ঢাকা,সোমবার,১২ আশ্বিন ১৪২৮,২৭,সেপ্টেম্বর,২০২১ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : > নদী খাল দখলের প্রতিবাদে মোংলায় মানববন্ধন   > আবর্জনা ফেলার স্থানে পরিণত যাত্রী ছাউনি   > ঝুঁকিপুর্ণ পোনা নদীর সেতু   > অসাধু ডাক্তারের হাতে সরকারি হাসপাতালের সেবা   > চমক নিয়ে ব্রাজিলের দল ঘোষণা   > ‘বাকের খনি’র ট্রিপল সেঞ্চুরি   > কোস্টগার্ডের অভিযানে ইয়াবা ও গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক   > বাণিজ্য সম্প্রসারণে বৈশ্বিক ভিত্তি বঙ্গবন্ধুর তৈরি করা   > সাবেক প্রতিমন্ত্রী মান্নান ও তাঁর স্ত্রীর বিচার শুরু   > করোনায় শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২১  

   আইন ও আদালত -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
ইভ্যালির রাসেল এক দিনের রিমান্ডে, শামীমা জেলে

কোর্ট রিপোর্টার : রাজধানীর ধানমন্ডি থানার মামলায় ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. রাসেলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এক দিনের রিমান্ড দিয়েছেন আদালত। অপরদিকে রাসেলের স্ত্রী ও প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিনের রিমান্ড নাকচ কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেওয়া হয়েছে।  মঙ্গলবার ঢাকার অ্যাডিশনাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট হাসিবুল হক এই আদেশ দেন।  এ বিষয়ে আদালতের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা (জিআরও) কামরুজ্জামান এনটিভি অনলাইনকে নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, গত রোববার এক ব্যবসায়ী বাদী হয়ে ৩৫ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে রাসেল-শামীমাসহ সাত-আটজনের বিরুদ্ধে ধানমন্ডি থানায় মামলা করেন। এর আগে গত বৃহস্পতিবার বিকেলে মো. রাসেল ও তাঁর স্ত্রী শামীমা নাসরিনকে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের স্যার সৈয়দ রোডের বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)। এরপরের দিন শুক্রবার তাঁদের ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুল ইসলাম তিন দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন। সেই রিমান্ড শেষ হলে তাঁদের আজ আদালতে আনা হয়। তবে আজ তাদের গুলশান থানায় করা মামলায় নতুন করে রিমান্ডের আবেদন না করে কারাগারে পাঠানোর আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) ওহিদুল ইসলাম।এর আগে বুধবার দিবাগত রাতে একজন গ্রাহক রাসেল ও শামীমা নাসরিনের বিরুদ্ধে প্রায় সোয়া তিন লাখ টাকা প্রতারণা, আত্মসাৎ ও হত্যার হুমকির অভিযোগে গুলশান থানায় মামলা করেন। এর পরই অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। 

ইভ্যালির সিইও মো. রাসেল ও তাঁর স্ত্রী প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিনকে গ্রেপ্তারের পর এক ব্রিফিংয়ে র‍্যাবের লিগাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন জানান, রাসেল জানিয়েছেন, তিনি পরিকল্পিতভাবে এই ব্যবসাটি করে আসছিলেন। এটি পরিবার নিয়ন্ত্রিত ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান ছিল। প্রতিষ্ঠানের গঠনতন্ত্রে স্বচ্ছতা ছিল না। তা ছাড়া প্রতিষ্ঠানে কোনো জবাবদিহিতাও ছিল না। ফলে ক্রমান্বয়ে প্রতিষ্ঠানটির দায় বৃদ্ধি পেতে থাকে। এবং বর্তমানে এই অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়। ইভ্যালির নেতিবাচক ব্যবসায়িক স্ট্র্যাটেজি উন্মোচিত হওয়ায় অনেক সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান এবং গেটওয়ে প্রতিষ্ঠান ইভ্যালি থেকে সরে এসেছে। ব্যবসায়িক উত্তরণ নিয়ে তিনি নিজেও সন্দিহান ছিলেন। এর উত্তরণের ব্যাপারে তিনি আমাদের কোনো সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা বলতে পারেননি।

 র‍্যাব জানায়, ইভ্যালির ব্যবসায়িক অবকাঠামো সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, ভাড়া করা স্পেসে ধানমন্ডিতে প্রধান কার্যালয় এবং কাস্টমার কেয়ার স্থাপিত হয়। একইভাবে ভাড়া করা স্পেসে আমিন বাজার ও সাভারে দুটি ওয়্যারহাউজ চালু করা হয়। কোম্পানিতে একপর্যায়ে প্রায় দুই হাজার ব্যবস্থাপনা স্টাফ এবং এক হাজার ৭০০ অস্থায়ী কর্মচারী নিয়োগ ছিল, যা ব্যবসায়িক অবনতিতে বর্তমানে যথাক্রমে স্টাফ এক হাজার ৩০০ জনে এবং অস্থায়ী পদে প্রায় ৫০০ জন কর্মচারীতে এসে দাঁড়িয়েছে। কর্মচারীদের একপর্যায়ে মোট মাসিক বেতন বাবদ দেওয়া হতো প্রায় পাঁচ কোটি টাকা; যা বর্তমানে এক দশমিক পাঁচ কোটিতে দাঁড়িয়েছে বলে জানিয়েছেন গ্রেপ্তার দুজন। গত জুন থেকে অনেকের বেতন বকেয়া রয়েছে। তিনি ও তাঁর স্ত্রী পদাধিকারবলে নিজেরা মাসিক পাঁচ লাখ টাকা করে বেতন নিয়ে থাকেন।

ইভ্যালির রাসেল এক দিনের রিমান্ডে, শামীমা জেলে
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : রাজধানীর ধানমন্ডি থানার মামলায় ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. রাসেলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এক দিনের রিমান্ড দিয়েছেন আদালত। অপরদিকে রাসেলের স্ত্রী ও প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিনের রিমান্ড নাকচ কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেওয়া হয়েছে।  মঙ্গলবার ঢাকার অ্যাডিশনাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট হাসিবুল হক এই আদেশ দেন।  এ বিষয়ে আদালতের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা (জিআরও) কামরুজ্জামান এনটিভি অনলাইনকে নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, গত রোববার এক ব্যবসায়ী বাদী হয়ে ৩৫ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে রাসেল-শামীমাসহ সাত-আটজনের বিরুদ্ধে ধানমন্ডি থানায় মামলা করেন। এর আগে গত বৃহস্পতিবার বিকেলে মো. রাসেল ও তাঁর স্ত্রী শামীমা নাসরিনকে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের স্যার সৈয়দ রোডের বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)। এরপরের দিন শুক্রবার তাঁদের ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুল ইসলাম তিন দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন। সেই রিমান্ড শেষ হলে তাঁদের আজ আদালতে আনা হয়। তবে আজ তাদের গুলশান থানায় করা মামলায় নতুন করে রিমান্ডের আবেদন না করে কারাগারে পাঠানোর আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) ওহিদুল ইসলাম।এর আগে বুধবার দিবাগত রাতে একজন গ্রাহক রাসেল ও শামীমা নাসরিনের বিরুদ্ধে প্রায় সোয়া তিন লাখ টাকা প্রতারণা, আত্মসাৎ ও হত্যার হুমকির অভিযোগে গুলশান থানায় মামলা করেন। এর পরই অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। 

ইভ্যালির সিইও মো. রাসেল ও তাঁর স্ত্রী প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিনকে গ্রেপ্তারের পর এক ব্রিফিংয়ে র‍্যাবের লিগাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন জানান, রাসেল জানিয়েছেন, তিনি পরিকল্পিতভাবে এই ব্যবসাটি করে আসছিলেন। এটি পরিবার নিয়ন্ত্রিত ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান ছিল। প্রতিষ্ঠানের গঠনতন্ত্রে স্বচ্ছতা ছিল না। তা ছাড়া প্রতিষ্ঠানে কোনো জবাবদিহিতাও ছিল না। ফলে ক্রমান্বয়ে প্রতিষ্ঠানটির দায় বৃদ্ধি পেতে থাকে। এবং বর্তমানে এই অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়। ইভ্যালির নেতিবাচক ব্যবসায়িক স্ট্র্যাটেজি উন্মোচিত হওয়ায় অনেক সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান এবং গেটওয়ে প্রতিষ্ঠান ইভ্যালি থেকে সরে এসেছে। ব্যবসায়িক উত্তরণ নিয়ে তিনি নিজেও সন্দিহান ছিলেন। এর উত্তরণের ব্যাপারে তিনি আমাদের কোনো সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা বলতে পারেননি।

 র‍্যাব জানায়, ইভ্যালির ব্যবসায়িক অবকাঠামো সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, ভাড়া করা স্পেসে ধানমন্ডিতে প্রধান কার্যালয় এবং কাস্টমার কেয়ার স্থাপিত হয়। একইভাবে ভাড়া করা স্পেসে আমিন বাজার ও সাভারে দুটি ওয়্যারহাউজ চালু করা হয়। কোম্পানিতে একপর্যায়ে প্রায় দুই হাজার ব্যবস্থাপনা স্টাফ এবং এক হাজার ৭০০ অস্থায়ী কর্মচারী নিয়োগ ছিল, যা ব্যবসায়িক অবনতিতে বর্তমানে যথাক্রমে স্টাফ এক হাজার ৩০০ জনে এবং অস্থায়ী পদে প্রায় ৫০০ জন কর্মচারীতে এসে দাঁড়িয়েছে। কর্মচারীদের একপর্যায়ে মোট মাসিক বেতন বাবদ দেওয়া হতো প্রায় পাঁচ কোটি টাকা; যা বর্তমানে এক দশমিক পাঁচ কোটিতে দাঁড়িয়েছে বলে জানিয়েছেন গ্রেপ্তার দুজন। গত জুন থেকে অনেকের বেতন বকেয়া রয়েছে। তিনি ও তাঁর স্ত্রী পদাধিকারবলে নিজেরা মাসিক পাঁচ লাখ টাকা করে বেতন নিয়ে থাকেন।

কারাগারের ডিআইজি পার্থ গোপাল বণিক কারাগারে বন্দি
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : ঘুষ গ্রহণ ও অর্থপাচার আইনে করা মামলায় বরখাস্ত সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি প্রিজনস) পার্থ গোপাল বণিক আত্মসমর্পণের পর জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল রোববার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ এর বিচারক শেখ নাজমুল আলমের আদালতে তিনি আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। শুনানি শেষে বিচারক আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। মামলার পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণ ২২ সেপ্টেম্বর। ২০১৯ সালের ২৮ জুলাই কারাগারে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে দুদকের প্রধান কার্যালয়ে পার্থ গোপাল বণিককে জিজ্ঞাসাবাদ করার এক পর্যায়ে অভিযানে নামে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। ওইদিন বিকেলে ধানমন্ডির ভূতের গলিতে পার্থ গোপালের ফ্ল্যাটে অভিযান চালিয়ে ৮০ লাখ টাকা উদ্ধার করে দুদক। এর পরেই আটক করা হয় তাকে। পরদিন ২৯ জুলাই তার বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ১৬১ ধারাসহ ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫ (২) ধারা এবং মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন ২০১২-এর ৪ (২) ধারায় দুদকের ঢাকা সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১ এ মামলা দায়ের করে দুদক।
অভিযোগপত্রে বলা হয়, বরখাস্ত কারা উপ-মহাপরিদর্শক পার্থ গোপাল বণিক সরকারি চাকরিতে দায়িত্ব পালনকালে ক্ষমতার অপব্যবহার করে বিভিন্ন অনিয়ম, দুর্নীতি ও ঘুষের মাধ্যমে ৮০ লাখ টাকা অবৈধভাবে অর্জন করেন। এসব টাকা গোপন করে তার নামীয় কোনো ব্যাংক হিসাবে জমা না রেখে বিদেশে পাচারের উদ্দেশে নিজ বাসায় লুকিয়ে রেখে দণ্ডবিধির ১৬১ ধারা, দুর্নীতি দমন কমিশন আইন, ২০০৪ এর ২৭(১) ধারা, দুর্নীতি প্রতিরোধ আইন, ১৯৪৭ এর ৫(২) ধারা এবং মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন, ২০১২ এর ৪(২) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন।

তিন দিনের রিমান্ডে ইভ্যালির চেয়ারম্যান ও সিইও
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. রাসেল এবং তাঁর স্ত্রী প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিনকে তিন দিন করে রিমান্ডে নেওয়ার আদেশ দিয়েছেন আদালত। তাঁদের বিরুদ্ধে পুলিশ ১০ দিন করে রিমান্ড আবেদন করলে আদালত তিন দিন করে রিমান্ড দেন। ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুল ইসলামের আদালতে গতকাল শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে এই রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়। আদালতের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে হবে। এ ছাড়া নারী আসামিকে নারী পুলিশ সদস্যের উপস্থিতিতে জিজ্ঞাসাবাদ করতে হবে। ইভ্যালির সিইও মো. রাসেল এবং তাঁর স্ত্রী প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিনকে গ্রেপ্তারের পর শুক্রবার এক ব্রিফিংয়ে র?্যাবের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘দেশি বা আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানের কাছে দায়সহ প্রতিষ্ঠানটি বিক্রি অথবা দায় মেটাতে না পারলে প্রতিষ্ঠানটি দেউলিয়া ঘোষণার পরিকল্পনা নিয়েছিলেন সিইও রাসেল।’ র‌্যাবের লিগাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন আজ ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানিয়েছেন।

গ্রুপ চেয়ারম্যানসহ চার ভাই ৭ দিনের রিমান্ডে
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : গ্রাহকদের ১৭ হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের মামলায় এহসান গ্রুপের চেয়ারম্যান রাগীব আহসানসহ তার তিন ভাইয়ের সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। সোমবার পিরোজপুরের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. মহিউদ্দীন এই আদেশ দেন। পিরোজপুর জেলা জজ আদালতের পিপি খান মো. আলাউদ্দিন এ তথ্য জারিয়েছেন। রাগীব আহসানের অন্য তিন ভাই হলেন মাওলানা আবুল বাশার, মো. খাইরুল ইসলাম ও মুফতি মাহমুদুল হাসান। পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ জেড এম মাসুদুজ্জামান জানান, প্রতারণা ও অর্থ আত্মসাতের মামলায় রাগীব হাসান ও তার তিন ভাইকে আদালতে হাজির করে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন জানানো হয়। পরে তাদের সাত দিনের রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন আদালত। গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে রাজধানীর শাহাবাগ থানার তোপখানা রোড এলাকায় অভিযান চালিয়ে এহসান গ্রুপের চেয়ারম্যান মুফতি রাগীব আহসান ও তার সহযোগী মো. আবুল বাশার খানকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। এর আগে ওই দিন বিকালে সদর উপজেলার খলিশাখালী এলাকা থেকে মাওলানা মাহমুদুল হাসান ও মো. খাইরুল বাশারকে গ্রেফতার করে পিরোজপুর সদর থানা পুলিশ। গত ৫ সেপ্টেম্বর জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে লক্ষাধিক গ্রাহকের সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগ তোলা হয়। ভুক্তভোগী গ্রাহকদের অভিযোগ, প্রতিষ্ঠানটি ১৭ হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছে।

সামিয়া রহমানের পদাবনতি কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক সামিয়া রহমানের অভিযোগে গবেষণায় চৌর্যবৃত্তির অভিযোগে পদাবনতি দেওয়া কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। গতকাল রোববার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ সামিয়া রহমানের করা এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে এ আদেশ দেন। এদিন আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার হাসান এম এস আজিম। আদালত রুলের পাশাপাশি সামিয়া রহমান সংক্রান্ত সব নথি ২১ দিনের মধ্যে দাখিল করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। এর আগে গবেষণায় চৌর্যবৃত্তির ‘প্রমাণ পাওয়ায়’ সামিয়া রহমানকে সহযোগী অধ্যাপক থেকে এক ধাপ নামিয়ে সহকারী অধ্যাপক পদাবনতি করা হয়। একইসঙ্গে তাঁর গবেষণা-সহযোগী অপরাধবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক সৈয়দ মাহফুজুল হক মারজানকেও দুই বছর একই পদে থাকতে হবে বলে সিদ্ধান্ত দেয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট সভা। পরে সেসব সিদ্ধান্তের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়।

জাপানি দুই শিশু ১৫ দিন বাবা-মায়ের সঙ্গেই কাটাবে
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : জাপানি নাগরিক নাকানো এরিকো ও বাংলাদেশি-আমেরিকান শরীফ ইমরানের দুই শিশু আপাতত ১৫ দিন গুলশানের একটি ভাড়া করা বাসায় তাদের সঙ্গে থাকবে বলে আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। তাদের নিরাপত্তার বিষয়টি দেখাশোনা করবেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম। বিষয়টি তদারকি করবেন সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক। শিশু দুটি ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারের পরিবর্তে উন্নত হোটেলে রাখার বিষয়ে বাঙালি বাবা ও জাপানি মায়ের মতামত নিয়ে শুনানিতে মঙ্গলবার দুপুরে হাইকোর্টের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল বেঞ্চ এমন আদেশ দেন। আদালতে গতকাল শিশু দুটির মায়ের পক্ষে মোহাম্মদ শিশির মনির ও বাবার পক্ষে অ্যাডভোকেট ফাওজিয়া করিম ফিরোজ শুনানি করেন। শুনানির এক পর্যায়ে ওই দুই শিশু জেসমিন মালিকা ও লাইলা লিনা বাবার কাছে নাকি মায়ের কাছে থাকতে চায় সে বিষয়ে তাদের সঙ্গে একান্তে কথাও বলেছেন হাইকোর্ট। বিচারপতিদের খাস কামরায় প্রায় আধাঘণ্টা শিশুদের সঙ্গে কথা বলার পর আদালত উভয়পক্ষের আইনজীবীদের বলেন, আমরা চাই শিশুরা পারিবারিক পরিবেশে থাকুক। আপনারা সবাই বিষয়টি পজিটিভলি দেখুন। এর আগে গত ১৯ আগস্ট শিশুসহ তার বাবা ও ফুফুকে তলব করেছিলেন হাইকোর্ট। আদেশ অনুযায়ী দুই মেয়েসহ তাদের মা-বাবা এবং ফুফু আজ হাইকোর্টে উপস্থিত হন। এরপর দুপক্ষের আইনজীবীর শুনানি শুরু হয়। একপর্যায়ে আইনজীবীসহ দুই মেয়ে এবং তাদের মা-বাবা ও ফুফুকে খাস কামরায় ডেকে সবার বক্তব্য শোনেন আদালত। শুনানির শুরুতে মায়ের পক্ষের আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির আদালতকে বলেন, শিশুদের মা ঢাকার বারিধারায় একটি বাসা ভাড়া করেছেন। আমরা চাই ওই বাসায় বাচ্চারা মায়ের সাথে থাকুক। বাচ্চাদের বাবাও তার মতো করে ওই বাসায় আসুক-থাকুক। কারণ, এই কদিনে বাচ্চাদের মধ্যে যে একটা ট্রমা তৈরি হয়েছে তা কাটুক। তারপর আপনারা এ বিষয়ে চূড়ান্ত কোনো আদেশ দেন। তবে বাবার পক্ষের আইনজীবী ফাওজিয়া করিম শুনানিতে বলেন, বাচ্চারা বাবার বাসায় থাকুক। মা বাচ্চাদের দেখতে আসুক কোনো সমস্যা নেই। মা যে বাসাটার কথা বলছেন সে এরিয়ায় বাচ্চাদের থাকার বিষয়ে আমাদের আপত্তি আছে। শুনানিতে দুপক্ষের এমন দ্বিমুখী অবস্থানের প্রেক্ষাপটে আদালত বলেন, আমরা চাই বাচ্চা দুটি পারিবারিক পরিবেশে থাকুক। আপনারা একটু পজিটিভলি ভাবুন। এরপর বাবার পক্ষের আইনজীবী ফাওজিয়া আদালতকে বলেন, আমরা তাহলে আবার দু-পক্ষ একটু বসে সিদ্ধান্ত নিই। তারপর আপনাকে জানাই। আপনি তখন সিদ্ধান্ত দিতে পারেন। এরপর আদালত এ বিষয়ে আদেশের জন্য বেলা ৩টায় সময় নির্ধারণ করেন। দুই মেয়েকে নিজের জিম্মায় পেতে ঢাকায় এসে গত ১৯ আগস্ট জাপানি নারীর করা রিটের শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট রুলসহ আদেশ দেন। আদালত তার আদেশে দুই মেয়েসহ তাদের বাবা ও ফুপুকে আগামী ৩১ আগস্ট হাইকোর্টে হাজির হতে নির্দেশ দেন। এছাড়া ওই দুই মেয়েকে নিয়ে বাবা আগামী ৩০ দিন বিদেশ যেতে পারবেন না বলেও নিষেধাজ্ঞা দেন হাইকোর্ট। এরপর দুই মেয়েকে বাবার হেফাজত থেকে সিআইডি উদ্ধার করে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে রাখে। বিষয়টি গত ২৩ আগস্ট মেয়েদের বাবার পক্ষের আইনজীবী ফাওজিয়া করিম ফিরোজ হাইকোর্টের একই ভার্চুয়াল বেঞ্চের নজরে আনেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে হাইকোর্ট ৩১ আগস্ট পর্যন্ত শিশুদের ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারেই রাখার নির্দেশ দেন।

পরীমণির জামিন শুনানি কাল দায়রা জজ আদালতে
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : চিত্রনায়িকা পরীমনির জামিন শুনানি অনুষ্ঠিত হবে আগামী মঙ্গলবার। ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালতে এই জামিন শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। মাদক মামলায় গ্রেপ্তার পরীমনির জামিন আবেদনের শুনানি ২১ দিন পর ১৩ সেপ্টেম্বর নির্ধারণ করেছিলেন মহানগর দায়রা জজ আদালত। ওই আদেশ কেন বাতিল ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে গত বৃহস্পতিবার রুল দেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে জামিন আবেদনের শুনানি এগিয়ে এনে দুই দিনের মধ্যে তা করতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা-ও জানতে চাওয়া হয়েছিল রুলে। বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারওয়ারের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চ্যুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ এই রুল দেন। ১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলে সেদিন শুনানির দিন রেখেছেন হাইকোর্ট। আদালত সেদিন বলেছিলেন , ‘২১ দিন পরে তারিখ দেওয়ার কী আছে? অভিযুক্তের (পরীমণি) জামিন আবেদন শুনানির অধিকার আছে। কিন্তু মহানগর দায়রা জজ জামিন আবেদন শুনানির জন্য ১৩ সেপ্টেম্বর দিন রেখেছেন, যা আবেদনকারীর অধিকার ও স্বাধীনতাকে খর্ব করে।’ আদালতসংশ্লিষ্ট ও আইনজীবী সূত্রের তথ্যমতে, ২২ আগস্ট ঢাকার মহানগর দায়রা জজ এই মামলায় পরীমনির জামিন আবেদন শুনানির জন্য ১৩ সেপ্টেম্বর দিন রাখেন। পরদিন আবেদন ‘আর্লি হিয়ারিং’ বা নির্ধারিত সময়ের আগে শুনানি চেয়ে আবেদন করেন তাঁর আইনজীবী। এসবের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে আবেদন করেন পরীমনি। এতে বিলম্বে জামিন আবেদন শুনানির দিন রাখার যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে পরীমনির অন্তর্বতীকালীন জামিনও চাওয়া হয়। গত ৪ আগস্ট পরীমনিকে বনানীর বাসা থেকে বিদেশি মদসহ গ্রেপ্তার করে র?্যাব। এরপর তিন দফায় পরীমনিকে সাত দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। গত ১৯ আগস্ট পরীমনির জামিন আবেদন নাকচ করেন ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালত। এ আদেশের বিরুদ্ধে ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালতে জামিন আবেদন করেন পরীমনি। ওই আবেদনের শুনানি হবে আগামী মঙ্গলবার।

ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদকসহ দুই নেতা রিমান্ডে
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের নেতা মোস্তাফিজুর রহমান রুমিকে ২ দিনের রিমান্ড পাঠিয়েছেন আদালত। রাজধানীর চন্দ্রিমা উদ্যানে পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ এবং গাড়ি ভাংচুরের মামলায় মঙ্গলবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট নিভানা খায়ের জেসী এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এদিন দুই আসামিকে আদালতে হাজির করে সাত দিন করে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। অপরদিকে আসামিপক্ষে আইনজীবী নিহার হোসেন ফারুকসহ কয়েকজন আইনজীবী রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিনের জন্য আবেদন করেন। শুনানি শেষে বিচারক দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে গত সোমবার রাত ১০টার দিকে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর কাজলা থেকে ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল, সহ-সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদল নেতা মোস্তাফিজুর রহমান রুমিকে আটক করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ১৭ আগস্ট সকাল ১১টায় চন্দ্রিমা উদ্যানে জিয়াউর রহমানের সমাধিতে যাওয়া নিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে সংঘর্ষ বাঁধে। এ সময় বিএনপির নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুঁড়লে পুলিশ টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। তবে বিএনপির অভিযোগ, শুধু টিয়ারশেল নয়, গুলিও চালিয়েছে পুলিশ। পরে বিএনপি ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা বিভিন্ন এলাকায় মেট্রোরেল প্রকল্পের গাড়িসহ যন্ত্রপাতি ভাংচুর করেন। এ ঘটনায় মেট্রোরেল প্রকল্পের অ্যাডমিন অ্যান্ড সিকিউরিটি অফিসার আব্দুস সালাম বাদী হয়ে শেরেবাংলা নগর থানায় মামলা দায়ের করেন। চন্দ্রিমা উদ্যানে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ এবং গাড়ি ভাংচুরের ঘটনায় এ পর্যন্ত তিনটি মামলা হয়েছে। শেরেবাংলা নগর থানায় মঙ্গলবার রাতে এসব মামলা করা হয়। থানার ওসি জানে আলম মুন্সী বলেন, মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ দুটি এবং পুলিশ বাদী হয়ে একটি মামলা করেছে। মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষের করা মামলায় বলা হয়েছে, তাদের বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। এতে তাদের ৩০ থেকে ৪০ লাখ টাকা ক্ষতি হয়েছে। আর সরকারি কাজে বাধা, মারধরের অভিযোগে পুলিশের পক্ষ অন্য মামলাটি করা হয়েছে।
এর মধ্যে পুলিশের করা মামলায় বিএনপির ঢাকা উত্তরের আহ্বায়ক আমানউল্লাহ আমানসহ ১৫৫ জনকে এবং মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষের মামলায় অজ্ঞাতসংখ্যক ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে বলে জানান তিনি। এ ঘটনায় এ পর্যন্ত ৪৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে জানিয়ে ওসি জানে আলম মুন্সী বলেন, আমরা এরইমধ্যে ৪৭ জনকে গ্রেফতার করেছি। গ্রেফতার ব্যক্তিদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

জোর করে স্বীকারোক্তি নিয়ে অপরাধ করেছেন
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : বগুড়ায় ছোট ভাইকে হত্যা মামলায় ১২ বছর বয়সী বড় ভাইয়ের কাছ থেকে ‘স্বীকারোক্তি’ নিয়ে সাবেক তদন্ত কর্মকর্তা অবেহলা নয়, অপরাধ করেছেন বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। ১২ বছর বয়সী শিশুটির কাছ থেকে ‘জোর করে’ স্বীকারোক্তি নেওয়ার অভিযোগ বিষয়ে সাবেক তদন্ত কর্মকর্তা লিখিত ব্যাখ্যা দাখিলের পর আদালত এ মন্তব্য করেন। বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও বিচারপতি মো. আতোয়ার রহমানের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চ্যুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চে গতকাল রোববার এই শুনানি হয়। এর আগে ১১ আগস্ট হাইকোর্ট ১২ বছর বয়সী শিশুটির কাছ থেকে ‘জোর করে’ স্বীকারোক্তি নেওয়ার বিষয়ে লিখিত ব্যাখ্যা জানাতে সারিয়াকান্দি থানার সাবেক উপপরিদর্শক নয়ন কুমারকে (বর্তমানে পরিদর্শক, সিআইডি, নাটোর) ২২ আগস্ট আদালতে হাজির হতে নির্দেশ দেন। একই সঙ্গে মামলার কেস ডকেটসহ মামলার বর্তমান তদন্ত কর্মকর্তা মো. মনসুর আলীকে (উপপরিদর্শক, পিবিআই বগুড়া) আদালতে হাজির হতে বলা হয়। এ অনুসারে গতকাল রোববার সকালে সাবেক ও বর্তমান তদন্ত কর্মকর্তা আদালতে হাজির হন। ক্রম অনুসারে বিষয়টি উঠলে রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সারওয়ার হোসেন বলেন, সাবেক ও বর্তমান তদন্ত কর্মকর্তা হাজির হয়েছেন। সাবেক তদন্ত কর্মকর্তা নয়ন কুমার লিখিত জবাব দিয়েছেন। ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেলের উদ্দেশে আদালত বলেন, উনি (নয়ন কুমার) জবাবে সরাসরি বিচারপতিদের অ্যাড্রেস করেছেন। উনি কি এটি পারেন, জিজ্ঞাসা করেন। উনি কীভাবে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি নিয়েছেন জিজ্ঞাসা করেন। উনি ১২ বছর বয়সী শিশুর ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি কীভাবে নিয়েছেন, বলতে বলেন? মামলার বৃত্তান্ত তুলে ধরে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সারওয়ার হোসেন বলেন, রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে নারী ও শিশু আদালত পিবিআইকে মামলাটি অধিকতর তদন্ত করতে নির্দেশ দেন। পিবিআই তদন্তকালে দুজনকে গ্রেপ্তার করে, তারা নিজেদের জড়িয়ে স্বীকারোক্তি দিয়েছে। আদালত বলেন, তারা ১২ বছর বয়সী শিশুটির নাম বলেনি। ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, আদালত ওনাকে (নয়ন কুমার) আসতে বলেছেন, উনি এসেছেন। উনি নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে আবেদন দিয়েছেন। পিবিআইয়ের যিনি এখন তদন্ত করছেন, তিনি মামলার চতুর্থ তদন্ত কর্মকর্তা। অধিকতর তদন্তের জন্য রাষ্ট্রপক্ষ বিচারিক আদালতে আবেদন করেছিল। উনি ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন, আদালত সন্তুষ্ট হলে ক্ষমা করে দিতে পারেন। 

কেননা, উনি (নয়ন কুমার) প্রসিকিউসনের অংশ। আদালত বলেন, ‘উনি (নয়ন কুমার) ভুল করলে আমরা কি ছেড়ে দেব?’ ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ‘আপনারা বিবেচনা করবেন। উনি (নয়ন কুমার) প্রসিকিউসনের অংশ। উনি ভুল করে ফেলেছেন, সে জন্য নিঃশর্ত ক্ষমা চাচ্ছেন।’
আদালত বলেন, তার (নয়ন) দ্বারা গুরুতর অপরাধ সংঘটিত হয়েছে। ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ক্রাইম বলবেন, নাকি অবহেলা। আদালত বলেন, না। উদ্দেশ্যমূলকভাবে উনি এটি করেছেন। ভুক্তভোগীর ১২ বছর বয়সী ভাইয়ের ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি নিয়ে ভাইকে মেরে ফেলেছে বলা হয়েছে। এটি কি সম্ভব ৮ বছর বয়সী ছেলেকে ১২ বছর বয়সী ছেলে মেরে ফেলবে? পরে আবেদনকারীদের পক্ষে আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির শুনানি করেন। এরপর আদালতের জিজ্ঞাসার জবাব দেন সাবেক ও বর্তমান তদন্ত কর্মকর্তা। আদালত নয়ন কুমারের লিখিত ব্যাখ্যায় সন্তুষ্ট হতে পারেননি। 

হোমিও ও ইউনানি পড়ে ‘ডাক্তার’ পদবি ব্যবহার করা যাবে না
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : ‘হোমিওপ্যাথি ও ইউনানি পড়ে কেউ তার নামের আগে ‘ডাক্তার’ পদবি ব্যবহার করতে পারবেন না’—আদেশের ওপর পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করেছেন হাইকোর্ট। গতকাল শনিবার বিচারপতি মো. আশরাফুল কামাল ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চের স্বাক্ষরের পর ৭১ পৃষ্ঠার রায়টি প্রকাশিত হয়। আদালত রায়ে বলেছেন, ‘দুঃখজনকভাবে এটি লক্ষণীয় যে, এখানে বাংলাদেশ মেডিক্যাল ও ডেন্টাল কাউন্সিল আইন, ২০১০ এর ২৯ ধারা অনুযায়ী বিএমডিসি এর নিবন্ধনভুক্ত মেডিক্যাল বা ডেন্টাল ইনস্টিটিউট কর্তৃক এমবিবিএস অথবা বিডিএস ডিগ্রিধারী ছাড়া অন্য কেউ তাদের নামের আগে ডাক্তার পদবি ব্যবহার করতে পারবেন না। সেখানে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের ২০১৪ সালের ৩ সেপ্টেম্বরে সংশোধিত বিজ্ঞপ্তিতে ‘অল্টারনেটিভ মেডিক্যাল কেয়ার’ শীর্ষক অপারেশনাল প্ল্যানের বিভিন্ন পদে কর্মরত হোমিওপ্যাথি, ইউনানি ও আয়ুর্বেদিক কর্মকর্তাদের স্ব-স্ব নামের পূর্বে ডাক্তর (ডা.) পদবি সংযোজনের অনুমতি প্রদান করেছে, যা এক কথায় আইনের কর্তৃত্ব ব্যতীত তথা বেআইনি। এছাড়া বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক বোর্ডের ২০২০ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি জারি করা বিজ্ঞপ্তিতে বিভিন্ন শাখায় হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকদেরও তাদের নামের পূর্বে পদবি হিসেবে ডাক্তার ব্যবহারের অনুমতি প্রদান করাও বেআইনি।’

এতে বলা হয়, ‘বিকল্পধারার চিকিৎসা পদ্ধতির পেশাধারীরা নামের পূর্বে ১. ইনটেগ্রেটেড ফিজিশিয়ান, ২. কমপ্লিমেন্টারি ফিজিশিয়ান, ৩. ইন্টেগ্রেটেড মেডিসিন প্রাকটিশনার এবং ৪. কমপ্লিমেন্টারি মেডিক্যাল প্রাকটিশনার পদবি ব্যবহার করতে পারেন। পাশের দেশ ভারতেও বিকল্পধারার চিকিৎসকরা (ডা.) লিখতে পারেন না।’

‘সংবিধানের অনুচ্ছেদ ১৫ মোতাবেক রাষ্ট্রের অন্যতম সাংবিধানিক মৌলিক দায়িত্ব হলো জনগণের জীবন ধারণের মৌলিক উপকরণ চিকিৎসার ব্যবস্থা করা। এছাড়াও সংবিধানের অনুচ্ছেদ ১৮ মোতাবেক অন্যতম প্রাথমিক কর্তব্য হিসেবে রাষ্ট্র জনস্বাস্থ্যের সার্বিক উন্নয়নে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। সংবিধানের অনুচ্ছেদ ৩২ নাগরিকের জীবন ধারনের অধিকারকে নিশ্চিত করেছে। সাংবিধানিকভাবে প্রত্যেক ব্যক্তির জীবন তথা বেঁচে থাকার অধিকার সংরক্ষিত। সঠিক চিকিৎসা না পেলে নাগরিকের জীবনহানি অবধারিত। সুতরাং সংবিধানের অনুচ্ছেদ ৩২ মোতাবেক চিকিৎসা পাওয়া প্রত্যেক নাগরিকের মৌলিক অধিকার’ রায়ে বলেন হাইকোর্ট।’

হাইকোর্ট আরও বলেন, ‘বিকল্প চিকিৎসা পদ্ধতি পাঁচ হাজার বছরের প্রাচীন। সুতরাং পাঁচ হাজার বছর ধরে সারা পৃথিবীতে চলে আসা প্রাচীন বিকল্প চিকিৎসা পদ্ধতির যথাযথ এবং সঠিকভাবে পঠন এবং প্রশিক্ষণ জনমানুষের সামগ্রিক চিকিৎসা ব্যবস্থার উন্নয়ন করবে। প্রচলিত চিকিৎসা পদ্ধতি তথা পশ্চিমা চিকিৎসা পদ্ধতি আইনের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রিত হওয়া শুরু হয় আজ থেকে মাত্র ১৬২ বছর আগে। পৃথিবীর প্রথম প্রচলিত চিকিৎসা পদ্ধতির আইনটির নাম “দ্যা মেডিক্যাল অ্যাক্ট, ১৮৫৮” যা ইংল্যান্ডের সংসদ পাশ করেছিল। অর্থাৎ ১৮৫৮ সালের পূর্বে চিকিৎসা ব্যবস্থা আইন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত ছিল না। অপরদিকে, পাঁচ হাজার বছর পূর্ব হতে মানুষ বিকল্প চিকিৎসা পদ্ধতি গ্রহণ করে আসছে।’

এতে বলা হয়, যেহেতু সংবিধানের অনুচ্ছেদ ৩২ মোতাবেক চিকিৎসা পাওয়া প্রত্যেক নাগরিকের মৌলিক অধিকার, সেহেতু আমরা, নিম্নেবর্ণিত পরামর্শসমূহ প্রদান করলাম।
(১) “সবার জন্য স্বাস্থ্য” নিশ্চিত করণের লক্ষ্যে “কাজাখস্তান ঘোষণা” থেকে “আলমাআটা ঘোষণা” বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সার্বিক পরিকল্পনা, নীতিমালা এবং প্রয়োজনীয় আইন দ্রুত প্রণয়নের জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে পরামর্শ দেওয়া হলো।
(২) সার্বিক চিকিৎসা ব্যবস্থাপনায় তথা প্রচলিত এবং বিকল্প ধারার চিকিৎসা ব্যবস্থাপনায় “রোগী কেন্দ্রিক চিকিৎসা সেবা” নীতিমালা অনুসরণের পরামর্শ দেওয়া হলো।
(৩) প্রয়োজনে বিকল্প ধারার চিকিৎসা পদ্ধতির পৃথক মন্ত্রণালয় তথা “মিনিস্ট্রি অব আয়ুশ গভর্নমেন্ট অব ইন্ডিয়া” এর আদলে বাংলাদেশের একটি পৃথক মন্ত্রণালয় সৃষ্টি করার পরামর্শ দেওয়া হলো।
(৪) বিকল্প ধারার চিকিৎসাশাস্ত্র সম্পর্কিত শিক্ষা, প্রশিক্ষণ ও সেবার মান নির্ধারণ ও উন্নয়ন এবং বিকল্প ধারার চিকিৎসা শাস্ত্র সংশ্লিষ্ট বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ ও অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও তৎপ্রদত্ত ডিগ্রিসমূহকে স্বীকৃতি প্রদান করার পদ্ধতি নির্ধারণ করার পরামর্শ দেওয়া হলো।

প্রসঙ্গত, এর আগে হোমিওপ্যাথিক ও ইউনানি চিকিৎসা শাস্ত্রে ডিগ্রিধারীরা নামের পূর্বে ডাক্তার ব্যবহারের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করেছিলেন। সেই রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে রুল জারি করেছিলেন আদালত। এরপর ওই রুলের ওপর শুনানি হয়।
আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম ও অ্যাডভোকেট খোন্দকার নীলিমা ইয়াসমিন। অপরপক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার তানজীব উল আলম।
শুনানি শেষে হোমিওপ্যাথিক ও ইউনানি চিকিৎসা শাস্ত্রের ডিগ্রিধারীরা নামের পূর্বে ডাক্তার লিখতে পারবেন না এমন নিষেধাজ্ঞা দিয়ে হাইকোর্ট রায় দেন। সে রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি স্বাক্ষরের পর প্রকাশ করলেন হাইকোর্ট।

কারাগারে পরীমণি, মৌ ও রাজ
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : দুই দফা রিমান্ড শেষে বনানী থানার মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় চিত্র নায়িকা পরীমণির জামিন আবেদন নাকচ করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ধীমান চন্দ্র মণ্ডল শুক্রবার এই আদেশ দেন। এর আগে পরী মণিকে বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করে পুলিশ। এরপর তাঁকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করে পুলিশ। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে পরীমণির আইনজীবী মজিবুর রহমান জামিনের আবেদন করেন। শুনানি শেষে বিচারক জামিনের আবেদন খারিজ করে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। এর আগে গত ৪ আগস্ট রাজধানী বনানীর বাসা থেকে চিত্রনায়িকা পরী মণিকে বিপুল মাদকসহ গ্রেপ্তার করে র?্যাব। পরদিন তাঁর বিরুদ্ধে বনানী থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করা হয়। এরপর গত ৫ আগস্ট তাঁকে চার দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ। সেই রিমান্ড শেষে গত ১০ আগস্ট বনানী থানার মামলায় পরী মণিকে দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট দেবব্রত বিশ্বাস। এদিকে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় চলচ্চিত্র প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজ ও তাঁর ম্যানেজার সবুজ আলীকে রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল শুক্রবার দুপুরে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ধীমান চন্দ্র মণ্ডল এই আদেশ দেন। এর আগে দুপুরে প্রযোজক রাজ ও সবুজ আলীকে হাজির করে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারক কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
গত ১০ আগস্ট রাজ ও সবুজ আলীর মাদক মামলায় দুদিন এবং পর্নোগ্রাফি মামলায় চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। গত ৪ আগস্ট পরী মণি ও রাজকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। মডেল মরিয়ম আক্তার মৌয়ের জামিন নামঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল শুক্রবার ঢাকা মহানগর হাকিম আবু সাঈদ জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন। রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানায় দায়েরকৃত মামলায় দুই দিনের রিমান্ড শেষে এদিন তাকে ঢাকা মহানগর হাকিম কারাগারে হাজির করে পুলিশ। মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা। অপরদিকে মৌয়ের আইনজীবী জামিন চেয়ে আবেদন করেন। শুনানি শেষে মৌয়ের জামিন নামঞ্জুর করে ওই আদেশ দেন আদালত। গত ১ আগস্ট দিবাগত রাত ১০টার দিকে প্রথমে রাজধানীর বারিধারায় আলোচিত মডেল পিয়াসার বাসায় অভিযান চালায় পুলিশ। পরে রাত পৌনে ১২টার দিকে তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডিবি কার্যালয়ে নেওয়া হয়। এরপর পিয়াসার দেওয়া তথ্যে মডেল মৌয়ের রাজধানীর মোহাম্মদপুর বাবর রোডের বাসায় অভিযান চালায় গোয়েন্দা পুলিশ।ধ

পরীমণি আবার দুইদিনের রিমান্ডে, আদালতপাড়ায় ছিলো ভিড়
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় নায়িকা পরীমণি ও তাঁর সহযোগী আশরাফুল ইসলাম দীপুর আবার দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট দেবব্রত বিশ্বাসের আদালত এ আদেশ দেন। এর আগে আদালতে তাঁদের হাজির করে পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করে মামলার তদন্ত সংস্থা পুলিশের অপরাধ তদন্ত সংস্থা (সিআইডি)। শুনানি শেষে আদালত দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আদালতপাড়ায় ভিড় ছিলো পরীমণিকে দেখার জন্য। দুপুর ১ টা ৫২ মিনিটে কড়া পুলিশি পাহারায় পরীমণিকে আদালতে হাজির করে পুলিশ। পরী মণিকে আদালতে হাজির করার পরে তাঁর আইনজীবী নীলাঞ্জনা রিফাত সুরভী তাঁর সঙ্গে মামলার বিষয়ে কথা বলতে যায়। এ সময় সিআইডির নারী পুলিশ সদস্যরা পরীমণির সঙ্গে কথা বলা যাবে না জানিয়ে আইনজীবীদের জানান এবং পরীমণিকে ঘিরে রাখেন। এরপরে বিচারক আদালতে উঠলে পরীমণি মাথায় দুই হাত দিয়ে কাঠগড়ার গ্রিল ধরে দাঁড়িয়ে থাকেন। এরপরে অন্য আসামিদের রিমান্ড শুনানি হলে পরীমণি কাঠগড়ায় একপাশে দাঁড়িয়ে থাকেন। এ সময় গরম লাগলে তিনি তাঁর হাত দিয়ে নিজের শরীরে বাতাস করেন এবং আদালতের এজলাসের ছাদের দিকে তাকিয়ে তাকেন। তখন তাঁকে খুব বিষন্ন দেখাচ্ছিল। পরে পরীমণিকে আদালত থেকে বের করার সময় তিনি সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, ‘সাংবাদিক ভাইয়েরা, আপনারা তদন্ত করেন, আমাকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হচ্ছে।’
এরপর দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা কড়া নিরাপত্তায় পরীমণিকে আদালত থেকে বের করে নেন।
এর আগে চলচ্চিত্র প্রযোজক মো. নজরুল ইসলাম রাজ ও তাঁর ব্যবস্থাপক সবুজ আলীকে মাদক মামলায় দুই দিন ও পর্নোগ্রাফির মামলায় চার দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন একই আদালত। উভয় মামলায় তাঁদের মোট ছয় দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়। গত ৪ আগস্ট রাজধানী বনানীর দুটি বাসা থেকে পরী মণি, রাজসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

আট দিনের পুলিশ রিমান্ডে পিয়াসা, মৌ চার দিনের
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে করা মামলায় আলোচিত মডেল ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা ও মরিয়ম আক্তার মৌকে আরেক দফা রিমান্ডে নেয়ার আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত। এবার রাজধানীর তিন থানার পৃথক তিনটি মাদক মামলায় পিয়াসাকে আট দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। আর মৌকে একটি মামলায় চার দিনের রিমান্ডে নেয়ার অনুমতি পেয়েছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার ঢাকা মহানগর হাকিম রাজেশ চৌধুরীর আদালতে পিয়াসার এবং সত্যব্রত শিকদারের আদালতে মৌয়ের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়। গত ২ আগস্ট গুলশান থানার মাদক মামলায় পিয়াসাকে তিন দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়। ওই রিমান্ড শেষে শুক্রবার তাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করা হয়। এরপর গুলশান থানার মামলায় ১০ দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। এছাড়া রাজধানীর ভাটারা থানার মামলায় গ্রেফতার দেখানোসহ ১০ দিন এবং খিলক্ষেত থানার আরেক মামলায় গ্রেফতার দেখানোসহ সাত দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। তিন মামলার শুনানি শেষে বিচারক গুলশান থানার মামলায় দুই দিন, ভাটারা থানার মামলায় তিন দিন ও খিলক্ষেত থানার মামলায় তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এদিকে, রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানায় মাদক মামলায় মডেল মরিয়ম আক্তার মৌকেও শুক্রবার ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করা হয়। এরপর মোহাম্মদপুর থানায় মাদক আইনে করা মামলায় তাকে ১০ দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করে সিআইডি। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদার মরিয়ম আক্তার মৌয়ের চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে গত ২ আগস্ট ঢাকা মহানগর হাকিম আশেক ইমামের আদালত মৌয়ের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। ওই রিমান্ড শেষে তাকে আবারও চার দিনের রিমান্ডে নেয়ার অনুমতি পেয়েছে সিআইডি। গত ১ আগস্ট রাত ১০টার দিকে প্রথমে রাজধানীর বারিধারায় মডেল পিয়াসার বাসায় অভিযান শুরু করে পুলিশ। পরে রাত পৌনে ১২টার দিকে তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডিবি কার্যালয়ে নেয়া হয়। পিয়াসার দেয়া তথ্যে মডেল মরিয়ম আক্তার মৌয়ের রাজধানীর মোহাম্মদপুর বাবর রোডের বাসায় অভিযান চালায় গোয়েন্দা পুলিশ। তার বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মদ উদ্ধার করা হয়। পরে রাত ১টার দিকে মৌকে আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকেও ডিবি কার্যালয়ে নেয়া হয়। দুই মডেলকে আটকের পর পুলিশ জানায়, মডেল পিয়াসা ও মৌ সংঘবদ্ধ একটি চক্রের সদস্য। তারা পার্টির নামে উচ্চবিত্তদের বাসায় ডেকে মদ ও ইয়াবা খাইয়ে আপত্তিকর ছবি তুলে রাখতেন। পরে সেই ছবি দেখিয়ে ব্ল্যাকমেইল করে মোটা অঙ্কের অর্থ হাতিয়ে নিতেন।

৬ দিনের রিমান্ডে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার পরিচয়দাতা ঈশিতা
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : ব্রিগেডিয়ার জেনারেল, চিকিৎসা বিজ্ঞানীসহ নানা পরিচয়ে প্রতারণার অভিযোগে গ্রেপ্তার চিকিৎসক ইশরাত রফিক ঈশিতা (৩৪) ও তার সহযোগী শহিদুল ইসলাম দিদার (২৯) কে ৬ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল সোমবার দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হয় ঈশিতা ও শহিদুলকে। তাদের বিরুদ্ধে শাহ আলী থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ও প্রতারণার মামলায় ৫ দিন করে মোট ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আশেক ইমামের আদালত শুনানি শেষে রিমান্ডের এ আদেশ দেন। সোমবার র?্যাব সদর দপ্তরের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের সহকারী পরিচালক এএসপি আ ন ম ইমরান খান গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ঈশিতার বিরুদ্ধে তিনটি মামলা হয়েছে। সেগুলো হলো, ২০১৮ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে, একটি প্রতারণা এবং একটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০১৮ এর ২৩, ২৪ ও ৩৫ ধারায় মামলা। এর আগে গত রোববার সকালে মিরপুর থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঈশিতা ও তার সহযোগী দিদারকে গ্রেপ্তার করে র?্যাব-৪। এ সময় তার বাসা থেকে ভুয়া আইডি কার্ড, ভিজিটিং কার্ড, সিল, সনদ, প্রত্যয়নপত্র, পাসপোর্ট, ল্যাপটপ, ইয়াবা, বিদেশি মদ ও ভুয়া ব্রিগেডিয়ার জেনারেল পদের দুটি ইউনিফর্ম এবং র‌্যাঙ্ক ব্যাজ উদ্ধার করা হয়। ঈশিতা পেশায় একজন চিকিৎসক। তিনি ময়মনসিংহের একটি বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ থেকে ২০১৩ সালে (সেশন ২০০৫-২০০৬) এমবিবিএস পাস করেন। এরপর ২০১৪ সালের শুরুর দিকে মিরপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসক হিসেবে যোগ দেন। ওই বছরই একটি সরকারি সংস্থায় চুক্তিভিত্তিক চিকিৎসক হিসেবে নিয়োগ পান। চার মাস চাকরির পর শৃঙ্খলাজনিত কারণে চাকরিচ্যুত হন। এরপর নানা প্রতারণার রাস্তা বেছে নেন ঈশিতা।

হাসপাতালে থেকে ‘জুম মিটিং’ করায় ডেসটিনির এমডিকে কারাগারে স্থানান্তর
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : ডেসটিনি ২০০০ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) রফিকুল আমীনকে হাসপাতাল থেকে কারাগারে নেয়া হয়েছে। গতকাল শনিবার বিকেলে তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) প্রিজন্স সেল থেকে কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তর করা হয়। তাকে কারাগারে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। তিনি অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে প্রায় তিন মাস এই হাসপাতালের প্রিজন সেলে থেকে জুম মিটিং করতেন বলে অভিযোগ উঠে। গতকাল শনিবার কারাগার সূত্র গণমুক্তিকে জানায়, বেলা সাড়ে তিনটার দিকে রফিকুল আমীনকে বহনকারী গাড়ি ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পৌঁছায়। এখানে তাকে ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে রাখা হবে। সম্প্রতি হাসপাতালের প্রিজন সেলে থেকে তিনি জুমে ব্যবসায়িক বৈঠক এবং নতুন এমএলএম কোম্পানি খোলার কার্যক্রম চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ ওঠে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তার একটি জুম মিটিংয়ের প্রায় এক ঘণ্টার ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে বিষয়টি জানাজানি হয়। এরপর কারা কর্তৃপক্ষ রফিকুল আমীনের পাহারায় থাকা প্রধান কারারক্ষীসহ আটজনকে গত বৃহস্পতিবার প্রত্যাহার করে নেয়। গতকাল ৪ প্রধান কারারক্ষীকে সাময়িক বরখাস্ত ও ১৩ কারারক্ষীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করা হয়। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মানি লন্ডারিং মামলায় রফিকুল আমীনকে ২০১২ সালের অক্টোবরে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর থেকে রফিকুল আমীন একেক সময় একেক রোগের কথা বলে হাসপাতালের প্রিজন সেলে থেকেছেন। সর্বশেষ চলতি বছরের ১১ই এপ্রিল তিনি ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে বিএসএমএমইউর প্রিজন সেলে আসেন।

পরীমণিকে ধর্ষণচেষ্টা মামলার আসামি নাসির-অমির জামিন
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : অভিনেত্রী পরীমণিকে ধর্ষণচেষ্টা ও হত্যাচেষ্টার মামলায় ব্যবসায়ী নাসিরউদ্দিন মাহমুদ ও তুহিন সিদ্দিকী অমি’কে জামিন দিয়েছেন আদালত। তাদের বিরুদ্ধে আরও দুটি মামলা থাকায় এখনি কারগার থেকে বের হতে পারছেন না। আদালত সূত্র জানায়, নাসিরউদ্দিন ও অমিকে ধর্ষণচেষ্টা ও হত্যাচেষ্টা মামলায় পাঁচ দিনের রিমান্ড শেষে আদালতে হাজির করে সাভার থানা পুলিশ। এই সময়ে তাঁদের কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা। সেই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে নাসির-অমির আইনজীবী জামিন চেয়ে আবেদন করেন। শুনানি শেষে ঢাকার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শাহজাদী তাহমীদা জামিনের আদেশ দেন। আনোয়ারুল কবির বাবুল আরও বলেন, তবে নাসির বিমানবন্দর থানার মাদকের একটি মামলায় ও অমি বিমানবন্দর ও দক্ষিণখানের দুটি মামলায় গ্রেপ্তার রয়েছেন। তাঁরা সে সব মামলায় জামিন না পাওয়া পর্যন্ত মুক্তি পাবেন না। এর আগে গত ২৩ জুন ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত তাঁদের পাঁচ দিন করে রিমান্ডে নেওয়ার আদেশ দেন। মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, গত ৯ জুন রাতে চিত্রনায়িকা পরীমণি সাভারের বিরুলিয়ার তুরাগ নদের তীরে অবস্থিত ঢাকা বোট ক্লাবে অমির সঙ্গে যান। সে সময় তাঁকে নেশাজাতীয় দ্রব্য পান করিয়ে ধর্ষণ ও হত্যার চেষ্টা করেন ক্লাবের কর্মকর্তা নাসিরউদ্দিন মাহমুদ। গত ১৩ জুন সন্ধ্যায় নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে বিচার চেয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন পরী মণি। তিনি দাবি করেছেন যে, ছয়জন তাঁকে ধর্ষণচেষ্টা ও হত্যার চেষ্টা করেছিলেন। ফেসবুক স্ট্যাটাসের পর গত ১৩ জুন রাত ১০টার দিকে তিনি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন। সংবাদ সম্মেলনে এই নায়িকা জানান, তিনি জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। নিজ বাসায় তিনি নিজেকে নিরাপদ বোধ করছেন না। ঘটনার পর ভোর রাতে বনানী থানায় অভিযোগ করতে গেলে তাঁর অভিযোগ গ্রহণ করা হয়নি বলে জানান এই অভিনেত্রী। পরে সাভার মডেল থানা পুলিশ পরী মণির মামলা গ্রহণ করে। মামলার পর ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ নাসিরউদ্দিন মাহমুদ, অমিসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে। এরপর তাদের মাদক মামলায় রিমান্ডে নেয় গোয়েন্দা পুলিশ। সেই রিমান্ড শেষে ধর্ষণচেষ্টা ও হত্যাচেষ্টা মামলায় নাসির ও অমিকে রিমান্ডে নেয় সাভার মডেল থানার পুলিশ।


   Page 1 of 81
     আইন ও আদালত
ইভ্যালির রাসেল এক দিনের রিমান্ডে, শামীমা জেলে
.............................................................................................
কারাগারের ডিআইজি পার্থ গোপাল বণিক কারাগারে বন্দি
.............................................................................................
তিন দিনের রিমান্ডে ইভ্যালির চেয়ারম্যান ও সিইও
.............................................................................................
গ্রুপ চেয়ারম্যানসহ চার ভাই ৭ দিনের রিমান্ডে
.............................................................................................
সামিয়া রহমানের পদাবনতি কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট
.............................................................................................
জাপানি দুই শিশু ১৫ দিন বাবা-মায়ের সঙ্গেই কাটাবে
.............................................................................................
পরীমণির জামিন শুনানি কাল দায়রা জজ আদালতে
.............................................................................................
ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদকসহ দুই নেতা রিমান্ডে
.............................................................................................
জোর করে স্বীকারোক্তি নিয়ে অপরাধ করেছেন
.............................................................................................
হোমিও ও ইউনানি পড়ে ‘ডাক্তার’ পদবি ব্যবহার করা যাবে না
.............................................................................................
কারাগারে পরীমণি, মৌ ও রাজ
.............................................................................................
পরীমণি আবার দুইদিনের রিমান্ডে, আদালতপাড়ায় ছিলো ভিড়
.............................................................................................
আট দিনের পুলিশ রিমান্ডে পিয়াসা, মৌ চার দিনের
.............................................................................................
৬ দিনের রিমান্ডে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার পরিচয়দাতা ঈশিতা
.............................................................................................
হাসপাতালে থেকে ‘জুম মিটিং’ করায় ডেসটিনির এমডিকে কারাগারে স্থানান্তর
.............................................................................................
পরীমণিকে ধর্ষণচেষ্টা মামলার আসামি নাসির-অমির জামিন
.............................................................................................
ব্যাংক হিসাব জব্দে দুদক কর্মকর্তার নির্দেশ অবৈধ : হাইকোর্ট
.............................................................................................
১২ বছরের শিশুর ঘাড়ে ভাই হত্যার দায়
.............................................................................................
অবহেলাজনিত মৃত্যুতে তিন চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মামলা
.............................................................................................
ইতিহাদ এয়ারলাইন্সকে দুই কোটি টাকা জরিমানার পূর্ণাঙ্গ রায়
.............................................................................................
পাপুলের এমপি পদ রক্ষায় স্ত্রীর রিট, আজ আদেশ
.............................................................................................
এলএসডিসহ গ্রেফতার বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা ৫ দিনের রিমান্ডে
.............................................................................................
সাবেক এমপি আউয়াল হত্যা মামলায় ৪ দিনের রিমান্ডে
.............................................................................................
রিমান্ড শেষে আদালতে নিরুত্তর ছিলেন বাবুল আক্তার
.............................................................................................
নিউমার্কেটে মাস্ক না পরায় ৩১ ক্রেতা ও বিক্রেতাকে জরিমানা
.............................................................................................
বিচারকাজে গতি আনতে হাইকোর্টে আরও দুই বেঞ্চ
.............................................................................................
ডাক্তার, পুলিশ ও ম্যাজিস্ট্রেট বাগবিতণ্ডায় আদেশ দেননি হাইকোর্ট
.............................................................................................
নকল কিট, রি এজেন্ট জব্দের মামলায় নয়জন রিমান্ডে
.............................................................................................
বিচারক-কর্মচারীদের কর্মস্থল ত্যাগ না করার নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের
.............................................................................................
লালপুরে ভেজাল গুড় তৈরি ব্যবসায়ীর কারাদণ্ড
.............................................................................................
৬ জনের মৃত্যুদণ্ড, যাবজ্জীবন ৪ জনের
.............................................................................................
‘পি কে হালদার যাদের অবহেলায় পালালো তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেবে আদালত’
.............................................................................................
শিশু নির্যাতন রোধে নজরদারী বাড়ানোর নির্দেশ হাইকোর্টের
.............................................................................................
আশরাফুলকে দায়মুক্তি দেয়া হয়নি : দুদক আইনজীবী
.............................................................................................
জামিন পেলেন কার্টুনিস্ট কিশোর
.............................................................................................
পিকে হালদার গ্রানাডার পাসপোর্টধারি
.............................................................................................
নারায়ণগঞ্জে চার খুনের মামলায় ২ জনের ফাঁসি, ৯ জনের যাবজ্জীবন
.............................................................................................
শামীমার বৃটেনে ফিরতে সুপ্রিম কোর্টের না
.............................................................................................
আত্মসমর্পণ করে জামিন পেলেন সংগীতশিল্পী মিলা
.............................................................................................
আলজাজিরার প্রতিবেদন সোশ্যাল মিডিয়ায় থাকবে না
.............................................................................................
পি কে হালদার কাদের সহযোগিতায় পালিয়েছেন, জানতে চান হাইকোর্ট
.............................................................................................
আল জাজিরা বন্ধে অ্যামিকাস কিউরি
.............................................................................................
সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ ফের পেছালো
.............................................................................................
৬ আইনজীবীর মতামত শুনবেন হাইকোর্ট
.............................................................................................
দুদককে দন্তহীন বাঘ হলে চলবে না : হাইকোর্ট
.............................................................................................
অভিজিৎ হত্যা মামলার আসামিদের মৃত্যুদণ্ড চায় রাষ্ট্রপক্ষ
.............................................................................................
শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টা: আপিলের রায় ১৭ ফেব্রুয়ারি
.............................................................................................
অর্থপাচারের দুই মামলায় এনু ও রুপনসহ ১১ জনের বিচার শুরু
.............................................................................................
রিমান্ডে পিকে হালদারের তিন সহযোগী
.............................................................................................
শরীয়তপুরে ময়লার স্তুপ থেকে ফুলের বাগান
.............................................................................................

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মো: রিপন তরফদার নিয়াম
প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক : মফিজুর রহমান রোকন
নির্বাহী সম্পাদক : শাহাদাত হোসেন শাহীন
বাণিজ্যিক কার্যালয় : "রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল কমপ্লেক্স"
(৬ষ্ঠ তলা), ২৮/১ সি, টয়েনবি সার্কুলার রোড,
মতিঝিল বা/এ ঢাকা-১০০০| জিপিও বক্স নং-৫৪৭, ঢাকা
ফোন নাম্বার : ০২-৪৭১২০৮০৫/৬, ০২-৯৫৮৭৮৫০
মোবাইল : ০১৭০৭-০৮৯৫৫৩, 01731800427
E-mail: dailyganomukti@gmail.com
Website : http://www.dailyganomukti.com
   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop