ঢাকা ১২:১২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪

হাসপাতালের আগুনে রোগীদের কোনো ক্ষতি হয়নি: স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী

গণমুক্তি ডিজিটাল ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৬:৪৪:১৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪ ৪৮ বার পড়া হয়েছে

বাংলাদেশ শিশু হাসপাতালে আগুনের ঘটনা ঘটলো

দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

এবারে বাংলাদেশ শিশু হাসপাতালে আগুনের ঘটনা ঘটলো। আগুন লাগার পর রোগীদের অন্য হাসপাতালে সরিয়ে নেওয়ায় রোগীর কোন ক্ষতি হয়নি।

ফায়ার সার্ভিস জানায় দুপুর ১ টা ৪৭ মিনিটে হাসপাতালের বি ব্লকের পঞ্চম তলায় কার্ডিয়াক বিভাগে আগুনের সূত্রপাত। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ৫টি ইউনিট ঘটনা স্থলে ছুটে আসে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে এবং বেলা ২ টা ৩৯ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

শুক্রবার বিকালে হাসপাতাল পরিদর্শনে আসেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী রোকেয়া সুলতানা। পরিদর্শন শেষে বোর্ডরুমে সাংবাদিকদের বলেন, এটা খুবই দুঃখজনক এরকম একটা হাসপাতালে—এখনি কিছু বলতে চাচ্ছি না। পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি করে দেওয়া হয়েছে। হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক জাহাঙ্গীর আলম এসময় উপস্থিত ছিলেন।

স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, কার্ডিয়াক আইসিইউতে সাতজন রোগী ছিলো। সব রোগীকেই আমরা এনআইসিভিডিতে (জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট) ট্রান্সফার করা হয়েছে এবং সেখানে সব রোগীই ভালো রয়েছে।

অক্সিজেনসহ অন্য লাইনগুলো পুড়ে গেছে। সেখানে টাকার অংকে কত ক্ষতি, সেগুলো তদন্ত না করে বলা যাবে না।

আগুন লাগার পর হাসপাতালের লিফট থেকে শুরু করে অক্সিজেনের লাইনও বন্ধ করে দেওয়া হয়। তবে সে কারণে কোনো রোগীর কোনো ক্ষতি হয়নি, জানান প্রতিমন্ত্রী।

পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, মেজর কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। ফায়ার ব্রিগেড অত্যন্ত দ্রুততার সঙ্গে রেসপন্স করেছে। আর আগুন লাগার সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালের নিজস্ব ইমার্জেন্সি রেসপন্স টিম দ্রুত রোগীদের কার্ডিয়াক আইসিইউ থেকে অন্য আইসিইউতে শিফট করে। রোগীগুলোকে অন্য হাসপাতাল ও নিজস্ব অন্য আইসিইউগুলোতে নিয়ে যাওয়া হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

হাসপাতালের আগুনে রোগীদের কোনো ক্ষতি হয়নি: স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী

আপডেট সময় : ০৬:৪৪:১৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪

 

এবারে বাংলাদেশ শিশু হাসপাতালে আগুনের ঘটনা ঘটলো। আগুন লাগার পর রোগীদের অন্য হাসপাতালে সরিয়ে নেওয়ায় রোগীর কোন ক্ষতি হয়নি।

ফায়ার সার্ভিস জানায় দুপুর ১ টা ৪৭ মিনিটে হাসপাতালের বি ব্লকের পঞ্চম তলায় কার্ডিয়াক বিভাগে আগুনের সূত্রপাত। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ৫টি ইউনিট ঘটনা স্থলে ছুটে আসে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে এবং বেলা ২ টা ৩৯ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

শুক্রবার বিকালে হাসপাতাল পরিদর্শনে আসেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী রোকেয়া সুলতানা। পরিদর্শন শেষে বোর্ডরুমে সাংবাদিকদের বলেন, এটা খুবই দুঃখজনক এরকম একটা হাসপাতালে—এখনি কিছু বলতে চাচ্ছি না। পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি করে দেওয়া হয়েছে। হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক জাহাঙ্গীর আলম এসময় উপস্থিত ছিলেন।

স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, কার্ডিয়াক আইসিইউতে সাতজন রোগী ছিলো। সব রোগীকেই আমরা এনআইসিভিডিতে (জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট) ট্রান্সফার করা হয়েছে এবং সেখানে সব রোগীই ভালো রয়েছে।

অক্সিজেনসহ অন্য লাইনগুলো পুড়ে গেছে। সেখানে টাকার অংকে কত ক্ষতি, সেগুলো তদন্ত না করে বলা যাবে না।

আগুন লাগার পর হাসপাতালের লিফট থেকে শুরু করে অক্সিজেনের লাইনও বন্ধ করে দেওয়া হয়। তবে সে কারণে কোনো রোগীর কোনো ক্ষতি হয়নি, জানান প্রতিমন্ত্রী।

পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, মেজর কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। ফায়ার ব্রিগেড অত্যন্ত দ্রুততার সঙ্গে রেসপন্স করেছে। আর আগুন লাগার সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালের নিজস্ব ইমার্জেন্সি রেসপন্স টিম দ্রুত রোগীদের কার্ডিয়াক আইসিইউ থেকে অন্য আইসিইউতে শিফট করে। রোগীগুলোকে অন্য হাসপাতাল ও নিজস্ব অন্য আইসিইউগুলোতে নিয়ে যাওয়া হয়।