ঢাকা ০৪:০৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪

নাটোর বড়াইগ্রামে যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার
  • আপডেট সময় : ০৫:২৩:৩৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ মার্চ ২০২৪ ২১৮ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

ডেকোরেটরে চুরির অভিযোগে শামীম নামের (২১) এক যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। অপর যুবক সোহা হোসেন আহত অবস্থায় চিকিৎসাধীন।

জানা গেছে, মঙ্গলবার উপজেলা প্রিওভাগ গ্রামের শামীম শিকদার ও বোনী গ্রামের সোহান হোসেন (১৮) কে চুরি অভিযোগে বাড়ি থেকে তুলে আনা হয়। এরপর তাদের ডেকোরেটরের ভেতরে আটকে রেখে বেদম প্রহারের পর গুরুতর জখম হয়।

আহত দইি যুবককে প্রাথমিক ভাবে বড়াইগ্রাম স্বাস্থ্য কএপ্লক্সে নেওয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবণতি হলে রাজশাহী মেডিকেলে নিয়ে ভতি করা হয়। চিকিৎসাধী অবস্থায় রাতে শামীম মারা যায়।

এ ঘটনায় জোনাইল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ সংবাদমাধ্যমকে জানান, প্রায় মাসখানেক আগে স্থানীয় জোনাইল বাজারের মা ডেকোরেটর থেকে কিছু মালামাল চুরি হয়। চুরির সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে মঙ্গলবার দুপুরে শামীম ও সোহানকে ডেকোরেটরে আটকে মারধর করা হয়।

এ ঘটনায় ডেকোরেটর ব্যবসায়ী মুক্তার হোসেন (৫০) ও তার ছেলে সুমন আলী (২৬) কে গ্রেফতার করেছে বড়াইগ্রাম থানা পুলিশ। বুধবার দুপুরে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আদালতের মাধ্যমে নাটোর জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

নিহত শামীম শিকদারের স্ত্রী রেশমা বেগম বলেন, আমার স্বামীকে তারা নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করেছে। আমি খুনিদের ফাঁসি চাই।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

নাটোর বড়াইগ্রামে যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

আপডেট সময় : ০৫:২৩:৩৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ মার্চ ২০২৪

 

ডেকোরেটরে চুরির অভিযোগে শামীম নামের (২১) এক যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। অপর যুবক সোহা হোসেন আহত অবস্থায় চিকিৎসাধীন।

জানা গেছে, মঙ্গলবার উপজেলা প্রিওভাগ গ্রামের শামীম শিকদার ও বোনী গ্রামের সোহান হোসেন (১৮) কে চুরি অভিযোগে বাড়ি থেকে তুলে আনা হয়। এরপর তাদের ডেকোরেটরের ভেতরে আটকে রেখে বেদম প্রহারের পর গুরুতর জখম হয়।

আহত দইি যুবককে প্রাথমিক ভাবে বড়াইগ্রাম স্বাস্থ্য কএপ্লক্সে নেওয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবণতি হলে রাজশাহী মেডিকেলে নিয়ে ভতি করা হয়। চিকিৎসাধী অবস্থায় রাতে শামীম মারা যায়।

এ ঘটনায় জোনাইল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ সংবাদমাধ্যমকে জানান, প্রায় মাসখানেক আগে স্থানীয় জোনাইল বাজারের মা ডেকোরেটর থেকে কিছু মালামাল চুরি হয়। চুরির সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে মঙ্গলবার দুপুরে শামীম ও সোহানকে ডেকোরেটরে আটকে মারধর করা হয়।

এ ঘটনায় ডেকোরেটর ব্যবসায়ী মুক্তার হোসেন (৫০) ও তার ছেলে সুমন আলী (২৬) কে গ্রেফতার করেছে বড়াইগ্রাম থানা পুলিশ। বুধবার দুপুরে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আদালতের মাধ্যমে নাটোর জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

নিহত শামীম শিকদারের স্ত্রী রেশমা বেগম বলেন, আমার স্বামীকে তারা নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করেছে। আমি খুনিদের ফাঁসি চাই।