ঢাকা ০৩:১৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪

মেঘালয়-আসামের পাহাড়ি ঢলে সিলেটে বন্যা

গণমুক্তি ডিজিটাল ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৭:১১:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১ জুন ২০২৪ ৫০ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

ঘূর্ণিঝড় রেমেলের প্রবাবে মেঘালয় ও আসামে ভারী বর্ষণ হয়েছে। সেখানের জল নেমে আসে বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চল সীমান্ত জেলা সিলেটে। তাতে করে আকস্মি বণ্যায় তলিয়ে গেছে সিলেটের নিমাঞ্চল ও সুনামগঞ্জের জেলার ছাতকের ৫ গ্রাম। জলবন্দী ২০ হাজার মানুষ।

মেঘালয়ের পাদদেশে বাংলাদেশের সুনামগঞ্জের যাদুকাটা, কুশিয়ারা ও রক্তি নদীর জল ফুঁসে ওঠে। গত শুক্রবার থেকে বৃষ্টি কমে গেলে সুনামগঞ্জে জল কমতে থাকলেও দ্রুত বাড়ছে ছাতকের সুরমা নদীর জল। গত ২৪ ঘণ্টায় সুরমার জল ৮ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ৫৪ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

তাতে ছাতক উপজেলার সীমান্ত এলাকার নিম্নাঞ্চলের মুক্তিয়ার খলা, হরিপুরসহ ৫-৬ গ্রামের প্রধান সড়ক ডুবে গেছে। ফলে ছাতক উপজেলার সঙ্গে সরাসরি সড়ক পথে যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়েছে। সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলায় ইতোমধ্যে সবধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে জেলা প্রশাসন। সেই সঙ্গে বন্যা মোকাবিলার জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ ত্রাণ মজুদ রয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

মেঘালয়-আসামের পাহাড়ি ঢলে সিলেটে বন্যা

আপডেট সময় : ০৭:১১:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১ জুন ২০২৪

 

ঘূর্ণিঝড় রেমেলের প্রবাবে মেঘালয় ও আসামে ভারী বর্ষণ হয়েছে। সেখানের জল নেমে আসে বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চল সীমান্ত জেলা সিলেটে। তাতে করে আকস্মি বণ্যায় তলিয়ে গেছে সিলেটের নিমাঞ্চল ও সুনামগঞ্জের জেলার ছাতকের ৫ গ্রাম। জলবন্দী ২০ হাজার মানুষ।

মেঘালয়ের পাদদেশে বাংলাদেশের সুনামগঞ্জের যাদুকাটা, কুশিয়ারা ও রক্তি নদীর জল ফুঁসে ওঠে। গত শুক্রবার থেকে বৃষ্টি কমে গেলে সুনামগঞ্জে জল কমতে থাকলেও দ্রুত বাড়ছে ছাতকের সুরমা নদীর জল। গত ২৪ ঘণ্টায় সুরমার জল ৮ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ৫৪ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

তাতে ছাতক উপজেলার সীমান্ত এলাকার নিম্নাঞ্চলের মুক্তিয়ার খলা, হরিপুরসহ ৫-৬ গ্রামের প্রধান সড়ক ডুবে গেছে। ফলে ছাতক উপজেলার সঙ্গে সরাসরি সড়ক পথে যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়েছে। সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলায় ইতোমধ্যে সবধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে জেলা প্রশাসন। সেই সঙ্গে বন্যা মোকাবিলার জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ ত্রাণ মজুদ রয়েছে।