ঢাকা, মঙ্গলবার , ১৪ আশ্বিন ১৪২৭ , ২৯ সেপ্টেম্বর , ২০২০ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : > দেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ২৬, শনাক্ত ১৪৮৮   > ফেরি ঘাটে ভাঙন, চলাচল বন্ধ   > সালথায় ১০ টাকা কেজির চাল বিতরণ শুরু   > মাগুরায় প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনা সভা   > পরিত্যক্ত টয়লেট থেকে ৫৫টি ককটেল উদ্ধার   > কর্মস্থলে থাকার পরও হত্যা মামলার আসামি সুজন   > বাগেরহাটে জমি দখলকারীদের হামলায় নারীসহ আহত ৬   > মেয়র হিসেবে নয়, মানুষের কল্যাণে কাজ করছি: মেয়র আব্দুল কাদের সেখ   > অতিরিক্ত সচিব হলেন লক্ষ্মীপুরের সাবেক ডিসি টিপু সুলতান   > নকল মাস্ক সরবরাহের অভিযোগে জেএমআই চেয়ারম্যান গ্রেফতার  

   প্রবাস -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
ভিসার মেয়াদ বাড়াতে আজও সড়কে সৌদি প্রবাসীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক : স্বয়ংক্রিয় ভিসা ও আকামার মেয়াদ বৃদ্ধি এবং সৌদি এয়ারলাইন্সের টিকিটের টোকেনের দাবিতে আজও সড়কে নেমে বিক্ষোভ করছেন সৌদিপ্রবাসীরা।

মঙ্গলবার সকালে সৌদি প্রবাসীদের একটি অংশ সার্ক ফোয়ারা মোড়ে বিক্ষোভ করে কিছুক্ষণ সড়ক আটকে রাখেন। প্রবাসীদের বিক্ষোভের ফলে সোনারগাঁ হোটেলের সামনের রাস্তা দিয়ে কিছু সময়ের জন্য যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এছাড়া কারওয়ান বাজার থেকে বিজয় সরণী পর্যন্ত দীর্ঘ এলাকায় সৃষ্টি হয়। এ অবস্থায় অফিসগামী যাত্রীদের বিপাকে পড়তে হয়। পরে, পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

সৌদি প্রবাসীরা বলছেন, তাদের অধিকাংশদের ভিসার মেয়াদই আগামীকাল শেষ হয়ে যাচ্ছে। সেক্ষেত্রে এখনো টোকেন না পাওয়ায় অনিশ্চয়তায় পড়েছেন তারা। সৌদি প্রবাসী শ্রমিকরা বিক্ষোভ মিছিলসহ প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের দিকে অগ্রসর হতে থাকেন।

বিক্ষোভে অংশ নেওয়া সৌদিপ্রবাসী হেলাল বলেন, সরকার ইচ্ছা করলেই ভিসা নবায়ন সংক্রান্ত সমস্যার সমাধান করতে পারে। প্রবাসীমন্ত্রী যদি সৌদি দূতাবাসে পদক্ষেপ নিতে বলেন তাহলে সৌদি আরব অবশ্যই এটি করবে।

পুলিশের ঢাকা মহানগর ট্রাফিক বিভাগের (পশ্চিম) এডিসি মঞ্জুর মোর্শেদ জানান, সড়ক অবরোধের সময় কারওয়ান বাজার থেকে বিজয় সরণি পর্যন্ত দীর্ঘ এলাকায় যানজটের সৃষ্টি হয়।

গত সোমবার থেকেই টিকিটের দাবিতে সৌদিপ্রবাসীরা ‍বিক্ষোভ শুরু করেছেন। তাদের অনেকেরই দাবি ছিল, সৌদি আরবে তাদের ইকামার (সৌদি আরবে কাজের অনুমতিপত্র) মেয়াদ বৃদ্ধি ও একাধিক ফ্লাইট চালু করা। এর মধ্যেই গত ২৩ সেপ্টেম্বর ইকামার মেয়াদ ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ানোর ঘোষণা দেয় সৌদি আরব। ওই দিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন বলেন, বাংলাদেশের শ্রমিকদের ইকামা আরও ২৪ দিন বৈধ থাকবে এবং প্রয়োজনে আরও বাড়ানো হবে। তিনি বলেন, যে সকল বাংলাদেশি তাদের কর্মস্থল সৌদি আরবে ফিরে যেতে চান তাদের ভিসার মেয়াদ বাড়িয়ে দিতে সম্মত হয়েছে সৌদি সরকার।

এই ঘোষণার পর আবার বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস ও সৌদি এয়ারলাইনস তাদের ফ্লাইটের সংখ্যা বাড়ায়। তবে টিকিট পাওয়া নিয়ে সৌদিপ্রবাসীদের ক্ষোভ ছিল এবং এর পাশাপাশি তাঁরা ভিসা নবায়ন এজেন্সির মাধ্যমে করার নির্দেশ বাতিলের দাবি জানিয়ে আসছিল।

সাউদিয়া কর্তৃপক্ষের শিডিউল অনুযায়ী, আজ যাদের টোকেন নম্বর ২৩০১ থেকে ২৭০০, শুধু এই ৪০০ জনকেই টিকিট দেয়া হবে। তবে তিন হাজারের পরের সিরিয়ালের টোকেন নম্বরের প্রবাসীরাও সকাল থেকে ভিড় করেছেন। পাশাপাশি আজ টিকিট ইস্যু করলেও নতুন করে আর কাউকে টোকেন দিচ্ছে না সাউদিয়া। তাদের টাঙানো একটি নোটিশে বলা হয়েছে, ৪ অক্টোবরের আগে আর টোকেন দেয়া হচ্ছে না।

ভিসার মেয়াদ বাড়াতে আজও সড়কে সৌদি প্রবাসীরা
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : স্বয়ংক্রিয় ভিসা ও আকামার মেয়াদ বৃদ্ধি এবং সৌদি এয়ারলাইন্সের টিকিটের টোকেনের দাবিতে আজও সড়কে নেমে বিক্ষোভ করছেন সৌদিপ্রবাসীরা।

মঙ্গলবার সকালে সৌদি প্রবাসীদের একটি অংশ সার্ক ফোয়ারা মোড়ে বিক্ষোভ করে কিছুক্ষণ সড়ক আটকে রাখেন। প্রবাসীদের বিক্ষোভের ফলে সোনারগাঁ হোটেলের সামনের রাস্তা দিয়ে কিছু সময়ের জন্য যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এছাড়া কারওয়ান বাজার থেকে বিজয় সরণী পর্যন্ত দীর্ঘ এলাকায় সৃষ্টি হয়। এ অবস্থায় অফিসগামী যাত্রীদের বিপাকে পড়তে হয়। পরে, পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

সৌদি প্রবাসীরা বলছেন, তাদের অধিকাংশদের ভিসার মেয়াদই আগামীকাল শেষ হয়ে যাচ্ছে। সেক্ষেত্রে এখনো টোকেন না পাওয়ায় অনিশ্চয়তায় পড়েছেন তারা। সৌদি প্রবাসী শ্রমিকরা বিক্ষোভ মিছিলসহ প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের দিকে অগ্রসর হতে থাকেন।

বিক্ষোভে অংশ নেওয়া সৌদিপ্রবাসী হেলাল বলেন, সরকার ইচ্ছা করলেই ভিসা নবায়ন সংক্রান্ত সমস্যার সমাধান করতে পারে। প্রবাসীমন্ত্রী যদি সৌদি দূতাবাসে পদক্ষেপ নিতে বলেন তাহলে সৌদি আরব অবশ্যই এটি করবে।

পুলিশের ঢাকা মহানগর ট্রাফিক বিভাগের (পশ্চিম) এডিসি মঞ্জুর মোর্শেদ জানান, সড়ক অবরোধের সময় কারওয়ান বাজার থেকে বিজয় সরণি পর্যন্ত দীর্ঘ এলাকায় যানজটের সৃষ্টি হয়।

গত সোমবার থেকেই টিকিটের দাবিতে সৌদিপ্রবাসীরা ‍বিক্ষোভ শুরু করেছেন। তাদের অনেকেরই দাবি ছিল, সৌদি আরবে তাদের ইকামার (সৌদি আরবে কাজের অনুমতিপত্র) মেয়াদ বৃদ্ধি ও একাধিক ফ্লাইট চালু করা। এর মধ্যেই গত ২৩ সেপ্টেম্বর ইকামার মেয়াদ ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ানোর ঘোষণা দেয় সৌদি আরব। ওই দিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন বলেন, বাংলাদেশের শ্রমিকদের ইকামা আরও ২৪ দিন বৈধ থাকবে এবং প্রয়োজনে আরও বাড়ানো হবে। তিনি বলেন, যে সকল বাংলাদেশি তাদের কর্মস্থল সৌদি আরবে ফিরে যেতে চান তাদের ভিসার মেয়াদ বাড়িয়ে দিতে সম্মত হয়েছে সৌদি সরকার।

এই ঘোষণার পর আবার বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস ও সৌদি এয়ারলাইনস তাদের ফ্লাইটের সংখ্যা বাড়ায়। তবে টিকিট পাওয়া নিয়ে সৌদিপ্রবাসীদের ক্ষোভ ছিল এবং এর পাশাপাশি তাঁরা ভিসা নবায়ন এজেন্সির মাধ্যমে করার নির্দেশ বাতিলের দাবি জানিয়ে আসছিল।

সাউদিয়া কর্তৃপক্ষের শিডিউল অনুযায়ী, আজ যাদের টোকেন নম্বর ২৩০১ থেকে ২৭০০, শুধু এই ৪০০ জনকেই টিকিট দেয়া হবে। তবে তিন হাজারের পরের সিরিয়ালের টোকেন নম্বরের প্রবাসীরাও সকাল থেকে ভিড় করেছেন। পাশাপাশি আজ টিকিট ইস্যু করলেও নতুন করে আর কাউকে টোকেন দিচ্ছে না সাউদিয়া। তাদের টাঙানো একটি নোটিশে বলা হয়েছে, ৪ অক্টোবরের আগে আর টোকেন দেয়া হচ্ছে না।

সৌদিতে নামার অনুমতি পেল বিমান, ১ অক্টোবর থেকে ফ্লাইট
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : অবশেষে সৌদি আরবে ফ্লাইট পরিচালনার জন্য ল্যান্ডিং পারমিশন (অবতরণের অনুমতি) পেল রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। আগামী ১ অক্টোবর থেকে তারা সৌদিতে ফ্লাইট পরিচালনা করতে পারবে। এর আগে সৌদি সরকার বিমানকে ১ অক্টোবর থেকে ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি দিলেও ল্যান্ডিং পারমিশন দেয়নি। এমন সিদ্ধান্তের বিষয়ে বাংলাদেশের বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) থেকে সৌদির সিভিল এভিয়েশনকে চিঠিও দিয়েছিল।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি সূত্র ল্যান্ডিং পারমিশন পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

বিমান সূত্র জানায়, বিমান ১ অক্টোবর থেকে সৌদির তিন শহরে সপ্তাহে আটটি ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি পেয়েছে। শহর তিনটি হচ্ছে জেদ্দা, দাম্মাম ও রিয়াদ।

দুই-একদিনের মধ্যে বিমানের ওয়েবসাইটে ১ অক্টোবর থেকে ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত ফ্লাইট শিডিউল ঘোষণা করা হবে বলে জানা গেছে।

এদিকে বাংলাদেশ সরকারের অনুরোধে সৌদি আরবে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের আকামার মেয়াদ বাড়িয়েছে দেশটির সরকার। ২২ সেপ্টেম্বর থেকে এর মেয়াদ আরও ২৪ দিন বাড়ানো হয়েছে। অর্থাৎ আরবি সফর মাসের শেষ দিন পর্যন্ত প্রবাসীদের আকামার মেয়াদ বাড়ানো হয়। বুধবার পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম তার নিজস্ব ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি লিখেছেন, সৌদি আরবে ৪ দিন বর্ধিত ছুটি ছিল। আজকেই খুলেছে। সৌদি আরবের যারা খোঁজ রাখেন তাদের এটা জানা উচিত (কোনো ‘ছাত্র অধিকার আন্দোলন’ এটা জানার কথা নয়)।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আরও লেখেন, সৌদি সরকার আমাদের অনুরোধের প্রেক্ষিতে নিচের সিদ্ধান্তগুলো নিয়েছে- আকামার মেয়াদ আরবি সফর মাসের শেষ দিন পর্যন্ত (মানে আজ থেকে আরও ২৪ দিন) বর্ধিত করা হয়েছে; বাংলাদেশ বিমানকে রিয়াদ এবং জেদ্দায় সপ্তাহে মোট ৪ ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি দেয়া হয়েছে ও ঢাকাস্থ সৌদি আরব দূতাবাসের ভিসা অফিস রোববার থেকে খোলা থাকবে। যেখানে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত নতুন নিয়মাবলী মেনে কনসুলার সেবা প্রদান করা হবে।

উল্লেখ্য, সৌদি এয়ারলাইন্সের ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে টিকিট বিক্রি এবং ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে ফ্লাইট চালু করার কথা ছিল। কিন্তু সেই ফ্লাইট চালু হচ্ছিল না। এতে ২২ ও ২৩ সেপ্টেম্বর (মঙ্গল ও বুধবার) রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে অবস্থিত সৌদি এয়ারলাইন্সের অফিসের সামনে কারওয়ান বাজার মোড়ে বিক্ষোভ করেন সৌদি প্রবাসীরা।

রাস্তা অবরোধ করে সৌদি প্রবাসীদের বিক্ষোভ
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক: রাজধানীর কারওয়ান বাজার মোড়ে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভে নেমেছেন সৌদি আরব থেকে ছুটিতে এসে আটকে পড়া প্রবাসীরা।

আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে টিকিট না পেয়ে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন প্রবাসীরা। এ সময় যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে সড়কে দেখা দেয় দীর্ঘ যানজট। বিক্ষোভকারীদের ঘিরে রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। সবশেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, পুলিশ বিক্ষোভকারীদের বোঝানোর চেষ্টা করছে।

এরআগে গতকাল সোমবার হোটেল সোনারগাঁও এর পাশে বিক্ষোভ করেন প্রবাসীরা। এছাড়াও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এসেও বিক্ষোভ করেন তারা।

জানা গেছে, সৌদি আরব থেকে ছুটিতে আসা আটকে পড়া প্রবাসীরা ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বেশির ভাগের ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়া নিয়ে উদ্বিগ্ন তারা। এ অবস্থায় দ্রুত সৌদি আরবে ফিরে যেতে না পারলে চাকরি যাওয়ারও আশঙ্কা করছেন তারা।

তাদের অভিযোগ, বিমানের কারণে সৌদি আরবের এয়ারলাইন্সগুলোর চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তারা আটকে পড়েছেন। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স আগামী ১ অক্টোবর থেকে সৌদি আরবে বাণিজ্যিক ফ্লাইট শুরুর অনুমতি পেলেও দরকার হচ্ছে ল্যান্ডিং পারমিশনের। সোমবার এসব জানান, বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোকাব্বির হোসেন।

তিনি জানান, ল্যান্ডিং পারমিশন নিশ্চিত হলেই ফ্লাইট ঘোষণা করা হবে। সেইসঙ্গে ফ্লাইট ঘোষণার আগে টিকিট কাউন্টারে ভিড় না করতে যাত্রীদের প্রতি অনুরোধ জানান মোকাব্বির হোসেন। তিনি আরো জানান, যাদের আগে টিকিট কাটা আছে তারাই প্রথমে আসন বরাদ্দের সুযোগ পাবেন। আপাতত মিলবে না নতুন টিকিট।

সৌদি প্রবেশের অনুমতি পেল বাংলাদেশসহ ২৫ দেশ
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : অবশেষে সৌদি আরবে প্রবেশের অনুমতি পাচ্ছেন বাংলাদেশসহ ২৫ দেশের প্রবাসীরা। কিছু শর্তসাপেক্ষে সৌদি সিভিল এভিয়েশন জেনারেল অথরিটি এসব দেশের নাগরিকদের দেশটিতে প্রবেশের অনুমতি দিয়েছে। তবে কবে থেকে সৌদিতে প্রবেশ করা যাবে এ সংক্রান্ত নির্দিষ্ট কোনো তারিখ এখনো জানানো হয়নি।

যে ২৫টি দেশের প্রবাসীরা সৌদি আরব ফিরে আসার সুযোগ পাচ্ছেন তাদের মধ্যে বাংলাদেশের নামও রয়েছে। তবে আপাতত এ সুযোগ পাচ্ছে না পার্শ্ববর্তী ভারত,পাকিস্তান,নেপাল, শ্রীলংকার সহ আরো কয়েকটি দেশ।

যেসব দেশের আটকে থাকা প্রবাসীরা সৌদি আরবে ফিরে যেতে পারবেন দেশগুলো হলো- সংযুক্ত আরব আমিরাত, ওমান, বাহরাইন, লেবানন, কুয়েত, মিশর, তিউনিসিয়া, মরক্কো, চীন, ইংল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া, ফ্রান্স, বাংলাদেশ, জার্মানি, ইতালি, অস্ট্রেলিয়া, তুরস্ক, গ্রিস, ফিলিপাইন, মালয়েশিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, সুদান, ইথিউপিয়া, কেনিয়া ও নাইজেরিয়া।

বেশ কিছু শর্তে এসব দেশের নাগরিকদের সৌদিতে প্রবেশের অনুমতি দেয়া হয়েছে। শর্তগুলো হলো-
১. সৌদি আরব ভ্রমণ করতে হলে সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট থেকে একটি ফরম পূরণ করে তার মধ্যে বিস্তারিত তথ্য লিখে নিচে স্বাক্ষর করতে হবে এবং আসার সময় এয়ারপোর্টে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্ধারিত ডেস্কে জমা দিতে হবে।
২. ভ্রমণ করার সাত দিন পূর্ব থেকে কোয়ারেন্টাইন থাকতে হবে। মূলত পিসিআর দেওয়ার ৪ দিন আগে থেকে এবং পিসিআর রিপোর্ট পাওয়ার ৩ দিন পর পর্যন্ত।
৩. সৌদি আরবের টাটামন এবং তাওয়াক্বালনা অ্যাপস ডাউনলোড করে নিবন্ধন করতে হবে।
৪. অবশ্যই আসার ৮ ঘণ্টার মধ্যে টাটামন (tatamman) অ্যাপের মাধ্যমে বাসার অবস্থান নির্ধারণ করতে হবে।
৫. কোভিড-১৯ এর লক্ষণ সম্পর্কে অবগত থাকতে হবে। যদি কোনো লক্ষণ দেখা দেয় তাহলে সরাসরি ৯৩৭ নাম্বারে ফোন করতে হবে অথবা সাধারণ স্বাস্থ্য কেন্দ্রে গিয়ে চিকিৎসা নিতে হবে।
৬. আপনাকে টাটামন অ্যাপসের মাধ্যমে প্রতিদিনের স্বাস্থ্যের অবস্থা জানাতে হবে এবং আপনি কোয়ারেন্টাইন থাকাকালীন সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশিত ফরম অনুযায়ী পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

দেশে ফিরেছেন মালয়েশিয়ায় আটক রায়হান
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : দেশে ফিরেছেন মালয়েশিয়া প্রবাসী রায়হান কবির। মালয়েশিয়ায় নির্যাতন নিয়ে কাতার ভিত্তিক আল-জাজিরা টেলিভিশনে সাক্ষাৎকার দেওয়ার কারণে দেশটির পুলিশের হাতে আটক হয়েছিলেন তিনি। শুক্রবার (২১ আগস্ট) দিবাগত রাত ১টার দিকে মালয়েশিয়ান এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে ঢাকায় ফিরেছেন রায়হান।

মালয়েশিয়া থেকে দেশে পরিবারের কাছে ফিরে একটি বেসরকারি টেলিভিশনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রায়হান কবির জানান, মালয়েশিয়ায় পুলিশের রিমান্ডে ২৭ দিন একই জামাকাপড়ে কেটেছে তার। হাতকড়া পরিয়েই পুলিশ তাকে মালয়েশিয়ার বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশন অতিক্রম করায়। এ সময় এক বাঙালি একটা শার্ট এনে দিলে গায়ের ময়লা জামাটি পরিবর্তন করে নেন তিনি। মালয়েশিয়ায় পুলিশ তার সঙ্গে ভালো আচরণ করলেও দিনগুলো কেটেছে মানসিক চাপের মধ্যে। তবে তাকে যে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হচ্ছে, বিমানবন্দরে আসার আগ পর্যন্ত জানতেন না রায়হান।

রায়হান জানিয়েছেন, আলজাজিরার সাক্ষাৎকারে মালয়েশিয়া সরকারের বিরুদ্ধে তিনি কিছুই বলেননি। শুধু প্রবাসীদের দুঃখ, কষ্ট ও সমস্যার কথা তুলে ধরেছিলেন।

রায়হান বলেন, আপনারা সবাই দেখেছেন, আমি আলজাজিরায় কী বলেছি। বলার মতো তেমন কিছুই বলিনি। শুধু প্রবাসীদের ওপর, আমার দেশের মানুষের ওপর, যেকোনো দেশের মাইগ্রেন্ট ওয়ার্কারদের প্রতি যে অন্যায় হয়েছে, শুধু সে বিষয়ে বলেছি। হিউম্যান রাইটস বলতে যে ব্যাপারটি আছে, মানুষের সঙ্গে যেভাবে আচরণ করা উচিত, সে ব্যাপারে একজন শিক্ষিত মানুষ হিসেবে আমি আমার মতামত দিয়েছি।

এ ব্যাপারে রায়হান আরো বলেন, আমি তোমার দেশে (মালয়েশিয়া) কাজ করতে যাই, এর মানে এই নয়, আমি তোমার দেশের গোলাম। তুমি আমার দেশে আসতে পারো, আমি তোমার দেশে যেতে পারি। এটা গিভ অ্যান্ড টেক পলিসি। একুশ শতকে এসে কেউ বলবে না, আমি ওই দেশে কাজ করতে যাই। তার আমাকে প্রয়োজন। সে আমার মেধা, আমার শ্রম কিনে নিচ্ছে এবং এর বিনিময়ে আমি তার কাছ থেকে অর্থ পাচ্ছি। তাই মানুষ হিসেবে সবার প্রতি শ্রদ্ধা থাকা উচিত। যে বিষয়গুলো আমার কাছে খারাপ লেগেছে, আমি অতটুকই তুলে ধরেছি।

মালয়েশিয়ার পুলিশ ভালো আচরণ করেছে উল্লেখ করে রায়হান কবির বলেন, পুলিশ আমার প্রতি সদয় ছিল। পুলিশ জানত আমি নির্দোষ। জানত যে, এটা কোনো ক্রিমিনাল অফেন্স নয়। তাই পুলিশও আমার প্রতি সদয় ছিল। তারা আমার সঙ্গে খুব সুন্দর ব্যবহার করেছে।

রায়হান আরো বলেন, আমার ভিডিওবার্তা দেওয়ার পেছনে কোনো স্বার্থ লুকায়িত আছে কিনা, পলিটিকাল ইনফ্লুয়েন্স আছে কিনা, তারা এটাই তদন্ত করার চেষ্টা করেছে। যেহেতু তারা কিছু খুঁজে পায়নি, তাই আমার বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করতে পারেনি। শুধু তদন্ত করার জন্য তারা আমাকে গ্রেপ্তার করে।

বাংলাদেশের জনগণসহ যারা পাশে ছিল, সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন রায়হান। তিনি বলেন, আমি প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। বিশেষ করে ধন্যবাদ জানাতে চাই বাংলাদেশের জনগণকে, যারা আমার পাশে ছিল। এ ছাড়া পুরো বিশ্ব আমার পাশে ছিল, সব প্রবাসী পাশে ছিল। এ ছাড়া বিভিন্ন আইনজীবী, আন্তর্জাতিক মিডিয়া, এনজিও—এমন কোনো এনজিও নাই যে, এ ক্ষেত্রে আমার পাশে দাঁড়ায়নি। সবাই প্রচণ্ড পরিমাণে আমাকে সাপোর্ট দিয়েছে, ওই দেশের মানুষও, বাংলাদেশের মানুষও। সবার প্রতিই আমি কৃতজ্ঞ।

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা জানতে চাইলে রায়হান বলেন, আপাতত মানসিক শান্তি প্রয়োজন। এখন কিছু ভাবছি না। পরে চিন্তা করব, কী করা যায়। যোগ্যতা আছে, মেধা আছে, কিছু একটা হয়ে যাবে।

এদিকে, কয়েক দিন পর সংবাদ সম্মেলন করে মালয়েশিয়ায় প্রবাসীদের বাস্তব জীবন এবং নিজের রিমান্ডের বিষয়ে কথা বলার ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন রায়হান কবির।

আবুধাবি বিমানবন্দরে আটকে গেছেন ১৩২ বাংলাদেশি!
                                  

ডেস্ক রিপোর্ট : সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবুধাবি বিমানবন্দরে আটকে গেছেন ১৩২ জন বাংলাদেশি প্রবাসী যাত্রী। আজ শনিবার ইমিগ্রেশন পার করতে গিয়ে তারা আটকে পড়েন। কী কারণে এ সমস্যা হচ্ছে নিশ্চিত করে বলতে পারছে না বাংলাদেশ বিমান বা দূতাবাস।

জানা গেছে, এয়ার অ্যারাবিয়া বিমানের একটি ফ্লাইট আবুধাবি পৌঁছানোর পর সেটির ৫১ জন যাত্রীকে আমিরাতের অভ্যন্তরে ঢোকার আগে আটকে দেওয়া হয়। এ ছাড়া ২২৫ জন যাত্রী নিয়ে আবুধাবি পৌঁছানোর পর বিমানের একটি ফ্লাইটের ৮১ জন যাত্রীকে আটকে দেওয়া হয়।

এ তথ্য নিশ্চিত করেন বাংলাদেশ বিমানের আঞ্চলিক পরিচালক নিধান চন্দ্র বড়ুয়া। তিনি বলেন, ‘২২৫ জনের মধ্যে ১৪৪ যাত্রী আমিরাতের অভ্যন্তরে ঢোকার সুযোগ পেয়েছেন। বাকিদের আটকে দেওয়া হয়েছে।’ তবে কেন তাদের আমিরাতের অভ্যন্তরে ঢোকার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না, তা নিশ্চিত করে বলতে পারেননি নিধান চন্দ্র বড়ুয়া। তিনি ধারণা করছেন, আইসিএ অ্যাপ্রুভাল সংক্রান্ত ঝামেলার কারণে যাত্রীদের আটকে দেওয়া হয়েছে। নিধান আরও জানান, শুধু বাংলাদেশ নয় পাকিস্তানসহ আরও একটি দেশের বেশ কয়েকজন যাত্রীকে আটকে দেওয়া হয়েছে।

এদিকে আটকে থাকা যাত্রীরা বলছেন, তারা সবাই ইমিগ্রেশনের লাইনে ছিলেন। ১৪৪ জন যাত্রী চলে যাওয়ার পর তারা জানতে পারেন; ইমিগ্রেশনের সিস্টেমের মধ্যে আইসিএ পারমিশন সাবমিট করার জন্য দেখাচ্ছে। কিন্তু তাদের কারও কাছে আইসিএ পারমিশন ছিল না। যারা বের হয়েছেন তাদের কাছেও আইসিএ পারমিশন ছিল না বলেও জানান যাত্রীরা।

কানাডা ও কলকাতায় শেখ ফজিলাতুন্নেছা ও শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী উদযাপন
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : কানাডার রাজধানী অটোয়ায় বাংলাদেশ হাইকমিশনে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯০তম ও শেখ কামালের ৭১তম জন্মবার্ষিকী উদযাপিত হয়েছে।

প্রথমেই পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করা হয়। পরে শেখ ফজিলাতুন্নেছা ও শেখ কামালের ওপর নির্মিত পৃথক দু’টি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতেই হাইকমিশনার মিজানুর রহমান জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। তিনি বলেন, ফজিলাতুন্নেসা মুজিব ছিলেন বাঙালির মুক্তিসংগ্রামের অন্যতম অনুপ্রেরণাদাত্রী। প্রতিটি পদক্ষেপে তিনি বঙ্গবন্ধুকে সক্রিয় সহযোগিতা করেছেন। শেখ কামাল ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থান ও একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে বীরত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

কানাডায় প্রবাসী বাংলাদেশি কমিউনিটি ও প্রবাসী বাংলাদেশিদের বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ভার্চুয়াল আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন। আলোচনা শেষে ১৫ আগস্ট হত্যার শিকার বঙ্গবন্ধু পরিবারের সকল সদস্যের আত্মার মাগফিরাত কামনা করা হয়।

বৃহস্পতিবার কলকাতায় বাংলাদেশ উপ হাইকমিশনে শেখ কামালের ৭১তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন করা হয়। শুরুতে শেখ কামালের ছবিতে পুষ্প অর্পণ করেন মিশন প্রধান তৌফিক হাসান। এরপর ‘মনের মানুষ’ নামে এক প্রামাণ্যচিত্রে শেখ কামালের বৈচিত্র্য ও বর্ণাঢ্য জীবন তুলে ধরা হয়।

মালয়েশিয়ায় আলজাজিরাকে সাক্ষাৎকার দেয়া সেই বাংলাদেশি গ্রেফতার
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার “লকড আপ ইন মালয়েশিয়া’স লকডাউন” শিরোনামের প্রতিবেদনে সাক্ষাৎকার দেওয়া বাংলাদেশি মো. রায়হান কবিরকে গ্রেফতার করেছে মালয়েশিয়া। শুক্রবার (২৪ জুলাই) রাতে দেশটির ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিলের এক টুইট বার্তায় জানানো হয়েছে, এদিন সন্ধ্যায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মালয়েশিয়ার সংবাদমাধ্যম দ্য স্টারের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

আল জাজিরায় প্রচারিত ‘১০১ ইস্ট’ অনুষ্ঠানে ২৫ মিনিট ৫০ সেকেন্ডের ওই প্রতিবেদন প্রচারিত হয়। এতে করোনাভাইরাস মহামারিতে মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসীদের সঙ্গে সরকারের আচরণ নিয়ে কথা বলেছিলেন রায়হান কবির। সংবাদমাধ্যমটির ইউটিউব চ্যানেলে প্রতিবেদনটি প্রকাশের পর থেকে এর সমালোচনা শুরু করে মালয়েশিয়ায়। দেশটির সরকার ওই প্রতিবেদনে তোলা অভিযোগ সরাসরি অস্বীকার করেছে।

আল জাজিরার ওই প্রতিবেদন প্রচারের পর থেকেই সাক্ষাৎকার দাতা বাংলাদেশি রায়হার কবিরের খোঁজে তল্লাশি শুরু করে মালয়েশিয়ার অভিবাসন কর্তৃপক্ষ। তার বিষয়ে তথ্য দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বিবৃতিও দেওয়া হয়। পরে রায়হানের ওয়ার্ক পারমিট (কাজের অনুমতি) বাতিল করে দেওয়া হয়। এতে করে মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসীতে পরিণত হন তিনি।

শুক্রবার মালয়েশিয়ার ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিলের টুইট বার্তায় বলা হয়েছে, ‘অভিবাসন কর্তৃপক্ষের কাছে পলাতক হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশি রায়হান কবিরকে গ্রেফতার করা হয়েছে।’

মালয়েশিয়ার তদন্ত সংস্থা সিআইডি’র ডেপুটি পরিচালক ফরিদালাতরাশ ওয়াহিদের বরাত দিয়ে দেশটির বার্নামা টেলিভিশনের খবরে বলা হয়েছে, অভিবাসন কর্তৃপক্ষ রায়হান কবিরকে গ্রেফতার করে স্থানীয় সময় শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে।

উল্লেখ্য, ওই প্রতিবেদন প্রকাশের পর আল জাজিরার বেশ কয়েকজন কর্মীকে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করে মালয়েশিয়ার কর্তৃপক্ষ। এই ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে সংবাদমাধ্যমটি।

বাংলাদেশি শ্রমিকদের কোটা কমছে কুয়েতে
                                  

ডেস্ক রিপোর্ট : কুয়েত সরকার তার দেশ থেকে অভিবাসীদের সংখ্যা কমিয়ে আনতে একটি প্রবাসী কোটা বিল প্রণয়ন করেছে। ওই খসড়া আইনে বাংলাদেশি অভিবাসী শ্রমিকদের জন্য কোটা প্রস্তাব করা হয়েছে মাত্র ৩ শতাংশ।

বর্তমানে কুয়েতে বিভিন্ন পেশায় প্রায় সাড়ে তিন লাখ প্রবাসী বাংলাদেশি রয়েছেন। একদিকে করোনা পরিস্থিতিতে প্রবাসীরা চাকরি ও স্বল্প পুঁজির ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হারানোর শঙ্কায়; অন্যদিকে কুয়েতের মন্ত্রী পরিষদে প্রবাসী কমানোর এ প্রস্তাব উত্থাপন, সব মিলিয়ে স্বস্তি নেই প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

কুয়েত সরকারের প্রবাসী কমানোর খসড়া আইন প্রণয়ন প্রসঙ্গে দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশ দূতাবাসের কাউন্সেলর ও দূতাবাস প্রধান মোহাম্মদ আনিসুজ্জামান বলেন, ওই খসড়ায় প্রবাসী বাংলাদেশিদের ক্ষেত্রে তিন শতাংশ প্রস্তাব করা হয়েছে।

তিনি বলেন, এই আইনের বাস্তবায়ন হওয়ার আগে কুয়েতি কতৃর্পক্ষের সঙ্গে আলোচনার করে খসড়ায় উল্লেখিত শতাংশ আরও বাড়ানোর চেষ্টা করছি আমরা।

আনিসুজ্জামান আরও জানান, একাধিক কোম্পানিতে প্রবাসীদের বকেয়া বেতন পাইয়ে দিতেও দূতাবাস আইনি সহযোগিতা দিচ্ছে। করোনা পরিস্থিতির আগে যেসব প্রবাসী বাংলাদেশে গিয়েছিলেন, বাণিজ্যিক ফ্লাইট চালু হওয়ার পর এক পর্যায়ে তারা ফের কুয়েতে আসতে পারবেন। তবে সংশ্লিষ্ট কোম্পানির স্পন্সর (কফিল) প্রতিনিধির (মন্দুব) সঙ্গে ইকামা সংক্রান্ত বিষয়ে কথা বলার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

বাংলাদেশসহ ১৬ দেশের সাথে ইতালির ফ্লাইট চলাচল বন্ধ
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : মহামারী করোনার দ্বিতীয় প্রকোপ ঠেকাতে বাংলাদেশসহ আরো ১৩ টি দেশের সাথে ইতালির ফ্লাইট ১৪ জুলাই পর্যন্ত বাতিলের পর পুনরায় এ সিদ্ধান্ত ৩১ জুলাই পর্যন্ত বহাল রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী রবের্তো স্পারেন্সা। সাথে নতুন করে আরো ৩ টি দেশকে এ তালিকায় যুক্ত করা হয়েছে। এছাড়াও চলমান জরুরী অবস্থার মেয়াদ ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত না বাড়িয়ে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

গত রবিবার (১২ জুলাই) দেশটির স্বনামধন্য পত্রিকা ‘লা রিপুবলিকা’ এমন খবর প্রকাশ করেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নতুন করে করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে ১৩ টি ঝুঁকিপূর্ণ দেশের সাথে আজ ১৪ জুলাই পর্যন্ত ফ্লাইট বন্ধের ঘোষণা দেয় ইতালি সরকার। তবে বর্তমান পরিস্থিতির কথা চিন্তা করে ফ্লাইট বন্ধের এ সময়সীমা চলতি মাসের শেষদিন অর্থাৎ ৩১ জুলাই পর্যন্ত বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সেইসাথে এ তালিকায় নতুন করে যুক্ত হচ্ছে আরো তিনটি দেশ। তবে এবিষয়ে এখনো কোন সরকারী ঘোষণা আসেনি। শুধুমাত্র দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলি হচ্ছে- আরমানিয়া, বাহরাইন, বাংলাদেশ, ব্রাজিল, বসনিয়া, চিলি, কুয়েত, উত্তর মাচেদোনিয়া, মলদোভা, ওমান, পানামা, পেরু ও রিপাবলিক ডোমেনিকান। এছাড়াও নতুন করে যুক্ত হওয়া দেশটি তিনটি হলো: ভারত, পাকিস্তান ও আমেরিকা।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, ইতালির সকল ডিস্কো, মেলা এবং বড়বড় বৈঠক করার জন্য ৩১ জুলাই পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। এছাড়াও এই সময়ে কেউ উন্মুক্ত জায়গায় মাস্ক ছাড়া থাকতে পারবেনা। আর রাস্তা ও পার্কসহ যেকোন স্থানে চলাচলের জন্য কমপক্ষে এক মিটার দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

ইকামা ও ভিসার মেয়াদ ৩ মাস বাড়াল সৌদি
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : সৌদি প্রবাসীদের মধ্যে যাদের বসবাসের অনুমতির (ইকামা) সময় পেরিয়ে গেছে, তাদের মেয়াদ আরও তিন মাস বাড়ানোর সিদ্ধান্ত দিয়েছেন বাদশাহ সালমান। পাশাপাশি সৌদি আরবের বাইরে গিয়ে যে প্রবাসীরা লকডাউনের কারণে আটকা পড়েছেন, তাদের ফেরার জন্য ভিসার মেয়াদও তিন মাস বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

সৌদি গেজেটের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ইকামা ও ভিসার মেয়াদ বৃদ্ধির জন্য বাড়তি কোনো ফি প্রবাসীদের দিতে হবে না। মধ্যপ্রাচ্যে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শ্রমবাজার সৌদি আরবে ১৩ লাখের বেশি বাংলাদেশি বিভিন্ন পেশায় কাজ করছেন।

করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে অন্য অনেক দেশের মত সৌদি আরবও মার্চের মাঝামাঝি সময়ে সব আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচল বন্ধ করে দেয়। পরে বাংলাদেশও একই সিদ্ধান্ত নেয়। লকডাউন শুরুর আগে দেশে আসা ৫০ হাজারের বেশি সৌদি প্রবাসী এই পরিস্থিতির মধ্যে আটকা পড়েন। তাদের অনেকেরই ফিরতি ভিসার মেয়াদ ইতোমেধ্যে শেষ হয়ে গেছে। আবার অনেকের ইকামার মেয়াদও ফুরিয়ে গেছে।

সৌদি গেজেট বলছে, প্রবাসীদের মধ্যে যারা সৌদি আরবে অবস্থান করছেন এবং ভিজিট ভিসায় সৌদি আরবে যাওয়ার পর যারা সেখানে আটকা পড়ায় ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে, সবার ক্ষেত্রেই মেয়াদ তিন মাস বাড়ানো হচ্ছে।

সৌদি আরবের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে সৌদি প্রেস এজেন্সি জানিয়েছে, প্রবাসীদের মধ্যে যারা ফাইনাল এক্সিট বা রিএন্ট্রি ভিসা নিয়েও লকডাউনের কারণে সৌদি আরব থেকে বের হতে পারেননি, তাদের ভিসার মেয়াদও বিনা ফিতে তিন মাস বাড়ানো হয়েছে।

মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে সৌদি গেজেট লিখেছে, করোনাভাইরাস সঙ্কটে ব্যক্তি, বেসরকারি খাত, বিনিয়োগকারী এবং অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের ওপর বিরূপ প্রভাব কমিয়ে আনার অব্যাহত চেষ্টার অংশ হিসেবে বাদশাহ সালমান এই সিদ্ধান্ত দিয়েছেন।

প্রবাসীদের মধ্যে যারা এক্সিট ও রিএন্ট্রি ভিস নিয়ে সৌদি আরবের বাইরে গিয়ে লকডাউনের মধ্যে আটকা পড়েছেন এবং ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে, তাদের সবাই এ সিদ্ধান্তের সুফল পাবেন বলে জানানো হয়েছে সৌদি গেজেটের প্রতিবেদনে।

সৌদি ও কাতার থেকে ফিরলেন ৮০০ বাংলাদেশি
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদ এবং কাতারের রাজধানী দোহা থেকে ফিরে এসেছেন ৮০০ বাংলাদেশি।

বিমান বাংলাদেশে এয়ারলাইন্সের দুটি বিশেষ ফ্লাইটে তারা দেশে এসেছেন বলে জানিয়েছেন বিমানের জনসংযোগ শাখার উপ-মহাব্যবস্থাপক তাহেরা খন্দকার। তিনি বলেন, রিয়াদ থেকে ৪১৫ জন বাংলাদেশি বিমানের একটি বিশেষ ফ্লাইটে শুক্রবার প্রথম প্রহরে ঢাকা পৌঁছান। পরে শুক্রবার রাত ১০টা ১০ মিনিটে দোহা থেকে ৩৮৫ জন বাংলাদেশিকে নিয়ে বিমানের আরেকটি বিশেষ ফ্লাইট ঢাকা পৌঁছায়।

মহামারীর কারণে বিশ্বে বিমান যোগাযোগ সীমিত হওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন দেশ লকডাউন ঘোষণা করায় অনেকে বিভিন্ন দেশে আটকা পড়েন। বাংলাদেশ থেকে ১৭টি আন্তর্জাতিক গন্তব্যের মধ্যে এখন কেবল লন্ডন ও চীনে সরাসরি ফ্লাইট চলাচল করছে। আর ঢাকা থেকে কাতারে ট্রানজিট যাত্রীরা চলাচল করতে পারছেন। এ অবস্থায় বিশেষ ফ্লাইটে বিভিন্ন দেশ থেকে বাংলাদেশিদের ফিরিয়ে আনা হচ্ছে।

গত তিন মাসে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, সৌদি আরব, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, তুরস্ক, মালদ্বীপ, কুয়েত, কাতার, ভারত, মালয়েশিয়া এবং ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে কয়েক হাজার বাংলাদেশি বিশেষ ফ্লাইটে দেশে ফিরেছেন।

সিঙ্গাপুরে ‘হিরো’ বাংলাদেশি ডাক্তার
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : ডা. মুনতাসির সিঙ্গাপুর প্রবাসীদের কাছে পরিচিত মুখ। তিনি দেশটির সেনকাং জেনারেল হাসপাতালে সার্জারি বিশেষজ্ঞ হিসেবে কর্মরত। সম্প্রতি স্থানীয় একটি গণমাধ্যমে বাংলাদেশি এই চিকিৎসককে নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

জানা গেছে, করোনাভাইরাস মহামারি প্রথম যখন সিঙ্গাপুরে শুরু হয়েছিল তখন ডা. মুনতাসির পার্থ অস্ট্রেলিয়ায় ছিলেন। সেখানে তিনি শীর্ষস্থানীয় সার্জনের সঙ্গে ৬ মাসের ফেলোশিপে অংশ নিয়েছিলেন। দেশটিতে করোনা পরিস্থিতি খারাপের দিকে যাওয়ায় বিদেশে অবস্থানরত মুনতাসিরসহ সহকর্মীদের মার্চের শেষ দিকে সিঙ্গাপুরে ফেরানোর সিদ্ধান্ত হয়।

সিঙ্গাপুরে ফেরত আসার পর তাকে বাধ্যতামূলক ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। ডা. মুনতাসির সিঙ্গাপুরের অভিবাসী শ্রমিকদের ডরমেটরিতে প্রথম ভাইরাসের খবর পান। রাতারাতিই বদলে যায় দেশটির করোনা প্রেক্ষাপট। একটি বিভীষিকাময় পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় এবং আতঙ্কিত হয়ে পড়ে শহরের অভিবাসীরা।

তিনি তাৎক্ষণিক বুঝতে পারেন তার কী করা উচিত। কোয়ারেন্টাইন শেষে কাজে যোগদান করেন। এরপর শুরু হয় অমানবিক পরিশ্রম। ‘এসএইচএন (স্টেহোম) শেষ হওয়ার আগেই ফোন আসে হাসপাতাল থেকে। আমাকে নির্দেশনা দেয়া হয়। এরপর করোনা মোকাবিলায় মাঠে নেমে যাই’।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, ‘আপনি তো বাংলা বলেন। জরুরিভিত্তিতে ডরমেটরিগুলোতে আপনার সাহায্য দরকার’। কালক্ষেপণ না করে ডা. মুনতাসির তার টিম নিয়ে মাঠে নেমে পড়েন। কর্মচারী, চিকিৎসক, নার্স এবং সহযোগীদের সমন্বয়ে গঠিত হয়েছিল একটি চিকিৎসক দল।

ডা. মুনতাসির বলেন, ‘প্রথম দিনগুলো খুব উদ্বেগজনক ছিল। আমরা কাজ করেছি একেবারেই এক ভিন্ন পরিবেশের মধ্যে। প্রচণ্ড গরমে পিপিই পরা অবস্থায় ছিলাম ঘণ্টার পর ঘণ্টা। গলা শুকিয়ে কাঠ হয়ে যাচ্ছিল। ঘাম গড়িয়ে পড়ছিল। আমরা বুঝতে পারছিলাম অভিবাসী শ্রমিকদের অবস্থা খারাপের দিকে যাচ্ছে। কতই না কষ্ট করে তারা। সেই তুলনায় আমাদের জীবন আরাম ও আয়েশের মধ্যে কাটে’।


তিনি বলেন, ‘এ অবস্থায় সবার মনোবল শক্ত রাখাটা ছিল খুবই জরুরি। উপরের নির্দেশ না থাকা সত্ত্বেও আমাদের দলনেতাদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। সবাই বেশ উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে কাজ করেছে’।


‘আপনি যদি যুদ্ধক্ষেত্রে কোনো সৈনিকের কথা ভাবেন প্রচণ্ড গোলাগুলির মধ্যে যখন প্রাণ বের হয়ে যাওয়ার উপক্রম তখন আপনি যদি আড়চোখে দেখেন- আপনি একা নন, পাশে আছে অধিনায়ক। তখন আপনার সাহস এবং মনোবল দুটোই দ্বিগুণ হয়ে যাবে। আমাদের ক্ষেত্রেও তাই হয়েছিল’।

তিনি আরও বলেন, ‘চিকিৎসার পাশাপাশি আমাদের টিম কর্মীদের মাঝে ভাইরাস সম্পর্কে সচেতন করত। তাদের আশ্বস্ত করার জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করেছিল। কারণ অনিশ্চয়তার কারণে শ্রমিকরা প্রচণ্ড ভয় পেয়েছিল। তাছাড়া ভাষার প্রতিবন্ধকতা সবসময় ছিল। বেশিরভাগ শ্রমিকই ইংরেজি বলতে পারে না। তাদের মধ্যে অনেকেই ছিল বাংলাদেশের’।

‘পিপিই এবং গগলস পরিহিত অবস্থায় আমাদের ভিনগ্রহের বাসিন্দা মনে হয়েছিল। মুখোশ এবং চশমার চাপে কথা বলতে গিয়ে প্রচণ্ড কষ্ট হত। পরবর্তীকালে আমিও নিজের ছবি দেখে নিজেকে চিনতে পারছিলাম না’।

ডা. মুনতাসির বাঙালি শ্রমিকদের সাথে যোগাযোগ করতে সক্ষম হন। তাদের মাতৃভাষায় কথা বলার সাথে সাথে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া দেখতে পান। তিনি বলেন, ‘যখনই আমি বাংলায় কথা বলতে শুরু করি, তাদের চোখেমুখে আনন্দ দেখা যেত’। তিনি সবাইকে আশার আলো দেখিয়েছিলেন।

ভিসাপ্রাপ্ত লাখো শ্রমিকের বিদেশযাত্রা অনিশ্চিত
                                  

ডেস্ক রিপোর্ট : করোনা ভাইরাস মহামারীর কারণে অর্থনৈতিক বিপর্যয়ে বেশিরভাগ দেশ ব্যয় সংকোচননীতি গ্রহণ করায় চাকরি হারিয়ে দেশে ফিরছেন বহু প্রবাসী শ্রমিক। তাদের মধ্যে কেউ চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ায় নতুন করে আর কাজে যোগ দিতে পারছেন না। আবার কেউ অবৈধভাবে থাকায় তাকে দেশে ফেরত পাঠানো হচ্ছে। কেউ আছেন আগেই সাজাপ্রাপ্ত, আবার কেউ ফিরে আসছেন স্বেচ্ছায়। হঠাৎ করেই এত বিপুলসংখ্যাক প্রবাসী শ্রমিক ফিরে আসায় একদিকে দেশ যেমন হারাচ্ছে রেমিট্যান্স তেমনি নতুন করে যোগ হচ্ছে কর্মহীন মানুষের বোঝা।
এ ছাড়া করোনা পরিস্থিতির আগে বিভিন্ন দেশে যাওয়ার জন্য যে এক লাখ শ্রমিক ভিসা পেয়েছিলেন, তাদের যাওয়াও একরকম অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় নতুন নতুন শ্রমবাজার খোঁজার তাগিদ দিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। তারা বলছেন, এভাবে প্রবাসী শ্রমিকদের ফিরে আসার ঢল অব্যাহত থাকলে দেশের রেমিট্যান্স-আয়ে ব্যাপক প্রভাব পড়বে। তাই সরকারের উচিত হবে সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর সঙ্গে জরুরিভিত্তিতে আলোচনা শুরু করা, যেন তারা শ্রমিকদের ফেরত না পাঠায়।

প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয় ও বিমানবন্দর সূত্র বলছে, করোনা মহামারী শুরু হওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত ১৬ হাজার ৭৪২ অভিবাসী শ্রমিক দেশে ফিরেছেন। তাদের মধ্যে অনেকেই ফিরেছেন চাকরি হারিয়ে।

আবার অনেককে বাধ্য করা হয়েছে দেশে ফিরতে। বেসরকারি সংস্থা রিফিউজি অ্যান্ড মাইগ্রেটরি মুভমেন্টস রিসার্চ ইউনিটের (আরএমএমআরইউ) তথ্য অনুযায়ী, শতকরা ৭৮ শতাংশ অভিবাসী শ্রমিককে জোর করে দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে। এর মধ্যে অধিকাংশই ফেরত এসেছেন মধ্যপ্রাচ্য থেকে। এর বাইরে মালদ্বীপ, নেপাল, ভুটান থেকেও প্রচুর বাংলাদেশি ফিরে এসেছেন।

এদিকে করোনার প্রভাব ও শ্রমিকদের ফেরত পাঠানো অব্যাহত থাকায় রেমিট্যান্স প্রবাহ অন্তত ২২ শাতংশ কমে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্টরা। মহামারী ছড়িয়ে পড়ার পর থেকেই বিভিন্ন দেশ বাংলাদেশি শ্রমিকদের ফেরত আনার জন্য সরকারকে তাগাদা দিচ্ছে। বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো অবৈধ প্রবাসী শ্রমিকদের দেশে ফেরাতে বারবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করছে। সৌদি আরব, কাতার, কুয়েতসহ বিভিন্ন দেশের বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়ে বিপুলসংখ্যক শ্রমিক করোনার কারণে চাকরি হারাতে পারেন বলে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে।

চাই না হতে মর্গে পচা লাশ!
                                  

গত এপ্রিলে আমি ফেসবুকে অ্যালান করেছিলাম, বলতে পারেন ওসিয়ত করেছিলাম যে, এ যাত্রা যদি মৃত্যুবরণ করি আমার লাশটি যেন ওমানে দাফন করা হয়, কারণ আমি ওমান প্রবাসী বাংলাদেশি।

 

আমি চাই না প্রবাসে আমার মৃত্যুর পরে, পায়ের বুড়ো আঙুলে একটি মৃত্যুর টোকেন নিয়ে হাসপাতালের হিমঘরে বাংলাদেশের ফ্লাইটের অপেক্ষায় পচতে থাকি মাসের পর মাস। এটা আমার একটি প্রিভেন্টিভ অ্যাকশন বা ওসিয়ত। আমি চাই না, প্রবাসে আমার লাশের জন্য আমার পরিবারের মধ্যে একটি দ্বন্দ্ব সৃষ্টি হোক। এইজন্য আমি আমার স্ত্রী আমার মা এবং প্রবাসে কাছের বন্ধুদের সঙ্গে আমার আশার কথা জানিয়েছি।
 
বিভিন্ন খবরে প্রকাশ, করোনা ভাইরাস ও হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রতিদিন প্রবাসী বাংলাদেশি কর্মীর মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে। বর্তমানে ফ্লাইট বন্ধ থাকায় বাংলাদেশিদের লাশ জমা হচ্ছে বিভিন্ন হাসপাতালের হিমঘরে। পরিবারের সম্মতি না পাওয়ায় স্থানীয়ভাবে লাশগুলো দাফনও করা যাচ্ছে না। সত্যিই আমি অবাক, কিসের আশায়, কিসের নেশায় দেশের ঐ রক্তচোষাগুলো স্থানীয়ভাবে লাশগুলো দাফনের সম্মতি দিচ্ছে না!
 
তারা কি দাফনের আগে মরা মুখটি একবার দেখতে চান? দেশে নিয়ে লাশ দাফনে সোয়াব বেশি? 
নাকি, বাপ-দাদার কবরের পাশে কবর দিয়ে ধন্য হবেন?  

আসলে দেশে প্রবাসীদের ভালোবাসার রক্তচোষাদের লাশের ওপর কোনো ফিলিংস না থাকলেও লাশের সঙ্গে যে দুটো ব্যাগ ছাড়াও আরও নজর থাকবে। কোম্পানি কত টাকা দিয়েছে? ব্যাগের মধ্যে কী কী আছে? মৃত্যুর পূর্বে ইন্সুরেন্স ছিল কিনা? প্রবাসী মন্ত্রণালয় থেকে কত টাকা পাওয়া যাবে? বিদেশের ব্যাংকের অ্যাকাউন্টে কত টাকা ছিল? ইত্যাদি ইত্যাদি অনেক কিছু।

আমাদের দেশে ব্যাপকভাবে যে প্রথাটি চালু আছে তা হলো, সঙ্গত কারণ ছাড়াই অনর্থক লাশ কাফন-দাফন করার ক্ষেত্রে বিলম্ব করা হয়। ছেলে-মেয়ে, আত্মীয়-স্বজনের মধ্যে যদি কেউ দেশের বাইরে গিয়ে থাকে, তাহলে তাদের দেশে ফেরা পর্যন্ত লাশ দাফন করা হয় না। অনেক সময় দেখা যায় ভিসা জটিলতার কারণে লাশ দেশে ফিরতে অনেক দেরি হয়। এতদিন পর্যন্ত লাশ কবরস্থ করা হয় না। কিন্তু আত্মীয়-স্বজনের একটি লিখিত সম্মতিতেই এই দেশের ইসলামিকভাবে তার লাশ দাফন কাফন করা যেতে পারে। 

কিন্তু লাশ কাফন-দাফনের ক্ষেত্রে এ ধরনের বিলম্ব করার কোনো অনুমতি ইসলামে নেই। আর এটা জানার জন্য এখন আর কোনো বিজ্ঞ আলেমের কাছে যাওয়ার প্রয়োজন নাই। বরং রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম স্পষ্টভাষায় বিলম্ব করা থেকে নিষেধ করেছেন। অনেক সহীহ হাদীস দ্বারা প্রমাণিত।

আর এজন্য প্রবাসীরাই দায়ী। কারণ মৃত্যুর পূর্বে সে নির্দিষ্টভাবে কোনো ওসিয়ত করে যায় না। বর্তমান প্রেক্ষাপটে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে প্রবাসী মুসলমানদের উচিত হবে, মৃত্যুর পূর্বেই আত্মীয়-স্বজনদেরকে ওসিয়ত করা যে, যদি মধ্যপ্রাচ্যে মৃত্যু হয়, অতি দ্রুত যেন আরব দেশেই দাফন কাফনের সম্পন্ন করা হয়। বাংলাদেশ নিয়ে দাফন করার চাইতে, আরবদেশে দাফন করা কি বেশী উত্তম নয়? আল্লাহ তা’আলা আমাদেরকে সঠিক বুঝ দান করুন। আমীন

দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা
                                  

ডেস্ক রিপোর্ট : নাজমুল হুদা বিপ্লব (২৫) নামে এক বাংলাদেশি ব্যবসায়ীকে গুলি করে হত্যা করেছে কৃষ্ণাঙ্গ সন্ত্রাসীরা। দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গ প্রভিন্সের সোয়েটোর এলডেরাডো পার্ক লোকেশনে স্থানীয় সময় শনিবার সন্ধ্যা ৮টার এ ঘটনা ঘটে।

এসময় নাজমুল হুদা বিপ্লব এলডেরাডো পার্কের দোকানে একা ছিলেন। সন্ত্রাসীরা দোকানের ভেতর ঢুকে তাকে গুলি করলে তিনি কৃষ্ণাঙ্গ দোকান মালিকের ঘরের দিকে ছোটেন। তাকে ধাওয়া করে দোকান মালিকের উঠানে তিন রাউন্ড গুলি করলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

নাজমুল হুদা বিপ্লব ফেনীর দাগনভূইয়া পৌরসভার শ্রীধর পুর গ্রামের হোসেন সারেং বাড়ির বাসিন্দা ছিলেন।


   Page 1 of 16
     প্রবাস
ভিসার মেয়াদ বাড়াতে আজও সড়কে সৌদি প্রবাসীরা
.............................................................................................
সৌদিতে নামার অনুমতি পেল বিমান, ১ অক্টোবর থেকে ফ্লাইট
.............................................................................................
রাস্তা অবরোধ করে সৌদি প্রবাসীদের বিক্ষোভ
.............................................................................................
সৌদি প্রবেশের অনুমতি পেল বাংলাদেশসহ ২৫ দেশ
.............................................................................................
দেশে ফিরেছেন মালয়েশিয়ায় আটক রায়হান
.............................................................................................
আবুধাবি বিমানবন্দরে আটকে গেছেন ১৩২ বাংলাদেশি!
.............................................................................................
কানাডা ও কলকাতায় শেখ ফজিলাতুন্নেছা ও শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী উদযাপন
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় আলজাজিরাকে সাক্ষাৎকার দেয়া সেই বাংলাদেশি গ্রেফতার
.............................................................................................
বাংলাদেশি শ্রমিকদের কোটা কমছে কুয়েতে
.............................................................................................
বাংলাদেশসহ ১৬ দেশের সাথে ইতালির ফ্লাইট চলাচল বন্ধ
.............................................................................................
ইকামা ও ভিসার মেয়াদ ৩ মাস বাড়াল সৌদি
.............................................................................................
সৌদি ও কাতার থেকে ফিরলেন ৮০০ বাংলাদেশি
.............................................................................................
সিঙ্গাপুরে ‘হিরো’ বাংলাদেশি ডাক্তার
.............................................................................................
ভিসাপ্রাপ্ত লাখো শ্রমিকের বিদেশযাত্রা অনিশ্চিত
.............................................................................................
চাই না হতে মর্গে পচা লাশ!
.............................................................................................
দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা
.............................................................................................
বান্ধবীর খপ্পরে মালয়েশিয়ায় প্রতারিত বাঙালি যুবক
.............................................................................................
দক্ষিণ আফ্রিকায় ১১৭ বাংলাদেশি নিহত
.............................................................................................
বাহরাইনে ভবনধসে ৪ বাংলাদেশি নিহত
.............................................................................................
সিফাত উল্লাহ কি সত্যি সিজোফ্রেনিয়ার রোগী?
.............................................................................................
হজে এসে আরো তিন বাংলাদেশির মৃত্যু
.............................................................................................
কানাডায় সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি তরুণী নিহত
.............................................................................................
সৌদি আরবে জঙ্গি হামলায় বাংলাদেশি নিহত
.............................................................................................
সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি নিহত
.............................................................................................
স্ত্রী হত্যাচেষ্টার দায়ে নিউইয়র্কে বাংলাদেশির ১৮ বছরের জেল
.............................................................................................
রিয়াদে স্বর্ণের বারসহ বাংলাদেশ বিমানের কেবিন ক্রু গ্রেফতার
.............................................................................................
নবী-পয়গম্বরের সঙ্গে রাম-কৃষ্ণের তুলনা করলেন যুক্তরাজ্য বিএনপি সভাপতি মালেক
.............................................................................................
ইতালী প্রবাসী আবু সাইদ খানের গল্প অবলম্বনে বাংলা ছায়াছবি
.............................................................................................
ব্যর্থতায়ও পুরস্কার
.............................................................................................
জনশক্তি রফতানি, অবশেষে দুয়ার খুলছে আমিরাতের
.............................................................................................
ভারতে দুই বাংলাদেশি যুবক আটক
.............................................................................................
সৌদি প্রবাসীদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর মতবিনিময়
.............................................................................................
সুইজারল্যান্ডে বর্ণাঢ্য আয়োজনে বর্ষবরণ উৎসব
.............................................................................................
জেদ্দায় `মরু-প্রবাসী বৈশাখী উৎসব` অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
রোমে বাংলাদেশ দূতাবাসের বর্ষবরণ
.............................................................................................
বাংলাদেশ, ভারতে তৎপর ছিল আল কায়েদার সামিউন
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশী শ্রমিক নিহত ৩
.............................................................................................
পশ্চিমবঙ্গে ৫ বাংলাদেশি চুরির অভিযোগে আটক
.............................................................................................
লন্ডনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কাউন্সিল প্রার্থীর ওপর হামলা
.............................................................................................
বাংলাদেশ দূতাবাস অভিবাসী শ্রমিকদের বিভিন্ন প্রয়োজনীয় কনস্যুলার সেবা প্রদান
.............................................................................................
সিঙ্গাপুরে শামীম ওসমানকে আওয়ামী লীগের গণসংবর্ধনা
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রে বর্ণিল প্যারেডে বাঙালি সংস্কৃতির জয়গান
.............................................................................................
অস্ট্রেলিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় তিন বাংলাদেশি নিহত
.............................................................................................
স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে সিঙ্গাপুর আওয়ামী লীগের আলোচনা সভা
.............................................................................................
নিউইয়র্কে ইয়োলো সোসাইটির বর্ণাঢ্য অভিষেক
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সমাবেশ
.............................................................................................
আন্তর্জাতিক সম্মেলনে বাংলাদেশের অগ্রগতিও থাকবে
.............................................................................................
মালয়েশিয়ার পাহাং প্রদেশে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই বাংলাদেশি নিহত হয়েছে
.............................................................................................
কুয়েতে যুবদলের মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন
.............................................................................................
কুয়েতে সাধারণ ক্ষমার সুযোগ নিয়েছেন ৮ হাজার বাংলাদেশি
.............................................................................................

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মো: রিপন তরফদার নিয়াম
প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক : মফিজুর রহমান রোকন
নির্বাহী সম্পাদক : শাহাদাত হোসেন শাহীন
বাণিজ্যিক কার্যালয় : "রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল কমপ্লেক্স"
(৬ষ্ঠ তলা), ২৮/১ সি, টয়েনবি সার্কুলার রোড,
মতিঝিল বা/এ ঢাকা-১০০০| জিপিও বক্স নং-৫৪৭, ঢাকা
ফোন নাম্বার : ০২-৪৭১২০৮০৫/৬, ০২-৯৫৮৭৮৫০
মোবাইল : ০১৭০৭-০৮৯৫৫৩, 01731800427
E-mail: dailyganomukti@gmail.com
Website : http://www.dailyganomukti.com
   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD