ঢাকা ১২:৪৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪

সাধারণ মানুষের আস্থার ঠিকানা আমার আদালত

রাজশাহী ব্যুরো
  • আপডেট সময় : ০১:৫১:২৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ এপ্রিল ২০২৪ ২০৬ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

বিচার প্রার্থী সাধারণ মানুষের আস্থার ঠিকানা আমার আদালত। এই এ্যাপসটি ব্যবহার করে সাধারণ বিচার প্রার্থী মানুষ তাদের মামলার দিন ক্ষণ থেকে শুরু সবকিছুই মিলবে এই এ্যাপসে।

স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গিকার নিয়ে রাজশাহীতে এই প্রথম বারের মতো চালু হলো আমার আদালত এ্যাপস। এই সফটওয়্যারের মাধ্যমে জানা যাবে আদালতে কজলিষ্ট, আদেশ ও ধার্য্য তারিখ। স্মার্ট ফোনেই মিলবে আদালতের এসব তথ্য।

https://causelist.judiciary.gov.bd বা আমার আদালত এ্যাপ (Google piay store) লিংকে ক্লিক করে বিভাগ, জেলা, আদালতের নাম ও তারিখ বাছাই করে অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করলে সংশ্লিষ্ট যেকোন ব্যক্তি ঘরে বসে মামলার পরবর্তী দিন তারিখ, কার্যক্রম, রায় ও আদেশ জানতে পারবে অনায়াসে।

রাজশাহীর আদালত পাড়ায় সাক্ষাত হয় সামিউল ইসলাম নামের এক বিচার প্রার্থীর। তার বাড়ি রাজশাহী শহর থেকে ৫০ কিলোমিটার দুরের উপজেলা বাগমারা। ২০১৭ সালে জমি সংক্রান্ত মামলার কার্যক্রম তদারকি করতে আদালতে আসতে হয় তাকে।

আমার আদালত এ্যাপস সম্পর্কে তার কোন ধারণা নেই। অপর ব্যক্তি মো. কলম। তিনি মামলা সংক্রান্ত বিষয়ে আদালতে আসেন। তবে এ্যাপের বিষয়টি জানতে পেরে বলেন, আমি আগে জানলে এতদুর আসতে হতো না।

স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানে আরও একধাপ এগিয়ে নিতে বিচারিক সেবা ও তথ্য প্রদান প্রক্রিয়া সহজ করতে গত ২২ সালের ১১ জুন আনুষ্ঠানিক ভাবে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এই মোবাইল অ্যাপটি উদ্বোধন করেন।

বিচার বিভাগের অনলাইন সেবার প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করেছে এটুআই, ইউএনডিপি ও আইন মন্ত্রণালয়। ঢাকা থেকে এ্যাপটির যাত্রা শুরু হলেও ধীরে ধীরে দেশের বিভিন্ন আদালতে এই পরিসেবা চালু হয়েছে।

আমার আদালত এ্যাপ সেবা সম্পর্কে রাজশাহী আদালতের জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান বলেন, দেশ এগুচ্ছে পাশাপাশি বিচার বিভাগ এগিয়ে যাচ্ছে। স্মার্ট জুডিসিয়ারি প্রতিষ্ঠার লক্ষে আমার আদালত এ্যাপটি দারুনভাবে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। দেশের অন্যান্য জেলার মত রাজশাহীতেও চালু করা হয়েছে আমার আদালত।

ইতোমধ্যে প্রায় ৯০% কাজ শেষ করা হয়েছে। আমি রাজশাহীর প্রতিটি বিচার বিভাগে প্রতিদিনের তথ্য প্রতিদিন আপডেট করার নির্দেশনা দিয়েছি। খুব দ্রুত সেগুলো শেষ করা হবে। আদালতের চত্বরে নানাভাবে প্রচারনা চালানো হবে।

https://www.itu.int/net4/wsis/stocktaking/Prizes/2024 ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে ই-মেইল দিয়ে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করুন। (পাসওয়ার্ডে অন্তত একটি অক্ষর বড় হাতের ও অন্তত একটি সিম্বল থাকা আবশ্যক) রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হওয়ার পর ই-মেইল থেকে রেজিস্ট্রেশন নিশ্চিত করে লগইন করুন এবং Vote অপশনে ক্লিক করার পর আপনি Voting Form নামক আরও একটি অপশন দেখতে পাবেন, এখানে ক্লিক করুন। ভোট দানের শেষ সুযোগ ৪ এপ্রিল ২০২৪ তারিখ পর্যন্ত।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

সাধারণ মানুষের আস্থার ঠিকানা আমার আদালত

আপডেট সময় : ০১:৫১:২৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ এপ্রিল ২০২৪

 

বিচার প্রার্থী সাধারণ মানুষের আস্থার ঠিকানা আমার আদালত। এই এ্যাপসটি ব্যবহার করে সাধারণ বিচার প্রার্থী মানুষ তাদের মামলার দিন ক্ষণ থেকে শুরু সবকিছুই মিলবে এই এ্যাপসে।

স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গিকার নিয়ে রাজশাহীতে এই প্রথম বারের মতো চালু হলো আমার আদালত এ্যাপস। এই সফটওয়্যারের মাধ্যমে জানা যাবে আদালতে কজলিষ্ট, আদেশ ও ধার্য্য তারিখ। স্মার্ট ফোনেই মিলবে আদালতের এসব তথ্য।

https://causelist.judiciary.gov.bd বা আমার আদালত এ্যাপ (Google piay store) লিংকে ক্লিক করে বিভাগ, জেলা, আদালতের নাম ও তারিখ বাছাই করে অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করলে সংশ্লিষ্ট যেকোন ব্যক্তি ঘরে বসে মামলার পরবর্তী দিন তারিখ, কার্যক্রম, রায় ও আদেশ জানতে পারবে অনায়াসে।

রাজশাহীর আদালত পাড়ায় সাক্ষাত হয় সামিউল ইসলাম নামের এক বিচার প্রার্থীর। তার বাড়ি রাজশাহী শহর থেকে ৫০ কিলোমিটার দুরের উপজেলা বাগমারা। ২০১৭ সালে জমি সংক্রান্ত মামলার কার্যক্রম তদারকি করতে আদালতে আসতে হয় তাকে।

আমার আদালত এ্যাপস সম্পর্কে তার কোন ধারণা নেই। অপর ব্যক্তি মো. কলম। তিনি মামলা সংক্রান্ত বিষয়ে আদালতে আসেন। তবে এ্যাপের বিষয়টি জানতে পেরে বলেন, আমি আগে জানলে এতদুর আসতে হতো না।

স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানে আরও একধাপ এগিয়ে নিতে বিচারিক সেবা ও তথ্য প্রদান প্রক্রিয়া সহজ করতে গত ২২ সালের ১১ জুন আনুষ্ঠানিক ভাবে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এই মোবাইল অ্যাপটি উদ্বোধন করেন।

বিচার বিভাগের অনলাইন সেবার প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করেছে এটুআই, ইউএনডিপি ও আইন মন্ত্রণালয়। ঢাকা থেকে এ্যাপটির যাত্রা শুরু হলেও ধীরে ধীরে দেশের বিভিন্ন আদালতে এই পরিসেবা চালু হয়েছে।

আমার আদালত এ্যাপ সেবা সম্পর্কে রাজশাহী আদালতের জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান বলেন, দেশ এগুচ্ছে পাশাপাশি বিচার বিভাগ এগিয়ে যাচ্ছে। স্মার্ট জুডিসিয়ারি প্রতিষ্ঠার লক্ষে আমার আদালত এ্যাপটি দারুনভাবে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। দেশের অন্যান্য জেলার মত রাজশাহীতেও চালু করা হয়েছে আমার আদালত।

ইতোমধ্যে প্রায় ৯০% কাজ শেষ করা হয়েছে। আমি রাজশাহীর প্রতিটি বিচার বিভাগে প্রতিদিনের তথ্য প্রতিদিন আপডেট করার নির্দেশনা দিয়েছি। খুব দ্রুত সেগুলো শেষ করা হবে। আদালতের চত্বরে নানাভাবে প্রচারনা চালানো হবে।

https://www.itu.int/net4/wsis/stocktaking/Prizes/2024 ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে ই-মেইল দিয়ে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করুন। (পাসওয়ার্ডে অন্তত একটি অক্ষর বড় হাতের ও অন্তত একটি সিম্বল থাকা আবশ্যক) রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হওয়ার পর ই-মেইল থেকে রেজিস্ট্রেশন নিশ্চিত করে লগইন করুন এবং Vote অপশনে ক্লিক করার পর আপনি Voting Form নামক আরও একটি অপশন দেখতে পাবেন, এখানে ক্লিক করুন। ভোট দানের শেষ সুযোগ ৪ এপ্রিল ২০২৪ তারিখ পর্যন্ত।