| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : > করোনা ভাইরাসে লোকসানে তথ্যপ্রয্ক্তুরি বিনিয়োগকারীরা   > সারাবিশ্বে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৩৭৬৮৬   > নববর্ষের সব অনুষ্ঠান বন্ধ: প্রধানমন্ত্রী   > আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে কোনো গরিব না খেয়ে কষ্ট পায় না: পানিসম্পদ উপমন্ত্রী   > সৌদিতে ৩ দফা ক্ষেপণাস্ত্র হামলা   > তিন হাজার শয্যার হাসপাতাল হচ্ছে মহাখালীর ডিএনসিসি মার্কেটে   > পরিস্থিতি দেখে সিদ্ধান্ত নেবেন প্রধানমন্ত্রী: স্বাস্থ্যমন্ত্রী   > করোনাভাইরাসে সারা বিশ্বে মৃত্যুর সংখ্যা ৩০৮৮০   > করোনাভাইরাসের প্রকোপের মাঝেই ইসরাইল থেকে অস্ত্র কিনছে ভারত   > করোনা সন্দেহে চিকিৎসায় অবহেলা  

   আন্তর্জাতিক -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
সারাবিশ্বে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৩৭৬৮৬

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে গোটা বিশ্বে এ পর্যন্ত মারা গেছে ৩৭ হাজার ৬৮৬ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছে তিন হাজার ৭১৬ জন। বিশ্বব্যাপী এ ভাইরোসের প্রাদুর্ভাব বেড়েই চলেছে। একই সঙ্গে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা। দীর্ঘ হচ্ছে লাশের সারি। খবর বিবিসি ও আলজাজিরার। করোনাভাইরাসে বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ লাখ ৮৪ হাজার ৪৪০ জন। এর মধ্যে এক লাখ ৬৫ হাজার ৩৮৭ জন সুস্থ হয়েছে বাড়ি ফিরেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬১ হাজার ৫০ জন।

এ ছাড়া বিশ্বজুড়ে বর্তমানে ৫ লাখ ৮১ হাজার ২৭২ জন আক্রান্ত রোগী চিকিৎসাধীন। তাদের মধ্যে ৫ লাখ ৫১ হাজার ৭৮০ জনের অবস্থা সাধারণ। বাকি ২৯ হাজার ৪৯২ জনের অবস্থা গুরুতর, যাদের অধিকাংশই আইসিইউতে রয়েছেন।
করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি বিপর্যস্ত ইউরোপীয় দেশ ইতালি ও স্পেন। দেশ দুটিতে মৃত্যুর সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে।
ইতালিতে এখন পর্যন্ত সেখানে মারা গেছেন ১১ হাজার ৫৯১ জন। ইতিমধ্যে করোনাভাইরাসের উৎপত্তি স্থান চীনকেও পেছনে ফেলেছে স্পেন। সেখানে মৃত্যুর সংখ্যা ৭ হাজার ৭১৬ জন।


চীনে ৩ হাজার ৩০৫ ফ্রান্সে ৩ হাজার ২৪ জন। ইরানে ২ হাজার ৭৫৭ জন; আর যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যুর সংখ্যা ৩ হাজার ১৪৮ জন। যুক্তরাজ্যে মৃত্যুর সংখ্যা এক হাজার ৪০৮ জনে দাঁড়িয়েছে। এ রোগের কোনো উপসর্গ যেমন জ্বর, গলাব্যথা, শুকনো কাশি, শ্বাসকষ্ট, শ্বাসকষ্টের সঙ্গে কাশি দেখা দিলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।
জনবহুল স্থানে চলাফেরার সময় মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। বাড়িঘর পরিষ্কার রাখতে হবে। বাইরে থেকে ঘরে ফিরে এবং খাবার আগে সাবান দিয়ে হাত পরিষ্কার করতে হবে।

সারাবিশ্বে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৩৭৬৮৬
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে গোটা বিশ্বে এ পর্যন্ত মারা গেছে ৩৭ হাজার ৬৮৬ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছে তিন হাজার ৭১৬ জন। বিশ্বব্যাপী এ ভাইরোসের প্রাদুর্ভাব বেড়েই চলেছে। একই সঙ্গে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা। দীর্ঘ হচ্ছে লাশের সারি। খবর বিবিসি ও আলজাজিরার। করোনাভাইরাসে বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ লাখ ৮৪ হাজার ৪৪০ জন। এর মধ্যে এক লাখ ৬৫ হাজার ৩৮৭ জন সুস্থ হয়েছে বাড়ি ফিরেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬১ হাজার ৫০ জন।

এ ছাড়া বিশ্বজুড়ে বর্তমানে ৫ লাখ ৮১ হাজার ২৭২ জন আক্রান্ত রোগী চিকিৎসাধীন। তাদের মধ্যে ৫ লাখ ৫১ হাজার ৭৮০ জনের অবস্থা সাধারণ। বাকি ২৯ হাজার ৪৯২ জনের অবস্থা গুরুতর, যাদের অধিকাংশই আইসিইউতে রয়েছেন।
করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি বিপর্যস্ত ইউরোপীয় দেশ ইতালি ও স্পেন। দেশ দুটিতে মৃত্যুর সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে।
ইতালিতে এখন পর্যন্ত সেখানে মারা গেছেন ১১ হাজার ৫৯১ জন। ইতিমধ্যে করোনাভাইরাসের উৎপত্তি স্থান চীনকেও পেছনে ফেলেছে স্পেন। সেখানে মৃত্যুর সংখ্যা ৭ হাজার ৭১৬ জন।


চীনে ৩ হাজার ৩০৫ ফ্রান্সে ৩ হাজার ২৪ জন। ইরানে ২ হাজার ৭৫৭ জন; আর যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যুর সংখ্যা ৩ হাজার ১৪৮ জন। যুক্তরাজ্যে মৃত্যুর সংখ্যা এক হাজার ৪০৮ জনে দাঁড়িয়েছে। এ রোগের কোনো উপসর্গ যেমন জ্বর, গলাব্যথা, শুকনো কাশি, শ্বাসকষ্ট, শ্বাসকষ্টের সঙ্গে কাশি দেখা দিলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।
জনবহুল স্থানে চলাফেরার সময় মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। বাড়িঘর পরিষ্কার রাখতে হবে। বাইরে থেকে ঘরে ফিরে এবং খাবার আগে সাবান দিয়ে হাত পরিষ্কার করতে হবে।

সৌদিতে ৩ দফা ক্ষেপণাস্ত্র হামলা
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
সৌদিতে তিন দফা ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়েছে। এখনও পর্যন্ত কোনো গোষ্ঠী এসব হামলার দায় স্বীকার করেনি। তবে ইয়েমেনের ইরানপন্থি হুতি বিদ্রোহীরা এর আগেও রাজধানী রিয়াদসহ বিভিন্ন শহরে কয়েক দফা ক্ষেপণাস্ত্র ও রকেট হামলা চালিয়েছে।

সৌদির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, শনিবার রাতে রাজধানী রিয়াদে একটি ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিহত করেছে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট। অপরদিকে, এএফপির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাজধানী রিয়াদে তিন দফা বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে।

রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন আল এখবারিয়ার খবরে বলা হয়েছে, রিয়াদে একটি ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিহত করা হয়েছে এবং ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে। তবে কারা ওই হামলা চালিয়েছে সে বিষয়ে কিছু জানানো হয়নি।

এর আগেও রাজধানী রিয়াদসহ সৌদির বিভিন্ন স্থানে এমন হামলা চালানো হয়েছে। এর মধ্যে অধিকাংশই প্রতিহত করতে সক্ষম হয়েছে সৌদি।

দু`টি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে রিয়াদে হামলা চালানো হয়েছে। লক্ষ্যে আঘাত হানার আগেই তা প্রতিহত করেছে সৌদি নেতৃত্ত্বাধীন জোট। অপরদিকে, জিজান শহরে আরও একটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হলে তা ভূপাতিত করা হয়।

করোনাভাইরাসে সারা বিশ্বে মৃত্যুর সংখ্যা ৩০৮৮০
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
বিশ্বজুড়ে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। সেই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যুও। সারা পৃথিবীতে এখন পর্যন্ত মৃত্যুর সংখ্যা ৩০ হাজার ছাড়িয়েছে। এর বেশিরভাগই ইতালি ও স্পেনে।


ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, রোববার সকাল ৮টা পর্যন্ত বিশ্বের ১৯৯ দেশ ও অঞ্চলে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ছয় লাখ ৬৩ হাজার ৭৪০ জন। মারা গেছেন ৩০ হাজার ৮৮০ জন। আক্রান্তদের মধ্যে এক লাখ ৪২ হাজার ১৮৩ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন।
করোনায় সবচেয়ে বেশি মানুষ মারা গেছে ইতালিতে। দেশটিতে শনিবার পর্যন্ত ১০ হাজার ২৩ জন প্রাণ হারিয়েছেন। আক্রান্ত ৯২ হাজার ৪৭২ জন।
যুক্তরাষ্ট্রই প্রথম দেশ যেখানে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১ লাখ ১৩ হাজার ৬৭৭ জন। মৃত্যুর সংখ্যাও বাড়ছে হু হু করে। মারা গেছে ১ হাজার ৯০৩ জন। তবে মৃত্যুহার এখনও ইতালি ও ইউরোপের কয়েকটি দেশের চেয়ে কম।


শুধু নিউইয়র্ক রাজ্যেই ২৬ হাজার ৬৯৭ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ২৪ ঘণ্টায় নিউইয়র্কে ১৪৪, ওয়াশিংটনে ১৭৫ এবং লুইজিয়ানায় ১১৯ জন মারা গেছেন। নিউইয়র্ক পুলিশের ৫০০ সদস্যও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।
মোট আক্রান্তের সংখ্যায় চীন ও ইতালিকে ছাড়িয়ে গেছে যুক্তরাষ্ট্র। চীনকে ছাড়িয়ে গেছে ইতালিও। আর মৃত্যুর সংখ্যায় ইতালির পর স্পেনও চীনকে ছাড়িয়ে গেছে। চীনে আক্রান্তের সংখ্যা ৮১ হাজার ৩৯৪। মারা গেছেন তিন হাজার ২৯৫ জন।
করোনাভাইরাস সংক্রমণে যুক্তরাজ্যে গতকাল আরও ২৬০ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটিতে এ ভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর থেকে একদিনে মৃত্যুর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি বৃদ্ধি পাওয়ার ঘটনা এটি। এ নিয়ে যুক্তরাজ্যে মৃত্যুর সংখ্যা এক হাজার ১৯ জনে দাঁড়িয়েছে। আক্রান্তের মোট সংখ্যা বেড়ে ১৭ হাজার ৮৯ জনে দাঁড়িয়েছে।
বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত করোনা শনাক্ত রোগী ৪৮ জন। সরকারি হিসাবে মোট মৃত্যু হয়েছে ৫ জনের। তবে শনিবার পর্যন্ত নতুন করে কেউ আক্রান্ত হয়নি।
প্রসঙ্গত ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেইপ্রদেশের রাজধানী উহান শহর থেকে ছড়িয়ে পড়ে করোনাভাইরাস। চীনে ৮০ হাজারেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হলেও সেখানে ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাব কমে গেছে। তবে বিশ্বের অন্যান্য দেশে এ ভাইরাসের প্রকোপ বাড়ছে।

করোনাভাইরাসের প্রকোপের মাঝেই ইসরাইল থেকে অস্ত্র কিনছে ভারত
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় সরঞ্জামের তীব্র ঘাটতির মধ্যেও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ইহুদিবাদী ইসরাইল থেকে শত শত কোটি ডলারের অস্ত্র কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।
বিশ্বের অন্যতম জনবহুল দেশটিতে যখন করোনাবিরোধী লড়াইয়ে স্বাস্থ্যসেবার জন্য একান্ত প্রয়োজনীয় মাস্ক কিংবা সুরক্ষা সরঞ্জামের যখন মারাত্মক ঘাটতি রয়েছে, তখন এ অস্ত্র কেনার সিদ্ধান্ত নিলেন মোদি। খবর মিডল ইস্ট আই ও আনাদোলুর।
এক বিবৃতিতে ভারত সরকার জানায়, ভারতকে ১৬ হাজার ৪৭৯টি নেগেভ হালকা মেশিনগান সরবরাহ করবে ইহুদিবাদী ইসরাইল।
অস্ত্রচুক্তি শনিবার সই করা হয়েছে। গত বছর ফেব্রুয়ারি মাসে ভারতের প্রতিরক্ষা ক্রয় পরিষদ বা ডিএসি ইসরাইল থেকে অস্ত্র কেনার এ চুক্তি অনুমোদন করেছিল।
ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, এসব অস্ত্র সেনাদের আস্থা বাড়াবে এবং প্রয়োজনীয় যুদ্ধ সক্ষমতা দেবে।
ইহুদিবাদী ইসরাইলের কাছ থেকে অস্ত্র কেনার যে চুক্তি নয়াদিল্লি করেছে তার সমালোচনায় নেমেছেন ভারতের মানবাধিকার কর্মী ও রাজনীতিবিদরাও।
এদিকে অস্ত্র কেনার ঘটনায় মোদি সরকারের বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় বইছে। করোনাভাইরাস সংকট মোকাবেলায় ভারত সরকারের লেজেগোবরে অবস্থাকে কেন্দ্র করে সমালোচনা চলছে।
রাজধানী দিল্লিতে একজন চিকিৎসক, তার স্ত্রী ও কন্যা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে খবর প্রকাশের পরই এ দাবি তোলা হয়।
ভারতের প্রগেসিভ মেডিকস অ্যান্ড সায়েন্টিস ফোরামের সভাপতি হারজিত সিং ভাট্টি বলেন, স্বাস্থ্যসেবা পেশায় জড়িতরা করোনায় আক্রান্ত হওয়ার সবচেয়ে বড় ঝুঁকির মধ্যে রয়েছেন।
তিনি বলেন, এ অবস্থায় ভারতের প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমাদের আবেদন- স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষার জন্য পর্যাপ্ত মাস্ক, গাউন, হেড কভারসহ প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম সরবরাহ করা হোক।
মানবাধিকারকর্মী কবিতা কৃষ্ণান প্রশ্ন তোলেন, করোনা সংক্রান্ত ত্রাণ সহায়তা, চিকিৎসা অবকাঠামো, বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা এবং করোনা নির্ণয়ের পরীক্ষাসহ এ খাতকে অগ্রাধিকার দেয়ার বদলে সরকার কেনও সামরিক খাতে ব্যাপক অর্থ ব্যয় করছে?
দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক এবং বৈশ্বিক রাজনীতির অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক অচিন বিনায়ক ভারত সরকারের পদক্ষেপ প্রসঙ্গে বলেন, এটি নজিরবিহীন ও কঠোর নিন্দা যোগ্য।

সারাবিশ্বে করোনাভাইরাসে মৃত্যু সংখ্যা ২৭৩৬০ জন
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

বিশ্বের ১৯৯টি দেশ ও অঞ্চলে করোনাভাইরাসের প্রকোপ ছড়িয়ে পড়েছে। এখন পর্যন্ত প্রানঘাতী এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ৫ লাখ ৯৭ হাজার ১৮৫ জন। অপরদিকে, ২৭ হাজার ৩৬০ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে করোনা। অপরদিকে চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ১ লাখ ৩৩ হাজার ৩৬০ জন।


এখন পর্যন্ত করোনায় সবচেয়ে বেশি আক্রান্তের সংখ্যা যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটির বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা লাখ ছাড়িয়ে গেছে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৪ হাজার ১৪২। করোনায় এখন পর্যন্ত মারা গেছে ১ হাজার ৬৯৬ জন এবং চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ২ হাজার ৫২২ জন। এছাড়া ২ হাজার ৪৬৩ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।


যুক্তরাষ্ট্রের পর সবচেয়ে বেশি আক্রান্তের সংখ্যা ইতালিতে। এছাড়া এখন পর্যন্ত ইউরোপের দেশ ইতালিতেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮৬ হাজার ৪৯৮। অপরদিকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ৯ হাজার ১৩৪ জন এবং হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ১০ হাজার ৯৫০ জন।


এরপেরই রয়েছে চীন। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮১ হাজার ৩৯৪ এবং মারা গেছে ৩ হাজার ২৯৫ জন। অপরদিকে, চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ৭৪ হাজার ৯৭১ জন।
অপরদিকে, স্পেনে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৬৫ হাজার ৭১৯ এবং মারা গেছে ৫ হাজার ১৩৮ জন। অপরদিকে, সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ৯ হাজার ৩৫৭ জন। জার্মানিতে করোনায় আক্রান্ত ৫০ হাজার ৮৭১ এবং মারা গেছে ৩৫১ জন। অপরদিকে, ফ্রান্সে আক্রান্তের সংখ্যা ৩২ হাজার ৯৬৪ এবং মারা গেছে ১ হাজার ৯৯৫ জন।
ইরানে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩২ হাজার ৩৩২ এবং মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৩৭৮ জনের। যুক্তরাজ্যে করোনায় আক্রান্ত ১৪ হাজার ৫৪৩ এবং মারা গেছে ৭৫৯ জন। দেশটির প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের দেহে করোনার উপস্থিতি ধরা পড়েছে।


কানাডায় ৪ হাজার ৭৫৭ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে এবং মারা গেছে ৫৫ জন। অস্ট্রেলিয়ায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩ হাজার ৫৭৩ এবং ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। পাকিস্তানে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ৩৭৩ এবং মারা গেছে ১১ জন।


অপরদিকে, সৌদি আরবে করোনায় আক্রান্ত ১ হাজার ১০৪ এবং মৃত্যু ৩, ভারতে আক্রান্ত ৮৮৭ এবং মারা গেছে ২০ জন। এদিকে, বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৪৮ জন। এর মধ্যে মারা গেছে ৫ জন এবং চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ১১ জন।

চীনের পার্শ্ববর্তী দেশ তাইওয়ান যেভাবে করোনায় সচেতন
                                  

ডেস্ক রিপোর্ট : করোনাভাইরাস মহামারিতে পুরো বিশ্ব যখন লড়াই করছে তখন এর বিরুদ্ধে সফল হওয়ার দৃষ্টান্ত দেখাল তাইওয়ান। করোনাভাইরাসের উৎপত্তিস্থল চীনের খুব কাছাকাছি তাইওয়ানের অবস্থান হলেও এখন পর্যন্ত সেখানে মাত্র ৪৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন। আর মারা গেছেন মাত্র একজন।

সেখানে জীবনযাত্রা একেবারেই স্বাভাবিক। শুধুমাত্র গণপরিবহনে চলাচলের সময় মানুষজনকে মাস্ক পরতে হচ্ছে। স্বাভাবিকভাবে এই কৌতুহল এখন সর্বত্র যে, যেখানে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় চীনকে হিমশিম খেতে হচ্ছে সেখানে কী জাদুবলে এর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলল তাইওয়ান?

শুধুমাত্র গণপরিবহনে চলাচলের সময় তাইওয়ানের মানুষ মাস্ক পরছে। ছবি: রয়টার্সকরোনাভাইরাস মহামারিতে পুরো বিশ্ব যখন লড়াই করছে তখন এর বিরুদ্ধে সফল হওয়ার দৃষ্টান্ত দেখাল তাইওয়ান। করোনাভাইরাসের উৎপত্তিস্থল চীনের খুব কাছাকাছি তাইওয়ানের অবস্থান হলেও এখন পর্যন্ত সেখানে মাত্র ৪৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন। আর মারা গেছেন মাত্র একজন।

সেখানে জীবনযাত্রা একেবারেই স্বাভাবিক। শুধুমাত্র গণপরিবহনে চলাচলের সময় মানুষজনকে মাস্ক পরতে হচ্ছে। স্বাভাবিকভাবে এই কৌতুহল এখন সর্বত্র যে, যেখানে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় চীনকে হিমশিম খেতে হচ্ছে সেখানে কী জাদুবলে এর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলল তাইওয়ান?

এ প্রশ্নের উত্তর হচ্ছে—অতীত থেকে তাইওয়ানের নেওয়া শিক্ষা। ২০০৩ সালে তাইওয়ানের সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোলের পরিচালক সু ইহ-জেনকে সার্সের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হয়েছিল। ওই সময় দেশটিতে সার্স ভাইরাস মারাত্মক প্রভাব ফেলেছিল। কিন্তু এবারের চিত্র সম্পূর্ণ আলাদা। যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপে যে ভয় ও বিভ্রান্তি ছড়িয়েছে তার ছিটেফোটাও তাইওয়ানে নেই। চীনের খুব কাছে থাকায় দুই কোটি ৩০ লাখ জনসংখ্যার দেশ তাইওয়ানকে ‘দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ’ অঞ্চল হিসেবে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছিল। এখানকার সাড়ে আট লাখ মানুষ চীনের মূল ভূখণ্ডে কাজ করে। একেবারে চীনা নববর্ষের সময় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হওয়াতে বিশেষজ্ঞরা তাইওয়ান বড় বিপদে পড়তে যাচ্ছে বলে পূর্বাভাস দিয়েছিলেন।

অধ্যাপক সু বলেন, ‘২০০৩ সালের শুরুতে তাইওয়ানে কয়েক সপ্তাহে সার্স যেভাবে ছড়িয়েছিল তার মতোই পরিস্থিতই এখন অনেক দেশে। তারা প্রস্তুত নয়, তাদের অভিজ্ঞতাও নেই।’

ফিন্যান্সিয়াল টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০০৩ সালের ওই সার্স মহামারির পর অধ্যাপক সু তাইওয়ানের পুরো পাবলিক হেলথ সিস্টেম পরিবর্তন করে ফেলেন।

বাকি বিশ্বের জন্য ভালো খবর হচ্ছে, করোনাভাইরাস মহামারিতে সাড়া দেওয়ার জন্য তাইওয়ান গত তিন মাসে যে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে তা অনুসরণ করা। তাইওয়ান রোগের বিস্তারের গতি ও এর প্রভাব কমাতে সক্ষম হয়েছে।

প্রাথমিক স্তরের ভ্রমণের বিধিনিষেধ, আগ্রাসী পরীক্ষা, করোনাভাইরাস রোগীর সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের শনাক্ত করা এবং কঠোর কোয়ারেন্টিন বা পৃথক্‌করণ বিধিমালা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সর্বজনীন স্বাস্থ্যসেবা, জনস্বাস্থ্যের প্রতিক্রিয়ার জন্য পরিষ্কার ব্যবস্থাপনার কাঠামো এবং জনগণকে সম্পৃক্ত করতে সক্রিয় যোগাযোগও সাহায্য করতে পারে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) পক্ষ থেকে যদিও চীন থেকে শিক্ষা নেওয়ার কথা বলা হচ্ছে তবুও স্বাস্থ্য খাতের বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন তাইওয়ান মহামারি মোকাবিলায় পশ্চিমাসহ সব আক্রান্ত দেশের জন্য আরও ভালো মডেল হতে পারে।

সংক্রামক রোগের শীর্ষস্থানীয় বিশেষজ্ঞ এবং সেন্ট্রাল এপিডেমিক কমান্ড সেন্টারে বিশেষজ্ঞের পরামর্শদাতা প্যানেলের আহ্বায়ক চ্যাং শান-চয়েন বলেন, ‘আমাদের প্রতিক্রিয়া সাফল্যের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ কারণ স্বচ্ছতা। চীনের মতো স্বৈরাচারী ব্যবস্থায় প্রতি নাগরিককে বাড়িতে থাকতে বললে তারা তা পালন করবে। কিন্তু মুক্ত ও গণতান্ত্রিক দেশগুলোতে তা সহজে অর্জন করা যায় না।’

সুনির্দিষ্ট কৌশল : স্ট্যানফোর্ড হেলথ পলিসির বিশ্লেষণ অনুযায়ী, সার্স ভাইরাসের সময় গৃহীত সুনির্দিষ্ট কৌশল ও পরিকল্পনামাফিক শুরুতেই গৃহীত ব্যবস্থাকেই তাইওয়ানের সফলতার জন্য কৃতিত্ব দেওয়া যায়। সার্স আক্রমণের পর তাইওয়ানের পক্ষ থেকে ন্যাশনাল হেলথ কমান্ড সেন্টার স্থাপন করা হয়। এর একটি বিশেষ শাখাকে বড় ধরনের মহামারির সময় কী ধরনের প্রতিক্রিয়া দেখাতে হবে তার জন্য দায়িত্ব দেওয়া হয়। এটি সরাসরি, স্বচ্ছ যোগাযোগের জন্য একটি কেন্দ্রীয় কমান্ড পোস্ট হিসেবে কাজ করে। এটি করোনা আক্রান্তদের শনাক্ত করা ও কোয়ারেন্টিনে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে শুরু করে। তাইওয়ান আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের সেন্টার এপিডেমিক কমান্ড সেন্টার (সিইসিসি) সক্রিয় করে গত ২০ জানুয়ারিতে। এতে ইতিমধ্যে বিদ্যমান নীতি ও কৌশল কার্যকর করতে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করে। গত দুই মাসে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে নেতৃত্বে দ্রুততার সঙ্গে সিইসিসি ১২৪টি কার্যক্রম সম্পন্ন করে। এ কার্যক্রমগুলোর মধ্যে বেশ কিছু কার্যক্রম একাধিক সংস্থার সহযোগিতায় সম্পন্ন হয়। এর মধ্যে ছিল আকাশপথ ও সমুদ্রপথে সীমানা নিয়ন্ত্রণ, করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্তকরণ, সন্দেহভাজন রোগীকে কোয়ারেন্টিন করা, বরাদ্দ সম্পদ ব্যবস্থাপনা, দৈনিক সংবাদ ব্রিফিং, ভুয়া তথ্য শনাক্তকরণ এবং ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসা ও পরিবারের জন্য অর্থনীতি নীতিমালা ঠিক করা।

বিগ ডেটা ও প্রযুক্তি : করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবিলায় বিগ ডেটা এবং প্রযুক্তি সংযুক্ত করে তাইওয়ান সরকারের পক্ষে প্রচুর কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া সম্ভব হয়েছে। একদিনেই তাইওয়ান সরকার ন্যাশনাল হেলথ ইনস্যুরেন্স অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অ্যান্ড ইমিগ্রেশন এজেন্সির কাছ থেকে যাত্রীদের ১৪ দিনের ভ্রমণের তথ্য বের করে। এখান থেকে রোগী শনাক্ত করার কাজ করে। এ ছাড়া নাগরিকদের বাড়ির নিবন্ধন পদ্ধতি ও বিদেশিদের আগমন সংক্রান্ত তথ্য বিশ্লেষণ করে ঝুঁকিপূর্ণ রোগী শনাক্ত করে। ঝুঁকিপূর্ণ ব্যক্তিদের শনাক্তের পর কোয়ারেন্টিন ও তাদের মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নজরদারির ব্যবস্থাও করে তাইওয়ান সরকার। সরকারের পক্ষ থেকে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা নির্ধারণ করা এবং বাজারে মাস্কের সরবরাহের বিষয়টিও লাইভ ম্যাপের মাধ্যমে নির্ধারণ করা হয়।

তথ্য দেওয়ায় স্বচ্ছতা : দৈনিক সংবাদ ব্রিফিং ছাড়াও সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা নিয়মিত সম্ভাব্য সব অনলাইন ব্যবস্থার মাধ্যমে ভ্রমণ, ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য সুপারিশসহ নানা ঝুঁকি সম্পর্কে জনগণের সামনে ঘোষণা নিয়ে হাজির হন। পাবলিক ও প্রাইভেট খাত থেকেও সরকারকে নানা পরামর্শ দিয়ে সহযোগিতা করা হয়। কার্যত প্রতিটি দোকান, রেস্তোরাঁ অফিস ভবনে ঢোকার আগে হ্যান্ড স্যানিটাইজার এবং তাপমাত্রা মাপার ব্যবস্থা করা হয়। এর বাইরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে ভুয়া তথ্যের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

সম্পদ বরাদ্দ : করোনাভাইরাস সংক্রমণের শুরুতেই সরকারের পক্ষ থেকে রপ্তানি বন্ধ করে উৎপাদনে জোর দেওয়া হয়। তহবিল বরাদ্দের পাশাপাশি সেনাসদস্যদের উৎপাদন কাজে জোর দিতে বলা হয়। জানুয়ারি মাসের মধ্যেই তাইওয়ান ৪ কোটি ৪০ লাখ সার্জিক্যাল মাস্ক, ১৯ লাখ এন ৯৫ মাস্ক মজুত করে। এ ছাড়া আইসোলেশন রুমও ঠিক করে রাখা হয়।

শিক্ষা ও প্রস্তুতি : ইতালি, ইরান, ফ্রান্স, স্পেন এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাস সংক্রমণের হার বাড়ছে। বিশ্বব্যাপী সরকারগুলো তাদের বিলম্বিত প্রতিক্রিয়ার জন্য সমালোচিত হচ্ছে। অনেক দেশ যথাযথ ব্যবস্থা নেয়নি। কিন্তু তাইওয়ান সে ভুল করেনি। অতীত থেকে শিক্ষা নিয়ে শুরুতেই যথাযথ ব্যবস্থা নিয়েছে বলে তাইওয়ানে সংক্রমণের হার কম।

৬০ বছর বয়সে কুমারত্ব ঘুচল কংগ্রেস নেতার
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : অবশেষে কুমারত্ব ঘুচল ভারতের ঐতিহ্যবাহী ও প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মুকুল ওয়াসনিকের। ৬০ বছর বয়সে এসে বিয়ে করলেন এই রাজনীতিক।
নিজের বহুদিনের বান্ধবী রাভিনা খুরানাকে বিয়ে করেছেন। রাজধানী নয়াদিল্লির একটি পাঁচ তারকা হোটেলে গতকাল ৯ মার্চ সোমবার এক ঘরোয়া অনুষ্ঠানে তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন কংগ্রেসের সিনিয়র বেশকিছু নেতা। তার মধ্যে রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট, কংগ্রেসের সিনিয়র নেতা আহমেদ প্যাটেল প্রমুখ। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার। মুকুল ওয়াসনিক হলেন মহারাষ্ট্রের রাজনীতিক বালাকৃষ্ণার ছেলে।

 

করোনাভাইরাস : চীন পৃথকী হোটেল ধসে নিহত-৬
                                  

আন্তর্জাতিক  ডেস্ক : শনিবার চীনা শহর কোয়ানজুতে একটি হোটেলটি করোনাভাইরাস কোয়ারানটাইন সুবিধা হিসাবে ব্যবহৃত হওয়ার পরে কমপক্ষে ছয়জন মারা গেছেন এবং ২৮ জন নিখোঁজ রয়েছেন। উদ্ধারকর্মীরা এখনও দক্ষিণাঞ্চলীয় ফুজিয়ান প্রদেশের পাঁচতলা জঞ্জিয়া হোটেলের ধ্বংসস্তূপের সন্ধান করছেন। কর্তৃপক্ষ বলছে, ভবনটি ধসে যখন সত্তরজন লোক ভবনে ছিল এবং কয়েকজনকে উদ্ধার করা হয়েছে, কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে শনিবার ৭ মার্চ সন্ধ্যায় এই ধসের কারণ কী তা এখনও পরিষ্কার নয়।

রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম বলছে যে হোটেলটি এমন কাউন্টারেন্টাইন সুবিধা হিসাবে ব্যবহার করা হচ্ছে যারা করোনভাইরাস রোগীদের সাথে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ করেছিলেন এমন লোকদের পর্যবেক্ষণ করছিল। 
জানা গেছে, বিল্ডিংয়ের ৭১ জন লোকের মধ্যে ৫৮ জন পৃথক অবস্থায় ছিল।

চীন নববর্ষের আগে থেকেই এই ভবনের প্রথম তলটি সংস্কারের কাজ চলছিল, সরকারী বার্তা সংস্থা সিনহুয়া জানিয়েছে, পুলিশ ভবনের মালিককে তলব করেছে। 
হোটেলটি ২০১৮ সালে খবরে প্রকাশিত হয়েছে এবং এতে ৮০ অতিথি কক্ষ রয়েছে। কোয়ানজু শহরে প্রায় ১ হাজার কিলোমিটার দূরের উহান শহরে প্রথম এই ভাইরাসের ৪৭ টি কেস রেকর্ড হয়েছে।


একজন মহিলা বেইজিং নিউজ ওয়েবসাইটকে বলেছিলেন যে তার বোন সহ আত্মীয়স্বজনরা সেখানে আলাদা থাকতেন। "আমি তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারছি না, তারা তাদের ফোনের উত্তর দিচ্ছে না," তিনি বলেছিলেন। "আমিও [অন্য হোটেলে] কোয়ারান্টিনের আওতায় আছি এবং আমি খুব উদ্বিগ্ন, কী করণীয় তা আমি জানি না। তারা সুস্থ ছিল, তারা প্রতিদিন তাপমাত্রা নিয়েছিল এবং পরীক্ষায় দেখা গেছে যে সবকিছু স্বাভাবিক ছিল।"


শুক্রবার পর্যন্ত, ফুজিয়ান প্রদেশে করোন ভাইরাসের ২৯৬ টির নিশ্চিত হওয়া গেছে। ইতিমধ্যে ১০,৮১৯ জন লোককে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে কারণ তারা সংক্রামিত কারও সাথে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ করেছেন। শনিবার চীনে রিপোর্ট হওয়া নতুন মামলার সংখ্যা আগের দিন ৯৯ থেকে কমে ৪৪ এ নেমেছে। ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন বলছে যে বিশ্বব্যাপী ১০১,০০০ এরও বেশি লোক এখন ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে ৮০,০০০ এরও বেশি চীনে রয়েছে। প্রায় ৩,৫০০ লোক মারা গেছে - চীনা প্রদেশ হুবেইয়ের বেশিরভাগই যেখানে প্রকোপটির সূচনা হয়েছিল।

করোনাভাইরাস : উত্তর ইতালি ১৬ মিলিয়ন লোককে পৃথক করেছে
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :  ইতালির প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, কমপক্ষে ১৬ মিলিয়ন লোক এপ্রিলের প্রথম অবধি লম্বার্ডি অঞ্চলে এবং ১৪ টি প্রদেশে লকডাউনের আওতায় রয়েছে।নতুন করোন ভাইরাস ধারণের জন্য দেশটির প্রচেষ্টায় নাটকীয় ক্রিয়াকলাপ জিম, পুল, যাদুঘর এবং স্কি রিসর্টগুলি বন্ধ করে দেবে। বাধ্যতামূলক পৃথকীকরণের অধীনে বিবাহ এবং জানাজাও স্থগিত করা হয়।

ইতালি ইউরোপের সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ দেশ এবং শনিবার ৭ মার্চ ভাইরাসের সংক্রমণের প্রবণতা বৃদ্ধি পেয়েছে। 
আর্থিক কেন্দ্র মিলান এবং পর্যটন হটস্পট ভেনিসের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য নতুন পদক্ষেপগুলি ৩ এপ্রিল পর্যন্ত চলবে।
ইতালিতে নিহতের সংখ্যা ২৩০ পেরিয়ে গেছে, কর্মকর্তারা ২৪ ঘন্টার মধ্যে ৫০ জনেরও বেশি মৃত্যুর খবর পেয়েছেন।
শনিবার ৭ মার্চ নিশ্চিত হওয়া মামলার সংখ্যা ১,২০০ এরও বেশি বেড়েছে ৫,৮৮৩ তে।"আমরা আমাদের নাগরিকদের স্বাস্থ্যের গ্যারান্টি দিতে চাই।
আমরা বুঝতে পারি যে এই পদক্ষেপগুলি কখনও কখনও ছোট এবং
কখনও কখনও খুব বড় ত্যাগের জন্য চাপিয়ে দেবে," প্রধানমন্ত্রী জিউসেপ কন্টি আজ রবিবার ৮ মার্চ ভোরে বলেছিলেন।
"তবে এটি এমন একটি সময় যেখানে আমাদের অবশ্যই নিজের দায়িত্ব নিতে হবে।"
লোকেরা জরুরী প্রবেশাধিকার ব্যতীত পুরো উত্তর অঞ্চল লম্বার্ডিতে প্রবেশ করতে বা ছেড়ে দিতে অক্ষম।
মিলান এই অঞ্চলের প্রধান শহর। একই পদক্ষেপগুলি ভেনিস, পারমা এবং মোডেনাসহ ১৪ টি প্রদেশে প্রযোজ্য
প্রায় ১৬ মিলিয়ন লোককে প্রভাবিত করে।প্রধানমন্ত্রী কন্টি বলেছেন, ক্ষতিগ্রস্ত প্রদেশগুলি হলেন মোডেনা, পারমা, পিয়াসেনজা,

রেজিও এমিলিয়া, রিমিনি, পেসারো এবং উরবিনো, আলেসান্দ্রিয়া, আস্তি, নোভারা, ভার্বানো কুসিও ওসোলা, ভেরসেলি, পদুয়া, ট্র্যাভিসো এবং ভেনিস।
এখন অবধি উত্তরের ইতালিতে প্রায় ৫০,০০০ মানুষ পৃথকীকরণ ব্যবস্থায় ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছিল।

কি ব্যবস্থা আছে? 
বিবাহ এবং জানাজাগুলি স্থগিত করা হয়েছে, পাশাপাশি ধর্মীয় এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানগুলি। সিনেমা, নাইট ক্লাব, জিম, সুইমিং পুল, 
যাদুঘর এবং স্কি রিসর্ট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। রেস্তোঁরা এবং ক্যাফে ০৬.০০ থেকে ১৮.০০ এর মধ্যে খুলতে পারে  
তবে গ্রাহকদের অবশ্যই কমপক্ষে এক মিটার দূরে বসে থাকতে হবে।
লোকদের যতটা সম্ভব বাড়ীতে থাকতে বলা হয়েছে, এবং যারা পৃথকীকরণ ভেঙেছেন তাদের তিন মাসের জেল হতে পারে।
ক্রীড়া প্রতিযোগিতা জনসাধারণের কাছাকাছি আসবে এবং ইতালির ফুটবল প্লেয়ার্স ইউনিয়নের সভাপতি সমস্ত ম্যাচ পিছিয়ে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

দেশে স্বাস্থ্য সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ইতালিকে ভাইরাস সংক্রমণ ব্যবস্থাতে দৃড় ভাবে মনোনিবেশ করার পরামর্শ দিয়েছে।
এই পরিকল্পনাগুলি চীনের জোর করে লক্ষ লক্ষ লোকের পৃথকীকরণের প্রতিধ্বনিত করে যা ডাব্লুএইচও ভাইরাসটির বিস্তারকে থামিয়ে দেওয়ার জন্য প্রশংসা করেছে।
বিশিষ্ট ইতালীয় রাজনীতিবিদ নিকোলা জিঙ্গারেটি শনিবার ৭ মার্চ বলেছিলেন যে,ভাইরাসের জন্য তিনি ইতিবাচক পরীক্ষা করেছেন। 
"আমি ভাল আছি তবে আগামী কয়েকদিন আমাকে বাড়িতে থাকতে হবে," ইতালির কেন্দ্রীয় বাম ডেমোক্র্যাটিক পার্টির (পিডি) নেতা
এক ফেসবুক পোস্টে বলেছেন। দেশটি বলেছে যে ক্রমবর্ধমান প্রাদুর্ভাবের বিরুদ্ধে লড়াই করার লক্ষ্যে অবসরপ্রাপ্ত চিকিৎসকদের নিয়োগ শুরু করবে।
`সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার` :
অন্য কোথাও ইরান প্রায় ৬০০০ সংক্রমণ এবং ১৪৫ জন মারা যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে এবং বিশ্বব্যাপী মামলার সংখ্যা ১০০,০০০ পেরিয়ে গেছে বলে কর্মকর্তারা বলেছেন।
একজন দ্বিতীয় সংসদ সদস্য ইরানের মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ছিলেন, যেখানে স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা আশঙ্কা করেছেন যে মামলার সংখ্যা আসলে অনেক বেশি হতে পারে।

এখনও পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে প্রায় ৩,৫০০ করোনাভাইরাস মৃত্যুর রেকর্ড করা হয়েছে। বেশিরভাগই চীনে ছিল, যেখানে ডিসেম্বরে ভাইরাসের উদ্ভব হয়েছিল। ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন (ডব্লুএইচইও) এর প্রধান, টেড্রোস অ্যাডানম ঘেরবাইয়াসস ভাইরাসটির বিস্তারকে "গভীরভাবে সম্পর্কিত" বলে অভিহিত করেছেন এবং সমস্ত দেশকে এই পয়েন্টটিকে "তাদের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার" তৈরি করার আহ্বান জানিয়েছেন।

অন্যান্য উন্নতিতে:
চীনা শহর কোয়ানজুতে করোনভাইরাস কোয়ারানটাইন সুবিধা হিসাবে ব্যবহৃত একটি হোটেল ভেঙে পড়ে - আটকে পড়া ৭০ জনের মধ্যে ৪৭ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। 
পোপ ফ্রান্সিস ৮ মার্চ রবিবারের অ্যাঞ্জেলাস প্রার্থনাটি সরাসরি জনসমাগমের হাত থেকে বাঁচতে সরাসরি প্রবাহে পাঠাবেন।
কানাডার মহিলা ওয়ার্ল্ড আইস হকি চ্যাম্পিয়নশিপ বাতিল করা হয়েছে সৌদি আরবে, ইসলামের পবিত্রতম স্থান মক্কার পবিত্র কাবা প্রবেশের পথ অবরুদ্ধ রয়েছে।
বিশ্বব্যাপী মামলায় সর্বশেষতম কী?
রবিবার ৮ মার্চ দক্ষিণ কোরিয়ার আধিকারিকরা বলেছেন, গত দিনে ৩৬৭ টি নতুন মামলা হয়েছে, যা দেশের মোট মামলা ৭১৩৪ জনে দাঁড়িয়েছে। 
চীন জানুয়ারির পর থেকে একদিনেই তার সর্বনিম্ন সংক্রমণের খবর দিয়েছে। ভাইরাস থেকে সেখানে ২৭ টি নতুন মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে,
এগুলি সবই ছিল উহানের যেখানে প্রাদুর্ভাব শুরু হয়েছিল।
ইরানে গত দিন করোন ভাইরাসের ফলে ২১ জন মারা গিয়েছিল এবং দেশে ১৬০০০ এরও বেশি লোক পরীক্ষা করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।
ইরানে ডব্লিউএইচওর প্রতিনিধি ড। ক্রিস্টোফ হামেলম্যান বলেছেন, ইরান তার হাসপাতালগুলিতে অভাবনীয় অগ্রগতি করছে, 
প্রতিটি প্রদেশে চিকিত্সার জন্য সহজলভ্য সুবিধা রয়েছে। ২১ জন লোক এই রোগের জন্য ইতিবাচক পরীক্ষার পরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ৩৫৩৩ যাত্রী ও
ক্রু সহ একটি ক্রুজ জাহাজ সান ফ্রান্সিসকোর কাছে উপকূলে রাখা হয়েছে।
ওয়াশিংটন রাজ্য আরও দুটি প্রাণহানির খবর জানিয়েছে, যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নিহতের সংখ্যা ১৯ জনে উন্নীত করেছে।
নিউইয়র্কের ক্ষেত্রে শুক্রবার ৬ মার্চ ৪৪ থেকে বেড়ে ৭৬ জন এবং গভর্নর অ্যান্ড্রু কুওমো জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছিলেন।
আর্জেন্টিনায় ৬৪ বছর বয়সী এক ব্যক্তি মারা যাওয়ায় দক্ষিণ আমেরিকা তার প্রথম করোনভাইরাস মৃত্যুর রেকর্ড করেছিল। 
অস্ট্রেলিয়ায়, ৮০ এর দশকের একজন ব্যক্তি ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হয়ে সেখানে মারা
যাওয়া তৃতীয় ব্যক্তি হন।
অন্যান্য দেশের মধ্যে মোট মামলার সংখ্যা বৃদ্ধির কথা বলা হয়েছে: ফ্রান্স (৯৪৯); জার্মানি (৭৯৫); স্পেন (৪৪১);
ইউ কে (২০৬); নেদারল্যান্ডস (১৪৪)। কলম্বিয়া, বুলগেরিয়া, কোস্টা রিকা, মাল্টা, মালদ্বীপ এবং প্যারাগুয়ে তাদের প্রথম মামলা করেছে।
হুবেই প্রদেশের উহান শহরে এর উত্থানের পর থেকে ৮০,০০০ এরও বেশি লোক চীনে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে।

 
করোনাভাইরাসে ইতালি মৃত্যুর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি দৈনিক লাফের রিপোর্ট
                                  
ডেস্ক রিপোর্ট :  প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর থেকে সেখানে সবচেয়ে বেশি দৈনিক প্রাণহানির পরে ইতালির নতুন করোনাভাইরাস থেকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে 
দাঁড়িয়েছে ১৯৭ -এ। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ৪৯ জন মারা গিয়েছিলেন এবং মোট ৪,৬০০ টিরও বেশি মামলা হয়েছে বলে জানা গেছে।
দেশটিতে এখন চীনের বাইরে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে, যেখানে ডিসেম্বরে ভাইরাসের উদ্ভব হয়েছিল। ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন বলেছে যে,
বিশ্বব্যাপী প্রায় ১০ লক্ষ মানুষ করোনভাইরাসকে সংকুচিত করেছেন।
চীনে সংখ্যাগরিষ্ঠ - প্রায় তিন হাজারেরও বেশি মানুষ মারা গেছে।
যেমনটি ঘটেছিল: বিশ্বব্যাপী করোন ভাইরাস সংক্রমণ ১০০,০০০ এর কাছাকাছি ডাব্লুএইচওর মহাপরিচালক টেড্রোস অ্যাধনম ঘেরবাইয়াসস ভাইরাসটির
বিস্তারকে "গভীরভাবে সম্পর্কিত"বলে অভিহিত করেছেন এবং সমস্ত দেশকে "তাদের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার" রোধ করার আহ্বান জানিয়েছেন।

গতকাল শুক্রবার ৬ মার্চ এক বিবৃতিতে কর্মকর্তারা রেকর্ড দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা ঘোষণা করেন। তারা বলেছে যে স্বাস্থ্য অধিকারিরা "মৃত্যুর প্রকৃত কারণ প্রতিষ্ঠা না করে" এই সংখ্যাটি আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিত করা যায়নি। জাতীয় স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট বলেছে যে মারা গেছে তাদের গড় বয়স ৮১ বছর, বেশিরভাগই অন্তর্নিহিত স্বাস্থ্য সমস্যায় ভুগছিলেন। যারা মারা গেছেন তাদের মধ্যে আনুমানিক ৭২% পুরুষ ছিলেন।

সরকারী তথ্য অনুসারে, নিশ্চিত করোনভাইরাস মামলার ৪.২৫% মারা গেছে, যা বিশ্বের সর্বোচ্চ হার। ইতালি বিশ্বের প্রাচীনতম জনসংখ্যার একটি। সরকার এই সপ্তাহে সমস্ত স্কুল ১০ দিনের জন্য বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে কারণ এর প্রাদুর্ভাব রোধে লড়াই করা হচ্ছে। সেরি এ ফুটবলের ম্যাচগুলি সহ সমস্ত পেশাদার খেলাধুলাও এক মাসের জন্য বন্ধ দরজার পিছনে খেলা হবে। বিবিসির রোমের সংবাদদাতা মার্ক লোয়েন টুইট করেছেন যে, ইটালিয়ান কারাডোনা শহর কোডোগনোর এক বাসিন্দা তাকে অনেক বিরক্তিকর বিষয় বলেছিলেন যে সেখানে জমায়েতের  সীমাবদ্ধতার প্রয়োজনের কারণে করোনভাইরাস ভুক্তভোগীদের জন্য শেষকৃত্যের অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না। "যাজকরা দু`দফা প্রার্থনা করছেন - এবং এটিই।" কেবল চীন, দক্ষিণ কোরিয়া এবং ইরানেই ইতালির চেয়ে বেশি করোনভাইরাস মামলার খবর পাওয়া গেছে।

সর্বশেষ আপডেটগুলি কি কি?
ভ্যাটিকান, সার্বিয়া, স্লোভাকিয়া, পেরু এবং টোগো ভাইরাসের প্রথম ক্ষেত্রে তাদের রিপোর্ট করেছে
৮০ এর দশকের একজন ব্যক্তি যুক্তরাজ্যের দ্বিতীয় ব্যক্তি হয়েছিলেন যিনি করোনভাইরাসটির জন্য ইতিবাচক পরীক্ষার পরে মারা যান।
গ্লাসগো স্কটিস্তন স্টেডিয়ামে ফ্রান্সের সাথে স্কটল্যান্ড উইমেন সিক্স নেশনস ম্যাচ একটি হোম খেলোয়াড় করোন ভাইরাস সংকুচিত হওয়ার পরে স্থগিত করা হয়েছে।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এই প্রাদুর্ভাবের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য ৮.৩ বিলিয়ন ডলার (৬.৪ বিলিয়ন ডলার) জরুরী বিলটিতে স্বাক্ষর করেছেন। 
ফ্রান্স স্কুল বন্ধের ঘোষণা দেওয়ার ক্ষেত্রে সর্বশেষতম দেশে পরিণত হয়েছে, যা দেশের সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ অঞ্চলগুলিকে প্রভাবিত করবে কানাডা এমন একজন ব্যক্তির প্রথম "সম্প্রদায়" মামলাটি নিশ্চিত করেছে যে, সম্প্রতি দেশ ছাড়েনি এবং আক্রান্ত ব্যক্তির সাথে তার পরিচিত যোগাযোগ ছিল না।
করোনাভাইরাস উদ্বেগের মধ্যে ডক্টর যদি ডাক্তাররা শিল্প ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দেওয়ার পরে একটি ক্রুজ জাহাজ মাল্টা থেকে সরে যেতে বাধ্য হয়
টেক্সাসের অস্টিনে সাউথ বাই সাউথ ওয়েস্ট (এসএক্সএসডাব্লু) সংগীত ও প্রযুক্তি উত্সবটি প্রাদুর্ভাবের সাথে সম্পর্কিত ক্রমবর্ধমান উদ্বেগের কারণে বাতিল করা হয়েছে।
করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ৩১১৯
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : করোনা ভাইরাসে প্রতিদিন মৃতের সংখ্যা  বাড়ছে । আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, পুরো বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাসে এখন পর্যন্ত ৩ হাজার ১১৯ জন মারা গেছে। এর মধ্যে চীনেই মৃতের সংখ্যা ২ হাজার ৯৪৪ জন।

চীনের বাইরে মারা গেছে ১৭৫ জন। চীনের বাইরে সবচেয়ে বেশি মারা গেছে ইরানে ৬৬ জন, এরপর ইতালিতে ৫২, দক্ষিণ কোরিয়ায় ২৮, জাপান ৬, ডায়মন্ড প্রিন্সেস জাহাজে ৭, হংকং ২, যুক্তরাষ্ট্র ৬, ফ্রান্স ৩, ফিলিপাইন, থাইল্যান্ড, সান ম্যারিনো, অস্ট্রেলিয়া ও তাইওয়ানে একজন করে মারা গেছে।

এ ভাইরাসে বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা ৯০ হাজার ৪৪১ জনে দাঁড়িয়েছে। শুধু চীনেই ৮০ হাজার ১৫১ জন। চীনের বাইরে আক্রান্তের সংখ্যা ১০ হাজার ২৯০ জন।

চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন জানায়, দেশটিতে নতুন করে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছে ১২৫ জন এবং মারা গেছে ৩২ জন। এ পর্যন্ত আক্রান্ত ৮০ হাজার ১৫১ জন এবং মারা গেছে ২ হাজার ৯৪৪ জন।

সারা বিশ্বে আক্রান্তদের মধ্যে ৭ হাজার ৯৪ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এখন পর্যন্ত ৪৮ হাজার ১২৮ জন সুস্থ হয়েছে।

চীনের সব প্রদেশসহ বিশ্বের ৭০টিরও বেশি দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। চীনের বাইরে এ পর্যন্ত ১০ হাজার ২৯০ জন শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে দক্ষিণ কোরিয়ায় ৪ হাজার ৩৩৫ জন, যা চীনের বাইরে সর্বোচ্চ।

অষ্ট্রেলিয়ায় দুই বিমানে মুখোমুখি সংঘর্ষ : নিহত-৪
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : অষ্ট্রেলিয়ায় মধ্য আকাশে দুটি ছোট বিমানের মুখোমুখি সংঘর্ষে চার জন নিহত হয়েছে।

পুলিশ বলছে, দুই ইঞ্জিন বিশিষ্ট বিমান দুটিতে একজন করে পাইলট ও যাত্রী ছিল। ম্যাঙ্গালোর শহরের চার হাজার ফিট উপরে সংঘর্ষের পর বিমান দুটি বিধ্বস্ত হয়।
ছবিতে বিমান দুটির ধ্বংসাবশেষ জমি ও গাছপালার ওপর পড়ে থাকতে দেখা গেছে।
পুলিশ আরো বলছে, উভয় বিমান বৈধভাবেই ওই এলাকায় উড়ছিল। তবে দুর্ঘটনার তদন্ত চলছে।
তিনি বলেন, একটি বিমান সংঘর্ষের কিছু আগে কাছের বিমানবন্দর থেকে উড্ডয়ন করে। কিন্তু অন্য বিমানটি কোথা থেকে এসেছে তা এখনও জানা যায়নি।

উহানফেরত ৩১২ জন বাড়ি যাবেন আগামী শনিবার
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : চীনের উহান শহর থেকে ফিরিয়ে আনা ৩১২ বাংলাদেশিকে আগামী শনিবার বাড়ি ফিরে যাওয়ার অনুমতি দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মো. জাহিদ মালেক।

আজ বৃহস্পতিবার ঢাকার বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টারে এক অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানান তিনি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, চীন থেকে ফেরা এই বাংলাদেশিরা ‘কোয়ারেন্টিনের শেষ পর্যায়ে’ আছেন। আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি তাদের পর্যবেক্ষণের ১৪ দিন পূর্ণ হবে। সব পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ১৫ তারিখ আমরা তাদের ছেড়ে দেব। এখানে আর কোনো সমস্যা নেই। তাদের সবাই ভালো আছেন।

করোনাভাইরাস নিয়ে দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে জানিয়ে তা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, পরীক্ষা নিরীক্ষায় প্রমাণ হওয়ার আগে এ ধরনের কথা ছড়ানো ঠিক নয়।

প্রসঙ্গত, চীন থেকে বিভিন্ন দেশে ভাইরাস ছড়াতে থাকায় এ ভাইরাস নিয়ে বৈশ্বিক জরুরি অবস্থা জারি করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বাংলাদেশসহ কয়েকটি দেশ তাদের নাগরিকদের উহান থেকে দেশে ফেরানোর উদ্যোগ নেয়।

এরপর গত ১ ফেব্রুয়ারি একটি বিশেষ বিমানে করে দেশে ফেরেন ৩১২ জন বাংলাদেশির প্রথম দলটি। আটজনের শরীরে জ্বর থাকায় তাদের ঢাকার দুটি হাসপাতালে রেখে বাকিদের আশকোনা হজক্যাম্পে ১৪ দিনের পর্যবেক্ষণে পাঠানো হয়।

তাদের মধ্যে ৩০১ জন এখন আশকোনা হজক্যাম্পে আছেন, বাকি ১১ জন আছেন ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে। কারও মধ্যেই করোনাভাইরাসের কোনো উপসর্গ দেখা যায়নি বলে জানিয়ে আসছে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট- আইইডিসিআর।

করোনায় ১ দিনেই ৯০ মৃত্যু, প্রাণহানী বেড়ে ৮১১
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : করোনা ভাইরাসের চীনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮১১-তে। আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৩৭ হাজার ১৯৮ জন মানুষ। রোববার (৯ ফেব্রুয়ারি) চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশনের বরাত দিয়ে এসব তথ্য জানায় সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।


কর্তৃপক্ষ জানায়, গতকাল শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) মধ্যরাত পর্যন্ত চীনে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৮১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত শুক্রবার থেকে শনিবার মধ্যরাতের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৯০ জনের। এরমধ্যে ৮১ জন হুবেই প্রদেশের। 

চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে শহরটির বাসিন্দাদের মৃত্যুর খবর বেশি শোনা যাচ্ছিল এতদিন। সেখানে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও জাপানের দুই নাগরিকের মৃত্যুর খবর জানায় কর্তৃপক্ষ।

এর বাইরে হংকং এবং ফিলিপাইনেও দুজনের মৃত্যু হয়েছে।

চীন ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭২২
                                  

বেইজিং, ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ (আন্তর্জাতিক  ডেস্ক) : চীনের করোনা ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে আজ শনিবার ৭২২-এ পৌঁছেছে।

এ সংখ্যা হংকং-এর মূল ভূখন্ডে দুই দশক আগে সার্স ভাইরাস আক্রান্তে মৃতের সংখ্যাকে ছাড়িয়ে গেছে।

জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশনের তথ্যানুযায়ী আরো মোট ৮৬ জনের এ ভাইরাসে মৃত্যু হয়েছে, তবে বিশেষভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হুবেই প্রদেশে পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। হুবেই প্রদেশে গত ডিসেম্বর মাসে এ ভাইরসের উৎপত্তি হয়।
কমিশনের প্রতিদিনের নতুন আপডেট-এ আরো ৩ হাজার ৩৯৯ জন নতুন রোগী সনাক্তের খবর নিশ্চিত করেছে। তথ্যে বর্তমানে সাড়া দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে ৩৪ হাজার।
করোনা ভাইরাস গোত্রের সিভিয়ার একুইট রেসপিরেটরি সিন্ড্রোম (সার্স) আক্রান্তে ২০০২ থেকে ২০০৩-এ চীনের মূলভূখন্ড ও হংকং-এ মোট ৬৫০ জনের মৃত্যু হয়।.
সার্স ভাইরাসে সাড়া বিশ্বের অন্যান্য দেশে মোট ১২০ জন মারা যায়।
হুবেই প্রদেশ ও প্রাদেশিক রাজধানী উহানের ৫৬ মিলিয়ন লোককে বিচ্ছিন্ন রাখা হোলেও চীন নতুন এই ভাইরাসের সঙ্গে যুদ্ধ করে যাচ্ছে।
উৎপত্তিস্থল থেকে দূরবর্তী নগরীর লোকদেরও বাড়ির ভেতরে রাখার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে, সীমিতসংখ্যক লোককে ঘর থেকে বের হতে দেয়া হচ্ছে।
শুক্রবার উহানে গত ডিসেম্বরে এই ভাইরাসের প্রথম সতর্ককারি ৩৪ বছর বয়সি চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। তাকে সতর্ক করার কারণে শাস্তি পেতে হয়েছিল। ওই চিকিৎসকের মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে আসে এবং সরকারের সংকট মোকাবিলায় ব্যর্থতা ক্ষোভের সঞ্চার করেছে।
আরো প্রায় ২৪টি দেশে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় বিভিন্ন দেশের সরকার চীন থেকে তাদের নাগরিকদের ফিরে আসা বন্ধ করে দিয়েছে এবং চীন ভ্রমণে নিরুৎসাহিত করছে। আবার কোনো কোনো দেশ নাগরিকদের চীন ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশনা দিয়েছে। বড় এয়ারলাইন সমূহ চীন থেকে আসা ও যাওয়ার ফ্লাইটসমূহ বাতিল করেছে।
জাপানে বিচ্ছিন্ন রাখা এক প্রমোদ তরীর ৬১জনের করনাভাইরাস সনাক্ত হয়েছে। বিপূল সংখ্যক যাত্রী ও ক্রু নিয়ে জাহাজটি দুই সপ্তাহ ধরে বিচ্ছিন্নতার মুখোমুখি হয়।

 

সাক্ষ্য দেয়ায় ২ কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করলেন ট্রাম্প
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :  মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসনের মামলায় সাক্ষ্য দেয়ায় দুইজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

বরখাস্ত কর্মকর্তারা হলেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের মার্কিন প্রতিনিধি গর্ডন সন্ডল্যান্ড এবং ইউক্রেন বিষয়ক শীর্ষ বিশেষজ্ঞ লেফট্যানেন্ট কর্ণেল আলেক্সান্ডার ভিন্ডম্যান। খবর বিবিসির।

এদিকে গর্ডন সন্ডল্যান্ড এবং ট্যানেন্ট কর্ণেল আলেক্সান্ডার ভিন্ডম্যান দুজনই বরখাস্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গত বুধবার মার্কিন সিনেটে অভিশংসনের অভিযোগ থেকে অব্যাহতি পান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর এ কারণে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেয়া অনেক কর্মকর্তারই রদবদল অথবা বরখাস্ত হতে পারেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

২০১৮ সালের জুলাই মাসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির জেলেনস্কির একটি ফোনালাপ ফাঁসের পর থেকেই বিতর্ক শুরু হয়। অভিযোগ উঠে আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে নিজের সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেনের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরুর জন্য জেলেনস্কিকে চাপ দেন ট্রাম্প। তাছাড়া তার বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হলে সেটাতেও বাঁধা প্রদান করেন ট্রাম্প। এই দুই অভিযোগ প্রমাণিত হবার পর মার্কিন কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে অভিশংসিত হন ট্রাম্প। তবে এই অভিযোগ শুরু থেকেই অস্বীকার করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ১০০ আসনের সিনেটে ট্রাম্পকে ক্ষমতা থেকে সরাতে প্রয়োজন ছিল দুই-তৃতীয়াংশ ভোটের। কিন্তু সিনেটে ডেমোক্র্যাট সিনেটর মাত্র ৪৭। আর রিপাবলিকানরা ৫৩ হওয়ায় ট্রাম্প শেষ পর্যন্ত খালাস পেলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

 

 


   Page 1 of 337
     আন্তর্জাতিক
সারাবিশ্বে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৩৭৬৮৬
.............................................................................................
সৌদিতে ৩ দফা ক্ষেপণাস্ত্র হামলা
.............................................................................................
করোনাভাইরাসে সারা বিশ্বে মৃত্যুর সংখ্যা ৩০৮৮০
.............................................................................................
করোনাভাইরাসের প্রকোপের মাঝেই ইসরাইল থেকে অস্ত্র কিনছে ভারত
.............................................................................................
সারাবিশ্বে করোনাভাইরাসে মৃত্যু সংখ্যা ২৭৩৬০ জন
.............................................................................................
চীনের পার্শ্ববর্তী দেশ তাইওয়ান যেভাবে করোনায় সচেতন
.............................................................................................
৬০ বছর বয়সে কুমারত্ব ঘুচল কংগ্রেস নেতার
.............................................................................................
করোনাভাইরাস : চীন পৃথকী হোটেল ধসে নিহত-৬
.............................................................................................
করোনাভাইরাস : উত্তর ইতালি ১৬ মিলিয়ন লোককে পৃথক করেছে
.............................................................................................
করোনাভাইরাসে ইতালি মৃত্যুর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি দৈনিক লাফের রিপোর্ট
.............................................................................................
করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ৩১১৯
.............................................................................................
অষ্ট্রেলিয়ায় দুই বিমানে মুখোমুখি সংঘর্ষ : নিহত-৪
.............................................................................................
উহানফেরত ৩১২ জন বাড়ি যাবেন আগামী শনিবার
.............................................................................................
করোনায় ১ দিনেই ৯০ মৃত্যু, প্রাণহানী বেড়ে ৮১১
.............................................................................................
চীন ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭২২
.............................................................................................
সাক্ষ্য দেয়ায় ২ কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করলেন ট্রাম্প
.............................................................................................
আমেরিকান পণ্যে শুল্ক কমাল চীন
.............................................................................................
করোনাভাইরাস : চীনের বাইরে ফিলিপিন্সে প্রথম মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে
.............................................................................................
চীন থেকে আগতদের ঠেকাতে আমেরিকা ও অস্ট্রেলিয়া সীমান্ত বন্ধ
.............................................................................................
উহানে রাস্তায় লাশ আতঙ্কিত মানুষ মৃতের সংখ্যা ২১৩
.............................................................................................
আটকে থাকা ২৩ শিশুকে উদ্ধার করলো পুলিশ
.............................................................................................
ইইউ’র সঙ্গে যুক্তরাজ্যের ৪৭ বছরের সম্পর্কের অবসান
.............................................................................................
ক্যানবেরাতে জরুরি অবস্থা জারি
.............................................................................................
ব্রেক্সিট কার্যকর হচ্ছে আজ, পরিবর্তন আসবে আজকের পর থেকে
.............................................................................................
করোনাভাইরাস: মহামারির আশঙ্কা, বিশ্বজুড়ে আসতে পারে জরুরি অবস্থা
.............................................................................................
৪৮ ঘণ্টায় ১ হাজার শয্যার হাসপাতাল নির্মাণ করলো চীন
.............................................................................................
চীনের ২৯ প্রদেশে বিস্তার
.............................................................................................
চীন ফেরত নাগরিকদের তালিকা তৈরির নির্দেশ
.............................................................................................
প্রধানমন্ত্রীর কর্মকাণ্ডে মুগ্ধ বিএনপির এমপি হারুন
.............................................................................................
চীনে করোনাভাইরাস: `উহান থেকে বাংলাদেশিদের ফিরিয়ে আনতে বিমান প্রস্তুত`
.............................................................................................
বেজোসের ফোন হ্যাকের নেপথ্যে
.............................................................................................
ভারতে করোনা ভাইরাসে এক তরুণীর মৃত্যু
.............................................................................................
মৃতের সংখ্যা ১০০ ছাড়ালো
.............................................................................................
পাকিস্তানে বিস্ফোরণে ধসে মৃত্যু ১১
.............................................................................................
ভারতে `বেইমান`দের গুলি করে মারার স্লোগান দিলেন বিজেপি মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর
.............................................................................................
আবদুল্লাহর পদত্যাগ, কাতারের নতুন প্রধানমন্ত্রী খালিদ
.............................................................................................
সোলেইমানি হত্যার নীল নকশাকারী বিমান দুর্ঘটনায় নিহত
.............................................................................................
আফগানিস্তানে ৮৩ আরোহী নিয়ে বিমান বিধ্বস্ত
.............................................................................................
দুর্গত উহানে প্রধানমন্ত্রী লী
.............................................................................................
ইরানের যাত্রীবাহী বিমান রানওয়ে থেকে ছিটকেএসে পড়লো হাইওয়েতে
.............................................................................................
বিক্ষোভের মধ্যে বাগদাদে মার্কিন দূতাবাসে রকেট হামলা করেছে
.............................................................................................
চীন ছুটির দিন বাড়িয়ে দেওয়ায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮০
.............................................................................................
থাইল্যান্ডে ভুল করে পুলিশের নিলামে বিক্রি হলো মাদক ভর্তি ট্রাক
.............................................................................................
ভারতে নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলনকে আলাদা মাত্রা দিয়েছে যে পাঁচটি দিক
.............................................................................................
মিথ্যা বলছে চীন, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ১ লাখ
.............................................................................................
চীনে ভাইরাস প্রতিরোধে পদক্ষেপ জোরদার
.............................................................................................
ভারতের `নিখোঁজ ৫৪` সৈন্যের রহস্য
.............................................................................................
ভারত-বাংলাদেশ চিত্র প্রদর্শনীতে বিপুল দর্শনার্থীর সমাগম
.............................................................................................
কাশ্মীর নিয়ে সর্বাত্মক যুদ্ধ শুরু হতে পারে : ইমরানের হুঁশিয়ারি
.............................................................................................
তুরস্কে শক্তিশালী ভূমিকম্পে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২১,আহত ১০০০
.............................................................................................

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মো: রিপন তরফদার নিয়াম ।
প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক : মফিজুর রহমান রোকন ।
নির্বাহী সম্পাদক : শাহাদাত হোসেন শাহীন ।

সম্পাদক কর্তৃক শরীয়তপুর প্রিন্টিং প্রেস, ২৩৪ ফকিরাপুল, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত । সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল কমপ্ল্যাক্স (৬ষ্ঠ তলা) । ২৮/১ সি টয়েনবি সার্কুলার রোড, মতিঝিল, বা/এ ঢাকা-১০০০ । জিপিও বক্স নং-৫৪৭, ঢাকা ।
ফোন নাম্বার : ০২-৯৫৮৭৮৫০, ০২-৫৭১৬০৪০৪
মোবাইল : ০১৭০৭-০৮৯৫৫৩, ০১৯১৬৮২২৫৬৬ ।

E-mail: dailyganomukti@gmail.com
   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD