ঢাকা ১২:০৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

নাটোরে গোয়াল ঘরে আগুন, ২টি গরু পুড়ে গেছে

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:০৮:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ৪৫ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নাটোর জেলার নলডাঙ্গা উপজেলায় দুইটি গরু নিজের সন্তানের মত লালন-পালন করেছেন ভ্যানচালক জাবেদ আলী। আগামী কোরবানির ঈদের আগে গবাদি পশু দুটো বিক্রি করবেন বলে এখন থেকেই সেবাযত্ন বেশি করতেন তিনি। পেশায় ভ্যানচালক জাবেদ আলী ভ্যান চালানোর সময় বাদ দিয়ে বাকি সময় গরু দুটির যত্ন-পরিচর্যায় ব্যয় করতেন। স্বপ্ন ছিল সামনের কোরবানির ঈদে মোটা অংকের টাকায় দুটি গরু বিক্রি করবেন তিনি। কিন্তু জাবেদ আলীর স্বপ্ন আর পূরণ হলো না।রাতে গোয়াল ঘরে লাগা আগুনে পুড়ে দুইটি গরুই ভস্মীভূত হয়ে গেছে। সন্তানের মত লালন-পালন করা গরু দুটি হারিয়ে এখন পাগল প্রায় কৃষক জাবেদ আলী। শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) রাতে নলডাঙ্গা উপজেলার জামতৈল গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

জামতৈল গ্রামের বাসিন্দারা জানান, গতকাল রাতে হঠাৎ করেই জাবেদ আলীর গরুর ঘরে আগুন জ্বলে ওঠে। মুহূর্তে তা সারা ঘর ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় বাড়িতে কেউ না থাকায় প্রতিবেশিরা এগিয়ে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। ফায়ার সার্ভিস পৌঁছানোর আগেই স্থানীয়রা ঘণ্টাব্যাপী চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে এরই মধ্যেই গোয়াল ঘরে থাকা দুটি ষাঁড় পুড়ে মারা যায়। এছাড়া অন্যান্য সামগ্রীও পুড়ে যায়। জানা যায়, বাড়ির লোকজন ঘরে তালা দিয়ে আত্মীয়দের বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিল।ফায়ার সার্ভিস সদস্যদের ধারণা, রান্নাঘরের আগুন থেকে সূত্রপাত হয়েছে।

ভ্যানচালক জাবেদ আলী বলেন, আমরা এক আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিলাম। বাড়িতে থাকলে সহজেই আগুন নিভিয়ে ফেলতে পারতাম। সর্বনাশা আগুন আমার সব কাইড়া নিল, কোরবানির ঈদে গরু দুইটা বিক্রি করতাম। এখন আমার কি হইবোএ বিষয়ে নলডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেওয়ান আকরামুল হক শনিবার সকালে বলেন, বিষয়টি আমি অবগত হয়েছি, কিছুক্ষণ পরে জামতৈল গ্রামের ওই ভ্যানচালকের বাড়িটি পরিদর্শনে যাব। উপজেলা প্রশাসন থেকে ওই ভ্যানচালককে সহযোগিতা করবেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

নাটোরে গোয়াল ঘরে আগুন, ২টি গরু পুড়ে গেছে

আপডেট সময় : ০৪:০৮:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

নাটোর জেলার নলডাঙ্গা উপজেলায় দুইটি গরু নিজের সন্তানের মত লালন-পালন করেছেন ভ্যানচালক জাবেদ আলী। আগামী কোরবানির ঈদের আগে গবাদি পশু দুটো বিক্রি করবেন বলে এখন থেকেই সেবাযত্ন বেশি করতেন তিনি। পেশায় ভ্যানচালক জাবেদ আলী ভ্যান চালানোর সময় বাদ দিয়ে বাকি সময় গরু দুটির যত্ন-পরিচর্যায় ব্যয় করতেন। স্বপ্ন ছিল সামনের কোরবানির ঈদে মোটা অংকের টাকায় দুটি গরু বিক্রি করবেন তিনি। কিন্তু জাবেদ আলীর স্বপ্ন আর পূরণ হলো না।রাতে গোয়াল ঘরে লাগা আগুনে পুড়ে দুইটি গরুই ভস্মীভূত হয়ে গেছে। সন্তানের মত লালন-পালন করা গরু দুটি হারিয়ে এখন পাগল প্রায় কৃষক জাবেদ আলী। শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) রাতে নলডাঙ্গা উপজেলার জামতৈল গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

জামতৈল গ্রামের বাসিন্দারা জানান, গতকাল রাতে হঠাৎ করেই জাবেদ আলীর গরুর ঘরে আগুন জ্বলে ওঠে। মুহূর্তে তা সারা ঘর ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় বাড়িতে কেউ না থাকায় প্রতিবেশিরা এগিয়ে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। ফায়ার সার্ভিস পৌঁছানোর আগেই স্থানীয়রা ঘণ্টাব্যাপী চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে এরই মধ্যেই গোয়াল ঘরে থাকা দুটি ষাঁড় পুড়ে মারা যায়। এছাড়া অন্যান্য সামগ্রীও পুড়ে যায়। জানা যায়, বাড়ির লোকজন ঘরে তালা দিয়ে আত্মীয়দের বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিল।ফায়ার সার্ভিস সদস্যদের ধারণা, রান্নাঘরের আগুন থেকে সূত্রপাত হয়েছে।

ভ্যানচালক জাবেদ আলী বলেন, আমরা এক আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিলাম। বাড়িতে থাকলে সহজেই আগুন নিভিয়ে ফেলতে পারতাম। সর্বনাশা আগুন আমার সব কাইড়া নিল, কোরবানির ঈদে গরু দুইটা বিক্রি করতাম। এখন আমার কি হইবোএ বিষয়ে নলডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেওয়ান আকরামুল হক শনিবার সকালে বলেন, বিষয়টি আমি অবগত হয়েছি, কিছুক্ষণ পরে জামতৈল গ্রামের ওই ভ্যানচালকের বাড়িটি পরিদর্শনে যাব। উপজেলা প্রশাসন থেকে ওই ভ্যানচালককে সহযোগিতা করবেন।