ঢাকা,শুক্রবার,৮ কার্তিক ১৪২৭,২৩,অক্টোবর,২০২০ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : > দেশে ফেরামাত্র পি কে হালদারকে গ্রেফতারের নির্দেশ   > করোনায় একদিনে আরো ২৪ মৃত্যু   > গাইবান্ধার সাঘাটার রামনগর গ্রাম নদীভাঙন হতে রক্ষার দাবিতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান   > আ:লীগের পায়ের নিচে মাটি নেই, তাদের সমালোচনায় জনমনে টিকে রয়েছে বিএনপি : মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর   > নাসিকের প্রকল্প অনুমোদন হওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে মেয়র আইভীর ধন্যবাদ   > এনু-রুপমের জামিন হাইকোর্টেও নামঞ্জুর   > মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষা বাতিল   > কুয়েতে নতুন ‘আইন পাস’, কমবে বাংলাদেশি শ্রমিক   > শাহরুখের লন্ডনের বাড়ি আর অক্ষয়ের টাকা চান কারিনা!   > হারলে বিদায়, জিতলেও অনিশ্চিত তামিমদের ভাগ্য  

   শিক্ষা -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষা বাতিল

গণমুক্তি ডেস্ক : মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের বার্ষিক পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে। ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত পরবর্তী ক্লাসে উন্নীত করতে এনসিটিবি নতুন করে একটি সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রণয়ন করেছে। তার আলোকে শিক্ষার্থীদের জন্য অ্যাসাইনমেন্ট করতে দেয়া হবে। এটি মূল্যায়নের মাধ্যমে মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের পরবর্তী ক্লাসে উন্নীত করা হবে।

বুধবার ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এ তথ্য জানান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক গোলাম ফারুক চৌধুরী এবং শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানরা।

মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষা বাতিল
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের বার্ষিক পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে। ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত পরবর্তী ক্লাসে উন্নীত করতে এনসিটিবি নতুন করে একটি সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রণয়ন করেছে। তার আলোকে শিক্ষার্থীদের জন্য অ্যাসাইনমেন্ট করতে দেয়া হবে। এটি মূল্যায়নের মাধ্যমে মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের পরবর্তী ক্লাসে উন্নীত করা হবে।

বুধবার ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এ তথ্য জানান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক গোলাম ফারুক চৌধুরী এবং শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানরা।

মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত বুধবার
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : সারা দেশে মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষার বিষয়ে আগামীকাল বুধবার (২১ অক্টোবর) শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলন করবেন। বুধবার দুপুর ১২টায় এ সংবাদ সম্মেলন হওয়ার কথা। আজ মঙ্গলবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা এম এ খায়ের সংবাদ বিবৃতি দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছেন।

মাধ্যমিক স্তরে ষষ্ঠ, সপ্তম, নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বার্ষিক মূল্যায়ন কীভাবে করা হবে নাকি হবে না তা জানাতেই শিক্ষামন্ত্রীর এই সংবাদ সম্মেলন। করোনাভাইরাসের কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। একাডেমিক কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও পাঠদানের ধারাবাহিকতা রক্ষায় অনলাইন, টিভি ও বেতারে পাঠদান চালিয়ে আসছে সরকার।

এছাড়া পঞ্চম শ্রেণির প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা, অষ্টম শ্রেণির জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা এবং সর্বশেষ এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে।

এদিকে, চলতি বছর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্যে প্রাক-প্রাথমিক থেকে চতুর্থ শ্রেণি পর্যন্ত নিজ বিদ্যালয়ে মূল্যায়নের কথা বলা হয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা সাপেক্ষে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী পাঠদানেরর জন্য নভেম্বর থেকে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে শিক্ষা কার্যক্রম পরিালনার কথা বলা হয়েছে।

তবে নভেম্বরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা যাবে না বলে মনে করছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। সেক্ষেত্রে পঞ্চম শ্রেণির মূল্যায়ন না করে অটো পাস দেওয়া ছাড়া কোনও বিকল্প থাকবে না প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের।

এইচএসসি পরীক্ষা বাতিল
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : এ বছর সরাসরি এইচএসসি পরীক্ষা হবে না বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। তবে জেএসসি-এসএসসি পরীক্ষার ভিত্তিতে মূল্যায়ন করা হবে। বুধবার (৭ অক্টোবর) ভিডিও বার্তায় এ কথা জানান শিক্ষামন্ত্রী।

এ সময় তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের জীবনের নিরাপত্তায় সার্বিক বিবেচনায় ২০২০ সালের এইচএসসি পরীক্ষা ভিন্ন পদ্ধতিতে মূল্যায়ন হবে। যেভাবে গ্রহণযোগ্যতা পাবে, তা বিবেচনা করছি। এ পরীক্ষার জন্য ৩০ থেকে ৩২ দিন সময় দরকার হয়। এক বেঞ্চে একজন ছাত্রী সম্ভব নয়। এখন কেন্দ্র দ্বিগুণ করার জনবল নেই।

আবারো বাড়লো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : বিশ্বব্যাপী চলমান মহামারি করোনার কারণে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আরো বাড়ানো হয়েছে বলে জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। করোনা পরিস্থিতির আশানুরূপ পরিবর্তন না হওয়ায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আগামী ৩১ অক্টোবর তারিখ পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছে।  এ সময় দেশের সব স্কুল-কলেজ-মাদরাসা বন্ধ থাকবে। তবে কওমি মাদরাসার ক্ষেত্রে ছুটি কার্যকর হবে না।

বৃহস্পতিবার (০১ অক্টোবর) দুপুরে এ কথা জানায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। প্রসঙ্গত, গত ১৭ মার্চ থেকে কয়েক ধাপে আগামী ৩ অক্টোবর পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।

বৌদ্ধবিহারে বিশ্ববিদ্যালয় পুন:প্রতিষ্ঠার দাবি
                                  

বদলগাছী (নওগাঁ) প্রতিনিধি : নওগাঁর ঐতিহাসিক পাহাড়পুরের বৌদ্ধ বিহারে প্রাচীন বিশ্ববিদ্যালয়ের স্মৃতি ও ইতিহাস-ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে বৌদ্ধবিহার এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয় পুন: প্রতিষ্ঠার দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রোববার বেলা ১১টায় নওগাঁর বদলগাছী উপজেলা চত্ত্বরে ‘ঐতিহাসিক পাহাড়পুর বৌদ্ধবিহার বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়ন পরিষদ ও ঐতিহাসিক পাহাড়পুর বৌদ্ধবিহার বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়ন ছাত্র পরিষদের’ আয়োজনে ঘন্টাব্যাপী এ মানব বন্ধনে রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ অংশ গ্রহন করেন।
এ সময় বক্তব্য রাখেন-বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়ন পরিষদের আহবায়ক ইমামুল আল হাসান তিতু, সদস্য সচিব বৈদ্যনাথ সরদার, পাহাড়পুর ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান কিশোর, উপজেলা বেসরকারি কলেজ শিক্ষক-কর্মচারী কল্যাণ সমিতির সভাপতি গোলাম কিবরিয়া ও সাঃ সম্পাদক নজরুল ইসলাম প্রমুখ। বক্তারা বলেন, এই পাহাড়পুর বৌদ্ধ বিহারে ৭৮১ অব্দ থেকে ৮২১ অব্দে প্রাচীন সময়ে এশিয়া মহাদেশের প্রসিদ্ধ অন্যতম বিশ্ববিদ্যালয় ছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষনা অনুযায়ী প্রতিটি জেলায় যে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হবে তা ইতিহাসের গুরুত্ব বিবেচনায় জয়পুরহাট ও নওগাঁ জেলার সীমান্তবর্তী ঐতিহাসিক পাহাড়পুর বৌদ্ধ বিহারের পাদদেশে পুন: প্রতিষ্ঠা হলে পার্শ¦বর্তী কয়েকটি জেলার মানুষ ব্যাপক শিক্ষার সুবিধা পাবে। সেই সাথে এই জনপদের মানুষ ফিরে পাবে তাদের প্রাচীন ঐতিহ্য। বক্তারা আরো বলেন, জেলার অন্য যেকোনো জায়গায় বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনে জমি অধিগ্রহন ও মাটি ভরাট (বিল্ডিং তৈরীর উপযোগী করতে) করতে যে পরিমাণ অর্থ ব্যয় হবে তার চেয়ে অনেক কম অর্থ ব্যয়ে ঐতিহাসিক পাহাড়পুড়ে বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে।

একাদশে ভর্তি শুরু, ক্লাস হবে অনলাইনে
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : একাদশে ভর্তি কার্যক্রম রবিবার (১৩ সেপ্টেম্বর) থেকে শুরু হয়েছে। চলবে ১৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। ক্লাস শুরু হবে অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে। তবে করোনা পরিস্থতির কারণে ক্লাস হবে অনলাইনে। অন্যদিকে ১ অক্টোবর বাজারে এই ক্লাসের পাঠ্যবই বিক্রির জন্য উন্মুক্ত করা হবে।

আন্তঃশিক্ষা সমন্বয়ক বোর্ড থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

আন্তঃশিক্ষা বোর্ডের সমন্বয়ক অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক গণমাধ্যমকে বলেন, ‘অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ক্লাস শুরু হবে। তবে করোনা পরিস্থিতির কারণে অনলাইনেই কেবল এই ক্লাস চলবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে গেলে স্বাভাবিক ক্লাস শুরু হবে।’

আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা চান্স পাওয়া কলেজে গিয়ে ভর্তি হবেন। ভর্তির ক্ষেত্রে অনুসরণীয় নীতিমালা ইতোমধ্যে সরকার প্রকাশ করেছে। এরপরও ৮ সেপ্টেম্বর পৃথক দুটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পৌর (উপজেলা) এলাকার এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো একাদশ শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তিতে সেশন ও ভর্তিফিসহ সাকুল্যে এক হাজার টাকা, পৌর (জেলা সদর) এলাকায় দুই হাজার টাকা এবং ঢাকা মহানগর ছাড়া অন্য মেট্রোপলিটন এলাকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো তিন হাজার টাকার বেশি আদায় করতে পারবে না।

এছাড়া ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তিতে পাঁচ হাজার টাকার বেশি অর্থ আদায় করা যাবে না। ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকার আংশিক এমপিওভুক্ত বা এমপিওবহির্ভূত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে উন্নয়ন ও এমপিওবহির্ভূত শিক্ষকদের বেতন-ভাতা দেয়ার জন্য শিক্ষার্থী ভর্তি ফি, সেশন চার্জ, উন্নয়ন ফিসহ বাংলা মাধ্যমে সর্বোচ্চ সাড়ে সাত হাজার টাকা এবং ইংরেজি ভার্সনে সর্বোচ্চ সাড়ে আট হাজার টাকা নিতে পারবে।

কোনো প্রতিষ্ঠান উন্নয়ন খাতে এবার দেড় হাজার টাকার বেশি আদায় করতে পারবে না। গত বছর এ খাতে তিন হাজার টাকা ছিল। করোনা পরিস্থিতির কারণে এই ফি কমিয়েছে বোর্ড। এছাড়া রেড ক্রিসেন্ট ফি ৪০ শতাংশ কমিয়ে ১২ টাকা করা হয়েছে। কোনো শিক্ষার্থীর পাঠ বিরতি থাকলে ও বিলম্বে ভর্তি হলে যথাক্রমে ১৫০ টাকা এবং ১০০ টাকা আদায় করা যাবে। সরকারি কলেজগুলোকে সরকারি পরিপত্র অনুযায়ী ফি সংগ্রহ করতে হবে।

এবারও তিন ধাপে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা ভর্তির আবেদন করে। প্রায় ১৪ লাখ শিক্ষার্থী ভর্তির আবেদন করেছে। এ বছর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পাস করেছে ১৬ লাখ ৯০ হাজার ৫২৩ জন।

অন্যদিকে উচ্চমাধ্যমিকে মোট পাঠ্য বইয়ের সংখ্যা ৩৯টি। এগুলোর মধ্যে- বাংলা, ইংরেজি এবং বাংলা সহপাঠ বই সরকারিভাবে প্রকাশিত হয়। এবার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ের বইটিও বেসরকারি প্রকাশকদের পাশাপাশি জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিবি) বইও বাজারে থাকছে। এই বইটি নিয়ে মামলা হয়েছিল। ফলে বেসরকারি প্রকাশকদের প্রকাশিত বাকি ৩৫টি বই বাজারে থাকছে।

প্রাথমিক বিদ্যালয় খুলতে প্রস্তুতি শুরুর নির্দেশ
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশে করোনা পরিস্থিতির মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলার প্রস্তুতি শুরুর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপসচিব শামীম আরা নাজনীন স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে জনস্বাস্থ্য ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিদ্যালয় পুনরায় চালু করতে হবে। এজন্য জনস্বাস্থ্য ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিদ্যালয় পুনরায় চালুর নির্দেশিকা প্রণয়ন করা হয়েছে। বিদ্যালয় পুনরায় চালুর আগে অনুমোদিত নির্দেশিকার আলোকে প্রস্তুতি শুরু করতে বলা হয়েছে।

শিক্ষার্থীদের সুরক্ষা নিশ্চিতে বিদ্যালয় খোলার আগে স্বাস্থ্য নিরাপত্তামূলক এমন ৫০টির বেশি নির্দেশনা জারি করবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। এসব নির্দেশনা মেনে পাঠদান কার্যক্রম পরিচালিত হবে। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিরাপদে রেখে বিদ্যালয়ে পাঠদান পরিচালনায় করণীয়বিষয়ক নির্দেশনা তৈরি করা হয়েছে। বিদ্যালয় খোলার আগে ও চলাকালীন করণীয়বিষয়ক বিভিন্ন নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এছাড়া প্রতিদিন কীভাবে ক্লাস পরিচালনা হবে সে বিষয়ে দিকনির্দেশনা নির্ধারণ করে আলাদাভাবে তিনটি ক্যাটাগরিতে ৫০টির বেশি নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। করোনাকালীন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরিচালনা ও সুরক্ষা নিশ্চিত করতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, ইউনিসেফ, সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি) এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে দেয়া স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে এসব নির্দেশনা তৈরি করা হয়েছে।

একই সঙ্গে প্রস্তুতি প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে মন্ত্রণালয়ের সব পদক্ষেপ পোস্টার, লিফলেট তৈরি করে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিতরণ করতে বলা হয়েছে। এর একটি খসড়াসহ উপস্থাপন করতে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

বিদ্যালয় খোলা না গেলে অটােপাশের ইঙ্গিত
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : আগামী নভেম্বরের মধ্যে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলা সম্ভব না হলে অটোপাসের ইঙ্গিত দিলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. আকরাম হোসেন।

আজ রবিবার সচিবালয়ে আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই ইঙ্গিত দেন।

দেশে সাক্ষরতার হার ৭৪ দশমিক ৭ শতাংশ বলে জানান প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন। এটি বৃদ্ধি করতে নানা ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

সিনিয়র সচিব বলেন, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম থেকে পঞ্চম শেণির শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা ভিত্তিক মূল্যায়ন করতে সিলেবাস সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে। অক্টোবর ও নভেম্বরকে কেন্দ্র করে সিলেবাস সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে। স্কুল খুললে তার উপর পরীক্ষা নিয়ে প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেনির শিক্ষার্থীদের ক্লাস মূল্যায়ণ করা হবে। স্কুল খোলা সম্ভব না হলে আমাদের বিকল্প কোন উপায় নিয়ে ভাবতে হবে।

সচিব বলেন, আমরা ঝোড়ে পড়া রোধ করতে নানা ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছি। বয়স্কদের মধ্যে সাক্ষরতার হার বৃদ্ধি করা হবে। করোনার মধ্যে অনেক কিন্টারগার্টেন স্কুল বন্ধ হয়ে যেতে পারে সেসব স্কুলের আশেপাশে যেসব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থাকবে সেসব স্কুলে ভর্তি করাতে আমরা নির্দেশনা দিয়েছি।

একাদশে ভর্তির দ্বিতীয় ধাপের আবেদন শুরু
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক: একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির দ্বিতীয় ধাপের আবেদন গ্রহণ শুরু হয়েছে আজ (৩১ আগস্ট) সোমবার থেকে। প্রথম ধাপে আবেদন করতে না পারা ও সিলেকশন না পাওয়া ও নিশ্চায়ন না করা শিক্ষার্থীরা এই ধাপে আবেদন করতে পারবেন বলে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটি জানিয়েছেন। দ্বিতীয় পর্যায়ে আবেদন গ্রহণ চলবে ২ সেপ্টেম্বর রাত ৮টা পর্যন্ত।


পছন্দক্রম অনুসারে প্রথম মাইগ্রেশনের ফল ও দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদনের ফল প্রকাশ হবে ৪ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায়। দ্বিতীয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের সিলেকশন নিশ্চয়ন করা হবে ৫ সেপ্টেম্বর থেকে ৬ সেপ্টেম্বর বিকেল ৫টা পর্যন্ত। শিক্ষার্থী সিলেকশন নিশ্চয়ন না করলে দ্বিতীয় পর্যায়ের সিলেকশন ও আবেদন বাতিল হবে।

তৃতীয় পর্যায়ের আবেদন গ্রহণ করা হবে ৭ ও ৮ সেপ্টেম্বর। পছন্দক্রম অনুযায়ী দ্বিতীয় মাইগ্রেশনের ফল ও তৃতীয় পর্যায়ের আবেদনের ফল প্রকাশ হবে ১০ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায়। তৃতীয় পর্যায়ে শিক্ষার্থীর সিলেকশন নিশ্চয়ন করতে হবে ১১ সেপ্টেম্বর থেকে ১২ সেপ্টেম্বর রাত ৮টা পর্যন্ত। সিলেকশন নিশ্চায়ন না করলে আবেদন বাতিল হবে।

কলেজভিত্তিক চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হবে ১৩ সেপ্টেম্বর সকাল ৮টায়। ভর্তি কার্যক্রম চলবে ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।


বোর্ডের তথ্যমতে, একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য প্রথমধাপে ১২ লাখ ৭৭ হাজার ৭২১ জন শিক্ষার্থী মনোনীত হয়েছেন। সব বোর্ড মিলে মোট আবেদন করেছিলেন ১৩ লাখ ৪২ হাজার ৬৯৩ জন। এর মধ্যে ৬৪ হাজার ৯৭২ জন ভর্তির জন্য কোনো সিট পায়নি।

এছাড়া সারা দেশে ১৪৮ কলেজে কেউ আবেদন করেননি বা কোনো শিক্ষার্থী পায়নি।

আন্তঃশিক্ষা সমন্বয়ক বোর্ডের তথ্য মতে, শিক্ষার্থীদের এসএমএসে ফল জানানো হবে। একইসঙ্গে একটি সিকিউরিটি কোড পাঠানো হবে। এ কোডটি ভর্তি নিশ্চয়নের জন্য সংগ্রহ করতে হবে। আর ভর্তির নির্ধারিত ওয়েবসাইটেও (http://www.xiclassadmission.gov.bd) ফল জানা যাবে।

এমটি/ এসএইচ

জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষাও হচ্ছে না
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : কেন্দ্রীয়ভাবে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা এ বছর অনুষ্ঠিত হবে না। বৃহস্পতিবার (২৭ আগস্ট) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সম্প্রতি এ দুটি পাবলিক পরীক্ষা না নেওয়ার বিষয়ে অনুমতি চেয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে একটি প্রস্তাবনা পাঠিয়েছিল। ওই প্রস্তাবনা প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদের পর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে এসে পৌঁছালে মন্ত্রণালয় সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানায়।

মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল খায়ের জানান, আনুষ্ঠানিক পরীক্ষা না নিয়ে বিকল্প মূল্যায়ন পদ্ধতি নিয়ে কাজ করছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এর আগে অনলাইন বৈঠকে করোনা পরিস্থিতি যদি স্বাভাবিক না হয় সেক্ষেত্রে মাধ্যমিক ও উচ্চ পর্যায়ের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরবর্তী শ্রেণিতে উত্তীর্ণের বিষয়ে বিকল্প মূল্যায়ন পদ্ধতি কী হতে পারে, সে বিষয়ে একটি প্রস্তাবনা তৈরির নির্দেশনা দেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। পরবর্তী বৈঠকে উপস্থাপনের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড ঢাকা, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর ও জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেওয়া হয় অনলাইন বৈঠকে।

এর আগে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) ও ইতবেদায়ি শিক্ষা মসাপনী পরীক্ষা কেন্দ্রীয়ভাবে না নেওয়ার সিদ্ধান্ত জানায়। বার্ষিক মূল্যায়ন করে পরবর্তী শ্রেণিতে শিক্ষার্থীদের উত্তীর্ণ করতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানদের নির্দেশনা দেওয়ার হবে বলে জানায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাড়লো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক : বৈশ্বিক করোনা মহামারির কারণে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা এম এ খায়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধ ও শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তায় এ পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি কয়েক দফা বাড়ানো হয়। গত ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। ছুটির সময় শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এমনকি ঘরে বসেই শিক্ষার্থীদের অনলাইনে পাঠদানের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

এছাড়া, এবার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষা আনুষ্ঠানিকভাবে না নেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। পরিকল্পনা অনুযায়ী শিক্ষার্থীদের পরবর্তী শ্রেণিতে উত্তীর্ণ করা হবে মূল্যায়নের ভিত্তিতে। কোভিড-১৯ ভাইরাসের কারণে সিলেবাস শেষ না হওয়া, সেশন জট সৃষ্টি না করা এবং শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে এ পরিকল্পনা নেওয়া হয়।

সততা ও কর্মনিষ্ঠার সাথে কাজ করে জীবনকে সমৃদ্ধ করতে হবে : দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান
                                  

রাজু বিশ্বাস, দিনাজপুর : মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড দিনাজপুর-এর চেয়ারম্যান প্রফেসর মো. আবু বকর সিদ্দিক বলেছেন, নিজের ওপর অর্পিত দায়িত্বকে ধারণ করতে হবে। যে যার জায়গা থেকে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে। তিনি বলেন, কর্মের মধ্যে অমরত্ব লাভ করা যায়। এজন্য সৃজনশীলতাকে বড় আকারে ধারণ করতে হবে। জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত সততা ও কর্মনিষ্ঠার সাথে কাজ করে জীবনকে সমৃদ্ধ করতে হবে। প্রত্যেকের জীবনে নৈতিকতা ও সততার চর্চা থাকতে হবে। সব কিছুর উর্ধে থেকে নিজেকে পরিবর্তন করে জীবনকে কর্মস্পৃহার মধ্যে রেখে দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের সুনামের আলোর বিকিরন সৃষ্টি করে এবং শিক্ষা বোর্ডকে আধুনিক মডেল শিক্ষা বোর্ডে রূপান্তরিত করতে হবে।
গত মঙ্গলবার (২৫ আগষ্ট) দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি আলহাজ্ব মো. মাসুদ আলম আন্তঃ শিক্ষা বোর্ড কর্মচারী ফেডারেশনের যুগ্ম মহাসচিব পদে নির্বাচিত হওয়ায় ও শিক্ষাবোর্ড কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. গোলাম রাব্বানী আন্তঃ শিক্ষা বোর্ড কর্মচারী ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক পদে নির্বাচিত হওয়ায় দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের প্রশাসনের উদ্যোগে সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড দিনাজপুর-এর চেয়ারম্যান প্রফেসর মো. আবু বকর সিদ্দিক এ কথা বলেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, বর্তমান করোনা সংকটকালেও দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডের কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ দক্ষতা ও সতর্কতার সঙ্গে কাজ করে চলেছে। এ শিক্ষা বোর্ডের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ধৈর্য্য ও বিচক্ষনতার সঙ্গে স্বাস্থ্য বিধি মেনে ও সামাজিক দুরুত্ব বজায় রেখে অক্লান্ত পরিশ্রম করে জনগণের সেবা অব্যাহত রেখেছেন। এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখে এবং লালন-পালন করে মানুষের কল্যাণে নিজেদের নিয়োজিত রাখতে হবে।
সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের সচিব প্রফেসর মো. আমিনুল হক সরকার। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি ও আন্তঃ শিক্ষা বোর্ড কর্মচারী ফেডারেশনের নব নির্বাচিত যুগ্ম মহাসচিব আলহাজ্ব মো. মাসুদ আলম এবং দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ও আন্তঃ শিক্ষা বোর্ড কর্মচারী ফেডারেশনের নব নির্বাচিত সাংগঠনিক সম্পাদক মো. গোলাম রাব্বানী। এ সময় উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড কর্মচারী ইউনিয়নের মো. নাসিম উজ্জামান, মো. হারুন-অর-রশিদ, মো. মেজবাহুল ইসলাম বকুল, মো. শাজাহান, মো. আজিজার রহমান রাজু, তানজিমুল ইসলাম জুয়েল, মো. সারওয়ার শাওন, আলিফ নুরা, জামিনা খাতুন জুঁই প্রমুখ।
এর আগে অনুষ্ঠান শুরুতেই দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি আলহাজ্ব মো. মাসুদ আলম আন্তঃ শিক্ষা বোর্ড কর্মচারী ফেডারেশনের যুগ্ম মহাসচিব পদে নির্বাচিত হওয়ায় ও শিক্ষাবোর্ড কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. গোলাম রাব্বানী আন্তঃ শিক্ষা বোর্ড কর্মচারী ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক পদে নির্বাচিত হওয়ায় দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের প্রশাসনের উদ্যোগে ফুলেল সংবর্ধনা প্রদান করেন শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মো. আবু বকর সিদ্দিক ও সচিব প্রফেসর মো. আমিনুল হক সরকার।

হচ্ছে না প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে এ বছর প্রাথমিক সমাপনী (পিইসি) ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা হচ্ছে না। প্রায় ৬`শ বিদ্যালয়ে বার্ষিক পরীক্ষা আকারে নেয়া হবে এই পরীক্ষা। থাকবে না বৃত্তি। তবে উপবৃত্তি চালু থাকবে। স্কুল খোলা গেলে নিজ নিজ বিদ্যালয়েই হবে এই পরীক্ষা। অক্টোবর ও নভেম্বরের পাঠ পরিকল্পনা অনুযায়ী হবে পরীক্ষা। স্কুল খোলা নিয়ে বৃহস্পতিবারের মধ্যে দুই মন্ত্রাণলয় বসে সিদ্ধান্তে নেবে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন।

আজ মঙ্গলবার প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পাঠানো এ সংক্রান্ত প্রস্তাবনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুমোদন দিয়েছেন।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন মঙ্গলবার দুপুরে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, ‘সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে এবার প্রাথমিক সমাপনী ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষার গ্রহণ না করার বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী সম্মতি জ্ঞাপন করেছেন। এবার স্কুলে বার্ষিক পরীক্ষা নেব।’

জানা গেছে, গত সপ্তাহে পিইসি ও ইইসি পরীক্ষা বাতিলে সারসংক্ষেপ প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে পাঠানো হয়। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে সম্মতি দিয়ে সেটি আজ মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়।

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ আছে। আগামী ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি ঘোষণা করা আছে, তবে এরপরও স্বাভাবিক ক্লাসে ফেরার পরিবেশ হবে কি না, সে নিশ্চয়তা নেই। করোনা পরিস্থিতির এখনো তেমন উন্নতি না হওয়ায় স্কুল-কলেজে আরও ছুটি বাড়ানোর চিন্তাভাবনা করছে সরকার। নতুন করে আরও ১৫ দিন ছুটি বাড়ানো হতে পারে বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে।

বিভাগীয় প্রার্থীতা পুর্নবহাল চায় সাড়ে তিন লাখ সহকারী শিক্ষক
                                  

জাতিসংঘ কর্তৃক (২০১৬–২০৩০) মেয়াদে নেওয়া হয়েছে SDG (এসডিজি) বাস্তবায়নের পরিকল্পনা। SDG (এসডিজি) বাস্তবায়নের ১৭ টি লক্ষ্যমাত্রার মধ্যে চার নাম্বার লক্ষ্যটি হচ্ছে মানসম্মত শিক্ষা। মানসম্মত শিক্ষা বাস্তবায়ন করতে হলে প্রয়োজন মানসম্মত শিক্ষক। তাই শিক্ষকতা পেশায় সর্বোচ্চ মেধাবীদের আকৃষ্ট করতে হবে। শিক্ষকতা পেশায় যদি উন্নত জীবনের ছোঁয়া থাকে তাহলে মেধাবীরা এ পেশার প্রতি আগ্রহ দেখাবে। শিক্ষকরাও উন্নত জীবনের স্বপ্ন দেখবে কেননা তারা যদি উন্নত জীবনের স্বপ্ন না দেখতে পারে তাহলে কীভাবে শিক্ষার্থীদের উন্নত জীবনের স্বপ্ন দর্শনে উদ্ধুদ্ধ করবে? অত্যন্ত দুঃখের বিষয় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের গেজেটেড কর্মকর্তা ও নন গেজেটেড কর্মচারী নিয়োগ বিধিমালা ২০১৯ নামে একটি খসড়া নীতিমালা করা হয়েছে। যেখানে সহকারী শিক্ষকদের বিভাগীয় প্রার্থীতার সুযোগ রহিত করা হয়েছে। অথচ ১৯৮৫, ১৯৯৪ ও ২০০৩ সালের বাংলাদেশ গেজেটে সকল শিক্ষকদের সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার(AUEO) পদে বিভাগীয় প্রার্থী হতে পারবেন বলে উল্লেখ করা হয়। এই গেজেটের প্রেক্ষিতে ২০১৫ সালে সর্বশেষ ১৪৪ পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি হয়। যেখানে আমাদের সহকারী শিক্ষকগণ বিভাগীয় পরীক্ষার মাধ্যমে সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার (AUEO) হওয়ার সুযোগ পান। যদি বিভাগীয় প্রার্থীতার সুযোগ রহিত করা হয় তাহলে সহকারী শিক্ষকগণ মানসিক কষ্টে সঠিকভাবে পাঠদান ব্যাহত হবে। সহকারী শিক্ষকদের বিভাগীয় প্রার্থীতার সুযোগ রাখা হলে শিক্ষকদের মধ্য পড়াশোনার একটা পরিবেশ তৈরি হবে। যার ফলে দক্ষতা ও যোগ্যতা সম্পন্ন শিক্ষক বিনির্মাণে যথেষ্ট অবদান রাখবে। অন্যান্য মন্ত্রনালয় ও অধিদপ্তরের দিকে তাকালে দেখা যায় যে, তারা বিভাগীয় প্রার্থীতার মাধ্যমে অফিসার হয়েছেন।যেমন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধিনে বিভাগীয় পরীক্ষার মাধ্যমে সতেরো তম গ্রেডের কনেস্টেবল পদে চাকরি করে দশম গ্রেডের পুলিশের এ. এস.আই হন। শুধু স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নয় সমাজসেবা অধিদপ্তর, খাদ্য অধিদপ্তর, পরিসংখ্যান অধিদপ্তরে ও এই সুযোগ রয়েছে। যদি কেউ তার যোগ্যতা ও দক্ষতার প্রমাণ দিয়ে অফিসার হতে পারে তা তো দোষের কিছু নয়। শিক্ষক সমাজ বিশ্বাস করেন বর্তমান সরকার শিক্ষাবান্ধব সরকার। বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরেই শিক্ষা ব্যবস্থার যুগান্তকারী পরিবর্তন সূচিত হবে। শিক্ষা ব্যবস্থার পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে ক্ষুধা ও দারিদ্র্য মুক্ত বাংলাদেশ বিনির্মাণ হবে বলে শিক্ষক সমাজ বিশ্বাস করে। তাছাড়া প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মাননীয় সিনিয়র সচিব মহোদয় ও মহাপরিচালক মহোদয় অত্যন্ত শিক্ষক বান্ধব। তারা শিক্ষকদের স্বপ্ন দেখান ও সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করেন।সহকারী শিক্ষকগণ বিশ্বাস করেন তাদের ন্যায্য দাবি তারা ফিরে পাবে। প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ সহকারী শিক্ষকের প্রাণের দাবি সহকারী শিক্ষকদের জন্য বিভাগীয় প্রার্থীতা পুর্নবহাল করা হোক। মুজিববর্ষে ২০১৯ খসড়া নীতিমালা পরিবর্তন করে এমন নীতিমালা হবে যেখানে প্রাথমিক শিক্ষার সাথে যারা জড়িত রয়েছে কর্মরত সবাইকে উজ্জীবিত করবে। তারা উন্নত জীবনের স্বপ্ন দেখতে পারবে। বিভাগীয় প্রার্থীতা বাস্তবায়ন হলে সহকারী শিক্ষকদের কর্মে যোগাবে নতুন উদ্দাম আর দূর হবে হতাশা।

সাইফুল ইসলাম সাইফ 
যুগ্ম আহ্বায়ক
সহকারী শিক্ষকদের বিভাগীয় প্রার্থীতা বাস্তবায়ন পরিষদ, কেন্দ্রীয় কমিটি।

২০১৯ খসড়ায় সহকারী শিক্ষকদের বিভাগীয় প্রার্থিতা প্রত্যাহার, তীব্র অসন্তোষ
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : ২০১৯ খসড়া নিয়োগ বিধিতে সহকারী শিক্ষকদের বিভাগীয় প্রার্থিতা প্রত্যাহার করায় তাদের মধ্যে তীব্র অসন্তোষ কাজ করছে। বাংলাদেশে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে ৬৩ হাজার ৬০১ টি,এতে প্রায় ৩ লক্ষ ২২ হাজার ৭৬৬ জন শিক্ষক কর্মরত আছেন। প্রায় সাড়ে ৩ লক্ষের মত সহকারি শিক্ষক রয়েছেন। যারা বিভাগীয় প্রার্থিতা নিয়ে ৪৫ বছর বয়স পর্যন্ত ATEO/AUEO, ইন্সট্রাক্টর, সহকারী ইন্সট্রাক্টর পদে পরীক্ষা দিয়ে পদোন্নতি লাভ করতে পারতেন। ১৯৯৪ সালের নন- গেজেটেড কর্মকর্তা নিয়োগ বিধিমালা এবং ২০০৩ সালের নিয়োগ বিধিমালা এই সুযোগটি ছিল। কিন্তু ২০১৯ খসড়া নিয়োগবিধি তে তা প্রত্যাহার করা হয়েছে, যা নিয়ে সহকারী শিক্ষকদের মধ্যে তীব্র অসন্তোষ কাজ করছে। খোঁজ নিয়ে জানা যায় এরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ ব্যাপারে বিভিন্ন গ্রুপ খুলে এর প্রতিবাদ জানাচ্ছেন এবং সংগঠিত হয়ে এর বিরুদ্ধে আন্দোলনে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তাদের মধ্যে একজন শিক্ষক জানিয়েছেন তারা সচিব মহোদয় এবং ডিজি মহোদয়ের নিকট বিভাগীয় প্রার্থীতা পুনর্বহালের জন্য আবেদন করেছেন। যদি এ আবেদনে সাড়া দিয়ে বিভাগীয় প্রার্থিতা পুনর্বহাল করা হয় তাহলে তারা বৃহত্তর কোন আন্দোলনের দিকে যাবেন না। তবে বিভাগীয় প্রার্থীতা পুনর্বহালের না হলে তারা বৃহত্তর আন্দোলনের দিকে যেতে প্রস্তুত রয়েছেন বলে জানিয়েছেন। অপর এক শিক্ষক বলেন "প্রধান শিক্ষকদের ৮০% বিভাগীয় প্রার্থীতা থাকলে সহকারি শিক্ষকদেরও ৮০% বিভাগীয় প্রার্থীতা থাকতে হবে। আমরা তো বিভাগের বাইরে নই।আমাদের ন্যায্য অধিকারকে কেন পদদলিত করার অপচেষ্টা করা হচ্ছে। অন্য দপ্তরে ১৩ গ্রেডের চাকরি হওয়ার পরও আমরা এই দপ্তরে সহকারী শিক্ষক হিসেবে আছি বিভাগীয় প্রার্থীতা থাকার কারণে। বিভাগীয় প্রার্থীতা না থাকার মানে হচ্ছে:- সহকারী শিক্ষকদের ধীরে ধীরে বিষন্নতার দিকে নিয়ে যাওয়া। যার কারণে সহকারী শিক্ষকরা ক্লাসে অমনোযোগী হয়ে পড়বে। শ্রেণিকক্ষের বাইরে শিক্ষার্থীদের যেকোনো সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করতো তা এখন ইচ্ছা থাকলেও হয়তো মন থেকে সেটা আসবে না। স্কুলে কম্পিউটার অপারেটর এর অনেক কাজ করতাম। সেটা আর স্বতস্ফূর্তভাবে করা হয়ে উঠবে না হয়তো। তাহলে ২০৪১ সালের মধ্যে আমরা যে উন্নত শিক্ষিত জাতি গঠনের শপথ নিয়েছি সেটা হয়তো আর বাস্তবায়ন সম্ভব হবে না। সহকারী শিক্ষকদের বঞ্চিত করার সিদ্ধান্ত শুধু প্রাথমিক শিক্ষাকে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র নয় বরং সমস্ত জাতিকে মূর্খ ও মেধাশূন্য জাতিতে পরিণত করার কাল ও ভয়াল ষড়যন্ত্র।" অপর এক শিক্ষক বলেন ` বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে, এ লক্ষ্যমাত্রা পুরনে প্রাথমিক শিক্ষার মান উন্নয়নে মেধাবী শিক্ষকদের এ সেক্টরে আসার ব্যপারে প্রলুব্ধ করতে বিভাগীয় প্রার্থীতা দিয়ে পরীক্ষার মাধ্যমে অধিদপ্তরের উচ্চপর্যায়ের যাওয়ার জন্য ব্যবস্থা রাখা উচিত যাতে করে শিক্ষকগণ তাদের অবস্থার উন্নতির ব্যাপারে সর্বদা সচেষ্ট থাকেন । অপর এক শিক্ষক দাবি করেন ` সহকারি শিক্ষক পদ কে এন্ট্রি পদ ধরে নিয়োগযোগ্য সকল পদে ৫০%বিভাগীয় পরীক্ষার মাধ্যমে ও ৫০% জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে পদোন্নতি বাস্তবায়ন করা হোক। সর্বোপরি প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে বিভাগীয় প্রার্থীতার বহাল রেখে খসড়া নীতিমালা ২০১৯ বাস্তবায়ন না করতে গুরুত্বারোপ করা হয়েছে।

ফেসবুকে ‘আল বিদা’ লিখে শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা
                                  

গণমুক্তি ডেস্ক: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন ইমাম হোসাইন নামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আই.ই.আর) এক শিক্ষার্থী। সোমবার সকালে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

ইমাম হোসাইন বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৮-১৯ সেশনের শিক্ষার্থী। থাকতেন কবি জসীমউদ্দীন হলে। তার বাড়ি বরিশালের উজিরপুর উপজেলার গাজীপার গ্রামে। তিন ভাই ও এক বোনের মধ্যে ইমাম ছিলেন সবার ছোট।

পুলিশ জানায়, আত্মহত্যা করার আগেরদিন ইমাম ফেসবুকে ‘আল বিদা’ (বিদায়) লিখে একটি পোস্ট করেন।

উজিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউল আহসান ইমামের আত্মহত্যার কথা নিশ্চিত করে জানান, ওই শিক্ষার্থী বেশ কিছুদিন ধরে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ছিলেন। তার মানসিক বিপর্যয় প্রেম সংক্রান্ত কারণে বলে জানান তিনি।

নিহত ইমামের বড়ভাই আরিফুল ইসলাম বলেন, তার ভাইয়ের আচরণ অস্বাভাবিক ছিল। লকডাউনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্কে অবনতির কারণে মানষিকভাবে ভেঙে পড়েছিল সে। তিনি জানান, সোমবার মাগরিবের নামাজের পর ইমামের দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

ইমাম হোসেনের একাধিক বন্ধুর কাছ থেকে জানা যায়, তিনি দীর্ঘদিন ধরে হতাশায় ভুগছিলেন। কি কারণে তিনি হতাশায় ছিলেন তা জানতে চাইলে তারা জানান, প্রেমঘটিত সমস্যা হতে পারে। মেয়েটি আগের মতো তার সঙ্গে সম্পর্ক রাখতো না। এই কারণে তার মাঝে হতাশা চলে এসেছিল। প্রতিদিন তার কাছে কিছু স্থানীয় শিক্ষার্থী প্রাইভেট পড়তে আসতো। সোমবার সকালে তারা এলে ইমাম হোসেন বলেন, ‘তোমাদের তো অনেক দিন ধরে কোন ছুটি দিচ্ছি না। একটু রেস্ট নেওয়া দরকার। তোমরা আগামী দুই দিন আসিও না।’ এ কথা বলার পর তারা চলে যায় এবং ইমাম বাড়ির ভিতরে চলে যান। এরপর তার মরদেহ উদ্ধার হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ড. আব্দুল মালেক বলেন, ‘বিষয়টি একজনের কাছে শুনেছি। তবে কোন আত্মীয়, শুভাকাঙ্খী আমাকে ঘটনার ব্যাপারে কোন তথ্য দেয়নি। তাই ঘটনা সম্পর্কে স্পষ্ট কিছু জানি না। খোঁজ-খবর নেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।’

কবি জসিম উদ্দীন হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আব্দুর রশিদ বলেন, ‘বিষয়টি শুনেছি। সে তার গ্রামের বাড়িতে আত্মহত্যা করেছে।’

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. গোলাম রব্বানী বলেন, ‘বিষয়টি সম্পর্কে অবগত হয়েছি। বিশ্বস্ত সূত্র থেকে তথ্য পাওয়ার চেষ্টা করছি। বিষয়টির সত্যতা যাচাইয়ের প্রক্রিয়ায় আছি। সত্যি যদি হয়ে থাকে, তাহলে এটি মর্মান্তিক এবং বেদনাদায়ক। আমাদের মেধাবী ছাত্রদের এখন বেঁচে থাকার সময়। এটি সত্যিই অনেক দুঃখজনক।’


   Page 1 of 68
     শিক্ষা
মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষা বাতিল
.............................................................................................
মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত বুধবার
.............................................................................................
এইচএসসি পরীক্ষা বাতিল
.............................................................................................
আবারো বাড়লো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি
.............................................................................................
বৌদ্ধবিহারে বিশ্ববিদ্যালয় পুন:প্রতিষ্ঠার দাবি
.............................................................................................
একাদশে ভর্তি শুরু, ক্লাস হবে অনলাইনে
.............................................................................................
প্রাথমিক বিদ্যালয় খুলতে প্রস্তুতি শুরুর নির্দেশ
.............................................................................................
বিদ্যালয় খোলা না গেলে অটােপাশের ইঙ্গিত
.............................................................................................
একাদশে ভর্তির দ্বিতীয় ধাপের আবেদন শুরু
.............................................................................................
জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষাও হচ্ছে না
.............................................................................................
সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাড়লো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি
.............................................................................................
সততা ও কর্মনিষ্ঠার সাথে কাজ করে জীবনকে সমৃদ্ধ করতে হবে : দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান
.............................................................................................
হচ্ছে না প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা
.............................................................................................
বিভাগীয় প্রার্থীতা পুর্নবহাল চায় সাড়ে তিন লাখ সহকারী শিক্ষক
.............................................................................................
২০১৯ খসড়ায় সহকারী শিক্ষকদের বিভাগীয় প্রার্থিতা প্রত্যাহার, তীব্র অসন্তোষ
.............................................................................................
ফেসবুকে ‘আল বিদা’ লিখে শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা
.............................................................................................
২৫ আগস্টের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত
.............................................................................................
বাতিল হচ্ছে পিইসি-জেএসসি পরীক্ষা
.............................................................................................
`অটো পাসেই` চলতি শিক্ষাবর্ষ শেষ!
.............................................................................................
অবশেষে একাদশ শ্রেণির ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু
.............................................................................................
শ্রুতিমধুর নয় এমন বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন করবে সরকার
.............................................................................................
প্রাথমিকের শিক্ষকেরা বেতন কমার শঙ্কায়!
.............................................................................................
ঈদের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সংবাদ `গুজব`
.............................................................................................
একাদশে ভর্তি শুরু ৯ আগস্ট
.............................................................................................
করোনাকালে স্কুল ঝিমিয়ে গেলেও পিছিয়ে নেই শিক্ষা কার্যক্রম
.............................................................................................
অনলাইন ক্লাস: সুফল শহরে, পিছিয়ে পড়ছে মফস্বলের শিক্ষার্থীরা
.............................................................................................
প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়ন সহায়তা কর্মসূচীর অর্থায়নে শিক্ষা বৃত্তি, শিক্ষা উপকরণ ও বাইসাইকেল বিতরণ
.............................................................................................
করোনাভাইরাসের এই সময়ে অনলাইন পাঠদানে সহায়ক ভূমিকা রাখছেন প্রভাষক মির্জা আরাফাত জাহান
.............................................................................................
বার্ষিক পরীক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেবে সরকার
.............................................................................................
রাবির ৬৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ
.............................................................................................
কিন্ডারগার্টেন স্কুলের শিক্ষকদের টিউশনি না থাকায় মানবেতর কাটছে দিন!
.............................................................................................
বিসিএসে ইংরেজিতে প্রথম হলেন রংপুরের মুন্নী
.............................................................................................
ডিপ্লোমা কোর্সে ভর্তিতে থাকবে না বয়সসীমা: শিক্ষামন্ত্রী
.............................................................................................
শতবর্ষে পা রাখলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
.............................................................................................
বিজ্ঞান জাদুঘরে অনলাইনে বিজ্ঞান বিষয়ক কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
এইচএসসির পরীক্ষার সংখ্যা বা সময় কমানোর ভাবনায় সরকার
.............................................................................................
৬ আগস্ট পর্যন্ত সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ
.............................................................................................
বিশ্বসেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় ১৭৯৪তম ঢাবি
.............................................................................................
কারিগরি শিক্ষায় বেকারত্বের ভয় নেই
.............................................................................................
ছুটির তৃতীয় দফায় ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানও বন্ধ
.............................................................................................
বীরগঞ্জে কোচিং ব্যবসায়ীকে জরিমানা
.............................................................................................
দিনাজপুর চিরিরবন্দরে বাই-সাইকেল বিদ্যালয়ে যাতায়াত চার শতাধিক
.............................................................................................
বাকৃবির ৪ শিক্ষার্থী বহিষ্কার
.............................................................................................
মানিকছড়ি ছাত্রলীগ নেতা সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত
.............................................................................................
শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রীর চিঠি
.............................................................................................
সোনারগাঁওয়ে সাংবাদিক কন্যা মারিয়ার ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি লাভ
.............................................................................................
নীলফামারী ছমির উদ্দিন স্কুল এন্ড কলেজে কর্ম বিরতি ও মানব বন্ধন
.............................................................................................
নাগরপুরে সূর্য আইডিয়াল স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা
.............................................................................................
নাগরপুর মহিলা কলেজের অধ্যক্ষের সংবাদ সম্মেলন
.............................................................................................
কালিয়াকৈরে শিক্ষকের ঘরে আগুন
.............................................................................................

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মো: রিপন তরফদার নিয়াম
প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক : মফিজুর রহমান রোকন
নির্বাহী সম্পাদক : শাহাদাত হোসেন শাহীন
বাণিজ্যিক কার্যালয় : "রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল কমপ্লেক্স"
(৬ষ্ঠ তলা), ২৮/১ সি, টয়েনবি সার্কুলার রোড,
মতিঝিল বা/এ ঢাকা-১০০০| জিপিও বক্স নং-৫৪৭, ঢাকা
ফোন নাম্বার : ০২-৪৭১২০৮০৫/৬, ০২-৯৫৮৭৮৫০
মোবাইল : ০১৭০৭-০৮৯৫৫৩, 01731800427
E-mail: dailyganomukti@gmail.com
Website : http://www.dailyganomukti.com
   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD