×
  • প্রকাশিত : ২০২২-০৮-০৪
  • ৬৪ বার পঠিত
নিজস্ব প্রতিবেদক : চুমু খেলে বাড়ে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কিংবা দাম্পত্য জীবনে চুমুর গভীর প্রভাব বা নানামুখি উপকারিতা রয়েছে। এ ধরনের বেশ কিছু তথ্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পাওয়া যায়। এমনকি অনেক সময় বলে দেওয়া হয়- ‘চুমুই আপনার বাঁচার শক্তি বাড়াবে’ অথবা ‘চুমু খেলে আদান-প্রদান হয় ব্যাকটেরিয়া, যা শরীরের জন্য ভীষণ উপকারী’।

অনেক সময় এ ধরনের সংবাদে গবেষণারও দাবি করা হয়। বলা হয়- চুমু খাওয়া কেন এত গুরুত্বপূর্ণ জানতে এই গবেষণা। কিন্তু কোথায় বা কারা এ ধরনের গবেষণা করেছেন স্পষ্ট উল্লেখ থাকে না। বিভিন্ন অনলাইনে প্রকাশিত এ ধরনের একাধিক সংবাদ বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, তথাকথিত সেই গবেষণা জানাচ্ছে, চুমু খেলে জিভ একে ওপরের সংস্পর্শে আসে। তখন একজনের লালা অন্যের শরীরের লালার সঙ্গে মিশে যায়। তখন একজনের শরীর থেকে ব্যাকটেরিয়া পৌঁছে যায় অন্যজনের শরীরে। এই সময় কোটি কোটি ব্যাকটেরিয়া আদান-প্রদান হয়। চুমু খাবার সময় ১০ সেকেন্ডে ৮ কোটি ব্যাকটেরিয়া আসা যাওয়া করে- এ ধরনের তথ্যও পাওয়া যায়। আর এতেই বাড়ে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা।     

এ ছাড়াও চুমু খাওয়ার ফলে সম্পর্কের গভীরতা বাড়ে, শরীরে ইমিউনিটি বাড়ে, উদ্বেগ কমে, দাঁতের উপকার হয়, মন-মেজাজ ফুরফুরে থাকে, রক্তচাপ কমায়, মুখের ব্যায়াম হয়, বয়সের ছাপ দূর হয়, মাইগ্রেনের ব্যথা দূর হয়, শরীরের ব্যথা বেদনা কমে- এমনটাও দাবি করা হয়। এর সবগুলোই যে ভুল ধারণা এমন নয়। দাম্পত্য জীবনে চুমুর প্রভাব রয়েছে। 

চুমু খেলে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে কিনা এ প্রসঙ্গে জানতে কথা হয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তঃক্ষরা গ্রন্থিবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান ও অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আবুল হাসানাত ও চর্ম ও যৌন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. হরষিত কুমার পালের সঙ্গে। তারা চুমুর কিছু উপকারিতা থাকলেও রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা নেই বলে জানান। এবং অনলাইনে এ প্রসঙ্গে যে তথ্যগুলো পাওয়া যায় এর অনেকগুলোই ‘ভ্রান্ত ধারণা’ বলে উল্লেখ করেন। 

চুমুর উপকারিতা আছে কিনা এ প্রশ্নের উত্তরে ড. মুহাম্মদ আবুল হাসানাত বলেন, ‘এ ব্যাপারে আসলে আমার আইডিয়া নেই। তবে এগুলো মুখরোচক গল্প, এসব কাজের গল্প না।’ বিষয়টিকে তিনি ‘অবাস্তব টাইপের কথাবার্তা’ বলেন। 

ডা. হরষিত কুমার পাল বলেন, ‘ফেইসবুক ও নানান পত্রপত্রিকায় এমন বিষয় দেখেছি। আসলে এসবের বেশির ভাগই ভুয়া কথাবার্তা বা আংশিক কথা। যদি কোনো গবেষণা থাকে সেটা কাদের উপর হয়েছে? কতদিন ধরে হয়েছে? কোন বয়সের মানুষের উপর হয়েছে? তাদের মানসিক অবস্থা কেমন ছিল এসব বিষয় দেখতে হবে।’

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...
ক্যালেন্ডার...

Sun
Mon
Tue
Wed
Thu
Fri
Sat