ঢাকা,বুধবার,৬ মাঘ ১৪২৮,১৯,জানুয়ারী,২০২২ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : > বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুরের মামলার বাদির উপর হামলা   > ‘গানে গানে চলছে প্রার্থীদের প্রচারণা’   > ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে ১৫ জানুয়ারী থেকে পরিবহন বন্ধের ঘোষণা   > বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাঙচুরকারী বিআইডব্লিউটিএ’র আবুল হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা   > নর্থ সাউথের আরও দুই ট্রাস্টি রেহেনা ও বেনজীরকে দুদকে তলব   > ঢাকায় অবৈধ রিকশার বিরুদ্ধে ডিএসসিসির অভিযান   > পথ যত কণ্টকাকীর্ণ হোক, আমরা থেমে থাকব না : প্রধানমন্ত্রী   > বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর পর মুক্তিযোদ্ধারা পরিচয় দিতে পারেনি : আবুল হাসেম খান এমপি   > শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই জাতি আজ ঐক্যবদ্ধ: এনামুল হক শামীম   > আগামী দুইদিনে শৈত্যপ্রবাহের মাত্রা বাড়বে  

   আন্তর্জাতিক -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
ওমিক্রনে ক্রিসমাসের হাজারও ফ্লাইট বাতিল: বিপাকে পড়েছেন ভ্রমণকারিরা

বিবিসি/নিউইয়র্ক টাইমস : করোনার নতুন ভ্যারিয়্যান্ট ওমিক্রনের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় ফ্লাইট বাতিল এবং নিরাপত্তাজনিত কড়াকড়ির ফলে ক্রিসমাসকালীন ভ্রমণ জটিলতার সম্মুখীন হয়েছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের লাখ লাখ মানুষ। হাজার হাজার ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। ফ্লাইটঅ্যাওয়ার ওয়েবসাইটের বরাত দিয়ে বিবিসির প্রতিবেদনে এমনটি জানানো হয়েছে। ইতালি, স্পেন ও গ্রিসে আবারও ঘরের বাইরে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। উত্তর স্পেনের কাতালানে চালু হয়েছে রাত্রিকালীন কারফিউ। আর, নেদারল্যান্ডসে তো কঠোর লকডাউন চলছেই। যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম সিএনএন বলছে, ক্রিসমাসের আগ মুহূর্তের দুই হাজারের বেশি ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। এর মধ্যে ৪৫৪টি ফ্লাইট যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরীণ বা যুক্তরাষ্ট্র ছেড়ে যাওয়া অথবা গন্তব্য যুক্তরাষ্ট্র ছিল। ওমিক্রন অন্যান্য ভ্যারিয়্যান্টের চেয়ে হালকা বলে বিজ্ঞানীরা এরই মধ্যে জানতে পেরেছেন। কিন্তু এর দ্রুত সংক্রমণের গতি নিয়ে উদ্?বেগ রয়ে গেছে। যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স ও ইতালিতে বৃহস্পতিবার সর্বোচ্চ সংক্রমণ হয়েছে। অন্যদিকে, এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে ডেলটা ভ্যারিয়্যান্টের সাম্প্রতিক ঢেউয়ের সংক্রমণের রেকর্ড ছাড়িয়েছে ওমিক্রন। যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে হাসপাতালগুলো রোগীতে পরিপূর্ণ হয়ে গেছে। নিউইয়র্ক টাইমসকে মিশিগান ইউনিভার্সিটির মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. হ্যালি প্রেসকট বলেন, ‘আমাদের কোটি কোটি মানুষ একাধারে একই সময়ে অসুস্থ। হাসপাতালগুলো পরিপূর্ণ হতে এত মানুষের প্রয়োজন হয় না।’ যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান সংক্রমণ রোগ বিশেষজ্ঞ ড. অ্যান্থনি ফসি এর আগেই সতর্ক করে বলেছিলেন, ক্রিসমাসকালীন ভ্রমণে পূর্ণাঙ্গ ডোজ টিকাপ্রাপ্তদের মধ্যেও নতুন এ ভ্যারিয়্যান্টের করোনাভাইরাস ছড়াতে পারে। অস্ট্রেলিয়ায়ও উৎসবকালীন ভ্রমণ বাতিল হয়েছে বহু মানুষের। শুক্রবার সিডনি ও মেলবোর্ন থেকে অন্যান্য শহরে যাওয়ার শতাধিক ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। অন্যদিকে, ইউরোপের বহু দেশ ক্রিসমাসের পরপরই কড়াকড়ি আরোপ করবে বলে জানিয়ে রেখেছে। ২৮ ডিসেম্বর থেকে গণজমায়েতে সর্বাধিক ১০ জন এবং নৈশক্লাবগুলো একেবারে বন্ধের নির্দেশনা কার্যকর করবে জার্মানি। ফুটবল ম্যাচ হবে দর্শকশূন্য। এ ছাড়া ২৬ ডিসেম্বর থেকে পর্তুগালের পানশালা ও নৈশক্লাব বন্ধ এবং ৯ জানুয়ারি পর্যন্ত দেশটিতে অফিসের কাজ বাসা থেকে করা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এ পর্যন্ত করোনায় বিশ্বের ৫৩ লাখের বেশি মানুষ মারা গেছে এবং এতে আক্রান্ত হয়েছে ২৭ কোটি ৮০ লাখের বেশি মানুষ। যুক্তরাষ্ট্রের জন্স হপকিন্স ইউনিভার্সিটি এ তথ্য জানিয়েছে। যিশুর জন্মস্থান বেথলেহামে নৈশজমায়েত এবারও সীমিত পরিসরে করা হবে। মহামারির আগের সময়ে যেমন হাজার হাজার মানুষ অংশ নিতেন, তা এবারও সম্ভব হচ্ছে না। তবে, ভ্যাটিক্যানের সেইন্ট পিটার’স ব্যাসিলিকায় নৈশজমায়েতে পোপ ফ্রান্সিস যে ভাষণ দিয়ে থাকেন, সেটি এবারও যথারীতি দেবেন। এ ছাড়া ক্রিসমাস ডে-তে যে আশির্বাদ দেন সেটিও করবেন পোপ ফ্রান্সিস।

ওমিক্রনে ক্রিসমাসের হাজারও ফ্লাইট বাতিল: বিপাকে পড়েছেন ভ্রমণকারিরা
                                  

বিবিসি/নিউইয়র্ক টাইমস : করোনার নতুন ভ্যারিয়্যান্ট ওমিক্রনের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় ফ্লাইট বাতিল এবং নিরাপত্তাজনিত কড়াকড়ির ফলে ক্রিসমাসকালীন ভ্রমণ জটিলতার সম্মুখীন হয়েছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের লাখ লাখ মানুষ। হাজার হাজার ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। ফ্লাইটঅ্যাওয়ার ওয়েবসাইটের বরাত দিয়ে বিবিসির প্রতিবেদনে এমনটি জানানো হয়েছে। ইতালি, স্পেন ও গ্রিসে আবারও ঘরের বাইরে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। উত্তর স্পেনের কাতালানে চালু হয়েছে রাত্রিকালীন কারফিউ। আর, নেদারল্যান্ডসে তো কঠোর লকডাউন চলছেই। যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম সিএনএন বলছে, ক্রিসমাসের আগ মুহূর্তের দুই হাজারের বেশি ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। এর মধ্যে ৪৫৪টি ফ্লাইট যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরীণ বা যুক্তরাষ্ট্র ছেড়ে যাওয়া অথবা গন্তব্য যুক্তরাষ্ট্র ছিল। ওমিক্রন অন্যান্য ভ্যারিয়্যান্টের চেয়ে হালকা বলে বিজ্ঞানীরা এরই মধ্যে জানতে পেরেছেন। কিন্তু এর দ্রুত সংক্রমণের গতি নিয়ে উদ্?বেগ রয়ে গেছে। যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স ও ইতালিতে বৃহস্পতিবার সর্বোচ্চ সংক্রমণ হয়েছে। অন্যদিকে, এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে ডেলটা ভ্যারিয়্যান্টের সাম্প্রতিক ঢেউয়ের সংক্রমণের রেকর্ড ছাড়িয়েছে ওমিক্রন। যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে হাসপাতালগুলো রোগীতে পরিপূর্ণ হয়ে গেছে। নিউইয়র্ক টাইমসকে মিশিগান ইউনিভার্সিটির মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. হ্যালি প্রেসকট বলেন, ‘আমাদের কোটি কোটি মানুষ একাধারে একই সময়ে অসুস্থ। হাসপাতালগুলো পরিপূর্ণ হতে এত মানুষের প্রয়োজন হয় না।’ যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান সংক্রমণ রোগ বিশেষজ্ঞ ড. অ্যান্থনি ফসি এর আগেই সতর্ক করে বলেছিলেন, ক্রিসমাসকালীন ভ্রমণে পূর্ণাঙ্গ ডোজ টিকাপ্রাপ্তদের মধ্যেও নতুন এ ভ্যারিয়্যান্টের করোনাভাইরাস ছড়াতে পারে। অস্ট্রেলিয়ায়ও উৎসবকালীন ভ্রমণ বাতিল হয়েছে বহু মানুষের। শুক্রবার সিডনি ও মেলবোর্ন থেকে অন্যান্য শহরে যাওয়ার শতাধিক ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। অন্যদিকে, ইউরোপের বহু দেশ ক্রিসমাসের পরপরই কড়াকড়ি আরোপ করবে বলে জানিয়ে রেখেছে। ২৮ ডিসেম্বর থেকে গণজমায়েতে সর্বাধিক ১০ জন এবং নৈশক্লাবগুলো একেবারে বন্ধের নির্দেশনা কার্যকর করবে জার্মানি। ফুটবল ম্যাচ হবে দর্শকশূন্য। এ ছাড়া ২৬ ডিসেম্বর থেকে পর্তুগালের পানশালা ও নৈশক্লাব বন্ধ এবং ৯ জানুয়ারি পর্যন্ত দেশটিতে অফিসের কাজ বাসা থেকে করা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এ পর্যন্ত করোনায় বিশ্বের ৫৩ লাখের বেশি মানুষ মারা গেছে এবং এতে আক্রান্ত হয়েছে ২৭ কোটি ৮০ লাখের বেশি মানুষ। যুক্তরাষ্ট্রের জন্স হপকিন্স ইউনিভার্সিটি এ তথ্য জানিয়েছে। যিশুর জন্মস্থান বেথলেহামে নৈশজমায়েত এবারও সীমিত পরিসরে করা হবে। মহামারির আগের সময়ে যেমন হাজার হাজার মানুষ অংশ নিতেন, তা এবারও সম্ভব হচ্ছে না। তবে, ভ্যাটিক্যানের সেইন্ট পিটার’স ব্যাসিলিকায় নৈশজমায়েতে পোপ ফ্রান্সিস যে ভাষণ দিয়ে থাকেন, সেটি এবারও যথারীতি দেবেন। এ ছাড়া ক্রিসমাস ডে-তে যে আশির্বাদ দেন সেটিও করবেন পোপ ফ্রান্সিস।

ওমিক্রন ডেলটার চেয়েও দ্রুত ছড়াচ্ছে : ডব্লিউএইচও
                                  

এনডিটিভি/আজকাল : মহামারি করোনাভাইরাসের ডেলটা ধরনের চেয়েও দ্রুত ছড়াচ্ছে ওমিক্রন ধরন। এরই মধ্যে যারা কোভিড প্রতিরোধী ভ্যাকসিন নিয়েছেন তারাও রোগটির নতুন এই ধরনে সংক্রমিত হচ্ছেন। গতকাল সোমবার সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় আয়োজিত এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে তথ্যটি জানিয়েছেন বিশ্ব স্বাস্থ্যসংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রধান টেড্রোস আধানম গ্যাব্রিয়াসুস। তিনি বলেছেন, ডেলটা ভ্যারিয়েন্টের তুলনায় উল্লেখযোগ্যভাবে দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে ওমিক্রন। বিজ্ঞানীদের কাছে এর ধারাবাহিক প্রমাণ রয়েছে। মঙ্গলবার কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদনে জানানো হয়, ওমিক্রনের কারণে নতুন করে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ কঠোর লকডাউন বহাল করতে বাধ্য হচ্ছে। এর মধ্যে নেদারল্যান্ডস হল ইউরোপের প্রথম কোনো দেশ যারা ফের লকডাউন আরোপ করেছে। এ ছাড়া ফ্রান্স, সাইপ্রাস, অস্ট্রিয়া এবং জার্মানি ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা কঠোর করেছে। কোনো কোনো দেশ আবার বাতিল করেছে ক্রিসমাস বা বড়দিনের উৎসব। কানাডার দ্বিতীয় সর্বাধিক জনবহুল প্রদেশ কুইবেকে জিম, বার এবং ক্যাসিনো বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া জনগণকে বাড়ি থেকে কাজ করার জন্যও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অপরদিকে সতর্কতা হিসেবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে ‘নো-ফ্লাই’ এর তালিকায় যুক্ত করেছে ইসরায়েল। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থার খবর অনুযায়ী, করোনার শক্তিশালী ধরন ওমিক্রনে আক্রান্ত হয়ে ব্রিটেনে এ পর্যন্ত ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর যুক্তরাজ্যের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থাতে রয়েছেন আরও শতাধিক লোক। প্রতিবেশী অনেক দেশের তুলনায় সেখানে ওমিক্রন দ্রুত গতিতে ছড়াচ্ছে। এদিকে মহামারি করোনাভাইরাসের প্রথম ঢেউয়ের চরম আঘাত থেকে শিক্ষা নিয়ে ইউরোপের দেশ ইতালি আগে থেকেই কড়াকড়ি আরোপ করতে চলেছে।
এদিকে দক্ষিণ এশিয়ার ঘনবসতিপূর্ণ দেশ ভারতেও ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে। দেশটি একটি ‘লাল তালিকা’ তৈরি করেছে। যেখানে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে যুক্তরাজ্য, গোটা ইউরোপ, দক্ষিণ আফ্রিকা, ব্রাজিল, জিম্বাবুয়ে, বতসোয়ানা, ইসরায়েল, মরিশাস, নিউজিল্যান্ড, হংকং, সিঙ্গাপুর ও এশিয়ার পরাশক্তি চীনকে উল্লেখ করা হয়েছে।

নিউইয়র্কে সাবিনা ইয়াসমিন ও সাকিব খান সংবর্ধিত
                                  

হাসান মাহমুদ, নিউইয়র্ক থেকে : ‘ঢালিউড ফিল্ম এন্ড মিউজিক অ্যাওয়ার্ডস’ নিয়ে নিউইয়র্কে করোনাকালে বসেছিলো এক জমকালো অনুষ্ঠান। স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টা থেকে অ্যামাজোরা হলে শুরু হয়ে রাত সোয়া ১২টা পর্যন্ত অনুষ্ঠান চলে। এ সময় শাকিব খান, সাবিনা ইয়াসমিন, নায়িকা বুবলি, বাঁধনসহ একঝাক ঢাকাই তারকা উপস্থিত ছিলেন। করোনার কারণে অনেককে দুবাই এয়ারপোর্টে আটকে দেয়ায় তারা নিউইয়র্কে আসতে পারেননি বলে উদ্যোক্তা আলমগীর জানান। তাদেরকে দেশে ফেরত পাঠিয়ে দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে শিল্পী সাবিনা ইয়াসমিনকে ‘লাইফ টাইম অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত করা হয়। এর আগে শতশত দর্শকের সামনে তিনি তাঁর জনপ্রিয় ৭টি গান পরিবেশন করেন। অনুষ্ঠানে সাকিব খানকে ঢালিউড ফিল্ম এন্ড মিউজিক অ্যাওয়ার্ড দেয়া হয়। পরে সাংবাদিকদের কাছে সাকিব বলেন, ঢালিউড অ্যাওয়ার্ড পাওয়ায় আমি অত্যন্ত আনন্দিত। বাংলা চলচ্চিত্র আগামীতে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে যাবে এটাই আমার আশা। একটি অসমর্থিত সূত্র জানিয়েছে, সাকিব খান আমেরিকায় স্থায়ীভাবে থাকার আগ্রহ জানিয়ে ইমিগ্রেশনে (গ্রীণ কার্ড) আবেদন করেছেন। তবে এ ব্যাপারে গতকাল রোববার তার কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি। অনুষ্ঠানে সাধারণ টিকিট ৫০ ডলার, ভিআইপি টিকিট ২৫০ ডলার এবং সিআইপি টিকিট ৫০০ ডলারে বিক্রি হয়েছে।

জাতিসংঘ সদরদপ্তরে অস্ত্রধারীর মহড়া
                                  

নিউইয়র্ক টাইমস/বিবিসি : জাতিসংঘ সদর দপ্তরের সামনে বৃহস্পতিবার (বাংলাদেশ সময় শুক্রবার) আচমকা সৃষ্ট জরুরি পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার বিকেলে সদর দপ্তরের সামনে আত্মহননের হুমকি দিয়ে অবস্থানকারী অস্ত্রধারীকে অবশেষে পুলিশ তাদের হেফাজতে নিতে সমর্থ হয়েছে। এর ফলে ৩ ঘণ্টার রুদ্ধশ্বাস অভিযান আর টানটান উত্তেজনার অবসান ঘটে। নিউইয়র্ক পুলিশ সেই অস্ত্রধারীকে নিবৃত্ত করতে তৎক্ষণাৎ জাতিসংঘ সদর দপ্তরের চারপাশের রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছিল। বার্তা সংস্থা রয়টার্স, সিএনএন এবং এএফপিসহ বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের রিপোর্ট মতে, নিউইয়র্ক পুলিশের কৌশলী ভূমিকায় বিনা রক্তপাতে ওই ব্যক্তিকে আত্মসমর্পণে বাধ্য করা গেছে। নিউইয়র্ক পুলিশের টুইট বার্তায় জানানো হয়েছে, ষাট বছরের কাছাকাছি বয়সের ওই ব্যক্তি এখন পুলিশ হেফাজতে রয়েছেন। ফলে সাধারণ মানুষের জন্য এখন আর কোনো হুমকি নেই। উল্লেখ্য, আত্মসমর্পণের আগে অস্ত্রধারী ফুটপাতে বেশ কয়েকটি নোটবুক রেখে গেছেন। যেগুলো নিউইয়র্ক পুলিশ সংগ্রহ করেছে। পুলিশের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, ওই এলাকা থেকে যানবাহন সরিয়ে নেয়ার সময় থেকে পুলিশ লোকটির সঙ্গে দফায় দফায় কথা বলার চেষ্টা করে। জাতিসংঘের এক কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে বলেন, সদর দপ্তরের সামনের প্রবেশপথে ওই ব্যক্তি আত্মহত্যার হুমকি দিয়েছিলেন। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত ছবিতে দেখা গেছে সশস্ত্র পুলিশ ওই ব্যক্তিকে ঘিরে রেখেছে। তিনি দীর্ঘ সময় ধরে অস্ত্র হাতে ফুটপাতে হাঁটছিলেন। এর আগে জাতিসংঘ বলেছিল, এলাকাটি সুরক্ষিত থাকায় জাতিসংঘের কোনো কর্মী বা সহযোগী বিপদে নেই। এই ঘটনায় জাতিসংঘের রুটিন কর্মসূচী বা বৈঠকাদিতে কোন বিঘ্ন ঘটেনি।

কৃষকদের কাছে হাতজোড় করে ক্ষমা চাইলেন মোদী
                                  

এনডিটিভি/আজকাল : কৃষকদের দীর্ঘদিনের আন্দোলনের সামনে অবশেষে হার মানলো বিজেপি সরকার। বিতর্কিত সেই তিন কৃষি আইন প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। শুধু তাই নয়, এতদিনের দুর্ভোগের কারণে দেশবাসীর কাছে ক্ষমাও চেয়েছেন তিনি। গতকাল শুক্রবার জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে নরেন্দ্র মোদী হাতজোড় করে বলেন, আমি দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চাচ্ছি। আমাদের হয়তো তপস্যাতেই খামতি ছিল। তাই কৃষি আইন প্রত্যাহার করা হচ্ছে। এ মাসে শুরু হতে চলা সংসদ অধিবেশনে আইনগুলো প্রত্যাহার করা হবে। সবাইকে অনুরোধ করছি, আসুন, আন্দোলন ছেড়ে নতুন দিনের সূচনা করি। এবার আপনারা মাঠে ফিরে যান, পরিবারের কাছে যান। ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের ১০০ জনের মধ্যে ৮০ জন ক্ষুদ্র কৃষক। তাদের জমির পরিমাণ দুই হেক্টরের কম। তাদের জীবনের আধার এই ছোট জমিটুকু। এমন কৃষক রয়েছে প্রায় ১০ কোটি। এই ছোট জমিতেই তারা নিজেদের পরিবারের মুখে খাবার তুলে দিতে কাজ করছে। তাই বীজ, বীমা, বাজার আর সেভিংসের ক্ষেত্রে কাজ করেছি। আমরা ফসল বীমা যোজনাকে আরও কার্যকরী করেছি। পশুপালন ও মাছচাষের সঙ্গে যুক্ত কৃষকরা কিষাণ ক্রেডিট কার্ডের সুবিধা পেতে শুরু করেছেন। কৃষককদের সামাজিক পরিস্থিতির উন্নয়নে সরকার কাজ করছে। মোদী বলেন, দেশের ক্ষুদ্র কৃষকদের কথা ভেবেই তিনটি কৃষি বিল আনা হয়েছিল। দেশের কৃষক সংগঠন, কৃষি অর্থনীতিবিদদের এই দাবি বহুদিনের। আগের সরকারও এ নিয়ে ভেবেছে। এরপরই সংসদে কৃষি বিল নিয়ে আলোচনা করে তা পাস করানো হয়। কয়েক কোটি কৃষক এই বিলকে সমর্থন জানিয়েছেন। ভালো মনে এই আইন আনা হয়েছিল। কৃষকদের স্বার্থে আনা এই বিল আমরা কয়েকজনকে বোঝাতে পারিনি। সেই কয়েকজন কৃষকই এর বিরোধিতা করছেন। তবু সেটিও আমাদের জন্য বড় বিষয়। তাদের বোঝাতে চেয়েছি, আমরাও তাদের কথা বোঝার চেষ্টা করেছি। সরকার আইন বদলাতে রাজি ছিল। এর মধ্যেই মামলাটি সুপ্রিম কোর্টে চলে যায়। এর আগে বিতর্কিত তিনটি কৃষি আইন স্থগিত রাখতে কেন্দ্রীয় সরকারকে নির্দেশনা দেন ভারতের সর্বোচ্চ আদালত। ওই তিন কৃষি আইনের বিরুদ্ধে ভারতে বহুদিন ধরে আন্দোলন করছেন কৃষকরা। আন্দোলন-বিক্ষোভে ঘটেছে প্রাণহানির ঘটনাও। তবু রাজপথ ছাড়েননি কৃষকরা। দফায় দফায় বৈঠক হয়েছে কেন্দ্রীয় কমিটির সঙ্গে, তবে বিষয়টির সুরাহা হয়নি। করোনা মহামারির মধ্যেও আন্দোলন চালিয়ে যান কৃষকরা। অবশেষে তাদের দাবি মেনে নিলো মোদী সরকার।

করোনা মোকাবিলায় দরকার ২ হাজার ৩৪০ কোটি মার্কিন ডলার: ডব্লিউএইচও
                                  

বিবিসি/এনডিটিভি : কোভিড-১৯ মোকাবিলার জন্য আগামী ১২ মাসে দুই হাজার ৩৪০ কোটি মার্কিন ডলার প্রয়োজন বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। এজন্য সংস্থাটি জি-২০-এর নেতাদের এগিয়ে আসার এবং অর্থ প্রদানের আহ্বান জানিয়েছে। বিশ্বের শক্তিধর বিশটি দেশের জোট জি-২০’র নেতারা চলতি সপ্তাহের শেষ দিকে রোমে বৈঠকে বসছেন। ডব্লিউএইচও’র প্রধান টেড্রস আধানম গ্যাব্রিয়াসুস জি-২০’র নেতাদের উদ্দেশে বলেন, তাঁরা দরিদ্র দেশগুলোকে মহামারিতে দীর্ঘ সময় ধরে সুরক্ষা থেকে বঞ্চিত রাখতে পারেন না। টেড্রস বলেন, আরও ৫০ লাখ লোকের মৃত্যুর আশঙ্কা মোকাবিলায় কোভিড-১৯ টিকা, পরীক্ষা এবং চিকিৎসা সুবিধা নিশ্চিত করার জন্য আগামী ১২ মাসে দুই হাজার ৩৪০ কোটি মার্কিন ডলার প্রয়োজন। টেড্রস আধানম এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, মহামারি অবসানে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে জি-২০ ‘প্রয়োজনীয় রাজনৈতিক ও আর্থিক প্রতিশ্রুতি দেওয়ার ক্ষমতা রাখে।’ ডব্লিউএইচও’র প্রধান বলেন, ‘আমরা চূড়ান্ত মুহূর্তে আছি; বিশ্বকে নিরাপদ রাখার জন্য বলিষ্ঠ নের্তৃত্বের প্রয়োজন।’ ডব্লিউএইচও’র নেতৃত্বে ‘অ্যাকসেস টু কোভিড টুলস অ্যাক্সিলারেটর’-এর লক্ষ্য হলো মহামারি মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় সরঞ্জামগুলোর উন্নয়ন, উৎপাদন, সংগ্রহ ও বিতরণ করা। ডব্লিউএইচও বলছে এতে অর্থায়নের দুই হাজার ৩৪০ কোটি ডলার প্রয়োজন, ‘যা মহামারির কারণে ট্রিলিয়ন ডলারের ক্ষতি এবং বিভিন্ন দেশের জাতীয় পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়ায় সহায়তা দিতে গৃহীত উদ্দীপনা পরিকল্পনার ব্যয়ের তুলনায় সামান্য।’

শাহরুখ পুত্রের ঘটনায় তোলপাড় চলছে
                                  

স্টাফ রিপোর্টার, নিউইয়র্ক থেকে : অভিনেতা শাহরুখ খানের ছেলে আরিয়ান খান ও তার এক বন্ধুকে প্রমোদতরী থেকে মাদকের অভিযোগে প্রথমে আটক করেছিলো নরেন্দ্র মোদির দল বিজেপি কর্মী মানুশ ভানুশালি ও প্রাইভেট গোয়েন্দাকর্মী কে পি গোসাওয়ি। নার্কোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি) প্রমোদতরীতে আরিয়ানের যাবার বিষয়ে কিছুই জানতো না। তারা প্রথমে আরিয়ানকে আটক করেনি বলে জানিয়েছে। ঘটনার রাতে বিজেপি কর্মী ভানুশালি আর প্রাইভেট গোয়েন্দা গোসাওয়ি তাকে ধরে ‘এনসিবি’ অফিসে নিয়ে যায়। এমন নাজুক ঘটনায় ভারত জুড়ে এখন ব্যাপক সমালোচনা আর তোলপাড় হচ্ছে। তারা এভাবে কাউকে আটক করতে পারে কি-না। সম্প্রতি মোদির এলাকা গুজরাটের বিশাল হেরোইনের চালান আড়াল করতে আরিয়ান চিত্র সামনে আনা হয়েছে বলে সমালোচনা চলছে। শাহরুখ খানকে ঝামেলায় রাখার একটা ষড়যন্ত্র বলেই মনে করা হচ্ছে। নিউইয়র্কের ‘নিউজ ডে’ গতকাল একটি ফিচার রিপোর্ট প্রকাশ করে এসব ভেতরের তথ্য জানিয়েছে। এদিকে রাজ্যের মন্ত্রী নবাব মালিকও নার্কোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) ভূমিকা নিয়ে কথা বলেছেন । তাঁর কথায়, সবই ষড়যন্ত্র। সাংবাদিক সম্মেলনে বললেন, আটক হওয়ার পর আরিয়ান খান এবং তাঁর সঙ্গি আরবাজ মার্চেন্টকে যে দু’জন ধরে আনছিলেন, তাঁর এনসিবির অফিসারই নন। এক জন বিজেপি কর্মী, অন্য জন প্রাইভেট গোয়েন্দা। তাদের একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। তাতে দেখা গিয়েছে, আরিয়ানকে ধরে এনসিবি অফিসে নিয়ে আসছেন কে পি গোসাওয়ি। তিনি আরিয়ানের সঙ্গে সেলফি তুলে ইতিমধ্যেই ভাইরাল। এনসিবি তখনই জানিয়ে দেয়, এই গোসাওয়ি তাদের কর্মী নন। তাহলে কে?? নবাব মালিক জানালেন, গোসাওয়ি হলেন প্রাইভেট গোয়েন্দা সদস্য। আরবাজকে ধরে আনছিলেন মণীশ ভানুশালী। তিনি বিজেপি কর্মী। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, বিজেপি সভাপতি জে পি নাড্ডা, দেবেন্দ্র ফড়নবিশের সঙ্গে ছবি রয়েছে মণীশের। মালিকের প্রশ্ন, এ রকম হাইপ্রোফাইলদের কীভাবে বাইরের লোকেরা ধরে আনতে পারে!?
গত শনিবার রাতে প্রমোদতরীতে তল্লাশি। তার পর আট জনকে আটকের ঘটনা ঘটে। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন শাহরুখ পুত্র আরিয়ানও। আরিয়ানকে রিমান্ড শেষে ১৪ দিনের কারাবাস দেয়া হয়েছে।
কংগ্রেস প্রথমেই অভিযোগ করেছে, গুজরাটের মুন্দ্রা উপকূলে হেরোইন উদ্ধারের ঘটনা চাপা দিতে আরিয়ানকে নিশানা করা হয়েছে। এনআইএ জানিয়ে দিয়েছে, সম্প্রতি আদানি গোষ্ঠী পরিচালিত মোদির এলাকা গুজরাটের মুন্দ্রা বন্দরে প্রায় ৩,০০০ কিলোগ্রাম হেরোইন উদ্ধারের মামলার তদন্তভার হাতে নিয়েছে তারা। তার পরেই কংগ্রেস আবারও আঙুল তুলেছে বিজেপি সরকারের দিকে। ‘বিজেপির বিরুদ্ধে যাঁরা আছেন, তাঁদের কলঙ্কিত করতে এনসিবিকে ব্যবহার করছে বিজেপি কর্মী।’
এদিকে নারকেটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি) অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে বলেছে, শনিবার প্রমোদতরীতে অভিযানের আগে তারা জানতই না সেখানে আরিয়ান ছিলেন। ছেলের গ্রেপ্তারের ঘটনায় ভেঙে পড়েছেন শাহরুখ। ছেলে ঘরে না ফেরা পর্যন্ত সিনেমার কাজ করবেন না বলে তিনি জানিয়েছেন।

ভারতে প্রিয়াংকার পর অখিলেশ যাদব আটক
                                  

এটিআই/এনডিটিভি : ভারতের উত্তরপ্রদেশের চার কৃষককে ‘হত্যা’র প্রতিবাদে লখিমপুরে যাওয়ার পথে কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াংকা গান্ধীকে আটকের পর সমাজবাদী পার্টির প্রধান অখিলেশ যাদবকেও আটক করা হয়েছে। উত্তরপ্রদেশের লখিমপুর খেরি এলাকায় কৃষি আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করছিলেন কৃষকরা। সে সময় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অজয় মিশ্রর ছেলে আকাশ মিশ্রর গাড়ির ধাক্কায় চার কৃষকের মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। এরপরই কনভয়ের একটি গাড়ি জ্বালিয়ে দেয় উত্তেজিত জনতা। বাকি গাড়িগুলোতেও ভাঙচুর করা হয়। তাতে আরও চারজনের মৃত্যু হয়। ইতোমধ্যেই লখিমপুরের ঘটনার দায় নিয়ে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের পদত্যাগ দাবি করেছে বিরোধীরা। গতকাল সোমবার নিহতদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করে যাওয়ার পথে আগেই আটক করা হয় কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াংকা গান্ধীকে। প্রিয়াংকার পর একই কায়দায় আটক করা হয় উত্তরপ্রদেশের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও সমাজবাদী পার্টির প্রধান অখিলেশ যাদবকে।
লখিমপুর খেরি যাওয়ার পথে বাধা পান অখিলেশ। বাধা পেয়ে রাস্তায় ধরনা শুরু করেন তিনি। তাকে আটক করে লখনৌ পুলিশ। এই ঘটনায় অশান্ত হয়ে ওঠে লখনৌ। অখিলেশের বাড়ির বাইরে পুলিশের একটি জিপে আগুন ধরিয়ে দেন বিক্ষোভকারীরা।

রেকর্ড গড়ে আবার ক্ষমতায় মমতা
                                  

টাইমস অব ইন্ডিয়া/আজকাল : রেকর্ড গড়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার ভবানীপুর আসনের উপনির্বাচনে বিজয়ী হয়ে সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ভবানীপুরে বিজয় নিশ্চিতে মুখ্যমন্ত্রী থাকার ক্ষেত্রে কোনও বাধা থাকলো না মমতার। এদিন ধন্যবাদ জানিয়ে মমতা বলেন, ‘ভবানীপুরের মানুষের কাছে চিরঋণি আমি’। কালীঘাটের বাসভবন থেকে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বললেন, ‘আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ। ভবানীপুরে মা-ভাই-বোন, সকল সহকর্মী এবং সারা বাংলার মানুষকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি`। তিনি আরও বলেন, `আমার মন ভরে গেছে। ভবানীপুরের মানুষ দেখিয়ে দিলো। নন্দীগ্রামের ফলাফলে অনেক চক্রান্ত হয়েছিল। সব চক্রান্তকে শেষ করে দিয়েছেন ভবানীপুরের মানুষ`। ভবানীপুর ছাড়াও পশ্চিমবঙ্গের আরও দুটি কেন্দ্র শমসেরগঞ্জ ও জঙ্গিপুরেও ভোট গণনা হয়েছে। সেখানেও এগিয়ে তৃণমূল। এ বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বলেন, ‘আমি ভি দেখাব না, আমি তিন দেখাব। তিন সিটে লড়াই করেছি। তিন কেন্দ্রেই আমরা জিতছি`। এদিকে, আরও চার আসন শান্তিপুর, গোসাবা, দিনহাটা, খড়দহ উপনির্বাচনের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করলেন মমতা। খড়দহে উপনির্বাচন প্রার্থী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। শান্তিপুরে ব্রজকিশোর গোস্বামী। দিনহাটায় উদয়ন গুহ। গোসাবায় বাপ্পাদিত্য নস্কর এবং সুব্রত মণ্ডলের মধ্যে যে কোনও একজন প্রার্থী হবে বলে জানালেন তিনি। বিধানসভার ভবানীপুর আসনের উপনির্বাচনে ৫৮ হাজার ৮৩২ ভোটে জয়ী হলেন তৃণমূল নেত্রী। রবিবারের ভোট গণনার ২১ রাউন্ডে তিনি এগিয়ে ছিলেন ৫৮ হাজার ৩৮৯ ভোটে। এর সঙ্গে যুক্ত হয় পোস্টাল ব্যালটের ৪৪৩টি ভোট। সব মিলিয়ে ৫৮ হাজার ৮৩২ ভোটে তৃতীয় বারের মুখ্যমন্ত্রিত্ব নিশ্চিত করলেন মমতা। মমতা ৮২ হাজারের বেশি ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপি প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল পেয়েছেন ২৫ হাজারের বেশি ভোট।

চার দেশীয় জোটের প্রথম কোয়াড বৈঠক অনুষ্ঠিত
                                  

স্টাফ রিপোর্টার, নিউইয়র্ক থেকে : ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ সময় শুক্রবার মধ্যরাতে অনুষ্ঠিত হলো চার দেশীয় জোট কোয়াড-এর বৈঠক। কোয়াড অন্তর্ভুক্ত চার দেশের সরকার প্রধান এই প্রথমবার মুখোমুখি দেখা করলেন। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ছাড়াও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন, অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন এবং জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদে সুগা। বৈঠকে বিশ্বের বর্তমান বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। কোভিড-১৯ এবং জলবায়ু পরিবর্তনের মতো বিষয়গুলোর পাশাপাশি এশিয়ার পরিস্থিতি ও সন্ত্রাসবাদের মতো বিষয়েও আলোচনা হয়েছে বলে জানা গেছে। শুরুতে বক্তব্য দেওয়ার সুযোগ পেয়ে নরেন্দ্র মোদি কোয়াড-এর বৈঠকে বলেছেন, ‘ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকার উন্নয়নের জন্য ২০০৪ সালে সুনামির পর আমরা প্রথম দেখা করেছিলাম। সারা বিশ্ব যখন কোভিড মহামারিতে বিপর্যস্ত, তখন মানবতার কল্যাণে আমরা আবার একসঙ্গে হলাম। আমাদের কোয়াড জোট বিশ্বের মঙ্গলের জন্য কাজ করবে। পারস্পরিক সহযোগিতা ইন্দো-প্যাসিফিক এবং বিশ্ব শান্তির জন্য জরুরি।’
সারা বিশ্বে শান্তি ও সমৃদ্ধি প্রতিষ্ঠা করতে কোয়াড গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে বলে মনে করেন মোদি। মুক্ত এশিয়া গড়ে তোলাও কোয়াডের লক্ষ্য বলে জানিয়েছেন তিনি। মোদি বলেন, ‘আমাদের নিজ নিজ গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের পরিপ্রেক্ষিতে কোয়াড এগিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আমরা ইতিবাচক ভাবনা নিয়ে এগিয়ে যাব। জলবায়ু, কোভিড মোকাবিলা এবং বিশ্বের নিরাপত্তার মতো বিষয়গুলো নিয়ে কোয়াড সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করতে পেরে ভালো লাগছে। বিশ্বের শান্তি প্রতিষ্ঠায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে কোয়াড।’ মুক্ত এবং উদার এশিয়া গড়া কোয়াডের অন্যতম লক্ষ্য বলে জানান ভারতের প্রধানমন্ত্রী। মোদির পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া ও জাপানের সরকার প্রধানেরাও নিজেদের বক্তব্য তুলে ধরেন বৈঠকে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের মুখে উঠে আসে সমস্যা মোকাবিলা করতে চার গণতান্ত্রিক দেশের প্রচেষ্টার কথা। অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী মরিসন ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলকে দখলদারত্ব থেকে মুক্ত রাখা এবং আন্তর্জাতিক আইন অনুসারে সমস্যার সমাধানের পক্ষে মত দেন।
এদিকে, স্বাধীন ও উন্মুক্ত ইন্দো-প্রশান্ত মহাসাগরের আহ্বান জানিয়েছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদে সুগা। মৌলিক অধিকারে বিশ্বাসী চারটি দেশের পক্ষ থেকে ‘অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উদ্যোগ’ হিসেবে কোয়াডকে অভিহিত করেন তিনি।
অপরদিকে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেন, মুক্ত ও উন্মুক্ত ইন্দো-প্রশান্ত মহাসাগরের জন্য ঐক্যবদ্ধ ও ইতিবাচক কর্মসূচির লক্ষ্যে দৃঢ়ভাবে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ কোয়াড নেতৃবৃন্দ। এবং জোট এই লক্ষ্যে চমৎকার অগ্রগতি করছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

দিল্লির আদালতে গুলাগুলিতে গ্যাংস্টারসহ নিহত ৪
                                  

এনডিটিভি/আজকাল : ভারতের রাজধানী দিল্লির আদালতকক্ষে এলোপাতাড়ি গুলির ঘটনায় অন্তত চারজনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। শুক্রবার উত্তর দিল্লির রোহিণীতে আদালতকক্ষে এ ঘটনা ঘটে। খবরে বলা হয়, লড়াইয়ে দিল্লির কুখ্যাত সন্ত্রাসী জিতেন্দ্র গোগীর মৃত্যু হয়েছে। বেশ কিছু সন্ত্রাসী আইনজীবীদের পোশাক পরে আদালতকক্ষে প্রবেশ করেছিল। সন্ত্রাসী গোগীর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। গত এপ্রিলে তাকে গ্রেফতার করে দিল্লি পুলিশের বিশেষ বিভাগ। এক মামলায় আদালতে আনা হয়েছিল গোগীকে। তখনই বিরোধী গ্রুপের সন্ত্রাসীরা তার ওপর গুলি চালিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। পুলিশের সন্দেহ, গোগীর ওপর হামলার ঘটনায় ‘টিল্লু’ গ্রুপের সন্ত্রাসীরা জড়িত। সন্ত্রাসীরা যখন গুলি চালায় সেসময় পাল্টা গুলি চালিয়েছে পুলিশও। এতে সন্ত্রাসীদের দুজনের মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করোহিণীর ডেপুটি পুলিশ কমিশনার প্রণব তয়াল বলেন, আইনজীবীর পোশাক পরে বন্দুকধারীরা আদালতের মধ্যেই গোগীর ওপর গুলি চালায়। তার পর পুলিশও পাল্টা গুলি চালিয়েছে।

অতীতের মতোই ভারত আফগানদের পাশে থাকতে চায়
                                  

হাসান মাহমুদ, নিউইয়র্ক থেকে : জাতিসংঘের সর্বোচ্চ পর্যায়ের এক গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক অনুষ্ঠিত হলো গতকাল মঙ্গলবার। ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শঙ্কর এখন নিউইয়র্কে অবস্থান করছেন। তিনি বলেন, অতীতের মতোই আফগান জনগণের পাশে থাকতে চায় ভারত। আফগানিস্তানে মানবিক পরিস্থিতির ওপর জাতিসংঘের উচ্চ পর্যায়ের এক বৈঠকে এ কথা বলেছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। তিনি বলেন, জাতিসংঘ আফগান সঙ্কটে যে ভূমিকা পালন করছে তাতে ‘সেন্ট্রাল রোল’ বা কেন্দ্রীয় ভূমিকায় সমর্থন থাকবে ভারতের। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে একত্রিত হওয়ার আহ্বান জানিয়ে জয়শঙ্কর বলেন, আমি জোর দিয়ে বলতে চাই যে, ভয়াবহ এক পরিস্থিতির মুখে অতীতের মতোই আফগান জনগণের পাশে থাকতে আগ্রহী ভারত। এর দু’দিন আগে জয়শঙ্কর সাক্ষাৎ করেন অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে। সেখানে আফগান সঙ্কট সমাধানে নিরাপত্তা পরিষদের রেজ্যুলুশন ২৫৯৩ এর গুরুত্ব তুলে ধরেন তিনি। এর দু’দিন পরে তিনি পরিস্থিতির বিষয়ে ‘আন্ডারস্ট্যান্ডঅ্যাবল কনসার্ন’ বা বোধগম্য উদ্বেগ তুলে ধরেন। জাতিসংঘের ওই মিটিংয়ে সভাপতিত্ব করেন মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরাঁ। তাঁর বক্তব্যে জয়শঙ্কর আবারও ওই রেজ্যুলুশনের গুরুত্ব তুলে ধরেন এবং বলেন, আফগানিস্তানের ভবিষ্যতের জন্য জাতিসংঘের সঙ্গে কেন্দ্রীয় ভূমিকা অব্যাহতভাবে সমর্থন দিয়ে যাবে। এ সময় পাকিস্তানের দিকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, একটি ক্ষুদ্র গোষ্ঠীর চেয়ে বহুপক্ষীয় একটি প্লাটফর্ম সবসময়ই অধিক কার্যকর। এর মধ্য দিয়ে বৈশ্বিক ঐকমত্য এবং সমন্বিত কর্মসূচি উৎসাহিত হয়। জাতিসংঘকে ‘সেন্ট্রাল রোল’ দেয়ার জন্য জয়শঙ্করের যে আহ্বান জানান তাতে আফগানিস্তানে গৃহীত পদক্ষেপকে পেছনে নিয়ে যাবার মতো ঘটনা। এই আহ্বানের মধ্য দিয়ে ভারতের আফগান নীতির প্রতিফলন ঘটেছে, যেটা ছিল ১৯৭৯ থেকে ১৯৮০ সাল পর্যন্ত সোভিয়েত দখলদারিত্বের সময়।

মোদির রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী রূপাণী পদত্যাগ করলেন
                                  

আজকাল/এনডিটিভি : প্রধানমন্ত্রী মোদির নিজের রাজ্য গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দিলেন বিজয় রূপাণী। গতকাল শনিবার তিনি সাংবাদিক বৈঠকে এ কথা ঘোষণা করেন। সাংবাদিক বৈঠকের আগে রাজ্যপাল আচার্য দেবব্রতের সঙ্গে দেখা করেন রূপাণী। তাঁর কাছে পদত্যাগপত্র দেন। রূপাণী বলেন, ‘সময়ের সঙ্গে সঙ্গে দায়িত্ব বদলায়। এ বার দায়িত্ব যাবে অন্য কারও কাছে। আমাকে দল যে দায়িত্ব দেবে, তা পালন করব।’ আগামী বছর গুজরাতে বিধানসভা ভোট হওয়ার কথা। ইস্তফা দেওয়ার পরে রূপাণী বলেন, ‘নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বেই বিজেপি গুজরাতে বিধানসভা ভোটে লড়বে।’নরেন্দ্র মোদী এবং আনন্দীবেন পটেলের পরে ফের গুজরাতের এক বিজেপি মুখ্যমন্ত্রীকে পাঁচ বছরের মেয়াদ শেষের আগেই সরতে হল। ২০১৪-য় মোদী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরে তাঁর উত্তরসূরি মনোনীত হন আনন্দীবেন। কিন্তু ২০১৬-র অগস্টে ইস্তফা দিয়েছিলেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছিলেন রূপাণী। তাঁর নেতৃত্বেই ২০১৭-র বিধানসভা ভোটে জয়ী হয়েছিল বিজেপি।
বিজেপি-র একটি সূত্র জানাচ্ছে, জৈন সম্প্রদায়ের নেতা রূপাণী বিভিন্ন সময় সংগঠনের নানা গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে থাকলেও তিনি কখনওই ‘মজবুত জনভিত্তি সম্পন্ন’ নেতা বলে পরিচিত ছিলেন না। আগামী বছরের বিধানসভা ভোটের আগে তাঁর জায়গায় প্রভাবশালী জনগোষ্ঠীর কোনও নেতাকে দায়িত্ব দিতে চাইছেন নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহ। তাই তাঁকে ইস্তফা দিতে বলা হয়েছে।

আমাদের দায়িত্ব হচ্ছে আফগান জনগণের প্রতি সংহতির হাত বাড়ানো : জাতিসংঘ
                                  

বিবিসি/এনডিটিভি : জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস তালেবানের সঙ্গে সংলাপ অব্যাহত রাখতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। একইসঙ্গে, আফগানিস্তানে তালেবানের ক্ষমতায় ফিরে আসার বিষয়টি আফ্রিকার সাহেল অঞ্চলের বিদ্রোহীদের উৎসাহিত করতে পারে বলে তিনি আশঙ্কা ব্যক্ত করেছেন। গুতেরেস বৃহস্পতিবার নিউইয়র্কে এক সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এমন মন্তব্য করেন। আন্তোনিও গুতেরেস বলেন, ‘আমাদের অবশ্যই তালেবানের সঙ্গে সংলাপ বজায় রাখতে হবে। আফগান জনগোষ্ঠীর প্রতি সংহতির মানসিকতা নিয়ে সংলাপে সরাসরিভাবে আমাদের নীতিগুলো নিশ্চিত করতে হবে।’ জাতিসংঘের মহাসচিব আরও বলেন, ‘আমাদের দায়িত্ব হচ্ছে, ক্ষুধার যন্ত্রণায় মৃত্যুর মুখে পড়া আফগান জনগণের প্রতি আমাদের সংহতির হাত বাড়িয়ে দেওয়া।’ বিশ্ববাসীর উদ্দেশে আন্তোনিও গুতেরেস বলেন, “আফগানিস্তানে ‘অর্থনৈতিক ধস’ অবশ্যই এড়াতে হবে।” আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার বা বিশ্বব্যাপী জব্দ করে রাখা আফগান তহবিল ছাড়ের আহ্বান জানানো ছাড়াই জাতিসংঘের প্রধান দাবি করেন যে ‘আর্থিক সামগ্রী’ আফগানিস্তানের অর্থনীতির ‘দম নেওয়ার’ সুযোগ করে দেবে। তবে, তালেবান তাদের গঠিত সরকারের স্বীকৃতি, আর্থিক সহযোগিতা চেয়েছে এবং নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার কথা বলেছে বলে উল্লেখ করেন আন্তোনিও গুতেরেস। তিনি বলেন, ‘আর এটি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের উদ্দেশ্য সাধনের নিশ্চিত সুযোগ করে দেবে।’ আফগানিস্তানে তালেবানের ক্ষমতায় ফিরে আসার বিষয়টি আফ্রিকার সাহেল অঞ্চলের জিহাদিদের ওপর কি ধরনের প্রভাব ফেলতে পারে সে ব্যাপারে জানতে চাইলে গুতেরেস বলেন, এটি তাদেরকে মানসিক ও বাস্তবিকভাবে উৎসাহিত করতে পারে। তারা আশাবাদি হয়ে উঠতে পারে। কয়েক মাস আগে যেটি তারা চিন্তাও করতে পারেনি। সত্যিকার অর্থেই সেখানে ভয়ের কারণ রয়েছে। উল্লেখ্য, আফ্রিকার দেশ সেনেগালের উত্তরাঞ্চল, মৌরিতানিয়ার দক্ষিণাঞ্চল, মালির মধ্যাঞ্চল, বুরকিনা ফাসো’র উত্তরাঞ্চল, আলজেরিয়ার একেবারে দক্ষিণের এলাকা, নাইজার, নাইজেরিয়া ও ক্যামেরুনের একেবারে উত্তরের এলাকা, সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক, শাদের মধ্যাঞ্চল, সুদানের মধ্য ও দক্ষিণাঞ্চল, দক্ষিণ সুদানের একেবারে উত্তরাঞ্চল, ইরিত্রিয়া এবং ইথিওপিয়ার একেবারে উত্তরাঞ্চল নিয়ে গঠিত এলাকাটিকে ভৌগলিক ও প্রাকৃতিক সামঞ্জস্য বিবেচনায় ‘সাহেল’ নামে ডাকা হয়। আফ্রিকার এই সাহেল অঞ্চলের বেশকিছু দেশে আল-কায়েদা ও তালেবানের মতোই জিহাদি গোষ্ঠীর শক্ত অবস্থান রয়েছে।

পৃথিবীর দেশে দেশে আশ্রয় নিচ্ছে আফগান শরণার্থীরা
                                  

বিবিসি/এনডিটিভি : প্রায় দুই দশক পর ফের আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করে নেয়ার পর দলে দলে দেশ ছেড়ে পালাচ্ছে মানুষজন। এমন এক সময় দেশটিতে আবারও শরণার্থী সংকট শুরু হলো যখন ইতোমধ্যেই ২২ লাখ মানুষ বিভিন্ন দেশে আশ্রয় নিয়েছে। আর চলমান সংঘাত এবং রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার কারণে দেশের ভেরতের গৃহহীন হয়ে পড়েছে ৩৫ লাখ মানুষ। পাকিস্তান এবং ইরানেই আশ্রয় নেয়ার প্রবণতা সবচেয়ে বেশি আফগানদের। গত বছর দেশ দুটিতে সবচেয়ে বেশি মানুষ শরণার্থী হয়ে গেছে এবং আশ্রয় চেয়েছে। ২০২০ সালে প্রায় ১৫ লাখ মানুষ পাকিস্তানে পালিয়ে যায়। ইউএনএইচসিআর বলছে, আর ইরানে রয়েছে ৭ লাখ ৮০ হাজার শরণার্থী। জার্মানিতে রয়েছে ১ লাখ ৮০ হাজার শরণার্থী। যেখানে তুরস্কে রয়েছে ১ লাখ ৩০ হাজার শরণার্থী। এছাড়া অস্ট্রিয়ায় ৪৬ হাজার ৬০০, ফ্রান্সে ৪৫ হাজার ১০০, গ্রিসে ৪১ হাজার ২০০, সুইডেনে ৩১ হাজার ৩০০, সুইজারল্যান্ডে ১৫ হাজার ৪০০, ভারতে ১৫ হাজার ১০০, ইতালিতে ১৩ হাজার ৪০০, যুক্তরাজ্যে ১২ হাজার ৬০০, অস্ট্রেলিয়ায় ১২ হাজার ৪০০, বেলজিয়ামে ৮ হাজার ৯০০, ইন্দোনেশিয়ায় ৭ হাজার ৬০০ আফগান শরণার্থী আশ্রয় নিয়েছেন। আর চলতি সংঘাত শুরু হওয়ার পর শরণার্থী যাওয়ার তালিকায় যোগ হয়েছে তাজিকিস্তান, উজবেকিস্তান, কানাডা, উগান্ডা, উত্তর মেসিডোনিয়া, আলবেনিয়া, কসোভো। তালেবানরা গত ১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল দখল করে নেয়। এরপর থেকেই মূলত দেশ ছেড়ে পালানোর হিড়িক পড়ে যায়। প্রতিদিনই বিভিন্নভাবে দেশ ছাড়তে আফগানরা। তবে এই মুহূর্তে কত মানুষ দেশ ছাড়ছে তা বলা যাচ্ছে না। প্রতিবেশী সব দেশের সঙ্গে সীমান্ত ক্রসিং এখন তালেবানদের নিয়ন্ত্রণে। আর কেউ আফগান ছেড়ে যাক সেটাও চায় না তারা। জানা গেছে, শুধুমাত্র ব্যবসায়ী বা যাদের ভ্রমণ করার বৈধ কাগজপত্র রয়েছে তারা সীমান্ত পার হতে পারছে।
জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর’র একজন মুখপাত্র শুক্রবার বলেন, স্বাভাবিক যাত্রাপথ দিয়ে অধিকাংশ আফগান দেশত্যাগ করতে পারছেন না। তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত যারা ঝুঁকিতে আছেন, যাদের হয়তো বের হওয়ার স্পষ্ট কোনও পথই খোলা নেই। তবে দেশ থেকে বের হওয়ার একটা উপায় হয়তো খুঁজে পেয়েছে কিছু শরণার্থী।
তালেবানরা কাবুল দখল নেয়ার পরপরই সীমান্ত পার করে পাকিস্তানে ঢুকে পড়ে কয়েক হাজার আফগান। দেড় হাজার আফগান উজবেকিস্তানে প্রবেশ করেছে বলেও জানা গেছে। আর সেখানেই সীমান্তের কাছে তাঁবু গেড়ে বাস করছে তারা। আর রাজধানী কাবুলের হাজার হাজার মানুষ সেখানকার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যাচ্ছে। আপাতত দেশটি ছাড়ার একমাত্র অপশনই এটা।
একজন কর্মকর্তা রোববার জানিয়েছে, গত ১৪ আগস্ট থেকে এ পর্যন্ত ৩০ হাজারের বেশি মার্কিনি এবং তার মিত্রদের আফগানিস্তান থেকে সরিয়ে আনা হয়েছে। তবে তাদের মধ্যে কতজন আফগান নাগরিক রয়েছে, তা স্পষ্ট নয়। দীর্ঘদিন ধরে আফগানিস্তানের অস্থিতিশীলতা এবং সংঘাতের কারণে দেশটির মানুষজনের পালিয়ে যাওয়ার ঘটনা নতুন নয়। তালেবান পুনরায় ক্ষমতা দখলের আগেই এ বছর সাড়ে ৫ লাখের বেশি মানুষ আফগানিস্তান ছেড়ে পালিয়েছে বলে জানিয়েছে ইউএনএইচসিআর।

নারীদেরকে কাজে ফেরার আহ্বান জানালো তালেবান
                                  

বিবিসি/গার্ডিয়ান : অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় আফগানিস্তানে এখন তালেবানের জয়জয়কার। গত রোববার রাজধানী কাবুল দখলের পর সেখানকার সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার ঘোষণা দিয়েছে তালেবান। বিশৃঙ্খলার সুযোগে যারা জনগণের সম্পদ লুট করার চেষ্টা করছিল, তাদেরকে আটক করা হয়েছে বলেও জানিয়েছে তারা। প্রতিবেদন থেকে আরও জানা গেছে, তালেবান নেতারা তাদের যোদ্ধাদের আফগান কর্মকর্তা ও দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের বাসভবনে অনুপ্রবেশ করা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন। এ নিয়ে তালেবান মুখপাত্র জবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেন, নিছক সাবেক আফগান সরকারের হয়ে কাজ করত বলে কাউকে হেনস্তা করা যাবে না।
এদিকে আফগানিস্তানের সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদেরকে তাদের কর্মস্থলে ফিরে আসার আহ্বান জানিয়েছে তালেবান। কাতারের দোহা থেকে তালেবানের রাজনৈতিক দপ্তরের উপ-প্রধান আব্দুস সালাম হানাফি সোমবার বলেন, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, বিদেশি কূটনীতিক ও সেনাবাহিনীর সদস্যসহ সরকারি কাজে নিয়োজিত সব চাকরিজীবী কোনো ধরনের শঙ্কা ছাড়াই নিজ নিজ কর্মস্থলে ফিরে যান। নারী চাকরিজীবীদেরও কর্মস্থলে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানিয়ে হানাফি বলেন, কারো প্রতি অবিচার করা হবে না এবং নারীরা তাদের হিজাব রক্ষা করে কর্মস্থলসহ সব কাজ স্বাভাবিকভাবে চালিয়ে যেতে পারবেন।
আলজাজিরা টেলিভিশন তাদের প্রতিবেদনে আরও জানিয়েছে, আফগান গোয়েন্দা বাহিনীর প্রধানসহ নিরাপত্তা বাহিনীর বেশ কিছু কর্মকর্তা সোমবার আমেরিকার বিমানে চড়ে কাবুল ত্যাগ করেছেন। তবে তারা কোথায় যাচ্ছেন সে সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।


   Page 1 of 351
     আন্তর্জাতিক
ওমিক্রনে ক্রিসমাসের হাজারও ফ্লাইট বাতিল: বিপাকে পড়েছেন ভ্রমণকারিরা
.............................................................................................
ওমিক্রন ডেলটার চেয়েও দ্রুত ছড়াচ্ছে : ডব্লিউএইচও
.............................................................................................
নিউইয়র্কে সাবিনা ইয়াসমিন ও সাকিব খান সংবর্ধিত
.............................................................................................
জাতিসংঘ সদরদপ্তরে অস্ত্রধারীর মহড়া
.............................................................................................
কৃষকদের কাছে হাতজোড় করে ক্ষমা চাইলেন মোদী
.............................................................................................
করোনা মোকাবিলায় দরকার ২ হাজার ৩৪০ কোটি মার্কিন ডলার: ডব্লিউএইচও
.............................................................................................
শাহরুখ পুত্রের ঘটনায় তোলপাড় চলছে
.............................................................................................
ভারতে প্রিয়াংকার পর অখিলেশ যাদব আটক
.............................................................................................
রেকর্ড গড়ে আবার ক্ষমতায় মমতা
.............................................................................................
চার দেশীয় জোটের প্রথম কোয়াড বৈঠক অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
দিল্লির আদালতে গুলাগুলিতে গ্যাংস্টারসহ নিহত ৪
.............................................................................................
অতীতের মতোই ভারত আফগানদের পাশে থাকতে চায়
.............................................................................................
মোদির রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী রূপাণী পদত্যাগ করলেন
.............................................................................................
আমাদের দায়িত্ব হচ্ছে আফগান জনগণের প্রতি সংহতির হাত বাড়ানো : জাতিসংঘ
.............................................................................................
পৃথিবীর দেশে দেশে আশ্রয় নিচ্ছে আফগান শরণার্থীরা
.............................................................................................
নারীদেরকে কাজে ফেরার আহ্বান জানালো তালেবান
.............................................................................................
সামাজিক দূরত্ব ভেঙ্গে ঘনিষ্ঠ হওয়ায় ব্রিটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী পদত্যাগে বাধ্য
.............................................................................................
ভারতে এবার নতুন উদ্বেগের কারণ গ্রীণ ফাঙ্গাস
.............................................................................................
কানাডায় ট্রাক চাপা দিয়ে মুসলিম পরিবারের চারজনকে হত্যা
.............................................................................................
বিশ্ব গণমাধ্যমের ওয়েবসাইট আক্রান্ত
.............................................................................................
গোপনে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের বিয়ে
.............................................................................................
‘করোনা ভাইরাস সৃষ্টি করেছেন চীনের বিজ্ঞানীরা’
.............................................................................................
ভারতে ঢাকার টিকটক হৃদয়সহ ২ জন গুলিবিদ্ধ
.............................................................................................
গাজা পুনর্গঠনে বড় প্যাকেজ বাস্তবায়ন করবে যুক্তরাষ্ট্র
.............................................................................................
ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের যুদ্ধবিরতি শুরু
.............................................................................................
ইসরাইলি হামলায় টার্গেট নারী ও শিশুরা
.............................................................................................
আমাকে গ্রেফতার করুন : মমতা
.............................................................................................
গাজার স্কুলে, আবাসিক এলাকায়, চিকিৎসা কেন্দ্রে ইজরাইলি বোম
.............................................................................................
বিজেপির অভিনেত্রী শ্রাবন্তীর পরাজয়
.............................................................................................
গাড়ির ছাদে করে বাবার মরদেহ, মুখে ফু দিয়ে স্বামীকে অক্সিজেন দেয়ার চেষ্টা
.............................................................................................
অক্সিজেন সরবরাহে বাধা দিলে তাকে ফাঁসি দেবো
.............................................................................................
কুম্ভমেলায় গিয়ে নেপালের রাজা ও রাণী করোনায় আক্রান্ত
.............................................................................................
করোনা আক্রান্ত ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং ও রাহুল গান্ধী
.............................................................................................
ভারত করোনায় মৃত্যু ও সংক্রমণে এখন বিশ্বের শীর্ষে
.............................................................................................
ভারতে করোনায় একদিনে আক্রান্ত আড়াই লাখ, মৃত্যু দেড় হাজার
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুকধারীর হামলায় নিহত আট, আহত অনেক
.............................................................................................
প্রিন্স ফিলিপের মৃত্যুতে প্রভাবশালি মিডিয়ায় বিশেষ আয়োজন
.............................................................................................
মিয়ানমারে জনতা-জান্তা রক্তাক্ত লড়াই
.............................................................................................
‘বিশ্বকে বলুন আমরা মারা যাচ্ছি’
.............................................................................................
করোনায় মৃত্যু ২৬ লাখ ৯০ হাজার
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধু মানুষের জন্য জীবন উৎসর্গ করে গেছেন: প্রেসিডেন্ট শি
.............................................................................................
হুইলচেয়ারে করে জনসভায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা
.............................................................................................
মিয়ানমারে হাসপাতাল, বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ন্ত্রণ নিলো পুলিশ, নিহত ২
.............................................................................................
জনতার বিক্ষোভে উত্তাল মিয়ানমার, ব্যাপক ধরপাকড়
.............................................................................................
মিয়ানমার অন্ধকার বিক্ষোভে আবার খুন
.............................................................................................
মিয়ানমারে বিক্ষোভকারীর সংখ্যা বাড়ছে
.............................................................................................
বিশ্বব্যাপী বেড়েছে করোনার সংক্রমণ
.............................................................................................
মিয়ানমার জুড়ে ধর্মঘট শুরু, ব্যাপক ধরপাকড়
.............................................................................................
উত্তাল মিয়ানমার, বিক্ষোভকারীদের ওপর পুলিশের গুলি : নিহত ২
.............................................................................................
সীমান্তে ৫ সেনা নিহতের কথা চীনের স্বীকার
.............................................................................................

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মো: রিপন তরফদার নিয়াম
প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক : মফিজুর রহমান রোকন
নির্বাহী সম্পাদক : শাহাদাত হোসেন শাহীন
বাণিজ্যিক কার্যালয় : "রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল কমপ্লেক্স"
(৬ষ্ঠ তলা), ২৮/১ সি, টয়েনবি সার্কুলার রোড,
মতিঝিল বা/এ ঢাকা-১০০০| জিপিও বক্স নং-৫৪৭, ঢাকা
ফোন নাম্বার : ০২-৪৭১২০৮০৫/৬, ০২-৯৫৮৭৮৫০
মোবাইল : ০১৭০৭-০৮৯৫৫৩, 01731800427
E-mail: dailyganomukti@gmail.com
Website : http://www.dailyganomukti.com
   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop