ঢাকা ০৭:৪০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪

আজও বাংলা ব্লকেড

গণমুক্তি রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : ১০:৪৯:২৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই ২০২৪ ৩৬ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে আজ বৃহস্পতিবার (১১জুলাই) বাংলা ব্লকেড কর্মসূচি পালন করবে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রত্যাশীরা। বিকাল সাড়ে ৩টা থেকে দেশব্যাপী অবরোধ কর্মসূচি শুরু হবে। দেশের গুরুত্বপূর্ণ স্থান, হাইওয়ে এবং রেলপথ ব্লকেডের আওতায় থাকবে।

শাহবাগে এ ঘোষণা দেন বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক ঢাবি শিক্ষার্থী আসিফ মাহমুদ।

তিনি বলেন, বিকাল সাড়ে ৩টা থেকে দেশের আনাচে-কানাচে বাংলা ব্লকেড অব্যাহত রাখবে। দেশের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে ব্লকেড পালিত হবে।

কর্মসূচি অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৩টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্ট্রাল লাইব্রেরির সামনে জড়ো হবেন শিক্ষার্থীরা। পরে মিছিল নিয়ে শাহবাগ, বাংলা মোটর, কাওরান বাজার, ফার্মগেট, মৎস্য ভবন, মিন্টু রোড, কাঁটাবন ও চানখাঁরপুল অবরোধ করবেন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।

গত ৭ জুলাই থেকে বাংলা ব্লকেড কর্মসূচি শুরু হয়। প্রথম দুদিন অর্ধদিবস অবরোধ চলার পর মঙ্গলবার বিরতি টেনে ফের বুধবার থেকে কর্মসূচী পালন করা হচ্ছে।

২০১৮ সালে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনের পর সরকার প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির চাকরিতে পুরো কোটাব্যবস্থা বাতিল করে। সে বছর ৪ অক্টোবর কোটা বাতিলবিষয়ক পরিপত্র জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

২০২১ সালে সেই পরিপত্রের মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিলের অংশটিকে চ্যালেঞ্জ করে কয়েকজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান রিট করেন।

গত ৫ জুন রায় ঘোষণায় মুক্তিযোদ্ধা কোটায় নবম থেকে ১৩তম গ্রেডে নিয়োগ দেওয়ার বাধা দূর হয়। রায় স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে আবেদন করে।

সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে বিচারাধীন মামলাটিতে পক্ষভুক্ত হতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সভাপতি আল সাদী ভূঁইয়া এবং উর্দু বিভাগের শিক্ষার্থী আহনাফ সাঈদ খান আবেদন করেন।

এরপর বুধবার আপিল বিভাগ সরকারি চাকরিতে কোটা বহালে হাইকোর্টের রায়ের ওপর চার সপ্তাহের স্থিতাবস্থা দেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

আজও বাংলা ব্লকেড

আপডেট সময় : ১০:৪৯:২৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই ২০২৪

 

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে আজ বৃহস্পতিবার (১১জুলাই) বাংলা ব্লকেড কর্মসূচি পালন করবে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রত্যাশীরা। বিকাল সাড়ে ৩টা থেকে দেশব্যাপী অবরোধ কর্মসূচি শুরু হবে। দেশের গুরুত্বপূর্ণ স্থান, হাইওয়ে এবং রেলপথ ব্লকেডের আওতায় থাকবে।

শাহবাগে এ ঘোষণা দেন বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক ঢাবি শিক্ষার্থী আসিফ মাহমুদ।

তিনি বলেন, বিকাল সাড়ে ৩টা থেকে দেশের আনাচে-কানাচে বাংলা ব্লকেড অব্যাহত রাখবে। দেশের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে ব্লকেড পালিত হবে।

কর্মসূচি অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৩টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্ট্রাল লাইব্রেরির সামনে জড়ো হবেন শিক্ষার্থীরা। পরে মিছিল নিয়ে শাহবাগ, বাংলা মোটর, কাওরান বাজার, ফার্মগেট, মৎস্য ভবন, মিন্টু রোড, কাঁটাবন ও চানখাঁরপুল অবরোধ করবেন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।

গত ৭ জুলাই থেকে বাংলা ব্লকেড কর্মসূচি শুরু হয়। প্রথম দুদিন অর্ধদিবস অবরোধ চলার পর মঙ্গলবার বিরতি টেনে ফের বুধবার থেকে কর্মসূচী পালন করা হচ্ছে।

২০১৮ সালে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনের পর সরকার প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির চাকরিতে পুরো কোটাব্যবস্থা বাতিল করে। সে বছর ৪ অক্টোবর কোটা বাতিলবিষয়ক পরিপত্র জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

২০২১ সালে সেই পরিপত্রের মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিলের অংশটিকে চ্যালেঞ্জ করে কয়েকজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান রিট করেন।

গত ৫ জুন রায় ঘোষণায় মুক্তিযোদ্ধা কোটায় নবম থেকে ১৩তম গ্রেডে নিয়োগ দেওয়ার বাধা দূর হয়। রায় স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে আবেদন করে।

সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে বিচারাধীন মামলাটিতে পক্ষভুক্ত হতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সভাপতি আল সাদী ভূঁইয়া এবং উর্দু বিভাগের শিক্ষার্থী আহনাফ সাঈদ খান আবেদন করেন।

এরপর বুধবার আপিল বিভাগ সরকারি চাকরিতে কোটা বহালে হাইকোর্টের রায়ের ওপর চার সপ্তাহের স্থিতাবস্থা দেন।