ঢাকা ০৫:১০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

ট্রেনের টিকিট কালোবাজারি, নারী বুকিং সহকারী আটক

গণমুক্তি ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৮:১১:৪১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১৩৬ বার পড়া হয়েছে

ট্রেনের টিকিট কালোবাজারির অভিযোগে নারী বুকিং সহকারী আটকবুকিং সহকারী সাথী আক্তার : ছবি সংগ্রহ

দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

ঢাকার বিমানবন্দর রেলস্টেশন এলাকায় ট্রেনের টিকিট কালোবাজারির অভিযোগে রেলওয়ের বুকিং সহকারী সাথী আক্তার কে আটক করেছে ঢাকা রেলওয়ে থানা পুলিশ।

বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা রেলওয়ে জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) আনোয়ার হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঢাকা রেলওয়ে পুলিশ বিমানবন্দর এলাকা থেকে টিকিট কালোবাজারির অভিযোগে ক্যান্টনমেন্ট রেলস্টেশনের বুকিং সহকারী সাথী আক্তারকে (৩৩) আটক করে।

সাথী প্রতিদিন স্টেশনে ডিউটিতে আসা মাত্রই নিজের বুকিং আইডি দিয়ে বিভিন্ন তারিখের, বিভিন্ন গন্তব্যের ট্রেনের টিকেট কেটে নিজের কাছে রেখে দিতেন। এরপর ডিউটি শেষে কেটে রাখা টিকেটগুলো কৌশলে লুকিয়ে স্টেশন ছাড়তেন। পরবর্তীকালে টিকেটগুলো তার চক্রের কালোবাজারিদের কাছে সুবিধাজনক স্থানে গিয়ে হস্তান্তর করে বিনিময়ে লভ্যাংশের টাকা বুঝে নিতেন।

তিনি আরও জানান, দালালদের সরবরাহকৃত অজ্ঞাত নাগরিকদের জাতীয় পরিচয়পত্র ও মোবাইল নম্বর এবং নিজের বুকিং আইডি ব্যবহার করতেন। গোপনীয়তা রক্ষায় তারা হোয়াটসঅ্যাপে কথা বলতেন এবং গভীর রাতে বিমানবন্দর এলাকায় টিকিট ও অর্থের লেনদেন করতেন বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

ট্রেনের টিকিট কালোবাজারি, নারী বুকিং সহকারী আটক

আপডেট সময় : ০৮:১১:৪১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

 

ঢাকার বিমানবন্দর রেলস্টেশন এলাকায় ট্রেনের টিকিট কালোবাজারির অভিযোগে রেলওয়ের বুকিং সহকারী সাথী আক্তার কে আটক করেছে ঢাকা রেলওয়ে থানা পুলিশ।

বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা রেলওয়ে জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) আনোয়ার হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঢাকা রেলওয়ে পুলিশ বিমানবন্দর এলাকা থেকে টিকিট কালোবাজারির অভিযোগে ক্যান্টনমেন্ট রেলস্টেশনের বুকিং সহকারী সাথী আক্তারকে (৩৩) আটক করে।

সাথী প্রতিদিন স্টেশনে ডিউটিতে আসা মাত্রই নিজের বুকিং আইডি দিয়ে বিভিন্ন তারিখের, বিভিন্ন গন্তব্যের ট্রেনের টিকেট কেটে নিজের কাছে রেখে দিতেন। এরপর ডিউটি শেষে কেটে রাখা টিকেটগুলো কৌশলে লুকিয়ে স্টেশন ছাড়তেন। পরবর্তীকালে টিকেটগুলো তার চক্রের কালোবাজারিদের কাছে সুবিধাজনক স্থানে গিয়ে হস্তান্তর করে বিনিময়ে লভ্যাংশের টাকা বুঝে নিতেন।

তিনি আরও জানান, দালালদের সরবরাহকৃত অজ্ঞাত নাগরিকদের জাতীয় পরিচয়পত্র ও মোবাইল নম্বর এবং নিজের বুকিং আইডি ব্যবহার করতেন। গোপনীয়তা রক্ষায় তারা হোয়াটসঅ্যাপে কথা বলতেন এবং গভীর রাতে বিমানবন্দর এলাকায় টিকিট ও অর্থের লেনদেন করতেন বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়।