ঢাকা ০৪:২৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

ঈদ যাত্রা নিয়ে যাত্রীকল্যাণ সমিতি বানোয়াট তথ্য উপস্থাপনের তীব্র নিন্দা

গণমুক্তি রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : ০৩:৩১:২৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪ ৫৭ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ হানিফ খোকন ও প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইনসুর আলী বিবৃতিতে ঈদ যাত্রা নিয়ে যাত্রীকল্যাণ সমিতি বানোয়াট তথ্য উপস্থাপনের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, ২০ এপ্রিল বাংলাদেশ যাত্রীকল্যাণ সমিতি ঈদ যাত্রায় সড়ক দূর্ঘটনার প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। সরকার বিরোধী প্রচারনায় লিপ্ত সংবাদমাধ্যমের সাথে তাল মিলিয়ে বর্তমান সরকারের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করার লক্ষ্যে যাত্রীকল্যাণ সমিতির এই সংবাদ সম্মেলন।

পদ্মা সেতু, কর্ণফুলি টার্নেল, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়ক, ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেওয়ে, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর তৃতীয় টার্মিনাল, ঢাকা-কক্সবাজার সরাসরি রেলযোগাযোগ, কক্সবাজারের আইকনিক রেলস্টেশন, মেট্রোরেল নিয়ে যখন বিশ্বের মানুষ উন্নয়নের নেত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করছেন, ঠিক তখন দেশের অভ্যন্তরে কিছু সংখ্যক মানুষ নানা ভাবে সরকারের কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করে ভাবমূর্তি বিনষ্টের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছেন বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।

সর্বশেষ ২০ এপ্রিল বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি সংবাদ সম্মেলনে ঈদযাত্রায় সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যু নিয়ে মনগড়া তথ্য উপস্থান করেছে। যার তীব্র নিন্দা জানান বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ হানিফ খোকন ও প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইনসুর আলী।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, সড়ক ও যোগাযোগ সেক্টরে ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। কিন্তু যাত্রীকল্যাণ সমিতি যে সংবাদ সম্মেলন করেছে তা সরকারের বিরুদ্ধে উদ্দেশ্য প্রণোদিত, মিথ্যা ও বানোয়াট। আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় ধারাবাহিক ১৫ বছর ৩ মাস। এরমধ্যে সৈয়দ আবুল হোসেন মন্ত্রী ছিলেন ৩ বছর। বর্তমান সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী মন্ত্রণালয়ে দায়িত্বে আছেন ১২ বছর।

কিন্তু মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেছেন, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ২০ বছর মন্ত্রী থাকার পরেও পরিবহন সেক্টরে কিছুই করতে পারেন নি। ওনার বক্তব্যটি অতিরঞ্জিত বলে আমরা মনে করি। যেখানে সরকার ধারাবাহিক ক্ষমতায় আছেন ১৫ বছর ৩ মাস, সেখানে ওবায়দুল কাদের কিভাবে ২০ বছর মন্ত্রী থাকেন? তার মানে তিনি মঙ্গল গ্রহে বসবাস করছন।

প্রতিদিনই বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে সড়ক দূর্ঘটনার খবর দেখা যায়। মোজাম্মেল হক ১৫ দিনের সড়ক দূর্ঘটনার হিসাব যোগফল প্রকাশ করে সাধারণ জনমনে আতংক সৃষ্টি করে হীন চরিতার্থ সাধিত করার লক্ষ্যে এই সংবাদ সম্মেলন করেছে। মোজাম্মেল হক চৌধুরী রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছেন বলে আমরা মনে করি।

বিবৃতিতে যাত্রী কল্যাণ সমিতির সংবাদ সম্মেলনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানোর পাশাপাশি যাত্রীকল্যান সমিতির কার্যক্রম যাচাই বাছাই করে মোজাম্মেল হক চৌধুরীর বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবী জানানো হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

ঈদ যাত্রা নিয়ে যাত্রীকল্যাণ সমিতি বানোয়াট তথ্য উপস্থাপনের তীব্র নিন্দা

আপডেট সময় : ০৩:৩১:২৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪

 

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ হানিফ খোকন ও প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইনসুর আলী বিবৃতিতে ঈদ যাত্রা নিয়ে যাত্রীকল্যাণ সমিতি বানোয়াট তথ্য উপস্থাপনের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, ২০ এপ্রিল বাংলাদেশ যাত্রীকল্যাণ সমিতি ঈদ যাত্রায় সড়ক দূর্ঘটনার প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। সরকার বিরোধী প্রচারনায় লিপ্ত সংবাদমাধ্যমের সাথে তাল মিলিয়ে বর্তমান সরকারের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করার লক্ষ্যে যাত্রীকল্যাণ সমিতির এই সংবাদ সম্মেলন।

পদ্মা সেতু, কর্ণফুলি টার্নেল, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়ক, ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেওয়ে, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর তৃতীয় টার্মিনাল, ঢাকা-কক্সবাজার সরাসরি রেলযোগাযোগ, কক্সবাজারের আইকনিক রেলস্টেশন, মেট্রোরেল নিয়ে যখন বিশ্বের মানুষ উন্নয়নের নেত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করছেন, ঠিক তখন দেশের অভ্যন্তরে কিছু সংখ্যক মানুষ নানা ভাবে সরকারের কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করে ভাবমূর্তি বিনষ্টের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছেন বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।

সর্বশেষ ২০ এপ্রিল বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি সংবাদ সম্মেলনে ঈদযাত্রায় সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যু নিয়ে মনগড়া তথ্য উপস্থান করেছে। যার তীব্র নিন্দা জানান বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ হানিফ খোকন ও প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইনসুর আলী।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, সড়ক ও যোগাযোগ সেক্টরে ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। কিন্তু যাত্রীকল্যাণ সমিতি যে সংবাদ সম্মেলন করেছে তা সরকারের বিরুদ্ধে উদ্দেশ্য প্রণোদিত, মিথ্যা ও বানোয়াট। আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় ধারাবাহিক ১৫ বছর ৩ মাস। এরমধ্যে সৈয়দ আবুল হোসেন মন্ত্রী ছিলেন ৩ বছর। বর্তমান সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী মন্ত্রণালয়ে দায়িত্বে আছেন ১২ বছর।

কিন্তু মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেছেন, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ২০ বছর মন্ত্রী থাকার পরেও পরিবহন সেক্টরে কিছুই করতে পারেন নি। ওনার বক্তব্যটি অতিরঞ্জিত বলে আমরা মনে করি। যেখানে সরকার ধারাবাহিক ক্ষমতায় আছেন ১৫ বছর ৩ মাস, সেখানে ওবায়দুল কাদের কিভাবে ২০ বছর মন্ত্রী থাকেন? তার মানে তিনি মঙ্গল গ্রহে বসবাস করছন।

প্রতিদিনই বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে সড়ক দূর্ঘটনার খবর দেখা যায়। মোজাম্মেল হক ১৫ দিনের সড়ক দূর্ঘটনার হিসাব যোগফল প্রকাশ করে সাধারণ জনমনে আতংক সৃষ্টি করে হীন চরিতার্থ সাধিত করার লক্ষ্যে এই সংবাদ সম্মেলন করেছে। মোজাম্মেল হক চৌধুরী রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছেন বলে আমরা মনে করি।

বিবৃতিতে যাত্রী কল্যাণ সমিতির সংবাদ সম্মেলনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানোর পাশাপাশি যাত্রীকল্যান সমিতির কার্যক্রম যাচাই বাছাই করে মোজাম্মেল হক চৌধুরীর বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবী জানানো হয়।