ঢাকা ০৬:০০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

যুক্তরাষ্ট্রে ইসরায়েলি নৃশংসতার প্রতিবাদে বিক্ষোভ, ৫০ অধ্যাপক আটক

গণমুক্তি ডিজিটাল ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ১১:৩৭:৫০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ মে ২০২৪ ২৮ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

গাজায় ইসরায়েলি নৃশংসতার এবং মানবাধিকার লঙ্ঘনের প্রতিবাদে গত ১৭ এপ্রিল প্রথম বিক্ষোভে নামেন কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এরপর যুক্তরাষ্ট্রের দেড় শতাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং ইউরোপের অন্তত ১২টি দেশে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। এই সময়ে যুক্তরাষ্ট্রে আড়াই হাজারের বেশি ও ইউরোপে তিন শতাধিক শিক্ষার্থীকে আটক করা হয়েছে।

গাজায় ইসরায়েলি নৃশংসতা চরমরূপ নিয়েছে। ইসলাইলের নৃশংসতার প্রতিবাদে রাজপথ সরব। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মানবাধিকার লঙ্ঘনের প্রতিবাদে যুক্তরাষ্ট্রে বিক্ষোভ দেখানো অব্যাহত রয়েছে। চলমান এই বিক্ষোভ থেকে অন্তত ৫০ জন অধ্যাপককে আটক করেছে পুলিশ।

শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভে অংশ নেওয়া ও সংহতি জানানোয় ৫০জন অধ্যাপককে গ্রেফতার করা হয়।

জানা গিয়েছে, বিক্ষোভের ভিডিও চিত্র ধারণের কারণে অধ্যাপকদের আটক করা হয়েছে। তাদের মধ্যে কেউ কেউ পুলিশের মারধর, হয়রানি ও হেনস্তার শিকার হয়েছেন।

বিক্ষোভের ভিডিও ধারণ করছিলেন ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক স্টিভ তামারি। এ সময় তাকে শারীরিকভাবে হেনস্তার পর গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশের মারধরে তাঁর পাঁজর ও ডান হাত ভেঙে গেছে।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

যুক্তরাষ্ট্রে ইসরায়েলি নৃশংসতার প্রতিবাদে বিক্ষোভ, ৫০ অধ্যাপক আটক

আপডেট সময় : ১১:৩৭:৫০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ মে ২০২৪

 

গাজায় ইসরায়েলি নৃশংসতার এবং মানবাধিকার লঙ্ঘনের প্রতিবাদে গত ১৭ এপ্রিল প্রথম বিক্ষোভে নামেন কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এরপর যুক্তরাষ্ট্রের দেড় শতাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং ইউরোপের অন্তত ১২টি দেশে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। এই সময়ে যুক্তরাষ্ট্রে আড়াই হাজারের বেশি ও ইউরোপে তিন শতাধিক শিক্ষার্থীকে আটক করা হয়েছে।

গাজায় ইসরায়েলি নৃশংসতা চরমরূপ নিয়েছে। ইসলাইলের নৃশংসতার প্রতিবাদে রাজপথ সরব। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মানবাধিকার লঙ্ঘনের প্রতিবাদে যুক্তরাষ্ট্রে বিক্ষোভ দেখানো অব্যাহত রয়েছে। চলমান এই বিক্ষোভ থেকে অন্তত ৫০ জন অধ্যাপককে আটক করেছে পুলিশ।

শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভে অংশ নেওয়া ও সংহতি জানানোয় ৫০জন অধ্যাপককে গ্রেফতার করা হয়।

জানা গিয়েছে, বিক্ষোভের ভিডিও চিত্র ধারণের কারণে অধ্যাপকদের আটক করা হয়েছে। তাদের মধ্যে কেউ কেউ পুলিশের মারধর, হয়রানি ও হেনস্তার শিকার হয়েছেন।

বিক্ষোভের ভিডিও ধারণ করছিলেন ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক স্টিভ তামারি। এ সময় তাকে শারীরিকভাবে হেনস্তার পর গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশের মারধরে তাঁর পাঁজর ও ডান হাত ভেঙে গেছে।