ঢাকা,মঙ্গলবার,৬ ভাদ্র ১৪২৮,২০,এপ্রিল,২০২১ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : > অসহায় ও ছিন্নমূলদের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ   > মেহেরপুরে লকডাউন মানছে না কেউ   > দাগনভূঞায় আয়েশা ডেইরি ফার্মের সফল উদ্যোক্তা তুহিন   > তীব্র তাপদাহে পুুড়ছে বাগাতিপাড়া   > সখীপুরে অবাধে কাটা হচ্ছে টিলা   > ‘লকডাউনের আগে থেকেই শুটিং করছি না’   > ফুটবলার পগবাকে নিয়ে চলচ্চিত্র   > কুড়িগ্রামে বাজারে অগ্নিকান্ড প্রায় ৩০ লাখ টাকার ক্ষতি   > কুমারখালীতে বাজার মনিটরিং কমিটির অভিযান   > ভারতে করোনায় একদিনে আক্রান্ত আড়াই লাখ, মৃত্যু দেড় হাজার  

   অন্যান্য -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
ড. তারেক শামসুর রেহমানের লাশ উত্তরায় বাসা থেকে উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার : উত্তরায় রাজউকের অ্যাপার্টমেন্টের বাসা থেকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক তারেক শামসুর রেহমানের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বাসা একা থাকা অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। গতকাল সকালে পুলিশ বাসার দরজা ভেঙে তার মৃতদেহ উদ্ধার করেছে। রাজউকের উত্তরা অ্যাপার্টমেন্ট প্রজেক্টের প্রকল্প পরিচালক মো. মোজাফফর আহমেদ গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। ধারণা করা হচ্ছে, তিনি স্ট্রোক করে মারা গেছেন। এ সময় তিনি বাসায় একা ছিলেন। উল্লেখ্য, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সাবেক সদস্য তারেক শামসুর রেহমান জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ও বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন।
বৈশ্বিক রাজনীতি, আন্তঃরাষ্ট্রীয় সম্পর্ক ও বৈদেশিক নীতি এবং তুলনামূলক রাজনীতি নিয়ে তার একাধিক গ্রন্থ রয়েছে। আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ে পিএইচডি ডিগ্রির অধিকারী অধ্যাপক রেহমান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স ও মাস্টার্স ডিগ্রি সম্পন্ন করেন। অধ্যাপনার পাশাপাশি ড. রেহমান নিয়মিত জাতীয় দৈনিকে কলাম লিখতেন।

ড. তারেক শামসুর রেহমানের লাশ উত্তরায় বাসা থেকে উদ্ধার
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : উত্তরায় রাজউকের অ্যাপার্টমেন্টের বাসা থেকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক তারেক শামসুর রেহমানের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বাসা একা থাকা অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। গতকাল সকালে পুলিশ বাসার দরজা ভেঙে তার মৃতদেহ উদ্ধার করেছে। রাজউকের উত্তরা অ্যাপার্টমেন্ট প্রজেক্টের প্রকল্প পরিচালক মো. মোজাফফর আহমেদ গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। ধারণা করা হচ্ছে, তিনি স্ট্রোক করে মারা গেছেন। এ সময় তিনি বাসায় একা ছিলেন। উল্লেখ্য, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সাবেক সদস্য তারেক শামসুর রেহমান জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ও বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন।
বৈশ্বিক রাজনীতি, আন্তঃরাষ্ট্রীয় সম্পর্ক ও বৈদেশিক নীতি এবং তুলনামূলক রাজনীতি নিয়ে তার একাধিক গ্রন্থ রয়েছে। আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ে পিএইচডি ডিগ্রির অধিকারী অধ্যাপক রেহমান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স ও মাস্টার্স ডিগ্রি সম্পন্ন করেন। অধ্যাপনার পাশাপাশি ড. রেহমান নিয়মিত জাতীয় দৈনিকে কলাম লিখতেন।

‘শিশুবক্তা’ রফিকুল মাদানী দুদিনের রিমান্ডে
                                  

মোফাজ্জল হোসেন : ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় রফিকুল ইসলাম মাদানীকে দুই দিনের রিমান্ড দিয়েছেন গাজীপুরের একটি আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার গাজীপুর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে রফিকুল ইসলাম মাদানীর সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করা হলে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শরিফুল ইসলাম দুই দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আদেশ দেন। গতকাল শুক্রবার গাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইসমাইল হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, রফিকুল ইসলাম মাদানী বর্তমানে কারাগারে রয়েছেন। তাঁকে আজ শনিবার রিমান্ডের জন্য থানায় নিয়ে আসা হবে। এরপরেই জিজ্ঞাসাবাদের কার্যক্রম শুরু হবে। এর আগে গত ৮ এপ্রিল রফিকুল ইসলাম মাদানীকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন গাজীপুর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-৩-এর বিচারক মো. শরিফুল ইসলাম। এর আগে তাঁর বিরুদ্ধে গাজীপুর মহানগর পুলিশের (জিএমপি) গাছা থানায় মামলা করা হয়। এর আগে রাষ্ট্রবিরোধী, উসকানিমূলক ও ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য এবং বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টার অভিযোগে গত ৭ এপ্রিল রফিকুল ইসলাম মাদানীকে নেত্রকোনা থেকে আটক করে র্যা পিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন র‌্যাব। নথিতে বলা হয়েছে, রফিকুল ইসলাম মাদানী নানা সময়ে বিভিন্ন বিষয়ে উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়ে থাকেন। তিনি রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, তিনি রাষ্ট্রবিরোধী নানা উসকানিমূলক কথাবার্তা বলেন। এতে জনমনে ভীতির সঞ্চার হয়েছে বলে আমাদের কাছে অভিযোগ রয়েছে।

করোনায় আক্রান্ত লালনশিল্পী ফরিদা পারভীন
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন খ্যাতিমান লালনশিল্পী ফরিদা পারভীন। করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর চিকিৎসকের পরামর্শে বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে জানান ৬৭ বছর বয়সী এ কণ্ঠশিল্পী। ফরিদা পারভীন রোববার বলেন, আগের তুলনায় তার শারীরিক অবস্থার উন্নতি ঘটেছে। শিগগিরই দ্বিতীয় বার পরীক্ষার জন্য নমুনা জমা দেবেন বলে জানান তিনি। গতকাল রোববার তার সিটি স্ক্যান রিপোর্ট হাতে পাওয়ার কথা। ফরিদা পারভীনের ছেলে ইমাম জাফর নোমানী বলেন, ‘আমার আম্মা কয়েক দিন ধরেই অসুস্থ বোধ করছিলেন। গত ৭ এপ্রিল তার করোনা টেস্ট করালে পরদিন রিপোর্টে পজিটিভ পেয়েছি। ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী বিশেষ তত্ত্বাবধানে বাসাতেই আম্মার চিকিৎসা চলছে। কিছুটা শ্বাসকষ্ট আছে। মাঝেমাঝে কম বেশি হচ্ছে। তাছাড়া আর কোনো শারীরিক সমস্যা নাই। সবাই আমার মায়ের সুস্থতার জন্য দোয়া করবেন।’ ১৯৮৭ সালে ফরিদা পারভীন সংগীতাঙ্গনে বিশেষ অবদানের জন্য একুশে পদক পেয়েছেন। এছাড়া ২০০৮ সালে তিনি জাপান সরকারের পক্ষ থেকে ‘ফুকুওয়াকা এশিয়ান কালচার’ পুরস্কারও পেয়েছেন। সেরা প্লে-ব্যাক গায়িকা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও পেয়েছেন ১৯৯৩ সালে।
শিশুদের লালনসংগীত শিক্ষার জন্যে ‘অচিন পাখি স্কুল’ নামে একটি গানের স্কুল গড়ে তুলেছেন তিনি। ফরিদা পারভীন ছাড়াও সঙ্গীতশিল্পী ও অভিনয়শিল্পীদের মধ্যে কবরী, আবুল হায়াত, শহীদুজ্জামান সেলিম, রোজি সেলিম, রিয়াজসহ আরো কয়েকজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন আছেন।

হিমছড়ি সৈকতে ফের ভেসে এল মৃত তিমি
                                  

কক্সবাজার প্রতিনিধি: কক্সবাজারের হিমছড়ি সমুদ্র সৈকতে ভেসে উঠেছে আরও একটি বিশালাকৃতির মৃত তিমি। গতকাল শনিবার ভোর ৬টায় এটিকে বালিতে আটকে থাকতে দেখা যায়। এর আগে শুক্রবার দুপুরের জোয়ারের সঙ্গে ভেসে আসে বড় একটি মৃত তিমি। এটি একইদিন রাত ১টায় মাটিতে পুঁতে ফেলা হয়। গবেষণার জন্য হাড় ও অন্য প্রত্যঙ্গ সংগ্রহের জন্য পুঁতে ফেলা স্থানটি সংরক্ষণ করছে সমুদ্র ও মৎস্য গবেষণা ইন্সটিটিউট। শুক্রবারের মৃত তিমির পাওয়া যায় যে স্থান থেকে তা থেকে প্রায় ৫০০ মিটার দক্ষিণে তিমির মরদেহটি পাওয়া যায়। ২৫-৩০ ফুট লম্বা এ তিমিটিও অর্ধগলিত অবস্থায় রয়েছে বলে জানিয়েছেন কক্সবাজার দক্ষিণ বন বিভাগের সদর রেঞ্জের রেঞ্জ কর্মকর্তা সমীর কুমার সাহা।
তিনি জানান, শুক্রবার ভেসে আসা মৃত তিমির দেহাবশেষ সৈকতের বালিয়াড়িতে পুঁতে ফেলা হয়েছে। জোয়ারের পানিতে আবার ভেসে যাওয়া থেকে দেহটি আটকাতে বন বিভাগের শতাধিক কর্মী চেষ্টা চালায়। এসময় প্রশাসনের বিভিন্ন বিভাগের কর্মী এবং উৎসুক জনতাও এতে সামিল হয়। এরপর ভেটেনারি সার্জনরা ময়নাতদন্ত করার পর এক্সকেভেটরের সাহায্যে মরদেহটি পুঁতে ফেলা হয়। রেঞ্জ কর্মকর্তা আরো জানান, শনিবার ভোর ৬টায় একই সৈকতের ভিন্ন পয়েন্টে আরো একটি মৃত তিমির দেহাবশেষ বালিয়াড়িতে উঠে আসে। ধারণা করা হচ্ছে, এটিও আগে মরে ভাসতে ভাসতে তীরে উঠে এসেছে। দুর্গন্ধ বেশি ছড়ানোর আগেই গতকালের মতো এটিও পুঁতে ফেলার উদ্যোগ চলছে। বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইন্সটিটিউটের সিনিয়র বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও পিএইচডি ফেলো মোহাম্মদ আশরাফুল হক জানান, শুক্রবার তীরে উঠে আসা মরা প্রাণীটি ব্রাইড হোয়েল প্রজাতির ও এটি প্রাপ্ত বয়স্ক। নীল তিমি গ্রুপের একটি প্রজাতি হল ব্রাইড হোয়েল। এটি আমাদের বঙ্গোপসাগরেরই বাসিন্দা। তিনি আরও জানান, তিমি সাধারণত দলবেধে চলে। কোনো কারণে দলছুট হলে অনেক সময় তিমি মারা যায়। এটি এবং শনিবারে তীরে আসা তিমিটির ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। এসব তিমি অন্তত ১০-১২দিন আগে মারা গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। কিন্তু তিমিগুলোর মৃত্যুর সঠিক কারণ এখনও অজানা রয়েছে। জানা যায়, পৃথিবীর সবচেয়ে বড় প্রাণী নীল তিমির ছবির সঙ্গে প্রায় সকলেই পরিচিত হলেও বাস্তবে মাছটি দেখেছেন দেশের খুব কম মানুষই। এমনকি সমুদ্র উপকূলীয় জেলা কক্সবাজারের মানুষও কদাচিৎ দেখেছেন এ মাছটি। শুক্রবার দুপুরে সামুদ্রিক জোয়ারের সঙ্গে ভেসে আসে ৪৫ ফুট দীর্ঘ মৃত নীল তিমি। শনিবার সকালেও এসেছে আরো একটি তিমির নিথর দেহাবশেষ। ঘটনাগুলো স্থানীয়রা জানতে পারলে বাস্তবে তিমি দেখতে উৎসুক মানুষের ভিড় জমে। গণমাধ্যম ও ফেসবুকের বদৌলতে খবরটি চারিদিকে ছড়িয়ে পড়লে কক্সবাজার শহর, রামু, উখিয়া, টেকনাফ এমনকি চকরিয়া থেকেও উৎসুক মানুষ হিমছড়ি সৈকতে এসে হাজির হয়। ঘটনাস্থলে আসেন জেলা প্রশাসন, পরিবেশ অধিদফতর, বনবিভাগ, র?্যাব, পুলিশ, বিজিবি ও কোস্টগার্ডের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ছাড়াও বাংলাদেশ সমুদ্র গবেষণা ইন্সটিটিউট ও বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইন্সটিটিউটের বিজ্ঞানীরা। ময়নাতদন্তের জন্য আসেন জেলা প্রাণী সম্পদ ও ওয়াইল্ড লাইফ বিভাগের সার্জনসহ একদল কর্মকর্তা-কর্মচারী। সাংবাদিক আহমদ গিয়াস বলেন, এর আগে ১৯৯০ সালের এই সময়ে সৈকতের লাবণী পয়েন্ট ভেসে এসেছিল একটি মৃত নীল তিমি। যেটি আকারে ছিল প্রায় ৬৫ ফুট। সেই তিমির কঙ্কাল সংরক্ষণ করা হয়েছিল। রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) প্রণয় চাকমা বলেন, তিমির দেহাবশেষের প্রয়োজনীয় অংশ সমুদ্র ও মৎস্য বিজ্ঞানীদের পরামর্শে সংরক্ষণ করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। মাংস পঁচে গেলে হাড়গুলো তুলে যেন সংরক্ষণ করা যায় সেজন্য পুঁতে ফেলা অংশটি ঘিরে রাখা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, শনিবার ভেসে আসা তিমির দেহাবশেষও একই পদ্ধতিতে পুঁতে ফেলার উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। এর আগে, গতকাল সকালে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের মেরিনড্রাইভ সড়কের হিমছড়ি সৈকতে ভেসে ওঠে বিশালাকৃতির একটি মৃত নীল তিমি। মেরিন লাইফ বিশেষজ্ঞ জহিরুল ইসলাম জানান, আনুমানিক ১৬ থেকে ১৭ বছর বয়সী ওই তিমিটি হয়ত ৫/৬ দিন পূর্বে মারা গেছে। ৪৪ ফুট দীর্ঘ ও ২৬ ফুট প্রস্ত এ তিমিটি আনুমানিক আড়াই টন ওজন হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

‘শিশুবক্তা’ রফিকুল মাদানীর মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ৩০ মে
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : শিশুবক্তা হিসেবে পরিচিত রফিকুল ইসলাম মাদানীর বিরুদ্ধে মতিঝিল থানায় দায়ের করা ডিজিটাল আইনে মামলার প্রতিবেদন দিতে গতকাল শুক্রবার আদালত দিন নির্ধারণ করেছেন। পুলিশকে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ৩০ মে দিন ধার্য করে দিয়েছেন আদালত। গতকাল শুক্রবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোর্শেদ আল মামুন ভূঁইয়া এই অদেশ দেন। এদিকে আদালতে এ মামলার এজাহার, এফআইআর (প্রাথমিক তথ্য বিবরণী) ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এসে পৌঁছালে বিচারক তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। এর আগে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মাদানীর বিরুদ্ধে মতিঝিল থানায় মামলাটি দায়ের করেন সৈয়দ আদনান নামের এক ব্যক্তি। মামলায় মাদানীর বক্তব্য ফেসবুক থেকে যারা শেয়ার দিয়েছেন তাদেরও আসামি করা হয়েছে। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মতিঝিল বিভাগের সিনিয়র সহকারী কমিশনার (এডিসি) এনামুল হক মিঠু জানিয়েছিলেন, মাদানীর বিরুদ্ধে মামলাটি ডিএমপির সাইবার ক্রাইম ইউনিট তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।এর আগে ওইদিন সকালে মাদানীর বিরুদ্ধে গাজীপুর মহানগর পুলিশের (জিএমপি) গাছা থানায় প্রথম মামলা করা হয়।

শিমুলিয়াঘাটে আটকে আছে ৫০০ ট্রাক
                                  

রুবেল মাদবর, মুন্সিগঞ্জ : লকডাউনে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ফেরি-লঞ্চ ও স্পিডবোট চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে জরুরি সেবার জন্য দু’টি ফেরি চালু রয়েছে। গত মঙ্গলবার সকাল থেকে এ তথ্য জানিয়েছেন বিআইডাব্লিউটিসি শিমুলিয়া কর্তৃপক্ষ। এদিকে পণ্যবাহী ট্রাক পারপারে ফেরি না থাকায় ঘাট এলাকায় আটকা পড়েছে ৫০০ ট্রাক। দীর্ঘসময় ঘাটে থাকায় ভোগান্তিতে পড়েছে এসব ট্রাকের চালক ও সহকারীরা। শুধুমাত্র পণ্যবাহী ট্রাক পারাপারে নিদিষ্ট সুযোগ দেয়ার দাবি জানিয়েছে তারা। মাধারীপুরগামী একটি পণ্যবাহী ট্রাকের চালক মো. রবেল বলেন, লকডাউন আমরাও মানি। কিন্ত অন্তত একটি ফেরি দিয়ে শুধু মাত্র ট্রাকগুলো পারাপারের ব্যবস্থা করে দিলে ভোগান্তিতে পড়তাম না। আরেক ট্রাকচালক বলেন, রাতের বেলা পার করবে বলা হয়েছে। কিন্তু দিনের বেলা পার করে দিলে আমরা তাড়াতাড়ি মালগুলো পৌঁছাতে পারতাম। ঘাটে অনেকক্ষণ থাকলে সব মিলিয়ে খরচ অনেক বেড়ে যায়। ট্রাকচালক গিয়াসউদ্দিন বলেন, আমরা গরীব মানুষ। ট্রিপ শেষ না করলে টাকা পাবো না। বেড়াতে তো যাচ্ছি না। পেটের খাবারের জন্য গাড়ি নিয়ে বের হয়েছি। বিআইডব্লিউটিসি শিমুলিয়াঘাটে ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) সাফায়েত আহমেদ বলেন, ঘাটে যেসব ট্রাক আছে সেগুলোকে রাত ১২টা থেকে ভোর ৬টার মধ্যে পার করা হবে। লকডাউনে দিনে শুধু এপার থেকে একটি ও ওপার থেকে একটি ফেরি চলাচল করবে। এসব ফেরি দিয়ে রোগী ও লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স পারাপার করা হচ্ছে। প্রসঙ্গত, সোমবার (৫ এপ্রিল) ভোর ৬টায় শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে লঞ্চ ও স্পিডবোট চলাচল বন্ধ করা হয়। তবে এদিন ১৭টি ফেরির মধ্যে চারটি ফেরি দিয়ে যানবাহন পার করা হয়। মঙ্গলবার আরো দু’টি ফেরি কমিয়ে জরুরি সেবার জন্য দু’টি ফেরি চালু রাখা হয়েছে।

লাইভে মামুনুলের পক্ষে বক্তব্য দেয়া এএসআই প্রত্যাহার
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : হেফাজতে ইসলামের নেতা মামুনুল হকের পক্ষে ফেসবুকে লাইভ ভিডিও পোস্ট করার পর কুষ্টিয়ায় ইন সার্ভিস ট্রেনিং সেন্টারে কর্মরত পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) গোলাম রাব্বানীকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, অপেশাদার আচরণের অপরাধ আমলে এনে তাকে প্রত্যাহার করে কুষ্টিয়া পুলিশ লাইনসে সংযুক্ত করা হয়েছে। কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার (এসপি) খাইরুল আলম গণমাধ্যমকে বলেন, ঘটনার পর ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে এএসআই গোলাম রাব্বানীকে প্রত্যাহার করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে তদন্ত কমিটি করে তাদের দুই-তিন দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। প্রতিবেদন পাওয়ার তার বিরুদ্ধে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি বলেন, ‘আইনানুগ যেসব ব্যবস্থা আছে সবই নেওয়া হবে।’ রোববার সকালে ফেসবুকে গোলাম রাব্বানীর সাড়ে ৬ মিনিটের বক্তব্যের একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। বক্তব্য দেওয়ার সময় পুলিশের পোশাকে ছিলেন তিনি।

অস্ত্রের দায়িত্বে থেকেও মুক্তিযোদ্ধা হতে পারেনি রফিকুল ইসলাম
                                  

মোহাম্মদ নান্নু মৃধা, শরীয়তপুর : গ্রুপ কমান্ড ছিলেন রফিকুল ইসলাম। জমা দিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধদের যুদ্ধ করার অস্ত্র। ছিলেন গ্রুপের অর্থ ও প্রশাসনিক দায়িত্বে। কিন্তু না জানা ও তথ্য প্রযুক্তির জ্ঞান না থাকায় আজও মুক্তিযোদ্ধের তালিকায় আসতে পারেননি ২নং সেক্টরের গোসাইরহাটের ডামুড্যার ১ টি গ্রুপ কমান্ডার মৃত আব্দুল কাদিরের ছেলে রফিকুল ইসলাম (৬৮)। এখন মৃত্যুর প্রহর ঘুনছেন। চাচ্ছে মৃত্যুর পর রাষ্ট্রিয় মর্যাদায় দাফন করা হক। তবে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তালিকা ভুক্তির জন্য কয়েকবার আবেদন করেও ব্যর্থ হয়েছেন তিনি। পরে নিরুপায় হয়ে শিক্ষকতা করেই কাঁটিয়ে দিয়েছেন জীবন। তবুও মেলেনি মুক্তিযোদ্ধার সম্মান। রফিকুল ইসলাম ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর থানার আরশিনগর ইউনিয়নের মৃত আব্দুল কাদিরের ছেলে। যুদ্ধের সময় তিনি গোসাইহাটের একটি গ্রুপের কমান্ড ও গোসাইহাটের সকল মুক্তিযোদ্ধার অস্ত্রের দায়িত্বে ছিলেন। কাদতে কাদতে রফিকুল ইসলাম বলেন, ইন্টারমিডিয়েট শেষ করে কুমিল্লা সার্ভে কলেজে ভর্তি অবস্থায় দেশে মুক্তিযোদ্ধ শুরু হয়। পরিবারের লোকজন বাঁধা দিবে এমন চিন্তা থেকে কাউকে না বলেই বাড়ি থেকে বের হয়ে যাই। মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে নাম লিখানোর পর আমাদেরকে নিয়ে যাওয়া হয় নোয়াখালী। সেখান থেকে নেয়া হয় ভারতের বাঘমারা ক্যাম্পে। সেখান থেকে অস্ত্র দিয়ে আমাদেরকে বাংলাদেশে পাঠানো হয়। ডামুড্যা-গোসাইরহাটে দায়িত্ব প্রাপ্ত কমান্ডার ইকবাল হোসেন বাচ্চু ছৈয়ালের অধীনে আমি যুদ্ধে অংশ নেই। সেখানে আমাকে একটি প্লটুনে কমান্ডারের দায়িত্ব দেয়া হয়। এ সময় আমরা অনেক গুরুত্বপূর্ণ অপারেশন পরিচালনা করি। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর আমরা যখন অস্ত্র জমা দেই তখন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয় থেকে আমাদের সনদ দেয়া হয়। চোখের জল মুছতে মুছতে অবহেলিত এ মুক্তিযোদ্ধা বলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের সনদ এখন উইপোকায় খেয়ে ফেলেছে। কিন্তু এখনো মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি পাইনি, সম্মান পাইনি। নিজের পরিবার পরিজন রেখে জীবন বাজি রেখে যে সগ্রাম করলাম তার বিনিময়ে এখন অবহেলা পাচ্ছি। আমার পরিবারে খবর কেউ রাখে না। বুকটা ফেঁটে যায়, যখন দেখি আমার সহযোদ্ধাদের রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন করা হয়। আমার হয়তো সে সৌভাগ্য হবে না। তার সাথে য্দ্ধু করা মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, ১৯৭১ সাল ভারতের বাঘমারা ট্রেনিং সেন্টার থেকে রফিকুল ট্রেনিং নিয়ে বাংলাদেশে যুদ্ধে অংশগ্রহণ করে। তরুণ ও প্রতিভাবান হওয়ায় তাকে যুদ্ধের পাশাপাশি একটি গ্রুপের কমান্ডার ও ইউনিটের অস্ত্রের দায়িত্বে ছিলেন। যুদ্ধের পর বিয়ে করে অনেকটা নিরুদ্দেশ হয়ে যায়। পরে সখিপুর একটি প্রাইমারি বিদ্যালয়ের শিক্ষক চাকরি করেন। শিক্ষক হলেও তিনি তথ্য প্রযুক্তির দিক থেকে পিছিয়ে ছিলেন। রাখতেন না কোন খবর। কোন মুক্তিযোদ্ধার সাথে যোগাযোগ করেন নি। একা একা ই থাকতেন সেই সখিপুরে। গত ১৭ সালে যখন মুক্তিযোদ্ধার বাছাই হয়ে ছিল। তখন সে আসে কিন্তু অনলাইনে আবেদন না করার কারণে বাদ পড়ে যায়। তার সাথে থাকা মুক্তিযোদ্ধা আওতাভুক্ত হলেও তিনি হতে পারেনি। মুক্তিযোদ্ধ নিয়ে জেলার বীরমুক্তিযুদ্ধা দিদার মাস্টারের লেখা শরীয়তপুরের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস লেখা বইয়ে তার নাম রয়েছে। এছাড়া আরোও অনেক মুক্তিযোদ্ধা কালীন বইতে নাম রয়েছে। তিনি মাদারীপুর গিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের যুদ্ধের অস্ত্র জমা দিয়েছিলেন। রফিকুলের সাথে যুদ্ধ ও ট্রেনিং করা বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রশীদ বলেন, রফিকুল আমার সাথে ভারতে ট্রেনিং করেছে। আমি আর রফিক এক সাথে ট্রেনিং শেষ করে যুদ্ধে অংশগ্রহণ করি। ও ছিল গোসাইহাটের সেক্টরে আমি ছিলাম ভেদরগঞ্জের আন্ডারে। আমার মনে আছে গত ১৭ সালে যখন বাছাই হয়েছে তখন সে উপজেলা অফিসের সামনে মাথা ঠেকিয়ে কান্না করছে। কিন্তু আমাদের কোন কিছু করার ক্ষমতা নেই।

মামুনুল হকের রিসোর্টের ভিডিও ভাইরাল, ভাঙচুর কর্মীদের
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁর একটি রিসোর্টে অবসর সময় কাটাতে  গেলে এলাকার মানুষ হেফাজত নেতা মামুনুল হককে গতকাল শনিবার ঘিরে রাখে। তখনকার দৃশ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেড়ে দিলে তা ভাইরাল হয়ে যায়। পরে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে এক নারীসহ আটক করে পুলিশে খবর দেয় স্থানীয়রা। এ সময় নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে নিরাপদ হেফাজতে নেন। তবে তার সঙ্গে থাকা ওই নারীকে নিজের দ্বিতীয় স্ত্রী বলে দাবি করেছেন মামুনুল হক। রিসোর্টের ৫০১ নম্বর কক্ষের সামনে মামুনুল হককে নানা প্রশ্ন করতে থাকেন মানুষজন। এ সময় তিনি জানান, তার সঙ্গে থাকা মহিলার নাম আমিনা তৈয়বা। তিনি তার দ্বিতীয় স্ত্রী। সোনারগাঁ উপজেলার রয়েল রিসোর্টে মামুনুল হককে নারীসহ অবরুদ্ধ করলে ভিড় জমে যায়। রাতে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তিনি পুলিশের কাছে থানায় ছিলেন বলে জানান আমাদের  জেলা জপ্রতিনিধি। সোনারগাঁ থানার ওসি (তদন্ত) তবিদুর রহমানও বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন। মামুনুল হককে এক নারীসহ আটক করার ওই এলাকায় উত্তপ্ত পরিস্থিতি বিরাজ করছে বলে জানা যায়। তাকে আটকের সংবাদ পেয়ে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার রয়েল রিসোর্টে ব্যাপক ভাঙচুর করে হেফাজতে ইসলামের নেতকর্মীরা।

জাহাঙ্গীর ফিরোজ পেলেন স্বাধীন বাংলা সম্মাননা স্মারক
                                  

সোনাগাজী (ফেনী) প্রতিনিধি : মানবতার সেবায় বিশেষ অবদানের জন্য যুক্তরাজ্য ভিত্তিক মানবিক সংগঠন "পিপল`স এইড ইন্টারন্যাশনাল ইউকে" এর চেয়ারম্যান কবি ও সংগঠক জাহাঙ্গীর ফিরোজ কে স্বাধীন বাংলা সাহিত্য পরিষদের পক্ষ থেকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়। মানবতাকর্মী কবি ও সংগঠক জাহাঙ্গীর ফিরোজ সোনাগাজীর কৃতি সন্তান (বাংলাদেশী বংশদ্ভূত একজন ব্রিটিশ নাগরিক) তার পৈতৃক বাড়ী সোনাগাজী উপজেলার সেনেরখিল গ্রামে। তিনি একজন প্রতিভাধর কবি সাহিত্যিক ও সংগঠক। তিনি সোনাগাজী উপজেলা সাহিত্য ফোরাম এর একজন সম্মানিত উপদেষ্টা। এছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক ও সেচ্ছাসেবী সংগঠনের সাথে তিনি সম্পৃক্ত রয়েছেন। পিপলস এইড ইন্টারন্যাশনাল ইউকে নামক আন্তর্জাতিক সেবামূলক সংগঠনের তিনি প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান। এই সংগঠনের মাধ্যমে তিনি বাংলাদেশের ঢাকা চট্টগ্রাম সিলেট ও ফেনীতে প্রতিবন্ধীদের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণ সহ বিভিন্ন সময়ে নানান মানবিক কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকেন। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান এমপি ও একুশে পদকপ্রাপ্ত কবি অসীম সাহা সহ গণমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউট হলে স্বাধীন বাংলা সাহিত্য পরিষদের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে যুক্তরাজ্য ভিত্তিক মানবিক সংগঠন পিপল`স এইড ইন্টারন্যাশনাল ইউকে এর পরিচালক সেলিনা আক্তারের হাতে প্রতিষ্ঠান ও প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান এর জন্য প্রদত্ত সম্মাননা স্মারক তুলে দেওয়া হয়।

মাদক বিরোধী অভিযানের সময় মদপানের ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : মাদক বিরোধী অভিযানের সময় ‘বার’-এ গিয়ে নিজেরাই মদপানে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের কয়েকজন সদস্যের এই কান্ড মিডিয়ায় প্রচার হলে এখন তারা তা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করছেন বলে জানা যায়। রাজধানীর পোস্তগোলা এলাকার সম্প্রতি একটি রেস্টুরেন্টে ঘটে এ ঘটনা। পরদিনই সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ‘আইরিশ পাব অ্যান্ড রেস্টুরেন্ট থেকে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ অবৈধ দেশি-বিদেশি মদ উদ্ধার করা হয়েছে’। এদিকে রেস্টুরেন্টের সিসিটিভির ফুটেজে আভিযানিক দলের বেশ কয়েকজন সদস্যের মদপান করার ভিডিও ধরা পড়ে। বেসরকারি একটি টেলিভিশনে এক প্রতিবেদনে তা তুলে ধরার পর এখন অভিযুক্তরা কথা বলতে চাচ্ছেন না। প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ওই দিন রাত ৯টার দিকে পোস্তগোলা এলাকার একটি ‘বার’-এ অভিযান চালায় শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের সদস্যরা। শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের একজন সহকারী পরিচালকের নেতৃত্বাধীন আভিযানিক দলে সদস্য সংখ্যা ছিল প্রায় ৩০ জন। সিসিটিভির ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, মদ উদ্ধারের পাশাপাশি একজন আনসার সদস্যসহ অনেকে মদপান করছেন। আনসার কর্মীর কাছ থেকে নিয়ে শুল্ক গোয়েন্দা সদস্যরাও মদপানে ব্যস্ত রয়েছেন। বারটিতে কর্মরত কয়েকজন অভিযোগ করেন, বিনা কারণে অভিযানের সময় তাদের কয়েকজনকে মারধর করেছে আভিযানিক দলের সদস্যরা। এ ঘটনার পরের দিন সংস্থাটির মহাপরিচালক নিজে উপস্থিত থেকে অভিযানের সফলতার কথা তুলে ধরেন গণমাধ্যমের কাছে। এসময় অভিযানে গিয়ে দলের সদস্যরা মদপানে ব্যস্ত ছিলেন কিভাবে এবং তা কতটুকু যৌক্তিক এমন প্রশ্ন করলে তিনি এড়িয়ে যাওয়ার অনুরোধ জানান। শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক আবু হানিফ মোহাম্মদ আবদুল আহাদ বলেন, এমনটা হয়ে থাকলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

নেপালের প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবি আজ ঢাকায় আসছেন
                                  

কূটনৈতিক রিপোর্টার : নেপালের প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবী ভান্ডারী আজ সোমবার ঢাকায় আসছেন। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর আয়োজনে যোগ দিতেই তার এই সফর। নেপালের কোনো প্রেসিডেন্টের এটাই প্রথম বাংলাদেশ সফর। আজ সকাল ১০টায় হযরত শাহজালাল বিমানবন্দরে তাঁর পৌঁছানোর কথা রয়েছে। সেখানে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ তাকে অভ্যর্থনা জানাবেন। পাশাপাশি তাকে গার্ড অব অনারও দেওয়া হবে। সফরে বিদ্যা দেবীর সঙ্গে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র সচিব ছাড়াও উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা থাকবেন। সফরের প্রথমদিন বিমানবন্দর থেকে সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে গিয়ে মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবেন নেপালের প্রেসিডেন্ট। ওই দিনই হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন। বিকালে জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে যোগ দেবেন বিদ্যা ভান্ডারী। সেখানে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও থাকবেন। সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের বৈঠক করবেন নেপালের প্রেসিডেন্ট। দুই রাষ্ট্রপ্রধানের উপস্থিতিতে কয়েকটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হবে। পরে বঙ্গভবনে নৈশভোজে অংশ নেবেন নেপালের প্রেসিডেন্ট। দরবার হলে ওই নৈশভোজের আগে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন রয়েছে। ২৩ মার্চ নেপালের রাষ্ট্রপতি কাঠমাণ্ডুতে ফিরে যাওয়ার আগে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন করবেন।

শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু: জমির বীজ কৃষকদের দেয়া হবে
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : বগুড়ায় ‘শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু’ ১০০ বিঘা জমির ধান যাবে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে। তবে এর একটা অংশ স্থানীয় কৃষক এবং এই প্রজেক্টের সঙ্গে জড়িত শ্রমিকরা পাবেন বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা। গতকাল শনিবার আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এ এফ এম বাহাউদ্দিন নাছিম এ কথা জানান। তিনি বলেন, ‘ধান পাকলে আমরা শুধু ধানের শীষটুকু কেটে নেব। উৎপাদিত এই ফসল যাবে প্রধানমন্ত্রী ত্রাণ তহবিলে।’ তিনি বলেন, ‘আশা করছি সেখান থেকে এই ফসল বীজ হিসেবে দেশের অন্যান্য জেলার কৃষকরাও পাবেন। এই শিল্পকর্মটি গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে স্থান করে নেওয়ার পাশাপাশি সারাদেশের কৃষকদের উজ্জীবিত করেছে। ‘শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু’ বিষয়টি দেশের কৃষকদের ধান চাষে অনুপ্রেরণা যোগাবে। এতে বগুড়ার কৃষকরা নিজেদের সম্মানিত বোধ করেছেন বলে আমাদের জানিয়েছেন’, বলেন নাছিম। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় এই নেতা বলেন, ‘আগে দেশে নানা ধরণের বিপর্যয় এবং ক্ষুধা-দুর্ভিক্ষ ছিল। সেই পরিস্থিতি উত্তরণে দেশের কৃষকরাই বড় ভূমিকা পালন করেছেন। দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে। আগামী ৫০ সালের মধ্যে দেশের জনসংখ্যা তিনগুণ বেড়ে যাবে। যেহেতু ধানই আমাদের প্রধান ফসল সুতরাং ধানের এই উৎপাদন ধরে রাখার জন্য আমরা কৃষকদের ধান চাষে অনুপ্রাণিত করতে চাই। বগুড়ায় ‘শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু’’ প্রকল্পটিও একটা অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে কৃষকদের জন্য।’ যারা এ কাজে শ্রম এবং জমি দিয়েছেন তারা উৎপাদিত ফসল পাবেন কি না জানতে চাইলে বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, ‘এটা একটা ভালো প্রস্তাব, আমরা স্থানীয় কৃষক-শ্রমিকদেরও কিছু অংশ বণ্টন করতে পারব বলে আশা করছি।’ প্রকল্পটির অর্থ এবং কারিগরি সহায়তা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কে এস এম মোস্তাফিজুর রহমান একই তথ্য জানান। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের লক্ষে বগুড়ার শেরপুর উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের বালেন্দা গ্রামের ১০০ বিঘা জমিতে শস্য দিয়ে তৈরি চিত্রটি শস্য ক্ষেতে বিশ্বের সর্ববৃহৎ শস্যচিত্র হিসেবে স্থান পেয়েছে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে। রেকর্ডসের তারিখ উল্লেখ করা হয়েছে গত ৯ মার্চ। গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস কর্তৃপক্ষ তাদের অফিসিয়াল পেজে সেটা জানিয়ে দিয়েছে গত ১৬ মার্চ এবং পরের দিন অফিসিয়ালি জানিয়েছে একটি ভিডিও ওয়েবিনারের মাধ্যমে। গিনেস কর্তৃপক্ষ আরও উল্লেখ করে, শস্যচিত্রে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু ফুটিয়ে তোলা হয়েছে আগামী ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে তাকে শ্রদ্ধা জানানোর জন্য। গত নভেম্বর মাস থেকে ১০০ বিঘা জমির ওপর প্রকল্পটির কাজ শুরু করে ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ার। স্থানীয় কৃষকদের কাছ থেকে প্রতি বিঘা ৭ মাসের জন্য লিজ নেয় প্রতিষ্ঠানটি। জানুয়ারিতে দুই ধরনের ধানের চারা লাগানো হয়। প্রকল্পের জন্য চীন থেকে বেগুনি রঙের এফ১ জাতের ধান বীজ আমদানি করা হয়। সবুজ রঙের অন্য ধানের জনক ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ার নিজেই বলে জানায় প্রতিষ্ঠানটি। ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম দুই সপ্তাহে ১০০ বিঘা জমির ওপর ধান লাগানোর কাজ করেন স্থানীয় ১০০ জন আদিবাসী নারী শ্রমিক। গত ৯ মার্চ গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড’র দুজন বাংলাদেশি প্রতিনিধি শস্যচিত্রটি পরিদর্শন করতে বগুড়ায় আসেন। পরে গত ১৪ মার্চ কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক শস্যচিত্রটি পরিদর্শনে এসে বলেন, ‘কৃষি প্রধান সবুজ বাংলার বিশাল ক্যানভাসকে ব্যবহার করে প্রথমবারের মতো আঁকা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি হবে তার জন্মশতবার্ষিকীর এক অনন্য উদযাপন।’ এটি এখন বাংলাদেশের কৃষকদের জন্য নতুন মাইলফলক হয়ে থাকলো।

নোয়াখালির মাটিতে চিরনিদ্রায় ব্যারিস্টার মওদুদ
                                  

ইমাম হোসেন খাঁন, কোম্পানীগঞ্জ : নোয়াখালীর কৃতি সন্তান, বরেণ্য রাজনীতিবিদ ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের তৃতীয় জানাজা নোয়াখালীতে সম্পন্ন হবার পর বাবা মায়ের কবরের পাশে তাকে দাফন করা হয়। ইচ্ছা অনুযায়ি নোয়াখালির মাটিতে ব্যারিস্টার মওদুদ চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন। এর আগে, দুপুর ৩টা ১০মিনিটের দিকে ঢাকা থেকে হেলিকপ্টার যোগে কবিরহাট ডিগ্রি কলেজ প্রাঙ্গণে মওদুদ আহমদের মরদেহ নেয়া হয়। এরপর নিজ উপজেলা কোম্পানীগঞ্জে আরো দুটি জানাজা শেষে তাকে সমায়িত করা হয়। গতকাল শুক্রবার দুপুর ৩টা ৩৫ মিনিটের দিকে কবিরহাট উপজেলার কবিরহাট ডিগ্রি কলেজ মাঠে তার তৃতীয় জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় অংশ নেন, নোয়াখালী ৪ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ একরামুল করিম চৌধরী, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মো.শাহজাহান, বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, বিএনপির সদস্য তাবিথ আউয়াল, আন্তর্জাতিক বিষয়ক কমিটির সদস্য ইশরাক হোসেন, জেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম হায়দার বিএসসি, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুর রহমান, কবিরহাট পৌরসভার মেয়র জহিরুল হক রায়হান, কবিরহাট উপজেলা বিএনপির সভাপতি আবদুর রহিম চেয়ারম্যান, সাধারণ সম্পাদক লিটন চৌধুরী, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুর রহমান রিপন ও দলীয় নেতাকর্মীসহ সর্বস্তরের জনগণ। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ একজন অভিভাবক ছিলেন। তাঁর এ প্রয়াণে জাতির বড় ক্ষতি হয়ে গেছে। আমরা তাঁর মৃত্যুতে গভীর শূন্যতা অনুভব করছি। যখন আমরা এক রাজনৈতিক ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছি, তখন তাঁর শূন্যতা আরও বেশি অনুভব করব।’ রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে শুক্রবার সকালে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের তৃতীয় জানাজায় অংশ নিয়ে এ কথা বলেন বিএনপির মহাসচিব। শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে এ জানাজা হয়।
মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা অত্যন্ত দুঃখ ভারাক্রান্ত হৃদয়ে আমাদের নেতা ও দেশের অন্যতম জাতীয় নেতা ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের জানাজায় শরীক হয়েছি। যিনি ছাত্রজীবন থেকে, গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছেন। তিনি একজন প্রতিষ্ঠিত লেখক, আইনজীবী, রাজনীতিবিদ। আজ তিনি আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। তিনি শুধু রাজনীতিক ছিলেন না রাজনীতিক কিংবদন্তি ছিলেন। তিনি অনেক পরিবর্তনের সঙ্গে জড়িত ছিলেন।’
সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। সেখানে প্রবাসীরা তাঁর প্রথম জানাজায় অংশ নেন। পরে মওদুদের মরদেহ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা ৩ মিনিটে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছায়। সকাল সোয়া ৯টার দিকে এভারকেয়ার হাসপাতাল থেকে মওদুদ আহমদের মরদেহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নেওয়া হয়। সকাল ১০টা পর্যন্ত মরহুমের মরদেহ রাখা হয় সেখানে। শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বিএনপির নেতাকর্মীদের পাশাপাশি বিভিন্ন দল ও সংগঠন। কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে মওদুদ আহমদের মরদেহ নেওয়া হয় তাঁর দীর্ঘ দিনের কর্মস্থল সুপ্রিম কোর্টে প্রাঙ্গণে। সেখান থেকে তৃতীয় জানাজার জন্য বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে নেওয়া হয়।

চৌহালীতে যমুনার চরে ১২ কি.মি. রাস্তা নির্মাণ
                                  

ইমরান হোসেন আপন, চৌহালী : যমুনা নদীর চরাঞ্চল ঘোরজান ইউনিয়নের কড়ইতলা থেকে স্থল ইউনিয়নের নওহাটা বাজার হয়ে নৌঘাট পর্যন্ত মাষ্টার প্লানে প্রায় সাড়ে ১২ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে। চরের ভিতরে সড়ক পথ বাস্তবায়নের মাধ্যমেই সরকারের উন্নয়নের ছোয়া পেতে যাচ্ছে চৌহালীর দূর্গম চরে। পশ্চিম এলাকা বেতিল ও এনায়েতপুরের সাথে যোগাযোগের সড়কপথের প্রকল্প পুর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নে চৌহালী হতে পারে অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যের নীলাভূমি। যমুনায় ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে এসে দাঁড়িয়ে আছে সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার মানুষ। তারা ভাঙ্গন নয়, বেরীবাধ ও যমুনা চরের ভিতরে সড়কপথ দেখতে চায় এলাকাবাসি। তারই ধারাবাহিকতায় চৌহালী উপজেলার ঘোরজান ইউনিয়নের কড়াইতলা থেকে স্থল ইউনিয়নের নওহাটা ঘাট পর্যন্ত সাড়ে ১২ কি.সড়ক পথ গড়ে তোলা সম্ভব করেছেন মাননীয় এমপি আলহাজ আব্দুল মমিন মন্ডলের মাষ্টার প্লান প্রকল্পের মাধ্যমে। নদীর ভাঙ্গনে অভিশাপ্ত ও অনিশ্চয়তার জন্য প্রস্তত থাকতে হয় দিনের পর দিন আতংকে আর অ-জানায়। নতুন কোনো প্রলয় যখন ভাঙ্গন কবলিত মানুষের অস্তিত্বকেই প্রশ্নের মুখে ফেলে, তখন অপ্রত্যাশিত ভাবেই সব সাজানো সৌধকে অপ্রাসঙ্গিক মনে হয়। আসলে প্রকৃতির সবাই ভালো না থাকালে একা কেউ ভাল থাকতে পারে না। সবাইকে নিয়েই তো জীবন সুন্দর। সৈকতের বালুতে প্রাণ ফিরে পায় লতারা, তাই নিজের মতো সাজাতে চায় চৌহালীর প্রকৃতি। তারই ধারাবাহিকতায় এবং যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রিমোট জনপদের অবহেলিত চৌহালীকে এমপি মহোদয়ের মাষ্টার প্লানে গড়ে তুলতে প্রায় সাড়ে ১২ কিঃমিঃ সড়ক পথ। নদী মাতৃক গ্রাম বাংলার দৃশ্যমান রাস্তা ঘোরজানের কড়াই তলা থেকে স্থল ইউনিয়নের নওহাটা বাজার হয়ে খেয়াঘাট পর্যন্ত সড়ক পথ। অবাস্তবকে বাস্তব করে তুললেন সিরাজগঞ্জ-৫ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আব্দুল মমিন মন্ডল এমপি। কালের পরিবর্তনের কারণে যমুনার ভাঙ্গনে বদলে গেছে আমাদের চৌহালী। যমুনা নদীর চরের ভিতর দিয়ে গড়ে উঠা সড়কপথেই নতুন বছরে নিজের মতো সাজাতে চায় প্রকৃতি সৌন্দর্যের বিনোদন আর পর্যটনের চরাঞ্চল। নদীর পাড় ও রাস্তার দু-পাশ শাসন করে গড়ে তোলা হোক ডিজিটাল বাংলাদেশের ডিজিটাল সড়ক। মাষ্টার প্লানের প্রজেক্ট বাস্তবায়নে গড়ে উঠবে অর্থনৈতিক সম্ভাবনার চৌহালী। মুছে যাক ছই হীন সার্বিস নৌকায় যাত্রীদের চলাচলের দুর্ভোগ। সিরাজগঞ্জের বেতিল, এনায়েতপুর ও চৌহালীর সাথে চরের ভিতর দিয়ে চলাচলের সহজ সড়কপথে বাস্তব রুপের খন্ডচিত্র তুলে ধরা হলো। এ সড়ক পথ স্থাপনে চৌহালী সদর খেয়াঘাট পার হয়ে মুরাদপুর দিয়ে নওহাটা ঘাট থেকে খেয়া নৌকা পার হয়ে এনায়েতপুর নৌঘাটে সড়কপথ ও এনায়েতপুর নৌঘাট থেকে ইঞ্জিন চালিত সার্ভিস নৌকায় চৌহালী যাওয়ার যোগাযোগ মাধ্যম রয়েছে।

বলেশ্বর নদীতে ৩০ কেজি ওজনের অজগর উদ্ধার
                                  

মোড়েলগঞ্জ (বাগেরহাট) প্রতিনিধি : বলেশ্বর নদের ৩০ কেজি ওজনের অজগর বিশ্ব ঐতিহ্য সর্ববৃহৎ ম্যানগ্রোভ সুন্দরবনে অবমুক্ত করা হয়েছে। বাগেরহাটের শরণখোলার উত্তর সাউলখালী গ্রামের জেলে লোকমান হাওলাদার সোমবার বিকেল পাঁচটার দিকে নৌকায় মাছ ধরছিলেন বলেশ্বর নদে। ঠিক তখনই তার নৌকার পাশ ঘেঁষে বিশাল এক অজগর সাঁতরে আসছিল কূলের দিকে। এসময় তিনি সঙ্গীয় জেলেদের নিয়ে কৌশলে ধরে ফেলেন অজগরটি। পরে সেটি তুলে দেন বনবিভাগের হাতে। ১৫ফুট লম্বা অজগরটির ওজন প্রায় ৩০কেজি। উত্তর সাউথখালী ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য মো. সাইফুল ইসলাম হালিম শাহ জানান, জেলেরা অজগরটি নদীতে ভাসতে দেখে ধরে কূলে নিয়ে আসেন। সন্ধ্যা ৭টার দিকে বনবিভাগকে খবর দিয়ে তাদের হাতে তুলে দেওয়া হয়। পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের শরণখোলা রেঞ্জের বগী স্টেশন কর্মকর্তা (এসও) মো.আ.মান্নান জানান, বলেম্বর নদ থেকে জেলেরা অজগরটি ধরে তাদেরকে খবর দেন। ১৫ফুট অজগরটির ওজন প্রায় ৩০কেজি হবে। রাত ৮টার দিকে সাপটি বগী স্টেশন অফিস সংলগ্ন বিশ্ব ঐতিহ্য সর্ববৃহৎ ম্যানগ্রোভ সুন্দরবনে অবমুক্ত করা হয়েছে।


   Page 1 of 9
     অন্যান্য
ড. তারেক শামসুর রেহমানের লাশ উত্তরায় বাসা থেকে উদ্ধার
.............................................................................................
‘শিশুবক্তা’ রফিকুল মাদানী দুদিনের রিমান্ডে
.............................................................................................
করোনায় আক্রান্ত লালনশিল্পী ফরিদা পারভীন
.............................................................................................
হিমছড়ি সৈকতে ফের ভেসে এল মৃত তিমি
.............................................................................................
‘শিশুবক্তা’ রফিকুল মাদানীর মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ৩০ মে
.............................................................................................
শিমুলিয়াঘাটে আটকে আছে ৫০০ ট্রাক
.............................................................................................
লাইভে মামুনুলের পক্ষে বক্তব্য দেয়া এএসআই প্রত্যাহার
.............................................................................................
অস্ত্রের দায়িত্বে থেকেও মুক্তিযোদ্ধা হতে পারেনি রফিকুল ইসলাম
.............................................................................................
মামুনুল হকের রিসোর্টের ভিডিও ভাইরাল, ভাঙচুর কর্মীদের
.............................................................................................
জাহাঙ্গীর ফিরোজ পেলেন স্বাধীন বাংলা সম্মাননা স্মারক
.............................................................................................
মাদক বিরোধী অভিযানের সময় মদপানের ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা
.............................................................................................
নেপালের প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবি আজ ঢাকায় আসছেন
.............................................................................................
শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু: জমির বীজ কৃষকদের দেয়া হবে
.............................................................................................
নোয়াখালির মাটিতে চিরনিদ্রায় ব্যারিস্টার মওদুদ
.............................................................................................
চৌহালীতে যমুনার চরে ১২ কি.মি. রাস্তা নির্মাণ
.............................................................................................
বলেশ্বর নদীতে ৩০ কেজি ওজনের অজগর উদ্ধার
.............................................................................................
এমপি মমতাজের বাড়ী থেকে ফেরার পথে ছাত্রলীগ নেতা খুন
.............................................................................................
রোদের তাপে অভিনেত্রীর কন্টাক্ট লেন্স গলে দুর্ঘটনা
.............................................................................................
আল্লাহ কতদিন বাচাই জানিনা, মনে হয় জীবনের শেষ ভোট দিয়ে গেলাম
.............................................................................................
বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. শাহজাহানকে গার্ড অব অনার ও রাষ্ট্রীয়ভাবে দাফন
.............................................................................................
বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. শাহজাহানকে গার্ড অব অনার ও রাষ্ট্রীয়ভাবে দাফন
.............................................................................................
তিনদিনের ছুটিতে পর্যটন এলাকাগুলোতে মানুষের ঢল
.............................................................................................
শ্রীপুরে লোকালয়ে চিত্রা হরিণ
.............................................................................................
নিজ দেশ ফিরিয়ে না নেয়ায় কারাগারে বন্দি বিপুলসংখ্যক বিদেশী নাগরিক
.............................................................................................
অনলাইনে হাফ ম্যারাথন
.............................................................................................
মোংলায় শপথ নিলেন বনজীবি-মৎস্যজীবিরা
.............................................................................................
পাত্রখোলা চা বাগান লেক যেন অতিথি পাখির অভয়ারণ্য
.............................................................................................
টেস্ট সিরিজ ঘিরে ভারতীয় তিন জুয়াড়ি রিমান্ডে
.............................................................................................
সাক্ষ্যের গড়মিলে ৪ ফাঁসির আসামিসহ সবাই খালাস
.............................................................................................
রেলের তেল নিয়ে কাড়াকাড়ি যোগাযোগ বন্ধ
.............................................................................................
সম্পদের তথ্য গোপন করায় এমপি জিন্নাহর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা
.............................................................................................
গুগলের দেয়া তথ্যে গ্রেফতার শিশু যৌন নিপীড়ক
.............................................................................................
নতুন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্থনিকে মুজিববর্ষে আমন্ত্রণ
.............................................................................................
৭ কেজি স্বর্ণ নিয়ে গোপনে বিমানবন্দর ত্যাগ করছিলেন সারোয়ার
.............................................................................................
সনদ দিতে ইউপি অফিসে ডেকে ধর্ষণ গ্রেফতার একজন
.............................................................................................
হাজেরা বেগমের গড়া স্কুলে মার্কিন রাষ্ট্রদূত মিলার
.............................................................................................
এনআরবি ব্যাংকের পরিচালকসহ বাবার ব্যাংক হিসাব চেয়েছে দুদক
.............................................................................................
সুন্দরবনে খনন করা হচ্ছে ৮৮ পুকুর
.............................................................................................
দিহানের বাসার দারোয়ান আটক
.............................................................................................
অন লাইন ক্যাসিনো কারবারি সেলিম প্রধান ও তার স্ত্রীর ব্যাংক হিসাব জব্দ
.............................................................................................
দাম কমেছে চাল-পেঁয়াজের, বেড়েছে ভোজ্যতেলের : টিসিবি
.............................................................................................
ঢামেক হাসপাতাল মর্গে আড়াই বছর ধরে বিদেশির লাশ
.............................................................................................
আহমদ শফী হত্যা মামলার বাদী ও পরিবারকে প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগ
.............................................................................................
পারটেক্স গ্রুপের চেয়ারম্যান এমএ হাসেম বনানী কবরস্থানে সমাহিত
.............................................................................................
কলেজ ছাত্রকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন
.............................................................................................
রূপগঞ্জের বীর মুক্তিযোদ্ধার সম্মান পেতে চান কামরুল হোসেন
.............................................................................................
মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়ে বৃদ্ধর বসবাস
.............................................................................................
বিমানবন্দরে মাটির নিচে ২৫০ কেজি ওজনের আরেকটি বোমা উদ্ধার
.............................................................................................
স্মরণকালের চোখ ধাঁধানো উল্কা বৃষ্টি আগামীকাল
.............................................................................................
‘বঙ্গবন্ধু অ্যাওয়ার্ড ফর ডিপ্লোম্যাটিক এক্সিলেন্স’ পাচ্ছেন যারা
.............................................................................................

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মো: রিপন তরফদার নিয়াম
প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক : মফিজুর রহমান রোকন
নির্বাহী সম্পাদক : শাহাদাত হোসেন শাহীন
বাণিজ্যিক কার্যালয় : "রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল কমপ্লেক্স"
(৬ষ্ঠ তলা), ২৮/১ সি, টয়েনবি সার্কুলার রোড,
মতিঝিল বা/এ ঢাকা-১০০০| জিপিও বক্স নং-৫৪৭, ঢাকা
ফোন নাম্বার : ০২-৪৭১২০৮০৫/৬, ০২-৯৫৮৭৮৫০
মোবাইল : ০১৭০৭-০৮৯৫৫৩, 01731800427
E-mail: dailyganomukti@gmail.com
Website : http://www.dailyganomukti.com
   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop