×
  • প্রকাশিত : ২০২২-০৬-১৬
  • ২৮ বার পঠিত
স্পোর্টস ডেস্ক : বছরের শুরুতে নিউ জিল্যান্ডের মাটিতে টেস্ট জিতে ভালো কিছুর আভাস দিয়েছিলেন অধিনায়ক মুমিনুল হক। কিন্তু সময়ের সঙ্গে মুমিনুল যেন মাঝসমুদ্রের দিশেহারা নাবিক। তার পারফরম্যান্সের সঙ্গে দলের অবস্থাও নামতে থাকে তলানিতে। রানে ফিরতে নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়ান মুমিনুল। নেতৃত্বের ভার কাঁধে নেন দেশের ক্রিকেটের পোস্টারবয় সাকিব আল হাসান। ক্যাপ্টেন হিসেবে সাকিবের তৃতীয় যাত্রা শুরু হতে যাচ্চে আজ বৃহস্পতিবার (১৬) থেকে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে অ্যান্টিগার স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস বাংলাদেশ সময় আজ রাত ৮টায় মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। শুধু তাই নয় অধিনায়ক হিসেবে সাকিবের প্রথম এবং দ্বিতীয় যাত্রাও এই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। প্রথম যাত্রায় তাদের মাটিতে সিরিজ জিতে শুভ সূচনা করেছিলেন সাকিব। ২০০৯ সালে জেতা সেই সিরিজই একমাত্র জয় তাদের মাটিতে। দ্বিতীয় যাত্রার শুরুটা হয়তো ভুলে যেতে চাইবেন আর আর তৃতীয় ও সম্ভবত শেষবারের মতো নেতৃত্বটা রাঙাতে চাইবেন নিশ্চই।


সাকিবকে এখন নিজের পারফরম্যান্সের সঙ্গে ভাবতে হবে দলকে নিয়েও। অধিনায়ক হওয়ার পর প্রথম সংবাদ সম্মেলনে তার কণ্ঠে শোনা গেলো সেই সুর। যেন দিলেন বার্তাও। ‘ব্যক্তিগত পারফরম্যান্স নিয়ে আমি খুব একটা ভাবছি না। দলীয় পারফরম্যান্স নিয়েই ভাবছি। টেস্টে সাম্প্রতিক সময়ে (আমরা) ভালো খেলিনি। এখন সুযোগ সবাইকে ভুল প্রমাণ করার। আমরা আসলেই ভালো করতে পারি। সেখান থেকে সামনে যেতে পারি। এ ম্যাচে ভালো করতে পারলে সিরিজের জন্য ভালো শুরু হবে।’

ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে বাংলাদেশের রেকর্ড ভালো নয়। ১৮ ম্যাচে জয় মাত্র ৪টিতে। আর তাদের মাটিতে ৭টি খেলে জয় ২টিতে। সবশেষ তিনটি সিরিজের বাংলাদেশ জিতেছে একটি সিরিজ, তাও দেশের মাটিতে। আর সবশেষ সফরে দুই টেস্টেই হার, একটিতে ইনিংসসহ। প্রথম টেস্টের ভেন্যু অ্যান্টিগায় আছে সর্বনিম্ন ৪৩ রানে অলআউট হওয়ার বাজে রেকর্ডও।

সাকিবকে এসব মাথায় নিয়েই নামতে হবে উইন্ডিজের বিপক্ষে। সেরা দল তিনি পাচ্ছেন না প্রথম সিরিজে। ব্যাটিংয়ে নেই দেশের মাঠে গতমাসে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টানা দুই সেঞ্চুরি করা মুশফিকুর রহিম। ইনজুরিতে ছিটকে গেছেন ইয়াসির আলী রাব্বি। তার পরিবর্তে নেওয়া হয়েছে এনামুল হক বিজয়কে। যদিও তিনি দ্বিতীয় টেস্টের আগে যোগ দিতে পারবেন না। এই জায়গায় একাদশে দেখা যেতে পারে নুরুল হাসান সোহানকে।

এছাড়া ফ্রন্ট লাইনের দুই পেসার তাসকিন আহমেদ কিংবা শরিফুল ইসলামও নেই। পেসারের দায়িত্ব সামাল দিতে হবে টেস্ট না খেলতে চাওয়া মোস্তাফিজুর রহমানকে। তার সঙ্গী হতে পারেন ইবাদত হোসেন ও খালেদ আহমেদ। সাকিব পেসারদের কাছে ভালো বোলিংয়ের প্রত্যাশা করছেন। আগের তুলোনায় উইকেট ভালো বলেও জানিয়েছেন বাংলাদেশ টেস্ট দলের নতুন কাণ্ডারি। চতুর্থ কিংবা শেষ দিনে স্পিনাররা পার্থক্য গড়ে দিতে পারে বলে মনে করছেন তিনি।

‘আমার মনে হয়, পুরোপুরি আলাদা উইকেট, চার বছরের আগে থেকে, আপনি যেমন বললেন। তবে আমার কাছে মনে হচ্ছে উইকেট ব্যাটিংয়ের জন্য ভালো। অবশ্য চতুর্থ ইনিংসে ব্যাটিং কঠিন হবে, স্পিনাররা কাজে আসবে তখন। গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে, প্রথম ইনিংসে কেমন ব্যাটিং করি। শুরুতে ব্যাটিং বা বোলিং যাই করি না কেন, তেমন কোনো পার্থক্য হবে না। যতক্ষণ পর্যন্ত না আপনি ভালো করছেন। আমাদের সব কিছুর জন্যই প্রস্তুত থাকতে হবে। ছেলেরা চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত।’

বাংলাদেশ কী তিন পেসার নাকি দুই পেসার নিয়ে সেটি দেখার বিষয়। তিন পেসার খেললে বাদ পড়তে হতে পারে তাইজুল ইসলামকে। তখন স্পিনে সামাল দেবেন সাকিব ও চোট কাটিয়ে দলে ফেরা মেহেদি হাসান মিরাজ। ব্যাটিংয়ের কারণে মিরাজ এগিয়ে থাকবেন তাইজুল থেকে। আর যদি দুই পেসার নিয়ে খেলে তাহলে তাইজুলের খেলা নিশ্চিত। সেক্ষেত্রে বাদ পড়তে পারেন খালেদ।

এদিকে টেস্ট শুরুর ১৮ ঘণ্টা আগে সুখবর পেয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ফিটনেস টেস্টে পাস করে দলে জায়গা করে নিয়েছেন কেমার রোচ। অভিজ্ঞ এই পেসারকে নিয়েই গড়া হতে পারে ক্যারিবিয়ানরা। অধিনায়ক ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট রোচের অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে চাইবেন নিশ্চয়। বাংলাদেশের টপ অর্ডারদেরো মাথা ব্যথার কারণ হয়ে উঠতে পারেন এই রোচ।

বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ: তামিম ইকবাল, মাহমুদুল হাসান জয়, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুমিনুল হক, লিটন দাস, সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), নুরুল হাসান সোহান (উইকেটকিপার), মেহেদি হাসান মিরাজ, খালেদ আহমেদ/তাইজুল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান ও ইবাদত হোসেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...
ক্যালেন্ডার...

Sun
Mon
Tue
Wed
Thu
Fri
Sat