×
  • প্রকাশিত : ২০২২-০৩-২৩
  • ৯২ বার পঠিত
স্পোর্টস রিপোর্টার : গতকাল মঙ্গলবার (২২ মার্চ) রাতে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র লিমিটেড এর পরিচালনা পরিষদের গুরুত্বপূর্ণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। চলমান বাংলাদেশ প্রিমিয়ার ফুটবল লীগ ২০২১-২২ এর বিতর্কিত রেফারিংয়ের কারণে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র লিমিটেড এর পয়েন্ট হারানোর বিষয়টি নিয়ে প্রচণ্ড ক্ষোভ ও হতাশা প্রকাশ করেছেন পরিচালকরা। দুটি ম্যাচে রেফারির অন্যায় সিদ্ধান্তের শিকার হয়েছে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র লিমিটেড। বসুন্ধরা কিংস ও বাংলাদেশ পুলিশ এফ সি এর ম্যাচ দুটিতে আমাদের বিপক্ষে দুটি ভুল পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দিয়েছেন রেফারি। তাতে বসুন্ধরা কিংসের বিপক্ষে আমরা পয়েন্ট হারিয়েছি আর রাজশাহীতে পুলিশ এফ সি এর ম্যাচে আমরা বঞ্চিত হয়েছি জয়ের। সভায় বারবার ম্যাচ দুটির ভিডিও দেখেছেন পরিচালকরা, এরপর বিস্তারিত আলোচনা শেষে নেওয়া হয়েছে নিম্ন লিখিত সিদ্ধান্ত গুলো।

সিদ্ধান্ত:
১. ওই দুই ম্যাচের রেফারিকে নিষিদ্ধ করে শাস্তির আওতায় আনতে হবে। দুটি ম্যাচে বাজে রেফারিং নিয়েই আমরা বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি এবং লীগ কমিটি ও রেফারিজ কমিটির চেয়ারম্যানের বরাবরে আনুষ্ঠানিকভাবে চিঠি দিয়েছিলাম। কিন্তু তারা দৃশ্যমান কোনো উদ্যোগ নেয়নি। তাই আমাদের দাবি, আগামী রাউন্ডের খেলা শুরুর আগেই দুই ম্যাচের রেফারির বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে হবে বাফুফেকে।
২. দাবি অনুযায়ী বাফুফে কোনো ব্যবস্থা না নিলে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র লিমিটেড লীগ বয়কট করতে বাধ্য হবে। সে ক্ষেত্রে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের প্রধান উপদেষ্টা ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শরণাপন্ন হব আমরা।
৩. পরবর্তী সময়ে দুটি ম্যাচের ভিডিওসহ ফিফা-এএফসির বরাবরে অভিযোগ করব আমরা।
৪.এই মৌসুমের শুরু থেকেই বাজে রেফারিংয়ের শিকার হচ্ছে দলগুলো। তাই সুন্দর ও নিরপেক্ষভাবে ম্যাচ পরিচালনার জন্য বিদেশি রেফারি আনার দাবি জানাচ্ছে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র লিমিটেড।
৫. পেশাদার ফুটবল লিগ কমিটির চেয়ারম্যান ও রেফারিজ কমিটির চেয়ারম্যান একই ব্যক্তি থাকতে পারেন না। অতীতেও কখনো এ রকম হয়নি। লিগ ও রেফারিজ কমিটির চেয়ারম্যান সালাম মুর্শেদী এ পর্যন্ত লিগের একটি ম্যাচও মাঠে বসে দেখেননি, তাই মাঠে রেফারির পারফরম্যান্স সম্পর্কে তাঁর কোনো ধারণাই নেই।
৬.ফিফা-এএফসির আইন অনুযায়ী, রেফারিজ কমিটির চেয়ারম্যান হবেন সাবেক রেফারি। এখানে লিগ কমিটির প্রধান সালাম মুর্শেদী নিজের হাতে রেফারিজ কমিটির দায়িত্ব রেখে সুস্পষ্টভাবে ফিফার আইন লঙ্ঘন করেছেন।

শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র লিমিটেড আগে কখনো এত কঠোর সিদ্ধান্ত নেয়নি। এবার বিতর্কিত রেফারিং চরম আকার ধারণ করেছে এবং আমরা তার ভুক্তভোগী। কিন্তু বাফুফের কোনো উদ্যোগ না দেখে আমরা খুব হতাশ হয়েছি। তাই শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র লিমিটেড এর পরিচালনা পরিষদ উপরোক্ত সিদ্ধান্তগুলো নিয়েছে। আশা করি, এই সিদ্ধান্তগুলো আপনার সংবাদমাধ্যমে গুরুত্বের সঙ্গে প্রকাশ করে দেশের ফুটবলকে এগিয়ে নিতে সাহায্য করবেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...
ক্যালেন্ডার...

Sun
Mon
Tue
Wed
Thu
Fri
Sat