| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : > মুসলিম নিধন-যজ্ঞ চালিয়েছে উত্তর প্রদেশের পুলিশ   > শিবির সন্দেহে` চার ছাত্রকে পিটিয়ে পুলিশে দেবার অভিযোগ   > বিজিএমইএ ভবন ভাঙ্গা : স্বয়ংক্রিয়ের বদলে সনাতন পদ্ধতিতে কেন   > ঢাকায় পাসপোর্টের জন্য হাহাকার, বিপাকে আবেদনকারীরা   > করোনাভাইরাস কী, কীভাবে ছড়ায়, কীভাবে ঠেকানো যাবে?   > ক্রিকেট : পাকিস্তান সফরে যেভাবে নিরাপত্তা দেয়া হবে বাংলাদেশ জাতীয় দলকে   > জামাল খাসোগজি হত্যা : যুবরাজ বিন সালমানের বিরুদ্ধে আমাজন বস জেফ বেজোসের ফোন হ্যাকে জড়িত থাকার অভিযোগ   > নাগরিকত্ব আইনে স্থগিতাদেশ দিতে রাজি হল না ভারতের সুপ্রিম কোর্ট   > মৃত্যুর হুমকি নিয়ে তাকে টিভি অনুষ্ঠান করতে হয়   > দ্বিতীয় রাউন্ডে জকোভিচ, তৃতীয় রাউন্ডে ওসাকার প্রতিপক্ষ কোরি গাফ  

   দেশজুড়ে -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
প্রচণ্ড ঠাণ্ডার দাপট আরো কয়েকদিন : আবহাওয়া অধিদপ্তর

ডেস্ক রিপোর্ট : বাংলাদেশে গত কয়েকদিন ধরে চলা শৈত্যপ্রবাহ কেটে গেছে, তবে ঠাণ্ডার দাপট এখনো রয়েছে।

প্রচণ্ড শীতে অনেকটা কাবু হয়ে পড়েছে দেশের বিভিন্ন এলাকার জনজীবন।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকে মেঘাচ্ছন্ন আকাশ আর ঠাণ্ডা বাতাসে হিমশিম খেতে হচ্ছে দেশটির বাসিন্দাদের।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, শীতের এই ভাব আরো কয়েকদিন থাকবে।

চুয়াডাঙ্গার বাসিন্দা বলছেন, ``গত কয়েকদিন ধরে প্রচণ্ড শীত।

শীতের সঙ্গে বাতাস, বাসার বাইরেই বের হতে পারছি না।

কুয়াশায় চারদিক অনেকটা অন্ধকার হয়ে রয়েছে। বাসার বয়স্করা আর শিশুরা অসুস্থ পড়ছে।``

তিনি বলছেন, ``গতকালের চেয়ে আজ ঠাণ্ডা আরো বেশি পড়েছে।

বাধ্য না হলে বাসার কেউ বাইরে বের হচ্ছে না।``

অন্যান্য এলাকার তুলনায় রাজধানী ঢাকায় শীত তুলনামূলক কম পড়লেও এই শৈত্যপ্রবাহে কাবু হয়ে পড়েছে নগরবাসীও।

ঢাকার অনেক স্থানে পথের পাশে মানুষজনকে কাগজ-কাঠ জড়ো করে আগুন পোহাতে দেখা গেছে।

বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ হাফিজুর রহমান বলছেন, দেশের ওপর দিয়ে একটি যে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ চলছিল, সেটা শেষ হয়ে গেছে। তবে দিনে তাপমাত্রা কম থাকায় তীব্র শীত অনুভূত হচ্ছে। সেটা আরো কয়েকদিন থাকতে পারে।

তিনি বলছেন, উত্তর-পশ্চিম শক্তিশালী বায়ুপ্রবাহ (জেড বায়ু) বেশি সক্রিয় থাকায়, মেঘলা আকাশ এবং ঘন কুয়াশার কারণে সূর্যের আলো আসতে পারছে না। বাতাসে জলীয় বাষ্পে আর্দ্রতাও বেশি। ফলে দিনে তাপমাত্রা না বাড়ায় ঠাণ্ডা জেঁকে রয়েছে।

গতকাল সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ফরিদপুরে ১০.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর সবোর্চ্চ তাপমাত্রা ছিল কক্সবাজারের টেকনাফে ২৬.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

শীতে সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়েছে বয়স্ক মানুষ এবং শিশুরা। হাসপাতালগুলোতে শীতজনিত বিভিন্ন রোগ নিয়ে ভর্তি রোগীর সংখ্যা বাড়ছে বলে হাসপাতাল কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

ঘন কুয়াশার কারণে গতকাল শুক্রবার রাতে পদ্মার পাটুরিয়া ও দৌলতদিয়া ঘাটে ফেরি চলাচল পাঁচ ঘণ্টা বন্ধ রাখা হয়।

আজ শনিবার সকালে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরেও কুয়াশার কারণে চার ঘণ্টা বিমান চলাচল বন্ধ রাখতে হয়।

আবহাওয়া দপ্তর বলছে, এ মাসের শেষের দিকে আরেকটি শৈত্যপ্রবাহ আসার সম্ভাবনা রয়েছে।

আবহাওয়াবিদ আরও বলছেন, কালকের পর আবহাওয়ার কিছুটা উন্নতি হবে। ঠাণ্ডা ভাবটা কিছুটা কমে যাবে। তবে এই মাসের শেষের দিকে আরেকটি মৃদু বা মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ আসতে পারে।

তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নীচে হলে সেটি শৈত্যপ্রবাহ বলে ধরা হয়। ফলে তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রির ওপরে হওয়ায় শৈত্যপ্রবাহ কেটে গেছে বলে আবহাওয়াবিদরা বলছেন।

আগামী কয়েকদিনের পূর্বাভাসে আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, চলতি মাসের শেষদিক ছাড়াও জানুয়ারির প্রথমদিকে আরেকটি মৃদু বা মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

দেশের উত্তরাঞ্চলে গুড়িগুড়ি বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

 

প্রচণ্ড ঠাণ্ডার দাপট আরো কয়েকদিন : আবহাওয়া অধিদপ্তর
                                  

ডেস্ক রিপোর্ট : বাংলাদেশে গত কয়েকদিন ধরে চলা শৈত্যপ্রবাহ কেটে গেছে, তবে ঠাণ্ডার দাপট এখনো রয়েছে।

প্রচণ্ড শীতে অনেকটা কাবু হয়ে পড়েছে দেশের বিভিন্ন এলাকার জনজীবন।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকে মেঘাচ্ছন্ন আকাশ আর ঠাণ্ডা বাতাসে হিমশিম খেতে হচ্ছে দেশটির বাসিন্দাদের।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, শীতের এই ভাব আরো কয়েকদিন থাকবে।

চুয়াডাঙ্গার বাসিন্দা বলছেন, ``গত কয়েকদিন ধরে প্রচণ্ড শীত।

শীতের সঙ্গে বাতাস, বাসার বাইরেই বের হতে পারছি না।

কুয়াশায় চারদিক অনেকটা অন্ধকার হয়ে রয়েছে। বাসার বয়স্করা আর শিশুরা অসুস্থ পড়ছে।``

তিনি বলছেন, ``গতকালের চেয়ে আজ ঠাণ্ডা আরো বেশি পড়েছে।

বাধ্য না হলে বাসার কেউ বাইরে বের হচ্ছে না।``

অন্যান্য এলাকার তুলনায় রাজধানী ঢাকায় শীত তুলনামূলক কম পড়লেও এই শৈত্যপ্রবাহে কাবু হয়ে পড়েছে নগরবাসীও।

ঢাকার অনেক স্থানে পথের পাশে মানুষজনকে কাগজ-কাঠ জড়ো করে আগুন পোহাতে দেখা গেছে।

বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ হাফিজুর রহমান বলছেন, দেশের ওপর দিয়ে একটি যে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ চলছিল, সেটা শেষ হয়ে গেছে। তবে দিনে তাপমাত্রা কম থাকায় তীব্র শীত অনুভূত হচ্ছে। সেটা আরো কয়েকদিন থাকতে পারে।

তিনি বলছেন, উত্তর-পশ্চিম শক্তিশালী বায়ুপ্রবাহ (জেড বায়ু) বেশি সক্রিয় থাকায়, মেঘলা আকাশ এবং ঘন কুয়াশার কারণে সূর্যের আলো আসতে পারছে না। বাতাসে জলীয় বাষ্পে আর্দ্রতাও বেশি। ফলে দিনে তাপমাত্রা না বাড়ায় ঠাণ্ডা জেঁকে রয়েছে।

গতকাল সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ফরিদপুরে ১০.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর সবোর্চ্চ তাপমাত্রা ছিল কক্সবাজারের টেকনাফে ২৬.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

শীতে সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়েছে বয়স্ক মানুষ এবং শিশুরা। হাসপাতালগুলোতে শীতজনিত বিভিন্ন রোগ নিয়ে ভর্তি রোগীর সংখ্যা বাড়ছে বলে হাসপাতাল কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

ঘন কুয়াশার কারণে গতকাল শুক্রবার রাতে পদ্মার পাটুরিয়া ও দৌলতদিয়া ঘাটে ফেরি চলাচল পাঁচ ঘণ্টা বন্ধ রাখা হয়।

আজ শনিবার সকালে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরেও কুয়াশার কারণে চার ঘণ্টা বিমান চলাচল বন্ধ রাখতে হয়।

আবহাওয়া দপ্তর বলছে, এ মাসের শেষের দিকে আরেকটি শৈত্যপ্রবাহ আসার সম্ভাবনা রয়েছে।

আবহাওয়াবিদ আরও বলছেন, কালকের পর আবহাওয়ার কিছুটা উন্নতি হবে। ঠাণ্ডা ভাবটা কিছুটা কমে যাবে। তবে এই মাসের শেষের দিকে আরেকটি মৃদু বা মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ আসতে পারে।

তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নীচে হলে সেটি শৈত্যপ্রবাহ বলে ধরা হয়। ফলে তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রির ওপরে হওয়ায় শৈত্যপ্রবাহ কেটে গেছে বলে আবহাওয়াবিদরা বলছেন।

আগামী কয়েকদিনের পূর্বাভাসে আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, চলতি মাসের শেষদিক ছাড়াও জানুয়ারির প্রথমদিকে আরেকটি মৃদু বা মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

দেশের উত্তরাঞ্চলে গুড়িগুড়ি বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

 

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ‘কোটিপতি পিয়ন’ আটক
                                  

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংবাদদাতা : ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের ‘কোটিপতি পিয়ন’ ইয়াছিন মিয়াকে অবশেষে আটক করেছে পুলিশ।

গতকাল শুক্রবার ভোরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা ভবনের সামনে থেকে তাকে আটক করা হয়।

আটক ইয়াছিন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার আতুয়াকান্দি এলাকার মোহন মিয়ার ছেলে।

সদর মডেল থানা পুলিশের ওসি মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ভোররাত সাড়ে ৩টার দিকে থানা এলাকা থেকে ইয়াছিনকে আটক করা হয়।

তার অফিসের কর্মকর্তাদের সহযোগিতায় তাকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সম্প্রতি সদর উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে অডিট হওয়ার পর কোটি টাকার ঘাপলার বিষয় নজরে আসে সবার।

এরপর গা ঢাকা দেন ইয়াছিন। এ ঘটনায় সদর মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরিও করা হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২০০৬ সালে ইয়াছিন সদর উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে পিয়ন পদে চাকরি পান।

এরপর নানা সময়ে তাকে আশুগঞ্জ ও নাসিরনগর উপজেলায় বদলি করা হলেও ঘুরে ফিরে তিনি সদর উপজেলায়ই চাকরি করেন।

প্রায় সময়ই অফিসের নকল, তল্লাশি ও রেজিস্ট্রেশন ফিসহ চালানের টাকা সোনালী ব্যাংকে জমা দিতে পাঠানো হতো তাকে।

কিছুদিন আগে অফিসিয়াল অডিটে তার বিরুদ্ধে ‘কোটি টাকার ঘাপলা’ প্রকাশ পায়। এরপর গা ঢাকা দেন ইয়াছিন।

চার জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৬ জনের মৃত্যু
                                  

ডেস্ক রিপোর্টার : দেশের চার জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় ছয় জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। গত বৃহস্পতিবার রাত থেকে গতকাল শুক্রবার সকাল পর্যন্ত এসব প্রাণহানি ঘটে।

এর মধ্যে টাঙ্গাইলে তিন জন, মুন্সীগঞ্জে একজন, নরসিংদীতে একজন এবং ঠাকুরগাঁওয়ে একজন নিহত হয়েছেন।

প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

টাঙ্গাইল: টাঙ্গাইলে একটি কভার্ডভ্যানের পেছনে মাইক্রোবাসের ধাক্কায় একই পরিবারের তিনজনের মৃত্যু হয়েছে, আহত হয়েছেন আরও পাঁচজন।

গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব পাড় গোলচত্বর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে ।

বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব টোল প্লাজা থেকে ২০০ গজ দূরে বেপরোয়া গতির মাইক্রোবাসটি কভার্ড ভ্যানটির পেছনে গিয়ে সজোরে ধাক্কা খায়।

তাতে মাইক্রোবাসটি দুমড়ে মুচড়ে যায়, কভার্ড ভ্যানের পেছনের অংশও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। মাইক্রোবাসের আরোহীদের মধ্যে সিরাজগঞ্জের সাহেদ নগর বেপারী পাড়ার হাজী আবদুল করিম সরকার (৬০), তার স্ত্রী মাতায়ারা সরকার (৫০) এবং তাদের মেয়ে কানিজ ফাতেমা (৩০) ঘটনাস্থলেই নিহত হন।

আহত হয় কানিজ ফাতেমার স্বামী হাজী সেলিম (৩২),  ছেলে সামি (২.৫), সেলিমের বোন রুনা (২৭) এবং মেঘলা ও ইমদাদুল হক (৪০)। এ ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ওসি।

মুন্সীগঞ্জ: মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলায় ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে মাওয়াগামী গাঙচিল পরিবহনের বাসের ধাক্কায় নিতাই কর (৬০) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন।

আহত হয়েছেন তার ভাতিজা সাগর কর (২২)।নিতাই কর উপজেলার ছয়গাও গ্রামের ফলানী করের ছেলে এবং আহত সাগর কর একই গ্রামের সুধী করের ছেলে।

গতকাল শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে মহাসড়কের কেয়টখীরা এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। 

ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কের হাসাড়া হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আবদুল বাসেদ জানান, দ্রুতগতির গাঙচিল পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস সড়কের পাশে থাকা দুই পথচারীকে ধাক্কা দেয়।

এ সময় নিতাই করকে শ্রীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

ঘাতক বাসটি পুলিশের হেফাজতে আছে ও বাস চালককে আটক করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

নরসিংদী: নরসিংদীর রায়পুরায় যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় বাদল মিয়া ভান্ডারী (৫৫) নামে এক পথচারীর মৃত্যু হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের রায়পুরা উপজেলার মরজাল বাসস্ট্যান্ডে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত বাদল মিয়া ভান্ডারী একই উপজেলার মরজাল গ্রামের মৃত হাফেজ উদ্দিনের ছেলে। 

ওসি জানান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে ঢাকাগামী তিতাস এক্সপ্রেসের বাসটির স্টিয়ারিং বিকল হয়ে যায়। এ সময় চালক উল্টো পথে বাসটি চালিয়ে যাচ্ছিলো।

পরে বাসটি মরজাল বাসন্ট্যান্ড এলাকায় রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা বাদল মিয়াকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

পুলিশ লাশ উদ্ধার করে আইনি প্রক্রিয়া শেষে স্বজনদের নিকট হস্তান্তর করেছে।

 ঠাকুরগাঁও: ঠাকুরগাঁওয়ে স্কুল থেকে সাইকেল নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে পিকআপের ধাক্কায় আহত শিক্ষার্থী তনুশ্রী রায় (১৪) মারা গেছে।

গতকাল শুক্রবার সকালে ঠাকুরগাঁও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আশিকুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

গত বৃহস্পতিবার দুপুরে সদর উপজেলার সালন্দর ইউনিয়নের চৌধুরীহাট রেডিও সেন্টার সিংপাড়া এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।

রাতে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার সময় তনুশ্রী মারা যায়। নিহত তনুশ্রী রায়  ঠাকুরগাঁও টেকনিক্যাল স্কুল এণ্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্রী।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্বজনেরা জানান, গত বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে স্কুল থেকে সাইকেল নিয়ে বাসায় যাওয়ার পথে রাস্তা পার হওয়ার সময় পেছন থেকে দ্রুতগতিতে আসা একটি পিকআপ তাকে ধাক্কা দেয়।

এ সময় গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়।

সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেন।

রংপুর যাওয়ার পথে গত বৃহস্পতিবার রাতে মৃত্যুবরণ করে সে।

মোংলায় কবি রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহর ৬৩ তম জন্মবার্ষিকী পালন
                                  

মনির হোসেন, মোংলাঃ

মোংলায় নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে তারুণ্য ও সংগ্রামের দীপ্ত প্রতীক, বাংলা সাহিত্যের অবিস্মরনীয় কবি রুদ্র মুহাম্মদ শহিদুল্লাহর ৬৩ তম জন্মবার্ষিকী পালন করা হয়েছে। আজ বুধবার (১৬ অক্টোবর) সকালে মোংলার মিঠাখালীতে কবির গ্রামের বাড়িতে রুদ্র স্মৃতি সংসদের উদ্যোগে শোভাযাত্রা শেষে কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর মিলাদ মাহফিল ও দোয়া মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। কবির সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছে সর্বস্তরের মানুষ।

 

এছাড়াও সকাল ১১ টায় সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে মোংলা সরকারি কলেজ প্রাঙ্গনে কবি রুদ্র স্মরনে ‘স্মরনানুষ্ঠান’-এর আয়োজন করা হয়। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট মোংলা শাখার আহবায়ক নূর আলম শেখ`র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে কবি রুদ্রর জীবনী ও তার সৃষ্টি কর্ম নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন মোংলা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ গোলাম সরোয়ার,দৈনিক সুন্দরবন পত্রিকার সম্পাদক শেখ হেমায়েত হোসেন, দৈনিক প্রথম আলো`র স্থানীয় প্রতিনিধি সুমেল সারাফাত। এসময় উপস্থিত ছিলেন কলেজের বাংলা বিভাগের সাবেক প্রভাষক বিভাষ বিশ্বাস, প্রভাষক মনোজ কান্তি বিশ্বাস, অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক জেমস শরৎ কর্মকার, প্রভাষক মাহবুবুর রহমান, প্রভাষক সাহারা খাতুন, নিগার সুলতানা সুমী, কুবের চন্দ্র বিশ্বাস, বিশ্বজিত বিশ্বাস, আনোয়ার হোসেন, শ্যামা প্রসাদ সেন, প্রভাষক মোঃ মিন্টু, এনটিভির স্থানীয় প্রতিনিধি আবু হোসাইন সুমন, সাংস্কৃতিক কর্মী নাজমুল হক,মোংলা স্টুডেন্টস ক্যাটারসের সভাপতি আজিজুর মোড়ল সহ অন্যান্য অতিথি বৃন্দ। অনুষ্ঠানে কবি রুদ্র লেখা কবিতা আবৃতি ও গান পরিবেশন করা হয়।

 

এদিকে কবি রুদ্রর জন্মদিন উপলক্ষে মোংলা স্টুডেন্টস ক্যাটারস, মোংলা সাহিত্য পরিষদ সহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। দিনটি উপলক্ষে মোংলার মিঠাখালিতে রুদ্র স্মৃতি সংসদের উদ্যোগে বিকালে ফুটবল খেলা ও সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এতে রুদ্রের লেখা গান পরিবেশন করেন স্থানীয় শিল্পীরা।

 

কবি রুদ্র মুহাম্মদ শহিদুল্লাহ মাত্র ৩৫ বছরের (১৯৫৬-১৯৯১) জীবনে সাতটি কাব্যগ্রন্থ ছাড়াও গল্প, কাব্যনাট্য এবং ‘ভালো আছি ভালো থেকো’ সহ অর্ধ শতাধিক গান রচনা করেছেন। পরবর্তীকালে এ গানটির জন্য তিনি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতির কাছ থেকে ১৯৯৭ সালের শ্রেষ্ঠ গীতিকারের (মরণোত্তর) সম্মাননা লাভ করেন। ‘উপদ্রুত উপকূল’ ও ‘ফিরে চাই স্বর্ণগ্রাম’ কাব্যগ্রন্থ দুটির জন্য ‘সংস্কৃতি সংসদ’ থেকে পরপর দু’বছর মুনীর চৌধুরী সাহিত্য পুরস্কার লাভ করেন। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট ও জাতীয় কবিতা পরিষদ গঠনে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

দুই এক দিনের মধ্যে নড়িয়া বাঁধ রক্ষায় ড্রেজিং কাজ শুরু --------পানিসম্পদ উপমন্ত্রী
                                  
স্টাফ রিপোর্টার : পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম বলেছেন, নড়িয়া পদ্মা পাড়ে বাঁধ রক্ষায় প্রতিদিন ১ হাজার ৬০০ জিও ব্যাগ ফেলা হচ্ছে। আগমী সপ্তাহে প্রতিদিন অত্যন্ত ২০ হাজার জিও ব্যাগ ফেলার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। দুই এক দিনের মধ্যে বাঁধ রক্ষায় ড্রেজিং কাজ শুরু করা হবে। এপ্রিল মাসের মধ্যেই জিও ব্যাগ ফেলার কাজ সমাপ্ত হবে। শুক্রবার বেলা ১১টায় শরীয়তপুরের নড়িয়া পদ্মা নদীর তীর রক্ষা প্রকল্পের কাজ পরিদর্শণ শেষে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, শেখ হাসিনা মানবতার মা। তিনি মানুষের কল্যানে জীবনের সবকিছু উৎসর্গ করেছেন। নড়িয়ার আর এক ইঞ্চি মাটিও পদ্মায় বিলিন হতে দেব না। এজন্য যা করা দরকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাই করবেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন নড়িয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান একেএম ইসমাইল হক, নড়িয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (অঃদাঃ) মো. মাহাবুব রহমান শেখ, নড়িয়া উপজেলা পরিষদ সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ওহাব বেপারী, নড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাস্টার হাসানুজ্জামান খোকন, নড়িয়া পৌরসভার মেয়র শহিদুল ইসলাম বাবু রাড়ী, নড়িয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জহিরুল আলম জাকির, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা মুস্তফা, জেলা পরিষদের সদস্য আলমগীর হোসেন, কেদারপুর ইউপি সাবেক চেয়ারম্যান ইমাম হোসেন দেওয়ান, সৌদি জেদ্দা প্রবাসী কল্যাণ সমিতি আওয়ামী লীগের সভাপতি বিএম হান্নান, নৌবাহনিীর কর্মকর্তা ও জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারাবৃন্দ।
গাইবান্ধার কামারজানী ও চিলমারী বন্দরের নাব্যতা হ্রাসে নদী এখন মরুভূমি
                                  

এম. সাদ্দাম হোসেন পবন,উত্তর জনপদ :

 

ভৌগোলিক অবস্থানগত কারনে গাইবান্ধা জেলার ৪টি উপজেলা নদী বেষ্টিত হওয়ায় নৌ-পথে বানিজ্যিক যোগাযোগ ব্যবস্থায় ধান,গম,পাটসহ অন্যান্য শষ্যাদি আমদানি ও রপ্তানি হতো। উত্তর জনপদে প্রাচীনকাল থেকেই নৌ-পথে ধান,গম ও পাট নারায়নগঞ্জ রপ্তানী হয়ে সেখান থেকে লবন,সার এবং নারিকেল আমদানি করা হত। উত্তরবঙ্গে ২টি নৌ বানিজ্যিক বন্দরের নাম পাওয়া গেলেও নদীর নাব্যতা হ্রাসের কারনে নৌ পথের ব্যবসা এক দেড় যুগ আগেই বিলীন হয়ে গেছে। পল্লীগীতি ও ভাটিয়ালী গানের জনক আব্বাস উদ্দীনের “ও কী গাড়িয়াল ভাই” গানের কথায় কুড়িগ্রামের চিলমারী বন্দরের বাস্তবিক রুপ বিকশিত হয়। দ্বিতীয়ত গাইবান্ধার কামারজানী বন্দরের বানিজ্যক নৌ-পথের যোগাযোগ ব্যবস্থা ভাটির অঞ্চলের সর্বাগ্রে বিস্তৃত ছিল। চিলমারী ও কামারজানী ২টি বন্দরের প্রানকেন্দ্রের মধ্যদিয়ে নৌ পথে বানিজ্যিক ব্যবস্থা নির্ভরশীল ছিল। মারোয়ারীরা চিলমারী ও কামারজানী ২টি বন্দরে অবস্থান নিয়ে ধান,গম ও পাটসহ অন্যান্য শষ্যাদি খারিদ করে ভাটি অঞ্চল নারায়নগঞ্জ বা দেশের বিভিন্ন স্থানে নৌকা যোগে নিয়ে যেত। এসব মারোয়ারীরা নদী বেষ্টিত এই ২টি বন্দরে বানিজ্যিক কারনে জীবনের ৩ ভাগ সময় কাটিয়েছেন।


১৯৮০ হতে ২০০০ সাল পর্যন্ত ১ যুগে উজানে নতুন চরের সৃষ্টি হওয়ায় স্মোতের গতি পরিবর্তনের কারনে অব্যাহত নদীর বুকে প্রবল স্মোতধারায় ভাঙ্গনের মুখে চিলমারী ও কামারজানী বন্দরের ভৌগোলিক অবস্থানে অভাবনীয় বিবর্তন পরিলক্ষিত হয়।


উজানে নতুন নতুন চর সৃষ্টি হওয়ায় নদীর গতি পথের পরিবর্তনের ফলে ভাটিতে এসে পলি মাটি বা বালি পড়ে নদীর নাব্যতা কমে গিয়ে তিস্তা ও ব্রক্ষপুত্র ২টি নদ-নদীই এখন মরুভূমিতে রুপ নিয়েছে। নদীর এই নাব্যতা সংকটে পানি শুন্যতায় চরাঞ্চলের জনগোষ্ঠীর নৌকায় পারাপার বন্ধ হয়ে যাওয়াতে ৫-৭ কিলোমিটার বালিতে পায়ে হেটে চিলমারী ও কামারজানী বন্দরে আসতে হয়। নাব্যতা হ্রাসে নদীতে পানি শুন্যতায় নৌকা চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস পরিবহনে সীমাহীন সমস্যায় পড়েছে চর জনগোষ্ঠী।


নতুন এসব চরে অতি অল্প সময়ে বিভিন্ন স্থান থেকে মানুষ সেখানে গিয়ে বসত গড়ে তোলার ২-৩ বছরের মধ্য ভাঙ্গনের কবলে পড়ে ওই পরিবারদের ক্ষতিগ্রস্ত হতে হয়। ভাঙ্গা গড়া এই পরিস্থিতির সাথে চরাঞ্চলের জনগোষ্ঠী নিজেদের খাপ খাইয়ে নিতে পারলেও আর্থিক ভাবে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েন।


কামারজানী বন্দরের নৌ-পথে পাট রপ্তানী কারক আলহাজ¦ জহুরুল হক জানান, সেই সময়ের বানিজ্যিক যোগাযোগ ব্যবস্থা নৌকা যোগে ধান,পাট রপ্তানি করা হত। কালের বিবর্তনে সুপরিচিত কামারজানী বন্দরটি এখন নদীর করাল গ্রাসে নিশ্চিহৃ হয়ে গেছে।


কামারজানী বন্দরের ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম তারা জানান, ধান পাটে বিখ্যাত এই বন্দর ভাটির দেশের মানুষ যেখানে বছরের পর বছর অবস্থান নিয়ে বানিজ্য করত,আজ সেই বন্দরটি নাব্যতা সংকটে বিলুপ্ত হয়েছে।
চিলমারীর অষ্টমীর চরের আবদুল জোব্বার মিয়া জানান,চিলমারী নদী বন্দরের কথা দেশের অভ্যন্তরের পাশাপাশি বর্হিবিশে^ও পরিচিত কিন্ত নদীর তলাদেশ ভরাট হয়ে যাওয়ায় নৌপথে বানিজ্যিক ব্যবস্থার বিরুপ্তি ঘটেছে।

ভোট বর্জনের হিড়িক
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : সারাদেশে বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা ছাড়া ভোট গ্রহণ চলছে। তবে ইতোমধ্যে ভোট বর্জনের হিড়িক উঠেছে। ভোট বর্জন শুরু করেছেন জামায়াত-বিএনপির প্রার্থীরা।

কুমিল্লা-১১ ও খুলনা-৫ আসনের ধানের শীষের প্রার্থী ভোট বর্জন করেন। তারা দুজনই জামায়াত নেতা। এছাড়া পাবনা-৫ আসনে আরেক জামায়াত নেতা ও ‘ধানের শীষ’ প্রার্থীর ভোট বর্জন করেছেন। এছাড়া খুলনা-৫ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী সুনীল শুভ রায় ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন ঢাকা-১ আসনে নির্বাচনে বর্জন করেছেন বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী সালমা ইসলাম।

ঢাকা-১ সালমা ইসলাম

ঢাকা-১ আসনে নির্বাচনে বর্জন করেছেন বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী সালমা ইসলাম। রোববার সাড়ে ১১টার দিকে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ ঘোষণা দেন তিনি। সালমা ইসলাম মোটর গাড়ি মার্কায় নির্বাচন করছেন। ওই আসনে বিএনপির কোনো প্রার্থী না থাকায় সালমা ইসলামকে সর্মথন দেয় দলটি। ওই আসনে নৌকার প্রার্থী বিশিষ্ট ব্যবসায়ি সালমান এফ রহমান।

সালমা ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, আমার এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে। তাদের হুমকি-ধামকি দেওয়া হচ্ছে। তাদের নিরাপত্তার জন্য আমি সরে দাঁড়ালাম। ওই আসনে ফের নির্বাচন দেওয়ার দাবি জানান সালমা ইসলাম।

ফরিদপুর-২ শামা ওবায়েদ

এর আগে ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন ফরিদপুর-২ (নগরকান্দা–শালথা) আসনে বিএনপির প্রার্থী শামা ওবায়েদ। রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন তিনি। এই আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী।

কুমিল্লা-১১ ড. আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ তাহের

কুমিল্লা-১১ (চৌদ্দগ্রাম) আসনে ধানের শীষের প্রার্থী জামায়াত নেতা ড. আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ তাহের নির্বাচন বর্জন করেছেন। রবিবার (৩০ ডিসেম্ব) সকাল ১১টায় তিনি নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন। ভোটার, নেতাকর্মী এবং প্রিজাইডিং কর্মকর্তাদের কেন্দ্রে প্রবেশে বাধাসহ বিভিন্ন অভিযোগ তুলে আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ তাহের নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন। এই আসনে তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী রেলমন্ত্রী মজিবুল হক।

খুলনা-৫ গোলাম পরওয়ার

ভোট বর্জন করেছেন খুলনা-৫ (ফুলতলা-ডুমুরিয়া) আসনে ধানের শীষের প্রার্থী ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার। তিনি কেন্দ্রীয় জামায়াতের নায়েবে আমির। রোববার সকাল ১০টায় তিনি ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন।

এ সময় তিনি এই জামায়াত নেতা অভিযোগ করে বলেন, ভোটগ্রহণ শুরুর এক ঘণ্টার মধ্যে তার এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া হয়। এমনকি আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে তাল মিলিয়ে পুলিশও ভোটারদের মুখ চিনে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দিচ্ছেন। এ অবস্থায় নির্বাচন করা অসম্ভব।

খুলনা-৫ সুনীল শুভ রায়

খুলনা-৫ আসনে ধানের শীষের প্রার্থীর পর এবার খুলনা-১ আসনে মহাজোটের শরিক জাতীয় পার্টির প্রার্থী সুনীল শুভ রায় ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন। রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তিনি ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন। জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সুনীল শুভ রায় বলেন, এ রকম কলঙ্কিত ভোট আমি কোনো দিন দেখিনি। সকাল থেকেই আমার এজেন্টদের বের করে দেয়া হয়েছে কেন্দ্র থেকে। কাউকে গাছের সঙ্গে বেঁধেও রাখা হয়েছে। যারা ভোট দিতে যাচ্ছেন তাদেরকে ব্যালট পেপার টেবিলের ওপর রেখে নৌকায় সিল দিতে বাধ্য করা হয়েছে। এখানে কোনো সুষ্ঠু ভোট হচ্ছে না। তাই আমি সকাল সাড়ে ১০টা থেকে ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছি।

পাবনা-৫ ইকবাল হোসেন

এদিকে পাবনা-৫ আসনে ধানের শীষের প্রার্থী জামায়াত নেতা ইকবাল হোসেন ভোট বর্জন করেছেন। প্রার্থী নিজেই সাংবাদিকদের ফোন করে এই তথ্য জানান। ভোট জালিয়াতি, তার এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগে তিনি ভোট বর্জন করেছেন বলে জানান।

দুপুরে খুলনা উপকূলে আঘাত হানতে পারে ‘তিতলি’
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’ আরও প্রবল ও শক্তিশালী হয়ে উঠেছে। ভারত উপকূলে আঘাতের পর আজ বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে খুলনা উপকূলীয় এলাকায় আঘাত হানতে পারে বলে জানিয়েছে খুলনা আবহাওয়া অধিদফতর।

গতকাল বুধবার ঘূর্ণিঝড় তিতলির প্রভাবে দিনভর দেশের বিভিন্ন স্থানে হালকা থেকে ভারি বর্ষণ হয়েছে। তিতলির প্রভাবে চট্টগ্রাম, মোংলা, পায়রা ও কক্সবাজার সমুদ্রবন্দরকে ৪ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। বৈরী আবহাওয়ার কারণে গতকাল বিকেল থেকে সারা দেশে সব ধরনের যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এতে ঢাকাসহ সারা দেশেই নৌ চলাচল বন্ধ রয়েছে।

বিশেষ সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড় তিতলি প্রবল আকারে বিস্তৃতি লাভ করে চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৯১০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছে। এ ছাড়া কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৮৭০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৭৭৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৭৮০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছে। ঘূর্ণিঝড়টি আরো ঘনীভূত হয়ে উত্তর, উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।

তবে তিতলির প্রভাবে বাংলাদেশের আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া অফিসের কর্মকর্তারা। তারা বলেছেন, এটি ভারত উপকূলে আঘাত এনে দুর্বল হয়ে যাবে। তবে আবার যদি শক্তি সঞ্চার করে, তাহলে ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে। দুর্বল হয়ে আবার শক্তি সঞ্চারের সম্ভাবনা ক্ষীণ বলেও জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা। আজ বৃহস্পতিবার ঘূর্ণিঝড়টি ভারতের ওড়িশা উপকূল অতিক্রম করতে পারে। পরে দুপুর নাগাদ খুলনা ও সুন্দরবন সংলগ্ন উপকূলে আঘাত হানতে পারে। এ সময় ভারি ও মাঝারি বৃষ্টিপাত হতে পারে।

মাহমুদপুর গণহত্যা দিবস আজ
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : আজ ৩০ সেপ্টেম্বর, টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার মাহমুদপুর গণহত্যা দিবস। ১৯৭১ সালের আজকের এই দিনে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী রাজাকার ও আলবদরদের সঙ্গে নিয়ে মাহমুদপুর গ্রামে হামলা চালায়।

এ হামলার ঘটনায় ২৩ জন শহীদ ও অনেকেই পঙ্গুত্ব বরণ করেন। এ ঘটনাকে স্বরণ করে রাখতেই এ দিবস পালন করা হয়।

মাহমুদপুর গ্রামের হামলার বর্ণানায় বেঁচে থাকা মুক্তিযুদ্ধারা জানান, বঙ্গবন্ধুর সহচর ও এমএনএ হাতেম আলী তালুকদারের বাড়িতে প্রথমে অগ্নিসংযোগ করার পর শুরু করে অসংখ্য বাড়ি-ঘরে অগ্নিসংযোগ ও লুটপাট।

পরে তা প্রতিহত করার জন্য কাদেরিয়া বাহিনীর কোম্পানি কমান্ডার হুমায়ুন বেঙ্গলের নেতৃত্বে স্বল্প সংখ্যক মুক্তিযোদ্ধা নিয়ে মাহমুদপুর গ্রামের বটতলায় পাকিস্তানি হানাদারদের সাথে এক রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে লিপ্ত হন।

কিন্তু মুক্তিযুদ্ধারের রসদ ফুরিয়ে যাওয়ায় মুক্তিযোদ্ধারা পিছু হটতে বাধ্য হয়। পরে হানাদার বাহিনীরা এই গ্রামে মা-বোনদের ইজ্জত লুণ্ঠন ও নরহত্যা চালায়।

তারা শতাধিক নিরীহ মানুষকে আটক করে পানকাতা গ্রামের ঈদগাহ মাঠে ব্রাশফায়ার করে। এতে ২৩ জন শহীদ হন। অনেকেই গুরুতর আহত হন।

পিরোজপুরে শেখ এ্যানীর গাড়ি বহরে হামলা
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : পিরোজপুর-১ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী শেখ এ্যানী রহমানের গাড়ি বহরে হামলা ও গাড়ি লক্ষ্য করে দুই দফা গুলি ছোড়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে শহরের দামোদর সেতু ও বিলাস চত্বর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এসময় তিনজন আহত হন। তবে কেউ গুলিবিদ্ধ হননি। এ্যানী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের চাচাতো ভাই শেখ হাফিজুর রহমান টোকনের স্ত্রী।
হামলার ঘটনায় শেখ এ্যানী রহমানের পিতৃস্থান স্বরূপকাঠীর সেহাঙ্গলে গতকাল বুধবার প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগসহ অঙ্গসংগঠন। প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন এস এম মনিরুজ্জামান বাদল, মো. শাহরয়িার খান, মো. জায়দুল ইসলাম খান, কামাল হোসেনসহ স্থানী নেতৃবৃন্দ। বক্তারা এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার এবং জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবী জানান।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, শেখ এ্যানী রহমান পিরোজপুর-১ (সদর) আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী। মঙ্গলবার রাতে তিনি টুঙ্গিপাড়া থেকে সড়ক পথে পিরোজপুর যান।
এসময় কয়েক শত নেতা-কর্মী মোটর শোভাযাত্রা করে তাকে স্বাগত জানিয়ে টুঙ্গিপাড়া থেকে পিরোজপুরে নিয়ে যায়। গাড়ি বহরটি রাত আটটার দিকে শহরের দামোদর সেতু পার হওয়ার সময় কয়েকজন দুর্বৃত্ত গাড়ি বহরে হামলা করে। এরপর কিছুদূর আগানোর পর স্থানীয় বিলাস চত্বরে গাড়ি বহর যাওয়ার পর আবার গুলি করে দুর্বৃত্তরা।
এ সময় এ্যানী রহমানের স্বামী শেখ হাফিজুর রহমান টোকন ও তাদের দেহরক্ষীরা চার রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়লে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনার প্রতিবাদে শহরে মিছিল করে স্থানীয় বিলাস চত্বরে প্রতিবাদ সভা করেন এ্যানী রহমানের সমর্থকেরা।
পথসভায় জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক আইন বিষয়ক সম্পাদক ও জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি সরদার ফারুক আহমেদ, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাকসুদুল ইসলাম লিটন সিকদার, জেলা যুবলীগের সাবেক নেতা গোপাল বসু বক্তব্য দেন। বক্তারা এ্যানী রহমানের গাড়ি বহরে হামলা ও এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করে বিচারের দাবি জানান।
গাড়ি বহরে থাকা পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাকসুদুল ইসলাম লিটন সিকদার বলেন, মঙ্গলবার রাত আটটার দিকে শেখ এ্যানী রহমানের গাড়ি বহর শহরে প্রবেশ করার সময় দামোদর সেতু এলাকায় দুর্বৃত্তরা হামলা চালায় এবং এ্যানী রহমানের গাড়ি লক্ষ্য করে গুলি করে। তবে গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। এরপর এ্যানি রহমানের স্বামী শেখ হাফিজুর রহমান তার লাইন্সেস করা পিস্তল দিয়ে দুই রাউন্ড ফাঁকা গুলি করেন এবং তাদের এক দেহ রক্ষী শর্টগান দিয়ে ফাঁকা গুলি করেন। এরপর দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। শেখ এ্যানী রহমান অভিযোগ করেন, আমার গাড়ি লক্ষ্য করে ছয় রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে মুখোশধারী দুর্বৃত্তরা।
পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম জিয়াউল হক বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। এ ঘটনার পর শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ও টহল জোরদার করা হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আজ থেকে ঢাকাসহ সারাদেশে বাস চলবে
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : সোমবার সকাল থেকে রাজধানীসহ সারাদেশের সব রুটে বাস চলাচল শুরু হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খোন্দকার এনায়েতউল্লাহ।

রোববার (৫ আগস্ট) রাতে যানবাহন চলাচলের এ সিদ্ধান্তের কথা জানান সংগঠনের মহাসচিব। তিনি বলেন, সোমবার সকাল থেকে সারাদেশের সব রুটে যথারীতি বাস চলাচল শুরু হবে।

খোন্দকার এনায়েতউল্লাহ বলেন, ‘নিরাপত্তার অভাবের কারণে মালিক-শ্রমিক উভয়ের সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতেই পরিবহন বন্ধ করে দেওয়া হয়। এখন পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় আবার যানবাহন চলাচলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

সূত্র জানায়, পরিবহন মালিকদের সঙ্গে আজ বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বিভিন্ন বাহিনীর সঙ্গে বৈঠক হয়। এসব বৈঠকে মালিকদের নিরাপত্তার নিশ্চয়তা দেওয়ার পরিপ্রেক্ষিতেই মালিকেরা যানবাহন চালানোর সিদ্ধান্ত নেন।

এর আগে রাজধানীর কুর্মিটোলায় বাস চাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার পর সারা দেশে নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমে আসে। শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন যানবাহনের লাইসেন্স পরীক্ষা করতে শুরু করে রাস্তায় দাঁড়িয়ে। কিছু কিছু জায়গায় অবশ্য গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। আর এর পরিপ্রেক্ষিতেই রাজধানীসহ দূরপাল্লার যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ‘নিরাপত্তার অভাবে’ যানবাহন চলাচল অনেক জায়গায় বন্ধ করে দেয় মালিকেরা।

আজও বন্ধ গণপরিবহন, যাত্রীদের ভোগান্তি
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : আজও রাজধানীসহ সারাদেশে গণপরিবহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। শুধুমাত্র বিআরটিসি’র গাড়িগুলো চলাচল করছে। অন্যদিকে রাজধানী থেকে ছেড়ে যায়নি দূরপাল্লার কোন যান, এমনকি প্রবেশও করেনি।

রোববার সকাল থেকেই ভোগান্তিতে পড়ে কর্মস্থলগামী সাধারণ মানুষ। পরিবহন মালিক শ্রমিকদের কর্মবিরতিতে বিপর্যয়ে গণপরিবহন ব্যবস্থা। গাড়ি না পেয়ে অনেকে হেঁটে গেছেন কর্মস্থলে। রাস্তায় লেগুনা, প্রাইভেট কার, ফুয়েল ট্যাংক, বাইক, সিএনজি- সবই আছে। আর আছে অসংখ্য রিকশা। অগতির গতি রিকশাই আজ গণপরিবহনের অভাব ঘোচাচ্ছে। সুযোগ বুঝে চড়া ভাড়া নিচ্ছেন রিকশাওয়ালারা। তবে দ্রুত পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার দাবি জানিয়েছে সাধারণ যাত্রী ও পরিবহন শ্রমিকরা।

বাস মালিক সমিতি সূত্রে জানা যায়, রাস্তায় গাড়ি চালানো নিরাপদ মনে করছেন না তারা। গত রোববার থেকে শিক্ষার্থীদের লাগাতার আন্দোলনে চারশ’র বেশি গাড়ি ভাঙচুর হয়েছে। এতে রাস্তায় গাড়ি নামাতে ভয় পাচ্ছেন চালক-মালিক উভয়েই। তারা গাড়ি চালানো নিরাপদ মনে করছেন না। অন্যদিকে টার্মিনালগুলোতে দাঁড়িয়ে আছে দূর পাল্লার বাসগুলো। সকালে টার্মিনালে এসে অনেকেই হতাশ হয়ে ফিরে গেছেন।

উল্লেখ্য, গেলো রোববার (২৯ জুলাই) রাজধানীর কুর্মিটোলায় বিমানবন্দর সড়কে রাস্তায় শিক্ষার্থীদের ওপর উঠে পড়ে জাবালে নূর পরিবহনের একটি বাস। এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হয় শহীদ রমিজউদ্দীন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আবদুল করিম ওরফে রাজীব (১৭) এবং একই কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী দিয়া খানম মীম (১৬)। এই ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা রোববার থেকেই রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি সড়কে অবস্থান নিয়ে আন্দোলন করছে।

লেগুনা চাপায় কলেজ ছাত্র নিহত
                                  

 

নরসিংদী প্রতিনিধী : নরসিংদীর রায়পুরায় লেগুনাচাপায় মো. আবদুল্লাহ (১৭) নামের এক কলেজ ছাত্র নিহত হয়েছে। শনিবার সকাল ১০টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের রায়পুরা উপজেলার নীলকুটি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর থেকে মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেছে স্থানীয়রা।

নিহত মো. আবদুল্লাহ উপজেলার মাহমুদাবাদ ঝাড়তলা এলাকার মো. শাহজাহানের ছেলে। সে ভৈরবের হাজী আসমত আলী কলেজের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র।

জানা গেছে, সকাল ১০টার দিকে কলেজে যাওয়ার জন্য সে নীলকুটি বাসস্ট্যান্ডে যাচ্ছিল। এ সময় ইটাখোলা থেকে ভৈরবগামী একটি লেগুনা নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে আবদুল্লাহকে চাপা দিয়ে সড়কের পাশে উল্টে যায়। পরে লেগুনাটির ইঞ্জিনে আগুন লেগে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই আবদুল্লাহ মারা যায়।

রায়পুরা থানার ওসি মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, ঘাতক লেগুনা চালককে আটক করেছে পুলিশ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আমরা কাজ করছি।

সিলেটে যান চলাচলে শ্রমিকদের বাধা
                                  

 

সিলেট প্রতিনিধী : নগরের বিভিন্ন স্থানে পরিবহন শ্রমিকরা যান চলাচলে বাধা দিচ্ছে। তৃতীয় দিনের মতো দূরপাল্লার বাস চলাচল আজও বন্ধ রয়েছে। শনিবার সকাল থেকে নগরের দক্ষিণ সুরমার কদমতলি, হুমায়ুন, রশিদ চত্বর, সিলেট তামাবিল মহাসড়কের টিলাগড়, মেজরটিলা, শাহপরাণ গেইট, পরগনা বাজার, বটেশ্বর এলাকায় পরিবহন শ্রমিকরা গাড়ি আটকে দিচ্ছেন।

বটেশ্বর এলাকায় সড়কে অবস্থান নিয়ে সিলেটগামী সব ধরনের গণপরিবহন চলাচল বন্ধ করে দিচ্ছেন পরিবহন শ্রমিকরা। এ সময় তারা সব ধরনের গাড়ি চলাচলে বাধা প্রদান করেন। অফিসগামী লোকজন উপায় না পেয়ে শেষ পর্যন্ত হেঁটে তাদের কর্মক্ষেত্রে রওনা দেন।


কয়েকজন যাত্রী গাড়ি চলাচলে বাধা দেয়ার প্রতিবাদ করলে তাদের ওপর চড়াও হন শ্রমিকরা। এ সময় কয়েকজন যাত্রীকে তারা মারধরও করেন বলে জানা গেছে।

নগরের বন্দরবাজারের হাসান মার্কেটের ব্যবসায়ী মো. ফয়ছল আহমদ বলেন, নিরাপত্তার অজুহাতে সকাল থেকে সিলেটে বিভিন্ন সড়কে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ করে দেন শ্রমিকরা। এ কারণে পায়ে হেঁটে অনেকে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে আসছেন। এছাড়া দূরপাল্লার যাত্রীরা পড়েছেন চরম ভোগান্তিতে।

এ ব্যাপারে সিলেট জেলা পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন সিলেটের সভাপতি সেলিম আহমদ ফলিক বলেন, পরিবহন শ্রমিকরা কোথাও গাড়ি আটকে দিচ্ছে না। যদি কেউ রাস্তায় গাড়ি আটক করে থাকে এ বিষয়ে আমার জানা নাই। খোঁজ নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে নিরাপত্তার অভাব থাকায় চালকরা দূরপাল্লার গাড়ি বের করছেন না। কারণ বেআইনিভাবে গাড়ি ভাঙচুর করা হচ্ছে। এর ফলে চরম ঝুঁকিতে আছেন পরিবহন শ্রমিকরা।

সারাদেশে আজ ছাত্র ধর্মঘট
                                  


নিজস্ব প্রতিবেদক : নিরাপদ সড়কের দাবিতে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনে হামলার প্রতিবাদে কোটা সংস্কার আন্দোলকারী সংগঠন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ সারা দেশে ছাত্র ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে। ফলে আজ শনিবার সারাদেশের সকল শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে ছাত্র ধর্মঘট পালিত হবে।

গতকাল শুক্রবার সংগঠনটির আহ্বায়ক হাসান আল মামুন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, নিরাপদ সড়কের দাবিতে সারা দেশে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনে ঢাকার মিরপুর, দনিয়া, নারায়ণগঞ্জ, চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, চাঁদপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে পুলিশ ও সন্ত্রাসীদের হামলার প্রতিবাদে সব স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ে আগামীকাল শনিবার সারা দেশব্যাপী ছাত্রধর্মঘট ঘোষণা করা হলো।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক বিন ইয়ামিন মোল্লা, মোজাম্মেল মিয়াজী ও জালাল আহমেদ।

উল্লেখ্য, গত ২৯ জুলাই দুপুরে রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের অদূরে বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হয়। এ ঘটনায় রাজপথে নেমে ৯ দফা দাবি জানায় শিক্ষার্থীরা। গত পাঁচ দিন ধরে শিক্ষার্থীরা রাজধানীর সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ করে আসছে।

চুরি ঠেকাতে লিচু গাছে বৈদ্যুতিক ফাঁদ!
                                  

নাটোর প্রতিনিধি: নাটোরের বাগাতিপাড়ায় চুরি ঠেকাতে লিচুর গাছে বৈদ্যুতিক ফাঁদ পেতেছেন এক গাছের মালিক। খোলা তারের ওই ফাঁদে জড়িয়ে যেকোন সময় প্রাণহানির আশংকা করছেন স্থানীয়রা।

তিনি শুধু ফাঁদই পাতেননি, সেখানে একটি সাইনবোর্ড টানিয়েছেন। আর তাতে লিখেছেন `সাবধান!` লিচুর গাছে বিদ্যুৎসংযোগ দেয়া আছে, কেউ যদি মারা যায় কর্তৃপক্ষ দায়ি থাকবে না। বিপজ্জনক কান্ডটি ঘটেছে উপজেলার মালঞ্চি রেল স্টেশন সংলগ্ন এলাকায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশ রেলওয়েতে কর্মরত পোর্টার আব্দুর রাজ্জাক এই কান্ডটি করেছেন। তার বাড়ি ঈশ্বরদীর পাকশিতে। চাকরির সুবাদে দীর্ঘদিন থেকে তিনি মালঞ্চি রেল স্টেশনের পাশে সরকারি জমিতে পরিবার নিয়ে বসবাস করেন। তার বাড়ির পাশের একটি লিচু গাছ থেকে সম্প্রতি লিচু চুরি হয়। তাই লিচু চোর ঠেকাতে আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে জুয়েল লিচু গাছে বৈদ্যুতিক ফাঁদ পেতেছেন।

স্থানীয় সোনাপাতিল মহল্লার রবিউল আলম, জালাল উদ্দিন ও পেড়াবাড়িয়া মহল্লার লিমন জানান, তারা ওই লিচু গাছে বিদ্যুতের তার জড়ানো দেখেছেন। গাছটির পাশ দিয়ে শিশুরাসহ সাধারণ মানুষ চলাচল করে। গাছে জড়ানো বিদ্যুৎ এর তারে জড়িয়ে যেকোন সময় প্রাণহানির মতো বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। এমনকি ভুল করে গাছের মালিকদের নিজেদের পরিবারের সদস্যরাও দুর্ঘটনার শিকার হতে পারেন।

মালঞ্চি রেল স্টেশনে দায়িত্বরত ওয়েম্যান সানোয়ার কবীর জানান, তিনি এমন কান্ডটি দেখতে পেয়ে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানিয়েছেন।

আজ সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, পুরো লিচু গাছ জুড়ে খোলা তার প্যাঁচানো রয়েছে। পাশে একটি ডালে সতর্কতামূলক একটি সাইনবোর্ড সাঁটানো রয়েছে। আর তাতে লেখা রয়েছে ‘সাবধান! এই লিচু গাছের আশে পাশে এবং লিচুর গাছে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ো আছে। বিঃদ্রঃ কেউ যদি মারা যায় কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না’।

এ ব্যাপারে বাগাতিপাড়া মডেল থানা অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, লিচু গাছে পাহারার ব্যবস্থা করতে পারে। কিন্তু বৈদ্যুতিক ফাঁদ পাতা আইনসিদ্ধ নয়।
গাছের মালিক জুয়েলকে না পেয়ে তার বড় ভাই জিয়ার সাথে কথা বললে তিনি সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, লিচু চুরি ঠেকাতে এমন দৃশ্যমান বৈদ্যুতিক তার পেঁচিয়ে সাইনবোর্ড টানানো হয়েছে। প্রকৃতপক্ষে এতে কোন বিদ্যুৎ সংযোগ নেই বলে দাবি করেছেন তিনি।


   Page 1 of 8
     দেশজুড়ে
প্রচণ্ড ঠাণ্ডার দাপট আরো কয়েকদিন : আবহাওয়া অধিদপ্তর
.............................................................................................
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ‘কোটিপতি পিয়ন’ আটক
.............................................................................................
চার জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৬ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
মোংলায় কবি রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহর ৬৩ তম জন্মবার্ষিকী পালন
.............................................................................................
দুই এক দিনের মধ্যে নড়িয়া বাঁধ রক্ষায় ড্রেজিং কাজ শুরু --------পানিসম্পদ উপমন্ত্রী
.............................................................................................
গাইবান্ধার কামারজানী ও চিলমারী বন্দরের নাব্যতা হ্রাসে নদী এখন মরুভূমি
.............................................................................................
ভোট বর্জনের হিড়িক
.............................................................................................
দুপুরে খুলনা উপকূলে আঘাত হানতে পারে ‘তিতলি’
.............................................................................................
মাহমুদপুর গণহত্যা দিবস আজ
.............................................................................................
পিরোজপুরে শেখ এ্যানীর গাড়ি বহরে হামলা
.............................................................................................
আজ থেকে ঢাকাসহ সারাদেশে বাস চলবে
.............................................................................................
আজও বন্ধ গণপরিবহন, যাত্রীদের ভোগান্তি
.............................................................................................
লেগুনা চাপায় কলেজ ছাত্র নিহত
.............................................................................................
সিলেটে যান চলাচলে শ্রমিকদের বাধা
.............................................................................................
সারাদেশে আজ ছাত্র ধর্মঘট
.............................................................................................
চুরি ঠেকাতে লিচু গাছে বৈদ্যুতিক ফাঁদ!
.............................................................................................
নিরাপত্তাহীন পটুয়াখালীর নৌ-যোগাযোগ ব্যবস্থা
.............................................................................................
রোহিঙ্গা সংকটে বাংলাদেশের পাশে আছে মার্কিন সরকার: লিসা
.............................................................................................
ঢাকার সঙ্গে উত্তরাঞ্চলের ১১ জেলার বাস চলাচল বন্ধ
.............................................................................................
ছয় মাসে মিয়ানমারের ৯০ ভাগ রোহিঙ্গা এসেছে বাংলাদেশে
.............................................................................................
বিএনপি-জামায়াতের আরো ১৫৪ নেতা-কর্মী আটক
.............................................................................................
শৈত্যপ্রবাহ থাকতে পারে আরও কয়েক দিন
.............................................................................................
২৯ জানুয়ারি সারাদেশে ছাত্র ধর্মঘট
.............................................................................................
সারাদেশে সরস্বতী পূজা চলছে
.............................................................................................
শীতঘুম উধাও, স্বভাব বদলে প্রবল ঠান্ডাতেও ছোবল মারছে সাপ!
.............................................................................................
কুয়াশায় দুর্ঘটনা এড়াতে সতর্ক রেলওয়ে
.............................................................................................
দুর্ঘটনার কবলে কলকাতা-ঢাকা বাস, আহত ১০
.............................................................................................
বঙ্গোপসাগরে নিয়ম ভেঙ্গে মাছ ধরা বেড়েছে
.............................................................................................
জমে উঠেছে বউ-জামাই মেলা
.............................................................................................
রংপুর নির্বাচনে পাঁচ ফ্যাক্টর
.............................................................................................
বিদ্যালয়ের গণ্ডি পার করেননি ৩৮ শতাংশ প্রার্থী
.............................................................................................
প্রথম জেলা হিসেবে কুমিল্লায় চালু হলো ই-ট্রাফিকিং সিস্টেম
.............................................................................................
যেসব স্থান হানাদার মুক্ত হয় আজ
.............................................................................................
যে পেশায় ফি নেই
.............................................................................................
বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিদ্যুৎ থাকবে না যেসব এলাকায়
.............................................................................................
নবান্ন উৎসব আজ
.............................................................................................
বাংলাদেশের কমিকস এখন দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বিদেশে যাচ্ছে
.............................................................................................
সাত মাস পর টেকনাফ-সেন্ট মার্টিনে জাহাজ চলাচল শুরু
.............................................................................................
ঋতুর পরিবর্তনে শিশুরা আক্রান্ত হচ্ছে ঠান্ডাজনিত নানা রোগে
.............................................................................................
৩০ জুন পর্যন্ত জাটকা ধরা নিষিদ্ধ
.............................................................................................
নতুন করে প্রবেশ করেছে আড়াই হাজার রোহিঙ্গা
.............................................................................................
দশ হাজার টাকায় তিন কেজি ওজনের ইলিশ
.............................................................................................
দেশের দারিদ্র্য হার ২৪.৩ ভাগে নেমে এসেছে
.............................................................................................
মাছ ধরা বন্ধ, খাদ্য সহায়তাও নেই জেলেদের
.............................................................................................
বিশ্বে মোট ৯,৯২০ পরমানু অস্ত্র
.............................................................................................
বছরে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হন ২২ হাজার নারী
.............................................................................................
তীব্র যানজটে স্থবির ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক
.............................................................................................
পানিতে ডুবে ক্রিকেটার পাইলটের বাবার মৃত্যু
.............................................................................................
হায় মুজিব হায়, সব কিছু্ই কি মনোনয়নের প্রত্যাশায়?
.............................................................................................
সুন্দরবনে কোস্টগার্ড-বনদস্যু গোলাগুলি
.............................................................................................

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মো: রিপন তরফদার নিয়াম ।
প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক : মফিজুর রহমান রোকন ।
নির্বাহী সম্পাদক : শাহাদাত হোসেন শাহীন ।

সম্পাদক কর্তৃক শরীয়তপুর প্রিন্টিং প্রেস, ২৩৪ ফকিরাপুল, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত । সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল কমপ্ল্যাক্স (৬ষ্ঠ তলা) । ২৮/১ সি টয়েনবি সার্কুলার রোড, মতিঝিল, বা/এ ঢাকা-১০০০ । জিপিও বক্স নং-৫৪৭, ঢাকা ।
ফোন নাম্বার : ০২-৯৫৮৭৮৫০, ০২-৫৭১৬০৪০৪
মোবাইল : ০১৭০৭-০৮৯৫৫৩, ০১৯১৬৮২২৫৬৬ ।

E-mail: dailyganomukti@gmail.com
   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি