ঢাকা ০৫:১৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

৪ মে থেকে রেলের ভাড়া সর্বোচ্চ ৭৩ টাকা বাড়ছে

গণমুক্তি রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : ০৫:৩৯:৪০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪ ৫০ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

৪ মে থেকে কোন যাত্রী ১০০ কিলোমিটার রেল ভ্রমণ করলে রেয়াত ছাড়া তাকে নির্ধারিত ভাড়া গুণতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রেলের এই প্রস্তাবনা অনুমোদন করেছেন

 

আগামী ৪ মে থেকে রেলের ভাড়া সর্চোচ্চ ৭৩ টাকা পর্যন্ত বৃদ্ধি পাবে। রেল ভ্রমণে এতোদিন যাত্রীরা যে রেয়াত পেতের ৪ মে থেকে সেই সুযোগ আর থাকছে না। ফলে ২০ থেকে ৭৩ টাকা পর্যন্ত রেলের ভাড়া বাড়বে। এমনটিই জানালো রেলভবন।

রেল ভ্রমণের ক্ষেত্রে ১০১ থেকে ১৫০ কিলোমিটার ভ্রমণে যাত্রী প্রতি ২০ শতাংশ রেয়াত ছিলো। আর ২৫১ থেকে ৪০০ কিলোমিটার পর্যন্ত ২৫ শতাংশ আর ৪০০ কিলোমিটারের ওপরে ভ্রমণে ৩০ শতাংশ রেয়াত কর নির্ধারিত রয়েছে।

কিন্তু ভ্রমণের ক্ষেত্রে এই পরিমাণ টাকা রেয়াত দিয়ে আসছিলো রেল কর্তৃপক্ষ। যা ৪ মে থেকে তুলে নেওয়া হচ্ছে।

সোমবার (২২ এপ্রিল) বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক সরদার শাহাদাৎ আলী সংবাদমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, আগামী ৪ মে থেকে রেয়াত প্রত্যাহারের মাধ্যমে ট্রেনের ভাড়া সমন্বয়ের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

 

৪ মে থেকে কোন যাত্রী কোন রেয়াত সুবিধা পাবে না। ভ্রমণের দুরত্ব অনুযায়ী রেলওয়ের নির্ধারিত ভাড়া গুণতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রেলের এই প্রস্তাবনা অনুমোদন করেছেন।

২০১২ সালের অক্টোবরে সর্বনিম্ন ৫ শতাংশ থেকে সর্বোচ্চ ১১০ শতাংশ পর্যন্ত ভাড়া বাড়ানো হয়েছিল। এরপর ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে ৭ থেকে ৯ শতাংশ আরেক দফায় ভাড়া বাড়ায় রেলওয়ে। এর প্রায় সাত বছর পর ২০২৩ সালের শেষার্ধে রেলওয়ের বিভিন্ন সেতু ও ভায়াডাক্টে পন্টেজ চার্জ আরোপের মাধ্যমে আয় বাড়ানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়।

রেলওয়েতে দূরত্বভিত্তিক রেয়াতি সুবিধা চালু হয়েছিল ১৯৯২ সালে। এর মধ্যে সেকশনভিত্তিক রেয়াত প্রত্যাহার করা হয় ২০১২ সালে। দূরত্বভিত্তিক রেয়াত সুবিধার কারণে দূরপাল্লার ভ্রমণে যাত্রী ও পণ্য পরিবহনের ভাড়া নির্ধারণ হয় দূরত্বের তুলনায় কম।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

৪ মে থেকে রেলের ভাড়া সর্বোচ্চ ৭৩ টাকা বাড়ছে

আপডেট সময় : ০৫:৩৯:৪০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪

 

৪ মে থেকে কোন যাত্রী ১০০ কিলোমিটার রেল ভ্রমণ করলে রেয়াত ছাড়া তাকে নির্ধারিত ভাড়া গুণতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রেলের এই প্রস্তাবনা অনুমোদন করেছেন

 

আগামী ৪ মে থেকে রেলের ভাড়া সর্চোচ্চ ৭৩ টাকা পর্যন্ত বৃদ্ধি পাবে। রেল ভ্রমণে এতোদিন যাত্রীরা যে রেয়াত পেতের ৪ মে থেকে সেই সুযোগ আর থাকছে না। ফলে ২০ থেকে ৭৩ টাকা পর্যন্ত রেলের ভাড়া বাড়বে। এমনটিই জানালো রেলভবন।

রেল ভ্রমণের ক্ষেত্রে ১০১ থেকে ১৫০ কিলোমিটার ভ্রমণে যাত্রী প্রতি ২০ শতাংশ রেয়াত ছিলো। আর ২৫১ থেকে ৪০০ কিলোমিটার পর্যন্ত ২৫ শতাংশ আর ৪০০ কিলোমিটারের ওপরে ভ্রমণে ৩০ শতাংশ রেয়াত কর নির্ধারিত রয়েছে।

কিন্তু ভ্রমণের ক্ষেত্রে এই পরিমাণ টাকা রেয়াত দিয়ে আসছিলো রেল কর্তৃপক্ষ। যা ৪ মে থেকে তুলে নেওয়া হচ্ছে।

সোমবার (২২ এপ্রিল) বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক সরদার শাহাদাৎ আলী সংবাদমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, আগামী ৪ মে থেকে রেয়াত প্রত্যাহারের মাধ্যমে ট্রেনের ভাড়া সমন্বয়ের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

 

৪ মে থেকে কোন যাত্রী কোন রেয়াত সুবিধা পাবে না। ভ্রমণের দুরত্ব অনুযায়ী রেলওয়ের নির্ধারিত ভাড়া গুণতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রেলের এই প্রস্তাবনা অনুমোদন করেছেন।

২০১২ সালের অক্টোবরে সর্বনিম্ন ৫ শতাংশ থেকে সর্বোচ্চ ১১০ শতাংশ পর্যন্ত ভাড়া বাড়ানো হয়েছিল। এরপর ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে ৭ থেকে ৯ শতাংশ আরেক দফায় ভাড়া বাড়ায় রেলওয়ে। এর প্রায় সাত বছর পর ২০২৩ সালের শেষার্ধে রেলওয়ের বিভিন্ন সেতু ও ভায়াডাক্টে পন্টেজ চার্জ আরোপের মাধ্যমে আয় বাড়ানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়।

রেলওয়েতে দূরত্বভিত্তিক রেয়াতি সুবিধা চালু হয়েছিল ১৯৯২ সালে। এর মধ্যে সেকশনভিত্তিক রেয়াত প্রত্যাহার করা হয় ২০১২ সালে। দূরত্বভিত্তিক রেয়াত সুবিধার কারণে দূরপাল্লার ভ্রমণে যাত্রী ও পণ্য পরিবহনের ভাড়া নির্ধারণ হয় দূরত্বের তুলনায় কম।