ঢাকা ১০:৫১ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ মে ২০২৪

এমবাপেকে নিয়ে কথাই বলতে চান না পিএসজি কোচ

ক্রীড়া প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০১:০৬:০৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১২০ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজের দেশীয় ক্লাব বলেই হয়তো কয়েকবার প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি) ছেড়ে যাওয়ার চেষ্টা করেও যেতে পারেননি কিলিয়ান এমবাপে। অবশেষে কঠিন সিদ্ধান্তটি নিয়েই নিলেন ফরাসী বিশ্বকাপজয়ী ফুটবলার। গত বৃহস্পতিবার ইএসপিএন জানিয়েছে, দল ছাড়ার বিষয়ে পিএসজি কর্মকর্তাদের জানিয়ে দিয়েছেন এমবাপে। চলতি মৌসুমের ক্লাবটির সঙ্গে আর চুক্তি বাড়াতে চান না তিনি। আগামী মৌসুমে নিজের স্বপ্নের ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দিতে পারেন তিনি।

এমবাপের পিএসজি ছাড়ার ঘোষণা আসার পর গতকাল শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে এই বিষয়ে পিএসজি কোচ লুইস এনরিকের কাছে জানতে চাওয়া হয়। তবে এ বিষয়ে কোনো কথা বলতেই রাজি হননি এনরিক। এনরিক বলেন, ‘আমি কোনো কিছু বলতে পারবো না। এ নিয়ে মন্তব্য করার কিছু নেই। সব কিছু শেষ হলেই তবে এ বিষয়ে কথা বলার চেষ্টা করবো। অফিসিয়ালভাবে কোনো পক্ষ থেকেই কোনো ধরনের মন্তব্য আসেনি। কিলিয়ান এমবাপেও সামনাসামনি কোনো কিছু বলেনি। যখন উভয় পক্ষ কথা বলবে, তখনই আমি এ বিষয়ে মন্তব্য করবো।’

এমবাপে তো দল ছাড়ার ঘোষণা দিয়ে ফেলেছেন। ফলে অনুশীলনে সেশনের পরিবেশে কোনো ধরনের পরিবর্তন এসেছে কিনা, জানতে চাইলে এনরিক বলেন, ‘অনুশীলনের পরিবেশ অন্য খেলার আগে যেমন ছিল, এখনও তেমনি আছে। এটা কোন খবর ছাড়াই একটি স্বাভাবিকভাবেই অনুশীলন চলছে, এতে নতুন কোনো কিছুই নেই।’

এমবাপে পিএসজি ছেড়ে চলে গেলে দলের উপর প্রভাব পড়বে কিনা জানতে চাইলে এনরিক বলেন, ‘আমি মোটেও চিন্তিত নই। ক্লাব নিয়ে সবসময়ই গুজব ছড়ানো হয়। তা কীভাবে পরিচালনা করতে হয় সে্টি আপনাকে জানতে হবে। সর্বদাই সমালোচনাও থাকবে আবার প্রশংসাও থাকবে। আপনি যদি এটি পছন্দ না করেন তবে আপনি এই জাতীয় ক্লাবে থাকতে পারবেন না। লা লিগার ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদই যে হতে যাচ্ছে এমবাপের পরের ঠিকানা, সেটি একপ্রকার নিশ্চিতই। ইউরোপের বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমে এ বিষয়ে প্রতিবেদন এসেছে। এখন শুধু আনুষ্ঠানিক ঘোষণা বাকি।

২০১৭ সালে মোনাকো থেকে প্যারিসের ক্লাবটিতে নাম লেখান এমবাপে। ২০২২ সালে এমবাপের রিয়াল মাদ্রিদে যাওয়া বলতে গেলে চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছিল। শেষ মুহূর্তে তিনি পিএসজির সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করেন। চুক্তি অনুযায়ী ২০২৪ সাল পর্যন্ত তার প্যারিসে থাকার কথা।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

এমবাপেকে নিয়ে কথাই বলতে চান না পিএসজি কোচ

আপডেট সময় : ০১:০৬:০৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

নিজের দেশীয় ক্লাব বলেই হয়তো কয়েকবার প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি) ছেড়ে যাওয়ার চেষ্টা করেও যেতে পারেননি কিলিয়ান এমবাপে। অবশেষে কঠিন সিদ্ধান্তটি নিয়েই নিলেন ফরাসী বিশ্বকাপজয়ী ফুটবলার। গত বৃহস্পতিবার ইএসপিএন জানিয়েছে, দল ছাড়ার বিষয়ে পিএসজি কর্মকর্তাদের জানিয়ে দিয়েছেন এমবাপে। চলতি মৌসুমের ক্লাবটির সঙ্গে আর চুক্তি বাড়াতে চান না তিনি। আগামী মৌসুমে নিজের স্বপ্নের ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দিতে পারেন তিনি।

এমবাপের পিএসজি ছাড়ার ঘোষণা আসার পর গতকাল শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে এই বিষয়ে পিএসজি কোচ লুইস এনরিকের কাছে জানতে চাওয়া হয়। তবে এ বিষয়ে কোনো কথা বলতেই রাজি হননি এনরিক। এনরিক বলেন, ‘আমি কোনো কিছু বলতে পারবো না। এ নিয়ে মন্তব্য করার কিছু নেই। সব কিছু শেষ হলেই তবে এ বিষয়ে কথা বলার চেষ্টা করবো। অফিসিয়ালভাবে কোনো পক্ষ থেকেই কোনো ধরনের মন্তব্য আসেনি। কিলিয়ান এমবাপেও সামনাসামনি কোনো কিছু বলেনি। যখন উভয় পক্ষ কথা বলবে, তখনই আমি এ বিষয়ে মন্তব্য করবো।’

এমবাপে তো দল ছাড়ার ঘোষণা দিয়ে ফেলেছেন। ফলে অনুশীলনে সেশনের পরিবেশে কোনো ধরনের পরিবর্তন এসেছে কিনা, জানতে চাইলে এনরিক বলেন, ‘অনুশীলনের পরিবেশ অন্য খেলার আগে যেমন ছিল, এখনও তেমনি আছে। এটা কোন খবর ছাড়াই একটি স্বাভাবিকভাবেই অনুশীলন চলছে, এতে নতুন কোনো কিছুই নেই।’

এমবাপে পিএসজি ছেড়ে চলে গেলে দলের উপর প্রভাব পড়বে কিনা জানতে চাইলে এনরিক বলেন, ‘আমি মোটেও চিন্তিত নই। ক্লাব নিয়ে সবসময়ই গুজব ছড়ানো হয়। তা কীভাবে পরিচালনা করতে হয় সে্টি আপনাকে জানতে হবে। সর্বদাই সমালোচনাও থাকবে আবার প্রশংসাও থাকবে। আপনি যদি এটি পছন্দ না করেন তবে আপনি এই জাতীয় ক্লাবে থাকতে পারবেন না। লা লিগার ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদই যে হতে যাচ্ছে এমবাপের পরের ঠিকানা, সেটি একপ্রকার নিশ্চিতই। ইউরোপের বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমে এ বিষয়ে প্রতিবেদন এসেছে। এখন শুধু আনুষ্ঠানিক ঘোষণা বাকি।

২০১৭ সালে মোনাকো থেকে প্যারিসের ক্লাবটিতে নাম লেখান এমবাপে। ২০২২ সালে এমবাপের রিয়াল মাদ্রিদে যাওয়া বলতে গেলে চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছিল। শেষ মুহূর্তে তিনি পিএসজির সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করেন। চুক্তি অনুযায়ী ২০২৪ সাল পর্যন্ত তার প্যারিসে থাকার কথা।