ঢাকা ০৪:৪৫ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

আকাশে বাংলাদেশি অসুস্থ, নামতে দেয়নি মুম্বাই, নামলো করাচিতে

গণমুক্তি ডিজিটাল ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৮:৩২:৪৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১৯২ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

সৌদিয়া এয়ারলাইনসের এসভি-৮০৫ ফ্লাইটটি মঙ্গলবার ভোর ৩টা ৫৭ মিনিটে ঢাকা থেকে রিয়াদের উদ্দেশে যাত্রা। আকাশের ওড়ার কিছুক্ষণ পরই ৪৪ বছর বয়সী আবু তাহের নামে এক বাংলাদেশির শারীরিক অবস্থার চরম অবনতি ঘটে। সে সময় উড়োজাহাজটি ভারতের আকাশসীমায় ছিল।

এসময় ফ্লাইট ভারতে জরুরি অবতরণ করতে চাইলে তা ফিরিয়ে দেয় মুম্বাইয়ের এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল। পরে এটি পাকিস্তানের বন্দরনগরী করাচিতে নামতে বাধ্য হয়।
পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম জিও নিউজের এক প্রতিবেদনে এতথ্য বলা হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উড়োজাহাজের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, মাঝ আকাশে উচ্চ রক্তচাপের কারণে বাংলাদেশি যাত্রীর শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে। পরিস্থিতি আরও খারাপ হলে তিনি অনবরত বমি করতে থাকেন। যাত্রীর অবস্থা এমন শোচনীয় পরিস্থিতিতে পাইলট ফ্লাইটটি ঘুরিয়ে মুম্বাইয়ের দিকে রওনা হন এবং মুম্বাইয়ের এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের কাছে মানবিক অবতরণের অনুমতি চান।

সংবাদমাধ্যমকে কর্মকর্তা আরও জানিয়েছেন, মুম্বাইয়ের এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল একপর্যায়ে রোগীর জাতীয়তা জানতে চান। কিন্তু বাংলাদেশি মুসলিম পরিচয় জানার পর তারা সৌদিয়া এয়ারলাইনসের ফ্লাইটটিকে ভারতের মাটিতে অবতরণে অস্বীকৃতি জানান। তবে কর্মকর্তার এই দাবির বিষয়টির সত্যাত্য যাচাই করা সম্ভবপর হয়নি।

মুম্বাই এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের পরামর্শ অনুসারে পাইলট পাকিস্তানের করাচি বিমানবন্দরের এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের কাছে নামার অনুমতি চান। সেখান থেকে অনুমতি পাওয়ার পর স্থানীয় সময় সকাল ৭টা ২৮ মিনিটের করাচির জিন্নাহ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে উড়োজাহাজটি।

জিন্নাহ বিমানবন্দরের সিভিল অ্যাভিয়েশন অথরিটির চিকিৎসকেরা আবু তাহেরকে চিকিৎসা দেন। পরে তার অবস্থার উন্নতি হলে তাকে নিয়েই ফ্লাইটটি রিয়াদের উদ্দেশে যাত্রা করে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

আকাশে বাংলাদেশি অসুস্থ, নামতে দেয়নি মুম্বাই, নামলো করাচিতে

আপডেট সময় : ০৮:৩২:৪৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

 

সৌদিয়া এয়ারলাইনসের এসভি-৮০৫ ফ্লাইটটি মঙ্গলবার ভোর ৩টা ৫৭ মিনিটে ঢাকা থেকে রিয়াদের উদ্দেশে যাত্রা। আকাশের ওড়ার কিছুক্ষণ পরই ৪৪ বছর বয়সী আবু তাহের নামে এক বাংলাদেশির শারীরিক অবস্থার চরম অবনতি ঘটে। সে সময় উড়োজাহাজটি ভারতের আকাশসীমায় ছিল।

এসময় ফ্লাইট ভারতে জরুরি অবতরণ করতে চাইলে তা ফিরিয়ে দেয় মুম্বাইয়ের এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল। পরে এটি পাকিস্তানের বন্দরনগরী করাচিতে নামতে বাধ্য হয়।
পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম জিও নিউজের এক প্রতিবেদনে এতথ্য বলা হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উড়োজাহাজের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, মাঝ আকাশে উচ্চ রক্তচাপের কারণে বাংলাদেশি যাত্রীর শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে। পরিস্থিতি আরও খারাপ হলে তিনি অনবরত বমি করতে থাকেন। যাত্রীর অবস্থা এমন শোচনীয় পরিস্থিতিতে পাইলট ফ্লাইটটি ঘুরিয়ে মুম্বাইয়ের দিকে রওনা হন এবং মুম্বাইয়ের এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের কাছে মানবিক অবতরণের অনুমতি চান।

সংবাদমাধ্যমকে কর্মকর্তা আরও জানিয়েছেন, মুম্বাইয়ের এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল একপর্যায়ে রোগীর জাতীয়তা জানতে চান। কিন্তু বাংলাদেশি মুসলিম পরিচয় জানার পর তারা সৌদিয়া এয়ারলাইনসের ফ্লাইটটিকে ভারতের মাটিতে অবতরণে অস্বীকৃতি জানান। তবে কর্মকর্তার এই দাবির বিষয়টির সত্যাত্য যাচাই করা সম্ভবপর হয়নি।

মুম্বাই এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের পরামর্শ অনুসারে পাইলট পাকিস্তানের করাচি বিমানবন্দরের এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের কাছে নামার অনুমতি চান। সেখান থেকে অনুমতি পাওয়ার পর স্থানীয় সময় সকাল ৭টা ২৮ মিনিটের করাচির জিন্নাহ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে উড়োজাহাজটি।

জিন্নাহ বিমানবন্দরের সিভিল অ্যাভিয়েশন অথরিটির চিকিৎসকেরা আবু তাহেরকে চিকিৎসা দেন। পরে তার অবস্থার উন্নতি হলে তাকে নিয়েই ফ্লাইটটি রিয়াদের উদ্দেশে যাত্রা করে।