ঢাকা,সোমবার,৫ আশ্বিন ১৪২৮,২০,সেপ্টেম্বর,২০২১ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : > গাড়ী নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তুরাগ নদে স্বর্ণ ব্যবসায়ী নিহত   > বাংলাদেশ চাইলে নির্বাচন প্রক্রিয়ায় সহযোগিতা করবে জাতিসংঘ   > কারাগারের ডিআইজি পার্থ গোপাল বণিক কারাগারে বন্দি   > করোনায় আরও ৪৩ জনের প্রাণহানি   > প্রধানমন্ত্রী ২৪ সেপ্টেম্বর ভাষণ দেবেন বাংলায়   > টাঙ্গাইলে এক বিদ্যালয়ের ৬০ ছাত্রীর বাল্যবিয়ে   > নয় বছর ধরে একজন শিক্ষক দ্বারা চলছে প্রাথমিক বিদ্যালয়!   > ফুলতলা-গুনাহার সংযোগ সড়কের বন্ধ থাকা নির্মাণ কাজ শুরু   > ভাঙন আতঙ্কে রাত কাটে তিস্তাপাড়ের বাসিন্দাদের   > বার্সার ক্ষতি ৪৮১ মিলিয়ন ইউরো  

   আন্তর্জাতিক -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
অতীতের মতোই ভারত আফগানদের পাশে থাকতে চায়

হাসান মাহমুদ, নিউইয়র্ক থেকে : জাতিসংঘের সর্বোচ্চ পর্যায়ের এক গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক অনুষ্ঠিত হলো গতকাল মঙ্গলবার। ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শঙ্কর এখন নিউইয়র্কে অবস্থান করছেন। তিনি বলেন, অতীতের মতোই আফগান জনগণের পাশে থাকতে চায় ভারত। আফগানিস্তানে মানবিক পরিস্থিতির ওপর জাতিসংঘের উচ্চ পর্যায়ের এক বৈঠকে এ কথা বলেছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। তিনি বলেন, জাতিসংঘ আফগান সঙ্কটে যে ভূমিকা পালন করছে তাতে ‘সেন্ট্রাল রোল’ বা কেন্দ্রীয় ভূমিকায় সমর্থন থাকবে ভারতের। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে একত্রিত হওয়ার আহ্বান জানিয়ে জয়শঙ্কর বলেন, আমি জোর দিয়ে বলতে চাই যে, ভয়াবহ এক পরিস্থিতির মুখে অতীতের মতোই আফগান জনগণের পাশে থাকতে আগ্রহী ভারত। এর দু’দিন আগে জয়শঙ্কর সাক্ষাৎ করেন অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে। সেখানে আফগান সঙ্কট সমাধানে নিরাপত্তা পরিষদের রেজ্যুলুশন ২৫৯৩ এর গুরুত্ব তুলে ধরেন তিনি। এর দু’দিন পরে তিনি পরিস্থিতির বিষয়ে ‘আন্ডারস্ট্যান্ডঅ্যাবল কনসার্ন’ বা বোধগম্য উদ্বেগ তুলে ধরেন। জাতিসংঘের ওই মিটিংয়ে সভাপতিত্ব করেন মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরাঁ। তাঁর বক্তব্যে জয়শঙ্কর আবারও ওই রেজ্যুলুশনের গুরুত্ব তুলে ধরেন এবং বলেন, আফগানিস্তানের ভবিষ্যতের জন্য জাতিসংঘের সঙ্গে কেন্দ্রীয় ভূমিকা অব্যাহতভাবে সমর্থন দিয়ে যাবে। এ সময় পাকিস্তানের দিকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, একটি ক্ষুদ্র গোষ্ঠীর চেয়ে বহুপক্ষীয় একটি প্লাটফর্ম সবসময়ই অধিক কার্যকর। এর মধ্য দিয়ে বৈশ্বিক ঐকমত্য এবং সমন্বিত কর্মসূচি উৎসাহিত হয়। জাতিসংঘকে ‘সেন্ট্রাল রোল’ দেয়ার জন্য জয়শঙ্করের যে আহ্বান জানান তাতে আফগানিস্তানে গৃহীত পদক্ষেপকে পেছনে নিয়ে যাবার মতো ঘটনা। এই আহ্বানের মধ্য দিয়ে ভারতের আফগান নীতির প্রতিফলন ঘটেছে, যেটা ছিল ১৯৭৯ থেকে ১৯৮০ সাল পর্যন্ত সোভিয়েত দখলদারিত্বের সময়।

অতীতের মতোই ভারত আফগানদের পাশে থাকতে চায়
                                  

হাসান মাহমুদ, নিউইয়র্ক থেকে : জাতিসংঘের সর্বোচ্চ পর্যায়ের এক গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক অনুষ্ঠিত হলো গতকাল মঙ্গলবার। ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শঙ্কর এখন নিউইয়র্কে অবস্থান করছেন। তিনি বলেন, অতীতের মতোই আফগান জনগণের পাশে থাকতে চায় ভারত। আফগানিস্তানে মানবিক পরিস্থিতির ওপর জাতিসংঘের উচ্চ পর্যায়ের এক বৈঠকে এ কথা বলেছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। তিনি বলেন, জাতিসংঘ আফগান সঙ্কটে যে ভূমিকা পালন করছে তাতে ‘সেন্ট্রাল রোল’ বা কেন্দ্রীয় ভূমিকায় সমর্থন থাকবে ভারতের। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে একত্রিত হওয়ার আহ্বান জানিয়ে জয়শঙ্কর বলেন, আমি জোর দিয়ে বলতে চাই যে, ভয়াবহ এক পরিস্থিতির মুখে অতীতের মতোই আফগান জনগণের পাশে থাকতে আগ্রহী ভারত। এর দু’দিন আগে জয়শঙ্কর সাক্ষাৎ করেন অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে। সেখানে আফগান সঙ্কট সমাধানে নিরাপত্তা পরিষদের রেজ্যুলুশন ২৫৯৩ এর গুরুত্ব তুলে ধরেন তিনি। এর দু’দিন পরে তিনি পরিস্থিতির বিষয়ে ‘আন্ডারস্ট্যান্ডঅ্যাবল কনসার্ন’ বা বোধগম্য উদ্বেগ তুলে ধরেন। জাতিসংঘের ওই মিটিংয়ে সভাপতিত্ব করেন মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরাঁ। তাঁর বক্তব্যে জয়শঙ্কর আবারও ওই রেজ্যুলুশনের গুরুত্ব তুলে ধরেন এবং বলেন, আফগানিস্তানের ভবিষ্যতের জন্য জাতিসংঘের সঙ্গে কেন্দ্রীয় ভূমিকা অব্যাহতভাবে সমর্থন দিয়ে যাবে। এ সময় পাকিস্তানের দিকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, একটি ক্ষুদ্র গোষ্ঠীর চেয়ে বহুপক্ষীয় একটি প্লাটফর্ম সবসময়ই অধিক কার্যকর। এর মধ্য দিয়ে বৈশ্বিক ঐকমত্য এবং সমন্বিত কর্মসূচি উৎসাহিত হয়। জাতিসংঘকে ‘সেন্ট্রাল রোল’ দেয়ার জন্য জয়শঙ্করের যে আহ্বান জানান তাতে আফগানিস্তানে গৃহীত পদক্ষেপকে পেছনে নিয়ে যাবার মতো ঘটনা। এই আহ্বানের মধ্য দিয়ে ভারতের আফগান নীতির প্রতিফলন ঘটেছে, যেটা ছিল ১৯৭৯ থেকে ১৯৮০ সাল পর্যন্ত সোভিয়েত দখলদারিত্বের সময়।

মোদির রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী রূপাণী পদত্যাগ করলেন
                                  

আজকাল/এনডিটিভি : প্রধানমন্ত্রী মোদির নিজের রাজ্য গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দিলেন বিজয় রূপাণী। গতকাল শনিবার তিনি সাংবাদিক বৈঠকে এ কথা ঘোষণা করেন। সাংবাদিক বৈঠকের আগে রাজ্যপাল আচার্য দেবব্রতের সঙ্গে দেখা করেন রূপাণী। তাঁর কাছে পদত্যাগপত্র দেন। রূপাণী বলেন, ‘সময়ের সঙ্গে সঙ্গে দায়িত্ব বদলায়। এ বার দায়িত্ব যাবে অন্য কারও কাছে। আমাকে দল যে দায়িত্ব দেবে, তা পালন করব।’ আগামী বছর গুজরাতে বিধানসভা ভোট হওয়ার কথা। ইস্তফা দেওয়ার পরে রূপাণী বলেন, ‘নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বেই বিজেপি গুজরাতে বিধানসভা ভোটে লড়বে।’নরেন্দ্র মোদী এবং আনন্দীবেন পটেলের পরে ফের গুজরাতের এক বিজেপি মুখ্যমন্ত্রীকে পাঁচ বছরের মেয়াদ শেষের আগেই সরতে হল। ২০১৪-য় মোদী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরে তাঁর উত্তরসূরি মনোনীত হন আনন্দীবেন। কিন্তু ২০১৬-র অগস্টে ইস্তফা দিয়েছিলেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছিলেন রূপাণী। তাঁর নেতৃত্বেই ২০১৭-র বিধানসভা ভোটে জয়ী হয়েছিল বিজেপি।
বিজেপি-র একটি সূত্র জানাচ্ছে, জৈন সম্প্রদায়ের নেতা রূপাণী বিভিন্ন সময় সংগঠনের নানা গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে থাকলেও তিনি কখনওই ‘মজবুত জনভিত্তি সম্পন্ন’ নেতা বলে পরিচিত ছিলেন না। আগামী বছরের বিধানসভা ভোটের আগে তাঁর জায়গায় প্রভাবশালী জনগোষ্ঠীর কোনও নেতাকে দায়িত্ব দিতে চাইছেন নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহ। তাই তাঁকে ইস্তফা দিতে বলা হয়েছে।

আমাদের দায়িত্ব হচ্ছে আফগান জনগণের প্রতি সংহতির হাত বাড়ানো : জাতিসংঘ
                                  

বিবিসি/এনডিটিভি : জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস তালেবানের সঙ্গে সংলাপ অব্যাহত রাখতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। একইসঙ্গে, আফগানিস্তানে তালেবানের ক্ষমতায় ফিরে আসার বিষয়টি আফ্রিকার সাহেল অঞ্চলের বিদ্রোহীদের উৎসাহিত করতে পারে বলে তিনি আশঙ্কা ব্যক্ত করেছেন। গুতেরেস বৃহস্পতিবার নিউইয়র্কে এক সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এমন মন্তব্য করেন। আন্তোনিও গুতেরেস বলেন, ‘আমাদের অবশ্যই তালেবানের সঙ্গে সংলাপ বজায় রাখতে হবে। আফগান জনগোষ্ঠীর প্রতি সংহতির মানসিকতা নিয়ে সংলাপে সরাসরিভাবে আমাদের নীতিগুলো নিশ্চিত করতে হবে।’ জাতিসংঘের মহাসচিব আরও বলেন, ‘আমাদের দায়িত্ব হচ্ছে, ক্ষুধার যন্ত্রণায় মৃত্যুর মুখে পড়া আফগান জনগণের প্রতি আমাদের সংহতির হাত বাড়িয়ে দেওয়া।’ বিশ্ববাসীর উদ্দেশে আন্তোনিও গুতেরেস বলেন, “আফগানিস্তানে ‘অর্থনৈতিক ধস’ অবশ্যই এড়াতে হবে।” আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার বা বিশ্বব্যাপী জব্দ করে রাখা আফগান তহবিল ছাড়ের আহ্বান জানানো ছাড়াই জাতিসংঘের প্রধান দাবি করেন যে ‘আর্থিক সামগ্রী’ আফগানিস্তানের অর্থনীতির ‘দম নেওয়ার’ সুযোগ করে দেবে। তবে, তালেবান তাদের গঠিত সরকারের স্বীকৃতি, আর্থিক সহযোগিতা চেয়েছে এবং নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার কথা বলেছে বলে উল্লেখ করেন আন্তোনিও গুতেরেস। তিনি বলেন, ‘আর এটি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের উদ্দেশ্য সাধনের নিশ্চিত সুযোগ করে দেবে।’ আফগানিস্তানে তালেবানের ক্ষমতায় ফিরে আসার বিষয়টি আফ্রিকার সাহেল অঞ্চলের জিহাদিদের ওপর কি ধরনের প্রভাব ফেলতে পারে সে ব্যাপারে জানতে চাইলে গুতেরেস বলেন, এটি তাদেরকে মানসিক ও বাস্তবিকভাবে উৎসাহিত করতে পারে। তারা আশাবাদি হয়ে উঠতে পারে। কয়েক মাস আগে যেটি তারা চিন্তাও করতে পারেনি। সত্যিকার অর্থেই সেখানে ভয়ের কারণ রয়েছে। উল্লেখ্য, আফ্রিকার দেশ সেনেগালের উত্তরাঞ্চল, মৌরিতানিয়ার দক্ষিণাঞ্চল, মালির মধ্যাঞ্চল, বুরকিনা ফাসো’র উত্তরাঞ্চল, আলজেরিয়ার একেবারে দক্ষিণের এলাকা, নাইজার, নাইজেরিয়া ও ক্যামেরুনের একেবারে উত্তরের এলাকা, সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক, শাদের মধ্যাঞ্চল, সুদানের মধ্য ও দক্ষিণাঞ্চল, দক্ষিণ সুদানের একেবারে উত্তরাঞ্চল, ইরিত্রিয়া এবং ইথিওপিয়ার একেবারে উত্তরাঞ্চল নিয়ে গঠিত এলাকাটিকে ভৌগলিক ও প্রাকৃতিক সামঞ্জস্য বিবেচনায় ‘সাহেল’ নামে ডাকা হয়। আফ্রিকার এই সাহেল অঞ্চলের বেশকিছু দেশে আল-কায়েদা ও তালেবানের মতোই জিহাদি গোষ্ঠীর শক্ত অবস্থান রয়েছে।

পৃথিবীর দেশে দেশে আশ্রয় নিচ্ছে আফগান শরণার্থীরা
                                  

বিবিসি/এনডিটিভি : প্রায় দুই দশক পর ফের আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করে নেয়ার পর দলে দলে দেশ ছেড়ে পালাচ্ছে মানুষজন। এমন এক সময় দেশটিতে আবারও শরণার্থী সংকট শুরু হলো যখন ইতোমধ্যেই ২২ লাখ মানুষ বিভিন্ন দেশে আশ্রয় নিয়েছে। আর চলমান সংঘাত এবং রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার কারণে দেশের ভেরতের গৃহহীন হয়ে পড়েছে ৩৫ লাখ মানুষ। পাকিস্তান এবং ইরানেই আশ্রয় নেয়ার প্রবণতা সবচেয়ে বেশি আফগানদের। গত বছর দেশ দুটিতে সবচেয়ে বেশি মানুষ শরণার্থী হয়ে গেছে এবং আশ্রয় চেয়েছে। ২০২০ সালে প্রায় ১৫ লাখ মানুষ পাকিস্তানে পালিয়ে যায়। ইউএনএইচসিআর বলছে, আর ইরানে রয়েছে ৭ লাখ ৮০ হাজার শরণার্থী। জার্মানিতে রয়েছে ১ লাখ ৮০ হাজার শরণার্থী। যেখানে তুরস্কে রয়েছে ১ লাখ ৩০ হাজার শরণার্থী। এছাড়া অস্ট্রিয়ায় ৪৬ হাজার ৬০০, ফ্রান্সে ৪৫ হাজার ১০০, গ্রিসে ৪১ হাজার ২০০, সুইডেনে ৩১ হাজার ৩০০, সুইজারল্যান্ডে ১৫ হাজার ৪০০, ভারতে ১৫ হাজার ১০০, ইতালিতে ১৩ হাজার ৪০০, যুক্তরাজ্যে ১২ হাজার ৬০০, অস্ট্রেলিয়ায় ১২ হাজার ৪০০, বেলজিয়ামে ৮ হাজার ৯০০, ইন্দোনেশিয়ায় ৭ হাজার ৬০০ আফগান শরণার্থী আশ্রয় নিয়েছেন। আর চলতি সংঘাত শুরু হওয়ার পর শরণার্থী যাওয়ার তালিকায় যোগ হয়েছে তাজিকিস্তান, উজবেকিস্তান, কানাডা, উগান্ডা, উত্তর মেসিডোনিয়া, আলবেনিয়া, কসোভো। তালেবানরা গত ১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল দখল করে নেয়। এরপর থেকেই মূলত দেশ ছেড়ে পালানোর হিড়িক পড়ে যায়। প্রতিদিনই বিভিন্নভাবে দেশ ছাড়তে আফগানরা। তবে এই মুহূর্তে কত মানুষ দেশ ছাড়ছে তা বলা যাচ্ছে না। প্রতিবেশী সব দেশের সঙ্গে সীমান্ত ক্রসিং এখন তালেবানদের নিয়ন্ত্রণে। আর কেউ আফগান ছেড়ে যাক সেটাও চায় না তারা। জানা গেছে, শুধুমাত্র ব্যবসায়ী বা যাদের ভ্রমণ করার বৈধ কাগজপত্র রয়েছে তারা সীমান্ত পার হতে পারছে।
জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর’র একজন মুখপাত্র শুক্রবার বলেন, স্বাভাবিক যাত্রাপথ দিয়ে অধিকাংশ আফগান দেশত্যাগ করতে পারছেন না। তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত যারা ঝুঁকিতে আছেন, যাদের হয়তো বের হওয়ার স্পষ্ট কোনও পথই খোলা নেই। তবে দেশ থেকে বের হওয়ার একটা উপায় হয়তো খুঁজে পেয়েছে কিছু শরণার্থী।
তালেবানরা কাবুল দখল নেয়ার পরপরই সীমান্ত পার করে পাকিস্তানে ঢুকে পড়ে কয়েক হাজার আফগান। দেড় হাজার আফগান উজবেকিস্তানে প্রবেশ করেছে বলেও জানা গেছে। আর সেখানেই সীমান্তের কাছে তাঁবু গেড়ে বাস করছে তারা। আর রাজধানী কাবুলের হাজার হাজার মানুষ সেখানকার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যাচ্ছে। আপাতত দেশটি ছাড়ার একমাত্র অপশনই এটা।
একজন কর্মকর্তা রোববার জানিয়েছে, গত ১৪ আগস্ট থেকে এ পর্যন্ত ৩০ হাজারের বেশি মার্কিনি এবং তার মিত্রদের আফগানিস্তান থেকে সরিয়ে আনা হয়েছে। তবে তাদের মধ্যে কতজন আফগান নাগরিক রয়েছে, তা স্পষ্ট নয়। দীর্ঘদিন ধরে আফগানিস্তানের অস্থিতিশীলতা এবং সংঘাতের কারণে দেশটির মানুষজনের পালিয়ে যাওয়ার ঘটনা নতুন নয়। তালেবান পুনরায় ক্ষমতা দখলের আগেই এ বছর সাড়ে ৫ লাখের বেশি মানুষ আফগানিস্তান ছেড়ে পালিয়েছে বলে জানিয়েছে ইউএনএইচসিআর।

নারীদেরকে কাজে ফেরার আহ্বান জানালো তালেবান
                                  

বিবিসি/গার্ডিয়ান : অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় আফগানিস্তানে এখন তালেবানের জয়জয়কার। গত রোববার রাজধানী কাবুল দখলের পর সেখানকার সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার ঘোষণা দিয়েছে তালেবান। বিশৃঙ্খলার সুযোগে যারা জনগণের সম্পদ লুট করার চেষ্টা করছিল, তাদেরকে আটক করা হয়েছে বলেও জানিয়েছে তারা। প্রতিবেদন থেকে আরও জানা গেছে, তালেবান নেতারা তাদের যোদ্ধাদের আফগান কর্মকর্তা ও দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের বাসভবনে অনুপ্রবেশ করা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন। এ নিয়ে তালেবান মুখপাত্র জবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেন, নিছক সাবেক আফগান সরকারের হয়ে কাজ করত বলে কাউকে হেনস্তা করা যাবে না।
এদিকে আফগানিস্তানের সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদেরকে তাদের কর্মস্থলে ফিরে আসার আহ্বান জানিয়েছে তালেবান। কাতারের দোহা থেকে তালেবানের রাজনৈতিক দপ্তরের উপ-প্রধান আব্দুস সালাম হানাফি সোমবার বলেন, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, বিদেশি কূটনীতিক ও সেনাবাহিনীর সদস্যসহ সরকারি কাজে নিয়োজিত সব চাকরিজীবী কোনো ধরনের শঙ্কা ছাড়াই নিজ নিজ কর্মস্থলে ফিরে যান। নারী চাকরিজীবীদেরও কর্মস্থলে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানিয়ে হানাফি বলেন, কারো প্রতি অবিচার করা হবে না এবং নারীরা তাদের হিজাব রক্ষা করে কর্মস্থলসহ সব কাজ স্বাভাবিকভাবে চালিয়ে যেতে পারবেন।
আলজাজিরা টেলিভিশন তাদের প্রতিবেদনে আরও জানিয়েছে, আফগান গোয়েন্দা বাহিনীর প্রধানসহ নিরাপত্তা বাহিনীর বেশ কিছু কর্মকর্তা সোমবার আমেরিকার বিমানে চড়ে কাবুল ত্যাগ করেছেন। তবে তারা কোথায় যাচ্ছেন সে সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

সামাজিক দূরত্ব ভেঙ্গে ঘনিষ্ঠ হওয়ায় ব্রিটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী পদত্যাগে বাধ্য
                                  

ডাবলু রহমান, লন্ডন থেকে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলে কথা। করোনাকালে তিনি বিধিনিষেধ ভঙ্গ করবেন তা ভাবাই যায় না। স্বাস্থ্যমন্ত্রী হ্যানকক তার দপ্তরে সামাজিক দূরত্ব না মেনে গোপনে বান্ধবীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হন। সে সময়ের কয়েকটি ছবি শনিবার প্রভাবশালি ‘দ্য সান’ পত্রিকা প্রকাশ করলে মন্ত্রীসভায় এ নিয়ে তোলপাড় হয়। এমপিরা সবাই প্রশ্ন তোলেন, স্বাস্থ্যমন্ত্রীই যদি করোনার বিধিনিষেধ ভঙ্গ করেন তা হলে সাধারণ মানুষ কি করবে। মন্ত্রীর দপ্তরের ভেতরে গোপনে দীর্ঘদিনের বান্ধবী গিনা তাকে জড়িয়ে ধরে আলিঙ্গন করেন। করোনাকালে খুদ স্বাস্থ্যমন্ত্রী সামাজিক দূরত্বের নিয়ম ভেঙ্গে এমনটা করবেন তা ব্রিটিশরা মেনে নেবেন না। চাপের মুখে তাই তাকে গতকাল রোববার পদত্যাগ করতে হলো। শুধু তাই নয় দুই সন্তানসহ স্ত্রীকে তালাকও দিয়েছেন। তাদের ঘনিষ্ঠতার সিসিটিভির ছবি ও ফুটেজ ‘দ্য সান’ প্রকাশ করে দেয়। সামাজিক দূরত্বের নীতি ভঙ্গ করার কারণে শেষ পর্যন্ত পদত্যাগ করলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকক। প্রধানমন্ত্রী বরাবর পাঠানো পদত্যাগপত্রে হ্যানকক লেখেন, মহামারিতে যেই জনগণ অসীম ত্যাগ স্বীকার করেছে সেই জনগণের কাছে সরকারের সৎ থাকা উচিত। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন দুঃখপ্রকাশ করে পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন বলে জানান। সাবেক অর্থমন্ত্রী সাজিদ জাভিদকে নতুন স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে নিযুক্ত করা হয়েছে। ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড পত্রিকা ‘দ্য সান’ মন্ত্রীর দপ্তরে সহকর্মী গিনা কোলাডাঙ্গেলোর সঙ্গে ম্যাট হ্যানককের চুমু বিনিময় ও আলিঙ্গনের ছবি এবং ভিডিও প্রকাশ করে। দ্য সান জানায়, গত ৬ মে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কার্যালয়ের ভেতরের ঘটনা এটি। দুজনই বিবাহিত এবং তাদের সংসারে তিনটি করে সন্তান রয়েছে। দ্য সানের ভিডিওতে দেখা যায়, একটি কক্ষে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী হ্যানকুক গিনিকে জড়িয়ে ধরেন এবং চুমু দেন। ভিডিওটি সিসিটিভিতে ধারণ করা। গত বছর গিনা কোলাডাঙ্গেলোকে ব্রিটিশ স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক হিসেবে নিয়োগ দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। এ ঘটনায় নিজের দোষ স্বীকার করে নিয়েছেন তিন বছর দায়িত্ব পালন করা ব্রিটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী। টুইটারে প্রকাশ করা এক ভিডিওবার্তায় তিনি বলেছেন, ‘আমি স্বাস্থ্য ও সামাজিক সেবা খাতের মন্ত্রীর পদ থেকে প্রধানমন্ত্রীর কাছে ইস্তফা চেয়েছি। সবাই এই সময়ে (সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে) যে পরিমাণ ত্যাগ স্বীকার করছেন, আমি তা অনুধাবন করতে পারি। এ কারণেই আমি পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমাকে ক্ষমা করবেন সকলে।’

ভারতে এবার নতুন উদ্বেগের কারণ গ্রীণ ফাঙ্গাস
                                  

এনডিটিভি/এটিআই : করোনাভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কায় গোটা বিশ্ববাসী। তারই মাঝে ব্ল্যাক, হোয়াইট, ইয়েলো ফাঙ্গাসের দাপটে কার্যত ‘ত্রাহি ত্রাহি রব’ চারদিকে। বর্তমানে আবার নতুন আতঙ্ক মাথাচাড়া দিয়েছে। সম্প্রতি ভারতে প্রথমবারের মতো হদিশ মিলেছে গ্রীণ ফাঙ্গাসের। এক প্রতিবেদনে বলা হয়- বছর চৌত্রিশের এক ভারতীয় যুবক করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। সেই সময় তার ফুসফুসের প্রায় ১০০ শতাংশ সংক্রমণ হয়েছিল। হাসপাতালে চিকিৎসা করা হয় তার। করোনা জয়ের পর বাড়িও ফিরে আসেন তিনি। কিন্তু তারপর নাক দিয়ে রক্ত পড়া, দুর্বলতার মতো একাধিক উপসর্গ দেখা দেয়। ফের হাসপাতালে ভর্তি করে নানা পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হয়। তাতেই জানা যায়, তিনি গ্রীণ ফাঙ্গাসে আক্রান্ত। নতুন এই ছত্রাক নিয়ে উদ্বেগে সকলেই। গ্রীণ ফাঙ্গাস আদতে অ্যাসপারগিলোসিস যা বাড়ির বাইরে, ভিতরে দু’জায়গাতেই থাকতে পারে। বাতাসের মাধ্যমে মানুষের শরীরে প্রবেশ করে। তবে যাদের শরীরের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা অত্যন্ত কম, তারা এই ধরনের ছত্রাকের প্রকোপে অসুস্থ হয়ে পড়েন। যে সমস্ত করোনাজয়ীর ফুসফুস সংক্রমণের হার অনেক বেশি ছিল তাদের গ্রিন ফাঙ্গাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। যারা হাঁপানি বা শ্বাসকষ্টের সমস্যায় ভোগেন তাদেরও সাবধানে থাকা প্রয়োজন। মারাত্মক ইনফ্লুয়েজা রোগীকে গ্রিন ফাঙ্গাস কুপোকাত করতে পারে। যাদের কেমোথেরাপি চলছে তারাও গ্রিন ফাঙ্গাসে আক্রান্ত হতে পারেন। গ্রীণ এবং ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্তদের উপসর্গ প্রায় একইরকম। এই ধরনের ছত্রাকে আক্রান্তদের কাশি, কাশির সঙ্গে রক্ত পড়া, শ্বাসকষ্ট, ওজন কমে যাওয়া, জ্বর, ক্লান্তি-সহ একাধিক উপসর্গ দেখা দেয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

কানাডায় ট্রাক চাপা দিয়ে মুসলিম পরিবারের চারজনকে হত্যা
                                  

দ্য গার্ডিয়ান/বিবিসি : কানাডায় ‘পূর্ব-পরিকল্পিতভাবে’ একটি মুসলিম পরিবারের ওপর ট্রাক উঠিয়ে দিয়ে চারজনকে হত্যা করা হয়েছে। তারা এ সময় রাস্তা পার হবার জন্য অপেক্ষা করছিলেন। অন্টারিও প্রদেশের লন্ডন শহরে এই ঘটনা ঘটেছে বলে পুলিশ বলছে। ওই পরিবারের নয় বছর বয়সী এক শিশু হামলায় বেঁচে গেছে। আহত অবস্থায় একটি হাসপাতালে তার চিকিৎসা চলছে। এই ঘটনায় ২০ বছর বয়সী একজন কানাডিয়ান যুবকের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ আনা হয়েছে। কানাডায় মুসলিমদের উপর একটি সবচেয়ে ভয়ঙ্কর হামলা হিসেবে দেখা হচ্ছে। ২০১৭ সালে কুইবেক শহরের মসজিদে এক হামলায় ছয়জনকে হত্যা করা হয়েছিল। পুলিশ বলছে, ধারণা করা হচ্ছে, যারা মারা গেছেন তাদের ধর্মীয় বিশ্বাসের কারণে এই হামলা করা হয়েছে। নিহতদের মধ্যে দুইজন নারী রয়েছেন। তাদের একজনের বয়স ৭৪ বছর এবং অপরজনের বয়স ৪৬ বছর। এছাড়া নিহতদের মধ্যে ১৫ বছর বয়সী একটি মেয়ে এবং ৪৬ বছর বয়সী একজন পুরুষ রয়েছেন। এই ঘটনার পর কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো এক টুইট বার্তায় লিখেছেন, এই ঘটনায় তিনি আতঙ্কিত হয়েছেন। যারা এই ঘটনার শিকার হয়েছে তাদের পরিবারের সাথে তিনি আছেন বলে উল্লেখ করেন মি. ট্রুডো।

বিশ্ব গণমাধ্যমের ওয়েবসাইট আক্রান্ত
                                  

ফ্রান্সের লা মন্ডে, আমেরিকার সিএনএন, নিউইয়র্ক টাইমস, ব্লুমবার্গ, ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল, লন্ডনের গার্ডিয়ান, বিবিসি, ফাইন্সিয়াল টাইমস, কাতারের আল জাজিরাসহ অন্যগুলো বন্ধ হয়

নিউইয়র্ক টাইমস/সিএনএন : বিস্ময়করভাবে বিশ্বের প্রভাবশালি অধিকাংশ মিডিয়ার ওয়েবসাইট বন্ধ হয়ে যাওয়ার ঘটনায় গতকাল মঙ্গলবার ব্যাপক চাঞ্চল্য দেখা দেয়। সুদূর আমেরিকা থেকে ইংল্যান্ড বা মধ্যপ্রাচ্যের কাতারের দেশসহ অনেক গুরুত্বপূর্ণ দেশের মিডিয়ার ওয়েব সাইট বন্ধ হয়ে গেলো কিভাবে তাই এখন প্রশ্ন। এটা কোন হ্যাকার গ্রুপের কাজ নাকি যান্ত্রিক বিপর্যয় তা নিয়ে কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে কয়েক ঘন্টার ব্যাবধানে অনেকগুলো আবার চালু করা গেছে। সিএনএন, নিউইয়র্ক টাইমস, ফিনান্সিয়াল টাইমস, লা মন্ডে, গার্ডিয়ান ও ব্লুমবার্গসহ বেশ কয়েকটি খ্যাতনামা আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের ওয়েবসাইট ক্রাশের ঘটনা ঘটেছে। আক্রান্ত হওয়ার দাবি করেছে আল-জাজিরাও। মঙ্গলবার হঠাৎ করেই বিশ্বজুড়ে গণমাধ্যমগুলোর ওয়েবসাইট কেনো ক্রাশ করলো তার কারণ সম্পর্কে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এসময় ওয়েবসাইটগুলোতে ঢুকলে নানা ধরণের ত্রুটি বার্তা দেখানো হচ্ছিল। যদিও কয়েক ঘন্টার মধ্যেই সব স্বাভাবিক হয়ে আসে। স্থানীয় সময় সকাল ১০ টায় ফ্রান্সের লা মন্ডে গণমাধ্যমটির ওয়েবসাইট ক্রাশ করে। এরপর বড় বড় আরো একাধিক গণমাধ্যমগুলোও একই সমস্যায় পড়ে। বিবিসি ও নিউ ইয়র্ক টাইমসও কিছু সময়ের জন্য বন্ধ থেকে আবারো চালু হয়ে যায়। ফলে বিশ্বজুড়ে বেশ কিছু আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের পরিষেবা ভেঙ্গে পড়ে। পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের সরকারি ওয়েবসাইটেও সমস্যা দেখা দেয়। কাতারভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল জাজিরা জানিয়েছে, তাদের সাইটেও সমস্যা দেখা দিয়েছিল। এসব সাইটে এরর শব্দটি দেখা যাচ্ছিল। এ ছাড়া অ্যামাজনের ওয়েবসাইটেও সমস্যা দেখা গিয়েছিল। তবে প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিক কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি। যুক্তরাজ্যের সংবাদ মাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে, তাদের ওয়েবসাইট ও অ্যাপে সমস্যা দেখা দিয়েছে। বিবিসিসহ কয়েকটি সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, অ্যামাজন, রেডডিট, টুইচসহ বেশ কয়েকটি শীর্ষস্থানীয় ওয়েবসাইটে প্রবেশ করা যাচ্ছে না। যুক্তরাজ্যের সরকারি ওয়েবসাইটও বর্তমানে ডাউন রয়েছে। আক্রান্ত এই ওয়েবসাইটগুলোতে গেলে ‘এরর ৫০৩ সার্ভিস অ্যানএভেইলেবল’ বার্তা দেখা যায়। কয়েকটি রিপোর্ট বলছে, যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ক্লাউড কম্পিউটিং পরিষেবা সরবরাহকারী ফাস্টলির কারণে এ সমস্যা হতে পারে। তবে এখনও এ ধরনের সমস্যার ব্যাপারে ফাস্টলি কিছু জানায়নি। সংস্থাটি বলছে, তারা এই নেটওয়ার্ক সংক্রান্ত সমস্যাগুলো তদন্ত করে দেখছে।

গোপনে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের বিয়ে
                                  

বিবিসি/দ্য সান/গার্ডিয়ান : ৫৬ বছর বয়স্ক বরিস জনসন ৩৩ বছরের মিস সিমন্ডকে গোপনে বিয়ে করেছেন বলে বৃটিশ গণমাধ্যমে তোলপাড় হয় গতকাল রোববার। তাদের মধ্যে প্রেমের খবর প্রথম প্রকাশ হয় ২০১৯ সালে। জনসনের এটি তৃতীয় বিয়ে। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন তার বাগদত্তা ক্যারি সিমন্ডসকে ওয়েস্টমিনিস্টার ক্যাথেড্রালের এক গোপন অনুষ্ঠানে বিয়ে করেছেন বলে যুক্তরাজ্যের গণমাধ্যমগুলোতে খবর বেরিয়েছে। গত শনিবার খুব ঘনিষ্ঠ কিছু আত্মীয় ও বন্ধুদের উপস্থিতিতে এই বিয়ের অনুষ্ঠানটি হয় বলে বেশ কয়েকটি সংবাদপত্রের খবরে বলা হচ্ছে। এ নিয়ে ডাউনিং স্ট্রিটে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন থেকে কোন বক্তব্য দিতে অস্বীকৃতি জানানো হয়েছে। ওয়ার্কস অ্যান্ড পেনশনস সেক্রেটারি টেরেস কফি টুইট করেছেন: ‘আজকের বিবাহ উপলক্ষে বরিস জনসন এবং ক্যারি সিমন্ডসকে অভিনন্দন’। নর্দার্ন আয়ার?ল্যান্ডের ফার্স্ট মিনিস্টার আরলেন ফস্টার টুইটারে তাদের ‘বিশাল অভিনন্দন’ জানিয়েছেন। রোববার দ্য মেইলের খবরে বলা হয়েছে, অনুষ্ঠানটিতে ত্রিশ জন অতিথিতে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। ইংল্যান্ডে করোনাভাইরাস মহামারিকালীন নিয়ম অনুযায়ী কোন অনুষ্ঠানে অভ্যাগতের সর্বোচ্চ অনুমোদিত সংখ্যাই হচ্ছে ত্রিশ। খবরে বলা হয়, ক্যাথলিক এই অনুষ্ঠানটি আয়োজনের প্রস্তুতিতে গির্জার অল্প কয়েকজন কর্মকর্তা জড়িত ছিলেন। বিয়ে পড়ান ফাদার ড্যানিয়েল হামফ্রেস। দ্য সান বলছে, ডাউনিং স্ট্রিটের সিনিয়র কর্মকর্তারাও এই বিয়ের ব্যাপারে অবগত ছিলেন না। খবরে আরো বলা হয়, শনিবার ব্রিটিশ সময় বেলা দেড়টার কিছু পরে ওয়েস্টমিনিস্টার ক্যাথেড্রাল থেকে সাধারণ জনগণকে সরে যেতে বলা হয়। এর আধা ঘণ্টা পর একটি লিমোতে চড়ে সেখানে হাজির হন সাদা পোশাক পরিহিত মিজ সিমন্ডস। শনিবার রাতে দশ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিট ছেড়ে যাচ্ছে বাদকেরা, এমন ছবিও তোলা হয়েছে। তাদের সন্তান উইলফ্রেডের জন্ম হয় ২০২০ সালের এপ্রিল মাসে।

‘করোনা ভাইরাস সৃষ্টি করেছেন চীনের বিজ্ঞানীরা’
                                  

ডেস্ক রিপোর্ট : নানা অভিযোগে বলা হয়েছে, চীনের উহানে একটি গবেষণাগারে সৃষ্টি করা হয়েছে করোনা ভাইরাস। এ নিয়ে পাল্টাপাল্টি নানা কথা প্রচলিত। কিন্তু এবার বৃটেনের প্রফেসর অ্যাঙ্গাস ডালগলেইশ এবং নরওয়ের বিজ্ঞানী ড. বারগার সোরেনসেন তাদের গবেষণায় বিস্ফোরক তথ্য দিয়েছেন। তারা বলেছেন, করোনা ভাইরাস প্রাকৃতিক নয়। এই ভাইরাস সৃষ্টি করেছেন চীনা বিজ্ঞানীরা। পরে তারা একে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেছেন। নতুন এই গবেষণায় বিজ্ঞানীরা বলেছেন, তারা কোভিড-১৯ এর নমুনায় ব্যতিক্রমী ফিঙ্গারপ্রিন্ট পেয়েছেন। তারা ধারণা করছেন, এটা শুধু একটি ল্যাবরেটরি থেকে আসতে পারে। এ খবর দিয়েছে লন্ডনের অনলাইন ডেইলি মেইল। ওই দুই বিজ্ঞানীর গবেষণা প্রকাশ হওয়ার কথা কোয়ার্টারলি রিভিউ অব বায়োফিজিক্স ডিসকভারি’তে। তার আগেই ২২ পৃষ্ঠার নতুন এই গবেষণাকর্মের পেপার হাতে পেয়েছে ডেইলি মেইল। এতে দেখা যায়, এই দুই বিজ্ঞানী বলেছেন, উহানের একটি ‘গেইন অব ফাংশন’ প্রকল্প নিয়ে কাজ করার সময় করোনা ভাইরাস সৃষ্টি করেছেন চীনা বিজ্ঞানীরা। ‘গেইন অব ফাংশন’ গবেষণা অস্থায়ীভিত্তিতে যুক্তরাষ্ট্রে নিষিদ্ধ। এই গবেষণায় প্রাকৃতিক উপায়ে পাওয়া ভাইরাসকে আরো সংক্রামক করে তৈরি করা হয়। যাতে তা মানব দেহে কি প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে তা গবেষণার মাধ্যমে জানা যায়। ওই গবেষণাপত্র অনুযায়ী, চীনা বিজ্ঞানীরা চীনের গুহায় পাওয়া বাঁদুরের মেরুদণ্ডে থাকা একরকম প্রাকৃতি করোনা ভাইরাস নিয়েছেন। তাকে নতুন স্পাইকযুক্ত করেছেন। তারপর এটাকে ভয়াবহ ও উচ্চ মাত্রায় সংক্রমণযুক্ত কোভিড-১৯ এ রূপ দিয়েছেন। গবেষণায় বলা হয়েছে, এসব যে ল্যাবরেটরিতে করা হয়েছে সেখানকার ডাটা ধ্বংস করে ফেলা হয়েছে। লুকানো হয়েছে। যেসব বিজ্ঞানী এই গবেষণা শেয়ার করতে চেয়েছেন তারা তা পারেননি অথবা তাদেরকে অদৃশ্য করে দেয়া হয়েছে। উপরোল্লিখত দুই বিজ্ঞানী বলেছেন, এসব বিষয় শিক্ষাবিদ বা বড় বড় জার্নাল এড়িয়ে গেছে। উল্লেখ্য লন্ডনের সেইন্ট জর্জেস ইউনিভার্সিটির অনকোলজির একজন প্রফেসর ডালগলেইশ। তিনি প্রথম কার্যকর ‘এইচআইভি টিকা’ নিয়ে বিস্ময়কর কাজ, রোগীদের সনাক্ত এবং চিকিৎসা নিয়ে কাজ করার জন্য সুপরিচিত। অন্যদিকে ওষুধ প্রস্তুতকারক কোম্পানি ইমিউনর-এর চেয়ার হলেন ড. বারগার সোরেনসেন। তিনি একজন ভাইরাস বিশেষজ্ঞ। তার প্রতিষ্ঠান ইমিউনর করোনা ভাইরাসের টিকা বায়োভ্যাক-১৯ প্রস্তুত করেছে। তবে তা এখনও পরীক্ষাধীন। উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্র থেকেও চীনের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন সহ অনেকেই অভিযোগ করেছেন, করোনা ভাইরাস সৃষ্টি করেছে চীন। এরপর এটাকে জীবাণু অস্ত্র হিসেবে ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে। এসব নিয়ে নানা অভিযোগ আছে। তবে এসব অভিযোগকে উড়িয়ে দিয়েছে চীন। সর্বশেষ এ বিষয়ে আরো তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। তার শীর্ষ সংক্রামক বিশেষজ্ঞ ড. অ্যান্থনি ফাউচিও একই রকম ইঙ্গিত দিয়েছেন। বিজ্ঞানী ডালগলেইশ এবং সোরেনসেন বলেছেন, তারা এর আগে এই গবেষণালব্ধ তথ্য প্রকাশ করতে চেয়েছেন। কিন্তু বেশির ভাগ বিজ্ঞান বিষয়ক জার্নাল তা প্রকাশ করতে সম্মত হয়নি। কারণ, তারাও মনে করছিল এই ভাইরাস বাঁদুর থেকে মানবশরীরে এসেছে। এক পর্যায়ে বৃটেনের গোয়েন্দা সংস্থা এমআই৬ এর সাবেক প্রধান স্যার রিচার্ড ডিয়ারলাভ প্রকাশ্যে বিজ্ঞানীদের তত্ত্বকে তদন্ত করার নির্দেশ দেন এবং দাবি করেন এসব খবর ভুয়া। কিন্তু এক বছর পরে শীর্ষস্থানীয় শিক্ষাবিদ, রাজনীতিক এবং মিডিয়া পাল্টে গেছে। তারা এই ধারণা করছে যে, করোনা ভাইরাস চীনের উহান ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজি থেকে অবমুক্ত হয়ে ছুড়িয়ে পড়েছে। ফলে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এ সপ্তাহে নতুন করে এই ভাইরাসের উৎস সন্ধান করার নির্দেশ দিয়েছেন।

ভারতে ঢাকার টিকটক হৃদয়সহ ২ জন গুলিবিদ্ধ
                                  

এনডিটিভি/আজকাল : বাংলাদেশি তরুণীকে ভয়াবহ যৌন নির্যাতনের দায়ে ভারতের বেঙ্গালুরুতে গ্রেফতার হওয়া ছয়জনের মধ্যে দু’জন পালানোর সময় পুলিশের গুলিতে আহত হয়েছে। বেঙ্গালুরুর পুলিশের বরাত দিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, শুক্রবার ভোর ৫টার দিকে তদন্তের জন্য পুলিশ অভিযুক্তদের নিয়ে অপরাধস্থলে যায়। সেখানে টিকটক হৃদয় নামে পরিচিত রিফাতুল ইসলাম হৃদয় ও আরও একজন পালানোর চেষ্টা করলে পুলিশ গুলি চালায় এবং তারা পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়। বাংলাদেশি এক তরুণীকে যৌন নির্যাতন করার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পরার পর বৃহস্পতিবার দুজন নারীসহ মোট ছয় জনকে গ্রেফতার করে বেঙ্গালুরু পুলিশ। বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে পুলিশ জানিয়েছে, ভিডিও ক্লিপ ও অভিযুক্তদের জিজ্ঞাসাবাদের পরিপ্রেক্ষিতে তাদের বিরুদ্ধে ধর্ষণ, যৌন নির্যাতন ও অন্যান্য অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ জানায়, ‘এখন পর্যন্ত যা তথ্য পাওয়া গেছে, এরা সকলেই একই গ্রুপের সদস্য এবং বাংলাদেশ থেকে এসেছে। অর্থনৈতিক পার্থক্যের কারণে অপরাধীরা ভিকটিমের ওপর নির্যাতন চালায়। ভিকটিমও বাংলাদেশি এবং ভারতে পাচারের জন্য তাকে আনা হয়েছিল।’ ভিকটিম এখন ভারতের অন্য একটি প্রদেশে রয়েছেন বলে জানায় পুলিশ। একটি টিম তাকে খুঁজে বের করার চেষ্টা করছে। তাকে পাওয়া গেলে ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে তার জবানবন্দি নেয়া হবে। বৃহস্পতিবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে ঢাকার তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. শহিদুল্লাহ বলেন, টিকটক হৃদয়ের মা ও মামা পুলিশকে জানায়, উচ্ছৃঙ্খল কর্মকাণ্ডের কারণে চার মাস আগে তাকে বাসা থেকে বের করে দেয়া হয়। এরপর থেকে বাসার কারো সঙ্গে তার যোগাযোগ ছিল না। ডিসি মো. শহিদুল্লাহ বলেন, কৌশলে টিকটক হৃদয়ের মামার হোয়াটসঅ্যাপ থেকে হৃদয়ের ভারতীয় নম্বরে যোগাযোগ করা হয়। তখন সে জানায়, গত তিন মাস আগে ভারতে গেছে। যৌন নির্যাতনের যে ভিডিও ভাইরাল হয়েছে, সেই ঘটনা ঘটে ১৫ থেকে ১৬ দিন আগে। হৃদয় জানায়, যৌন নির্যাতনের ঘটনায় হৃদয় ও তার কয়েকজন বন্ধু জড়িত ছিল। ঘটনাটি ঘটে ভারতের কেরালায়। ওই ভুক্তভোগী তরুণীর সঙ্গে আগে থেকেই তার পরিচয় ছিল বলে জানায় হৃদয়। তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার আরও বলেন, হৃদয়ের দেয়া তথ্যমতে তরুণীর পরিবারের সন্ধান পেয়েছি। পরিবার তরুণীর পরিচয় নিশ্চিত করেছে। পরিবারের সঙ্গে মেয়েটির গত দুই বছর ধরে কোনো যোগাযোগ ছিল না। ডিসি শহিদুল্লাহ আরও বলেন, প্রাথমিকভাবে আমাদের ধারণা করা হচ্ছে এরা একটি সংঘবদ্ধ মানবপাচারকারী চক্র। যারা প্রেমের ফাঁদে ফেলে অসহায় ও বিদেশে গমনে ইচ্ছুক নারীদের প্রলোভন দেখিয়ে বিদেশে পাচার করত।

গাজা পুনর্গঠনে বড় প্যাকেজ বাস্তবায়ন করবে যুক্তরাষ্ট্র
                                  

সিএনএন/আল জাজিরা : ইসরাইলি হামলায় বিধ্বস্ত গাজার পুনর্গঠনে সাহায্য করার ঘোষণা দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। একইসঙ্গে গাজায় যাতে ত্রাণ ও অন্যান্য সবকিছুর সরবরাহ অব্যাহত থাকে, ইসরাইলের কাছে তা নিশ্চিতের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুকে বাইডেন বলেন, জেরুজালেমের ফিলিস্তিনিদের মর্যাদা অবশ্যই রক্ষা করতে হবে। নেতানিয়াহুর সঙ্গে এক ফোনালাপে বাইডেন বলেন, পশ্চিম তীরে ফিলিস্তিনিদের সুরক্ষা নিশ্চিত করারও প্রয়োজন রয়েছে। এর মাধ্যমে গাজায় সাম্প্রতিক সহিংসতার মধ্যে ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুকে দেয়া বার্তা স্পষ্ট করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। জো বাইডেন বলেন, আরব কিংবা ইহুদি যেই হোক ইসরাইলের সব নাগরিকের সঙ্গে সমান আচরণের ওপর জোর দেয় যুক্তরাষ্ট্র। জেরুজালেমে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার অবসান ঘটানোর আহ্বান জানান তিনি। এছাড়া ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসকে ফিলিস্তিনি জনগণের নেতা হিসেবে মেনে নিতে নেতানিয়াহুর প্রতি আহ্বান জানান। ফোনালাপে তিনি ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসাও করেছেন। ইসরাইলের নিরাপত্তার প্রশ্নে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থানের কোনো পরিবর্তন হবে না বলেও আশ্বস্ত করেন তিনি।
জো বাইডেন বলেন, গাজায় ধ্বংস হয়ে যাওয়া বাড়িঘর নির্মাণে অন্যান্য দেশের সঙ্গে মিলে একটি বড় প্যাকেজ বাস্তবায়ন করবে যুক্তরাষ্ট্র। একইসঙ্গে হামাস তাদের অস্ত্র ব্যবস্থা যাতে পুনরায় নির্মাণ না করতে পারে তার দিকে খেয়াল রাখা হবে।

ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের যুদ্ধবিরতি শুরু
                                  

বিবিসি/আরব নিউজ : এগার দিনের সহিংসতার অবসান হলো গতকাল শুক্রবার থেকে কার্যকর হওয়া এই যুদ্ধবিরতির মধ্য দিয়ে। যাতে অন্তত ২৪০ জন মারা গেছেন এবং এদের বেশির ভাগই মারা গেছে গাজায়। যুদ্ধবিরতি শুরুর পর পরই ফিলিস্তিনিরা গাযার রাস্তায় নেমে আসে এবং ‘আল্লাহ মহান’ ‘আল্লাহকে ধন্যবাদ’ এসব শ্লোগান দিতে থাকে।
ইসরায়েল ও হামাস - দু পক্ষই এবারের সংঘাতে তাদের জয় দাবি করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, এই যুদ্ধবিরতি উন্নতির জন্য সত্যিকার সুযোগ এনে দিয়েছে। বৃহস্পতিবারও গাজার উত্তরে হামাস স্থাপনাগুলোতে অন্তত একশ বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল এবং জবাবে রকেট ছুঁড়েছে হামাস।
আরবদের হটিয়ে যেভাবে ইসরায়েল রাষ্ট্রের জন্ম হয়েছিল
অধিকৃত পূর্ব জেরুজালেমে ইসরায়েলি ও ফিলিস্তিনিদের মধ্যে কয়েক সপ্তাহ ধরে উত্তেজনা চলার পর আল আকসা মসজিদের প্রাঙ্গণে সংঘর্ষ শুরু হয়। এই এলাকাটি মুসলিম ও ইহুদিদের কাছে পবিত্র স্থান হিসেবে বিবেচিত। সেখান থেকে ইসরায়েলি সৈন্যদের সরিয়ে নেওয়ার জন্য সতর্ক করে দিয়ে গাযা নিয়ন্ত্রণকারী হামাস রকেট ছুঁড়তে শুরু করে। এর জবাবে গাযায় বিমান হামলা শুরু করে ইসরায়েল। হামাস নিয়ন্ত্রিত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হিসেবে এ সহিংসতায় গাযায় প্রায় একশ নারী ও শিশুসহ কমপক্ষে ২৩২ জন নিহত হয়েছে । ইসরায়েল বলেছে অন্তত একশ যোদ্ধা গাযায় নিহত হয়েছে তবে হামাস অবশ্য তার যোদ্ধাদের ক্ষয়ক্ষতির কোন তথ্য প্রকাশ করেনি। আর ইসরায়েলে দুটি শিশুসহ বার জন নিহত হয়েছে। ইসরায়েলের দাবি গাযা থেকে তার ভূখণ্ড লক্ষ্য করে অন্তত চার হাজার রকেট ছুড়েছে হামাস। ইসরায়েল বলছে তারা যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব গ্রহণ করেছে সর্বসম্মতভাবেই। আর নজিরবিহীন সামরিক সাফল্য দাবি করে টুইট করেছেন দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রী।
অন্যদিকে হামাসের একজন কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা এপিকে বলেছে, ইসরায়েল যে যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করেছে, সেটি ফিলিস্তিনের মানুষের কাছে জয়ের মতো এবং ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনজামিন নেতানিয়াহু`র একটি পরাজয়। গাজার মসজিদগুলোতে ইসরায়েলের বিরুদ্ধ জয়ের ঘোষণা দেয়া হচ্ছে। তবে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক হামাস কাউন্সিলের বাসেম নায়েম বিবিসির কাছে এ যুদ্ধবিরতি কতটা স্থায়ী হয় তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন। ‘ফিলিস্তিনের জন্য ন্যায় বিচার নিশ্চিত না করে বা ইসরায়েলি আগ্রাসন বন্ধ না করে এ যুদ্ধবিরতি হবে ভঙ্গুর’ বলছিলেন তিনি।

ইসরাইলি হামলায় টার্গেট নারী ও শিশুরা
                                  

জেরুজালেম পোস্ট/বিবিসি : ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে ব্যাপক বিমান হামলা চালাচ্ছে ইসরাইল। পাশাপাশি হামাসের কয়েকটি ভূগর্ভস্থ সুড়ঙ্গে হামলা চালিয়েছে ইসরাইলি বাহিনী। মধ্যরাত থেকে হামলা বাড়াতে থাকে ইসরাইল। এরই প্রতিশোধ নিতে ইসরাইলের প্রাণ কেন্দ্রে ব্যাপক রকেট হামলা চালাচ্ছে হামাসসহ গাজার ইসলামিক দলগুলো। হামলার টার্গেটে পরিণত করা হয়েছে শিশু ও নারীদের। যুককদের ধরে দিয়ে যাওয়া হচ্ছে বাড়ি থেকে। গতকাল বুধবার ইসরাইলি সংবাদ মাধ্যম হারেৎজ জানিয়েছে, ইসরাইলের কেন্দ্রস্থলসহ বেশ কয়েকটি শহরে ব্যাপক রকেট হামলা চালাচ্ছে হামাস। ইতোমধ্যে ধনী পরিবারগুলো সীমান্তবর্তী এলাকা ছেড়েছে। সংবাদ মাধ্যমটি বলছে, দক্ষিণ ইসরাইল ও দেশটির মূল কেন্দ্রে রকেট হামলা চালানো হচ্ছে। আশদোদ শহরে ব্যাপক হামলা চালানো হয়েছে। ইসরাইলি বিমান বাহিনীর ঘাঁটিকে হামলার লক্ষ্যবস্তু বানানো হয়েছে বলে জানানো হয়। বুধবার গাজা সীমান্তে ইসরাইলি অংশে ৭ টি রকেট এসে পড়ে। এতে বেশ কিছু সম্পত্তির ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তবে হতাহতের খবর জানা যায়নি। হামাসের উপর্যুপরি রকেট হামলায় এ পর্যন্ত ১২ ইসরাইলি নিহত হয়েছেন। এখন পর্যন্ত ৩৩৩ জন আহত হয়ে হাসপাতলে চিকিৎসা নিয়েছেন। এর মধ্যে রকেট হামলায় আহত হয়েছেন ১১৪ জন। এদের মধ্যে সাতজনের অবস্থা গুরুতর। ইসরাইলি সংবাদ মাধ্যমটি জানায় এশকল অঞ্চলে রকেট হামলা হয়েছে। এতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তবে হতাহতের বিষয়টি জানা যায়নি। এ ছাড়া ইসরাইলের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর আশখেলনে রকেট হামলা হয়েছে। সেখানে সতর্কতামূলক সাইরেনের শব্দ শোনা গেছে। ইসরাইলি সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, মঙ্গলবার রাতে বিমান হামলা চালিয়ে হামাসের সাড়ে সাত মাইল দীর্ঘ সুড়ঙ্গ ধ্বংস করা হয়েছে। এ ছাড়া হামাসের নিয়ন্ত্রণের অবকাঠামো ধ্বংস করা হয়। এ সময় হামাস ও ইসলামিক জিহাদের ১০ নেতাকে হত্যা করা হয়েছে। ফিলিস্তিনি ও ইসরাইলের মধ্যে সংঘর্ষ দশম দিনে পড়েছে। এ পর্যন্ত ইসরাইলি হামলায় ফিলিস্তিনের ২১৯ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে ৬৩ জন শিশু রয়েছে। এ ছাড়া দেড় হাজারের বেশি মানুষ আহত হয়েছেন। অপরদিকে ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড থেকে হামাসের হামলায় ১২ ইসরাইলি নিহত হয়েছেন। পাশাপাশি এ পর্যন্ত আহত হয়েছেন তিন শতাধিক ইসরাইলি।

আমাকে গ্রেফতার করুন : মমতা
                                  

এনডিটিভি/আজকাল : নারদা মামলায় তৃণমূলের তিন নেতা ও সাবেক এক মন্ত্রীকে গ্রেপ্তার করেছে ভারতের সেন্ট্রাল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (সিবিআই)। তারা হলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রিসভার সদস্য সুব্রত মুখোপাধ্যায় ও ফিরহাদ হাকিম, তৃণমূলের বিধানসভার সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী মদন মিত্র এবং সাবেক মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায়। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, ওই চার জনকে তাদের বাড়ি থেকে তুলে নিজাম প্যালেসে নিয়ে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। আজ তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেবে সিবিআই। তাদেরকে আদালতে হাজির করার কথা সূত্র আরও জানিয়েছে, নারদা কাণ্ডের আরও এক অভিযুক্ত আইপিএস অফিসার এসএমএইচ মির্জার বিরুদ্ধেও আজকেই অভিযোগপত্র দেওয়া হতে পারে। এই চার নেতাকে গ্রেপ্তারের ঘটনা ঘিরে পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতি করোনা আবর্তের ভেতরেই নতুন করে শরগরম হয়ে উঠেছে। তৃণমূলের সংসদ সদস্য সৌগত রায় এই গ্রেপ্তারের নিন্দা করে একে ‘বিজেপির প্রতিহিংসামূলক আচরণ’ বলে মন্তব্য করেছেন। কলকাতার সাবেক মেয়র ও সাবেক মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায় তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন। তবে, চলতি বছর পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনে মনোনয়ন না পেয়ে তিনি বিজেপি থেকে পদত্যাগ করেন। এরপর থেকে এখন পর্যন্ত তিনি কোনো দলে যোগ দেননি। শোভনের স্ত্রী তৃণমূলের বিধায়ক স্বামীর সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা করলেও গ্রেপ্তারের খবর পেয়ে নিজাম প্যালেসে আইনজীবীদের সঙ্গে পরামর্শ করতে গেছেন। সূত্র জানায়, গ্রেপ্তার চার নেতাকে এই মুহূর্তে নিজাম প্যালেসে বসিয়ে রাখা হয়েছে। আজ স্থানীয় সময় দুপুর ২টার দিকে তাদের বাঙশাল কোর্টে হাজির করা হবে।


   Page 1 of 350
     আন্তর্জাতিক
অতীতের মতোই ভারত আফগানদের পাশে থাকতে চায়
.............................................................................................
মোদির রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী রূপাণী পদত্যাগ করলেন
.............................................................................................
আমাদের দায়িত্ব হচ্ছে আফগান জনগণের প্রতি সংহতির হাত বাড়ানো : জাতিসংঘ
.............................................................................................
পৃথিবীর দেশে দেশে আশ্রয় নিচ্ছে আফগান শরণার্থীরা
.............................................................................................
নারীদেরকে কাজে ফেরার আহ্বান জানালো তালেবান
.............................................................................................
সামাজিক দূরত্ব ভেঙ্গে ঘনিষ্ঠ হওয়ায় ব্রিটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী পদত্যাগে বাধ্য
.............................................................................................
ভারতে এবার নতুন উদ্বেগের কারণ গ্রীণ ফাঙ্গাস
.............................................................................................
কানাডায় ট্রাক চাপা দিয়ে মুসলিম পরিবারের চারজনকে হত্যা
.............................................................................................
বিশ্ব গণমাধ্যমের ওয়েবসাইট আক্রান্ত
.............................................................................................
গোপনে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের বিয়ে
.............................................................................................
‘করোনা ভাইরাস সৃষ্টি করেছেন চীনের বিজ্ঞানীরা’
.............................................................................................
ভারতে ঢাকার টিকটক হৃদয়সহ ২ জন গুলিবিদ্ধ
.............................................................................................
গাজা পুনর্গঠনে বড় প্যাকেজ বাস্তবায়ন করবে যুক্তরাষ্ট্র
.............................................................................................
ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের যুদ্ধবিরতি শুরু
.............................................................................................
ইসরাইলি হামলায় টার্গেট নারী ও শিশুরা
.............................................................................................
আমাকে গ্রেফতার করুন : মমতা
.............................................................................................
গাজার স্কুলে, আবাসিক এলাকায়, চিকিৎসা কেন্দ্রে ইজরাইলি বোম
.............................................................................................
বিজেপির অভিনেত্রী শ্রাবন্তীর পরাজয়
.............................................................................................
গাড়ির ছাদে করে বাবার মরদেহ, মুখে ফু দিয়ে স্বামীকে অক্সিজেন দেয়ার চেষ্টা
.............................................................................................
অক্সিজেন সরবরাহে বাধা দিলে তাকে ফাঁসি দেবো
.............................................................................................
কুম্ভমেলায় গিয়ে নেপালের রাজা ও রাণী করোনায় আক্রান্ত
.............................................................................................
করোনা আক্রান্ত ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং ও রাহুল গান্ধী
.............................................................................................
ভারত করোনায় মৃত্যু ও সংক্রমণে এখন বিশ্বের শীর্ষে
.............................................................................................
ভারতে করোনায় একদিনে আক্রান্ত আড়াই লাখ, মৃত্যু দেড় হাজার
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুকধারীর হামলায় নিহত আট, আহত অনেক
.............................................................................................
প্রিন্স ফিলিপের মৃত্যুতে প্রভাবশালি মিডিয়ায় বিশেষ আয়োজন
.............................................................................................
মিয়ানমারে জনতা-জান্তা রক্তাক্ত লড়াই
.............................................................................................
‘বিশ্বকে বলুন আমরা মারা যাচ্ছি’
.............................................................................................
করোনায় মৃত্যু ২৬ লাখ ৯০ হাজার
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধু মানুষের জন্য জীবন উৎসর্গ করে গেছেন: প্রেসিডেন্ট শি
.............................................................................................
হুইলচেয়ারে করে জনসভায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা
.............................................................................................
মিয়ানমারে হাসপাতাল, বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ন্ত্রণ নিলো পুলিশ, নিহত ২
.............................................................................................
জনতার বিক্ষোভে উত্তাল মিয়ানমার, ব্যাপক ধরপাকড়
.............................................................................................
মিয়ানমার অন্ধকার বিক্ষোভে আবার খুন
.............................................................................................
মিয়ানমারে বিক্ষোভকারীর সংখ্যা বাড়ছে
.............................................................................................
বিশ্বব্যাপী বেড়েছে করোনার সংক্রমণ
.............................................................................................
মিয়ানমার জুড়ে ধর্মঘট শুরু, ব্যাপক ধরপাকড়
.............................................................................................
উত্তাল মিয়ানমার, বিক্ষোভকারীদের ওপর পুলিশের গুলি : নিহত ২
.............................................................................................
সীমান্তে ৫ সেনা নিহতের কথা চীনের স্বীকার
.............................................................................................
রাশিয়ায় বর্বরভাবে মেয়েদের গ্রেফতার করা হচ্ছে
.............................................................................................
মিয়ানমারে হাজার হাজার বিক্ষোভকারি মাঠে : পুলিশের বাধা
.............................................................................................
মিয়ানমারে সামরিক শাসকদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ
.............................................................................................
নিরাপত্তা পরিষদে সুচিসহ আটককৃতদের মুক্তি দাবি
.............................................................................................
রাশিয়ায় বিরোধী নেতা নাভালনির সাজা, বিক্ষোভরত ৫ সহস্রাধিক গ্রেফতার
.............................................................................................
মিয়ানমার নিয়ে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের জরুরি বৈঠক
.............................................................................................
সুষ্ঠু নির্বাচনের পরই ক্ষমতা হস্তান্তর: মিয়ানমার সেনাবাহিনী
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রের মিয়ানমারের প্রতি হুঁশিয়ারি, চীন বলছে-আমরা পরিস্থিতি দেখছি
.............................................................................................
১০ দিনেই নির্বাহী আদেশ জারি করে রেকর্ড গড়লেন বাইডেন
.............................................................................................
এবার সংসদ ভবনমুখি ভারতের কৃষকরা
.............................................................................................
ট্রাক্টর চালিয়ে কৃষকরা দিল্লীতে
.............................................................................................

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মো: রিপন তরফদার নিয়াম
প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক : মফিজুর রহমান রোকন
নির্বাহী সম্পাদক : শাহাদাত হোসেন শাহীন
বাণিজ্যিক কার্যালয় : "রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল কমপ্লেক্স"
(৬ষ্ঠ তলা), ২৮/১ সি, টয়েনবি সার্কুলার রোড,
মতিঝিল বা/এ ঢাকা-১০০০| জিপিও বক্স নং-৫৪৭, ঢাকা
ফোন নাম্বার : ০২-৪৭১২০৮০৫/৬, ০২-৯৫৮৭৮৫০
মোবাইল : ০১৭০৭-০৮৯৫৫৩, 01731800427
E-mail: dailyganomukti@gmail.com
Website : http://www.dailyganomukti.com
   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop