ঢাকা ০৫:৫৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

পাহাড়ে অভিযানে দুই অস্ত্র উদ্ধার ও সন্ত্রাসী আটক: সেনাপ্রধান

গণমুক্তি ডিজিটাল ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৩:০৮:১৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ৭ এপ্রিল ২০২৪ ৯৭ বার পড়া হয়েছে

সংবাদ ব্রিফিংয়ে সেনাপ্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ

দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে শনিবার রাত থেকে কেএনএফ সশস্ত্র সংগঠনের বিরুদ্ধে কম্বাইন্ড অপারেশন শুরু হয়ে গেছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত যৌথ বাহিনীর অভিযান চলবে।

সশস্ত্র সংগঠনের সদস্যদের গ্রেপ্তার ও অস্ত্র উদ্ধারে শনিবার (৬ এপ্রিল ) রাত থেকে পাহাড়ে যৌথ অভিযান করেছে আইনশঙঙ্খলা বাহিনী। অভিযানে দুটি অস্ত্র ও কয়েকজন সন্ত্রাসীকে আটকের কথা জানিয়েছেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ।

রোববার (৭ এপ্রিল) সকালে হেলিকপ্টারে বান্দরবান পৌঁছে বান্দরবান ৬৯ সেনা রিজিয়নে সেনাবাহিনীর কর্মকর্তাদের সঙ্গে সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে মতবিনিময় শেষে বেলা সাড়ে ১২টায় প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান।

সেনা প্রধান বলেন, শান্তি কমিটির সঙ্গে কেএনএফের স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার আলোচনা চলছিল। দুটি মুখোমুখি সংলাপ বৈঠকও অনুষ্ঠিত হয়েছে, তৃতীয় বৈঠকের আগেই তারা সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ঘটালো। বমদের সানডে আয়োজনে ৩১ মার্চ রুমায় বেতেলপাড়াসহ সবগুলো গির্জায় সেনাবাহিনী কেক পাঠিয়েছে, উৎসব আয়োজনে সম্পৃক্ত ছিল। কিন্তু ২ এপ্রিল তারা সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ঘটালো। সরকার তাদের বিশ্বাস করেছিল, কেএনএফ বিশ্বাস রাখেনি।

সেনা প্রধান আরও বলেন, কম্বাইন্ড অপারেশন এবং গোয়েন্দা কার্যক্রমও অব্যাহত রয়েছে। তাই অপারেশনের সবগুলো দৃশ্যমান নয়। কিছু কার্যক্রম অদৃশ্যে চলবে, যা সাধারণ মানুষ দেখবে না, কিন্তু সুফল ভোগ করবে। এ সময় অন্যদের মধ্যে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

পাহাড়ে অভিযানে দুই অস্ত্র উদ্ধার ও সন্ত্রাসী আটক: সেনাপ্রধান

আপডেট সময় : ০৩:০৮:১৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ৭ এপ্রিল ২০২৪

 

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে শনিবার রাত থেকে কেএনএফ সশস্ত্র সংগঠনের বিরুদ্ধে কম্বাইন্ড অপারেশন শুরু হয়ে গেছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত যৌথ বাহিনীর অভিযান চলবে।

সশস্ত্র সংগঠনের সদস্যদের গ্রেপ্তার ও অস্ত্র উদ্ধারে শনিবার (৬ এপ্রিল ) রাত থেকে পাহাড়ে যৌথ অভিযান করেছে আইনশঙঙ্খলা বাহিনী। অভিযানে দুটি অস্ত্র ও কয়েকজন সন্ত্রাসীকে আটকের কথা জানিয়েছেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ।

রোববার (৭ এপ্রিল) সকালে হেলিকপ্টারে বান্দরবান পৌঁছে বান্দরবান ৬৯ সেনা রিজিয়নে সেনাবাহিনীর কর্মকর্তাদের সঙ্গে সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে মতবিনিময় শেষে বেলা সাড়ে ১২টায় প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান।

সেনা প্রধান বলেন, শান্তি কমিটির সঙ্গে কেএনএফের স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার আলোচনা চলছিল। দুটি মুখোমুখি সংলাপ বৈঠকও অনুষ্ঠিত হয়েছে, তৃতীয় বৈঠকের আগেই তারা সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ঘটালো। বমদের সানডে আয়োজনে ৩১ মার্চ রুমায় বেতেলপাড়াসহ সবগুলো গির্জায় সেনাবাহিনী কেক পাঠিয়েছে, উৎসব আয়োজনে সম্পৃক্ত ছিল। কিন্তু ২ এপ্রিল তারা সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ঘটালো। সরকার তাদের বিশ্বাস করেছিল, কেএনএফ বিশ্বাস রাখেনি।

সেনা প্রধান আরও বলেন, কম্বাইন্ড অপারেশন এবং গোয়েন্দা কার্যক্রমও অব্যাহত রয়েছে। তাই অপারেশনের সবগুলো দৃশ্যমান নয়। কিছু কার্যক্রম অদৃশ্যে চলবে, যা সাধারণ মানুষ দেখবে না, কিন্তু সুফল ভোগ করবে। এ সময় অন্যদের মধ্যে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।