×
  • প্রকাশিত : ২০২২-১১-২০
  • ৭৭ বার পঠিত
আজাদ রহমান, নিউইয়র্ক : আমেরিকার প্রভাবশালি গণমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্ট শুক্রবার বাংলাদেশের খেলার উন্মাদনা নিয়ে বড় একটি প্রতিবেদন করেছে। এতে বাংলাদেশে আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল উন্মাদনার ইতিহাস থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মারামারি পর্যন্ত উঠে  এসেছে। বিশ্বকাপ এলেই দুই ভাগে ভাগ হয়ে যায় বাংলাদেশের মানুষ। ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা ফুটবল টিমকে নিয়ে বাংলাদেশে যে উন্মাদনা দেখা যায় তা বিশ্বে বিরল। বিষয়টি চোখ এড়ায়নি বিদেশী গণমাধ্যমগুলোরও। 
ওই রিপোর্টে সবথেকে বেশি গুরুত্ব পেয়েছে এদেশের মানুষের পছন্দের দলের পতাকা টানানোর দিকটি। বিশ্বকাপ এলেই কীভাবে বাংলাদেশের মানুষ আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিলের পতাকা টানায় তার বর্ণনা রয়েছে সেখানে। বাড়ির ছাদ, বারান্দা এমনকি সেতুতেও এই দুই দেশের পতাকা আঁকা হয়েছে। বাংলাদেশিরা বিশ্বকাপের সময় ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা নিয়ে তর্কে মেতে থাকে। কখনও কখনও সেটি পাথর ছোড়াছুঁড়িতেও রূপ নেয় বলে লিখেছে ওয়াশিংটন পোস্ট। 

ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা নিয়ে এত সব ঘটনা ঘটছে এমন একটি দেশে, যার রাজধানী রিও ডি জেনিরো থেকে সাড়ে নয় হাজার মাইল ও বুয়েন্স আয়ার্স থেকে প্রায় সাড়ে ১০ হাজার মাইল দূরে। এমন একটি দেশে ফুটবল নিয়ে এই উত্তেজনা, যেটিকে ক্রিকেটপাগল দেশ বলে মনে করা হয়। এমনকি এদেশের বেশিরভাগ মানুষেরই তার জীবনে কোনো আর্জেন্টাইন বা ব্রাজিলীয়র সঙ্গে দেখা হয়নি।

জনসংখ্যার দিক থেকে বাংলাদেশ একটি বড় দেশ। কিন্তু আপনি আর্জেন্টিনা-ভক্ত ও ব্রাজিল-ভক্তদের পরিপ্রেক্ষিতে গোটা দেশকে দু’ভাগে ভাগ করতে পারেন। তিনি বলেন, এটি একটি মজার বিষয়, তাই না? এটি কোনো যুক্তিই মানে না। দক্ষিণ আমেরিকা থেকে এত দূরে এশিয়ার মাঝামাঝি এই দেশটিতে ফুটবল নিয়ে এমন প্রতিদ্বন্দিতা কেন? এটি ব্যাখ্যা করা কঠিন।

ওই রিপোর্টে বলা হয়, আশির দশকেই যে এই ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে সে বিষয় একমত সবাই। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়। এরপর এক দশক লেগে যায় সেই ধাক্কা সামলাতে। মানুষ যখন রঙিন টেলিভিশন কিনতে শুরু করে তখনই তারা ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার রঙ বেরঙের জার্সি পড়া খেলোয়াড়দের দেখতে শুরু করে। আর সেসময়ই মানুষ এই দুই দলের ভক্ত হতে শুরু করে। তবে এ ক্ষেত্রে ডিয়েগো ম্যারাডোনার কথা আলাদা করে না বললেই নয়। 
ওই রিপোর্টে বলা হয়, বাংলাদেশের মানুষ এত ভালোবাসলেও বাংলাদেশের ফুটবল উন্নতি করতে পারেনি। ক্রিকেটে যেখানে বাংলাদেশ ওয়ানডে ৭ম স্থানে, সেখানে ফিফার মতে বাংলাদেশ ১৯২তম অবস্থানে। তবে বিশ্বকাপের সময় এসব ভুলে বাংলাদেশিরা তাদের পছন্দের দুই দলকে সমর্থনে মেতে ওঠেন।  

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...
ক্যালেন্ডার...

Sun
Mon
Tue
Wed
Thu
Fri
Sat