমেলা নিয়েও বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনা হয়।

কমিটির সভাপতি তোফায়েল আহমেদের সভাপতিত্বে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কমিটির সদস্য বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী, ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন, মোহাম্মদ হাছান ইমাম খান ও সুলতানা নাদিরা।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব, বিভিন্ন সংস্থার প্রধান, মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

শীর্ষে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া-স্বরূপকাঠী
                                  

নিজস্ব প্রতিনিধি: শিক্ষা মন্ত্রনালয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমুহে কোচিং বানিজ্য বন্ধে নীতিমালা প্রয়োগ করার কথা বললেও তা কোন ভাবেই দমানো যাচ্ছে না। পিরোজপুর সদরসহ মঠবাড়িয়া, ভান্ডারিয়া, কাউখালী, ইন্দুরকানী, নাজিরপুর ও নেছারাবাদে কোচিং বানিজ্য বন্ধ করা যাচ্ছে না। অথচ জেলাসহ সকল উপজেলায় অভিবাবকরা তাদের ছেলে মেয়েদের পড়াশুনার খরচ চালাতে গিয়ে দারুন হিমশিম খাচ্ছেন। এদিকে প্রায়ই স্কুলের শিক্ষকরা ছেলে মেয়েদের জিম্মি করে মাসে মাত্র ১২ দিন পড়াচ্ছেন। বিগত সময়ের বছর গুলোতে কলেজ পর্যায়ে এ নিয়ম ছিল। কিন্তু মাধ্যমিক শিক্ষকরাও এক ধরনের রাম রাজত্ব কায়েম করেছেন। জেলা থেকে উপজেলা পর্যায়ে এ যেন অরাজকতা, দেখার যেন কেউ নেই? এদিকে চলতি সময়ে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমান পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে এক মাস দেশের সব কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নিষেধ করা হয়েছে শিক্ষা মন্ত্রনালয় থেকে। অথচ পিরোজপুরসহ জেলার সব উপজেলায় শিক্ষকরা আইন না মেনে চালাচ্ছেন রমরমা কোচিং বানিজ্য। নীতিহীন বহু প্রতিষ্ঠানের হেড মাস্টারসহ সহকারীরা দেদারছে চালাচ্ছে কোচিং বানিজ্য। স্থানীয় স্ব স্ব এলাকায় বহু অভিযোগ রয়েছে এসব প্রধান শিক্ষক সহ সহকারী শিক্ষকদের বিরুদ্বে। ক্লাশ ফাকি বা অবহেলা করে সুকৌশলে কোচিং বানিজ্য করে যাচ্ছে যত্রতত্র ভাবে। কেউ কেউ নিজ বাসায় আবার কেউ ভাড়াটিয়া বাসায় কোচিং বানিজ্য খুলে বসেছে। আবার কাউখালী, মঠবাডিয়া ও নাজিরপুর স্কুলের ভিতরে খুলে বসেছে অবৈধ কোচিং বানিজ্য।
পিরোজপুর শহরের প্রধান প্রধান স্কুলের আশেপাশে সহ সরকারী বিদ্যালয়ের পাশের ভবনে ও রয়েছে কোচিং বানিজ্য। এদিকে কাউখালীসহ নেছারাবাদের অবস্থা আরও শোচনীয়। স্বরূপকাঠী সরকারী পাইলটের প্রধান শিক্ষকের নিজ ভবনে কোচিং বানিজ্য রমরমা। স্থানীয় কয়েক শতাধিক অভিবাবক জানান, নীতিহীন এ শিক্ষক নেছারাবাদ উপজেলায় বিগত সময়েই বিতর্কিত নানান কারনে। আর নাজিরপুরে রয়েছে আরও বেহাল দশা।
এদিকে জেলার ও উপজেলার বহু নীতিহীন শিক্ষকরা অর্থের লোভে বাজারের অক্ষাত বহু গাইড  বিক্রির নামে বানিজ্যে লিপ্ত থাকারও অভিযোগ উঠেছে। নিষিদ্ধ জামায়াতের অক্ষাত প্রতিষ্ঠানের  মাদ্রাসার আল ফাতহাসহ অন্য প্রতিষ্ঠানের ক্যাপ্টেন, পাঞ্জেরী ও লেকচার গাইড সমুহ রয়েছে। এদিকে স্বরূপকাঠীর পাইলটের প্রধান শিক্ষক তার সহকারী জিয়াউল মাস্টার ও খন্ডকালীন শিক্ষক হাসানুলকে দিয়ে বহু বেআইনি কাজ করাচ্ছেন। অভিযোগ উঠেছে বিগত সময়ে প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ারও বিষয়ে নানান গুঞ্জন রয়েছে। তাছাড়া বর্তমানে যদি দুদকের অনুসন্ধানী রিপোর্ট চালানো হলেই সরকারী পাইলটে ফুটে উঠবে বিগত সকল দুর্নীতির চিত্র। দুর্নীতির মহা সমুদ্র ফুটে উঠবে বলে এলাকার বিজ্ঞমহল মনে করেন। জেলার মধ্যে সবচেয়ে দুর্নীতির আশ্রয় নিয়েছে বর্তমান সরকারী আর বিগত পাইলট মডেল বিদ্যালয়। সাবেক এমপি আউয়ালের ৫ বছর ছিল দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন। তাছাডা নিম্নমানের গাইড বানিজ্যে স্বপন দত্ত শীর্ষে রয়েছেন। এদিকে জেলাসহ উপজেলায় কোচিং বানিজ্যে জড়িত শিক্ষকরা ৫০০ থেকে ১০০০ টাকা পর্যন্ত নেয়। তবে লজ্জার বিষয়, কিছু কিছু শিক্ষক আবার ছাত্রীদের নিয়ে বিতর্কেও রয়েছে। আর কোচিংয়ের পাশাপাশি নারী নিয়ে নাজিরপুর, কাউখালী ও স্বরূপকাঠী শীর্ষে।
এদিকে কোচিং বানিজ্য ও অক্ষাত গাইড বানিজ্য করে অনেক শিক্ষক আঙ্গুল ফুলে কলা গাছে পরিনত হয়েছে। পাশাপাশি কিচু কিছু শিক্ষক ছাত্র ছাত্রীদেরকে অশালীন ভাষায় গালমন্দ করারও অভিযোগ উঠেছে। যদিও বর্তমান সরকারের শিক্ষানীতিতে কোচিং বানিজ্য নিষেধ হওয়ার পর সরকারেরর নির্দেশের প্রতি বৃদ্বাআঙ্গুলী দেখিয়ে নিজ ভবনসহ স্কুল প্রতিষ্ঠান বা ভাড়াটিয়া ভবনে বীরদর্পে অবৈধ কোচিং বানিজ্য চালিয়ে যাচ্ছেন বিতর্কিত শিক্ষকরা। মনে হচ্ছে এমন কর্মকান্ড জেলাসহ উপজেলায় দেখার মত কেউ নাই। কোচিং বানিজ্যের কাছে অভিবাবক ও ছাত্র ছাত্রীরা যেন জিম্মি।
এ ব্যাপারে বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অরুন কুমার গাইন দৈনিক সকালের সময়কে বলেন, আসলে সরকারের কোচিং বন্ধের নির্দেশ মানা হচ্ছে না। তাছাড়া কোচিং বানিজ্য একটা ভাইরাসের মত সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ছে। আর চিরতরে বন্ধ করতে হলে কঠিন আইন ও তার প্রয়োগ থাকতে হবে। এদিকে জেলা শিক্ষা অফিসার বলেন আসলে নীতিহীন শিক্ষকরাই কোচিং বানিজ্যে জড়িত। একজন আদর্শবান শিক্ষক কখনই কোচিং বানিজ্যে লিপ্ত হবেন না। সর্বপরি সরকারের নির্দেশে সকল কোচিং বানিজ্য বন্ধ হোক। আর সরকারী বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা যেন কোচিং বানিজ্যে জড়িত না হতে পারে। আর সেদিকে সুনজর দেওয়া সরকারের অতীব জরুরী বলে মনে করেন।

স্বরূপকাঠীতে মুক্তিযোদ্ধা ভবনের উদ্বোধন
                                  

রোকসানা রুনু, স্বরূপকাঠী প্রতিনিধি : পিরোজপুরের স্বরূপকাঠীতে মুক্তিযোদ্ধা ভবনের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ সরকারের গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রনালায়ের মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

সন্ধ্যানদীর তীরে তৈরি করা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ভবনের উদ্ভোদন করেন। জাতীয় সংগীতের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয় এবং জাতির জনকের স্মৃতি স্তম্বে পূষ্পস্তাবক অর্পন করেন। এ সময় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার জাহিদুল ইসলাম ৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সেই ঐতিহাসিক জয় বাংলা ধ্বনি উচ্চারন করেন। এ সময় উপস্তিত ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ শাহ আলম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরকার আব্দুল্লাহ আল মামুন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হামিদসহ আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ এবং মুক্তিযোদ্ধারা ও তাদের পরিবার বর্গার উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে তিনি স্বরূপকাঠী উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে ফুলেল  শুভেচ্ছায় সিক্ত হন বাংলাদেশ সরকারের গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী বিশিষ্ট আইনজীবী শ ম রেজাউল করিম। স্বরূপকাঠী উপজেলা আওয়ামী লীগ পৌর সভা, স্বরূপকাঠী প্রেস ক্লাবের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা দেয়া হয় এবং সকল অঙ্গসংগঠনের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা দেয়া হয়।

এর পরে উপজেলা প্রশাসনের সাথে নেছারাবাদ উপজেলা  উন্নয়ন সমন্বয় সভার সদস্যবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভা করেন। সমন্বয় সভায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন নেছারাবাদ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরকার মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন (বাবু)এ সময় নির্বাহী কর্মকর্তা উপজেলার বিভিন্ন সম্ভাবনার কথা এবং চাহিদার কথা তুলে ধরেন মন্ত্রীর কাছে। এ সময় প্রধান অতিথি বলেন, আপনাদের জন্য আমার দরজা সব সময় খোলা আপনারা যখন খুশি তখন আসতে পারবেন। আমি পিরোজপুরে কোন উন্নয়ন দেখছিনা হাজার হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে কোথায় সেই উন্নয়ন চোখে পড়ছেনা। আপনারা  আমাকে দোয় করবেন আপনাদেরকে নিয়ে আমি পিরোজপুরকে মডেল পিরোজপুর জেলা হিসাবে গড়তে চাই।

স্বরূপকাঠীতে ভাইস চেয়ারম্যান পদে শক্ত অবস্থানে রনী দত্ত
                                  

নিজস্ব প্রতিনিধি : রাজনীতির স্বচ্ছ দ্বারা অব্যাহত রেখে ছাত্র অবস্থায়ই নিজেকে পাকাপেক্ত করে তুলেছেন জেলাসহ নেছারাবাদে। স্থানীয় রাজনীতিতে রনী দত্ত একটা শক্ত অবস্থান গড়ে তুলেছেন নিজ গুণে। নিজ যোগ্যতায় সকলের আর্শীবাদে আজ জেলাসহ উপজেলায় পাকাপোক্ত অবস্থান স্থাপন করতে সক্ষম হয়েছেন। রাজনীতির দুরদর্শিতা দিয়ে আপন মহিমায় মেলে ধরেছেন স্বরূপকাঠীর এই কৃতি সন্তান। সদালপি হাস্যোজ্জল মিশুক স্বভাবের অধিকারী রনী দত্ত স্কুল থেকে কলেজে সততা ও মেধার নিদর্শন দিয়ে সকলের মধ্যমনিতে অবস্থান করছেন। পাশাপাশি ছাত্রলীগের রাজনীতিতেও একটা শক্ত অবস্থান তৈরী করে জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি হয়ে সুনজরে রয়েছেন।

মজার বিষয় উদীয়মান এ নেতা বার বার জেলা সহ সভাপতি নির্বাচিত হয়ছেন বিশেষ গুণাবলিতে। অপরদিকে উপজেলা ছাত্রলীগের রাজনীতিতে এলাকায় সর্বস্তরের সকল নেতা নেত্রীদের কাছে সুপ্রিয় নেতা হতে সক্ষম হয়ছেন বিচক্ষনতা, দুরদর্শিতা ও বিশেষ ব্যাক্তিত্বের কারণে। আর যোগ্য পুরুস্কার স্বরূপ বর্তমানে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। আর এবার নেতৃত্বের বহিঃপ্রকাশ স্বরূপ নিজেকে আরও মেলে ধরার মিশনে নেমে পড়েছেন। আর তারই ধারাবাহিকতায় এবারের উপজেলা নির্বাচনে যোগ্যতার মাপকাঠি দিয়ে মেলে ধরেছেন। এলাকার সর্বস্তরের মানুষের খেদমত করতে চাচ্ছেন ভাইস চেয়ারম্যান হয়ে। এদিকে ভাইস চেয়ারম্যানের প্রার্থী হিসাবে নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করছেন। শুধুমাত্র দলের চূড়ান্ত সিগনালের অপেক্ষা। আর সেই মিশন নিয়ে সকল প্রকার প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন আপন মহিমায়।

এ ব্যাপারে জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ও উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রনী দত্ত দৈনিক সকালের সময়কে জানান, আমি এবারের উপজেলা নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যাম প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করবো। আর আমার দল সবদিক বিবেচনা করে আমাকেই চূড়ান্ত টিকিট প্রদান করবেন। আর সেই আশা নিয়ে মাঠ চষে বেড়াচ্ছি উপজেলার সর্বত্র। আমি সকলের দোয়া কামনা করি।

স্বরূপকাঠীতে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়ীতে প্রেমিকা
                                  

নিজস্ব প্রতিনিধি : প্রেম স্বর্গীয়, প্রেম পবিত্র অথছ কলেজ ক্লাশ ফাকি দিয়ে গত দুই বছর প্রেমে গদগদ হয়ে কুমারী বালিকার মূল্যবান সম্পদ নিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে স্বরূপকাঠী উপজেলার বলদিয়া ইউনিয়নের মধ্য ঝিলবাড়ীর দেলোয়ারের কলেজ পড়ুয়া ছেলে রাকিব(২০)বিরুদ্ধে। স্থানীয় এলাকাবাসীরা জানান, রাকিব গত কয়েক বছর ধরে এলাকাসহ কলারদোনিয়ার বহু মেয়েদের সাথে প্রেমের অভিনয় করে আসছিল। পরবর্তী সময়ে কৌশলে ফাদে ফেলে ধারাবাহিক ভাবে শরীরের স্বাদ নেয় বলে অভিযোগ উঠেছে রাকিবের বিরুদ্ধে। তার সর্বশেষ নমুনা বুধবার অতি ভোরে কাক ডাকা পাখির কুহুকুহু শব্দের আগে এলাকার রুহুল আমিন বাদশার মেয়ে মারিয়া (১৯) রাকিবের বাড়িতে ওঠে বিয়ের দাবীতে। এদিকে রাকিব প্রেমের কথা বলে প্রথম সেমিস্টার চালু করেন। দ্বিতীয় সেমিস্টারে কুমারী কলেজ পড়ুয়া বালিকাকে বিবাহিত স্ত্রীর মত দিনের পর দিন মেলামেশা করতে থাকে। আর একথা গুলো মেয়ে মিডিয়াসহ বান্দবীদেরকে জানান। অন্যদিকে মেয়ে রাকিবকে বিয়ের কথা বললেই বলতো দু-এক মাস পর বিয়ে করবো।

এদিকে মারিয়া ছেলের চালাকির কথা বুঝতে পারে তবে অনেক পরে। সর্বশেষ সুচতুর বাদশার মেয়ে মারিয়া বাধ্য হয়ে ছেলের বাড়িতে আসেন বীরাঙ্গনা সখিনার মত। আর বিয়ের অধিকার আদায়ের জন্য অবশেষে এক ধরনের যুদ্ধ ঘোষণা করেন। এ ব্যাপারে এলাকার মেম্বরসহ এলাকাবাসীরা ঘটনার কথা স্বীকার করেছেন। এখনও মেয়ে ছেলে বাড়ীতে রয়েছে।

সর্বশেষ জিলবাড়ীসহ সমগ্র এলাকায় ঘটনার কথা জানাজানি হয়ে যায় মুহুর্তের মধ্যে। এলাকার দাবী এদের বিয়ে ছাড়া বিকল্প পথ নেই। তাছাড়া এ জুটি বিয়ের আগেই বহুবার শারীরিক সম্পর্ক করেছে। এ ব্যাপারে এলাকার সুশিল সমাজও বিয়ের পক্ষে। আর কয়েক শতাধিক জনতা বিয়ের মিস্টি খাওয়ার জন্য অধীর আগ্রহে বসে আছে। পাশাপাশি মিছিল দিচ্ছে বিয়ে চাই বিয়ে চাই, বিয়ে হলে মিস্টি খাই।

মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি রক্ষার্থে বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণ করা হবে: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের কল্যাণের পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি রক্ষার্থে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন ধরনের স্থাপনা নির্মাণ করবে।

৭ কোটি ৫৪ লাখ টাকা ব্যয়ে যশোর জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে শার্শা, কেশবপুর, চৌগাছা ও বাঘারপাড়া উপজেলায় ৪টি মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনের উদ্বোধন শেষে আজ বুধবার মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মসূচির উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, যশোরে ৩ কোটি ৯৪ লাখ টাকা ব্যয়ে ভূমিহীন অস্বচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ৪৬টি বাসস্থান নির্মিত হয়েছে। ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ৮টি স্থানে মুক্তিযুদ্ধের ঐতিহাসিক স্থাপনা সংরক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি স্থাপনা সংরক্ষণ ও পুননির্মাণ প্রকল্পের আওতায় ১ কোটি ১৪ লাখ টাকা ব্যয়ে ১১টি স্কিমের কাজ চলমান রয়েছে।

তিনি বলেন, সরকারি ব্যবস্থাপনায় আগামী ৫ বছরে মুক্তিযোদ্ধাদের বাসস্থানের ব্যবস্থা করার জন্য ২ হাজার ২০০ কোটি বরাদ্দ করা হয়েছে।

যশোরের জেলা প্রশাসক মো. আব্দুল আওয়ালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় অন্যান্যের মধ্যে যশোর ৬ আসনের এমপি ইসমাত আরা সাদেক, বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল (অব.) অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন, যশোর ১ আসনের এমপি শেখ আফিল উদ্দীন, যশোর ৩ আসনের এমপি নাবিল আহমেদ, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারবৃন্দসহ বীর মুক্তিযোদ্ধারা উপস্থিত ছিলেন।

পরে মন্ত্রী ১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে সাতক্ষীরা জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সসহ আশাশুনি, দেবহাটা, কলারোয়া, শ্যামনগর, কালিগঞ্জ ও তালা উপজেলায় সাতটি মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনের উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

স্বরূপকাঠিতে স্বপনের পথসভা
                                  

স্বরূপকাঠি প্রতিনিধি : পিরোজপুরের স্বরূপকাঠিতে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন প্রত্যাশী জাকারিয়া খান স্বপনের পক্ষে পথসভা করেছে তার কর্মীরা। আজ সকাল ১০টায় সরকারি স্বরূপকাঠি কলেজ শহীদ মিনারে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এসময় বক্তারা, পিরোজপুর জেলা পরিষদ সদস্য এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক এই নেতার বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ড তুলে ধরেন।

যুবলীগ নেতা নাসির হোসেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রীকে উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, আমরা একাদশ সংসদ নির্বাচনে পিরোজপুর ১ আসনে একজন স্বচ্ছ নেতৃত্ব পেয়েছি তাই এবার উপজেলা নির্বাচনেও তৃণমূলের রাজনীতি থেকে উঠে আসা একজন সচ্ছ নেতৃত্বকেই বেছে নেব। আর সেজন্য এ্যাডভোকেট জাকারিয়া খান স্বপনই হবে যোগ্য ব্যাক্তি। শেষে একটি বিশাল মিছিল ইন্দেরহাট বাজারের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে শাইনিংস্টার কিন্ডার গার্ডেনের মাঠে এসে শেষ হয়।

বেলায়েত হোসেনকে উপজেলায় দেখতে চায় স্বরূপকাঠীবাসি
                                  


নিজস্ব প্রতিনিধি : জাতীয় সংসদ  নির্বাচনের ইমেজ শেষ হতেই আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে পরিনত হয়েছে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। স্বরূপকাঠী উপজেলার মানুষের মধ্যে নির্বাচন নিয়ে এরই মধ্যে  নানান গুঞ্জন শুরু হয়েছে সবার মুখে মুখে।

আলোচকরা মনে করেন এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচন হবে চমকপ্রদ কারণ চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে একাধিক প্রার্থীর নাম শোনা যায়, দুই বারের দৈহারী ইউপি চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি অধ্যক্ষ মো. বেলায়েত হোসেনসহ অনেকের নাম সোনা যাচ্ছে। তিনি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাথে জড়িত। ফজিলা রহমান মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ, আমির হোসেন প্রগতি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা, এবং পিরোজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য অধ্যক্ষ মো. বেলায়েত হোসেন এছাড়া সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম মুহিদুল ইসলাম (মুহিদ), এ্যাড. এস এম ফুয়াদ হোসেন, জেলা পরিষদের সদস্য জাকারিয়া স্বপন, সুটিয়াকাঠীর সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হক হাজীর নাম শোনা যাচ্ছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক অনলাইন পত্রিকাসহ বিভিন্ন মাধ্যম থেকে তাদের সমর্থকরা প্রচার প্রচারনা শুরু করে দিয়েছেন। আর এসব আলোচনাই সোনা যাচ্ছে সর্বত্র।

অধ্যক্ষ মো. বেলায়েত হোসেন একজন সমাজসেবক হিসাবে এই নেতার পিরোজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সকল নেতৃবৃন্দের কাছে ভালো একটা অবস্থানে আছেন। বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে সুনামের সাথে কাজ করে যাচ্ছেন, আগামী মার্চ মাসে উপজেলা নির্বাচন হতে যাচ্ছে তাই আগাম প্রস্তুতি নিয়ে তিনি মাঠে কাজ করে যাচ্ছেন তার সমর্থকদের নিয়ে।

একান্ত আলাপনে তিনি বলেন, আমি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রাজনীতি করি। তাছাড়া আমার পরিবারের সকলেই আওয়ামী লীগ সাথে জড়িত। তবে সেটা বড় কথা নয় স্বরূপকাঠী উপজেলার সকল মানুষ আমাকে চেনে-জানে, এবং আমাকে ভালোবাসেন। তারা সকলেই আমাকে নির্বাচনের ব্যাপারে আমার সাথে থাকবেন। আমি দলের নীতিনির্ধারকদের কাছে নমিনেশন চাইবো দল যদি আমাকে নমিনেশন দেয়, তাহলে জনগনকে সাথে নির্বাচন করবো। আর আমি এটাও মনে করি স্বরূপকাঠী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলের শতভাগ সমর্থন পাবো।
                         


পিরোজপুরের জলাবাড়ীতে কাপড় শুকানোকে কেন্দ্র করে মারামারি
                                  

জেলা প্রতিনিধি : লিজকৃত সম্পত্তিতে কাপড় শুকানোকে কেন্দ্র করে স্বরূপকাঠীর জলাবাড়ী ইউনিয়নের জামুয়ায় মারামারি করার অভিযোগ উঠেছে সুজন মিস্ত্রী ও তার স্ত্রী মনিকা সমদ্দারের বিরুদ্বে। স্থানীয় সূত্র জানায় প্রতি বছরের ন্যায় এবারও বাৎসরিক লিজ ন্যায় এলাকার বাসিন্দা বাবু অনিল মিস্ত্রীর সম্পত্তি। এদিকে শীতের মাসে অনিলের ভাইয়ের বউ ঐ জায়গার এক পাশে শীতের কাপড় চোপড় শুকানোর জন্য রশি টানায়।আর রশিতে কাপড় শুকানোকে কেন্দ্র করে স্জুন মিস্ত্রী ও তার স্ত্রী অনিল মিস্ত্রীর ভাইকে সহ তার পরিবারকে বিশ্রী ভাষায় গালিগালাজ করে বলে দিলীপ মিডিয়াকে জানান।

এদিকে গত শনিবার দুপুর বেলা ঘটনার সূত্রপাত। কেন গালিগালাজ করা হল? আর এ বিষয়ে সুজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে পাল্টা ক্ষিপ্ত হয় দিলীপ মিস্ত্রীর উপর। এক পর্যায়ে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সুজন ও মনিকা হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করে রক্তাক্ত করে দিলীও মিস্ত্রীকে। মুহুর্তের মধ্যে দিলীপ মাটিতে পড়ে যায়। শনিবারের জামিয়া এলাকার মারামারির ঘটনা মাদ্রাসহ উপজেলার সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে মুহুর্তের মধ্যে।

এ ব্যাপারে জলাবাড়ির জামুয়া এলাকার বেশ কয়েকজন সচেতন জনতা মিডিয়াকে জানান, এলাকায় নিরীহ দিলীপ মিস্ত্রীকে হাতুড়ী দিয়ে রক্তাক্ত করার অপরাধে এলাকার প্রতিবাদী যুবকরা ঘটনা স্থলে গিয়ে মাস্তানখ্যাত সুজন মিস্ত্রীকে গণপিটুনী দেয় বলে এলাকার লোকজন জানান। তবে ভিন্নকথা বলেন, প্রতিবেশী ওয়ার্ড মেম্বর বাবুল হালদার জাতীয় দৈনিক সকালের সময়কে জানান, আমি মারামারির কথা শোনার সাথে সাথে স্থানীয় প্রশাসনকে খবর দেই। আর প্রশাসনেরও টিম মুহুর্তের মধ্যে ঘটনা স্থলে চলে আসেন। এদিকে প্রশাসন সুজন মিস্ত্রী ও তার স্ত্রীর কাছ থেকে রক্ত মাখা হাতুড়ী উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায় বলে প্রশাসন জানান। তবে জরুরী ভিত্তিতে দিলীপ মিস্ত্রীকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। বর্তমানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে রয়েছেন দিলীপ মিস্ত্রী। অপর দিকে বরিশালের শেবাচিমে চিকিৎসাধীন রয়েছে সুজন মিস্ত্রী।

সর্বশেষ তথ্যমতে এলাকার লোকজন মিডিয়াকে জানান, আসলেই সুজন মিস্ত্রী একটু বেশী মাতবরীসহ মাস্তানী করে। এলাকার বেশীর ভাগ লোকজন সুজন মিস্ত্রীকে পছন্দ করেন না। আর সরেজমিনে কার্ত্তিক, নিতাই, হরিপদ, রমেন, বিপ্লব, সত্যেন প্রমুখরা জানান সামান্য কাপড় শুকানোকে কেন্দ্র করে এতকিছু। আর যদি জায়গার মালিক হলেতো এলাকার প্রতিবেশীরা ইন্ডিয়া পালিয়ে যেত। মারামারির ঘটনা নিয়ে টানটান উত্তেজনা বিরাজ করলেও এখন পর্যন্ত নেছরাবাদ থানায় কোন ধরনের মামলা হয়নি বলে থানার ডিউটি অফিসার জানান।

আইন অমান্য করে ভবন নির্মাণ করতে দেওয়া হবে না: গণপূর্ত মন্ত্রী
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : নগরীতে ঝুঁকিপূর্ণ ভবন শনাক্তের কাজ চলছে বলে জানিয়েছেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। তিনি বলেন, শনাক্ত হওয়ার পর এগুলো ভেঙে ফেলা হবে। এছাড়া আইন অমান্য করে কাউকে ভবন নির্মাণ করতে দেওয়া হবে না বলে জানান মন্ত্রী।

সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে রাজউকের ১১টি উইংয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে ভূমিকম্প বিষয়ক এক সভা শেষে তিনি এ সব কথা বলেন।

গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী বলেন, প্রথমে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনগুলো ভাঙার জন্য মালিকদের অনুরোধ করা হবে। তারা নিজেরা না ভাঙলে সরকারের পক্ষ থেকে ভেঙে ফেলা হবে।

মন্ত্রী বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ ভবন অপসারণের ক্ষেত্রে আদালতে ৮ হাজার মামলা রয়েছে। এই মামলাগুলো দ্রুত নিষ্পত্তির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আমরা আইন অমান্য করে কিছু করতে চাই না। আবার ঠুনকো বিষয়ে আইনের অজুহাতে কোনও কিছু থেমে থাকবে না।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ দুর্যোগপ্রবণ দেশ, দুর্যোগ আসবেই। সেই দুর্যোগ মোকাবিলা করে যে কোনও অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যু ঠেকাতে হবে।

উপজেলা নির্বাচন নিয়ে স্বরূপকাঠীর প্রার্থীদের দৌঁড়ঝাপ
                                  

নিজস্ব প্রতিনিধি : কে হচ্ছেন পিরোজপুর জেলার নেছারাবাদ উপজেলার চূড়ান্ত ভাবে দলের নৌকার টিকিট পাওয়া ভাগ্যবান প্রার্থী? জাতীয় নির্বাচনের পর থেকেই উপজেলার সর্বত্র আলোচনায় চলে এসেছে উপজেলার নির্বাচনের ব্যাপক আলোচনা। উপজেলার সদরে পৌরসভার এনামুলের কনফেকসনারীসহ মানিকের টি স্টলের পাশাপাশি জনপ্রিয় মামা ভাগিনার কনফেকসনারীতে একই আলোচনা। কে হচ্ছেন বা কে পাচ্ছেন এবারের উপজেলা নির্বাচনের টিকিট। তবে এরই মধ্যে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যানের পাশাপাশি এ্যাড. এসএম ফুয়াদ, উদীয়মান তরুণ সমাজসেবক ও জেলা পরিষদের বর্তমান সদস্য এ্যাড. জাকারিয়া স্বপনের নাম বেশ ভাল ভাবেই আলোচনায় চলে এসেছে। আর এরই সূত্রধরে গত সপ্তাহে বর্তমান মন্ত্রী এ্যাড. শ ম রেজাউল করিমের সুনজর পাওয়ার জন্য বেশ তৎপর প্রার্থীরা। তবে মজার বিষয় বিগত নির্বাচনের মত এবারে কিন্তু নির্বাচন বানিজ্য হবে না বলে এলাকার বিজ্ঞ রাজনৈতিক নেতারা জাতীয় দৈনিক সকালের সময়কে বলেন। তাছাড়া সাবেক এমপি একেএম আউয়ালের মত নির্বাচন  বানিজ্য না হওয়ার সম্ভাবনা শতভাগ বলা যায়।
এ ব্যাপারে নেছারাবাদ উপজেলার ১০ইউনিয়নের বেশীর ভাগ চেয়ারম্যানরা মিডিয়াকে জানান, বর্তমান মন্ত্রী এক অন্য রকম মানুষ। গভীর চিন্তা ভাবনার পর সিদ্বান্ত নেওয়ার নেতা ও মন্ত্রী এ্যাড. শ ম রেজাউল করিম। তবে মন্ত্রীর আর্শীবাদ নেওয়ার পাশাপাশি জেলার শীর্ষ নেতাদের বাড়ীতে ভিড় করছেন। অবশ্য নির্বাচনী পরিবেশ কি রকম হবে তা বলা মুশকিল। তবে বৃহৎ দল বিএনপি এবারের নির্বাচনে অংশ নিবেন না বলে প্রাথমিক ভাবে জানা যায়। অবশ্য জাতীয় পার্টি উপজেলা নির্বাচন করবে শতভাগ নিশ্চত বলা যায়। অবশ্য প্রার্থীর নাম এখনো সুস্পষ্ট জানা যায়নি। তবে গত এক সপ্তাহে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নীতি নির্ধারকদের সাথে ও  সুমধুর সম্পর্ক রাখতে সদা ব্যাস্ত সময় পার করছেন বলে স্থানীয় নেতারা। এদিকে শান্তশিষ্ঠ ও সদালাপি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. এসএম ফুয়াদ মোবাইল ফোনের আলাপচারিতায় জেলার সাংবাদিকদের বলেন, আমি এবারের উপজেলা নির্বাচন করবো। তাছাড়া উপজেলার সাধারন কর্মীরা সহ এলাকার লোকজন আমাকে উপজেলার চেয়ারম্যান হিসাবে দেখতে চাচ্ছেন। তবে এটাও সত্য আমার কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি সকলকে সাথে নিয়ে। অপরদিকে আর একজন জেলা পরিষদের সদস্য এ্যাড. জাকারিয়া স্বপনও  উপজেলার চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে ব্যাপক প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মুহিদও দারুণ ভাবে মাঠে রয়েছেন। সর্বোপরি দেখা যাক কে উপজেলার নির্বাচনের দৌড়ঝাপে এগিয়ে থাকবেন। আর সে আশায় ভোটাররাও অধীর আগ্রহে বসে আছে চূড়ান্ত নির্দেশের অপেক্ষায়।

ক্ষতিগ্রস্থদের পুনর্বাসন সুবিধা প্রদান
                                  

সাদিক হাসান পলাশ
ঢাকা ওয়াসার ‘ঢাকা পরিবেশ বান্ধব নিরাপদ পানি সরবরাহ প্রকল্প (ডিইএসডবিøউএসপি)’ ক্ষতিগ্রস্থ ব্যক্তিদের পুনর্বাসন সুবিধা প্রদান করা হয়েছে। সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের গন্ধর্বপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থদের মধ্যে পুনর্বাসন সুবিধা প্রদানের মাধ্যমে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়।
ঢাকা ওয়াসা ও বেসরকারী সংস্থা ডরপ ক্ষতিগ্রস্থ ব্যক্তিদের মাঝে চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রকল্পের ৪ নম্বর সেকশনের দুইজন নারীসহ মোট ৫০ জন নন-টাইটেল্ড ক্ষতিগ্রস্থ ব্যক্তিদের পুনর্বাসন সুবিধা প্রদান করা হয়। সর্বোচ্চ ৭ লাখ ৮৩ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ পেয়েছেন শাহজাহান ফকির এবং সর্বনিম্ন ৫হাজার ৮শ টাকা ক্ষতিপূরন পেয়েছেন মজিবুর রহমান। মোট বিতরণকৃত টাকার পরিমাণ এক কোটি এক লাখ আট হাজার নয়শত বায়ান্ন টাকা।
প্রকল্প পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার মাহমুদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ঢাকা ওয়াসার পরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) ইঞ্জিনিয়ার আবুল কাশেম প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। বাস্তবায়নকারী এনজিও ডরপ এর নির্বাহী প্রধান ও গুসি আন্তর্জাতিক শান্তি পুরষ্কার বিজয়ী এএইচএম নোমান, ক্ষতিগ্রস্থদের পক্ষে মোঃ দেলোয়ার হোসেন ও শাহিনুল করিম তাদের সুবিধা ও অসুবিধা তুলে ধরে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।
অনুষ্ঠানে ১৯৮৪ সালে সরকার কর্তৃক ঢাকা পরিবেশ বান্ধব নিরাপদ পানি সরবরাহ প্রকল্পের আওতায় ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট নির্মাণের জন্য অধিগ্রহণকৃত ৮৩ একর জমিতে কৃষিকাজ, ক্ষুদ্রব্যবসা, বর্গাচাষী হিসেবে জীবিকা নির্বাহ করে যারা দিন, মাস, বছর পার করেছেন তাদেরকে এডিবি গাইডলাইন, সরকারী নীতিমালা ও আইনানুযায়ী প্রযোজ্য ক্ষতিপূরন প্রদান করা হয়। জীবিকা চলমান রাখতে প্রকল্প কারণে ক্ষতিগ্রস্থ অতিদরিদ্রদের জন্য আয়বর্ধক কার্যক্রমের আওতায় প্রশিক্ষণের আয়োজন ও নগদ আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হবে বলে অনুষ্ঠানে জানানো হয়।
উল্লেখ্য, ডিইএসডবিøউএস প্রকল্পের আওতায় পরিশোধিত পানি ঢাকা ওয়াসা এর বিতরণ বিভাগের তত্ত¡াবধানে ঢাকাবাসীর কাছে সরবরাহ করা হবে। প্রকল্পের আওতায় আড়াইহাজার উপজেলার শম্ভুপুরা মৌজায় মেঘনা নদী থেকে পানি আহরণের জন্য একটি জলাধার স্থাপন করা হবে। অপরিশোধিত পানি ২২ কিঃ মিঃ দীর্ঘ পাইপলাইনের মাধ্যমে রূপগঞ্জ উপজেলার গন্ধর্বপুর মৌজায় পানি শোধনাগারে সরবরাহ করা হবে। পরিশোধিত পানি ১৪ কিঃ মিঃ দীর্ঘ পাইপলাইনের মাধ্যমে বারিধারার আমেরিকান দূতাবাস সংলগ্ন ঢাকা ওয়াসার মূল পানি বিতরণ নেটওয়ার্কে সরবরাহ করা হবে। এই প্রকল্পের লক্ষ্য হচ্ছে প্রতিদিন গড়ে ১৫০ মিলিয়ন লিটার ভূগর্ভস` পানি আহরণ হ্রাস করা। বাংলাদেশ সরকার, ঢাকা ওয়াসা, এডিবি, এএফডি এবং ইআইবি এর যৌথ অর্থায়নে এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। পুনর্বাসন বাস্তবায়নকারী সংস্থা হিসেবে ডরপ কাজ করছে। প্রকল্পের মোট ক্ষতিগ্রস্থ ব্যক্তি ৫৩৪২ জন (টাইটেল্ড ও নন-টাইটেল্ড)। প্রকল্পের আওতায় ছয়টি সেকশনের মধ্যে দুইটি সেকশনের শম্ভুপুরা, টেটিয়া ও চৈতনগান্ধা মৌজা এবং গন্ধর্বপুর ও চর গন্ধর্বপুর মৌজায় কমবেশি আট কোটি টাকা পুনর্বাসন সুবিধা হিসেবে বরাদ্দ আছে বলে জানা যায়।

স্বরূপকাঠিতে পঁচা ইট দিয়ে রাস্তা নির্মাণ
                                  

রোকসানা রুনু, স্বরূপকাঠি: স্বরূপকাঠির মধ্য নান্দুহার গ্রামের ২ কিলোমিটার কার্পেটিং রাস্তা নির্মানে পঁচা ইট ব্যবহারের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরেজমিনে গতকাল নির্মানাধীন রাস্তায় গেলে কাজ করা শ্রমিকরা জানায়, পঁচা ইট দিয়ে রাস্তা নির্মাণের কাজ চলছে এবং স্বরূপকাঠি এলজিইডির সাইড ভিজিড করা সাব-ইঞ্জিনিয়র তাদের এ ইট ব্যবহারের জন্য বলেছেন। এসময় কবিরাজ বাড়ির হাকিম কবিরাজ নামের এক ব্যক্তি ইটের বড় কয়েকটি টুকরো হাতে নিয়ে এক হাতেই তা ভেঙ্গে গুড়ো করে দেখিয়ে বলেন, এর থেকে পোড়া মাটিও শক্ত হয়। নাম না প্রকাশ সত্যে এক শ্রমিক জানায়, এর থেকে নিম্নমানের ইট আর নেই, এগুলো পঁচা ইট। স্থানীয় কহিনুর বেগম জানায় ৮ মাস আগে সে এই ইট ভেঙ্গেছে যার মজুরী আজও তারা পায়নি, ইটগুলো পঁচা। স্থানীয়দের অভিযোগ এই রাস্তায় পঁচা ইট ব্যবহার করে সেগুলো আড়াল করার জন্য উপড়ে ভাল ইটের খোয়া(ভাঙ্গা ইট) দিয়ে ঢেকে দেওয়া হচ্ছে। দীর্ঘদিনের প্রতিক্ষার পর এ রাস্তাটি করা হচ্ছে তাইএধরণের বাজে নির্মাণ সামগ্রী সরিয়ে ফেলে ভাল নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার করতে হবে। স্বরূপকাঠি এলজিইডির প্রকৌশলী কবির মিয়ার সংগে দেখা করে এবিষয়ে তথ্য ও তার মন্তব্য জানতে চাইলে তিনি কোন তথ্য দিতে অপরাগতা প্রকাশ করেন। তবে  রাস্তায় পঁচা ইট ব্যবহার হচ্ছে, ঠিকাদারকে বিল ছাড়া হবে না ইত্যাদি বলে এক্সইয়েন পিরোজপুরের অনুমতি ছাড়া স্বাক্ষাৎকার দেয়া যাবেনা বলেন। এবিষয়ে নির্বাহী প্রকৌশলী, এলজিইডি, পিরোজপুরের ০১৭১৫১০৪৪০০ নাম্বারে একাধিকবার যোগাযোগের চেস্টা করা হলেও তিনি কল রিসিভ করেননি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা স্বরূপকাঠি বরাবরে গত ডিসেম্বরে এলাকাবাসি এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দিলেও ইউএনও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ব্যস্ততা ও নির্বাচন পরবর্তি ট্রেনিং এ থাকায় ঠিকাদার বীরদর্পে একাজ করে চলছেন। এদিকে সুটিয়াকাঠি ইউপি চেয়ারম্যান গাউছ মিয়া তালুকদার কোন মন্তব্য করতে নারাজি প্রকাশ করেছেন। বিএনপি নেতা ও বলদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদ জেলে থাকায় ঠিকাদারী কাজটির দেখভাল করছেন তার ভাই মিজানুর রহমান। রাস্তায় পঁচা ইট ব্যবহারের একটি ভিডিও দেখে তিনি বলেন, অচিরেই এসব নিন্মমানের মালামাল অপসরন করে ভালো মানের মালামাল ব্যবহার করা হবে, শ্রমিকদের মজুরী মিস্ত্রিকে অনেক আগেই আমরা পরিশোধ করেছি, তাই শ্রমিকরা আমাদের কাছে টাকা পাবেনা। তিনি এসময় উপজেলা এলজিইডির বিভিন্ন কাজের সমালোচনা করেন, তার অভিযোগ প্রকৌশলী তাদের কাজে সহায়তা করেন না, সাইড ভিজিটের নামে লাঞ্চ ফিসহ হাজিরা প্রতি এক হাজার করে টাকা দিতে হয়, তারপরেও বিল করার সময় তাদের নাটকীয়তার শেষ থাকেন না।

স্বরূপকাঠী উপজেলা নির্বাচনে নুতন চমক জাকারিয়া স্বপন
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : সততাই প্রধান সম্পদ আর সততার গুনে তিলে তিলে ইউনিয়ন হয়ে উপজেলা। এরপর জেলার রাজনীতিতে পাকাপোক্ত অবস্থান এ্যাড. জাকারিয়া স্বপনের। সদা হাস্য উজ্জল ও সাদামাটা মানুষ হয়ে সকলের সাথে পথচলা এ নেতার। বিগত সময়ে কলেজ জীবনেই তুখোড় নেতা হয়ে স্বরূপকাঠীর রাজনীতির মাঠ কাপিয়েছেন মেধা ও সাহসীকতা দিয়ে। পরবর্তী সময়ে আইন বিষয়ে লেখাপড়া করে বাস্তব জীবনে পাকাপোক্ত আইনজীবি হিসাবে গড়ে তুলছেন নিজেকে। এদিকে আইন ব্যবসার পাশাপাশি রাজনীতি যেন রক্ত মজ্জায় প্রবেশ করে আছে রন্দ্রে রন্দ্রে। আর তারই সূত্রধরে এ্যাড. জাকারিয়া স্বপন গত জেলা পরিষদ নির্বাচন করার ভাষনা প্রকাশ করেন। আর সে সূত্রধরে নেছারাবাদের সুটিয়াকাঠী এরিয়ায় নির্বাচন করে সবাইকে তাক লাগিয়ে দেন এ্যাড. জাারিয়া স্বপন। এলাকার অফুরন্ত ভালবাসায় সফল হয়ে নিজেকে উজাড় করে দিচ্ছে সময়ের সাথে সাথে। আর সততার মধ্য দিয়ে জেলা পরিষদেও নিজেকে আপন মহিমায় তুলে ধরেছেন একজন সৎ ও আদর্শবান সদস্য হিসাবে। জেলা পরিষদে সততার পুরুস্কার স্বরূপ এ্যাড. জাকারিয়া স্বপনকেও  উপস্থিত সকল সদস্যদের সামনে কাজের সততার কথা তুলে ধরেন। সুনামের সহিত প্রচার করেছেন ভালো কাজের কথা। একমাত্র স্বপনই প্রতিটি স্কীমের কাজ করে বালিহারি, সুটিয়াকাঠী ও দৈহারীতে। নিজের সততার মাধ্যমে চমৎকার ভাবে কাজ সম্পন্ন করেছেন। এ ব্যাপারে জেলার মিডিয়া কর্মীদের সাথে কথা হয় এ্যাড. জাকারিয়া স্বপনের। সদা হাস্যউজ্জল স্বপন জাতীয় দৈনিক সকালের সময়কে জানান, আসলে আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক। রাজনীতি করি দলের আদর্শ নিয়ে। নিজেকে বিলিয়ে দিতে চাই মানব সেবায়। আর তাই এবার উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসাবে নির্বাচন করে মানুষের আশা পুরন করবো। আমি উপজেলাবাসীর খেদমত করার বাসনা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি সকলের আর্শীবাদ নিয়ে।

স্বরূপকাঠীতে উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী নিয়ে সরকারী দলে টান টান উত্তেজনা
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : জাতীয় সংসদ  নির্বাচনের হাওয়া শেষ হতে না হতেই আগাম শুরু হয়ে গেছে উপজেলা নির্বাচনী হাওয়া। পরিবেশ ও পরিস্থিতি ঠিকঠাক থাকলে আগামী মার্চ মাসে উপজেলা নির্বাচন নিশ্চিত বলে রাজনৈতিক বোদ্ধারা মনে করেন। অবশ্য নির্বাচন কমিশনও আগাম বলে দিয়েছে আগামী মার্চ মাসে উপজেলা নির্বাচনের সম্ভাব্য সময়। অবশ্য এবারের নির্বাচন দলীয় প্রতীকে না কি বিগত নির্বাচনের মত হবে। অবশ্য সব কিছু সরকার প্রধানের উপর নির্ভর করবে বলে রাজনৈতিক বোদ্ধারা মনে করেন। এদিকে দলীয় প্রতীক নিয়ে নির্বাচন হলে পরিবেশ হবে ভিন্ন আঙ্গিকে। আর দলের প্রতীক ছাড়া নির্বাচন হলে সমগ্র বাংলাদেশের পরিস্থিতি হবে আর এক রকমের স্বাদ। যদিও স্থানীয় রাজনীতিতে বিগত সময়ে দলীয় প্রতীক বরাদ্ধ করায় আওয়ামী লীগ সরকার কম বেশী আলোচিত বা সমালোচিত হয়েছে। এ ব্যাপারে সরকার দলীয় বিজ্ঞ নেতারা গণমাধ্যম কর্মীদের জানান, আসলে বিগত সময়ের মত দলের প্রতীক বরাদ্ধ দিলে বেশীর ভাগ বিজ্ঞ ও জনপ্রিয় নেতারা হারিয়ে যাবে। স্ব স্ব এলাকায় ত্যাগী নেতারাও অর্থের কারণে ও প্রতীক পায় না। পাশাপাশি ক্ষমতাসীন দল বানিজ্যে নেমে পড়ে। কম বেশী জেলার নেতৃবৃন্দসহ এলাকার এমপি মহদয়েরাও অলিখিত বানিজ্যে নেমে পড়ে। আর যার জলন্ত উদাহরন নেছারাবাদের বিগত উপজেলার নির্বাচন।  অভিযোগ উঠেছিল সাবেক এমপি একেএমএ আউয়ালের বিরুদ্ধে। একক ভাবে মোটা অঙ্কের বানিজ্য করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে তৎকালীন বহু প্রার্থী জাতীয় গণমাধ্যমকর্মীদের জানান। অবশ্য এবারের পরিবেশ ভিন্ন। আর তার কারন সুবক্তা, বিশিষ্ট আইনজীবি ও বর্তমান মন্ত্রী এ্যাড. শ ম রেজাউল করিম।
এ ব্যাপারে উপজেলার বিজ্ঞ রাজনীতিবিদরা মিডিয়াকে জানান, নেছারাবাদে আর কোনদিন সাবেক এমপি আউয়ালের মত নোংড়া ও টাকার নমিনেশনে উপজেলা নির্বাচন হবে না। নেছারাবাদ এলাকার সাধারণ কর্মীরা আনন্দের সহিত জানান, দলের প্রতীক নিয়ে হোক আর প্রতীক ছাড়া হোক। আসলে এবারের উপজেলার নির্বাচন হবে ভিন্ন আঙ্গিকে। অবশ্য বিগত সময়ে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম মুইদুল ইসলামের প্রচুর গ্রহন যোগ্যতা থাকা সত্বেও তাকে বসিয়ে দেওয়া হয়েছিল। শুধু তাই নয় সাবেক এমপি নিজ দলীয় স্থানীয় নেতাদের নিয়ে তামাশা ও করেছেন। আর মোটা অঙ্কের অর্থ হাতিয়ে নিতে ভুল করেননি সাবেক এমপি। এদিকে এত কিছুর পর এবার হবে মেধার ও জনপ্রিয়তার খেলা। স্থানীয় আওয়ামী লীগে এবারের উপজেলা নির্বাচনে বাঘা দুই হেভিওয়েট প্রার্থীর নাম শোনা যায়। একজন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম মুইদুল ইসলাম। আর একজন স্বরূপকাঠী আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. এসএম ফুয়াদ। যদিও নেছারাবাদ উপজেলায় জনপ্রিয়তার দিক দিয়ে এসএম মুহিদ বেশ এগিয়ে। তবে এটাও সত্য এ্যাড. ফুয়াদও হাল ছাড়ার লোক নয়। আসলে সব কিছু আবার নির্ভর করবে স্থানীয় পর্যায়ের দলের ভিতরের কিছু গোপন রাজনীতির দিকনির্দেশনা। আসল কলকাঠী কে নাড়ায় তাও দেখার মূখ্য বিষয়। তবে এত কিছুর পরও হয়তো কে শেষ হাসি হাসবে। আর তারই অপেক্ষায় স্বরূপকাঠীবাসী।

সাভারে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ, বিজিবি মোতায়েন
                                  

সাভার প্রতিনিধি : সাভার ও আশুলিয়ায় পোশাক কারখানার শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ, ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া চলছে। এতে পুলিশসহ অন্তত ১৫ জন শ্রমিক আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সেখানে পুলিশের পাশাপাশি বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে।

সরকারি মজুরি কাঠামো বৃদ্ধি ও বাস্তবায়নের দাবিতে চতুর্থ দিনের মতো বুধবার সকাল ৯টা থেকে সাভারের হেমায়েতপুর ও আশুলিয়ার কাঠগড়া এলাকায় শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করলে এক পর্যায়ে সংঘর্ষ বেধে যায়।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সাভার ও আশুলিয়ার পোশাক কারখানার সামনে পুলিশের পাশাপাশি বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) মোতায়েন করা হয়েছে। বেশ কয়েকটি কারখানা ছুটি ঘোষণা করেছে কারখানা কর্তৃপক্ষ।

শ্রমিকরা জানান, সকালে বেতন বৃদ্ধির দাবিতে সাভারের উলাইল ও আশুলিয়ার কাঠগড়া এলাকায় বেশ কয়েকটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করেন। একপর্যায়ে পুলিশ এ বিক্ষোভে বাধা দেয়।

এতে শ্রমিক ও পুলিশের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া হয়। এ সময় শ্রমিকরা পুলিশের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে পুলিশসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন। এ সময় পুলিশ শ্রমিকদের ওপর দফায় দফায় টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। এ ঘটনায় সাভার ও আশুলিয়ায় সকাল থেকে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

শিল্প পুলিশ-১-এর পরিচালক সানা শামীনুর রহমান জানান, বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা সকাল ৯টা থেকে বাইপাইল আবদুল্লাহপুর মহাসড়কের এশিয়া এবং সাভারের হেমায়েতপুরের নরসিংহপুর এলাকা প্রায় এক ঘণ্টা অবরোধ করে রাখে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাভার ও আশুলিয়ায় বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। কারখানাগুলোর সামনে পুলিশের জলকামানসহ সাঁজোয়া যান রয়েছে।

এদিকে শ্রমিক বিক্ষোভের মুখে আশুলিয়ায় চারাবাগ এলাকার মেট্রো ও নিউ এশিয়া এবং সাভারের স্ট্যান্ডার্ট গ্রুপের সামস স্টাইলওয়্যার লিমিটেডসহ তিনটি কারখানা অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে মালিপক্ষ।

পোশাক কারখানাগুলোর কাজের পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে মালিকপক্ষের সঙ্গে আলোচনা চলছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের ওই কর্মকর্তা।

মঙ্গলবার সংঘর্ষে উলাইল এলাকার আনলিমা টেক্সটাইলের সুমন নামে এক শ্রমিক নিহত হন।


   Page 1 of 20
     নগর-মহানগর
রমজান মাসে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখার সুপারিশ
.............................................................................................
শীর্ষে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া-স্বরূপকাঠী
.............................................................................................
স্বরূপকাঠীতে মুক্তিযোদ্ধা ভবনের উদ্বোধন
.............................................................................................
স্বরূপকাঠীতে ভাইস চেয়ারম্যান পদে শক্ত অবস্থানে রনী দত্ত
.............................................................................................
স্বরূপকাঠীতে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়ীতে প্রেমিকা
.............................................................................................
মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি রক্ষার্থে বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণ করা হবে: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী
.............................................................................................
স্বরূপকাঠিতে স্বপনের পথসভা
.............................................................................................
বেলায়েত হোসেনকে উপজেলায় দেখতে চায় স্বরূপকাঠীবাসি
.............................................................................................
পিরোজপুরের জলাবাড়ীতে কাপড় শুকানোকে কেন্দ্র করে মারামারি
.............................................................................................
আইন অমান্য করে ভবন নির্মাণ করতে দেওয়া হবে না: গণপূর্ত মন্ত্রী
.............................................................................................
উপজেলা নির্বাচন নিয়ে স্বরূপকাঠীর প্রার্থীদের দৌঁড়ঝাপ
.............................................................................................
ক্ষতিগ্রস্থদের পুনর্বাসন সুবিধা প্রদান
.............................................................................................
স্বরূপকাঠিতে পঁচা ইট দিয়ে রাস্তা নির্মাণ
.............................................................................................
স্বরূপকাঠী উপজেলা নির্বাচনে নুতন চমক জাকারিয়া স্বপন
.............................................................................................
স্বরূপকাঠীতে উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী নিয়ে সরকারী দলে টান টান উত্তেজনা
.............................................................................................
সাভারে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ, বিজিবি মোতায়েন
.............................................................................................
সর্বোচ্চ ভোট পেয়েছেন ডা. এনামুর
.............................................................................................
স্বরূপকাঠীতে লাঙ্গলের গণসংযোগ
.............................................................................................
হাতপাখার নির্বাচনী গণসংযোগ শুরু
.............................................................................................
নৌকাই বাংলাদেশের উন্নয়নের সঠিক পথ দেখাবে
.............................................................................................
স্বরূপকাঠীর সমুদয়কাঠীতে শ ম রেজাউলের নির্বাচনী সভা অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
স্বরূপকাঠীতে জাপা প্রার্থীর ব্যাপক গণসংযোগ
.............................................................................................
প্রচারে নৌকা-লাঙ্গল-আম শঙ্কায় ধানের শীষের প্রার্থী
.............................................................................................
মাদকের সাথে আপোষ নেছারাবাদ পুলিশের
.............................................................................................
স্বরূপকাঠীতে আ.লীগের প্রার্থীর নির্বাচনী প্রচারণা
.............................................................................................
জাপা প্রার্থী ভোট যুদ্ধে
.............................................................................................
মুসলিম হওয়ার অপরাধে মেয়ের সর্বনাশে বাবা
.............................................................................................
পিরোজপুরে রাজনৈতিক মাঠে কাঁদা ছোড়াছুড়ি
.............................................................................................
লেবেল প্লেয়িংয়ের সুবিধা থেকে বঞ্চিত পিরোজপুরের বিএনপির নেতাকর্মীরা
.............................................................................................
পিরোজপুরে শামীম সাঈদী ধানের শীষ পাওয়ায় সাধারণ জনতা বেজায় খুশি
.............................................................................................
নিরাপত্তাহীনতায় স্বরূপকাঠির দৈহারীর ইউপি চেয়ারম্যান প্রগতী
.............................................................................................
স্বরূপকাঠী আ.লীগের রাজনীতির মাঠ উত্তপ্ত
.............................................................................................
স্বরূপকাঠীতে জয়ীতা পদক পেলেন ৫ নারী
.............................................................................................
দীর্ঘায় স্কুল ছাত্রী দিপা বাচ্চার স্বীকৃতি চায়
.............................................................................................
ব্যাটমিন্টন খেলা নিয়ে স্বরূপকাঠীতে রক্তারক্তি
.............................................................................................
স্বরূপকাঠীর শেখর চেয়ারম্যানের পাগলামী
.............................................................................................
যে কথা বলে কান্নায় ভেঙে পড়লেন অরিত্রীর বাবা
.............................................................................................
নেছারাবাদে নবরুপ পেয়েছে ইউনিয়ন কৃষি সিট স্টোর
.............................................................................................
পিরোজপুরের দৈহারীর ছৈলাবুনিয়ায় চতুর্থ শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা
.............................................................................................
পিরোজপুরে বালিকা ধর্ষনের ১৫ লাখ টাকা বানিজ্যের অভিযোগ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে
.............................................................................................
রমেন-অঞ্জলীর প্রেম প্রেম খেলা
.............................................................................................
স্বরূপকাঠীর জগৎপট্টিতে গর্ভবতি মহিলাও রেহাই পায়নি আদম-হাদিস গংদের কাছে
.............................................................................................
ইন্দেরহাটে শ ম রেজাউল করিমের নির্বাচনী সভা
.............................................................................................
স্বরূপকাঠীতে ইউপি চেয়ারম্যান প্রগতীর বিরুদ্ধে মেম্বরসহ এলাকাবাসির বিক্ষোভ
.............................................................................................
পিরোজপুর সদর আসনে ধানের শীষের প্রতীক পেলেন ব্যারিস্টার এম সরোয়ার
.............................................................................................
স্বরূপকাঠীতে তারেক একাডেমীর জলাবাড়ী শাখা গঠন
.............................................................................................
পিরোজপুরে রেজাউল করিম নমিনেশন পাওয়ায় সর্বস্তরের মানুষ বেজায় খুশি
.............................................................................................
কামারকাঠীতে শিশু ধর্ষনের অভিযোগ নিয়ে ধূম্রজাল
.............................................................................................
জায়গা জমি নিয়ে স্বরূপকাঠীতে মারামারি
.............................................................................................
স্বরূপকাঠীতে জেএসসি ছাত্রী প্রেমের টানে ঘর ছাড়া
.............................................................................................

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মো: রিপন তরফদার নিয়াম ।
প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক : মফিজুর রহমান রোকন ।
নির্বাহী সম্পাদক : শাহাদাত হোসেন শাহীন ।

সম্পাদক কর্তৃক শরীয়তপুর প্রিন্টিং প্রেস, ২৩৪ ফকিরাপুল, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত । সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল কমপ্ল্যাক্স (৬ষ্ঠ তলা) । ২৮/১ সি টয়েনবি সার্কুলার রোড, মতিঝিল, বা/এ ঢাকা-১০০০ । জিপিও বক্স নং-৫৪৭, ঢাকা ।
ফোন নাম্বার : ০২-৯৫৮৭৮৫০, ০২-৫৭১৬০৪০৪
মোবাইল : ০১৭০৭-০৮৯৫৫৩, ০১৯১৬৮২২৫৬৬ ।

E-mail: dailyganomukti@gmail.com
   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি