ঢাকা,শনিবার,৯ মাঘ ১৪২৭,২৩,জানুয়ারী,২০২১ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : > ১১ হাজার মেট্রিক টন খাদ্রশস্য মজুদ রয়েছে সংসদে জানালেন খাদ্যমন্ত্রী   > কুড়িগ্রামে কম্বল বিতরণ   > থামছেই না টাঙ্গুয়ায় পাখি শিকার   > মুজিববর্ষে ঘর পাচ্ছে নওগাঁর ১১০ পরিবার   > লক্ষ্মীপুরে উৎপাদিত ৬০ পণ্য বিশ্ববাজারে   > ‘নির্ধারিত সময়েই হবে অলিম্পিক’   > অপেক্ষায় ঐশী   > জাতীয় সংসদে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবি   > ৪২ হাজার রোহিঙ্গা শনাক্ত মিয়ানমারের এপ্রিলে প্রত্যাবাসনের আশা   > রাজউকে প্রভাবশালি শফিউল্লাহ বাবু নকল, জাল-জালিয়াতির প্রধান কারিগর  

   শিক্ষা -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
মাধ্যমিকে পদোন্নতি পাচ্ছেন ৬ হাজার শিক্ষক

স্টাফ রিপোর্টার : সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষকদের সিনিয়র শিক্ষক পদে পদোন্নতির খসড়া তালিকা প্রকাশ করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর (মাউশি)। সহকারী শিক্ষকরা পদোন্নতির মধ্য দিয়ে প্রথম শ্রেণির নন-ক্যাডার শিক্ষক পদে পদোন্নতি পাবেন। ছয় হাজারের অধিক শিক্ষক এ পদোন্নতি পেতে পারেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। গত ৩০ নভেম্বর সিনিয়র শিক্ষক পদে পদোন্নতির খসড়া তালিকা প্রকাশ করা হয়। ১ ডিসেম্বর অধিদফতরের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এ তালিকায় ৬ হাজার ১৫৫ জন সহকারী শিক্ষককে সিনিয়র শিক্ষক পদে পদোন্নতি দেয়া হবে বলে জানানো হয়। মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদফতর সূত্রে জানা যায়, মুজিববর্ষে বিশাল সংখ্যক পদোন্নতি বাস্তবায়নের চেষ্টা চলছে, যা হবে মুজিববর্ষের বিরাট অর্জন। ইতোমধ্যে কমিটি যাচাই-বাছাইয়ের কাজ শুরু করেছে। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের পরিচালক (মাধ্যমিক) অধ্যাপক মো. বেলাল হোসেন বলেন, মুজিববর্ষে পদোন্নতি বাস্তবায়নের জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা চালানো হচ্ছে। আমরা কোনোভাবেই কালক্ষেপণ করতে চাই না। এরই মধ্যে আমাদের বিশেষজ্ঞ কমিটি যাচাই-বাছাইয়ের কাজ শুরু করেছে। সারাদেশে সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে নন-ক্যাডার শিক্ষক পদে কর্মরত ১০ হাজার ৫০০ জন। এর মধ্যে ৬ হাজারের বেশি শিক্ষক এই পদোন্নতিতে যুক্ত হবেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, এ পদোন্নতির ফলে শিক্ষকদের কোনো আর্থিক সুবিধা না বাড়লেও সামাজিকভাবে তাদের মর্যাদা বৃদ্ধি পাবে। ফলে শিক্ষাক্ষেত্রে এর একটি ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। এছাড়া পদোন্নতির এ জট খুললে মাধ্যমিকের উপরের বিভিন্ন পদায়নও সম্ভব হবে। বিভিন্ন বিধি-নিষেধের কারণে এখনো অনেক শিক্ষকের পদোন্নতি আটকে যেতে পারে। এছাড়া ব্যাচেলর অব এডুকেশন (বিএড) না থাকার শর্ত লঙ্ঘন, সমন্বিত মেধাতালিকা না থাকার কারণে কীভাবে পদোন্নতি দেয়া হবে তা নিয়ে অনেক শিক্ষক প্রশ্ন তুলেছেন। এ বিষয়ে সরকারি মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শাহাব উদ্দিন মাহমুদ সালমী বলেন, বিধিবিধান মেনে অর্থাৎ ২০১৮ সালে যে পদ্ধতি অনুসরণ করে পদোন্নতি দেয়া হয়েছে সে পদ্ধতি অনুসরণ করে পদোন্নতি দিলে কারো কোনো অভিযোগ থাকবে না। জানতে চাইলে মাউশি পরিচালক (মাধ্যমিক) অধ্যাপক মো. বেলাল হোসেন বলেন, ত্রুটি দেখতেই খসড়া তালিকা প্রকাশ করা হয়। শিক্ষকরা চাইলে অনলাইনে তাদের মতামত বা লিখিত অভিযোগ করে আমাদের জানাতে পারবেন। বিধিবিধান অনুযায়ী যাচাই-বাছাইয়ের মাধ্যমে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে খসড়া তালিকা সংশোধন করা হবে এবং তা সম্পন্ন করে চূড়ান্ত আকারে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে।

মাধ্যমিকে পদোন্নতি পাচ্ছেন ৬ হাজার শিক্ষক
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষকদের সিনিয়র শিক্ষক পদে পদোন্নতির খসড়া তালিকা প্রকাশ করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর (মাউশি)। সহকারী শিক্ষকরা পদোন্নতির মধ্য দিয়ে প্রথম শ্রেণির নন-ক্যাডার শিক্ষক পদে পদোন্নতি পাবেন। ছয় হাজারের অধিক শিক্ষক এ পদোন্নতি পেতে পারেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। গত ৩০ নভেম্বর সিনিয়র শিক্ষক পদে পদোন্নতির খসড়া তালিকা প্রকাশ করা হয়। ১ ডিসেম্বর অধিদফতরের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এ তালিকায় ৬ হাজার ১৫৫ জন সহকারী শিক্ষককে সিনিয়র শিক্ষক পদে পদোন্নতি দেয়া হবে বলে জানানো হয়। মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদফতর সূত্রে জানা যায়, মুজিববর্ষে বিশাল সংখ্যক পদোন্নতি বাস্তবায়নের চেষ্টা চলছে, যা হবে মুজিববর্ষের বিরাট অর্জন। ইতোমধ্যে কমিটি যাচাই-বাছাইয়ের কাজ শুরু করেছে। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের পরিচালক (মাধ্যমিক) অধ্যাপক মো. বেলাল হোসেন বলেন, মুজিববর্ষে পদোন্নতি বাস্তবায়নের জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা চালানো হচ্ছে। আমরা কোনোভাবেই কালক্ষেপণ করতে চাই না। এরই মধ্যে আমাদের বিশেষজ্ঞ কমিটি যাচাই-বাছাইয়ের কাজ শুরু করেছে। সারাদেশে সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে নন-ক্যাডার শিক্ষক পদে কর্মরত ১০ হাজার ৫০০ জন। এর মধ্যে ৬ হাজারের বেশি শিক্ষক এই পদোন্নতিতে যুক্ত হবেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, এ পদোন্নতির ফলে শিক্ষকদের কোনো আর্থিক সুবিধা না বাড়লেও সামাজিকভাবে তাদের মর্যাদা বৃদ্ধি পাবে। ফলে শিক্ষাক্ষেত্রে এর একটি ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। এছাড়া পদোন্নতির এ জট খুললে মাধ্যমিকের উপরের বিভিন্ন পদায়নও সম্ভব হবে। বিভিন্ন বিধি-নিষেধের কারণে এখনো অনেক শিক্ষকের পদোন্নতি আটকে যেতে পারে। এছাড়া ব্যাচেলর অব এডুকেশন (বিএড) না থাকার শর্ত লঙ্ঘন, সমন্বিত মেধাতালিকা না থাকার কারণে কীভাবে পদোন্নতি দেয়া হবে তা নিয়ে অনেক শিক্ষক প্রশ্ন তুলেছেন। এ বিষয়ে সরকারি মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শাহাব উদ্দিন মাহমুদ সালমী বলেন, বিধিবিধান মেনে অর্থাৎ ২০১৮ সালে যে পদ্ধতি অনুসরণ করে পদোন্নতি দেয়া হয়েছে সে পদ্ধতি অনুসরণ করে পদোন্নতি দিলে কারো কোনো অভিযোগ থাকবে না। জানতে চাইলে মাউশি পরিচালক (মাধ্যমিক) অধ্যাপক মো. বেলাল হোসেন বলেন, ত্রুটি দেখতেই খসড়া তালিকা প্রকাশ করা হয়। শিক্ষকরা চাইলে অনলাইনে তাদের মতামত বা লিখিত অভিযোগ করে আমাদের জানাতে পারবেন। বিধিবিধান অনুযায়ী যাচাই-বাছাইয়ের মাধ্যমে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে খসড়া তালিকা সংশোধন করা হবে এবং তা সম্পন্ন করে চূড়ান্ত আকারে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে।

ভর্তি ফি ছাড়া অন্য কোনো ফি নেয়া যাবে না: শিক্ষামন্ত্রী
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানিয়েছেন, করোনার কারণে এ বছর সরকারি-বেসরকারি প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্কুলে প্রথম থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।  এই ভর্তির সময় ভর্তি ফি ছাড়া অন্য কোনো ফি নেয়া যাবে না। গতকাল বুধবার এক ভার্চুয়াল প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা জানান। তবে টিউশন ফি ও অত্যাবশকীয় বেসরকারি কর্মচারী এবং কম্পিউটার ফি নেয়া যাবে। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, যারা নতুন করে ভর্তি হবে, তাদের ভর্তি ফি নেয়া যাবে। তবে ভর্তির সঙ্গে বার্ষিকসহ অন্যান্য ফি নেয়া যাবে না। আর নতুন ক্লাসে যারা উত্তীর্ণ হচ্ছে তাদের ক্ষেত্রেও বার্ষিক চার্সহ অন্য ফি নেয়া যাবে না।  তবে করোনা পরিস্থিতি ঠিক হলে তখন যেসব কার্যক্রম করা যাবে, সেই সাপেক্ষে ওইসব কার্যক্রমের ফি নেয়া যাবে। তিনি বলেন, করোনাকালীন শিক্ষার্থীদের স্কুলে এনে ভর্তি পরীক্ষা নেয়ার বিষয়টি ঝুঁকিপূর্ণ। তাই বাধ্য হয়েই লটারির মাধ্যমে ভর্তি পরীক্ষা নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। যোগ্যতার চেয়ে এবার ভাগ্যকেই প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে। বাধ্য হয়েই এ পদ্ধতি বেছে নিয়েছি। একইসঙ্গে ঢাকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থী ভর্তিতে ‘ক্যাচমেন্ট (এলাকাভিত্তিক) কোটা’ ৪০ থেকে বাড়িয়ে ৫০ শতাংশ করা হয়েছে।  আর ক্লাস্টারভিত্তিক লটারিতে ঢাকার শিক্ষার্থীরা একটির জায়গায় এবার ৫টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বাছাই করার সুযোগ পাবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। আগামী ৭ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রথম থেকে নবম শ্রেণিতে ভর্তির পুরো প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানিয়ে দেয়া হবে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী। প্রেস ব্রিফিংয়ে সংযুক্ত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী।

সমালোচনার মুখে ঢাবির সান্ধ্য এমবিএ কোর্সের ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : নীতিমালা তৈরি না হওয়া পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) বিভিন্ন বিভাগে চলমান সান্ধ্যকালীন কোর্স স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল প্রশাসন। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থগিতাদেশ তোয়াক্কা না করে সান্ধ্যকালীন এমবিএ-এর ৪৫তম ব্যাচের ভর্তি পরীক্ষার আয়োজন করে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ। আর সেটিকে বিশ্ববিদ্যালয় আইনের লঙ্ঘন নয় বলে দাবি করেছেন ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আবদুল মঈন। গতকাল শুক্রবার বেলা ১১টায় আজিমপুর গভর্নমেন্ট গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজে এই ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু গণমাধ্যমে এ বিষয়টি প্রকাশ হলে ব্যাপক সমালোচনা সৃষ্টি হয়। পরে পরীক্ষার মাত্র ৩০ মিনিট আগে শিক্ষার্থীদের বার্তা পাঠিয়ে পরীক্ষা স্থগিতের বিষয়টি জানানো হয়। এ বিষয়ে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন অধ্যাপক ড. আবদুল মঈন বলেন, পরীক্ষা নিয়ে কিছু মিসইন্টারপ্রিটিশন হয়েছে। মিসইন্টারপ্রিটিশনের আলোকে আজকের পরীক্ষা স্থগিতের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ইনশাআল্লাহ সামনে পরীক্ষা নেব। বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনের সাথে সাংঘর্ষিক নয় এমন বিষয়কে সামনে নিয়ে আমরা পরীক্ষা নিচ্ছিলাম। এখানে বিশ্ববিদ্যালয় আইনের কোনো লঙ্ঘন হয়নি। তিনি আরও বলেন, কোভিডের সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষার নিয়ম অনুসরণ করেই পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করেই পরীক্ষা নিচ্ছিলাম। কিছু ভুল বোঝাবুঝির কারণে এটি স্থগিত রাখা হয়েছে। গত ২৫ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলে সান্ধ্যকালীন কোর্স নিয়ে নীতিমালা তৈরির জন্য তৎকালীন উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদকে প্রধান করে ১৮ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ে সান্ধ্যকালীন কোর্স বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এ ছাড়া কমিটিকে পাঁচ সপ্তাহ সময় দেয়া হলেও তারা এখন পর্যন্ত কোনো নীতিমালা জমা দেয়নি।

টিউশন ফি ছাড়া অন্য খাতে টাকা নিতে পারবে না বেসরকারি মাধ্যমিক স্কুল
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : কোভিড-১৯ মহামারি বিবেচনা করে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের অধীনে বেসরকারি মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে টিউশন ফি ছাড়া অ্যাসাইনমেন্ট, টিফিন, পুনঃভর্তি, লাইব্রেরি, বিজ্ঞানাগার, ম্যাগাজিন ও উন্নয়ন ফি নিতে পারবে না। গতকাল বুধবার মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এর মধ্যে কোনও প্রতিষ্ঠান শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে টিউশন ফি ছাড়া অন্য ফি নিয়ে থাকলে, তা ফেরত দিতে হবে কিংবা টিউশন ফি এর সঙ্গে সমন্বয় করতে হবে। এ ছাড়া, কোনও শিক্ষার্থীর অভিভাবক চমর আর্থিক সংকটে থাকলে, সেই শিক্ষার্থীর টিউশন ফি এর বিষয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে বিবেচনা করতে বলা হয়। কোভিড পরিস্থিতিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো কোনও নির্দিষ্ট খাতে শিক্ষার্থীদের জন্য ব্যয় করতে না পারলে, ওই খাতে কোনও ফি নিতে পারবে না বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়। তবে, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আবার যৌক্তিক ফি নেওয়া যাবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।

শিক্ষা ব্যবস্থায় আনন্দ নিয়ে আসতে চাই : ডা. দীপু মনি
                                  

জেলা প্রতিনিধি : সনদসর্বস্ব শিক্ষা থেকে বেরিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, গতানুগতিক চিন্তাধারা থেকে বেরিয়ে এসে শিক্ষাব্যবস্থায় বড় পরিবর্তন আনতে হবে। আমরা শিক্ষাব্যবস্থায় আনন্দ নিয়ে আসতে চাই। সংখ্যায় নয়, শিক্ষার গুণ ও মানের দিকে নজর দিতে হবে। গতকাল শনিবার দুপুরে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) শেখ রাসেল জিমনেসিয়ামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। প্রায় ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে এই জিমনেসিয়াম নির্মাণ করা হয়েছে। এর আগে শিক্ষামন্ত্রী যবিপ্রবির প্রধান ফটকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন, মুজিববর্ষ উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডা. এম আর খান মেডিকেল সেন্টারের সামনে একটি কৃষ্ণচূড়ার বৃক্ষ রোপণ এবং শেখ রাসেল জিমনেসিয়ামের উদ্বোধন করেন। আলোচনা সভায় শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, আধুনিক শ্রমবাজারে ক্রমশ প্রতিযোগিতা বেড়েছে। সে কারণে প্রধানমন্ত্রীর দূরদৃষ্টি ও সানুগ্রহ নির্দেশনায় দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে কাজ করে যাচ্ছি। এ কাজগুলোর জন্য গতানুগতিক চিন্তা বা শিক্ষাব্যবস্থায় হবে না। সব জায়গায় আমাদের একটু ‘আউট অব বক্স’ চিন্তা করতে হবে। সে জন্য আমাদের চিন্তার জগতে পরিবর্তন আনার জন্য শিক্ষাব্যবস্থায় বড় পরিবর্তন আনতে হবে। তিনি আরও বলেন, আমরা শুধু পড়াশোনা করাচ্ছি, পরীক্ষা দিচ্ছি ও সনদ দিচ্ছি। এমনিতেই আমাদের শিক্ষাব্যবস্থা অনেকটা পরীক্ষানির্ভর এবং সনদসর্বস্ব। একই সঙ্গে আনন্দহীন। সেটি প্রাক-প্রাথমিক থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত। আমরা শিক্ষাব্যবস্থায় আনন্দ নিয়ে আসতে চাই। আনন্দ নিয়ে শিক্ষার্থীরা জ্ঞান অর্জন করবে। তার মধ্যে অনুসন্ধিৎসা জাগ্রত হবে। শিক্ষার্থীরা জ্ঞান অর্জনের আনন্দেই জ্ঞান অর্জন করবে, বাধ্য হয়ে নয়। শিক্ষাব্যবস্থার ক্রুটি খুঁজে বের করারও আহ্বান জানান মন্ত্রী। বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় শিক্ষা সবচেয়ে বড় হাতিয়ার উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞান ও তথ্য-প্রযুক্তিতে দক্ষ মানবসম্পদ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় উচ্চ শিক্ষার উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবে। তিনি বলেন, প্রযুক্তি হলো উন্নয়নের বাহন। কাজেই নতুন নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবনের দিকে মনোযোগী হতে হবে। শুধু উদ্ভাবন করলেই হবে না, এটার যেন সঠিক প্রয়োগ হয়, সেটাও আমাদের দেখতে হবে। প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে নতুন উদ্ভাবনের মাধ্যমে এবং এর সঠিক প্রয়োগের মাধ্যমে দেশের উন্নয়ন ঘটাব, ইনশাআল্লাহ। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের জন্য আমাদের দক্ষ, সুস্থ-সবল জনশক্তি প্রয়োজন উল্লেখ করে ডা. দীপু মনি বলেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির পাশাপাশি ক্রীড়াক্ষেত্রে আমাদের দক্ষতা অর্জন করতে হবে। দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ সুস্থ, সবল ও কর্মে উদ্যোমী প্রজন্ম যাতে আমরা গড়ে তুলতে পারি, সে লক্ষে আমাদের প্রয়াস অব্যাহত থাকবে। তিনি যবিপ্রবির গবেষণা, উন্নয়ন কর্মকাণ্ড ও ক্রীড়াক্ষেত্রে নৈপুণ্যের ভূয়সী প্রশংসা করেন। একই সঙ্গে যবিপ্রবির উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রায় শিক্ষা মন্ত্রণালয় পাশে থাকবে বলেও আশ্বাস দেন।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়ল
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আগামী ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) দুপুর ১২টার দিকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি নিয়ে ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে এ ঘোষণা দেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে অংশ নেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহাবুব হোসেন, কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ গোলাম ফারুকসহ বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান।

গত ১৭ মার্চ থেকে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কয়েক দফা ছুটি বাড়ানোর পর ৩১ অক্টোবর ছুটি শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়ায় ছুটি শেষ হওয়ার আগেই আবারো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটির সময় বাড়লো।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসের কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে দেশে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। এ পরিস্থিতিতে ইতোমধ্যে প্রাথমিকের সমাপনী, জেএসসি, এইচএসসি পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে। বাতিল করা হয়েছে শিক্ষার্থীদের বার্ষিক পরীক্ষাও।

পরীক্ষা নেয়ার অনুমতি পাচ্ছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : শর্তসাপেক্ষে বিশেষ বিবেচনায় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য প্রাকটিক্যাল ক্লাস ও পরীক্ষার সুযোগ দিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। যেসব শিক্ষার্থী ফাইনাল সেমিস্টারে রয়েছেন শুধু তারাই এ সুযোগ পাবেন। কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে এটি কার্যকর করা হবে। এক্ষেত্রে ক্লাস ও পরীক্ষার সময় দুজন শিক্ষার্থীর মাঝে অন্তত ছয় ফুট দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। গতকাল মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) ইউজিসির ভার্চুয়াল সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়।

সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সর্বোচ্চ ১০ জন শিক্ষার্থী ল্যাব ক্লাস ও পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবেন। একদিনে শুধু একটি ক্লাস নেয়া যাবে। বৈঠকে অংশগ্রহণকারী এক সদস্য জানান, বিশ্ববিদ্যালয় খোলা হচ্ছে না। শুধু এসব শিক্ষার্থীর কথা বিবেচনায় রেখে আমাদের এমন সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, যে সব শিক্ষার্থী তাদের ফাইনাল সেমিস্টারে রয়েছেন তারা ব্যক্তিগতভাবে প্রাকটিক্যাল ক্লাস ও পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাবেন। বেশ কয়েকটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

করোনাভাইরাসের কারণে গত ১৮ মার্চ থেকে বন্ধ দেশের সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত ছুটি বাড়ানো হয়েছে। এ ছুটি আরও বাড়ছে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার শিক্ষামন্ত্রী সংবাদ সম্মেলনে ছুটি বাড়ানোর ঘোষণা দেবেন বলে মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে।

মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষা বাতিল
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের বার্ষিক পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে। ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত পরবর্তী ক্লাসে উন্নীত করতে এনসিটিবি নতুন করে একটি সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রণয়ন করেছে। তার আলোকে শিক্ষার্থীদের জন্য অ্যাসাইনমেন্ট করতে দেয়া হবে। এটি মূল্যায়নের মাধ্যমে মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের পরবর্তী ক্লাসে উন্নীত করা হবে।

বুধবার ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এ তথ্য জানান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক গোলাম ফারুক চৌধুরী এবং শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানরা।

মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত বুধবার
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : সারা দেশে মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষার বিষয়ে আগামীকাল বুধবার (২১ অক্টোবর) শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলন করবেন। বুধবার দুপুর ১২টায় এ সংবাদ সম্মেলন হওয়ার কথা। আজ মঙ্গলবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা এম এ খায়ের সংবাদ বিবৃতি দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছেন।

মাধ্যমিক স্তরে ষষ্ঠ, সপ্তম, নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বার্ষিক মূল্যায়ন কীভাবে করা হবে নাকি হবে না তা জানাতেই শিক্ষামন্ত্রীর এই সংবাদ সম্মেলন। করোনাভাইরাসের কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। একাডেমিক কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও পাঠদানের ধারাবাহিকতা রক্ষায় অনলাইন, টিভি ও বেতারে পাঠদান চালিয়ে আসছে সরকার।

এছাড়া পঞ্চম শ্রেণির প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা, অষ্টম শ্রেণির জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা এবং সর্বশেষ এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে।

এদিকে, চলতি বছর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্যে প্রাক-প্রাথমিক থেকে চতুর্থ শ্রেণি পর্যন্ত নিজ বিদ্যালয়ে মূল্যায়নের কথা বলা হয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা সাপেক্ষে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী পাঠদানেরর জন্য নভেম্বর থেকে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে শিক্ষা কার্যক্রম পরিালনার কথা বলা হয়েছে।

তবে নভেম্বরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা যাবে না বলে মনে করছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। সেক্ষেত্রে পঞ্চম শ্রেণির মূল্যায়ন না করে অটো পাস দেওয়া ছাড়া কোনও বিকল্প থাকবে না প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের।

এইচএসসি পরীক্ষা বাতিল
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : এ বছর সরাসরি এইচএসসি পরীক্ষা হবে না বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। তবে জেএসসি-এসএসসি পরীক্ষার ভিত্তিতে মূল্যায়ন করা হবে। বুধবার (৭ অক্টোবর) ভিডিও বার্তায় এ কথা জানান শিক্ষামন্ত্রী।

এ সময় তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের জীবনের নিরাপত্তায় সার্বিক বিবেচনায় ২০২০ সালের এইচএসসি পরীক্ষা ভিন্ন পদ্ধতিতে মূল্যায়ন হবে। যেভাবে গ্রহণযোগ্যতা পাবে, তা বিবেচনা করছি। এ পরীক্ষার জন্য ৩০ থেকে ৩২ দিন সময় দরকার হয়। এক বেঞ্চে একজন ছাত্রী সম্ভব নয়। এখন কেন্দ্র দ্বিগুণ করার জনবল নেই।

আবারো বাড়লো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : বিশ্বব্যাপী চলমান মহামারি করোনার কারণে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আরো বাড়ানো হয়েছে বলে জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। করোনা পরিস্থিতির আশানুরূপ পরিবর্তন না হওয়ায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আগামী ৩১ অক্টোবর তারিখ পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছে।  এ সময় দেশের সব স্কুল-কলেজ-মাদরাসা বন্ধ থাকবে। তবে কওমি মাদরাসার ক্ষেত্রে ছুটি কার্যকর হবে না।

বৃহস্পতিবার (০১ অক্টোবর) দুপুরে এ কথা জানায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। প্রসঙ্গত, গত ১৭ মার্চ থেকে কয়েক ধাপে আগামী ৩ অক্টোবর পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।

বৌদ্ধবিহারে বিশ্ববিদ্যালয় পুন:প্রতিষ্ঠার দাবি
                                  

বদলগাছী (নওগাঁ) প্রতিনিধি : নওগাঁর ঐতিহাসিক পাহাড়পুরের বৌদ্ধ বিহারে প্রাচীন বিশ্ববিদ্যালয়ের স্মৃতি ও ইতিহাস-ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে বৌদ্ধবিহার এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয় পুন: প্রতিষ্ঠার দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রোববার বেলা ১১টায় নওগাঁর বদলগাছী উপজেলা চত্ত্বরে ‘ঐতিহাসিক পাহাড়পুর বৌদ্ধবিহার বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়ন পরিষদ ও ঐতিহাসিক পাহাড়পুর বৌদ্ধবিহার বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়ন ছাত্র পরিষদের’ আয়োজনে ঘন্টাব্যাপী এ মানব বন্ধনে রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ অংশ গ্রহন করেন।
এ সময় বক্তব্য রাখেন-বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়ন পরিষদের আহবায়ক ইমামুল আল হাসান তিতু, সদস্য সচিব বৈদ্যনাথ সরদার, পাহাড়পুর ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান কিশোর, উপজেলা বেসরকারি কলেজ শিক্ষক-কর্মচারী কল্যাণ সমিতির সভাপতি গোলাম কিবরিয়া ও সাঃ সম্পাদক নজরুল ইসলাম প্রমুখ। বক্তারা বলেন, এই পাহাড়পুর বৌদ্ধ বিহারে ৭৮১ অব্দ থেকে ৮২১ অব্দে প্রাচীন সময়ে এশিয়া মহাদেশের প্রসিদ্ধ অন্যতম বিশ্ববিদ্যালয় ছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষনা অনুযায়ী প্রতিটি জেলায় যে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হবে তা ইতিহাসের গুরুত্ব বিবেচনায় জয়পুরহাট ও নওগাঁ জেলার সীমান্তবর্তী ঐতিহাসিক পাহাড়পুর বৌদ্ধ বিহারের পাদদেশে পুন: প্রতিষ্ঠা হলে পার্শ¦বর্তী কয়েকটি জেলার মানুষ ব্যাপক শিক্ষার সুবিধা পাবে। সেই সাথে এই জনপদের মানুষ ফিরে পাবে তাদের প্রাচীন ঐতিহ্য। বক্তারা আরো বলেন, জেলার অন্য যেকোনো জায়গায় বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনে জমি অধিগ্রহন ও মাটি ভরাট (বিল্ডিং তৈরীর উপযোগী করতে) করতে যে পরিমাণ অর্থ ব্যয় হবে তার চেয়ে অনেক কম অর্থ ব্যয়ে ঐতিহাসিক পাহাড়পুড়ে বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে।

একাদশে ভর্তি শুরু, ক্লাস হবে অনলাইনে
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : একাদশে ভর্তি কার্যক্রম রবিবার (১৩ সেপ্টেম্বর) থেকে শুরু হয়েছে। চলবে ১৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। ক্লাস শুরু হবে অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে। তবে করোনা পরিস্থতির কারণে ক্লাস হবে অনলাইনে। অন্যদিকে ১ অক্টোবর বাজারে এই ক্লাসের পাঠ্যবই বিক্রির জন্য উন্মুক্ত করা হবে।

আন্তঃশিক্ষা সমন্বয়ক বোর্ড থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

আন্তঃশিক্ষা বোর্ডের সমন্বয়ক অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক গণমাধ্যমকে বলেন, ‘অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ক্লাস শুরু হবে। তবে করোনা পরিস্থিতির কারণে অনলাইনেই কেবল এই ক্লাস চলবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে গেলে স্বাভাবিক ক্লাস শুরু হবে।’

আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা চান্স পাওয়া কলেজে গিয়ে ভর্তি হবেন। ভর্তির ক্ষেত্রে অনুসরণীয় নীতিমালা ইতোমধ্যে সরকার প্রকাশ করেছে। এরপরও ৮ সেপ্টেম্বর পৃথক দুটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পৌর (উপজেলা) এলাকার এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো একাদশ শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তিতে সেশন ও ভর্তিফিসহ সাকুল্যে এক হাজার টাকা, পৌর (জেলা সদর) এলাকায় দুই হাজার টাকা এবং ঢাকা মহানগর ছাড়া অন্য মেট্রোপলিটন এলাকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো তিন হাজার টাকার বেশি আদায় করতে পারবে না।

এছাড়া ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তিতে পাঁচ হাজার টাকার বেশি অর্থ আদায় করা যাবে না। ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকার আংশিক এমপিওভুক্ত বা এমপিওবহির্ভূত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে উন্নয়ন ও এমপিওবহির্ভূত শিক্ষকদের বেতন-ভাতা দেয়ার জন্য শিক্ষার্থী ভর্তি ফি, সেশন চার্জ, উন্নয়ন ফিসহ বাংলা মাধ্যমে সর্বোচ্চ সাড়ে সাত হাজার টাকা এবং ইংরেজি ভার্সনে সর্বোচ্চ সাড়ে আট হাজার টাকা নিতে পারবে।

কোনো প্রতিষ্ঠান উন্নয়ন খাতে এবার দেড় হাজার টাকার বেশি আদায় করতে পারবে না। গত বছর এ খাতে তিন হাজার টাকা ছিল। করোনা পরিস্থিতির কারণে এই ফি কমিয়েছে বোর্ড। এছাড়া রেড ক্রিসেন্ট ফি ৪০ শতাংশ কমিয়ে ১২ টাকা করা হয়েছে। কোনো শিক্ষার্থীর পাঠ বিরতি থাকলে ও বিলম্বে ভর্তি হলে যথাক্রমে ১৫০ টাকা এবং ১০০ টাকা আদায় করা যাবে। সরকারি কলেজগুলোকে সরকারি পরিপত্র অনুযায়ী ফি সংগ্রহ করতে হবে।

এবারও তিন ধাপে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা ভর্তির আবেদন করে। প্রায় ১৪ লাখ শিক্ষার্থী ভর্তির আবেদন করেছে। এ বছর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পাস করেছে ১৬ লাখ ৯০ হাজার ৫২৩ জন।

অন্যদিকে উচ্চমাধ্যমিকে মোট পাঠ্য বইয়ের সংখ্যা ৩৯টি। এগুলোর মধ্যে- বাংলা, ইংরেজি এবং বাংলা সহপাঠ বই সরকারিভাবে প্রকাশিত হয়। এবার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ের বইটিও বেসরকারি প্রকাশকদের পাশাপাশি জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিবি) বইও বাজারে থাকছে। এই বইটি নিয়ে মামলা হয়েছিল। ফলে বেসরকারি প্রকাশকদের প্রকাশিত বাকি ৩৫টি বই বাজারে থাকছে।

প্রাথমিক বিদ্যালয় খুলতে প্রস্তুতি শুরুর নির্দেশ
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশে করোনা পরিস্থিতির মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলার প্রস্তুতি শুরুর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপসচিব শামীম আরা নাজনীন স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে জনস্বাস্থ্য ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিদ্যালয় পুনরায় চালু করতে হবে। এজন্য জনস্বাস্থ্য ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিদ্যালয় পুনরায় চালুর নির্দেশিকা প্রণয়ন করা হয়েছে। বিদ্যালয় পুনরায় চালুর আগে অনুমোদিত নির্দেশিকার আলোকে প্রস্তুতি শুরু করতে বলা হয়েছে।

শিক্ষার্থীদের সুরক্ষা নিশ্চিতে বিদ্যালয় খোলার আগে স্বাস্থ্য নিরাপত্তামূলক এমন ৫০টির বেশি নির্দেশনা জারি করবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। এসব নির্দেশনা মেনে পাঠদান কার্যক্রম পরিচালিত হবে। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিরাপদে রেখে বিদ্যালয়ে পাঠদান পরিচালনায় করণীয়বিষয়ক নির্দেশনা তৈরি করা হয়েছে। বিদ্যালয় খোলার আগে ও চলাকালীন করণীয়বিষয়ক বিভিন্ন নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এছাড়া প্রতিদিন কীভাবে ক্লাস পরিচালনা হবে সে বিষয়ে দিকনির্দেশনা নির্ধারণ করে আলাদাভাবে তিনটি ক্যাটাগরিতে ৫০টির বেশি নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। করোনাকালীন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরিচালনা ও সুরক্ষা নিশ্চিত করতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, ইউনিসেফ, সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি) এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে দেয়া স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে এসব নির্দেশনা তৈরি করা হয়েছে।

একই সঙ্গে প্রস্তুতি প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে মন্ত্রণালয়ের সব পদক্ষেপ পোস্টার, লিফলেট তৈরি করে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিতরণ করতে বলা হয়েছে। এর একটি খসড়াসহ উপস্থাপন করতে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

বিদ্যালয় খোলা না গেলে অটােপাশের ইঙ্গিত
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : আগামী নভেম্বরের মধ্যে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলা সম্ভব না হলে অটোপাসের ইঙ্গিত দিলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. আকরাম হোসেন।

আজ রবিবার সচিবালয়ে আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই ইঙ্গিত দেন।

দেশে সাক্ষরতার হার ৭৪ দশমিক ৭ শতাংশ বলে জানান প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন। এটি বৃদ্ধি করতে নানা ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

সিনিয়র সচিব বলেন, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম থেকে পঞ্চম শেণির শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা ভিত্তিক মূল্যায়ন করতে সিলেবাস সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে। অক্টোবর ও নভেম্বরকে কেন্দ্র করে সিলেবাস সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে। স্কুল খুললে তার উপর পরীক্ষা নিয়ে প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেনির শিক্ষার্থীদের ক্লাস মূল্যায়ণ করা হবে। স্কুল খোলা সম্ভব না হলে আমাদের বিকল্প কোন উপায় নিয়ে ভাবতে হবে।

সচিব বলেন, আমরা ঝোড়ে পড়া রোধ করতে নানা ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছি। বয়স্কদের মধ্যে সাক্ষরতার হার বৃদ্ধি করা হবে। করোনার মধ্যে অনেক কিন্টারগার্টেন স্কুল বন্ধ হয়ে যেতে পারে সেসব স্কুলের আশেপাশে যেসব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থাকবে সেসব স্কুলে ভর্তি করাতে আমরা নির্দেশনা দিয়েছি।

একাদশে ভর্তির দ্বিতীয় ধাপের আবেদন শুরু
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক: একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির দ্বিতীয় ধাপের আবেদন গ্রহণ শুরু হয়েছে আজ (৩১ আগস্ট) সোমবার থেকে। প্রথম ধাপে আবেদন করতে না পারা ও সিলেকশন না পাওয়া ও নিশ্চায়ন না করা শিক্ষার্থীরা এই ধাপে আবেদন করতে পারবেন বলে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটি জানিয়েছেন। দ্বিতীয় পর্যায়ে আবেদন গ্রহণ চলবে ২ সেপ্টেম্বর রাত ৮টা পর্যন্ত।


পছন্দক্রম অনুসারে প্রথম মাইগ্রেশনের ফল ও দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদনের ফল প্রকাশ হবে ৪ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায়। দ্বিতীয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের সিলেকশন নিশ্চয়ন করা হবে ৫ সেপ্টেম্বর থেকে ৬ সেপ্টেম্বর বিকেল ৫টা পর্যন্ত। শিক্ষার্থী সিলেকশন নিশ্চয়ন না করলে দ্বিতীয় পর্যায়ের সিলেকশন ও আবেদন বাতিল হবে।

তৃতীয় পর্যায়ের আবেদন গ্রহণ করা হবে ৭ ও ৮ সেপ্টেম্বর। পছন্দক্রম অনুযায়ী দ্বিতীয় মাইগ্রেশনের ফল ও তৃতীয় পর্যায়ের আবেদনের ফল প্রকাশ হবে ১০ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায়। তৃতীয় পর্যায়ে শিক্ষার্থীর সিলেকশন নিশ্চয়ন করতে হবে ১১ সেপ্টেম্বর থেকে ১২ সেপ্টেম্বর রাত ৮টা পর্যন্ত। সিলেকশন নিশ্চায়ন না করলে আবেদন বাতিল হবে।

কলেজভিত্তিক চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হবে ১৩ সেপ্টেম্বর সকাল ৮টায়। ভর্তি কার্যক্রম চলবে ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।


বোর্ডের তথ্যমতে, একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য প্রথমধাপে ১২ লাখ ৭৭ হাজার ৭২১ জন শিক্ষার্থী মনোনীত হয়েছেন। সব বোর্ড মিলে মোট আবেদন করেছিলেন ১৩ লাখ ৪২ হাজার ৬৯৩ জন। এর মধ্যে ৬৪ হাজার ৯৭২ জন ভর্তির জন্য কোনো সিট পায়নি।

এছাড়া সারা দেশে ১৪৮ কলেজে কেউ আবেদন করেননি বা কোনো শিক্ষার্থী পায়নি।

আন্তঃশিক্ষা সমন্বয়ক বোর্ডের তথ্য মতে, শিক্ষার্থীদের এসএমএসে ফল জানানো হবে। একইসঙ্গে একটি সিকিউরিটি কোড পাঠানো হবে। এ কোডটি ভর্তি নিশ্চয়নের জন্য সংগ্রহ করতে হবে। আর ভর্তির নির্ধারিত ওয়েবসাইটেও (http://www.xiclassadmission.gov.bd) ফল জানা যাবে।

এমটি/ এসএইচ


   Page 1 of 69
     শিক্ষা
মাধ্যমিকে পদোন্নতি পাচ্ছেন ৬ হাজার শিক্ষক
.............................................................................................
ভর্তি ফি ছাড়া অন্য কোনো ফি নেয়া যাবে না: শিক্ষামন্ত্রী
.............................................................................................
সমালোচনার মুখে ঢাবির সান্ধ্য এমবিএ কোর্সের ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত
.............................................................................................
টিউশন ফি ছাড়া অন্য খাতে টাকা নিতে পারবে না বেসরকারি মাধ্যমিক স্কুল
.............................................................................................
শিক্ষা ব্যবস্থায় আনন্দ নিয়ে আসতে চাই : ডা. দীপু মনি
.............................................................................................
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়ল
.............................................................................................
পরীক্ষা নেয়ার অনুমতি পাচ্ছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়
.............................................................................................
মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষা বাতিল
.............................................................................................
মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত বুধবার
.............................................................................................
এইচএসসি পরীক্ষা বাতিল
.............................................................................................
আবারো বাড়লো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি
.............................................................................................
বৌদ্ধবিহারে বিশ্ববিদ্যালয় পুন:প্রতিষ্ঠার দাবি
.............................................................................................
একাদশে ভর্তি শুরু, ক্লাস হবে অনলাইনে
.............................................................................................
প্রাথমিক বিদ্যালয় খুলতে প্রস্তুতি শুরুর নির্দেশ
.............................................................................................
বিদ্যালয় খোলা না গেলে অটােপাশের ইঙ্গিত
.............................................................................................
একাদশে ভর্তির দ্বিতীয় ধাপের আবেদন শুরু
.............................................................................................
জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষাও হচ্ছে না
.............................................................................................
সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাড়লো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি
.............................................................................................
সততা ও কর্মনিষ্ঠার সাথে কাজ করে জীবনকে সমৃদ্ধ করতে হবে : দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান
.............................................................................................
হচ্ছে না প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা
.............................................................................................
বিভাগীয় প্রার্থীতা পুর্নবহাল চায় সাড়ে তিন লাখ সহকারী শিক্ষক
.............................................................................................
২০১৯ খসড়ায় সহকারী শিক্ষকদের বিভাগীয় প্রার্থিতা প্রত্যাহার, তীব্র অসন্তোষ
.............................................................................................
ফেসবুকে ‘আল বিদা’ লিখে শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা
.............................................................................................
২৫ আগস্টের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত
.............................................................................................
বাতিল হচ্ছে পিইসি-জেএসসি পরীক্ষা
.............................................................................................
`অটো পাসেই` চলতি শিক্ষাবর্ষ শেষ!
.............................................................................................
অবশেষে একাদশ শ্রেণির ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু
.............................................................................................
শ্রুতিমধুর নয় এমন বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন করবে সরকার
.............................................................................................
প্রাথমিকের শিক্ষকেরা বেতন কমার শঙ্কায়!
.............................................................................................
ঈদের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সংবাদ `গুজব`
.............................................................................................
একাদশে ভর্তি শুরু ৯ আগস্ট
.............................................................................................
করোনাকালে স্কুল ঝিমিয়ে গেলেও পিছিয়ে নেই শিক্ষা কার্যক্রম
.............................................................................................
অনলাইন ক্লাস: সুফল শহরে, পিছিয়ে পড়ছে মফস্বলের শিক্ষার্থীরা
.............................................................................................
প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়ন সহায়তা কর্মসূচীর অর্থায়নে শিক্ষা বৃত্তি, শিক্ষা উপকরণ ও বাইসাইকেল বিতরণ
.............................................................................................
করোনাভাইরাসের এই সময়ে অনলাইন পাঠদানে সহায়ক ভূমিকা রাখছেন প্রভাষক মির্জা আরাফাত জাহান
.............................................................................................
বার্ষিক পরীক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেবে সরকার
.............................................................................................
রাবির ৬৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ
.............................................................................................
কিন্ডারগার্টেন স্কুলের শিক্ষকদের টিউশনি না থাকায় মানবেতর কাটছে দিন!
.............................................................................................
বিসিএসে ইংরেজিতে প্রথম হলেন রংপুরের মুন্নী
.............................................................................................
ডিপ্লোমা কোর্সে ভর্তিতে থাকবে না বয়সসীমা: শিক্ষামন্ত্রী
.............................................................................................
শতবর্ষে পা রাখলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
.............................................................................................
বিজ্ঞান জাদুঘরে অনলাইনে বিজ্ঞান বিষয়ক কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
এইচএসসির পরীক্ষার সংখ্যা বা সময় কমানোর ভাবনায় সরকার
.............................................................................................
৬ আগস্ট পর্যন্ত সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ
.............................................................................................
বিশ্বসেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় ১৭৯৪তম ঢাবি
.............................................................................................
কারিগরি শিক্ষায় বেকারত্বের ভয় নেই
.............................................................................................
ছুটির তৃতীয় দফায় ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানও বন্ধ
.............................................................................................
বীরগঞ্জে কোচিং ব্যবসায়ীকে জরিমানা
.............................................................................................
দিনাজপুর চিরিরবন্দরে বাই-সাইকেল বিদ্যালয়ে যাতায়াত চার শতাধিক
.............................................................................................
বাকৃবির ৪ শিক্ষার্থী বহিষ্কার
.............................................................................................

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মো: রিপন তরফদার নিয়াম
প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক : মফিজুর রহমান রোকন
নির্বাহী সম্পাদক : শাহাদাত হোসেন শাহীন
বাণিজ্যিক কার্যালয় : "রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল কমপ্লেক্স"
(৬ষ্ঠ তলা), ২৮/১ সি, টয়েনবি সার্কুলার রোড,
মতিঝিল বা/এ ঢাকা-১০০০| জিপিও বক্স নং-৫৪৭, ঢাকা
ফোন নাম্বার : ০২-৪৭১২০৮০৫/৬, ০২-৯৫৮৭৮৫০
মোবাইল : ০১৭০৭-০৮৯৫৫৩, 01731800427
E-mail: dailyganomukti@gmail.com
Website : http://www.dailyganomukti.com
   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop