| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : > করোনা ভাইরাসে লোকসানে তথ্যপ্রয্ক্তুরি বিনিয়োগকারীরা   > সারাবিশ্বে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৩৭৬৮৬   > নববর্ষের সব অনুষ্ঠান বন্ধ: প্রধানমন্ত্রী   > আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে কোনো গরিব না খেয়ে কষ্ট পায় না: পানিসম্পদ উপমন্ত্রী   > সৌদিতে ৩ দফা ক্ষেপণাস্ত্র হামলা   > তিন হাজার শয্যার হাসপাতাল হচ্ছে মহাখালীর ডিএনসিসি মার্কেটে   > পরিস্থিতি দেখে সিদ্ধান্ত নেবেন প্রধানমন্ত্রী: স্বাস্থ্যমন্ত্রী   > করোনাভাইরাসে সারা বিশ্বে মৃত্যুর সংখ্যা ৩০৮৮০   > করোনাভাইরাসের প্রকোপের মাঝেই ইসরাইল থেকে অস্ত্র কিনছে ভারত   > করোনা সন্দেহে চিকিৎসায় অবহেলা  

   জাতীয় -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
নববর্ষের সব অনুষ্ঠান বন্ধ: প্রধানমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার:
প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে নববর্ষের সব অনুষ্ঠান বন্ধ রাখার অনুরোধ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই সঙ্গে করোনা পরিস্থিতিতে সরকারের ঘোষণা করা ছুটির মেয়াদ সীমিত আকারে বাড়ানোর ঘোষণাও দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।
আজ মঙ্গলবার সকালে দেশের ৬৪ জেলার জেলা প্রশাসকদের সঙ্গে আয়োজিত ভিডিও কনফারেন্সে এ ঘোষণা দেন তিনি|
আজ সকাল ১০টায় এ ভিডিও কনফারেন্স শুরু হয়। প্রধানমন্ত্রী তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে কনফারেন্সে যোগ দিয়েছেন।
করোনাভাইরাস মোকাবেলায় আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারি-বেসরকারি অফিসে টানা ১০ দিনের ছুটি চলছে।
ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী নববর্ষের সব অনুষ্ঠান বন্ধ রাখার অনুরোধ জানান। তিনি বলেন, নববর্ষের অনুষ্ঠান আমরাই শুরুকরেছিলাম। কিন্তু তাও আমাদের বন্ধ রাখতে হচ্ছে। মানুষের কল্যাণেই এ অনুষ্ঠান না করার অনুরোধ আপনাদের।
ভিডিও কনফারেন্সে জেলা প্রশাসকরা তাদের নিজ নিজ জেলার প্রস্তুতির অবস্থা প্রধানমন্ত্রীকে জানান। তাদের কথার সূত্র ধরে প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন পরামর্শ দেন।
তিনি বলেন, আমরা ছুটি দিয়েছিলাম, হয়তো আমাদের আরও কয়েকদিন একটু বাড়াতে হতে পারে। কারণ যারা অনেকে গ্রামে চলে গেছেন, সেখানে কোনো রকম আবার এই রোগের প্রার্দুভাব দেখা না দেয়, সেই সময়টা হিসেব করে। আমরা ১০/ ১২ দিনের ছুটি দিয়েছিলাম। এটা ১৪ দিন পর্যন্ত হতে পারে।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের ২৬ মার্চ ছুটি থেকে ছিল। কোয়ারেন্টিন কত তারিখ পর্যন্ত হবে? ৯ তারিখ পর্যন্ত। তাহলে বোধহয় আমাদের এই ছুটিটা সীমিত আকারে বাড়াতে হবে।
প্রসঙ্গত সরকারর রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) দেয়া সর্বশেষ তথ্য অনুসারে, এ পর্যন্ত দেশে ৪৯ জন
করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন পাঁচজন। মোট এক হাজার ৩৩৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

নববর্ষের সব অনুষ্ঠান বন্ধ: প্রধানমন্ত্রী
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:
প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে নববর্ষের সব অনুষ্ঠান বন্ধ রাখার অনুরোধ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই সঙ্গে করোনা পরিস্থিতিতে সরকারের ঘোষণা করা ছুটির মেয়াদ সীমিত আকারে বাড়ানোর ঘোষণাও দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।
আজ মঙ্গলবার সকালে দেশের ৬৪ জেলার জেলা প্রশাসকদের সঙ্গে আয়োজিত ভিডিও কনফারেন্সে এ ঘোষণা দেন তিনি|
আজ সকাল ১০টায় এ ভিডিও কনফারেন্স শুরু হয়। প্রধানমন্ত্রী তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে কনফারেন্সে যোগ দিয়েছেন।
করোনাভাইরাস মোকাবেলায় আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারি-বেসরকারি অফিসে টানা ১০ দিনের ছুটি চলছে।
ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী নববর্ষের সব অনুষ্ঠান বন্ধ রাখার অনুরোধ জানান। তিনি বলেন, নববর্ষের অনুষ্ঠান আমরাই শুরুকরেছিলাম। কিন্তু তাও আমাদের বন্ধ রাখতে হচ্ছে। মানুষের কল্যাণেই এ অনুষ্ঠান না করার অনুরোধ আপনাদের।
ভিডিও কনফারেন্সে জেলা প্রশাসকরা তাদের নিজ নিজ জেলার প্রস্তুতির অবস্থা প্রধানমন্ত্রীকে জানান। তাদের কথার সূত্র ধরে প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন পরামর্শ দেন।
তিনি বলেন, আমরা ছুটি দিয়েছিলাম, হয়তো আমাদের আরও কয়েকদিন একটু বাড়াতে হতে পারে। কারণ যারা অনেকে গ্রামে চলে গেছেন, সেখানে কোনো রকম আবার এই রোগের প্রার্দুভাব দেখা না দেয়, সেই সময়টা হিসেব করে। আমরা ১০/ ১২ দিনের ছুটি দিয়েছিলাম। এটা ১৪ দিন পর্যন্ত হতে পারে।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের ২৬ মার্চ ছুটি থেকে ছিল। কোয়ারেন্টিন কত তারিখ পর্যন্ত হবে? ৯ তারিখ পর্যন্ত। তাহলে বোধহয় আমাদের এই ছুটিটা সীমিত আকারে বাড়াতে হবে।
প্রসঙ্গত সরকারর রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) দেয়া সর্বশেষ তথ্য অনুসারে, এ পর্যন্ত দেশে ৪৯ জন
করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন পাঁচজন। মোট এক হাজার ৩৩৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

তিন হাজার শয্যার হাসপাতাল হচ্ছে মহাখালীর ডিএনসিসি মার্কেটে
                                  

স্টাফ রিপোর্টার :

২০১৩ সালে নির্মাণকাজ শেষ হলেও ব্যবসায়ীদের বাধার মুখে চালু হয়নি রাজধানীর মহাখালীতে নির্মিত মহাখালী ডিএনসিসি মার্কেট। তাই এবার করোনায় আক্রান্তদের চিকিৎসায় এ মার্কেটটিকেই রূপান্তরিত করে তিন হাজার শয্যার হাসপাতাল করতে চায় সরকার।

সব ঠিক থাকলে শিগগিরই এই হাসপাতাল তৈরি হবে। বৈশ্বিক এই মহামারিকে বাংলাদেশে মোকাবিলায় ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বড় বড় হাসপাতালগুলোর সঙ্গেও আলোচনা চলছে বলে নিশ্চিত করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

২০১৩ সালে নির্মাণকাজ শেষ হলেও চালু হয়নি রাজধানীর মহাখালীতে নির্মিত মহাখালী ডিএনসিসি মার্কেট। কারওয়ান বাজারের ব্যবসায়ীদের কাছে স্থানান্তরের উদ্দেশ্যে এ মার্কেটটি করা হয়। তবে কয়েক দফা বিজ্ঞপ্তি দিয়েও পাওয়া যাচ্ছে না দোকান বরাদ্দের আবেদন। যে কয়েকটি পাওয়া গেছে, তা-ও মোট দোকানের তুলনায় অপ্রতুল।

ফলে ছয় বছর ধরে পড়ে আছে ৭০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত মার্কেটটি। দীর্ঘদিন এভাবে পড়ে থাকায় মার্কেটের বিভিন্ন জায়গায় পলেস্তারা ও টাইলস উঠে গেছে, কাচ ভেঙে গেছে। কবে নাগাদ মার্কেটটি চালু হবে, বলতে পারছেন না ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

২০১৭ সালে এই ডিএনসিসি মার্কেটে ৫০ জন নারী উদ্যোক্তা দিয়ে উইমেন হলিডে মার্কেট চালু করেন প্রয়াত মেয়র আনিসুল হক। তবে ক্রেতাশূন্য থাকায় বর্তমানে সেটিও নেই।

ডিএনসিসির মালিকানাধীন ২১ বিঘা ১১ কাঠা জমির ওপর মার্কেটটি নির্মাণ করা হয়। এতে রয়েছে গাড়ি পার্কিং ও ময়লার ডাম্পিংয়ের স্থান, কসাইখানা, লিফট ও জেনারেটর। দোকান রয়েছে ১ হাজার ১৬৩টি। এর মধ্যে ৩৬০টি কারওয়ান বাজারের ব্যবসায়ীদের জন্য বরাদ্দ। বাকি ৮০৩টি দোকান লটারির মাধ্যমে বরাদ্দ দেয়ার কথা।

মার্কেটটির বেজমেন্টে পাইকারি কাঁচামালের বাজার। নিচতলায় মাছ-মাংস-মুরগিসহ কাঁচাবাজার। দ্বিতীয় ও তৃতীয় তলায় তৈরি পোশাক, চতুর্থ ও পঞ্চম তলায় ইলেকট্রনিক সামগ্রী এবং ষষ্ঠ তলা ফুডকোর্টের জন্য নির্ধারিত।

বর্তমানে মার্কেটটি নিয়ে বিপাকে পড়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। বারবার পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে, রাস্তায় বিলবোর্ড টাঙিয়েও ব্যবসায়ীদের ওই মার্কেটের বিষয়ে আগ্রহী করা যাচ্ছে না। এ অবস্থায় মার্কেটটি নিয়ে কী করবেন, কিছুই বুঝতে পারছেন না ডিএনসিসির কর্মকর্তারা।

তাই আপাতত করোনা সংক্রমণের চিকিৎসা কেন্দ্র হতে যাচ্ছে এই স্থাপনা। স্বাস্থ্য অধিদফতর জানিয়েছে, আগামী চার সপ্তারের মধ্যে তিন হাজার শয্যার হাসপাতালে রূপান্তর করা হবে এই মার্কেট।

শুধু তাই নয়, রাজধানীর কুর্মিটোলা হাসপাতালের শয্যা সংখ্যা বাড়িয়ে ২০০ ভেন্টিলেশন ব্যবস্থা যোগ করে করোনা রোগীদের চিকিৎসা কেন্দ্র করার পরিকল্পনার কথা জানানো হয়। একই সঙ্গে ঢাকার বাইরে বড় বড় চিকিৎসা কেন্দ্রগুলোও পরিবর্তিত পরিস্থতিতে করোনায় আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা কেন্দ্র হিসেবে রূপান্তরের পরিকল্পনা কথা জানায় স্বাস্থ্য অধিদফতর।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (হাসপাতাল) আমিনুল হাসান গণমাধ্যমকে বলেন, আমরা কুর্মিটোলা হাসপাতালকে খুব দ্রুত কোভিড (করোনাভাইরাস) হাসপাতালে রূপান্তরিত করব। আমরা এটিকে এক হাজার বেড বানিয়ে ফেলব। এছাড়া দুইশ ভেন্টিলেটর বসানো হবে। মহাখালীতে ডিএনসিসির যে মার্কেট আছে, আমরা তা নিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা করছি। সেখানে প্রায় তিন হাজার রোগী রাখা যাবে। এছাড়া বড় বড় জায়গাগুলোকে আমরা হাসপাতাল বানানোর পরিকল্পনা হিসেবে হাতে নিয়েছি।

বর্তমানে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসা চলছে কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে। নির্ধারণ করা হয়েছে আরও সাতটি হাসপাতাল, যেখানে শুধু করোনা রোগীদেরই চিকিৎসা দেয়া হবে। আর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল, মুগদা জেনারেল হাসপাতাল এবং সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতালে কিছু অংশ করোনা রোগীদের চিকিৎসায় বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

পরিস্থিতি দেখে সিদ্ধান্ত নেবেন প্রধানমন্ত্রী: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, করোনাভাইরাসের কারণে জরুরিভিত্তিতে ঘোষিত সাধারণ ছুটি শেষে পরিস্থিতি বুঝে প্রধানমন্ত্রী সিদ্ধান্ত নেবেন ছুটি বাড়ানো হবে কিনা। রোববার দুপুরে অনলাইন ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের করা এক প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন তিনি।

আগামী ৪ এপ্রিল শেষ হচ্ছে সরকারি ছুটি। এই ছুটি শেষে আবারো মানুষ দলবেঁধে স্ব-স্ব কর্মস্থলে ফিরবেন। অধিকাংশ ফিরবেন ঢাকায়। এক্ষেত্রে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে সুনির্দিষ্ট কোনো নির্দেশনা থাকছে কিনা। কারণ, একইসঙ্গে যদি ছুটি শেষ হয়ে যায় সে ক্ষেত্রে ভিড় ঠেকানো যাবে কিনা- এসব বিষয়ে জানতে চাইলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, আমরা পর্যবেক্ষণ করবো আপনারাও পর্যবেক্ষণ করবেন দেশবাসী করবেন, প্রধানমন্ত্রী পর্যবেক্ষণ করবেন। যদি ১০ দিনে দেশের ও পৃথিবীর পরিস্থিতি মোটামুটি একটা সহনশীল অবস্থায় চলে আসে তখন এক ধরনের চিন্তা হবে।

তবে যদি পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হয় তাহলে আমরা প্রধানমন্ত্রীকে পরামর্শ দেব যে, পরিস্থিতি দেখে পদক্ষেপ গ্রহণ করার। প্রধানমন্ত্রী যদি পরিস্থিতি দেখে ছুটি বাড়াতে চান তো বাড়াবেন, পরিস্থিতির উপর নির্ভর করে চিন্তা-ভাবনা করে সিদ্ধান্ত দেবেন তিনি।

তবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, জিনিসটা আমাদেরকে বুঝতে হবে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দিলেন ছুটি, আর আমরা যেভাবে ট্রেনে-বাসে আর লঞ্চে গ্রামের বাড়ি ফিরলাম মোটেও ঠিক হয়নি। আমি স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে বলবো এটা একটা সংক্রামক ব্যাধি। ওইভাবে বাড়ি ফেরায় সংক্রমণের পরিবেশ তৈরি করে দিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আমি মনে করি ছুটি শেষে ফেরার সিদ্ধান্ত হলে করোনার ব্যাপারে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় যে ব্যক্তিগত সুরক্ষার, শিষ্টাচার ও দূরত্ব বজায় রাখার নিয়ম বলেছে সেটা মেনে ঢাকায় ফেরা উচিত।

দেশে নতুন কোন করোনা আক্রান্ত রোগী নেই
                                  

বিশেষ সংবাদদাতা :

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে আর কেউ আক্রান্ত হয়নি। ফলে ভাইরাসটিতে আক্রান্তের সংখ্যা আগে যা ছিল তা-ই আছে। অর্থাৎ দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪৮। নতুন করে সুস্থ হয়েছেন আরও চারজন। এই নিয়ে কোভিড১৯ সংক্রমিত মোট ১৫ জন সুস্থ হয়েছেন। আর মৃতের সংখ্যা ৫ জনই আছে।

আজ শনিবার (২৮ মার্চ) বেলা ১২টা ১০ মিনিটে স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) করোনাভাইরাস সংক্রান্ত অনলাইন লাইভ ব্রিফিংয়ে এ সব তথ্য জানান প্রতিষ্ঠানের পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

তিনি বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বমোট ৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টার পরীক্ষায় আমরা আর কোনো আক্রান্ত রোগী পাইনি। অতএব আক্রান্ত যা ছিল তাই আছে। দেশে মোট নিশ্চিত আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৪৮। আমরা বরং একটা সুখবর বলতে চাই, গত ২৪ ঘণ্টায় আরও চারজন কোভিড আক্রান্ত রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন। অর্থাৎ এ পর্যন্ত ১৫ জন কোভিড মুক্ত হয়েছেন।’

সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, ‘যারা কোভিড আক্রান্ত হয়েছেন এবং রোগ নির্মূল হয়েছে তাদের পর্যালোচনা করে দেখেছি, তারা সর্বোচ্চ ১৬ দিন হাসপাতালে ছিলেন। যখন থেকে তাদের মধ্যে লক্ষণ দেখা দিয়েছে। তাদেরকে লক্ষণভিত্তিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। একজন ছিলেন কিডনি সমস্যাজনিত তাকে আমরা ডায়ালাইসিস করেছি।’

তিনি জানান, যাদের বয়স ৬০ এর বেশি তারা ঘরের একেবারেই ঘরের বাইরে যাবেন না। গত২৪ ঘণ্টায় আইইডিসিআরের হটলাইনে ৩৪৫০ কল এসেছে, এর সবই কোভিড-১৯ সংক্রান্ত।

বৈশ্বিক পরিস্থিতি তুলে ধরে আইইডিসিআরের পরিচালক বলেন, ‘বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী সারা বিশ্বে আক্রান্ত হয়েছে ৫ লাখ ৯ হাজার ১৬৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় এখানে সংযোজিত হয়েছে ৪৬ হাজার ৪৮৪ জন। বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ২৩ হাজার ৩৩৫। গত ২৪ ঘণ্টায় এখানে যুক্ত হয়েছে ২ হাজার ৫০১ জন।’

দক্ষিণ এশিয়ার পরিস্থিতি তুলে ধরে তিনি জানান, দক্ষিণ এশিয়ায় সর্বমোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ২ হাজার ৯৩২ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ৩৯৬। দক্ষিণ এশিয়ায় মৃতের সংখ্যা ১০৫। গত ২৪ ঘণ্টায় এখানে যুক্ত হয়েছে ২৬ জন।

তিনি বলেন, ‘আপনারা জানেন যে, বিশ্বের সব দেশেই এখন কোভিডের সংক্রমণ দেখা যাচ্ছে। যদিও যুক্তরাষ্ট্রকেই এখন এপিসেন্টার (কেন্দ্রস্থল) হিসেবে বলা হচ্ছে। আমরা যেসব পদক্ষেপ নিয়েছি, সেগুলো আমাদের প্রধানমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে পরিচালিত হচ্ছে। তবে সবকিছুর সফলতা নির্ভর করবে জনগণ নির্দেশনা কতটুকু মেনে চলেছে তার ওপর। যেসব পরামর্শ দেয়া হয়েছে আমি অনুরোধ করব আমরা সকলেই যেন সেগুলো মেনে চলি।’

তিনি সবাইকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে দেয়া নির্দেশনা মেনে চলার অনুরোধ জানান।

করোনার কারণে বাতিল স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানমালা
                                  

ডেস্ক রিপোর্ট : দেশে নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকায় জনস্বাস্থ্যের নিরাপত্তায় স্বাধীনতা দিবসে জাতীয় স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদন এবং বঙ্গভবনে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে।এছাড়া স্থগিত করা হয়েছেস্বাধীনতা পদক বিতরণ অনুষ্ঠান ।

গতকাল শনিবার ২১ মার্চ বিকালে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয় বলে রাষ্ট্রপতির প্রেস উইং থেকে জানানো হয়েছে।

গতকাল বিকাল ৫টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে যান। সাধারণত বিদেশ সফর থেকে ফেরার পর প্রধানমন্ত্রী বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

তবে বৈশ্বিক মহামারীতে রূপ নেওয়া নভেল করোনাভাইরাসে বাংলাদেশেও কয়েকজনের আক্রান্ত ও মৃত্যুর পর উদ্ভুত পরিস্থিতি গুরুত্ব পায় রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানের আলোচনায়।

গত ৮ মার্চ প্রথমবারের মতো শনাক্তের পর শনিবার পর্যন্তত এই ভাইরাসসৃষ্ট কভিড-১৯ এ আক্রান্তের সংখ্যা ২৪ জনে পৌঁছেছে। আর এই রোগে মারা গেছেন দুইজন।

বঙ্গভবনের বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ সম্পর্কে রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করেন।
দুইজনই দেশের জনগণকে এমন পরিস্থিতিতে আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতির প্রেস উইং থেকে জানানো হয়, আলোচনায় জনস্বাস্থ্যের নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনা করে এ বছর ২৬ মার্চ জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং বঙ্গভবনে অনুষ্ঠেয় সংবর্ধনা অনুষ্ঠান বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এছাড়া স্বাধীনতা পদক বিতরণ অনুষ্ঠান স্থগিত করা হয়।

এর আগে শনিবার ঢাকা-১০ আসনের উপনির্বাচনে ভোট দেওয়ার পরও প্রধানমন্ত্রী আগামীতে জনসমাগমের মতো অনুষ্ঠানগুলো বন্ধ রাখার কথা বলেছিলেন।

“বিশেষ করে ২৬ মার্চ আমাদের পুষ্পমাল্য অর্পণের কথা সাভার স্মৃতিসৌধে। আমি আলোচনা করব। সেটাও আমাদের স্থগিত করে রাখতে হবে।

“নিজের মতো করে, আমরা স্বাধীনতার জন্য যারা জীবন দিয়েছেন, তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাব। কিন্তু এই লোক সমাগমটা আমাদের বন্ধ করে দিতে হবে, যাতে কোনোভাবে এই সংক্রামক ব্যাধি সারা বাংলাদেশে ছড়িয়ে পড়তে না পারে।”

করোনা শনাক্তে চিকিৎসা সরঞ্জাম দিচ্ছে চীন
                                  

ডেস্ক রিপোর্ট : চীন প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস শনাক্তের জন্য প্রয়োজনীয় কিটসহ বিভিন্ন ধরনের চিকিৎসা সরঞ্জামাদি দিচ্ছে । ঢাকায় চীনা দূতাবাস থেকে বাংলাদেশ সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে এ বিষয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

গতকাল ১৮ মার্চ বুধবার সন্ধ্যায় ঢাকায় চীনা দূতাবাসের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ থেকে এক পোস্টে এ তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, চীনের সহায়তার মধ্যে থাকবে করোনা শনাক্তের কিট। এর পাশাপাশি মহামারী ঠেকানোর জন্য প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সরঞ্জাম বাংলাদেশকে সরবরাহ করবে দেশটি।

চীনা দূতাবাস বলছে, বাংলাদেশ চীনের বন্ধুরাষ্ট্র। করোনাভাইরাস নিয়ে যে মহামারী পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, তা প্রতিরোধে চীন সময়ই বাংলাদেশের সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য অংশীদার হিসেবে কাজ করবে।

প্রসঙ্গত চীনের হুবেই থেকে বিশ্বময় ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। এ রোগে এখন পর্যন্ত ৮৮০০ জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ২০ হাজার মানুষ। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৮৪ হাজার মানুষ। এই সংক্রমণ বাংলাদেশেও ছড়িয়ে পড়েছে। করোনায় বাংলাদেশে একজনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ জন।

গোপালগঞ্জে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠিত
                                  

গোপালগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি :  গোপালগঞ্জে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

গতকাল ১৬ মার্চ সোমবার বিকালে গোপালগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস চত্বরে, ই পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন গোপালগঞ্জ-২ আসনের সাংসদ সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম। 

অনুষ্ঠানে ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের প্রকল্প পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল সাইদুর রহমান খান এর সভাপতিত্বে, বিশেষ অতিথি ছিলেন, ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনালের মোঃ শাকিল আহমেদ।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, গোপালগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক মো: আফজাল হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান চৌধূরী এমদাদুল হক, সাধারন সম্পাদক মাহবুব আলী খান, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ লূৎফর রহমান বাচ্চু, পৌর মেয়র কাজী লিয়াকত আলী প্রমূখ।

 

আজ বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মদিনে মুজিববর্ষ শুরু
                                  

ডেস্ক রিপোর্ট : আজ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শততম জন্মদিন। সেই সঙ্গে শুরু মুজিববর্ষেরও। বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকীর দিন ১৭ মার্চ ২০২০ থেকে ২০২১ সালের ২৬ মার্চ পর্যন্ত বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে এ বর্ষ উদযাপন করা হবে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিুবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ সব বেসরকারি টিভি চ্যানেল, সোশ্যাল ও অনলাইন মিডিয়ায় একযোগে সম্প্রচার করা হবে। স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি, বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত এই নেতা ১৯২০ সালের এই দিনে গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়ায় এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। এই দিনটি জাতীয় শিশু কিশোর দিবস হিসেবেও উদযাপিত হয়।

এর আগে গত ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণ গণনা শুরু হয়। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তেজগাঁও এলাকার পুরাতন বিমান বন্দরে (জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ড) ‘জয় বাংলা – জয় বঙ্গবন্ধু’ শ্লোগানে ক্ষণ গণনার উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

জাতি যথাযোগ্য মর্যাদা ও উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে আগামীকাল মুজিববর্ষের সূচনা ও বঙ্গবন্ধুর জন্ম দিবসটি উদযাপন করবে। বিশ্বের অন্যান্য দেশে বাংলাদেশী দূতাবাসসমূহে দিবসটি যথাযথ মর্যাদায় উদযাপন করা হবে। দিনটিকে সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। 

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
                                  

ডেস্ক রিপোর্ট : জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে তার প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা।

আজ ১৭ মার্চ মঙ্গলবার সকাল ৭টা ১০ মিনিটে ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে ফুল দেন প্রধানমন্ত্রী । পরে সর্বসাধারণের জন্য স্থানটি উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। এরপর ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ উত্তর ও দক্ষিণ, যুবলীগ, শ্রমিক লীগ, কৃষক লীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, যুব মহিলা লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের নেতাকর্মীরা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর, সর্বস্তরের মানুষ সেখানে ফুল দেন।

আনুষ্ঠানিকতা শেষে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, তরুণরাই বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে তুলবে। যারা জাতির পিতার নাম মুছে ফেলতে চেয়েছিলেন রাজনৈতিক প্রক্রিয়ায় তাদের নাম মুছে যাবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯২০ সালে টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। সেদিন ছিল ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ, মঙ্গলবার। রাত ৮টার দিকে মা সায়েরা খাতুনের কোল আলোকিত করে আসেন ইতিহাসের মহানায়ক; বাঙালি ও বাংলাদেশের অবিচ্ছেদ্য অংশ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

আজ বাংলার সেই অবিসংবাদিত নেতা, স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা শেখ মুজিবুর রহমানের ‘জন্মশতবার্ষিকী’।

ইতিহাসের খরস্রোতায় ১৯২০ সালের সেদিনের মতো শতবছর পর আজকের দিনটিও মঙ্গলবার। দিনটি স্মরণীয় করে রাখতে বর্ণিল আলোকসজ্জা, আতশবাজি আর নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে ‘বিশ্ববন্ধুর’ জন্মদিন উদযাপন করবে পুরো জাতি। আজ বাঙালি জাতির আনন্দে পুলকিত হওয়ার দিন। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালির জন্মদিনে দেশের ১৬ কোটি মানুষ বিনম্র শ্রদ্ধা, সালাম আর হৃদয় নিংড়ানো ভালোবাসা জানাতে উদগ্রীব।

 

মুজিববর্ষ উপলক্ষে সুনামগঞ্জে বিশেষ পরিচ্ছন্নতা
                                  

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : মুজিববর্ষ উপলক্ষে সুনামগঞ্জে বিশেষ পরিচ্ছন্নতা ও মশক নিধন অভিযানের উদ্বোধন করা হয়েছে। আজ সোমবার (১৬র্মাচ) সকালে সুনামগঞ্জ পৌরসভার আয়োজনে শহরের বিহার পয়েন্টে এই পরিচ্ছন্নতা ও মশক নিধন অভিযানের উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় হুইপ অ্যাড.পীর ফজলুর রহমান।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত, পৌরসভার প্রধান নিবার্হী মীর মোশারফ হোসেন, কাউন্সিলর হোসেন আহমদ রাসেল, চঞ্চল কুমার লৌহ প্রমুখ। পরিচ্ছন্নতা ও মশক নিধন অভিযানের উদ্বোধন শেষে জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় হুইপ অ্যাড.পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ বলেন, মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে এই পরিচ্ছন্নতা ও মশক নিধন অভিযানের কার্যক্রম চলমান তাকবে বলে আমি মনে করি।

পাশাপাশি আমি বলতে চাই গোটা বিশ্বে করোনা ভাইরাসের একটা আতংক আমাদের মাঝে বিরাজ করছে তাই আমাদের সবাইকে সব সময় পরিকষ্কার পরিচ্ছন্ন তাকতে হবে এবং সর্তক তাকতে হবে।

 

 

গোপালগঞ্জে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় মুক্তিযোদ্ধা মো. আলীর দাফন সম্পন্ন
                                  

জেলা প্রতিনিধি, গোপালগঞ্জ : গোপালগঞ্জ সদরে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী মোল্লার (মহর আলী) দাফন সম্পন্ন হয়েছে। আজ মঙ্গলবার (১০ মার্চ) সকাল ১০টার দিকে জেলার উলপুর জামে মসজিদ সংলগ্ন কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। এর আগে ঐ মসজিদ মাঠে তার জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।

মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী মোল্লার দাফনের আগে গোপালগঞ্জ পুলিশ লাইনের একটি চৌকস দল গার্ড অব অনার প্রদান করেন । এসময় সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সাদিকুর রহমান খান, গোপালগঞ্জ জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বদরুদ্দোজা বদর, উলপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান কামরুল হাসান বাবুল, সাবেক চেয়ারম্যান এম মাসুদ আলী স্বপন, বীর মুক্তিযোদ্বা ওমর আলী মোল্লা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পারিবারিকসূত্রে জানা যায়, তিনি দীর্ঘদিন শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন। গতকাল সোমবার ৯ মার্চ দুপুর ১.৩০ টায় তিনি ইন্তেকাল করেন । মৃত্যুকালে তিনি এক ছেলে ও চার মেয়ে রেখে যান। তিনি ১৯৭১ সালে ভারতে টেনিং শেষ করে যশোর সিমান্ত দিয়ে প্রথম বাংলাদেশে প্রবেশকারী মুক্তিযোদ্ধা দলের একজন সাহসী সদস্য ছিলেন। ৯ নাম্বার সেক্টরের অধীনে খুলনা শহরে পাক বাহিনীর বিরুদ্ধে তিনি যুদ্ধে অংশ নেন। উল্লেখ্য যে, বীরমুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী (মহর আলী), পিতা মৃত: মানিক মোল্লা, গ্রাম: গুনহর, উপজেলা: মুকসুদপুর, জেলা: গোপালগঞ্জ থেকে ১৯৯০ইং তে গোপালগঞ্জ সদরে বাড়ি করে স্থায়ী ভাবে বসবাস করেন।

 

মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্রবন্দরের ব্যয় ১৭ হাজার ৭৭৭ কোটি টাকা
                                  

ডেস্ক রিপোর্ট : মাতারবাড়ীতে হচ্ছে গভীর সমুদ্রবন্দর। এজন্য ‘মাতারবাড়ী পোর্ট ডেভেলপমেন্ট’ নামের একটি প্রকল্প জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে উঠছে আজ মঙ্গলবার ১০ মার্চ ।

এটি বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ১৭ হাজার ৭৭৭ কোটি ১৬ লাখ টাকা। নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবিত প্রকল্পটি বাস্তবায়নে ১২ হাজার ৮৯২ কোটি ৭৬ লাখ টাকা ঋণ দিচ্ছে জাপান আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থা (জাইকা)। বাকি ২ হাজার ৬৭১ কোটি ১৫ লাখ টাকা সরকারের নিজস্ব তহবিল এবং ২ হাজার ২১৩ কোটি ২৪ লাখ টাকা চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের নিজস্ব তহবিল থেকে ব্যয় করা হবে।

রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠেয় একনেক বৈঠকে সভাপতিত্ব করবেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা।

প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে সংযোগ সড়কসহ মাতারবাড়ী বন্দর নির্মাণের মাধ্যমে বাংলাদেশের কার্গো হ্যান্ডলিং সক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে, যা ভবিষ্যৎ আন্তর্জাতিক বাণিজ্য চাহিদা মেটানো এবং প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে দ্রুত বন্দর সেবা দেয়া সম্ভব হবে বলে প্রত্যাশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। জানতে চাইলে পরিকল্পনা বিভাগের সচিব মো. নূরুল আমিন যুগান্তরকে বলেন, প্রকল্পটি একনেকের জন্য তৈরি তালিকায় রয়েছে। আমরা অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করব। তবে অনুমোদন দেয়া-না-দেয়া একনেকের বিষয়। তবে আশা করি অনুমোদন পাবে।

পরিকল্পনা কমিশনের একাধিক কর্মকর্তা জানান, প্রকল্পটির প্রস্তাব পাওয়ার পর গত বছরের ৯ সেপ্টেম্বর প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় দেয়া সুপারিশগুলো বাস্তবায়ন করে উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাব (ডিপিপি) পুনর্গঠন করা হয়েছে। ফলে এটি একনেকে উপস্থাপনের সুপারিশ করেছে কমিশন। অনুমোদন পেলে চলতি বছর থেকে শুরু হয়ে ২০২৬ সালের জুনের মধ্যে এটি বাস্তবায়ন করবে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগ।

একনেকের জন্য তৈরি প্রকল্পের সারসংক্ষেপে বলা হয়েছে, পিইসি সভায় জাইকার সমীক্ষা অনুযায়ী প্রকল্পোর নিট বর্তমান মূল্য ঋণাত্মক। আর্থিক ও অর্থনৈতিক রিটার্ন অলাভজনক হওয়া সত্ত্বেও প্রকল্পটি গ্রহণের যৌক্তিকতা প্রকল্পের ডিপিপির পটভূমিতে বিস্তারিত উল্লেখ করতে বলা হয়। এ পরিপ্রেক্ষিতে প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের ব্যাখ্যা হচ্ছে, প্রকল্পটির প্রথম পর্যায়ে বন্দর নির্মাণে স্বল্প হলেও খুব কম সুদে তহবিল পাওয়া যাবে। তাই এটি আর্থিকভাবে লাভজনক হবে। এক্ষেত্রে জাইকা শূন্য দশমিক ০১ শতাংশ হারে প্রকৌশল সেবা দেবে।

এছাড়া শূন্য দশমিক ৯ শতাংশ হারে মূল প্রকল্পের ঋণ দেবে। প্রকল্পটির প্রথম পর্যায়ের কাজ শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দ্বিতীয় পর্যায়ের কাজ শুরু হবে। তাই এটি উল্লেখযোগ্যভাবে লাভজনক হবে। এছাড়া পরামর্শকের ব্যয় ও সংখ্যা যৌক্তিক পর্যায়ে কমাতে বলা হয় পিইসি সভায়।

আরও বলা হয়, পায়রা বন্দরে চার লেন রাস্তা নির্মাণে কিলোমিটার প্রতি ব্যয় ৬০ কোটি টাকা হলেও এ প্রকল্পে প্রতি কিলোমিটারে ব্যয় ১৬০ কোটি টাকা ধরা হয়েছে, যা অত্যাধিক বলে প্রতীয়মান হয়। এ পরিপ্রেক্ষিতে প্রকল্প সংশ্লিষ্ট ব্যাখ্যা হচ্ছে, জাইকার সম্ভাব্যতা সমীক্ষার ভিত্তিতে ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে। সম্ভাব্য সমীক্ষা তৈরির সময়ই বিস্তারিত ব্যয়বিভাজন নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। এতে প্রকৌশলগত প্রয়োজনীয়তা এবং স্থানীয় পর্যায়ে নির্মাণসামগ্রীর প্রাপ্যতা যৌক্তিকতার ভিত্তিতে বিবেচনায় নেয়া হয়েছে।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, বর্তমানে দেশে যে কটি সমুদ্রবন্দর রয়েছে, তার কোনোটিই গভীর সমুদ্রবন্দর নয়। ফলে ডিপ ড্রাফটের ভেসেল এসব বন্দরের জেটিতে ভিড়তে পারে না। তাই ডিপ ড্রাফট ভেসেলের জেটি সুবিধা নিশ্চিত করার জন্য মাতারবাড়ীতে সমুদ্রবন্দর নির্মাণ বিষয়ে অগ্রাধিকারমূলক প্রকল্প নেয়া হয়। একটি গভীর সমুদ্রবন্দরের উন্নয়নের পাশাপাশি আধুনিক কনটেইনারবাহী জাহাজ, খোলা পণ্যবাহী জাহাজ ও তেলবাহী ট্যাঙ্কারের জেটিতে ভেড়ার সুযোগ সৃষ্টি করা, চট্টগ্রাম বন্দরের ওপর চাপ কমানোর সঙ্গে সঙ্গে দেশের ক্রমবর্ধমান আমদানি-রফতানি চাহিদা পূরণ এবং মাতারবাড়ী ও মহেশখালী অঞ্চলে গড়ে ওঠা শিল্পাঞ্চলগুলোয় পণ্য পরিবহনে সহায়তা করাই এ বন্দর প্রতিষ্ঠার মূল লক্ষ্য।

জাইকার সার্ভে অনুযায়ী চট্টগ্রাম বন্দরে একটি জাহাজ সর্বোচ্চ ২ হাজার টিইইউএস কনটেইনার নিয়ে ভিড়তে পারে। অথচ পার্শ্ববর্তী কলম্বো, জহরলাল নেহেরু, করাচি ও চেন্নাই বন্দরে তার চেয়ে কয়েক গুণ বেশি ধারণক্ষমতাসম্পন্ন জাহাজ ভিড়তে পারে। মাতারবাড়ীতে অধিক ড্রাফটের জাহাজের সমুদ্রবন্দর নির্মাণ কনটেইনার পরিবহনে বাংলাদেশের জন্য উত্তম বিকল্প। মাতারবাড়ী সমুদ্রবন্দরে ৩০০ ও ৪৬০ মিটার দৈর্ঘ্যরে দুটি টার্মিনাল থাকবে।

এসব টার্মিনালে ১৬ মিটার ড্রাফটের ৮ হাজার টিইইউএস কনটেইনারবাহী জাহাজ ভিড়তে পারবে। চট্টগ্রাম বন্দরে ১৯০ মিটার দৈর্ঘ্যরে এবং ৯ দশমিক ৫ মিটার ড্রাফটের বেশি জাহাজ ভিড়তে পারে না। যার ফলে মাদার ভেসেলগুলো বন্দরের জেটিতে আসতে পারে না। ফলে ফিডার জাহাজে করে কনটেইনার আনানেয়া করতে হয়। প্রতিদিন ৩৫০০ থেকে ৩৮০০ টিইইউএস আমদানি পণ্য কনটেইনার হ্যান্ডলিং হয়ে থাকে।

মাতারবাড়ী সমুদ্রবন্দরের ১৬ মিটার গভীরতার জন্য মাদার ভেসেল ভেড়ার সুযোগ থাকায় একসঙ্গে ৮ হাজার কনটেইনারবাহী জাহাজ ভিড়তে পারবে। ফলে এখান থেকে ফিডার ভেসেলের মাধ্যমে দেশের অন্যান্য বন্দরে কনটেইনার পরিবহনের সুযোগ সৃষ্টি হবে। দেশের আমদানি-রফতানির হার বাড়ছে।

চট্টগ্রাম বন্দরে কনটেইনার হ্যান্ডলিংয়ের পরিমাণও দ্রুত বাড়ছে। চট্টগ্রাম বন্দর ধারণক্ষমতার বাইরে গিয়ে আমদানি-রফতানি কার্যক্রম করছে। ব্যাপক সংখ্যক জাহাজ এবং কনটেইনার হ্যান্ডলিংয়ের জন্য আরও একটি সমুদ্রবন্দরের বিকল্প নেই। মাতারবাড়ী বন্দর চালু হলে একদিকে দেশের ক্রমবর্ধমান আমদানি-রফতানি পণ্যের হ্যান্ডলিং বাড়বে, অন্যদিকে চাপ কমবে চট্টগ্রাম বন্দরের ওপর।

 

পদ্মা সেতু ৪ কিলোমিটার দৃশ্যমান
                                  

ডেস্ক রিপোর্ট : বসানো হলো পদ্মা সেতুর ২৬তম স্প্যান। আজ মঙ্গলবার (১০ মার্চ) সকালেই স্থাপন করা হয় স্প্যানটি। ফলে দৃশ্যমান হলো সেতুটির প্রায় ৪ কিলোমিটার অংশ।এছাড়াও জাজিরা ও মাওয়া প্রান্তে বিছিন্নভাবে বসানো হয়েছে আরও ১২টি স্প্যান। চলতি বছরের জুলাইয়ের মধ্যে ৪২টি পিলারের ওপর ৪১টি স্প্যান বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে।


এর আগে গতকাল সোমবার ৯ মার্চ মুন্সিগঞ্জের কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ২৬তম স্প্যানটি নিয়ে ভাসমান ক্রেনে জাজিরার উদ্দেশ্যে আনা হয়েছিল।

নির্ধারিত পিলার ২৮ ও ২৯ বরাবর অবস্থান নেয়। আজ  মঙ্গলবার ১০ মার্চ সকাল থেকেই শ্রমিক ও প্রকৌশলীরা স্প্যানটি পিলারের ওপর বসানোর কাজ শুরু করে। চলতি বছরের জুলাইয়ের মধ্যে ৪২টি পিলারের ওপর ৪১টি স্প্যান বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে। যার ২৬টি বসে গেছে। আগামী জুলাইয়ে সব স্প্যান বসে যাওয়ার কথা রয়েছে।

 

ঢাকায় দুদিনের সফরে ভারতের পররাষ্ট্র সচিব
                                  

ডেস্ক রিপোর্ট : ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা দুই দিনের সফরে ঢাকায় এসেছেন। সোমবার (২ মার্চ) সকালে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান তিনি। সফরকালে তিনি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ঢাকা সফর সূচি চূড়ান্ত করবেন।

সূত্র জানায়, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যোগ দেবেন। আগামী ১৭ মার্চ ঢাকায় বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠান। সেই সফর চূড়ান্ত করতেই দুই দিনের জন্য ঢাকায় এসেছেন শ্রিংলা।

ভারতের পররাষ্ট্র সচিব তার ঢাকা সফরের প্রথম দিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠক করবেন। তিনি একই দিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেনের সঙ্গেও বৈঠক করবেন। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গেও তার বৈঠকের কথা রয়েছে।

এছাড়া সোমবার ২ মার্চ তিনি ঢাকায় ‘বাংলাদেশ : ভারত একটি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ভবিষ্যৎ’ শীর্ষক সেমিনারে যোগ দেবেন। পরের দিন মঙ্গলবার (৩ মার্চ) ভারতের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করবেন শ্রিংলা। 

সূত্র আরও জানায়, ভারতের পররাষ্ট্র সচিবের এ সফর প্রথমে ১ মার্চ নির্ধারণ করা হয়েছিল। পরে সফর এক দিন পেছানো হয়। ঢাকা সফরের সময় দুদেশের মধ্যে কানেকটিভিটি নিয়ে দুটি সমঝোতা স্মারক সইয়ের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা ঢাকায় দেশটির হাইকমিশনার ছিলেন। তিনি গত বছর জানুয়ারিতে ঢাকার দায়িত্ব পালন শেষে যুক্তরাষ্ট্রে হাইকমিশনার হিসেবে যোগ দেন। সম্প্রতি ভারতের পররাষ্ট্র সচিব নিযুক্ত হন। পররাষ্ট্র সচিব হওয়ার পর এটাই তার প্রথম ঢাকা সফর।

বিজ্ঞান জাদুঘরে আসছে “টাইটানিক”
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : টাইটানিক জাহাজের আদলে একটি প্রোটোটাইপ তৈরির লক্ষে  খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেড সাথে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের চুক্তি স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। গতকাল বুধাবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকালে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের সভাকক্ষে চুক্তি স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।

১ কোটি ৭৬ লক্ষ ২৩ হাজার ৩ শ টাকা ব্যয়ে নির্মিত টাইটানিক জাহাজটি মডেল খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেড  চুক্তির ২৩০ দিনের মধ্যে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের নিকট হস্তান্তর করবে।

বিশ্বের অন্যতম অভিজাত জাহাজ টাইটানিক। ১৯১২ সালে বিজ্ঞাপনে বলা হয়েছিল, টাইটানিক কোনোদিনই ডুববে না। কিন্তু প্রথম যাত্রাকালেই ইতিহাসের অন্যতম ট্র্যাজেডিই ঘটে যায়। কিন্তু টাইটানিককে আজও নিজেদের স্মৃতিতে ভাসিয়ে রেখেছে মানুষ। ১৯৯৭ সালে জেমস ক্যামেরনের ছবি ‘টাইটানিক’ তাতে আরও ইন্ধন জোগায়। এরপর অনেকেই ভাবতে শুরু করেন, যদি আরও একবার ভাসিয়ে তোলা যায় এই কিংবদন্তির জাহাজটিকে। সেই জাহাজটির মডেল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরে দর্শকদের আরও বেশি মনের আনন্দ জোগাবে বলে মনে করেন।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনির চৌধুরী, খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেডের মহা-ব্যবস্থাপক ক্যাপ্টেন বিএন এম ফিদা হাসান, জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের কিউরেটর সুকল্যান বাছাড়,  মাকসুদা বেগম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব মঞ্জুর রহমানসহ   অন্যান্য কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

জাদুঘরের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী বলেন,“টাইটানিক জাহাজ নিয়ে এক বিশাল ইতিহাস, ইতিহাসে উপযোগ্য করে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির আলোকে এই মডেলটি জাদুঘরের সৌন্দর্য বৃদ্ধি ও জনপ্রিয়তা বাড়াবে।

খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেডের মহা-ব্যবস্থাপক ক্যাপ্টেন বিএন এম ফিদা হাসান বলেন,“ দুটি সরকারি প্রতিষ্ঠান এক সাথে কাজ করবে, যার ফলে উক্ত টাইটানিক স্থাপন করা হলে সেটি উপভোগ্য হবে এবং দর্শক যারা আসবেন তারা যেন উপভোগ করতে পারেন সেটির সর্বান্তক প্রচেষ্টা থাকবে।

একুশের প্রথম প্রহরে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
                                  

ডেস্ক রিপোর্ট : একুশে ফেব্রুয়ারি মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রথম প্রহরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে ভাষাশহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ শক্রুবার  রাত ১২টা ১ মিনিটে প্রথমে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এরপরই পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এ সময় ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারী/আমি কি ভুলিতে পারি’ গানের সুর বাজতে থাকে। পুষ্পস্তবক অর্পণের পর রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থেকে ভাষা আন্দোলনের শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর পর স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী পুস্পস্তবক অর্পণ করেন। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দলীয় প্রধান হিসেবে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের নিয়ে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

ভাষা আন্দোলন দমন করতে ১৯৫২ সালের আজকের এই দিনে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান সরকার ঢাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে। ছাত্ররা ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে মিছিল করেন। সেই মিছিলে গুলি চলে। গুলিতে শহীদ হন সালাম, রফিক, বরকত, জব্বার। তাদের স্মরণেই দেশবাসী এই শহীদ মিনারের সামনে এসে বিনম্র শ্রদ্ধা জানায়। শ্রদ্ধা-ভালোবাসার ফুলে ছেয়ে যায় মিনারের বেদি।

 


   Page 1 of 353
     জাতীয়
নববর্ষের সব অনুষ্ঠান বন্ধ: প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
তিন হাজার শয্যার হাসপাতাল হচ্ছে মহাখালীর ডিএনসিসি মার্কেটে
.............................................................................................
পরিস্থিতি দেখে সিদ্ধান্ত নেবেন প্রধানমন্ত্রী: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
দেশে নতুন কোন করোনা আক্রান্ত রোগী নেই
.............................................................................................
করোনার কারণে বাতিল স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানমালা
.............................................................................................
করোনা শনাক্তে চিকিৎসা সরঞ্জাম দিচ্ছে চীন
.............................................................................................
গোপালগঞ্জে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
আজ বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মদিনে মুজিববর্ষ শুরু
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
.............................................................................................
মুজিববর্ষ উপলক্ষে সুনামগঞ্জে বিশেষ পরিচ্ছন্নতা
.............................................................................................
গোপালগঞ্জে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় মুক্তিযোদ্ধা মো. আলীর দাফন সম্পন্ন
.............................................................................................
মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্রবন্দরের ব্যয় ১৭ হাজার ৭৭৭ কোটি টাকা
.............................................................................................
পদ্মা সেতু ৪ কিলোমিটার দৃশ্যমান
.............................................................................................
ঢাকায় দুদিনের সফরে ভারতের পররাষ্ট্র সচিব
.............................................................................................
বিজ্ঞান জাদুঘরে আসছে “টাইটানিক”
.............................................................................................
একুশের প্রথম প্রহরে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
.............................................................................................
অমর একুশে আজ
.............................................................................................
করোনাভাইরাস শনাক্তে বাংলাদেশকে ৫০০ কিট দিচ্ছে চীন
.............................................................................................
লালমনিরহাটে “রাষ্ট্রপতি আনসার (সেবা) পদক” অর্জন
.............................................................................................
আনসার ও ভিডিপি’র ৪০ তম জাতীয় সমাবেশ আজ
.............................................................................................
মুজিববর্ষে প্রতিটি ঘরে পৌঁছাবে বিদ্যুতের আলো : প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
দুদকের তলব-বেবিচকের প্রধান প্রকৌশলীসহ ৬ জন
.............................................................................................
শুধু সামরিক নয়, মানবিকতার দিক থেকেও সশস্ত্র বাহিনী অনন্য : প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
দেশের পথে প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের জন্য দক্ষ জনশক্তি অত্যন্ত জরুরি : প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে ভারতীয় হাইকমিশনার শ্রদ্ধা নিবেদন
.............................................................................................
বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল সেটাই ছিল লক্ষ্য : প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
বাঙালির শোকের মাস ফেব্রুয়ারি
.............................................................................................
বিদেশি দূতাবাসগুলো গর্হিত কাজ করেছে : শেখ হাসিনা
.............................................................................................
সা‌বেক এম‌পি ওয়াজি উদ্দিন খানের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক
.............................................................................................
৩১ জানুয়ারি : ইতিহাসে আজকের এই দিনে
.............................................................................................
করোনাভাইরাস : চীন থেকে ৩৭০ জনকে ফিরিয়ে আনছে বাংলাদেশ
.............................................................................................
সীমান্ত হত্যা : ভারত-বাংলাদেশ পাল্টাপাল্টি দোষারোপ কেন করছে
.............................................................................................
আত্মবিশ্বাস থাকলে কোনো যুবক আর বেকার থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
নির্বাচনে নাক গলালে কূটনৈতিকদের চলে যেতে বলবো : পররাষ্ট্রমন্ত্রী
.............................................................................................
দ্বিতীয় পদ্মা সেতু নির্মাণের কথা ভাবছি না : সেতুমন্ত্রী
.............................................................................................
অহেতুক চাকরির পেছনে না ছুটে যুব সমাজকে কর্মসংস্থান সৃষ্টির আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর
.............................................................................................
উন্নয়ন সহযোগীদের প্রতি কম শর্ত আরোপের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর
.............................................................................................
সরকার দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে প্রাকৃতিক গ্যাসের ব্যবহার অব্যাহত রাখবে : প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
শ্রমিক লীগের সাবেক সভাপতির মৃত্যুতে শোক প্রধানমন্ত্রীর
.............................................................................................
প্রতিবন্ধীদের ১৩৯০ কোটি ৫০ লাখ টাকা ভাতা দেয়া হচ্ছে : সমাজকল্যাণ মন্ত্রী
.............................................................................................
করোনাভাইরাস : উহানের বাংলাদেশিদের বিচলিত না হবার আহ্বান
.............................................................................................
রিয়ার এডমিরাল শেখ আবুল কালাম আজাদ মোংলা বন্দরের নতুন চেয়ারম্যান
.............................................................................................
ঢাকা-হ্যানয় সম্পর্ক জোরদারে গুরুত্ব আরোপ প্রধানমন্ত্রীর
.............................................................................................
১১ প্রকল্প উদ্বোধন - প্রধানমন্ত্রীর
.............................................................................................
কঙ্গো শান্তিরক্ষা মিশনে দক্ষতা-সক্ষমতায় সেরা বাংলাদেশ সেনাবাহিনী
.............................................................................................
বিআইডব্লিউটিএ‘র নতুন চেয়ারম্যান পদে কমডোর গোলাম সাদেক
.............................................................................................
সরকারের ধারাবাহিকতা দেশের অগ্রগতি দৃশ্যমান করেছে : প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
হেলিকপ্টার থেকে প্রধানমন্ত্রীর মোবাইলে পদ্মা সেতুর ছবি
.............................................................................................

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মো: রিপন তরফদার নিয়াম ।
প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক : মফিজুর রহমান রোকন ।
নির্বাহী সম্পাদক : শাহাদাত হোসেন শাহীন ।

সম্পাদক কর্তৃক শরীয়তপুর প্রিন্টিং প্রেস, ২৩৪ ফকিরাপুল, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত । সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল কমপ্ল্যাক্স (৬ষ্ঠ তলা) । ২৮/১ সি টয়েনবি সার্কুলার রোড, মতিঝিল, বা/এ ঢাকা-১০০০ । জিপিও বক্স নং-৫৪৭, ঢাকা ।
ফোন নাম্বার : ০২-৯৫৮৭৮৫০, ০২-৫৭১৬০৪০৪
মোবাইল : ০১৭০৭-০৮৯৫৫৩, ০১৯১৬৮২২৫৬৬ ।

E-mail: dailyganomukti@gmail.com
   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD