ঢাকা ১২:৪৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪

সেনা অভিযানে কেএনএফ সন্ত্রাসী নিহত

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:০১:১৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ মে ২০২৪ ২৯ বার পড়া হয়েছে

কেএনএ সন্ত্রাসীদের ব্যবহার করা অস্ত্র উদ্ধার: ছবি সংগৃহীত

দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

মঙ্গলবার (৭ মে) রুমা উপজেলার দুর্গম দার্জিলিং পাড়ায় সেনা অভিযানে সশস্ত্র গোষ্ঠী কুকি-চিন ন্যাশনাল ফ্রন্টের (কেএনএফ) এক সন্ত্রাসী নিহত হয়েছেন।

আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) থেকে সংবাদমাধ্যমে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

আইএসপিআর’র বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, অভিযানে কেএনএফ সন্ত্রাসীদের ব্যবহার করা বাংকার, পর্যবেক্ষণ চৌকি ধ্বংস করা হয়েছে। অভিযানকালে ৩টি একে-২২ রাইফেল, একটি শর্টগান, ৭১ রাউন্ড তাজা গুলি, ১৫৭ রাউন্ড শর্টগান গুলি, বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক সরঞ্জামাদি, একটি ড্রোন, তিনটি জুম্মল্যান্ডের পতাকা ও মোবাইল ফোন এবং ওয়াকিটকি উদ্ধার করা হয়।

গত ২ এপ্রিল রুমায় সোনালী ব্যাংকে ডাকাতি করে অর্থ ও অস্ত্র লুট এবং ম্যানেজারকে অপহরণ করে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা। এসময় সন্ত্রাসীরা পুলিশের ১০টি এবং আনসার সদস্যের চারটি অস্ত্রও লুট করে।

গহীন জঙ্গলে সন্ত্রাসীদের ব্যবহৃত গুহা : ছবি সংগ্রহ

পরদিন ৩ মে থানচি উপজেলার সোনালী ও কৃষি ব্যাংকের দুটি শাখা থেকে সাড়ে ১৭ লাখ টাকা লুট করে অস্ত্রধারীরা। দুটি ঘটনায় পাহাড়ে সশস্ত্র সংগঠন কেএনএফ জড়িত বলে জানিয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

লুট হওয়া অস্ত্র-অর্থ উদ্ধার, সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে রুমা ও থানচিতে অভিযান শুরু করে সেনাবাহিনী, বিজিবি, র‌্যাব ও পুলিশের যৌথবাহিনী। এ পর্যন্ত যৌথ অভিযানে কেএনএফের ৭৮ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

রুমা থানার ওসি মো. শাহজাহান সংবাদমাধ্যমকে জানান, রুমার দার্জিলিং পাড়া থেকে এক কেএনএফ সদস্যের মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে আনা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে। কিন্তু নিহত কেএনএফ সদস্যের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

সেনা অভিযানে কেএনএফ সন্ত্রাসী নিহত

আপডেট সময় : ০৯:০১:১৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ মে ২০২৪

 

মঙ্গলবার (৭ মে) রুমা উপজেলার দুর্গম দার্জিলিং পাড়ায় সেনা অভিযানে সশস্ত্র গোষ্ঠী কুকি-চিন ন্যাশনাল ফ্রন্টের (কেএনএফ) এক সন্ত্রাসী নিহত হয়েছেন।

আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) থেকে সংবাদমাধ্যমে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

আইএসপিআর’র বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, অভিযানে কেএনএফ সন্ত্রাসীদের ব্যবহার করা বাংকার, পর্যবেক্ষণ চৌকি ধ্বংস করা হয়েছে। অভিযানকালে ৩টি একে-২২ রাইফেল, একটি শর্টগান, ৭১ রাউন্ড তাজা গুলি, ১৫৭ রাউন্ড শর্টগান গুলি, বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক সরঞ্জামাদি, একটি ড্রোন, তিনটি জুম্মল্যান্ডের পতাকা ও মোবাইল ফোন এবং ওয়াকিটকি উদ্ধার করা হয়।

গত ২ এপ্রিল রুমায় সোনালী ব্যাংকে ডাকাতি করে অর্থ ও অস্ত্র লুট এবং ম্যানেজারকে অপহরণ করে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা। এসময় সন্ত্রাসীরা পুলিশের ১০টি এবং আনসার সদস্যের চারটি অস্ত্রও লুট করে।

গহীন জঙ্গলে সন্ত্রাসীদের ব্যবহৃত গুহা : ছবি সংগ্রহ

পরদিন ৩ মে থানচি উপজেলার সোনালী ও কৃষি ব্যাংকের দুটি শাখা থেকে সাড়ে ১৭ লাখ টাকা লুট করে অস্ত্রধারীরা। দুটি ঘটনায় পাহাড়ে সশস্ত্র সংগঠন কেএনএফ জড়িত বলে জানিয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

লুট হওয়া অস্ত্র-অর্থ উদ্ধার, সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে রুমা ও থানচিতে অভিযান শুরু করে সেনাবাহিনী, বিজিবি, র‌্যাব ও পুলিশের যৌথবাহিনী। এ পর্যন্ত যৌথ অভিযানে কেএনএফের ৭৮ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

রুমা থানার ওসি মো. শাহজাহান সংবাদমাধ্যমকে জানান, রুমার দার্জিলিং পাড়া থেকে এক কেএনএফ সদস্যের মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে আনা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে। কিন্তু নিহত কেএনএফ সদস্যের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।