ঢাকা ০৬:২০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

২দিনে ১০জনের মৃত্যু

রোববার আখেরি মোনাজাত দিয়ে শেষ হবে প্রথম পর্বের ইজতেমা

বিশেষ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৫:৫৯:২৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ৭৩ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

রোববার ১২টায় অনুষ্ঠিত হবে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বের আখেরী মোনাজাত। এদিন রাজধানী ঢাকা ও ঢাকার পাশ্ববর্তী জেলার হাজারো মুসল্লিরা আখেরী মোনাজাতে অংশ নিতে ছুটে আসছেন টঙ্গীর তুরাগ তীরে।

আখেরী মোনাজাত উপলক্ষে ইজতেমার মাঠের আশপাশের বেশ কিছু রাস্তা শনিবার রাত থেকেই বন্ধ করে দেওয়া হবে। পরিস্থিতি সামাল দিতে এই পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শুরুর দুই দিনে ইজতেমা মাঠে ১০ জন মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার ইজতেমাঠে উপস্থিতি হয়ে এই পদক্ষেপের কথা জানালেন, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপকমিশনার ইব্রাহিম। তিনি জানান, বিশ্ব ইজতেমায় আসা মুসল্লিদের ঢল এবং আখেরী মোনাজাতে অংশ নিতে রোববার আসা মুসল্লিদের স্রোত সামাল দিতে শনিবার মধ্যরাত থেকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের আব্দুল্লাহপুর থেকে গাজীপুর মহানগরীর ভোগড়া বাইপাস ও টঙ্গীর স্টেশন রোড থেকে কামারপাড়া পর্যন্ত সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ থাকবে।

উপকমিশনার ইব্রাহিম আরও বলেন, ইজতেমার আখেরি মোনাজাত উপলক্ষে জিএমপির ট্রাফিক বিভাগের একটি চৌকস দল রয়েছে। ঢাকাগামী লোকজন ও যানবাহনগুলোকে ভোগড়া বাইপাস দিয়ে তিনশ ফিট রাস্তা ব্যবহার করে চলাচলের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। যারা ময়মনসিংহ বা গাজীপুর যাবেন, তাদেরকে বাইপাইল হয়ে জয়দেবপুর চৌরাস্তা দিয়ে যাতায়তের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

বিশ্বের সর্ববৃহৎ ইজতেমার জামাত অনুষ্ঠিত হয় বাংলাদেশে। দেশ-বিদেশের বিপুল সংখ্যক মুসল্লি এতে অংশ নেন। বহু বয়স্ক মানুষ নিজের কৃতকর্মের জন্য পানাহ চাইতে ছুটে আসেন ইজতেমায়। তারা তিনদিন এখানে অবস্থান করেন এবং ইবাদত করে সময় পার করেন। এরপর আখেরী মোনাজাতের মাধ্যমে তিনদিনের ইজমা শেষে বাড়ি পথে পা বাড়ান।

১০ জন মুসল্লির মৃত্যু

ইজতেমা পরিচালনা কর্তৃপক্ষের সূত্র বলছে, শুক্রবার শুরু হওয়া বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বে দুই দিনে ১০ জন মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে। বার্ধক্যজনিত কারণে, দুর্ঘটনা এবং বিভিন্ন রোগে অসুস্থ ব্যক্তিরা মারা গেছেন। শুক্রবার রাত থেকে শনিবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত ময়দানে তিন মুসল্লির মৃত্যু হয়। এর আগে প্রথম দিন শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত একজন পুলিশ সদস্যসহ ৭ জনের মৃত্যু হয়।

রাত থেকে মারা ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছেন, শেরপুর সদরের জুগনিবাগ গ্রামের নওশের আলী (৬৫), ভোলার আব্দুল কাদের (৫৫) ও নেত্রকোনা সদরের খালিয়াঝুড়ি স্বাধীন (৪৫)। শুক্রবার রাত পর্যন্ত বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে মারা যাওয়া মুসল্লিদের মধ্যে রয়েছেন, নেত্রকোনা জেলার কুমারী বাজার এলাকার আবদুস সাত্তার (৭০), জেলার বুড়িঝুড়ি স্বল্পদুগিয়া গ্রামের এখলাস মিয়া (৬৮), ভোলার ভোল্লা গ্রামের শাহ আলম (৬০) ও জামালপুর জেলার তুলশীপুর পাকুল্লা গ্রামের মতিউর রহমান (৬০)। আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমা শুরু হবে এবং ১১ ফেব্রুয়ারি আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

২দিনে ১০জনের মৃত্যু

রোববার আখেরি মোনাজাত দিয়ে শেষ হবে প্রথম পর্বের ইজতেমা

আপডেট সময় : ০৫:৫৯:২৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

রোববার ১২টায় অনুষ্ঠিত হবে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বের আখেরী মোনাজাত। এদিন রাজধানী ঢাকা ও ঢাকার পাশ্ববর্তী জেলার হাজারো মুসল্লিরা আখেরী মোনাজাতে অংশ নিতে ছুটে আসছেন টঙ্গীর তুরাগ তীরে।

আখেরী মোনাজাত উপলক্ষে ইজতেমার মাঠের আশপাশের বেশ কিছু রাস্তা শনিবার রাত থেকেই বন্ধ করে দেওয়া হবে। পরিস্থিতি সামাল দিতে এই পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শুরুর দুই দিনে ইজতেমা মাঠে ১০ জন মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার ইজতেমাঠে উপস্থিতি হয়ে এই পদক্ষেপের কথা জানালেন, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপকমিশনার ইব্রাহিম। তিনি জানান, বিশ্ব ইজতেমায় আসা মুসল্লিদের ঢল এবং আখেরী মোনাজাতে অংশ নিতে রোববার আসা মুসল্লিদের স্রোত সামাল দিতে শনিবার মধ্যরাত থেকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের আব্দুল্লাহপুর থেকে গাজীপুর মহানগরীর ভোগড়া বাইপাস ও টঙ্গীর স্টেশন রোড থেকে কামারপাড়া পর্যন্ত সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ থাকবে।

উপকমিশনার ইব্রাহিম আরও বলেন, ইজতেমার আখেরি মোনাজাত উপলক্ষে জিএমপির ট্রাফিক বিভাগের একটি চৌকস দল রয়েছে। ঢাকাগামী লোকজন ও যানবাহনগুলোকে ভোগড়া বাইপাস দিয়ে তিনশ ফিট রাস্তা ব্যবহার করে চলাচলের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। যারা ময়মনসিংহ বা গাজীপুর যাবেন, তাদেরকে বাইপাইল হয়ে জয়দেবপুর চৌরাস্তা দিয়ে যাতায়তের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

বিশ্বের সর্ববৃহৎ ইজতেমার জামাত অনুষ্ঠিত হয় বাংলাদেশে। দেশ-বিদেশের বিপুল সংখ্যক মুসল্লি এতে অংশ নেন। বহু বয়স্ক মানুষ নিজের কৃতকর্মের জন্য পানাহ চাইতে ছুটে আসেন ইজতেমায়। তারা তিনদিন এখানে অবস্থান করেন এবং ইবাদত করে সময় পার করেন। এরপর আখেরী মোনাজাতের মাধ্যমে তিনদিনের ইজমা শেষে বাড়ি পথে পা বাড়ান।

১০ জন মুসল্লির মৃত্যু

ইজতেমা পরিচালনা কর্তৃপক্ষের সূত্র বলছে, শুক্রবার শুরু হওয়া বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বে দুই দিনে ১০ জন মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে। বার্ধক্যজনিত কারণে, দুর্ঘটনা এবং বিভিন্ন রোগে অসুস্থ ব্যক্তিরা মারা গেছেন। শুক্রবার রাত থেকে শনিবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত ময়দানে তিন মুসল্লির মৃত্যু হয়। এর আগে প্রথম দিন শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত একজন পুলিশ সদস্যসহ ৭ জনের মৃত্যু হয়।

রাত থেকে মারা ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছেন, শেরপুর সদরের জুগনিবাগ গ্রামের নওশের আলী (৬৫), ভোলার আব্দুল কাদের (৫৫) ও নেত্রকোনা সদরের খালিয়াঝুড়ি স্বাধীন (৪৫)। শুক্রবার রাত পর্যন্ত বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে মারা যাওয়া মুসল্লিদের মধ্যে রয়েছেন, নেত্রকোনা জেলার কুমারী বাজার এলাকার আবদুস সাত্তার (৭০), জেলার বুড়িঝুড়ি স্বল্পদুগিয়া গ্রামের এখলাস মিয়া (৬৮), ভোলার ভোল্লা গ্রামের শাহ আলম (৬০) ও জামালপুর জেলার তুলশীপুর পাকুল্লা গ্রামের মতিউর রহমান (৬০)। আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমা শুরু হবে এবং ১১ ফেব্রুয়ারি আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে।