ঢাকা ০৪:৩১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

পার্শ্ববর্তী দেশ থেকে বান্দরবানে সন্ত্রাসীদের অস্ত্র এসেছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:৩০:৫০ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ এপ্রিল ২০২৪ ১২৪ বার পড়া হয়েছে

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ

দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

পাশের দেশের সন্ত্রাসীদের অস্ত্র পেয়েছে সশস্ত্র সংগঠন কেএনএফ

পাহাড়ের সশস্ত্র গোষ্ঠীকে নির্মূলে সরকার বদ্ধপরিকর। অরণ্যে সশস্ত্র সংগঠন কুকি-চিন ন্যাশনাল ফ্রন্টের (কেএনএফ) সঙ্গে আশপাশের দেশের সন্ত্রাসীদের সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে বলে মন্তব্য করেন বাংলাদেশে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

শনিবার (৬ এপ্রিল) চট্টগ্রামে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এ কথা বলেন। গত কয়েক দিনে বান্দরবানে রুমা ও থানচিতে তিনটি ব্যাংকে ডাকাতি, অর্থ ও অস্ত্র লুট, অপহরণ এবং গোলাগুলির ঘটনায় পাহাড়ে বম পার্টি নামে পরিচিত কেএনএফকে দায়ী করা হচ্ছে।

এই সশস্ত্র সংগঠন বিদেশি সহযোগিতা নিয়ে এসব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে বলে যে অভিযোগ উঠেছে জানতে চাইলে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, তাদের বিরুদ্ধে সাঁড়াশি অভিযান শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে অপহৃত ব্যাংক ম্যানেজারকে মুক্ত করা হয়েছে।

সংগঠনের সঙ্গে আশপাশের দেশের সন্ত্রাসীদের যোগাযোগ রয়েছে মন্তব্য করে মন্ত্রী বলেন, পার্শ্ববর্তী দেশে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ইতোমধ্যে যারা ঘটিয়েছিল, তাদের অস্ত্রশস্ত্রও কেএনএফ এর কাছে আসছে বলে জানা গেছে। সুতরাং তাদের বিরুদ্ধে সাঁড়াশি অভিযান শুরু হয়েছে এবং তাদেরকে নির্মূল করতে আমরা বদ্ধপরিকর।

এর আগে গত মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে শতাধিক সশস্ত্র ব্যক্তি বান্দরবানের রুমা উপজেলা সদরে সোনালী ব্যাংকে হামলা চালায়। তারা ব্যাংকের কর্মকর্তা, নিরাপত্তা রক্ষীসহ অন্তত ২০ জনকে মারধর করে। টাকার পাশাপাশি পুলিশের অস্ত্রও লুট করে।

ব্যাংকের ব্যবস্থাপক নেজাম উদ্দীন তখন রামু উপজেলা পরিষদ এলাকায় মসজিদে তারাবির নামাজ পড়ছিলেন। হামলাকারীরা মসজিদে ঢুকে তাকে অপহরণ করে।

পরদিন দুপুরে রুমা থেকে ৮৩ কিলোমিটার দূরে থানচি উপজেলা সদরে কৃষি ব্যাংক ও সোনালী ব্যাংকে হামলা চালিয়ে টাকা লুট করে তিনটি গাড়িতে আসা একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

পার্শ্ববর্তী দেশ থেকে বান্দরবানে সন্ত্রাসীদের অস্ত্র এসেছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট সময় : ১১:৩০:৫০ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ এপ্রিল ২০২৪

 

পাশের দেশের সন্ত্রাসীদের অস্ত্র পেয়েছে সশস্ত্র সংগঠন কেএনএফ

পাহাড়ের সশস্ত্র গোষ্ঠীকে নির্মূলে সরকার বদ্ধপরিকর। অরণ্যে সশস্ত্র সংগঠন কুকি-চিন ন্যাশনাল ফ্রন্টের (কেএনএফ) সঙ্গে আশপাশের দেশের সন্ত্রাসীদের সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে বলে মন্তব্য করেন বাংলাদেশে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

শনিবার (৬ এপ্রিল) চট্টগ্রামে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এ কথা বলেন। গত কয়েক দিনে বান্দরবানে রুমা ও থানচিতে তিনটি ব্যাংকে ডাকাতি, অর্থ ও অস্ত্র লুট, অপহরণ এবং গোলাগুলির ঘটনায় পাহাড়ে বম পার্টি নামে পরিচিত কেএনএফকে দায়ী করা হচ্ছে।

এই সশস্ত্র সংগঠন বিদেশি সহযোগিতা নিয়ে এসব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে বলে যে অভিযোগ উঠেছে জানতে চাইলে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, তাদের বিরুদ্ধে সাঁড়াশি অভিযান শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে অপহৃত ব্যাংক ম্যানেজারকে মুক্ত করা হয়েছে।

সংগঠনের সঙ্গে আশপাশের দেশের সন্ত্রাসীদের যোগাযোগ রয়েছে মন্তব্য করে মন্ত্রী বলেন, পার্শ্ববর্তী দেশে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ইতোমধ্যে যারা ঘটিয়েছিল, তাদের অস্ত্রশস্ত্রও কেএনএফ এর কাছে আসছে বলে জানা গেছে। সুতরাং তাদের বিরুদ্ধে সাঁড়াশি অভিযান শুরু হয়েছে এবং তাদেরকে নির্মূল করতে আমরা বদ্ধপরিকর।

এর আগে গত মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে শতাধিক সশস্ত্র ব্যক্তি বান্দরবানের রুমা উপজেলা সদরে সোনালী ব্যাংকে হামলা চালায়। তারা ব্যাংকের কর্মকর্তা, নিরাপত্তা রক্ষীসহ অন্তত ২০ জনকে মারধর করে। টাকার পাশাপাশি পুলিশের অস্ত্রও লুট করে।

ব্যাংকের ব্যবস্থাপক নেজাম উদ্দীন তখন রামু উপজেলা পরিষদ এলাকায় মসজিদে তারাবির নামাজ পড়ছিলেন। হামলাকারীরা মসজিদে ঢুকে তাকে অপহরণ করে।

পরদিন দুপুরে রুমা থেকে ৮৩ কিলোমিটার দূরে থানচি উপজেলা সদরে কৃষি ব্যাংক ও সোনালী ব্যাংকে হামলা চালিয়ে টাকা লুট করে তিনটি গাড়িতে আসা একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী।