ঢাকা ১১:২৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ মে ২০২৪

নাটোরে ভেজাল স্বর্ণের পাত দেখিয়ে প্রতারণা গ্রেফতার ২

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৫:৩৬:৪১ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ এপ্রিল ২০২৪ ১১৭ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

নাটোরের সিংড়ায় ভেজাল স্বর্ণের পাত দেখিয়ে প্রতারণা দায়ে ২ প্রতারককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মোছা সাহারা বেগম (৫৭) ও আজিরন বেগম (৩২) ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে কেনাকাটা করার জন্য সিংড়া বাজারে যাবার সময় জামতলী বাসষ্ট্যান্ডে সিএনজি চালিত অটো ওঠেন। এসময় যাত্রী হয়ে অপরিচিত আরও ৩ ব্যক্তি ছিলেন।

যাত্রীবেশে থাকা মো. রফিকুল ইসলাম (৫৭) রঙিন কাগজে মোড়ানে ভেজাল স্বর্ণের পাত বলেন, এটি তার ছেলে বিদেশ থেকে পাঠিয়েছে। কথায় কথায় প্রতারক রফিকুল দুই নারীকে আরও বলেন, এই স্বর্ণের পাত দিয়ে বেশ কয়েকটি ঝুমকা ও দুল তৈরি করা সম্ভব।

তার কথায় বিশ্বাস স্থাপন করে সাহারা বেগম তার দুই কানে থাকা স্বর্ণের ৪ আনা ২ রতি ওজনের দুইটি পাশা, যার মূল্য অনুমান ৩০,০০০/-(ত্রিশ হাজার) টাকা খুলে প্রতারক রফিকুলকে দিয়ে দেন এবং তাদের সঙ্গে থাকা ৬০০ টাকাও দেন।

প্রতারকরা দুই নারীকে চয়নমোড় নামক স্থানে নামিয়ে দিয়ে দ্রুত সিএনজি অটো যোগে পালিয়ে যেতে থাকে। এসময় সাহারা বেগমের সন্দেহ হলে, সে এবং আজিরন আরেকটি সিএনজি যোগে পিছু ধাওয়া করে এবং চিৎকার করতে থাকে।

এসময় তাজপুর বাজারে টহলরত পুলিশ স্থানীয় বাসিন্দাদের সহায়তায় সিএনজি অটোর পথরোধ করে এবং প্রতারক রফিকুলকে আটক করে। পুলিশ তার কাছ থেকে পাতলা লাল কাগজে মোড়ানো একটি লোহার পাত যার ওপরে স্বর্ণের রং করা বার উদ্ধার করে।

সিএনজিতে থাকা অপর দুই প্রতারক সেরাজুল ও মানিক কৌশলে পালিয়ে গেলেও পরবর্তীতে সেরাজুলকে গ্রেফতার করা হয়। এ ব্যাপারে সিংড়া থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। পালিয়ে যাওয়া প্রতারককে গ্রেফতারে চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশি।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

নাটোরে ভেজাল স্বর্ণের পাত দেখিয়ে প্রতারণা গ্রেফতার ২

আপডেট সময় : ০৫:৩৬:৪১ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ এপ্রিল ২০২৪

 

নাটোরের সিংড়ায় ভেজাল স্বর্ণের পাত দেখিয়ে প্রতারণা দায়ে ২ প্রতারককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মোছা সাহারা বেগম (৫৭) ও আজিরন বেগম (৩২) ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে কেনাকাটা করার জন্য সিংড়া বাজারে যাবার সময় জামতলী বাসষ্ট্যান্ডে সিএনজি চালিত অটো ওঠেন। এসময় যাত্রী হয়ে অপরিচিত আরও ৩ ব্যক্তি ছিলেন।

যাত্রীবেশে থাকা মো. রফিকুল ইসলাম (৫৭) রঙিন কাগজে মোড়ানে ভেজাল স্বর্ণের পাত বলেন, এটি তার ছেলে বিদেশ থেকে পাঠিয়েছে। কথায় কথায় প্রতারক রফিকুল দুই নারীকে আরও বলেন, এই স্বর্ণের পাত দিয়ে বেশ কয়েকটি ঝুমকা ও দুল তৈরি করা সম্ভব।

তার কথায় বিশ্বাস স্থাপন করে সাহারা বেগম তার দুই কানে থাকা স্বর্ণের ৪ আনা ২ রতি ওজনের দুইটি পাশা, যার মূল্য অনুমান ৩০,০০০/-(ত্রিশ হাজার) টাকা খুলে প্রতারক রফিকুলকে দিয়ে দেন এবং তাদের সঙ্গে থাকা ৬০০ টাকাও দেন।

প্রতারকরা দুই নারীকে চয়নমোড় নামক স্থানে নামিয়ে দিয়ে দ্রুত সিএনজি অটো যোগে পালিয়ে যেতে থাকে। এসময় সাহারা বেগমের সন্দেহ হলে, সে এবং আজিরন আরেকটি সিএনজি যোগে পিছু ধাওয়া করে এবং চিৎকার করতে থাকে।

এসময় তাজপুর বাজারে টহলরত পুলিশ স্থানীয় বাসিন্দাদের সহায়তায় সিএনজি অটোর পথরোধ করে এবং প্রতারক রফিকুলকে আটক করে। পুলিশ তার কাছ থেকে পাতলা লাল কাগজে মোড়ানো একটি লোহার পাত যার ওপরে স্বর্ণের রং করা বার উদ্ধার করে।

সিএনজিতে থাকা অপর দুই প্রতারক সেরাজুল ও মানিক কৌশলে পালিয়ে গেলেও পরবর্তীতে সেরাজুলকে গ্রেফতার করা হয়। এ ব্যাপারে সিংড়া থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। পালিয়ে যাওয়া প্রতারককে গ্রেফতারে চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশি।