ঢাকা ০৪:৫৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

ইন্দোনেশিয়ায় নৌকা ডুবি, ৫০ রোহিঙ্গার প্রাণহানি

গণমুক্তি ডিজিটাল ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ১১:৪১:২৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০২৪ ১০৬ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

বুধবার (১৯ মার্চ) ইন্দোনেশিয়ার আচেহ প্রদেশের পশ্চিম উপকূলের কুয়ালা বুবন সৈকতের ১৯ কিলোমিটার অদূরে উত্তাল সমুদ্রে রোহিঙ্গা বোঝাই নৌকা ডুবির ঘটনায় কমপক্ষে ৫০জন রোহিঙ্গার মৃত্যুর আশঙ্কা করা হচ্ছে।

নৌকাটিতে ১৫০ জনের মতো যাত্রী ছিলো। জেলেরা নৌকাটিতে থেকে চার নারী ও দুই পুরুষসহ ছয়জনকে উদ্ধার করে আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়ে যায়। সেখানে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা ইউএনএইচসিআরের প্রতিনিধি ফয়সাল রহমানের সঙ্গে কথা বলেন।

ফয়সাল রহমান উদ্ধার হওয়া ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানতে পারেন রোহিঙ্গাদের অনেকেই পানিতে ডুবে মারা গেছেন।

ফয়সাল আল জাজিরাকে বলেন, হতাহতের সঠিক সংখ্যা নিশ্চিত করা যাচ্ছে না। উদ্ধার হওয়া ছয়জন তাকে জানিয়েছেন, অনেকে সাগরে ডুবে মারা গেছেন। নৌকাটি ডুবে যাওয়ায় প্রায় ৫০ জনের মৃত্যু হয়।

মৃত্যুদের অনেকেই অধিকাংশই নারী ও শিশু। স্রোতে সমুদ্রে ভেসে যায়।

হাফপ্যান্ট পরা রোগা লোকেরা জেলেদের উদ্দেশে হাত নেড়ে উদ্ধার সহায়তা চাচ্ছিলেন।

আচেহ বারাত জেলার জেলে সম্প্রদায়ের নেতা আমিরুদ্দিন বলেন, ইন্দোনেশিয়ার জাতী অনুসন্ধান ও উ দ্ধার সংস্থার একটি জাহাজ বুধবার পাঠানো হলেও কোনো রোহিঙ্গা নৌকা খুঁজে পাওয়ার কথা জানে না।

২০২৩ সালের আগস্টে বঙ্গোপসাগরে নৌকাডুবিতে ১৭ রোহিঙ্গা মারা যায়।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

ইন্দোনেশিয়ায় নৌকা ডুবি, ৫০ রোহিঙ্গার প্রাণহানি

আপডেট সময় : ১১:৪১:২৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০২৪

 

বুধবার (১৯ মার্চ) ইন্দোনেশিয়ার আচেহ প্রদেশের পশ্চিম উপকূলের কুয়ালা বুবন সৈকতের ১৯ কিলোমিটার অদূরে উত্তাল সমুদ্রে রোহিঙ্গা বোঝাই নৌকা ডুবির ঘটনায় কমপক্ষে ৫০জন রোহিঙ্গার মৃত্যুর আশঙ্কা করা হচ্ছে।

নৌকাটিতে ১৫০ জনের মতো যাত্রী ছিলো। জেলেরা নৌকাটিতে থেকে চার নারী ও দুই পুরুষসহ ছয়জনকে উদ্ধার করে আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়ে যায়। সেখানে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা ইউএনএইচসিআরের প্রতিনিধি ফয়সাল রহমানের সঙ্গে কথা বলেন।

ফয়সাল রহমান উদ্ধার হওয়া ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানতে পারেন রোহিঙ্গাদের অনেকেই পানিতে ডুবে মারা গেছেন।

ফয়সাল আল জাজিরাকে বলেন, হতাহতের সঠিক সংখ্যা নিশ্চিত করা যাচ্ছে না। উদ্ধার হওয়া ছয়জন তাকে জানিয়েছেন, অনেকে সাগরে ডুবে মারা গেছেন। নৌকাটি ডুবে যাওয়ায় প্রায় ৫০ জনের মৃত্যু হয়।

মৃত্যুদের অনেকেই অধিকাংশই নারী ও শিশু। স্রোতে সমুদ্রে ভেসে যায়।

হাফপ্যান্ট পরা রোগা লোকেরা জেলেদের উদ্দেশে হাত নেড়ে উদ্ধার সহায়তা চাচ্ছিলেন।

আচেহ বারাত জেলার জেলে সম্প্রদায়ের নেতা আমিরুদ্দিন বলেন, ইন্দোনেশিয়ার জাতী অনুসন্ধান ও উ দ্ধার সংস্থার একটি জাহাজ বুধবার পাঠানো হলেও কোনো রোহিঙ্গা নৌকা খুঁজে পাওয়ার কথা জানে না।

২০২৩ সালের আগস্টে বঙ্গোপসাগরে নৌকাডুবিতে ১৭ রোহিঙ্গা মারা যায়।