ঢাকা ০২:২১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪

ভারতে বেকারত্বের হার বাংলাদেশ, ভুটানের চেয়ে বেশি: রাহুল গান্ধী

গণমুক্তি ডিজিটাল ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৮:৩৩:৪৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৫ মার্চ ২০২৪ ১৯১ বার পড়া হয়েছে

রাহুল গান্ধী : ছবি সংগ্রহ

দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

ভারতে বেকারত্বের হার বাংলাদেশ, ভুটানের চেয়ে বেশি বলে উল্লেখ করেছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। তিনি বলেন, বিশ্বব্যাংকের সমীক্ষায় দেখা যায়, ভারতে বেকারত্বের হার পাকিস্তানের প্রায় দ্বিগুণ এবং বাংলাদেশ, ভুটানের মতো দেশের চেয়েও বেশি।

আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংগঠনের (আইএলও) এক পরিসংখ্যান তুলে ধরে রাহুল বলেন, ভারতে তরুণদের মধ্যে বেকারত্বের হার এখন ২৩ শতাংশ। আর পাকিস্তানে প্রায় ১২ শতাংশ।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আমলে বেকারত্বের হার বাড়ার বিষয়ে বলতে গিয়ে বাংলাদেশের কথা উল্লেখ করে এই কংগ্রেস নেতা।

রাহুলের মতে মোদির জিএসটি এবং নোটবন্দি নীতির কারণেই ভারতে ক্ষুদ্র ব্যবসা কার্যত শেষ হয়ে গিয়েছে। ফলে গত ৪০ বছরের মধ্যে ভারতে বেকারত্বের হার ইতিহাসের শীর্ষে পৌঁছেছে।

রোববার (৩ মার্চ) মধ্যপ্রদেশের গোয়ালিয়রে ‘ভারতজোড়ো ন্যায়যাত্রা’য় অংশ নিয়ে রাহুল এসব কথা বলেন।

আইএলওর ২০২২ সালে এক প্রতিবেদন অনুসারে ভারতে ১৫-২৪ বছর তরুণ মধ্যে বেকারত্বের হার ২৩ দশমিক ২ শতাংশ। তরুণদের মধ্যে বেকারত্বের নিরিখে গোটা বিশ্বে যে ছ’টি দেশ একেবারে পেছনের সারিতে তার মধ্যে ভারত অন্যতম।

ফেব্রুয়ারির শেষের দিকে এই পরিসংখ্যান এক্স-এ পোস্ট করেছিলেন বিশ্ব ব্যাঙ্কের সাবেক মুখ্য অর্থনীতিবিদ কৌশিক বসু। রাহুল তা তুলে ধরেন। ২০২২ সালের প্রতিবেদন অনুযায়ী, পাকিস্তানের বেকারত্বের হার ১১ দশমিক ৩ শতাংশ এবং বাংলাদেশে বেকারত্বের হার ১২ দশমিক ৯ শতাংশ।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

ভারতে বেকারত্বের হার বাংলাদেশ, ভুটানের চেয়ে বেশি: রাহুল গান্ধী

আপডেট সময় : ০৮:৩৩:৪৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৫ মার্চ ২০২৪

 

ভারতে বেকারত্বের হার বাংলাদেশ, ভুটানের চেয়ে বেশি বলে উল্লেখ করেছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। তিনি বলেন, বিশ্বব্যাংকের সমীক্ষায় দেখা যায়, ভারতে বেকারত্বের হার পাকিস্তানের প্রায় দ্বিগুণ এবং বাংলাদেশ, ভুটানের মতো দেশের চেয়েও বেশি।

আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংগঠনের (আইএলও) এক পরিসংখ্যান তুলে ধরে রাহুল বলেন, ভারতে তরুণদের মধ্যে বেকারত্বের হার এখন ২৩ শতাংশ। আর পাকিস্তানে প্রায় ১২ শতাংশ।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আমলে বেকারত্বের হার বাড়ার বিষয়ে বলতে গিয়ে বাংলাদেশের কথা উল্লেখ করে এই কংগ্রেস নেতা।

রাহুলের মতে মোদির জিএসটি এবং নোটবন্দি নীতির কারণেই ভারতে ক্ষুদ্র ব্যবসা কার্যত শেষ হয়ে গিয়েছে। ফলে গত ৪০ বছরের মধ্যে ভারতে বেকারত্বের হার ইতিহাসের শীর্ষে পৌঁছেছে।

রোববার (৩ মার্চ) মধ্যপ্রদেশের গোয়ালিয়রে ‘ভারতজোড়ো ন্যায়যাত্রা’য় অংশ নিয়ে রাহুল এসব কথা বলেন।

আইএলওর ২০২২ সালে এক প্রতিবেদন অনুসারে ভারতে ১৫-২৪ বছর তরুণ মধ্যে বেকারত্বের হার ২৩ দশমিক ২ শতাংশ। তরুণদের মধ্যে বেকারত্বের নিরিখে গোটা বিশ্বে যে ছ’টি দেশ একেবারে পেছনের সারিতে তার মধ্যে ভারত অন্যতম।

ফেব্রুয়ারির শেষের দিকে এই পরিসংখ্যান এক্স-এ পোস্ট করেছিলেন বিশ্ব ব্যাঙ্কের সাবেক মুখ্য অর্থনীতিবিদ কৌশিক বসু। রাহুল তা তুলে ধরেন। ২০২২ সালের প্রতিবেদন অনুযায়ী, পাকিস্তানের বেকারত্বের হার ১১ দশমিক ৩ শতাংশ এবং বাংলাদেশে বেকারত্বের হার ১২ দশমিক ৯ শতাংশ।