×
  • প্রকাশিত : ২০২২-১১-২১
  • ৬৮ বার পঠিত
আন্তর্জাতিক ডেস্ক : সোমবার ইন্দোনেশিয়ার প্রধান দ্বীপ জাভাতে ৫.৬ মাত্রার ভূমিকম্পে কমপক্ষে ৪৪ জন নিহত এবং শতাধিক আহত হয়েছে। স্থানীয় কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা এএফপি।

এছাড়াও ভূমিকম্পে ভবনের ক্ষতিসহ ভূমিধস হয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভূতাত্ত্বিক জরিপ অনুসারে, ভূমিকম্পটি পশ্চিম জাভার সিয়ানজুর অঞ্চলে কেন্দ্রীভূত ছিল এবং এটি জাকার্তার রাজধানী পর্যন্ত অনুভূত হয়েছিল, যেখানে আতঙ্কিত বাসিন্দারা রাস্তায় নেমে আসে।

সিয়াঞ্জুর শহরের স্থানীয় প্রশাসনের একজন মুখপাত্র অ্যাডাম এএফপিকে বলেছেন, এখানে কয়েক ডজন লোক নিহত হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৪৪ জন মারা গেছে। ভূমিকম্পে হাজার হাজার ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

নির্দিষ্ট পরিসংখ্যান প্রদান না করেই কম্পনে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ শহরের স্থানীয় প্রশাসনের প্রধান বলেছেন, বেশিরভাগ মৃত্যু শুধুমাত্র একটি হাসপাতালেই গণনা করা হয়েছিল, আশেপাশের গ্রামের আরও অনেককে এখনও সরিয়ে নেওয়া হয়নি।

হারমান সুহারম্যান মেট্রো টিভি সম্প্রচারকারীকে বলেছেন, ‘আমি আপাতত যে তথ্য পেয়েছি, শুধুমাত্র এই হাসপাতালে, প্রায় ২০ জন মারা গেছে এবং কমপক্ষে ৩০০জনকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।’

ভবনের ধ্বংসাবশেষে আটকা পড়ায় তাদের বেশিরভাগেরই হাড় ভেঙ্গে গেছে।
স্থানীয় গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, ভূমিকম্পে শহরের দোকানপাট, একটি হাসপাতাল এবং একটি ইসলামিক বোর্ডিং স্কুল মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সম্প্রচারকারীরা সিয়ানজুরে বেশ কয়েকটি ভবন দেখিয়েছেন, যার ছাদ ধসে পড়েছে এবং ধ্বংসাবশেষ রাস্তায় পড়ে আছে।

সুহারম্যান বলেন, নিহতদের আত্মীয়রা শহরের সায়াং হাসপাতালে জড়ো হয়েছিল এবং সতর্ক করে দিয়েছিল যে শহরের বাইরের গ্রামবাসীরা এখনও আটকা পড়ে থাকতে পারে বলে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়তে পারে।
তিনি আরও বলেন, ‘বর্তমানে আমরা এই হাসপাতালে জরুরী অবস্থায় থাকা লোকদের পরিচালনা করছি। গ্রাম থেকে অ্যাম্বুলেন্সগুলি হাসপাতালে আসতে থাকে। গ্রামে অনেক পরিবার আছে যাদেরকে সরিয়ে নেওয়া হয়নি।’

দেশটির দুর্যোগ প্রধান সুহারিয়ন্তো বলেছেন, সিয়াঞ্জুর এলাকায় কমপক্ষে ১৪ জন মারা গেছেন। তবে তথ্য এখনও বিকাশমান বলে তিনি জানিয়েছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...
ক্যালেন্ডার...

Sun
Mon
Tue
Wed
Thu
Fri
Sat