ঢাকা ০৯:৪১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::

কলকাতায় জলাশয় থেকে বাংলাদেশি যুবকের মরদেহ উদ্ধার

গণমুক্তি ডিজিটাল ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ১১:২৯:০৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই ২০২৪ ৪০ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

কলকাতার সায়েন্স সিটি সংলগ্ন একটি জলাশয় থেকে বাংলাদেশি এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (১০ জুলাই) দুপুরে সায়েন্স সিটির উল্টোদিকের ফুটপাতে প্রগতি ময়দান থানার ঠিক পেছনের জলাশয় থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

জলাশয়ে পড়েছিল যুবকটির মরদেহ। প্রগতি ময়দান থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধারের পর নিহত যুবককে বংলাদেশি হিসেবে শনাক্ত করেছে। যুবকের মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধান করছে কলকাতা পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, নিহত যুবকের নাম দাউদ হোসেন উপল (২৩)। তিনি ঢাকার মোহাম্মদপুরের বাসিন্দা। কিছুদিন আগে কলকাতায় এসেছিলেন। উঠেছিলেন নিউমার্কেট থানা এলাকার একটি হোটেলে।

নিউমার্কেট থেকে কী কারণে সায়েন্স সিটির দিকে গিয়েছিলেন যুবক, তা এখনও পুলিশের কাছে স্পষ্ট নয়। কেন ঢাকা থেকে কলকাতায় এসেছিলেন, তাও এখনও জানতে পারেনি পুলিশ।

প্রাথমিকভাবে পুলিশের ধারণা, যুবকটি জলাশয়ে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। তাকে জলাশয়ে ঝাঁপ দিতে দেখেছেন স্থানীয়রা। পুলিশ জানায়, বুধবার সকাল ৯টার দিকে আচমকা জলাশয়ে ঝাঁপ দেন এই যুবক। স্থানীয়রা সেই দৃশ্য দেখতে পান এবং পুলিশকে জানান।

যেখান থেকে যুবকটির মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে, তা থানার ঠিক পেছনে এবং সেটা একটি ছোট্ট জলাশয়। সেখানে ঝাপ দিয়ে আত্মহত্যা করা সম্ভব নয় বলেও জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

স্থানীয়দের সাহায্যে পুলিশ জলাশয় থেকে যুবককে উদ্ধার করে এবং নীল রতন সরকার (এনআরএস) হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকেরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পানিতে ডুবেই যুবকের মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

যুবকের দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। তার কাছ থেকে পাওয়া নথি থেকেই পুলিশ জানতে পেরেছে যুবকের পরিচয়। বাংলাদেশে তার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হচ্ছে। এ ঘটনায় আপাতত অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কলকাতা পুলিশের কোনো ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বিষয়টি নিশ্চিত করেননি। অন্যদিকে কলকাতাস্থ বাংলাদেশ ডেপুটি হাইকমিশন জানিয়েছে, তাদের সঙ্গে এখন পর্যন্ত থানা অথবা হাসপাতাল যোগাযোগ করেনি।

সম্প্রতি কলকাতায় এসে খুন হয়েছেন বাংলাদেশের ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার। সেই ঘটনার ফাইল এখনো বন্ধ করতে পারেনি কলকাতা পুলিশ। এরই মধ্যে জলাশয় থেকে আরও এক বাংলাদেশির যুবকের মরদেহ উদ্ধার হওয়ায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে কলকাতা শহরে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

কলকাতায় জলাশয় থেকে বাংলাদেশি যুবকের মরদেহ উদ্ধার

আপডেট সময় : ১১:২৯:০৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই ২০২৪

 

কলকাতার সায়েন্স সিটি সংলগ্ন একটি জলাশয় থেকে বাংলাদেশি এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (১০ জুলাই) দুপুরে সায়েন্স সিটির উল্টোদিকের ফুটপাতে প্রগতি ময়দান থানার ঠিক পেছনের জলাশয় থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

জলাশয়ে পড়েছিল যুবকটির মরদেহ। প্রগতি ময়দান থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধারের পর নিহত যুবককে বংলাদেশি হিসেবে শনাক্ত করেছে। যুবকের মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধান করছে কলকাতা পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, নিহত যুবকের নাম দাউদ হোসেন উপল (২৩)। তিনি ঢাকার মোহাম্মদপুরের বাসিন্দা। কিছুদিন আগে কলকাতায় এসেছিলেন। উঠেছিলেন নিউমার্কেট থানা এলাকার একটি হোটেলে।

নিউমার্কেট থেকে কী কারণে সায়েন্স সিটির দিকে গিয়েছিলেন যুবক, তা এখনও পুলিশের কাছে স্পষ্ট নয়। কেন ঢাকা থেকে কলকাতায় এসেছিলেন, তাও এখনও জানতে পারেনি পুলিশ।

প্রাথমিকভাবে পুলিশের ধারণা, যুবকটি জলাশয়ে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। তাকে জলাশয়ে ঝাঁপ দিতে দেখেছেন স্থানীয়রা। পুলিশ জানায়, বুধবার সকাল ৯টার দিকে আচমকা জলাশয়ে ঝাঁপ দেন এই যুবক। স্থানীয়রা সেই দৃশ্য দেখতে পান এবং পুলিশকে জানান।

যেখান থেকে যুবকটির মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে, তা থানার ঠিক পেছনে এবং সেটা একটি ছোট্ট জলাশয়। সেখানে ঝাপ দিয়ে আত্মহত্যা করা সম্ভব নয় বলেও জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

স্থানীয়দের সাহায্যে পুলিশ জলাশয় থেকে যুবককে উদ্ধার করে এবং নীল রতন সরকার (এনআরএস) হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকেরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পানিতে ডুবেই যুবকের মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

যুবকের দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। তার কাছ থেকে পাওয়া নথি থেকেই পুলিশ জানতে পেরেছে যুবকের পরিচয়। বাংলাদেশে তার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হচ্ছে। এ ঘটনায় আপাতত অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কলকাতা পুলিশের কোনো ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বিষয়টি নিশ্চিত করেননি। অন্যদিকে কলকাতাস্থ বাংলাদেশ ডেপুটি হাইকমিশন জানিয়েছে, তাদের সঙ্গে এখন পর্যন্ত থানা অথবা হাসপাতাল যোগাযোগ করেনি।

সম্প্রতি কলকাতায় এসে খুন হয়েছেন বাংলাদেশের ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার। সেই ঘটনার ফাইল এখনো বন্ধ করতে পারেনি কলকাতা পুলিশ। এরই মধ্যে জলাশয় থেকে আরও এক বাংলাদেশির যুবকের মরদেহ উদ্ধার হওয়ায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে কলকাতা শহরে।