ঢাকা ০৩:৩৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪

রোজায় মজুতদারদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা : প্রধানমন্ত্রী

গণমুক্তি রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : ০১:০৫:০৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ মার্চ ২০২৪ ১৮২ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

রোজা এলেই যারা লোভের বশবর্তী হয়ে অযৌক্তিকভাবে মজুত করে ও পণ্যের দাম বাড়ায়, সেসব অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার (৬ মার্চ) ইলিট ফোর্স র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ান (র‌্যাব) ২০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে এই হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন প্রধানমন্ত্রী।

জঙ্গিবাদ দমনে র‌্যাব সাহসী ভূমিকা রেখেছে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, জঙ্গি ও সন্ত্রাসীদের নিষ্কিয় করায় মানুষের মনে শান্তি ফিরে এসেছে। কিশোর গ্যাং ও মাদকের বিস্তার রোধে র‌্যাবকে আরও কার্যকর ভূমিকা রাখতে হবে। মাদক ব্যবসায়ী ও জাল টাকা চক্রের বিরুদ্ধেও র‌্যাবকে কঠোর হতে হবে।

দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নের জন্য র‌্যাবকে এরই মধ্যে একটি ত্রিমাতৃক বাহিনীতে পরিণত করা হয়েছে। র‌্যাবের কার্যকারিতা আরও বাড়াতে বাহিনীর নতুন সদরদপ্তর নির্মাণের কাজসহ অনেক কাজ করা হচ্ছে।

স্যাংশন প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, একটি বড় দেশ র‌্যাবের ওপরে স্যাংশন দিয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষার কাজ করে তাদের অন্য একটা দেশ স্যাংশন দেবে মেনে নেওয়া যায় না। এতে একটা প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছিল কারো কারো মাঝে। আমরা বলেছিলাম আমরাও স্যাংশন দিতে পারি।

দেশের মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে গিয়ে অন্য দেশ এসে নিষেধাজ্ঞা দেবে সেটি গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। নিষেধাজ্ঞা একতরফা হয় না, আমরাও নিষেধাজ্ঞা দিতে পারি। হতাশ হলে চলবে না, আত্মবিশ্বাস নিয়ে চলতে হবে বলেন প্রধানমন্ত্রী।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

রোজায় মজুতদারদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা : প্রধানমন্ত্রী

আপডেট সময় : ০১:০৫:০৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ মার্চ ২০২৪

 

রোজা এলেই যারা লোভের বশবর্তী হয়ে অযৌক্তিকভাবে মজুত করে ও পণ্যের দাম বাড়ায়, সেসব অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার (৬ মার্চ) ইলিট ফোর্স র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ান (র‌্যাব) ২০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে এই হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন প্রধানমন্ত্রী।

জঙ্গিবাদ দমনে র‌্যাব সাহসী ভূমিকা রেখেছে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, জঙ্গি ও সন্ত্রাসীদের নিষ্কিয় করায় মানুষের মনে শান্তি ফিরে এসেছে। কিশোর গ্যাং ও মাদকের বিস্তার রোধে র‌্যাবকে আরও কার্যকর ভূমিকা রাখতে হবে। মাদক ব্যবসায়ী ও জাল টাকা চক্রের বিরুদ্ধেও র‌্যাবকে কঠোর হতে হবে।

দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নের জন্য র‌্যাবকে এরই মধ্যে একটি ত্রিমাতৃক বাহিনীতে পরিণত করা হয়েছে। র‌্যাবের কার্যকারিতা আরও বাড়াতে বাহিনীর নতুন সদরদপ্তর নির্মাণের কাজসহ অনেক কাজ করা হচ্ছে।

স্যাংশন প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, একটি বড় দেশ র‌্যাবের ওপরে স্যাংশন দিয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষার কাজ করে তাদের অন্য একটা দেশ স্যাংশন দেবে মেনে নেওয়া যায় না। এতে একটা প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছিল কারো কারো মাঝে। আমরা বলেছিলাম আমরাও স্যাংশন দিতে পারি।

দেশের মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে গিয়ে অন্য দেশ এসে নিষেধাজ্ঞা দেবে সেটি গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। নিষেধাজ্ঞা একতরফা হয় না, আমরাও নিষেধাজ্ঞা দিতে পারি। হতাশ হলে চলবে না, আত্মবিশ্বাস নিয়ে চলতে হবে বলেন প্রধানমন্ত্রী।