ঢাকা ০৩:৩৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪

ভেঙে ফেলা হচ্ছে টুইন পিকের রুফটপ রেস্তোরাঁ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৫৪:৪৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৪ মার্চ ২০২৪ ১৫৭ বার পড়া হয়েছে

ধানমণ্ডিতে অবৈধ রেস্তোরাঁ ভেঙ্গে দিয়েছে রাজউক

দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

ঢাকার আবাসিক বিভিন্ন এলাকায় বহু সংখ্যক ভবন রয়েছে, যা নির্মাণে বিল্ডিং কোড আমলে নেওয়া হয়নি। বিল্ডি কোডে যেসব নির্দেশনা রয়েছে, তা মানা সম্ভব হয়নি বলে বিভিন্ন দূর্ঘটনা ঘটছে। এমধ্যে সবচেয়ে ভয়ঙ্কর হচ্ছে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা। বেইলী রোডে বিধ্বিংসী অগ্নিকাণ্ডের পর নড়েচড়ে বসে প্রশাসন।

বিল্ডিং কোড অমান্য করে পরিচালিত রেস্তোরাঁ ভাঙার কাজেহ মাঠে নামে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)। এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার (৪ মার্চ) ধানমন্ডি আবাসিক এলাকার সাত মসজিদ রোডের গাউসিয়া টুইন পিক ভবনের রুফটপ রেস্তোরাঁটি ভেঙে দেয় রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)।

অভিযানের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সূত্রের খবর, রাজউকের নিয়ম অনুযায়ী প্রতিটি ভবনের ছাদ ফাঁকা থাকার বিধান রয়েছে। কিন্তু কোনো ধরনের অনুমতি ছাড়াই রেস্তোরাঁটি গড়ে তোলায় সেটি ভেঙ্গে দেয় রাজউক।

অভিযানকালে রাজউক জোন-৩ এর পরিচালক ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাজিনা সারোয়ার বলেন, অফিসের জন্য অনুমোদিত ভবনে অবৈধভাবে রেস্টুরেন্ট ও ফুডকোর্ট চালানো হচ্ছিল।

ভবনটি মূলত এফ ক্যাটাগরির। এটি অফিসের জন্য রাজউক থেকে অনুমোদন নেওয়া হয়েছে। কিন্তু এখানে অবৈধভাবে প্রায় ৮-১০টির মত রেস্টুরেন্ট চালানো হচ্ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

ভেঙে ফেলা হচ্ছে টুইন পিকের রুফটপ রেস্তোরাঁ

আপডেট সময় : ০৩:৫৪:৪৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৪ মার্চ ২০২৪

 

ঢাকার আবাসিক বিভিন্ন এলাকায় বহু সংখ্যক ভবন রয়েছে, যা নির্মাণে বিল্ডিং কোড আমলে নেওয়া হয়নি। বিল্ডি কোডে যেসব নির্দেশনা রয়েছে, তা মানা সম্ভব হয়নি বলে বিভিন্ন দূর্ঘটনা ঘটছে। এমধ্যে সবচেয়ে ভয়ঙ্কর হচ্ছে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা। বেইলী রোডে বিধ্বিংসী অগ্নিকাণ্ডের পর নড়েচড়ে বসে প্রশাসন।

বিল্ডিং কোড অমান্য করে পরিচালিত রেস্তোরাঁ ভাঙার কাজেহ মাঠে নামে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)। এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার (৪ মার্চ) ধানমন্ডি আবাসিক এলাকার সাত মসজিদ রোডের গাউসিয়া টুইন পিক ভবনের রুফটপ রেস্তোরাঁটি ভেঙে দেয় রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)।

অভিযানের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সূত্রের খবর, রাজউকের নিয়ম অনুযায়ী প্রতিটি ভবনের ছাদ ফাঁকা থাকার বিধান রয়েছে। কিন্তু কোনো ধরনের অনুমতি ছাড়াই রেস্তোরাঁটি গড়ে তোলায় সেটি ভেঙ্গে দেয় রাজউক।

অভিযানকালে রাজউক জোন-৩ এর পরিচালক ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাজিনা সারোয়ার বলেন, অফিসের জন্য অনুমোদিত ভবনে অবৈধভাবে রেস্টুরেন্ট ও ফুডকোর্ট চালানো হচ্ছিল।

ভবনটি মূলত এফ ক্যাটাগরির। এটি অফিসের জন্য রাজউক থেকে অনুমোদন নেওয়া হয়েছে। কিন্তু এখানে অবৈধভাবে প্রায় ৮-১০টির মত রেস্টুরেন্ট চালানো হচ্ছে।