ঢাকা, সোমবার , ১৩ আশ্বিন ১৪২৭ , ২৮ সেপ্টেম্বর , ২০২০ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : > করোনায় দেশে আরো ৩২ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১,২৭৫   > এক্সট্রাকশনের পর নেটফ্লিক্সের নতুন ছবিতে ক্রিস হেমসওয়ার্থ   > ঠাকুরগাঁওয়ে সুরক্ষা সামগ্রী ও স্বাস্থ্য উপকরণ বিতরণ   > বিনামূল্যে গ্রামীন জনপদের প্রান্তিক মায়েরা পাচ্ছে জরায়ু ও স্তন ক্যান্সার নির্ণয়ের সেবা   > বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্বপাড়ে বাঁধের পুনঃনির্মাণ কাজ শেষ না হতেই ভাঙন   > টাঙ্গাইলে গৃহবধূর আত্মহত্যা!   > নীলফামারীতে ভিটামিন"এ" ক্যাম্পেইন সাংবাদিক ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা   > সাংগুতে বিপুল পরিমান ইয়াবা উদ্ধার করেছে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড   > মোংলায় বিশ্ব নদী দিবস পালন   > বৌদ্ধবিহারে বিশ্ববিদ্যালয় পুন:প্রতিষ্ঠার দাবি  

   জাতীয় -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আর নেই

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আর নেই। রোববার সন্ধ্যা ৭টা ২৫ মিনিটে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন তিনি (ইন্না লিল্লাহি...রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৭১ বছর। তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। আইনমন্ত্রী আনিসুল হক সমকালকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

অ্যাটর্নি জেনারেলের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, আইনমন্ত্রী আনিসুল হকসহ মন্ত্রীপরিষদের সদস্যরা। এছাড়া বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা, সংসদ সদস্য, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে শোক জানানো হয়েছে।

গত ৩ সেপ্টেম্বর রাতে অ্যাটর্নি জেনারেল জ্বর অনুভব করেন। ৪ সেপ্টেম্বর সকালে করোনা পরীক্ষা করালে রিপোর্ট পজিটিভ আসে। একইদিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে তিনি সিএমএইচে ভর্তি হন। ১৮ সেপ্টেম্বর শুক্রবার ভোরে তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়।

৭১ বছর বয়সী মাহবুবে আলম ২০০৯ সাল থেকে বাংলাদেশের অ্যাটর্নি জেনারেলের দায়িত্বে ছিলেন। ১৯৭৫ সালে হাই কোর্টে আইন পেশায় যুক্ত হন তিনি। ১৯৮০ সালে আপিল বিভাগের আইনজীবী হন। ১৯৯৯ সালে তিনি সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী হিসাবে তালিকাভুক্ত হন এবং ২০০৪ সালে বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সদস্য নির্বাচিত হন। এ জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ১৯৯৮ সালের ১৫ নভেম্বর থেকে ২০০১ সালের ৪ অক্টোবর পর্যন্ত বাংলাদেশের অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। মাহবুবে আলম সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ১৯৯৩-৯৪ সালে সম্পাদক ও ২০০৫-২০০৬ সালে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন। পরে ২০০৯ সালের ১৩ জানুয়ারি বাংলাদেশের অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে নিয়োগ প্রাপ্ত হন।

মাহবুবে আলম ১৯৪৯ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের মৌছামন্দ্রা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে বিএ (অনার্স) এবং পাবলিক প্রশাসনে এমএ পাস করেন। তিনি ১৯৭৯ সালে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে সংবিধান ও সংসদীয় গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইসিপিএস) থেকে সাংবিধানিক আইন এবং সংসদীয় প্রতিষ্ঠান ও পদ্ধতিতে দুটি ডিপ্লোমা ডিগ্রি অর্জন করেন।

এমটি/ এসএইচ

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আর নেই
                                  

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আর নেই। রোববার সন্ধ্যা ৭টা ২৫ মিনিটে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন তিনি (ইন্না লিল্লাহি...রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৭১ বছর। তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। আইনমন্ত্রী আনিসুল হক সমকালকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

অ্যাটর্নি জেনারেলের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, আইনমন্ত্রী আনিসুল হকসহ মন্ত্রীপরিষদের সদস্যরা। এছাড়া বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা, সংসদ সদস্য, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে শোক জানানো হয়েছে।

গত ৩ সেপ্টেম্বর রাতে অ্যাটর্নি জেনারেল জ্বর অনুভব করেন। ৪ সেপ্টেম্বর সকালে করোনা পরীক্ষা করালে রিপোর্ট পজিটিভ আসে। একইদিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে তিনি সিএমএইচে ভর্তি হন। ১৮ সেপ্টেম্বর শুক্রবার ভোরে তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়।

৭১ বছর বয়সী মাহবুবে আলম ২০০৯ সাল থেকে বাংলাদেশের অ্যাটর্নি জেনারেলের দায়িত্বে ছিলেন। ১৯৭৫ সালে হাই কোর্টে আইন পেশায় যুক্ত হন তিনি। ১৯৮০ সালে আপিল বিভাগের আইনজীবী হন। ১৯৯৯ সালে তিনি সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী হিসাবে তালিকাভুক্ত হন এবং ২০০৪ সালে বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সদস্য নির্বাচিত হন। এ জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ১৯৯৮ সালের ১৫ নভেম্বর থেকে ২০০১ সালের ৪ অক্টোবর পর্যন্ত বাংলাদেশের অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। মাহবুবে আলম সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ১৯৯৩-৯৪ সালে সম্পাদক ও ২০০৫-২০০৬ সালে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন। পরে ২০০৯ সালের ১৩ জানুয়ারি বাংলাদেশের অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে নিয়োগ প্রাপ্ত হন।

মাহবুবে আলম ১৯৪৯ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের মৌছামন্দ্রা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে বিএ (অনার্স) এবং পাবলিক প্রশাসনে এমএ পাস করেন। তিনি ১৯৭৯ সালে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে সংবিধান ও সংসদীয় গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইসিপিএস) থেকে সাংবিধানিক আইন এবং সংসদীয় প্রতিষ্ঠান ও পদ্ধতিতে দুটি ডিপ্লোমা ডিগ্রি অর্জন করেন।

এমটি/ এসএইচ

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আর নেই
                                  

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আর নেই। রোববার সন্ধ্যা ৭টা ২৫ মিনিটে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন তিনি (ইন্না লিল্লাহি...রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৭১ বছর। তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। আইনমন্ত্রী আনিসুল হক সমকালকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

অ্যাটর্নি জেনারেলের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, আইনমন্ত্রী আনিসুল হকসহ মন্ত্রীপরিষদের সদস্যরা। এছাড়া বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা, সংসদ সদস্য, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে শোক জানানো হয়েছে।

গত ৩ সেপ্টেম্বর রাতে অ্যাটর্নি জেনারেল জ্বর অনুভব করেন। ৪ সেপ্টেম্বর সকালে করোনা পরীক্ষা করালে রিপোর্ট পজিটিভ আসে। একইদিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে তিনি সিএমএইচে ভর্তি হন। ১৮ সেপ্টেম্বর শুক্রবার ভোরে তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়।

৭১ বছর বয়সী মাহবুবে আলম ২০০৯ সাল থেকে বাংলাদেশের অ্যাটর্নি জেনারেলের দায়িত্বে ছিলেন। ১৯৭৫ সালে হাই কোর্টে আইন পেশায় যুক্ত হন তিনি। ১৯৮০ সালে আপিল বিভাগের আইনজীবী হন। ১৯৯৯ সালে তিনি সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী হিসাবে তালিকাভুক্ত হন এবং ২০০৪ সালে বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সদস্য নির্বাচিত হন। এ জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ১৯৯৮ সালের ১৫ নভেম্বর থেকে ২০০১ সালের ৪ অক্টোবর পর্যন্ত বাংলাদেশের অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। মাহবুবে আলম সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ১৯৯৩-৯৪ সালে সম্পাদক ও ২০০৫-২০০৬ সালে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন। পরে ২০০৯ সালের ১৩ জানুয়ারি বাংলাদেশের অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে নিয়োগ প্রাপ্ত হন।

মাহবুবে আলম ১৯৪৯ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের মৌছামন্দ্রা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে বিএ (অনার্স) এবং পাবলিক প্রশাসনে এমএ পাস করেন। তিনি ১৯৭৯ সালে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে সংবিধান ও সংসদীয় গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইসিপিএস) থেকে সাংবিধানিক আইন এবং সংসদীয় প্রতিষ্ঠান ও পদ্ধতিতে দুটি ডিপ্লোমা ডিগ্রি অর্জন করেন।

এমটি/ এসএইচ

করোনায় কার্মহীন শহরের ৬৬ শতাংশ মানুষ
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারিতে বাংলাদেশের শহরাঞ্চলের ৬৬ শতাংশ মানুষ তাদের কর্ম হারিয়েছেন। আর গ্রামাঞ্চলের ৪১ শতাংশ মানুষ তাদের কর্ম হারিয়েছেন। শহরাঞ্চলগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি মানুষ কর্মহীন হয়েছে ঢাকায়।

ঢাকা শহরের ৭৪ শতাংশ মানুষ কর্ম হারিয়েছেন। আর গ্রামাঞ্চলগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি কর্মহীন হয়েছে বরিশাল বিভাগ, ৪৭ শতাংশ।

সম্প্রতি বিশ্ব ব্যাংক ‘লুজিং লাইভলিহুডস : দ্য লেবার মার্কেট ইম্প্যাক্টস অব কোভিড-১৯ ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক এক প্রতিবেদনে এ তথ্য তুলে ধরেছে।

বাংলাদেশের শ্রমবাজারে করোনা কী ধরনের প্রভাব ফেলেছে, তার চিত্র তুলে ধরা হয়েছে প্রতিবেদনটিতে। এর মধ্যে বিশেষ গুরুত্ব প্রদান করা হয়েছে ঢাকা ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের দরিদ্র এলাকা এবং কক্সবাজার জেলাকে।

প্রতিবেদনের তথ্যানুযায়ী, বরিশাল বিভাগের শহরের ৫৪ শতাংশ ও গ্রামাঞ্চলের ৪৭ শতাংশ; চট্টগ্রাম বিভাগের শহরের ৬৩ শতাংশ ও গ্রামাঞ্চলের ৪৪ শতাংশ; ঢাকা বিভাগের শহরের ৭৪ শতাংশ ও গ্রামাঞ্চলের ৪৫ শতাংশ; খুলনা বিভাগের শহরের ৫৯ শতাংশ ও গ্রামাঞ্চলের ৩৯ শতাংশ; রাজশাহী বিভাগের শহরের ৬১ শতাংশ ও গ্রামাঞ্চলের ৩৫ শতাংশ; রংপুর বিভাগের শহরের ৫৮ শতাংশ ও গ্রামাঞ্চলের ৩৭ শতাংশ এবং সিলেট বিভাগের শহরের ৬৬ শতাংশ ও গ্রামাঞ্চলের ৩৯ শতাংশ মানুষ কর্মহীন হয়েছেন করোনায়।

অস্ত্র মামলায় পাপিয়া দম্পতির যাবজ্জীবন চায় রাষ্ট্রপক্ষ
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : অস্ত্র আইনে দায়ের করা মামলায় যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমানের সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দাবি করেছে রাষ্ট্রপক্ষ।

আজ বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালতে রাষ্ট্রপক্ষ যুক্তি উপস্থাপনে এ দাবি করেন। রাষ্ট্রপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে আসামি পক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শুরু হয়। তবে এদিন আসামি মফিজুর রহমানের পক্ষে তার আইনজীবী এ এফ এম গোলাম ফাত্তাহ যুক্তি উপস্থাপন শেষ করেন। তবে আসামি পাপিয়ার পক্ষে তার আইনজীবী সাখাওয়াত উল্লাহ ভূইয়া আংশিক যুক্তি উপস্থাপন করেন। পরে আদালত অবশিষ্ট যুক্তি উপস্থাপনের জন্য আগামী রবিবার দিন ধার্য করেন।

এদিকে, গত ৯ সেপ্টেম্বর আদালতে অস্ত্র আইনে করা মামলায় আত্মপক্ষ সমর্থনে নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন পাপিয়া দম্পতি। পরে আদালত রাষ্ট্রপক্ষের যুক্তি উপস্থাপনের জন্য ২৪ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেন।

গত ৮ সেপ্টেম্বর আদালতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা র‍্যাবের উপপরিদর্শক আরিফুজ্জামানের সাক্ষ্য দেন। এর মধ্য দিয়ে মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়। এ মামলায় মোট ১৪ জন সাক্ষীর মধ্যে ১২ জন সাক্ষ্য দেন।

গত ৬ সেপ্টেম্বর তাদের বিরুদ্ধে পুলিশ উপপরিদর্শক সুধাংশু সরকার, মো. শাইরুল ইসলাম ও র‍্যাবের উপপরিদর্শক আরিফুজ্জামান আদালতে সাক্ষ্য দেন। এদিন সাক্ষী সুধাংশু সরকার, মো. শাইরুল ইসলামের সাক্ষ্য ও জেরা শেষ হলেও তদন্ত কর্মকর্তা আরিফুজ্জামানের আংশিক সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়। এ সময় আদালত বাকি সাক্ষ্যগ্রহণ ও জেরার জন্য ৮ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেন।

এর আগে গত ৩১ আগস্ট মামলার জব্দ তালিকার সাক্ষী র‌্যাবের উপপরির্দ্শক সাইফুল আলম আদালতে সাক্ষ্য দেন। পরের দিন ১ সেপ্টেম্বর তাকে জেরা করেন আসামিপক্ষের আইনজীবী। একই দিন মামলার বাদী র‍্যাবের ডিএডি শফিকুল ইসলামের সাক্ষ্যগ্রহণ ও জেরার মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় দিনের সাক্ষ্য শেষ হয়। এরপর সাক্ষ্যগ্রহণের তৃতীয় দিন ২ সেপ্টেম্বর আদালতে তাদের বিরুদ্ধে আরো পাঁচজন সাক্ষ্য দেন। তারা হলেন, এএসআই সুমন মিয়া, সিপাহি ফারুক হোসেন, সিপাহি আলেয়া খাতুন, সঙ্গীয় ফোর্স জীবন চন্দ্র ও বাড়ির ম্যানেজার দীপ্ত দাস। পরে গত ৩ সেপ্টেম্বর জব্দ তালিকার সাক্ষী পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক জামাল ও জনৈক হাবিবুর রহমান সাক্ষ্য দেন। পরে আদালত সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য ৬ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেন।

উল্লেখ্য, গত ২২ ফেব্রুয়ারি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে দেশত্যাগের সময় পাপিয়াসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করে র্যাব। এসময় তাদের কাছ থেকে সাতটি পাসপোর্ট, নগদ দুই লাখ ১২ হাজার ২৭০ টাকা, ২৫ হাজার ৬০০ টাকার জাল মুদ্রা, ১১ হাজার ৯১ ইউএস ডলারসহ বিভিন্ন দেশের মুদ্রা জব্দ করা হয়।

প্রতিদিন ১২০ কোটি লিটার পয়ঃবর্জ্য নদীতে, মারাত্মক হুমকিতে জনজীবন
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : ঢাকায় প্রতিদিন ১৭৫ কোটি লিটার পয়ঃবর্জ্য তৈরি হয়। এর মধ্যে মাত্র ৩৫ কোটি লিটার শোধন করতে পারে সরকারের দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থা ঢাকা ওয়াসা। বাকি ১২০ কোটি লিটার ঢাকা ও চার পাশের নদী, খাল এবং জলাশয়ে মিশে পরিবেশ ও প্রতিবেশ মারাত্মকভাবে দূষণ করছে।

দিন দিন বসবাসের অযোগ্য হয়ে উঠছে পুরো ঢাকা মহানগর। চর্ম ও ফুসফুসসহ নানা জটিল রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন নগরবাসী। ওয়াসার সংশ্লিষ্টদের চরম গাফিলতিতে এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তাদের মতে, পয়ঃবর্জ্য নিয়ে বিদ্যমান সমস্যা চলছে কয়েক যুগ ধরে।

কিন্তু অদ্যাবধি নেয়া হয়নি তেমন কোনো কার্যকর পদক্ষেপ। অথচ পানির বিলের সঙ্গে পয়ঃবর্জ্য নামে আরেকটি বিল আছে অনেক এলাকায়। সেখানকার গ্রাহকদের কাছ থেকে বিগত বছরগুলোতে গড়ে ২০০ কোটি টাকা আদায় করেছে সংস্থাটি। এর মধ্যে চলতি অর্থবছরে পানি ও পয়ঃবর্জ্য বিল একত্রে বাড়িয়েছে ২৫ শতাংশ। সেই হিসাবে চলতি অর্থবছরে ৩২৮ কোটি টাকা পয়ঃবর্জ্য বাবদ গ্রাহকদের কাছ থেকে আদায় করা হবে। এত টাকা যায় কোথায়- এমন প্রশ্ন করে সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।

সংশ্লিষ্টরা জানান, বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ ও পয়ঃনিষ্কাশন ঢাকা ওয়াসার প্রধান কাজ হলেও বরাবরই প্রতিষ্ঠানটির পয়ঃনিষ্কাশন কাজে আগ্রহ কম। ফলে ষাটের দশকে প্রতিষ্ঠিত ঢাকা ওয়াসা নগরবাসীকে চাহিদার আলোকে পানি সরবরাহ করতে সক্ষম হলেও পয়ঃনিষ্কাশন সেবা দিতে ব্যর্থ হচ্ছে।

কবে নাগাদ ঢাকাবাসীর পয়ঃনিষ্কাশন সেবা নিশ্চিত হবে- সে ব্যাপারে সুস্পষ্ট ধারণা দিতে পারেননি ঢাকা ওয়াসার দায়িত্বপ্রাপ্তরা।

আরও জানা গেছে, ঢাকা ওয়াসা নগরবাসীকে দৈনিক ২৫০ কোটি লিটার পানি সরবরাহ করে। আন্তর্জাতিক হিসাব অনুযায়ী সরবরাহকৃত পানির ৭০ ভাগ পয়ঃবর্জ্য তৈরি হয়। সেই হিসেবে ঢাকায় দৈনিক ১৭৫ কোটি লিটার পয়ঃবর্জ্য তৈরি হচ্ছে।

এর মধ্যে ঢাকা ওয়াসার দাবি অনুযায়ী ২০ ভাগ অর্থাৎ ৩৫ কোটি লিটার পয়ঃবর্জ্য শোধন করছে। আর ওয়াসার হাতে থাকা একমাত্র শোধনাগারের (পাগলা পয়ঃশোধনাগার) মাধ্যমে এসব বর্জ্য শোধন করা হচ্ছে।

সূত্র জানায়, ঢাকা ওয়াসার মডস জোন-১, ২, ৩, ৫, ৬ ও ৭ এর আওতায় পুরান ঢাকা, ধানমণ্ডি, মোহাম্মদপুরসহ আশপাশের এলাকা, বাসাবো, গেন্ডারিয়া, গুলশান, বনানী, বারিধারা, মতিঝিল, মালিবাগ, সেগুনবাগিচা, মগবাজার, দনিয়া এবং শ্যামপুর এলাকাজুড়ে ৯৬১ কিলোমিটার পয়ঃবর্জ্য সরবরাহ লাইন রয়েছে।

এসব এলাকার পাইপলাইনের মাধ্যমে পয়ঃবর্জ্য পাগলা পয়ঃশোধনাগারে যাওয়ার কথা। কিন্তু, রক্ষণা-বেক্ষণের অভাবে এসব লাইনের বেশির ভাগ অকেজো হয়ে রয়েছে। ধানমণ্ডি, মোহাম্মদপুর, গুলশান, বনানী, তেজগাঁও এলাকার পয়ঃবর্জ্য সংযোগ হাতিরঝিল এসে বিচ্ছিন্ন হয়েছে।

আর ধোলাইখালে পুরান ঢাকাসহ আশপাশের এলাকার পয়ঃবর্জ্য সংযোগ লাইন বিচ্ছিন্ন হয়েছে ধোলাইখালে। এখানে বিকল্প পাইপলাইন করে সামান্য পরিমাণ পয়ঃবর্জ্য পাগলা পয়ঃশোধনাগারে যাচ্ছে। বাকি পয়ঃবর্জ্য যত্রতত্র খাল, ডোবা, নালা এবং জলাশয়ে মিশে যাচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে নগর বিশেষজ্ঞ ও স্থপতি ইকবাল হাবিব বলেন, ‘ঢাকা ওয়াসা ২০ শতাংশ পয়ঃবর্জ্য শোধন করার যে সক্ষমতার কথা বলছে, সেটাও আট বছর আগের। সে সময় প্রচুর অর্থ খরচ করে পানি ও পয়ঃবর্জ্য সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ গ্রহণ করেছিল ওয়াসা। এখন চিত্র তার চেয়েও খারাপ।’

তিনি বলেন, ‘ঢাকা ওয়াসার পয়ঃবর্জ্য ব্যবস্থাপনার ব্যর্থতার কারণে ঢাকার ডোবা, নালা, খাল, জলাধার এবং চার পাশের নদীগুলো দূষণ করছে। এমন দূষিত পরিবেশের মধ্যে বসবাস করা আর স্বচ্ছ পানির ডোবা, নালা, খাল বা নদীর পাশে বসবাস করার মধ্যে পার্থক্য তো সবাই বুঝতে পারে। পানির বিলের সঙ্গে পয়ঃবর্জ্য বিল আদায় করে ঢাকা ওয়াসা মূলত গ্রাহকদের সঙ্গে প্রতারণা করছে। একই সঙ্গে রাষ্ট্রের অর্থের অপচয় করছে।’

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের (বাপা) সভাপতি ডা. মো. আবদুল মতিন বলেন, ‘পয়ঃবর্জ্য দূষণের কারণে খাদ্যনালী এবং চর্মজাতীয় সব ধরনের রোগ হয়ে থাকে। আর এসব রোগ দীর্ঘস্থায়ী হলে ক্যান্সারে রূপ নেয়।’

ঢাকায় ১২৮ কিলোমিটার মেট্রোরেল রুট হবে: ওবায়দুল কাদের
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘ঢাকা মহানগরী ও পার্শ্ববর্তী এলাকার যানজট নিরসন এবং গণপরিবহনের সক্ষমতা বাড়াতে ২০৩০ সালের মধ্যে সরকার ছয়টি মেট্রোরেল রুট নির্মাণের পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। এর আওতায় ১২৮ কিলোমিটার রুট নির্মাণ করা হবে। যার ৬৭ কিলোমিটার হবে উড়াল পথে এবং ৬১ কিলোমিটার হবে পাতাল পথে।’

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী আজ বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) তার সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মেট্রোরেল প্রকল্পের উদ্যোগে নির্মিত ফিল্ড হাসপাতাল উদ্বোধনকালে এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘করোনা মানুষের জীবনের মতো মেট্রোরেলেরও সবকিছু ওলটপালট করে দিয়েছে। নতুন নতুন সংকট শুরু হয় এ প্রকল্পে, সমাধানের জন্যও খোঁজা হয় পথ। এই মহামারিতে মেট্রোরেলের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় হাসপাতাল নির্মাণসহ নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এই প্রকল্পে জাপান ও থাইল্যান্ডের প্রকৌশলী পরামর্শকরাই কাজ করছেন বেশি। সংশ্লিষ্টদের করোনা শনাক্ত হলে কিংবা উপসর্গ থাকলে প্রকল্প এলাকায় কোয়ারেন্টিনে রাখা হচ্ছে। পাশাপাশি করোনাকালে সংশ্লিষ্ট কর্মীদের প্রকল্প এলাকায় আবাসনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।’

ওবায়দুল কাদের জানান, ‘করোনা দীর্ঘায়িত হতে পারে এমন বিবেচনায় মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ কর্মীদের জন্য দুটি ফিল্ড হাসপাতাল নির্মাণ করেছে। এর একটি উত্তরার পঞ্চবটী কন্সট্রাকশন ইয়ার্ডে ১৪ শয্যাবিশিষ্ট এবং অপরটি গাবতলীর কন্সট্রাকশন ইয়ার্ডে ১০ শয্যার। এ দুটি হাসপাতালে আইসিইউ সুবিধাসহ সব সুবিধাই রাখা হয়েছে। দেশে কোনও উন্নয়ন প্রকল্পের জন্য হাসপাতাল নির্মাণের নজির এই প্রথম। এটি মেট্রোরেল প্রকল্পে কর্মীদের জন্য ফিল্ড হাসপাতাল।’

এ প্রকল্পের জনশক্তিকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘করোনায় আক্রান্ত হলে নিজেদের জন্য চিকিৎসা ব্যবস্থা গড়ে তোলার অংশ হিসেবে নির্মাণ করা হয়েছে এ দুটি ফিল্ড হাসপাতাল। এতে প্রকল্পে যারা কাজ করছেন এতে তাদের মনোবল বৃদ্ধি পাবে এবং কাজের গতিও বাড়বে।’

অনুষ্ঠানে উত্তরা ও গাবতলী ইয়ার্ডে নির্মিত হাসপাতাল দুটির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ডাক্তার ও তত্ত্বাবধায়করা বলেন, করোনাকালে চলমান কাজে কিছুটা ধীরগতি থাকলেও এখন আর সেই সমস্যা হবে না। তারা বলেন, এই হাসপাতালে আধুনিক মানসম্মত চিকিৎসা সেবা দিতে সব ধরনের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

এসময় ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে উপস্থিত ছিলেন সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. নজরুল ইসলাম, ডিএমটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ এন ছিদ্দিক ও প্রকল্প পরিচালকসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

প্রবাসী কল্যাণ ভবনের সামনে সৌদি প্রবাসীদের বিক্ষোভ
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : সৌদিয়া এয়ারলাইন্স টিকিট বিক্রি সংক্রান্ত সব কার্যক্রম অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করায় আজও বিক্ষোভ করছেন সৌদি প্রবাসীরা। সেই বিক্ষোভের সূত্র ধরেই রাজধানীর রমনা এলাকার ইস্কাটনে প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয় ঘেরাও করেছেন তারা। আজ বুধবার সকাল থেকে আবার বিক্ষোভ শুরু করেন প্রবাসীরা। বেলা ১১টার দিকে তারা মন্ত্রণালয়ের সামনের সড়কে অবস্থান নেন।

এর আগে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে বিক্ষোভ থেকে ঘোষণা আসে, তারা প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং জনকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে দাবি-দাওয়া নিয়ে যাবেন। ঘোষণা আসার সঙ্গে সঙ্গে সাড়ে ৯টার দিকে তারা কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ ধরে মন্ত্রণালয়গুলোর উদ্দেশে যাত্রা শুরু করেন।

পুলিশের রমনা জোনের সহকারী কমিশনার এস এম শামীম জানিয়েছেন, প্রবাসীদের একটি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীসহ উধ্র্বতন কর্মকর্তাদের আজ বৈঠকের কথা রয়েছে। তিনি বলেন, ‘পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। মন্ত্রণালয়ের সামনের সড়কের একপাশে প্রবাসীরা অবস্থান করছেন। দুপুরে তাদের পাঁচজনের একটি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্টদের বৈঠক হবে।’

সকালে বিক্ষোভরে সময় দেওয়া ঘোষণায় মাইক হাতে প্রবাসীদের প্রতিনিধি বলেন, ‘আমাদের প্রতিনিধি প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ে গিয়েছে, কিন্তু সেখান থেকে কোনো সুরাহা আসেনি। আমরা আজ প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উদ্দেশে সবাই রওনা দেব। সেখানে যদি কোনো ফয়সালা না করা হয়, আমরা তাৎক্ষণিকভাবে সেখানে অবস্থান নেব। আমরা এখন পররাষ্ট্র, জনকল্যাণ এবং প্রবাসী কল্যাণ-এই মন্ত্রণালয়গুলোয় সুষ্ঠুভাবে যাব এবং কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা করব না।’

উল্লেখ্য, করোনার সময় যারা দেশে এসেছিলেন, যেতে না পেরে ইতোমধ্যে অনেকের ভিসা ও আকামার মেয়াদ শেষ হয়েছে। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে অনেকের ভিসা, আকামার মেয়াদ শেষ হবে। ফলে পাঁচ শতাধিক সৌদি প্রবাসী সৌদিয়া এয়ারলাইন্সের সামনে কারওয়ান বাজার মোড়ে বিক্ষোভ করছেন।

এদিকে, করোনার কারণে ৬ মাস বন্ধ থাকার পর প্রথম সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট গতকাল রাতে ঢাকা ছেড়েছে। সৌদি সময় মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৩টা ২০ মিনিটে সৌদি আরবের কিং খালেদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেছে ফ্লাইটটি।

একনেকে ১২৬৬ কোটি খরচে ৫ প্রকল্প অনুমোদন
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : ইলিশ সম্পদ উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনা প্রকল্পসহ পাঁচটি প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। এসব প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে এক হাজার ২৬৬ কোটি ১৩ লাখ টাকা। এর মধ্যে চারটি নতুন প্রকল্প এবং একটি সংশোধিত প্রকল্প।

মঙ্গলবার একনেকের সভায় এসব প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী ও পরিকল্পনামন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে সভায় যুক্ত হন। এছাড়া অন্যান্য মন্ত্রী-সচিবরা শেরেবাংলা নগরে অবস্থিত এনইসি সম্মেলন কক্ষ থেকে সভায় যুক্ত হন। সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।


অনুমোদিত প্রকল্পগুলোর মধ্যে রয়েছে- সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের ‘জামালপুর জেলার দিগপাইত-সরিষাবাড়ি-তারাকান্দি সড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ’ প্রকল্প। এতে খরচ হবে ২৭৬ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। ২০২০ সালের জুলাই থেকে ২০২৩ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে বাস্তবায়ন করা হবে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ‘সীমান্ত এলাকায় বিজিবির ৭৩টি কম্পোজিট/আধুনিক বর্ডার অবজারভেশন পোস্ট (বিওপি) নির্মাণ’ প্রকল্প। এতে খরচ হবে ২৩৩ কোটি ৫২ লাখ টাকা। ২০২০ সালের জুলাই থেকে ২০২২ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়ে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে।

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ‘৮টি সরকারি শিশু পরিবারে ২৫ শয্যাবিশিষ্ট শান্তিনিবাস স্থাপন’ প্রকল্প। এতে খরচ হবে ৭৩ কোটি ৯৯ লাখ টাকা। ২০২০ সালের জুলাই থেকে ২০২২ সালের জুন মেয়াদে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের ‘ইলিশ সম্পদ উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনা’ প্রকল্প। এতে খরচ হবে ২৪৬ কোটি ২৮ লাখ টাকা। ২০২০ সালের জুলাই থেকে ২০২৪ সালের জুনের মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে।

প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের ‘৪০টি উপজেলায় ৪০টি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ও চট্টগ্রামে একটি ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজি স্থাপন (প্রথম সংশোধন)’ প্রকল্প। এতে খরচ হচ্ছে ৩৩৫ কোটি ৭৮ লাখ টাকা। ২০১৬ সালের জানুয়ারি থেকে ২০২২ সালের জুনের মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে।

মসজিদে বিস্ফোরণ: মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩৪
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : নারায়ণগঞ্জের পশ্চিম তল্লা বায়তুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। তার নাম সিফাত।

আজ মঙ্গলবার সকালে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ নিয়ে বিস্ফোরণের ওই ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৩৪ জনে।

এর আগে গত শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুজনের মৃত্যু হয়। ওই দিন সকালে আব্দুল আজিজ এবং দুপুরে ফরিদ নামে দুজন মারা যান। এই ঘটনায় এখনও দুইজন বার্ন ইনস্টিটিউটে ভর্তি রয়েছেন। তাদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

উল্লেখ্য, গত ৪ সেপ্টেম্বর রাত পৌনে ৯টার দিকে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার পশ্চিমতল্লা এলাকার বায়তুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। তিতাস গ্যাসের পাইপ লাইন থেকে জমে থাকা গ্যাসের কারণে ঘটা এই বিস্ফোরণে মসজিদে নামাজ পড়তে যাওয়া মুসল্লিরা দগ্ধ হন। দগ্ধ মোট ৩৭ জনকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়। এর মধ্যে আজ সকাল পর্যন্ত ৩৪ জন মৃত্যুবরণ করেন। এখনো দুইজন দগ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি আছেন। বাকি একজন সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি গেছেন।

নূরের বিরুদ্ধে এবার অপহরণ-ধর্ষণ মামলা
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুরের বিরুদ্ধে আরও একটি মামলা হয়েছে। তরুণীকে অপহরণ, এরপর পারস্পরিক সহযোগিতায় ধর্ষণ এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হেয় প্রতিপন্ন করার অভিযোগ আনা হয়েছে মামলাটিতে।

আজ মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর কোতোয়ালি থানায় ভুক্তভোগী ওই তরুণী নিজেই বাদী হয়ে মামলাটি করেছেন বলে জানা গেছে। এছাড়া তিনিই আগের মামলাটিও করেছেন বলে জানা গেছে। এ মামলায়ও মোট ছয়জনকে পৃথক পৃথক অভিযোগে আসামি করা হয়েছে।

জানা গেছে, মামলাটিতে দুইটি ধারা উল্লেখ করা হয়েছে। একটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন। আরেকটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন। এছাড়া মামলাটির ছয় আসামি হলেন, বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক নাজমুল হাসান সোহাগ (২৮), একই সংগঠনের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন (২৮), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরু (২৫), বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. সাইফুল ইসলাম (২৮), বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের সভাপতি নাজমুল হুদা (২৫) এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহহিল কাফি (২৩)।

জাতিসংঘকে বাস্তবসম্মত রূপরেখা প্রণয়নের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : শান্তি স্থাপনসহ বৈশ্বিক নানা চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় জাতিসংঘকে সঠিক পথে রাখতে বিশ্বাসযোগ্য ও বাস্তবসম্মত একটি রূপরেখা প্রণয়ন করতে সদস্য দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এছাড়া ভূরাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে জাতিসংঘ যেন দুর্বল না হয় সেই আহ্বান জানান তিনি।

আজ মঙ্গলবার জাতিসংঘের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সদরদপ্তরে শুরু হওয়া জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের বিশেষ অধিবেশনে এসব কথা বলেন তিনি। কোভিড-১৯ মহামারির কারণে জাতিসংঘের ৭৫ বছরের ইতিহাসে এই প্রথম বিশ্ব নেতৃবৃন্দ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে ভার্চুয়ালি যোগ দিচ্ছেন।

ভার্চুয়াল বক্তৃতায় জাতিসংঘকে দুর্বল করে এমন ভূ-রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বিতার অনুমোদন না দেয়ারও আহ্বান জানিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, ‘আমাদের অবশ্যই জাতিসংঘকে দুর্বল করে এমন কোনো ভূ-রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বিতার অনুমোদন দেয়া উচিত নয়। আমরা এটা পূর্ববর্তীদের কাছ থেকে পেয়েছি। এ জন্য তাদের কাছে আমরা ঋণী এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য আমাদেরও জাতিসংঘকে একটি সত্যিকার অর্থে সার্বিকভাবে আন্তর্জাতিক কার্যকরী সংস্থায় পরিণত করতে হবে।’

বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, ‘আমি বলতে চাই যে, আমরা এমন অনেক মুহূর্ত প্রত্যক্ষ করেছি, যা আমাদের মানবসভ্যতার নতুন ইতিহাস গড়ে তুলেছে। ইউএনজিএ-৭৫ এ ধরনের আরেকটি মুহূর্ত আমাদের সামনে এনে দিয়েছে।’

করোনা মহামারি আমাদের ২০৩০ এজেন্ডার লক্ষ্য অর্জনকে আরও কঠিন করে দিয়েছে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘চলমান মহামারিসহ বর্তমান সময়ের চ্যালেঞ্জ বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে এবং আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে এ ধরনের সংকট মোকাবিলার অক্ষমতা প্রকাশ পেয়েছে।

বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেছেন, উন্নত ও উন্নয়নশীল বিশ্ব- সবার কাছেই জাতিসংঘের প্রয়োজনীয়তা যে এখন অন্য যে কোনো সময়ের চেয়ে বেশি, করোনাভাইরাস মহামারী তা দেখিয়ে দিয়েছ। আর সে কারণেই ভূ-রাজনৈতিক বৈরিতা থেকে জাতিসংঘকে দুর্বল করার চেষ্টা মেনে না নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

বিশ্ববাসীর কল্যাণ ও উন্নয়নে জাতিসংঘের সব কর্মীর অক্লান্ত প্রচেষ্টা ও নিবেদনের প্রশংসা করেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী।

জাতিসংঘের কাছে বাংলাদেশের অনেক ঋণের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমাদের উন্নয়নের জন্য জাতিসংঘ নেতৃত্বাধীন প্রচেষ্টাসমূহ থেকে আমরা উপকৃত হয়েছি। আমাদের দিক থেকেও জাতিসংঘকে তার ম্যান্ডেট পূরণে আমরা ভূমিকা রাখছি।’

বিশ্বে শান্তি বজায় রাখার পক্ষে বাংলাদেশের অবস্থান পুনর্ব্যক্ত করেন শেখ হাসিনা। বর্তমানে জাতিসংঘের সব শান্তি রক্ষা মিশনে বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশি সৈন্য ও পুলিশ সদস্য থাকার কথা উল্লেখ করেন তিনি।

সংঘাতপ্রবণ দেশগুলোতে শান্তি ও নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশের দেড়শ শান্তিরক্ষীর জীবন উৎসর্গের কথাও উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিশ্ব মানবতার কল্যাণে জাতিসংঘের কর্মকাণ্ডকে আরও গতিশীল করার প্রত্যাশা জানান বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী।

জাতিসংঘের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর সাথে একই সময়ে হওয়ায় বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আয়োজনটি বিশেষ গুরুত্ব বহন করছে।

বাংলাদেশের সরকারপ্রধান আরও বলেন, ‘১৯৭৪ সালে জাতিসংঘের অধিবেশনে বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন যে, জাতিসংঘ ভবিষ্যতে মানুষের আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটাবে। এটা জাতিসংঘ ও বহুপাক্ষিকতার ওপর বাংলাদেশের আস্থা ও বিশ্বাসের প্রমাণ।’

শেখ হাসিনা আরও বলেন, ‘অক্লান্ত প্রচেষ্টা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করার জন্য আমি জাতিসংঘের সকল কর্মকর্তা ও সংস্থার প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছি।

ব্যাংকটা যেন ভালোভাবে চলে : বিএবি নেতাদের প্রধানমন্ত্রী
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকস (বিএবি) নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, ব্যাংক যেন ভালোভাবে চলে সেদিকে বিশেষ দৃষ্টি দিবেন। আজ রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে বিএবি নেতারা অনুদান দিতে গেলে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে এ অনুদান গ্রহণ করে মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস। প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনা মোকাবিলায় সকলেই আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করেছে। আমি কাউকে বাদ দিতে পারবো না। সে জন্য হয়তো আমরা এটা মোকাবিলা করতে সক্ষম হয়েছি। সামনে শীত, আরেকটু হয়তো খারাপের দিকে যেতে পারে। তবুও আমাদের এখন থেকে প্রস্তুত থাকতে হবে।

তিনি বলেন, বিএবি নেতারা সব সময় এগিয়ে এসেছেন। নিজেরা এগিয়ে এসেছেন তাই আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা যত বেশি প্রাইভেট ব্যাংক দিয়েছি, এতে ব্যাপক হারে কর্মসংস্থান হয়েছে। অনেক মানুষের চাকরি হয়েছে। এটাই হচ্ছে সব থেকে বড় কথা। আর আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্যও সম্প্রসারিত হয়েছে। সেখানে ব্যাংকগুলো যাতে ভালোভাবে চলে আমরা সেটাই চাই।

তিনি বলেন, আপনারা যখন যে দাবিটাবি আনেন, যেটা যুক্তিসঙ্গত সেটা আমরা সবসময়ই বিবেচনা করি। আজকেও বিএবি চেয়ারম্যান নজরুল সাহেব যে কথাগুলো বলেছেন, আমি সেটা দেখবো। যদি সেখানে সমস্যা থাকে তবে যাতে সমস্যা আর না হয় তা আমরা অবশ্যই বিবেচনা করবো। আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে ব্যাংকটা যেন ভালোভাবে চলে সেদিকে আপনারা বিশেষভাবে দৃষ্টি দেবেন।

শেখ হাসিনা বলেন, কিছু কিছু ব্যাংক আছে অতি দুর্বল হয়ে যায়। সে ক্ষেত্রে অনেক সময় মার্জ করাতে হয়। সেটা অবশ্যই বিবেচনা করতে হবে কোনটা ঠিকমতো চলছে। কোনটা ঠিকমতো চালাতে পারছে কিনা? সেগুলো বিবেচনা করেই করা হবে। অবিবেচনা করে কিছুই করা হবে না এইটুকু ভরসা রাখবেন। আপনাদের এ অনুদান সাধারণ মানুষের কল্যাণে কাজে লাগেবে। সে জন্য আপনাদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনার কারণে দেখা হচ্ছে না। তবুও বিকল্প ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। আপনারা আমার অফিসে কষ্ট করে এসেছেন সেজন্য সবাইকে আন্তরিকে ধন্যবাদ। সবাই সুস্থ থাকবেন এটাই আমরা চাই। দোয়া করেন দেশটা যাতে করোনা মহামারি থেকে মুক্তি পায়। সারাবিশ্ব-ই যাতে মুক্তি পায়। মানুষের সত্যিই খুব কষ্ট হচ্ছে করোনার কারণে। তবুও দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য সচল রাখতে আমরা যথাযথ ব্যবস্থা নিচ্ছি। আমরা প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছি। তার জন্য যা যা দরকার সেটা দিয়ে যাচ্ছি। জনগণের জন্য কাজ করাটায় আমাদের লক্ষ্য।

এ সময় বিএবি ছাড়া আরও সাতটি প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে এক কোটি ৬০ লাখ টাকা অনুদান দেয়া হয়। বিএবিতে অন্তর্ভুক্ত ৩৪টি ব্যাংক ১৬৪ কোটি টাকা অনুদান দেয়।

সিটি ব্যাংক, ডাচ বাংলা ব্যাংক, ইস্টার্ন ব্যাংক, এক্সিম ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংকের পক্ষ থেকে ১০ কোটি টাকা করে দেয়া হয়। এবি ব্যাংক, আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক, ব্যাংক এশিয়া, ব্রাক ব্যাংক, ঢাকা ব্যাংক, ফাস্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, যমুনা ব্যাংক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, এনসিসি ব্যাংক, ওয়ান ব্যাংক, পূবালী ব্যাংক, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক, সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক, সাউথইস্ট ব্যাংক, স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক, উত্তরা ব্যাংকের পক্ষ থেকে পাঁচ কোটি টাকা করে দেয়া হয়। ট্রাস্ট ব্যাংক দুই কোটি, মিডল্যান্ড ব্যাংক, মধুমতি ব্যাংক, এনআরবি ব্যাংক, এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংক, এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক, পদ্মা ব্যাংক, এসবিএসি ব্যাংক, ইউনিয়ন ব্যাংকের পক্ষ থেকে ২৫ লাখ টাকা করে দেয়া হয়।

ফরেন অফিসার স্পাউস এসোসিয়েশনের পক্ষে ১০ লাখ, বাংলাদেশ স্থপতি ইনস্টিটিউট পাঁচ লাখ, মিনিস্টার গ্রুপ ২৫ লাখ টাকা এবং এক লাখ সার্জিক্যাল মাস্ক, খাদ্য মন্ত্রণালয় ৬০ লাখ, রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ১০ লাখ, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় ১০ লাখ এবং বাংলাদেশ বিচার বিভাগীয় কর্মচারী অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে ৪০ লাখ টাকা অনুদান দেয়া হয়।

ভারত থেকে আসা বেশিরভাগ পেঁয়াজ পচা
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : আমদানি জটিলতায় বিভিন্ন স্থলবন্দরে দিনের পর দিন আটকে থাকায় পচে গেছে বেশিরভাগ ভারতীয় পেঁয়াজ। দূর দূরান্ত থেকে পেঁয়াজ কিনতে হিলি স্থলবন্দরে এলেও পেঁয়াজ নষ্ট হওয়ায় কিনছেন না কেউই। এতে লোকসানের ঝুঁকিতে পড়েছেন ব্যবসায়ীরা। এদিকে, বিভিন্ন স্থলবন্দরের সীমান্তের ওপারে এখনও অপেক্ষায় রয়েছে শতশত ট্রাক।

দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরে টানা পাঁচদিন আটকে থাকার পর গতকাল শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে অবশেষে বাংলাদেশে ঢোকে নিষেধাজ্ঞার আগে এলসি করা ও এলসির বিপরীতে টেন্ডার করা ভারতীয় পেঁয়াজের ট্রাক। এতে আমদানিকারকদের পাশাপাশি সাধারণ ভোক্তাদের মাঝেও স্বস্তির ছাপ পড়ে। তবে হিলি স্থলবন্দরে মাত্র ১১টি ট্রাক আসার পরই বন্ধ হয়ে যায় এই কার্যক্রম।

ব্যবসায়ীরা জানান, ওপারে এখনও অনুমতির অপেক্ষায় রয়েছে দেড় শতাধিক ট্রাক। তবে, লাখ লাখ টাকার পেঁয়াজ আমদানি করলেও, গরমের মধ্যে বেশ কয়েকদিন বন্দরে আটকে থাকায় বেশিরভাগই নষ্ট হয়ে গেছে। পাইকার এলেও পেঁয়াজ বিক্রি করতে পারছেন না তারা। আর এসব নষ্ট পচা পেঁয়াজ গোডাউনের বাইরে রাখায় দুর্গন্ধে বিপাকে পড়ছেন পথচারীরা। বেশিরভাগ পেঁয়াজ পচেই পানি বের হয়ে গেছে বলেও জানান তারা।

আমদানিকারকদের অভিযোগ, দুই দেশের সরকারকে ট্যাক্স দেয়ার পরও বারবার তাদের এমন ক্ষতির মুখে পড়তে হয়। যারা বিভিন্ন আড়তে কাজ করেন পচে পানি বের হয়ে যাওয়ায় তারাও ঠিক মতো কাজ করতে পারছেন না বলে জানান তারা।

এদিকে, বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে আগের এলসিকৃত পেঁয়াজ বোঝাই কোনো ট্রাক বাংলাদেশে ঢোকেনি। ওপারে এখনো অপেক্ষায় রয়েছে ১৮ থেকে ২০টি ট্রাক। এ অবস্থায় আমদানি অনিশ্চিত হয়ে পড়ায় লোকসান কমাতে ভারতের অভ্যন্তরীণ বাজারেই কম দামে পেঁয়াজ বিক্রি করে দিচ্ছেন আমদানিকারকরা।

এছাড়া, ভোমরা ও সোনা মসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে কয়েকটি পেঁয়াজ বোঝাই ট্রাক দেশে ঢুকলেও এখনো আটকে আছে শত শত ট্রাক।

বাংলাদেশ ছাড়লেন ড. বিজন কুমার শীল
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : বাংলাদেশ ছেড়ে সিঙ্গাপুর গেছেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন বিজ্ঞানী ও গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের করোনা কিট উদ্ভাবন দলের প্রধান বিজ্ঞানী ড. বিজন কুমার শীল।

আজ রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) ভোর সোয়া ৪টায় দিকে তিনি জানান, এখন আমি বিমানবন্দরে অবস্থান করছি। সিঙ্গাপুরে চলে যাচ্ছি।

সিঙ্গাপুর থেকে ওয়ার্ক পারমিট নিয়ে বাংলাদেশে এসেছিলেন ড. বিজন। তিনি গণবিশ্ববিদ্যালয়ের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের প্রধান হিসেবে শিক্ষকতা করছিলেন। এর মধ্যে করোনা সংক্রমণ শুরু হলে পূব অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে তিনি তা শনাক্তে অ্যান্টিজেন্ট ও অ্যান্টিবডি কিটের উদ্ভাবন করেন। তবে তা এখনো অনুমোদন দেয়নি সরকার।

গত জুলাইয়ে তার ওয়ার্ক ভিসার মেয়াদ শেষ হয়। তারপর ওয়ার্ক ভিসার জন্য আবেদন করলেও সরকারের পক্ষ থেকে এখনো কোনো উত্তর দেওয়া হয়নি। ফলে কাজ করতে না পেরে এক ধরনের বাধ্য হয়ে দেশ ছাড়লেন ড. বিজন। ওয়ার্ক ভিসার অনুমতি পেলে তিনি আবার বাংলাদেশে কাজে ফিরতে পারবেন।

এর আগে ড. বিজন কুমার শীল বলেন, আমার আদি বাড়ি ও জন্ম বাংলাদেশে। তবে আমি বাংলাদেশের নাগরিকত্ব সমর্পণ করে সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব গ্রহণ করেছি। তিন বছরের চুক্তিতে গণবিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক হিসেবে ওয়ার্ক পারমিট নিয়ে বাংলাদেশে এসেছিলাম। গত ১ জুলাই ওই ভিসার মেয়াদ শেষ হয়েছে। ভিসার মেয়াদ বাড়াতে আবেদন করেছি। তবে বাংলাদেশ সরকার এখনো সেটি বাড়ায়নি। পরে ট্যুরিস্ট ভিসা নিয়ে ট্যুরিস্ট হিসেবে বাংলাদেশে অবস্থান করছি। এ অবস্থায় গণবিশ্ববিদ্যালয় বা গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকতে পারি না। আর গণবিশ্ববিদ্যালয়ও আমার সঙ্গে চুক্তি বাতিল করেছে।

হাটহাজারী মাদরাসার দায়িত্বে ৩ জ্যেষ্ঠ শিক্ষক
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : হাটহাজারীর আল জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম মাদরাসা পরিচালনার জন্য তিনজনের একটি প্যানেলকে মুহতামিমের (পরিচালক) দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। শনিবার রাতে এক বৈঠকে মাদরাসাটির শূরা কমিটি এই সিদ্ধান্ত নেয়।

তারা হলেন- মুফতী আবদুস সালাম চাটগামী, আল্লামা শেখ আহমদ, মাওলানা ইয়াহহিয়া। একইসঙ্গে হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে মাদরাসাটির প্রধান শায়খুল হাদিস ও নাজিমে তালিমাতের (শিক্ষা পরিচালক) দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। সহকারী শিক্ষাপরিচালক হিসেবে নিযুক্ত করা হয়েছে মাওলানা হাফেজ শোয়াইবকে।

শূরা কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, এই তিনসদস্য বিশিষ্ট কমিটি মাদরাসার সকল কাজের সমস্যা সমাধান করবেন এবং সকলের সমান অধিকার থাকবে। কেউ এককভাবে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন না।

এছাড়াও মাদরাসায় ছাত্র আন্দোলনের নামে শিক্ষকদের কক্ষ ভাঙচুর ও লুটপাটের বিষয়ে আল্লামা শেখ আহমদ, আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী, মাওলানা ওমর, মাওলানা ইয়াহিয়া মাহমুদ, মুফতি জসিম উদ্দিনকে নিয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয় বৈঠকে। এছাড়া আন্দোলন চলাকালীন শূরার বৈঠকে আনাস ও নূরুল ইসলাম জাদীদের বহিষ্কারসহ যেসব সিদ্ধান্ত হয়েছিল তাও বহাল রাখা হয়েছে।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন- আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী হাফি, আল্লামা নূরুল ইসলাম জিহাদী হাফি, আল্লামা নোমান ফয়েজী হাফি, মাওলানা সালাউদ্দীন নানূপুরী হাফি, মাওলানা সুহাইব সাহেব হাফি, মাওলানা ওমর ফারুক হাফিসহ জামিয়ার সিনিয়র শিক্ষকবৃন্দ।

শূরা কমিটি এই করোনাকালীন স্বাস্থ্যবিধি মেনে হাটহাজারী মাদরাসায় নিয়মতান্ত্রিক পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার জন্য মাদরাসা খুলে দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ লক্ষ্যে বাংলাদেশ কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক আল জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসা বন্ধের ঘোষণা প্রত্যাহারের করার অনুরোধ জানানো হবে।

উল্লেখ্য, শুক্রবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় রাজধানীর আজগর আলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন হেফাজতে ইসলামের আমির ও হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচালক আল্লামা শাহ আহমদ শফী। ছাত্র আন্দোলনের মুখে ১৯৮৬ সাল থেকে হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচালকের দায়িত্ব পালন করা আল্লামা শফী গত বৃহস্পতিবার পদত্যাগ করেন।

সীমান্তে হত্যাকাণ্ড বন্ধে বিজিবি-বিএসএফ ঐকমত্য
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : সীমান্তে হত্যাকাণ্ড ও মাদক চোরাচালান শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনতে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও ভারতীয় বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স (বিএসএফ) ঐকমত্য হয়েছে। শনিবার সকালে বিজিবি এবং বিএসএফের মধ্যে মহাপরিচালক পর্যায়ে সীমান্ত সম্মেলনে এমন সিদ্ধান্ত আসে দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীটি।

রাজধানীর বিজিবি সদর দপ্তরের সম্মেলন কক্ষে বিজিবি ও বিএসএফের মহাপরিচালক পর্যায়ে সীমান্ত সম্মেলন শুরু হয় গত বৃহস্পতিবার। দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মহাপরিচালক পর্যায়ের ৫০তম এই সম্মেলনে মাদক, অবৈধ অস্ত্র ও মানবপাচার রোধে সিদ্ধান্তও হয়। এছাড়া আটজন বন্দিকে দ্রুত ফিরিয়ে দিতে সম্মত হয়েছে ভারত। সীমান্তে যেকোনো ইস্যুতে মানবাধিকারের বিষয়টি প্রাধান্য দেয়াতে দুই দেশ সম্মত হয়েছে। এ সময় বিএসএফ সীমান্ত হত্যা বন্ধে নিশ্চিত করেছে। জয়েন্ট পেট্রোলিং (যৌথ টহল) এর ব্যাপারে বিজিবি-বিসিএফ সম্মত হয়েছে।

সম্মেলনে বিজিবির মহাপরিচালক মো. সাফিনুল ইসলামের নেতৃত্বে ১৩ সদস্যের প্রতিনিধিদল অংশ নেয়। বিএসএফের তরফ থেকে অংশ নেয় রাকেশ আস্তানার নেতৃত্বে ছয় সদস্যের প্রতিনিধিদল।

সম্মেলন শেষে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে বিএসএফ মহাপরিচালক রাকেশ আস্তানা বলেন, ‘আমরা বেশ কিছু বিষয়ে একমত হতে পেরেছি। সীমান্তে উভয় দেশের নিরস্ত্র নাগরিকদের হত্যা/আহত /মারধরের ঘটনায় শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনার লক্ষ্যে কাজ করব। করোনাকালীন সীমান্তবর্তী এলাকায় যৌথ টহল পরিচালনা বন্ধ থাকলেও টহল বৃদ্ধি, জনসচেতনামূলক কর্মসূচি এবং সীমান্তে অতিরিক্ত সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণে আমরা উভয়পক্ষ একমত হয়েছি। আমরা মনে করি, সীমান্ত এলাকায় বসবাসকারী নাগরিকদের মাঝে আন্তর্জাতিক সীমানা আইনে বিধি-বিধান সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টি করতে পারলে সীমান্তের আক্রমণ বা হামলা শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনা সম্ভব।

সম্মেলনে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলে বিজিবির অতিরিক্ত মহাপরিচালক ও বিজিবি সদর দপ্তরের সংশ্লিষ্ট স্টাফ অফিসার ছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, যৌথ নদী কমিশন এবং ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা প্রতিনিধিত্ব করেন। ভারতীয় প্রতিনিধিদলে বিএসএফ সদর দপ্তরের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং ভারতের স্বরাষ্ট্র ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা ছিলেন।

সম্মেলন শেষে আজই ঢাকা ত্যাগ করার কথা রয়েছে বিএসএফ প্রতিনিধি দলের। সম্মেলনে যোগ দিতে গত ১৬ সেপ্টেম্বর ঢাকায় আসেন ভারতীয় সীমান্তরক্ষা বাহিনীর প্রতিনিধি দলটি।


   Page 1 of 372
     জাতীয়
অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আর নেই
.............................................................................................
অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আর নেই
.............................................................................................
করোনায় কার্মহীন শহরের ৬৬ শতাংশ মানুষ
.............................................................................................
অস্ত্র মামলায় পাপিয়া দম্পতির যাবজ্জীবন চায় রাষ্ট্রপক্ষ
.............................................................................................
প্রতিদিন ১২০ কোটি লিটার পয়ঃবর্জ্য নদীতে, মারাত্মক হুমকিতে জনজীবন
.............................................................................................
ঢাকায় ১২৮ কিলোমিটার মেট্রোরেল রুট হবে: ওবায়দুল কাদের
.............................................................................................
প্রবাসী কল্যাণ ভবনের সামনে সৌদি প্রবাসীদের বিক্ষোভ
.............................................................................................
একনেকে ১২৬৬ কোটি খরচে ৫ প্রকল্প অনুমোদন
.............................................................................................
মসজিদে বিস্ফোরণ: মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩৪
.............................................................................................
নূরের বিরুদ্ধে এবার অপহরণ-ধর্ষণ মামলা
.............................................................................................
জাতিসংঘকে বাস্তবসম্মত রূপরেখা প্রণয়নের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর
.............................................................................................
ব্যাংকটা যেন ভালোভাবে চলে : বিএবি নেতাদের প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
ভারত থেকে আসা বেশিরভাগ পেঁয়াজ পচা
.............................................................................................
বাংলাদেশ ছাড়লেন ড. বিজন কুমার শীল
.............................................................................................
হাটহাজারী মাদরাসার দায়িত্বে ৩ জ্যেষ্ঠ শিক্ষক
.............................................................................................
সীমান্তে হত্যাকাণ্ড বন্ধে বিজিবি-বিএসএফ ঐকমত্য
.............................................................................................
মসজিদে বিস্ফোরণ : তিতাসের বরখাস্ত হওয়া ৮ জন গ্রেফতার
.............................................................................................
মসজিদে বিস্ফোরণে দগ্ধ আরেকজনের মৃত্যু
.............................................................................................
হাটহাজারী মাদ্রাসায় আল্লামা শফীর মরদেহ, জানাজা দুপুর ২টায়
.............................................................................................
প্রশাসনের প্রতিটি স্তরে জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
আগামী বছর ঢাকায় আসছেন এরদোয়ান
.............................................................................................
সাহেদের যাবজ্জীবন চায় রাষ্ট্রপক্ষ
.............................................................................................
সঠিক পদক্ষেপের কারণে কঠিন পরিস্থিতি মোকাবেলা সম্ভব হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
রিফাত হত্যা মামলার রায় ৩০ সেপ্টেম্বর
.............................................................................................
নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ করোনায় আক্রান্ত
.............................................................................................
খিচুড়ি রান্না নয়, অভিজ্ঞতা নিতেই কর্মকর্তাদের বিদেশ যাওয়ার প্রস্তাব
.............................................................................................
জাতিসংঘের ৩ সংস্থার নির্বাহী বোর্ডের সদস্য হলো বাংলাদেশ
.............................................................................................
আবারও পেঁয়াজের সেঞ্চুরি
.............................................................................................
মুজিববর্ষ উপলক্ষে জাতীয় প্রেসক্লাবে শিক্ষা, শ্রম, বন ও পরিবেশ রক্ষা সোসাইটির আলোচনা সভা
.............................................................................................
আখাউড়া-আগরতলা রেলের কাজ শেষ হচ্ছে মার্চে
.............................................................................................
সিসিইউতে সম্রাট, চিকিৎসার জন্য ১৫ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড
.............................................................................................
রাখাইনে সৈন্য সমাবেশ, মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে তলব
.............................................................................................
ঢাকা-চট্টগ্রাম ডাবল রেলপথ চালু ২০২২ সালের জুনে
.............................................................................................
শেখ রেহানার ৬৬তম জন্মদিন আজ
.............................................................................................
কুমারখালীতে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ২
.............................................................................................
স্বাদের ইলিশ সাধ্যের মধ্যে
.............................................................................................
শারীরিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে ইউএনও ওয়াহিদার
.............................................................................................
পাঁচ মাস পর কাউন্টারে মিলছে ট্রেনের টিকিট
.............................................................................................
শেখ হাসিনাকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর ফোন
.............................................................................................
গুলশান শপিং সেন্টারে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৭ ইউনিট
.............................................................................................
এবার সর্বোচ্চ পরিমাণ পেঁয়াজ আমদানি করা হবে: বাণিজ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
ভ্যাকসিন পেতে সব দেশের সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে: প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ তদন্তে কমিশন গঠনের দাবিতে নোটিশ
.............................................................................................
নারায়ণগঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণে মৃত্যু বেড়ে ২৯
.............................................................................................
নারায়ণগঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণ: পরিবারপ্রতি ৫ লাখ টাকা দেয়ার নির্দেশ
.............................................................................................
অনুমতি ছাড়া সরকারি কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে মামলা নয়
.............................................................................................
মসজিদে বিস্ফোরণ: বাকি ৯ জনই আইসিইউতে
.............................................................................................
সংসদে গাজীপুর উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বিল পাস
.............................................................................................
৭৪ বার পেছালো সাগর-রুনি হত্যার প্রতিবেদন দাখিলের সময়
.............................................................................................
সশস্ত্র বাহিনীর বিভিন্ন পদে দেশপ্রেমিকরাই যেন দায়িত্ব পান: প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মো: রিপন তরফদার নিয়াম
প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক : মফিজুর রহমান রোকন
নির্বাহী সম্পাদক : শাহাদাত হোসেন শাহীন
বাণিজ্যিক কার্যালয় : "রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল কমপ্লেক্স"
(৬ষ্ঠ তলা), ২৮/১ সি, টয়েনবি সার্কুলার রোড,
মতিঝিল বা/এ ঢাকা-১০০০| জিপিও বক্স নং-৫৪৭, ঢাকা
ফোন নাম্বার : ০২-৪৭১২০৮০৫/৬, ০২-৯৫৮৭৮৫০
মোবাইল : ০১৭০৭-০৮৯৫৫৩, 01731800427
E-mail: dailyganomukti@gmail.com
Website : http://www.dailyganomukti.com
   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD