ঢাকা,বৃহস্পতিবার,৩১০ ভাদ্র ১৪২৮,১৩,মে,২০২১ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : > সাধারণ মানুষকে অবাক করে খাবার তুলে দিচ্ছেন ইউএনও তানভীর   > করোনা ভাইরাসের মধ্যেও দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রয়েছে: পানিসম্পদ উপমন্ত্রী শামীম   > শ্রীনগরে চাঁদা না দেওয়ায় প্রবাসীকে মারধরের অভিযোগ   > গাইবান্ধায় বেড়েছে কাউন চাষ   > সিরাজদিখানে দেড় হাজার পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার   > সিলেটে আতিকুর রহমানের সমর্থনে দক্ষিণ সুরমা জাতীয় পার্টির কর্মীসভা   > অপরিপক্ক ফলে ঝালকাঠির বাজার সয়লাব   > বান্দরবানে পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে দু:স্থ ও অসহায়দের উপহার দিল শ্রমিক লীগ   > অনুশীলনে বাধা নেই টাইগারদের   > বলিউড সিনেমায় অভিনয় প্রসঙ্গে যা বললেন নানি  

   আইন ও আদালত -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
নিউমার্কেটে মাস্ক না পরায় ৩১ ক্রেতা ও বিক্রেতাকে জরিমানা

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর নিউ মার্কেট, গাউছিয়া মার্কেট ও আশপাশের এলাকায় মাস্ক না পরায় মার্কেটের ৩১ ক্রেতা-বিক্রেতাকে জরিমানা করা হয়েছে। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ভ্রাম্যমাণ আদালত শনিবার দুপুরে অভিযান চালিয়ে এই জরিমানা করেন। ডিএমপির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শেখ রফিকুল হকের নেতৃত্বে নিউ মার্কেট এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এ সময় মাস্ক ব্যবহার না করার অপরাধে ১৪ জন ক্রেতা-বিক্রেতাকে মোট ১৩ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়। অপরদিকে, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ডা. সঞ্জীব দাশ নূর ম্যানসন, গাউছিয়া মার্কেট ও এলিফ্যান্ট রোড এলাকায় আরেকটি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এ সময় মাস্ক ব্যবহার না করায় মোট ১৭ জন ক্রেতা-বিক্রেতাকে ১৮ হাজার টাকা জরিমানা করেন। করোনাভাইরাসের সংক্রমণরোধে মাস্ক ব্যবহারের ক্ষেত্রে আগামী ১৬ মে পর্যন্ত বিধিনিষেধের মেয়াদ বাড়িয়েছে সরকার। সর্বশেষ জারি করা প্রজ্ঞাপনে ঈদ উপলক্ষে একাধিক নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে। এসব নির্দেশনা না মানলে সংক্রমণ আবারও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এমন পরিস্থিতি হলে আবারও কঠোর বিধিনিষেধের পথেই হাঁটবে সরকার- এমনটাই বলা হয়েছে প্রজ্ঞাপনে।

নিউমার্কেটে মাস্ক না পরায় ৩১ ক্রেতা ও বিক্রেতাকে জরিমানা
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর নিউ মার্কেট, গাউছিয়া মার্কেট ও আশপাশের এলাকায় মাস্ক না পরায় মার্কেটের ৩১ ক্রেতা-বিক্রেতাকে জরিমানা করা হয়েছে। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ভ্রাম্যমাণ আদালত শনিবার দুপুরে অভিযান চালিয়ে এই জরিমানা করেন। ডিএমপির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শেখ রফিকুল হকের নেতৃত্বে নিউ মার্কেট এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এ সময় মাস্ক ব্যবহার না করার অপরাধে ১৪ জন ক্রেতা-বিক্রেতাকে মোট ১৩ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়। অপরদিকে, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ডা. সঞ্জীব দাশ নূর ম্যানসন, গাউছিয়া মার্কেট ও এলিফ্যান্ট রোড এলাকায় আরেকটি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এ সময় মাস্ক ব্যবহার না করায় মোট ১৭ জন ক্রেতা-বিক্রেতাকে ১৮ হাজার টাকা জরিমানা করেন। করোনাভাইরাসের সংক্রমণরোধে মাস্ক ব্যবহারের ক্ষেত্রে আগামী ১৬ মে পর্যন্ত বিধিনিষেধের মেয়াদ বাড়িয়েছে সরকার। সর্বশেষ জারি করা প্রজ্ঞাপনে ঈদ উপলক্ষে একাধিক নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে। এসব নির্দেশনা না মানলে সংক্রমণ আবারও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এমন পরিস্থিতি হলে আবারও কঠোর বিধিনিষেধের পথেই হাঁটবে সরকার- এমনটাই বলা হয়েছে প্রজ্ঞাপনে।

বিচারকাজে গতি আনতে হাইকোর্টে আরও দুই বেঞ্চ
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : চলমান সর্বাত্মক বিধিনিষেধের মধ্যে বিচারকাজ অব্যাহত রাখতে হাইকোর্টের আরও দুটি বেঞ্চ গঠন করেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। গতকাল বুধবার নতুন দুটি বেঞ্চ গঠন করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। নতুন দুটি বেঞ্চ হলো- বিচারপতি মামনুন রহমান ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এবং বিচারপতি শেখ মো. জাকির হোসেন ও বিচারপতি খিজির হায়াতের হাইকোর্ট বেঞ্চ। দুটি বেঞ্চ সব ধরনের ফৌজদারি মোশন গ্রহণ করবেন ও জামিন শুনানি করবেন বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে। এর আগে গত ৫ এপ্রিল কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যে বিচারকাজ অব্যাহত রাখতে চারটি ভার্চুয়ালি বেঞ্চ গঠন করেন প্রধান বিচারপতি। সার্কুলারে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের ডিভিশন বেঞ্চকে রিট মামলার দায়িত্ব, বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি শাহেদ নূরউদ্দিনের ডিভিশন বেঞ্চকে দেওয়ানি মামলার দায়িত্ব, বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের ডিভিশন বেঞ্চকে ফৌজদারি মামলার দায়িত্ব এবং বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের একক বেঞ্চকে কোম্পানি বেঞ্চের দায়িত্ব দেওয়া হয়। গতকালের নতুন দুটি বেঞ্চ গঠনের ফলে কঠোর বিধিনিষেধ চলাকালীন মোট ছয়টি হাইকোর্ট বেঞ্চে বিচারকাজ চলবে। যেকোনো প্রতিকূল পরিস্থিতে বিচারকাজ অব্যাহত রাখতে ২০২০ সালের ৯ মে রাষ্ট্রপতি আদালত কর্তৃক তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার অধ্যাদেশ জারি করেন। গত বছরের ১০ মে থেকে ভার্চুয়ালি আদালতে বিচারকাজ শুরু হয়। পরে ভিডিও কনফারেন্সসহ অন্যান্য ডিজিটাল মাধ্যমে আদালতের কার্যক্রম পরিচালনার বিধান রেখে জাতীয় সংসদে আদালত কর্তৃক তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার বিল- ২০২০ পাস হয়।

ডাক্তার, পুলিশ ও ম্যাজিস্ট্রেট বাগবিতণ্ডায় আদেশ দেননি হাইকোর্ট
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ভিডিও নিয়ে আদালতে পুলিশ ও ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক সিনিয়র চিকিৎসক হয়রানির শিকার হয়েছেন এমন একটি আবেদন করেন একজন আইনজীবী। এলিফ্যান্ট রোডে মুভমেন্ট পাস ও পরিচয়পত্র দেখতে চাওয়া নিয়ে ওই নারী চিকিৎসকের সঙ্গে ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশের বাগবিতণ্ডার বিষয়ে গতকাল সোমবার কোনো আদেশ দেননি হাইকোর্ট। বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের দ্বৈত বেঞ্চে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইউনুস আলী আকন্দ বাগবিতণ্ডার ঘটনাটি নিয়ে প্রকাশিত সংবাদপত্রের প্রতিবেদন আদালতের নজরে এনে সুয়ো মুটো আদেশের জন্য আবেদন করেছিলেন। তবে এই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত বলেন, ওই ঘটনায় আইনজীবী সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি নন। তাই তিনি এ ব্যাপারে আদেশ চাইতে পারেন না। অ্যাডভোকেট ইউনুস আলীকে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম বলেন, ‘ওই ঘটনায় সংক্ষুব্ধ কেউ আমাদের কাছে আদেশ চাইলে আমরা ব্যাপারটি দেখব’।

নকল কিট, রি এজেন্ট জব্দের মামলায় নয়জন রিমান্ডে
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : করোনাভাইরাস, এইচআইভি ও রক্তসহ নানা ধরনের পরীক্ষার রি-এজেন্ট, কিট এবং অননুমোদিত মেডিকেল ডিভাইস জব্দ করার ঘটনায় তিন প্রতিষ্ঠানের নয়জনকে তিনদিন করে রিমান্ড দিয়েছেন আদালত। গতকাল শনিবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জসিম এই আদেশ দেন। ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আসামিদের হাজির করে ১০ দিন রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেন। শুনানি শেষে বিচারক তিনদিন করে রিমান্ডে নেওয়ার আদেশ দেন। রিমান্ডকৃতরা হলেন বায়োল্যাব ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের স্বত্ত্বাধিকারী মো. শামীম মোল্লা (৪০), ব্যবস্থাপক মো. শহীদুল আলম (৪২), প্রধান প্রকৌশলী আবদুল্লাহ আল বাকী ছাব্বির (২৪), অফিস সহকারী মো. জিয়াউর রহমান (৩৫), হিসাবরক্ষক মো. সুমন (৩৫), অফিস ক্লার্ক ও মার্কেটিং অফিসার জাহিদুল আমিন পুলক (২৭), সার্ভিস ইঞ্জিনিয়ার মো. সোহেল রানা (২৮), এক্সন টেকনোলজিস্ট অ্যান্ড সার্ভিসেস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. মাহমুদুল হাসান (৪০), হাইটেক হেলথ কেয়ার লিমিটেডের এমডি এস এম মোস্তফা কামাল (৪৮)।

বিচারক-কর্মচারীদের কর্মস্থল ত্যাগ না করার নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : সরকার ঘোষিত লকডাউনের কারণে সারা দেশে আদালতে বিচারিক কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হলেও বিচারক এবং আদালত কর্মকর্তা-কর্মচারিদের স্ব স্ব কর্মস্থল ত্যাগ না করতে নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট। গতকাল সোমবার হাইকোর্ট বিভাগের রেজিস্ট্রার মো. গোলাম রব্বানীর স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) এর প্রাদুর্ভাবজনিত উদ্ভুত পরিস্থিতিতে ৫ এপ্রিল থেকে আগামী ১১ এপ্রিল পর্যন্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের কার্যক্রম সীমিত করা হয়েছে। একইসঙ্গে অন্যান্য সব অধস্তন আদালত, ট্রাইব্যুনালের কার্যক্রম পরিচালনা না করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা থাকায় প্রত্যেক চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একজন করে ম্যাজিস্ট্রেট যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে শারীরিক উপস্থিতিতে দায?িত্ব পালন করবেন। ওই সময়ে (লকডাউন) অধস্তন আদালতে কর্মরত সব বিচারক এবং আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীকে কর্মস্থল ত্যাগ না করার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো। প্রসঙ্গত, করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধে আজ সোমবার থেকে সারাদেশে এক সপ্তাহের লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। রোববার (৪ এপ্রিল) এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকারের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।
ওই প্রজ্ঞাপনের ধারাবাহিকতায় লকডাউন চলাকালে সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে ভার্চুয়ালি চারটি বেঞ্চ (তিনটি দ্বৈত ও একটি একক) এবং সপ্তাহে দু’দিন আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতের বিচারিক কার্যক্রম চলবে। পাশাপাশি দেশের অধস্তন আদালতসমূহের মধ্যে জেলা ও মহানগর প্রতি একজন চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের মাধ্যমে জরুরি বিষয়ে বিচারকার্য পরিচালিত হবে।

লালপুরে ভেজাল গুড় তৈরি ব্যবসায়ীর কারাদণ্ড
                                  

লালপুর (নাটোর) প্রতিনিধি : নাটোরের লালপুরে ভেজাল গুড় তৈরী ও সংরক্ষণের অপরাধে মোস্তাক আলীর নামের এক ভেজাল গুড় ব্যবসায়ীকে চার মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। মোস্তাক উপজেলার বালিতিতা ইসলামপুর গ্রামে মৃত জমিন উদ্দিনের ছেলে। মঙ্গলবার বিকেলে ভেজাল গুড় তৈরী ও সংরক্ষণের অপরাধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাম্মী আক্তার ভেজাল গুড় ব্যবসায়ী মোস্তাক আলী কে চার মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন।র‌্যাব জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৫, সিপিসি-২, নাটোর ক্যাম্পের একটি বিশেষ অপারেশন দল কোম্পানী কমান্ডার এএসপি মোঃ মাসুদ রানা নেতৃত্বে দুপুর পর্যন্ত লালপুর উপজেলার বালিতিতা ইসলামপুর গ্রামে মৃত জমিন উদ্দিনের ছেলে মোস্তাক আলীর ভেজাল গুড় তৈরীর কারখানায় অভিযান চালানো হয়। এসময় ভেজাল গুড় কারখানা থেকে ১০ হাজার কেজি ভেজাল গুড়, সাড়ে ৪শ কেজি চিনি, ৮০ কেজি ফিটকিরি, ১০ কেজি ডালডা জব্দ করা হয়। এসময় ভেজাল গুড় তৈরি ও সংরক্ষণ করার অপরাধে কারখানা মালিক মোস্তাক আলীকে আটক করা হয়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাম্মী আক্তার ভেজাল গুড় তৈরী ও সংরক্ষণের অপরাধে আসামী মোস্তাক আলীকে চার মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন। ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্দেশে জব্দকৃত আলামত ধ্বংস করা হয়। এবং চিনি নিলামে বিক্রয় করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাম্মী আক্তার ভ্রাম্যমাণ আদালতের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

৬ জনের মৃত্যুদণ্ড, যাবজ্জীবন ৪ জনের
                                  

স্টাফ রিপোর্টার, শরীয়তপুর : শরীয়তপুর জেলা জজ আদালতের সাবেক পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) হাবীবুর রহমান ও তার ভাই মনির হোসেন হত্যা মামলায় ছয়জনের মৃত্যুদণ্ড ও সাতজনের বিভিন্ন মেয়াদের সাজা দিয়েছেন আদালত। গতকাল রোববার দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. শওকত হোসাইন এ রায় প্রদান করেন। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন, শহীদ তালুকদার, সফিক কোতোয়াল, শহীদ কোতোয়াল, শাহীন কোতোয়াল, সলেমান সরদার ও মজিবুর তালুকদার। অপরদিকে যাবজ্জীবন প্রাপ্তরা হলেন, সরোয়ার হোসেন বাবুল তালুকদার, বাবুল খান, ডাবলু তালুকদার ও টোকাই রশিদ তাদের সকলকে দশ হাজার টাকা করে জরিমানা ও অনাদায়ে ছয় মাস জেল দেয়া হয়েছে। এছাড়াও মন্টু তালুকদার, আসলাম সরদার, জাকির হোসেন মজনুর দুই বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। আদালত সূত্রে জানা যায়, গত ৪ মার্চ আলোচিত এ মামলায় আদালতে দুই পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ হয়। গত ৯ মার্চ ও ১৮ মার্চ রায়ের তারিখ ধার্য থাকলেও তা পিছিয়ে গতকাল রোববার এ মামলার রায় ঘোষণা করেন। মামলার এজাহার ও বাদীর পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ২০০১ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শরীয়তপুর-১ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ছিলেন জাজিরা উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান মোবারক আলী সিকদার। আর স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন হেমায়েত উল্লাহ আওরঙ্গ। ১ অক্টোবরের নির্বাচনে আওরঙ্গের পক্ষে অবস্থান নেয় স্থানীয় আওয়ামী লীগের একটি পক্ষ। ওই নির্বাচনে জাজিরা উপজেলার কয়েকটি কেন্দ্রের ভোট স্থগিত হয়। স্থগিত নির্বাচন নিয়ে ৫ অক্টোবর শহরে হাবীবুর রহমানের বাসভবনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর পক্ষে সভা চলছিল। সেখানে হামলা চালান আওরঙ্গ-সমর্থক যুবলীগের সাবেক নেতা সরোয়ার হোসেন বাবুল তালুকদারের লোকজন। তার ভাই মন্টু তালুকদার সেখানে গুলিবিদ্ধ হন। কিছুক্ষণ পর ওই বাসভবনে আবার হামলা হয়। তখন হাবীবুর রহমান ও তার ভাই মনির হোসেন মারা যান। হাবীবুর রহমান তখন আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। মনির হোসেন ছিলেন পৌরসভা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। পুলিশ ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, হাবীবুর রহমানের স্ত্রী জিন্নাত রহমানের করা হত্যা মামলায় আওরঙ্গকে প্রধান আসামি করা হয়। মোট ৫৫ ব্যক্তিকে আসামি করেন তিনি। পুলিশ তদন্ত শেষে আওরঙ্গের নাম বাদ দিয়ে ২০০৩ সালে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। মামলার বাদী তখন আদালতে নারাজি দেন। আদালত ওই আবেদন নামঞ্জুর করেন। এরপর জিন্নাত রহমান উচ্চ আদালতে রিট করেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে জিতে সাংসদ হয়েছিলেন আওরঙ্গ। ২০১৩ সালের ৩ আগস্ট সড়ক দুর্ঘটনায় আওরঙ্গ মারা যান। এরপর উচ্চ আদালত মামলাটি পুনরায় তদন্ত করে অভিযোগপত্র দাখিলের নির্দেশ দেন পুলিশকে। পুলিশ ২০১৩ সালের অক্টোবরে আদালতে ৫৩ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে। আওরঙ্গ ছাড়াও ওই মামলার এজাহারভুক্ত আসামি শাহজাহান মাঝি ও স্বপন কোতোয়াল মৃত্যুবরণ করেছে। শরীয়তপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) মীর্জা মো. হজরত আলী বলেন, ‘দুই ঘণ্টা যুক্তিতর্কের পর এ রায় ঘোষণা করেন বিচারক। মামলাটি গত ২০২০ সালের ১০ সেপ্টেম্বর প্রথম সাক্ষী গ্রহণ শুরু হয়। মামলায় বাদী পক্ষের ২৮ জন ও আসামি পক্ষের ২৫ জন সাক্ষ্যপ্রদান করেন। বর্তমানে ৫২ জন আসামির মধ্যে ২৬ জন জেল হাজতে, ১৩ জন জামিনে ও ১৩ জন পলাতক রয়েছেন। আসামি পক্ষের আইনজীবী মাসুদুর রহমান বলেন, ‘উচ্চ আদালতে আপিল করা হবে।’ হাবীবুর রহমানের ছেলে জেলা জজকোটের এপিপি ও শরীয়তপুর পৌরসভার মেয়র পারভেজ রহমান জন বলেন, ‘আমার বাবা ও চাচাকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। এ রায়ে আমি সন্তুষ্ট হতে পারিনি।’

‘পি কে হালদার যাদের অবহেলায় পালালো তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেবে আদালত’
                                  

কোর্ট রিপের্টার : বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর এস কে সুর চৌধুরী এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী শাহ আলমকে গ্রেফতার না করায় বিষ্ময় প্রকাশ করেছেন হাইকোর্ট। এ সময় দুদককে হাইকোর্ট বলেন, ‘কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলে মেহমানদারী করতে পারেন না। আপনারা পদক্ষেপ না নিলে আদেশ দিতে বাধ্য হব।’ গতকাল সোমবার বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি মহি উদ্দীন শামিমের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল বেঞ্চ বিস্ময় প্রকাশ করে প্রশ্ন তোলেন।
আদালতে এদিন দুদকের পক্ষে শুনানি করেন মো. খুরশিদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষের শুনানিতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক। তার সঙ্গে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মাহজাবিন রাব্বানী দীপা ও আন্না খানম কলি। বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী তানজীব-উল আলম ও খান মোহাম্মদ শামীম আজিজ। শুনানির এক পর্যায়ে হাইকোর্ট বলেন, পিকে হালদার ইস্যুতে অনেককে গ্রেফতার করা হচ্ছে না। তারা ঘুরে বেড়াচ্ছে। ১৬৪ ধারায় যাদের নাম এসেছে- শাহ আলম, এস কে শুর, পিকের বান্ধবী নাহিদা রুনাইকে কেন গ্রেফতার করা হচ্ছে না? দুদক তাদের গ্রেফতার না করলে আদালত তাদের গ্রেফতারের আদেশ দেবে। জবাবে দুদকের আইনজীবী বলেন, দুদকের চিঠির ভিত্তিতেই বাংলাদেশ ব্যাংকের বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ) তাদের ব্যাংক হিসাব ফ্রিজ করেছে। তখন দুদকের আইনজীবীর কাছে প্রশ্ন রেখে আদালত বলেন, গ্রেফতার করছেন না কেন? আপনারা পদক্ষেপ না নিলে আদেশ দিতে বাধ্য হব। আগে তাদের ধরেন। কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলে মেহমানদারী করতে পারেন না। পি কে হালদার কাদের অবহেলায় পালালো সেটা আদালত বের করবে এবং কঠোর ব্যবস্থা নেবে । পিকে হালদার নিষেধাজ্ঞার পরও কিভাবে পালালো সেটা দুদককে লিখিত আকারে এবং যাদের নাম জবানবন্দিতে এসেছে তাদের বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নিয়েছে সেটাও দুদককে জানাতে বলেছেন হাইকোর্ট। এপ্রিলেই প্রতিবেদন দাখিল করতে হবে বলে জানান আদালত। এর আগে গত ৫ জানুয়ারি প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা পাচার করার অভিযোগ নিয়ে বিদেশে পালিয়ে যাওয়া পি কে হালদারের মা লীলাবতী হালদার, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর এস কে সুর চৌধুরী ও সাবেক সচিব ও ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের চেয়ারম্যান এন আই খানসহ ২৫ জনের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দেন হাইকোর্ট।

শিশু নির্যাতন রোধে নজরদারী বাড়ানোর নির্দেশ হাইকোর্টের
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : বাংলাদেশে স্কুলে-মাদ্রাসায় যাতে শিশুদের ওপর শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন যাতে না হয় সেজন্য নজরদারি বাড়ানোর নির্দেশনা দিয়েছে হাইকোর্ট। শিশু আইনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিশুদের ওপর নির্যাতন শাস্তিযোগ্য অপরাধ হলেও সম্প্রতি এ ধরণের কিছু ঘটনা সামনে আসায় এই নিদের্শনা দেন হাইকোর্টের বেঞ্চ। সম্প্রতি চট্টগ্রামের হাটহাজারিতে মারকাযুল কোরআন ইসলামিক একাডেমি নামে একটি মাদ্রাসায় একটি শিশুকে অকথ্য নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর অভিযুক্ত শিক্ষককে বরখাস্ত ও গ্রেপ্তার করা হয়। বিষয়টি গত বৃহস্পতিবার আদালতের নজরে আনেন ডেপুটি এটর্নি জেনারেল আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার। ওইদিনই আদালত চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দেন রোববারের মধ্যে এ বিষয়ক অগ্রগতি প্রতিবেদন দিতে। গতকাল সেই প্রতিবেদন দেয়ার পর আদালত যেসব নির্দেশনা দেয়: দেশের সকল মাদ্রাসা ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সংবিধান ও দেশের প্রচলিত আইন মেনে চলতে হবে। মাদ্রাসা বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিশুদের মারধর করা, ভয়ভীতি দেখানো যাবে না এমন সরকারি নির্দেশনার বাস্তবায়ন। শিক্ষা মন্ত্রণালয়, শিক্ষা অধিদপ্তর এবং মাদ্রাসা বোর্ড বিষয়টি নজরদারি করবে, এর ব্যত্যয় ঘটলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়। শিশুটির নিরাপত্তা বিধানের অংশ হিসেবে তার বাড়িতে পুলিশ সদস্য মোতায়েন করতে হবে। নির্যাতনের শিকার শিশুটির পড়াশোনা যাতে বন্ধ না হয় সেটি মনিটরিং এ রাখা। নির্যাতনের ঘটনা যাতে শিশুটির ভবিষ্যতের ওপর কোন নেতিবাচক প্রভাব না ফেলে সেজন্য জেলা প্রশাসন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে। মারকাযুল কোরআন ইসলামিক একাডেমির প্রিন্সিপালকে সতর্ক করা হবে। ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার বিবিসিকে বলেন, আদালত তার নির্দেশনায় বলেছেন, শিক্ষানীতিতে নিষেধ থাকা সত্ত্বেও মাদ্রাসা ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিশুদের মারধর করা, ভয়ভীতি দেখানোর মত ঘটনা ঘটছে। এ ধরণের ঘটনা যাতে না ঘটে সেটি নিশ্চিত করার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। নির্যাতনের শিকার শিশুটির বাবা মোহাম্মদ জয়নাল বলেছেন, বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে তার বাড়িতে তিন জন পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। তাকে জানানো হয়েছে তার ছেলের নিরাপত্তায় ২৪ ঘণ্টা নিয়োজিত থাকবেন ওই পুলিশ সদস্যরা। এদিকে, শিশুটিকে স্থানীয় থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তার বাবা জানিয়েছেন, শিশুটি এখন শারীরিকভাবে সুস্থ আছে। কিন্তু সে মাদ্রাসায় ফিরে যেতে চাচ্ছে না। তিনি বলেন, ‘ভয় পাইছে তো, তাই মাদ্রাসায় ফেরত যাইতে চাইতেছে না। আমরা ভাবছি এখন না গেলে না যাক, এক-দুই মাস পরে একটু ভয় কমলে পাঠাবো তাকে।
গত ৯ই মার্চ ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়া তেত্রিশ সেকেন্ডের একটি ভিডিওতে দেখা যায়, লম্বা সাদা আলখাল্লা পরা এক ব্যক্তি ছোট্ট একটি শিশুকে ঘাড়ের কাছের কাপড় ধরে ঠেলতে ঠেলতে নিয়ে একটি ঘরে ঢোকায়। এরপর ওই শিক্ষক শিশুটিকে মাটিতে ফেলে বেত দিয়ে নির্দয়ভাবে পেটাতে দেখা যায়। ভাইরাল ভিডিও দেখ হাটাহাজারী উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন ওই শিক্ষার্থীকে মাদ্রাসা থেকে নিয়ে আসেন এবং অভিযুক্ত মাদ্রাসা শিক্ষক ও পরিচালককে নিয়ে আসেন। রাতে শিশুটির পরিবার মামলা না করলেও, পরদিন ১০ই মার্চ মি. জয়নাল বাদী হয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক মোহাম্মদ ইয়াহিয়ার নামে বাংলাদেশ ফৌজদারি দণ্ডবিধি ও শিশু আইনে মামলা করেন। ১০ই মার্চ ওই শিক্ষককে গ্রেপ্তার করা হয়। বর্তমানে তিনি কারাগারে রয়েছেন।

আশরাফুলকে দায়মুক্তি দেয়া হয়নি : দুদক আইনজীবী
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : গণপূর্ত অধিদপ্তরের সাবেক প্রধান প্রকৌশলি এবং হাউজিং অ্যান্ড বিল্ডিং রিসার্চ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক প্রকৌশলী আশরাফুল আলম এবং তার স্ত্রী সাবিহা আলমের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অনুসন্ধানে দুর্নীতি দমন কমিশনকে (দুদক) গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনটি প্রতিবেদকের সহযোগিতা নিতে বলেছেন হাইকোর্ট। গতকাল সোমবার সকালে বিচারপতি মো.নজরুল ইসলাম তালুকদার এবং বিচারপতি মহি উদ্দিন শামীমের ডিভশন বেঞ্চ এই আদেশ দেন। এ সময় দুদকের কৌঁসুলি খুরশীদ আলম খান সংযুক্ত ছিলেন। এর আগে গত ৪ মার্চ বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার এবং বিচারপতি মহি উদ্দিন শামীমের ডিভিশন বেঞ্চ ২০ কোটি টাকায় গণপূর্তের সাবেক প্রধান প্রকৌশলী আশরাফুল আলম এবং তার স্ত্রী সাবিহা আলমকে দায়মুক্তি প্রদানের বিষয়ে ‘ইনকিলাবে’ প্রকাশিত অনুসন্ধানী প্রতিবেদন সম্পর্কে ব্যাখ্যা তলব করেন। এ বিষয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কাছ থেকে খোঁজ-খবর নিয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলেন। গতকাল এ বিষয়ে ব্যাখ্যা প্রদান করেন সংস্থাটির কৌঁসুলি খুরশীদ আলম খান। ওই বেঞ্চের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক জানান, আদালতে দুদকের কৌঁসুলি খুরশীদ আলম খান তার ব্যাখ্যা প্রদান করেছেন। তিনি বলেছেন, প্রকৌশলী আশরাফুল আলমের স্ত্রী সাবিহা আলমের অনুসন্ধান এরই মধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। আশরাফুল আলমের সম্পদের অনুসন্ধান এখনও চলমান। তাকে এখনও দায়মুক্তি দেয়া হয়নি। দায়মুক্তি প্রক্রিয়ার নেপথ্যে ২০ কোটি টাকার লেনদেন প্রসঙ্গে আদালত জানতে চাইলে খুরশিদ আলম খান বলেন, ইনকিলাব প্রতিবেদক কিভাবে, কোত্থেকে এই তথ্য পেয়েছেন তা জানতে তাকে তলব করা হোক। তার কাছ থেকে প্রমাণাদি চাওয়া হোক। আদালত তখন বলেন, তার কাছে নিশ্চয়ই প্রতিবেদনে উল্লেখিত তথ্যের সপক্ষে প্রমাণাদি রয়েছে। এটি আমরা চাইবো না। দুদক বরং এই অনুসন্ধান-তদন্তের বিষয়ে প্রতিবেদকের সহযোগিতা নিতে পারে। প্রকৌশলী আশরাফুল আলম দম্পতির বিরুদ্ধে দুদকের অনুসন্ধানটির বিষয়ে পরবর্তীতে আদালত জানতে চাইবেন বলেও জানান আমিন উদ্দিন মানিক। তবে কবে জানতে চাইবেন এটির কোনো দিন-তারিখ আদালত উল্লেখ করেন নি।
প্রসঙ্গত: গত ২ মার্চ ‘দুর্নীতি দমনে দুদক স্টাইল/২০ কোটিতে প্রকৌশলী আশরাফুলের দায়মুক্তি !’ শীর্ষক প্রতিবেদন প্রকাশ করে ‘ইনকিলাব’। বিশেষ সংবাদদাতা সাঈদ আহমেদ’র প্রতিবেদনটি হাইকোর্টের দৃষ্টিগোচর হয়। প্রতিবেদনটি আমলে নিয়ে গত ৪ মার্চ বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার এবং বিচারপতি মহি উদ্দিন শামীমের ভার্চুয়াল ডিভিশন বেঞ্চ এ বিষয়ে খোঁজ-খবর নিয়ে দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খানকে ৮ মার্চের মধ্যে ব্যাখ্যা প্রদান করতে বলেন। এ ধারাবাহিকতায় গতকাল উপরোক্ত আদেশ দেন হাইকোর্ট।

জামিন পেলেন কার্টুনিস্ট কিশোর
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে রাষ্ট্রবিরোধী পোস্ট দেয়ার অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলায় গ্রেফতার কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোরের আগাম ৬ মাসের জামিন মঞ্জুর করেছেন হাইকোর্ট। এর ফলে তার বিরুদ্ধে অন্য কোনো মামলা না থাকায় কিশোর শিগগিরই মুক্তি পাবেন বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবী জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। গতকাল বুধবার হাইকোর্টের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে আজ জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষের শুনানিতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সারওয়ার হোসেন বাপ্পী। আইনজীবীরা জানান, নিম্ন আদালতে জামিন না পেয়ে গত ২১ জানুয়ারি হাইকোর্টে জামিনের আবেদন করেন কার্টুনিস্ট কিশোর ও লেখক মুশতাক আহমেদ। ২৫ ফেব্রুয়ারি গাজীপুরের কাশিমপুর হাইসিকিউরিটি কারাগারে বন্দি অবস্থায় মারা যান লেখক মুশতাক আহমেদ। ১ মার্চ এই আবেদন শুনানির জন্য আদালতে ওঠে। সেদিন মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর বিষয়টি আদালতকে জানান তাদের আইনজীবী। আদালত মুশতাকের বিষয়ে লিখিত হলফনামা দিতে বলে শুনানি নিয়ে ৩ মার্চ আদেশের জন্য দিন রাখেন। এই অনুসারে আজ সংক্ষিপ্ত শুনানির পর আদেশ দেয়া হয়। এর আগে গত সোমবার তার জামিন আবেদনের ওপর শুনানি শেষ হয়। এ বিষয়ে আদেশের জন্য আজ দিন ধার্য করেন আদালত।

পিকে হালদার গ্রানাডার পাসপোর্টধারি
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : পিকে হালদারের ক্যারিবীয় রাষ্ট্র গ্রানাডার পাসপোর্ট রয়েছে বলে পুলিশ হাইকোর্টকে জানিয়েছে। তিন হাজার ৬০০ কোটি টাকা নিয়ে পালিয়ে যাওয়া ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স সার্ভিস লিমিটেডের পরিচালক প্রশান্ত কুমার হালদারের ওরফে পিকে হালদারের ব্যাপারে নতুন নতুন তথ্য প্রকাশ হচ্ছে। ইমিগ্রেশন পুলিশের পক্ষ থেকে আজ মঙ্গলবার হাইকোর্টকে এ তথ্য জানানো হয়। এর আগে ধারণা করা হয়েছিল, পি কে হালদার কানাডার পাসপোর্টধারী। আগামী ১৫ মার্চ এ বিষয়ে শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে। সোমবার পি কে হালদারের দেশ থেকে পালিয়ে যাওয়া সম্পর্কে তথ্য জানায় ইমিগ্রেশন পুলিশ। বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি মহিউদ্দিন শামীমের হাইকোর্ট বেঞ্চে আগামী ১৫ মার্চ এ বিষয়ে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক বলেন, ‘২০১৯ সালের ২২ অক্টোবর দুদক ইমিগ্রেশন পুলিশকে ডাকযোগে চিঠি দেয় পি কে হালদার যেন দেশত্যাগ না করতে পারেন। ওই চিঠি ইমিগ্রেশন পুলিশ হাতে পৌঁছায় ২৩ অক্টোবর বিকেল সাড়ে ৪টায়। তার ৫৩ মিনিট আগেই (২৩ অক্টোবর বিকেল ৩টা ৩৭ মিনিটে) পি কে হালদার বেনাপোল দিয়ে দেশত্যাগ করেন। অর্থাৎ পি কে হালদারের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারির চিঠি পাওয়ার আগেই তিনি দেশত্যাগ করেন।’ এর আগে চলতি বছরের ১৫ ফেব্রুয়ারি পি কে হালদারের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা থাকার পরও কীভাবে দেশত্যাগ করলেন তা জানতে চান হাইকোর্ট। একই সঙ্গে পি কে হালদার যেদিন দেশত্যাগ করেছিলেন, সেদিন বিমানবন্দর ইমিগ্রেশনের দায়িত্বরতদের এবং দুদকের দায়িত্বে কে কে ছিলেন তার তালিকা দাখিল করতে বলেন। এ ছাড়া বাংলাদেশ ব্যাংকের তিনটি বিভাগে ২০০৮ সাল থেকে কর্মরতদের পূর্ণাঙ্গ তালিকার বিষয়ে কী কী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে, আগামী ১৫ মার্চের মধ্যে তা জানাতে বলা হয়। গত বছরের ১৮ নভেম্বর একটি জাতীয় দৈনিকে ‘পি কে হালদারকে ধরতে ইন্টারপোলের সহায়তা চাইবে দুদক’ শীর্ষক প্রকাশিত প্রতিবেদন নজরে নিয়ে গত ১৯ নভেম্বর তাকে বিদেশ থেকে ফেরাতে এবং গ্রেপ্তার করতে কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তা জানতে চেয়ে স্বতঃপ্রণোদিত আদেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। ওই আদেশের ধারাবাহিকতায় গত ১৫ ফেব্রুয়ারি ওই আদেশ দেন হাইকোর্ট। জানা যায়, ইন্টারন্যাশনাল লিজিংসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে প্রায় সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা পাচার করে কানাডায় পাড়ি দেন পি কে হালদার। দেশত্যাগের সময় পি কে হালদার বাংলাদেশি পাসপোর্ট ব্যবহার করেছেন।

নারায়ণগঞ্জে চার খুনের মামলায় ২ জনের ফাঁসি, ৯ জনের যাবজ্জীবন
                                  

গণমুক্তি রিপোর্ট : নারায়ণগঞ্জে চাঞ্চল্যকর চার খুনের মামলায় দুই আসামির মৃত্যুদণ্ডাদেশ ও ৯ আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল রোববার দুপুরে অতিরিক্ত দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালতের বিচারক সাবিনা ইয়াসমিন চাঞ্চল্যকর এই হত্যা মামলার রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় এ মামলার ১২ আসামির মধ্যে সাত আসামি আদালতে উপস্থিত ছিল। এ ছাড়া চার আসামি পলাতক এবং এক আসামির মৃত্যু হয়েছে। মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০০৮ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর ফতুল্লার ধলেশ্বরী নদীতে শাহপরান নামের একটি মালবাহী বলগেটে ডাকাতরা চালকসহ চারজনকে হত্যা করে নদীতে ফেলে দেয়। এরপর মেঘনা নদী থেকে পরপর দুই দিনে শাহপরান বলগেটের মাঝি নাসির মিয়া ও মঙ্গলের হাত পা বাঁধা গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ফয়সাল ও হান্নান নামের বাকি দুজনের লাশ পাওয়া যায়নি। ওই ঘটনায় ওই বছরের ২২ সেপ্টেম্বর বলগেটের মালিক এরশাদ মিয়া ফতুল্লা থানায় মামলা করেন।
এরপর পুলিশ মামলার সাত আসামিকে গ্রেফতার করে। পরে সাত আসামি আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। তদন্ত শেষে পুলিশ ২০০৯ সালের ২৬ মার্চ আদালতে ১২ আসামির বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে। আদালত ১৮ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ করেন। যাবতীয় তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে আজ রোববার রায় ঘোষণা করেন আদালত।

শামীমার বৃটেনে ফিরতে সুপ্রিম কোর্টের না
                                  

দ্য সান/বিবিসি : আইএস বধু হিসেবে পরিচিত শামিমা বেগম বৃটেনে ফিরতে পারবেনা বলে রায় দিয়েছে দেশটির সর্বোচ্চ আদালত। গতকাল শুক্রবার জিহাদি সংগঠন ইসলামিক স্টেটে যোগ দেয়া সাবেক এই বৃটিশ নাগরিকের বিরুদ্ধে এ রায় দেয়া হয়। আদালতের রায়ে বলা হয়, নিরাপত্তা ঝুঁকি থাকায় এই আদেশ চ্যালেঞ্জ করতেও শামিমা বৃটেনে প্রবেশের সুযোগ পাবে না। জঙ্গি সংগঠনে যোগ দেয়ার জন্য ২০১৯ সালে বৃটিশ সরকার শামিমা বেগমের নাগরিকত্ব কেঁড়ে নেয়। সেসময় বৃটেনের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ শামিমাকে বাংলাদেশি বলে দাবি করেছিলেন। তখন শামিমা ওই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করে জানায়, সে বৃটেন ছাড়া অন্য কোনো দেশের নাগরিক নয় এবং সাজিদ জাভিদের ওই সিদ্ধান্ত তাকে রাষ্ট্রহীন করেছে। গত বছরের জুলাই মাসে বৃটেনের আপিল বিভাগ জানিয়েছিল, শামিমাকে বৃটেনে ফেরার অনুমতি দেয়া হলে সে আদালতে তার নাগরিকত্ব বাতিলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করতে পারবে। কিন্তু নভেম্বরে এই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে বৃটেনের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, শামিমা বৃটেনে প্রবেশ করলে তা হবে দেশের জন্য অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। বৃটিশ গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর তথ্য অনুযায়ী, আইএসে যোগ দেয়া জিহাদিরা জাতীয় নিরাপত্তার জন্য চরম ঝুঁকিপূর্ণ। এরপর শুক্রবারের রায়ের মধ্য দিয়ে শামিমার নাগরিকত্ব আবেদনের সুযোগ একেবারে বন্ধ হয়ে গেলো। এই রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন সাজিদ জাভিদ। উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে শামিমা তার দুই বন্ধুর সঙ্গে ইসলামিক স্টেটে যোগ দিতে তুরস্ক হয়ে সিরিয়া যায়। সেসময় তার বয়স ছিল মাত্র ১৫। সিরিয়ায় ইসলামিক খেলাফত প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে সেখানে যুদ্ধ করতে যায় জঙ্গিরা। শামিমা ওই খেলাফত রাষ্ট্রের রাজধানী রাক্কায় বাস করতো। সেখানে সে এক আইএস জিহাদিকে বিয়ে করে। তাদের তিনটি সন্তানের জন্ম হলেও তারা সকলেই মারা গেছে। এরপর ইসলামিক স্টেটের পতন হলে সিরিয়ার আল-রোজ শরনার্থী শিবিরে আশ্রয় নেয় শামিমা। এই শিবিরগুলো পরিচালনা করে সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্স।

আত্মসমর্পণ করে জামিন পেলেন সংগীতশিল্পী মিলা
                                  

কোর্ট রিপোর্টার : সাবেক স্বামী এসএম পারভেজ সানজারিকে অ্যাসিড ছুড়ে মারার অভিযোগের মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির পর আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন পেয়েছেন সংগীতশিল্পী মিলা। গতকাল বুধবার মিলা তার আইনজীবীর মাধ্যমে ঢাকার অ্যাসিড অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। পরে ট্রাইব্যুনালের বিচারক দিদারা চদ্রনা তার জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি আদালতে হাজির না হওয়ায় বিচারক মিলা ও তার সহযোগী কিম জন পিটার হালদারের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। জানা গেছে, ২০১৯ সালের ৫ জুন সংগীতশিল্পী মিলার বিরুদ্ধে অ্যাসিড হামলার অভিযোগে মামলা করেন তার সাবেক স্বামী পারভেজ সানজারির বাবা এস এম নাসির উদ্দিন। এর আগে বিয়ের তথ্য গোপন করার অভিযোগে ২০১৯ সালের ৩ সেপ্টেম্বর মিলার বিরুদ্ধে ঢাকার সিএমএম আদালতে মামলা করেন পারভেজ সানজারি। মামলাটি আমলে নিয়ে পল্লবী থানাকে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেন আদালত। পুলিশ আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়। এরপর ২০২০ সালের ২ ফেব্রুয়ারি পুলিশের দেওয়া প্রতিবেদন আমলে নিয়ে মিলা ও তার বাবাকে আদালতে হাজির হওয়ার জন্য সমন জারি করেন। এদিকে মামলার বিষয়ে সংগীতশিল্পী মিলা গণমাধ্যমকে বলেন, এই ঘটনায় কাজের ছেলেটা নিজের দোষ স্বীকার করেছে। সে বলেছে, এখানে মিলা জড়িত না, এমনকি অ্যাসিডও এই গায়িকা ছোড়েননি। এই মামলায় বারবার তাকে ফাঁসানোর চেষ্টা হয়েছে। এবার তাকে সম্পূর্ণভাবে ফাঁসিয়ে দেওয়া হলো। এর আগে যৌতুক ও নির্যাতনের অভিযোগে ২০১৭ সালের ৫ অক্টোবর সংগীতশিল্পী মিলা তার সাবেক স্বামী পারভেজ সানজারির বিরুদ্ধে মামলা করেন। সেই মামলায় গ্রেফতার হন সানজারি। পরে তিনি জামিনে ছাড়া পান। গত বছরের ১১ জুলাই মিলা সানজারির বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন। উল্লেখ্য, মিলা ও সানজারি ২০১৭ সালের ১২ মে বিয়ে করেন। ২০১৮ সালের ৩১ জানুয়ারি তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়।

আলজাজিরার প্রতিবেদন সোশ্যাল মিডিয়ায় থাকবে না
                                  

সাঈদ আহমেদ খান : বিতর্কিত, মিথ্যাচারে লিপ্ত কাতারভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল আলজাজিরায় প্রচারিত ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টারস মেন’ শিরোনামের প্রতিবেদন ও তথ্যচিত্র বাংলাদেশের সব ইন্টারনেট মাধ্যম থেকে ‘অপসারণ’ করতে বিটিআরসিকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। তবে বাংলাদেশে আলজাজিরার সম্প্রচার বন্ধের বিষয়ে কোনো আদেশ আদালত দেননি। ছয় অ্যামিকাস কিউরি ও রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তার বক্তব্য শোনার পর গতকাল বুধবার এ সংক্রান্ত রিট আবেদনটি নিষ্পত্তি করে এ আদেশ দেন বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ। রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল এএম আমিন উদ্দিন। সকালে রিট শুনানিতে তিনি বলেন, রিট আবেদনকারীর মামলা করার অধিকার আছে। দেশের সীমানায় কনটেন্ট আটকানোর কর্তৃত্ব বিটিআরসির রয়েছে। বিটিআরসির তরফ থেকে ইউটিউব, ফেসবুক, টুইটারসহ অন্যান্য মাধ্যমের সঙ্গে এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হচ্ছে। আদালতের আদেশ হলে বিষয়টি সহজ হয়। পরে ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ এ শুনানি গ্রহণ করে বেলা ৩টায় আদেশের জন্য সময় ধার্য করেন। ৩টার পর আদালত এ আদেশ দেন। কাতারভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল আলজাজিরায় ১ ফেব্রুয়ারি ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টারস মেন’ শিরোনামে একটি তথ্যচিত্র প্রচার করা হয়। সেটি বিভ্রান্তিকর, বিদ্বেষমূলক ও মানহানিকর উল্লেখ করে দেশে আলজাজিরার সম্প্রচার ও ওয়েবসাইট বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী এনামুল কবির ৮ ফেব্রুয়ারি রিটটি করেন। এতে বিটিআরসির চেয়ারম্যানসহ আটজনকে বিবাদী করা হয়। ১০ ফেব্রুয়ারি আদালত রিটের গ্রহণযোগ্যতাসহ কয়েকটি বিষয়ে মতামত দিতে অ্যামিকাস কিউরি (আদালতের বন্ধু) হিসেবে ছয় আইনজীবীর নাম ঘোষণা করেন। গত সোমবার শুনানির ধার্য তারিখে তারা মতামত তুলে ধরেন। বাংলাদেশে আলজাজিরার সম্প্রচার বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে করা রিটটি গ্রহণযোগ্য নয় বলে গত সোমবার হাইকোর্টের একই বেঞ্চে মত দেন পাঁচ অ্যামিকাস কিউরি। এই পাঁচ অ্যামিকাস কিউরি হলেন, এজে মোহাম্মদ আলী, ফিদা এম কামাল, কামাল উল আলম, প্রবীর নিয়োগী ও শাহদীন মালিক। এদিন অপর অ্যামিকাস কিউরি আবদুল মতিন খসরু বলেন, রিট আবেদনকারী ব্যক্তিগত ও জাতীয়ভাবে সংক্ষুব্ধ। আদালত ওই তথ্যচিত্র অপসারণের নির্দেশনা দিতে পারেন। গত সোমবার ছয় অ্যামিকাস কিউরির অভিমত শোনার পর আদালত গতকাল বুধবার শুনানির দিন ধার্য করেন। সেই নির্ধারিত দিনে গতকাল আদেশ দিলেন আদালত।


   Page 1 of 79
     আইন ও আদালত
নিউমার্কেটে মাস্ক না পরায় ৩১ ক্রেতা ও বিক্রেতাকে জরিমানা
.............................................................................................
বিচারকাজে গতি আনতে হাইকোর্টে আরও দুই বেঞ্চ
.............................................................................................
ডাক্তার, পুলিশ ও ম্যাজিস্ট্রেট বাগবিতণ্ডায় আদেশ দেননি হাইকোর্ট
.............................................................................................
নকল কিট, রি এজেন্ট জব্দের মামলায় নয়জন রিমান্ডে
.............................................................................................
বিচারক-কর্মচারীদের কর্মস্থল ত্যাগ না করার নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের
.............................................................................................
লালপুরে ভেজাল গুড় তৈরি ব্যবসায়ীর কারাদণ্ড
.............................................................................................
৬ জনের মৃত্যুদণ্ড, যাবজ্জীবন ৪ জনের
.............................................................................................
‘পি কে হালদার যাদের অবহেলায় পালালো তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেবে আদালত’
.............................................................................................
শিশু নির্যাতন রোধে নজরদারী বাড়ানোর নির্দেশ হাইকোর্টের
.............................................................................................
আশরাফুলকে দায়মুক্তি দেয়া হয়নি : দুদক আইনজীবী
.............................................................................................
জামিন পেলেন কার্টুনিস্ট কিশোর
.............................................................................................
পিকে হালদার গ্রানাডার পাসপোর্টধারি
.............................................................................................
নারায়ণগঞ্জে চার খুনের মামলায় ২ জনের ফাঁসি, ৯ জনের যাবজ্জীবন
.............................................................................................
শামীমার বৃটেনে ফিরতে সুপ্রিম কোর্টের না
.............................................................................................
আত্মসমর্পণ করে জামিন পেলেন সংগীতশিল্পী মিলা
.............................................................................................
আলজাজিরার প্রতিবেদন সোশ্যাল মিডিয়ায় থাকবে না
.............................................................................................
পি কে হালদার কাদের সহযোগিতায় পালিয়েছেন, জানতে চান হাইকোর্ট
.............................................................................................
আল জাজিরা বন্ধে অ্যামিকাস কিউরি
.............................................................................................
সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ ফের পেছালো
.............................................................................................
৬ আইনজীবীর মতামত শুনবেন হাইকোর্ট
.............................................................................................
দুদককে দন্তহীন বাঘ হলে চলবে না : হাইকোর্ট
.............................................................................................
অভিজিৎ হত্যা মামলার আসামিদের মৃত্যুদণ্ড চায় রাষ্ট্রপক্ষ
.............................................................................................
শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টা: আপিলের রায় ১৭ ফেব্রুয়ারি
.............................................................................................
অর্থপাচারের দুই মামলায় এনু ও রুপনসহ ১১ জনের বিচার শুরু
.............................................................................................
রিমান্ডে পিকে হালদারের তিন সহযোগী
.............................................................................................
শরীয়তপুরে ময়লার স্তুপ থেকে ফুলের বাগান
.............................................................................................
বৃদ্ধাকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনকারি রেখা স্বামীসহ ৮ দিনের রিমান্ডে
.............................................................................................
পি কে হালদারের বক্তব্য প্রচার করায় একাত্তর টিভিকে সতর্ক করলেন হাইকোর্ট
.............................................................................................
একই পরিবারের তিনজনের ফাঁসির আদেশ
.............................................................................................
পিকে হালদারের ৮৩ সহযোগির তালিকা হাইকোর্টে
.............................................................................................
৭ খুনের আসামি নূর হোসেন অস্ত্র মামলায় যাবজ্জীবন
.............................................................................................
পিকে হালদারের মাসহ ২৫ জনের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা
.............................................................................................
বুড়িগঙ্গা দূষণকারীদের বিরুদ্ধে মামলার নির্দেশ হাইকোর্টের
.............................................................................................
সাঈদ খোকনসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে মামলার আদেশ আজ
.............................................................................................
এসকে সিনহার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিলেন ভাই-ভাতিজা
.............................................................................................
পাপুল কুয়েত কারাগারে, স্ত্রী ও মেয়েকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ
.............................................................................................
দুই জনের ফাঁসি
.............................................................................................
দুদকের মামলায় পাপিয়া দম্পতি তিনদিনের রিমান্ডে
.............................................................................................
কনক সরওয়ারের ইউটিউব কনটেন্ট বন্ধের নির্দেশ
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যসহ দেশের সকল ভাস্কর্য রক্ষায় হাইকোর্টে রিট
.............................................................................................
বীর মুক্তিযোদ্ধা আতিক হত্যায় ৭ জনের মৃত্যুদন্ড
.............................................................................................
রায়ে আমৃত্যু উল্লেখ না করলে যাবজ্জীবন ৩০ বছর
.............................................................................................
বিইআরসি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল
.............................................................................................
১৮ দিনের রিমান্ডে আন্ডারওয়ার্ল্ড ডন সোনা মনির
.............................................................................................
অর্থ পাচারকারীদের প্রতি আদালতের হুঁশিয়ারি
.............................................................................................
স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ মামলায় সেই এএসআই ৫ দিনের রিমান্ডে
.............................................................................................
আলোচিত পায়েল হত্যায় তিনজনের মৃত্যুদণ্ড
.............................................................................................
ইরফান ও দেহরক্ষী জাহিদ ৩ দিনের রিমান্ডে
.............................................................................................
কালকিনি পৌরসভা কৃষকলীগের সম্মেলন সম্পন্ন
.............................................................................................
দেশের ইতিহাসে প্রথম, ৩ কার্যদিবসে হলো মামলার রায়
.............................................................................................

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মো: রিপন তরফদার নিয়াম
প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক : মফিজুর রহমান রোকন
নির্বাহী সম্পাদক : শাহাদাত হোসেন শাহীন
বাণিজ্যিক কার্যালয় : "রহমানিয়া ইন্টারন্যাশনাল কমপ্লেক্স"
(৬ষ্ঠ তলা), ২৮/১ সি, টয়েনবি সার্কুলার রোড,
মতিঝিল বা/এ ঢাকা-১০০০| জিপিও বক্স নং-৫৪৭, ঢাকা
ফোন নাম্বার : ০২-৪৭১২০৮০৫/৬, ০২-৯৫৮৭৮৫০
মোবাইল : ০১৭০৭-০৮৯৫৫৩, 01731800427
E-mail: dailyganomukti@gmail.com
Website : http://www.dailyganomukti.com
   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop