ঢাকা ০৩:০০ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪

সর্বোচ্চ নেতাকে কটাক্ষ করে বক্তব্য, এমপি কালামকে শোকজ

রাজশাহী ব্যুরো
  • আপডেট সময় : ০৪:০৩:৩৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০২৪ ৩২৮ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

 

দলের সর্বোচ্চ নেতাকে কটাক্ষ করে শিষ্টাচার বহির্ভূত ও সংগঠনের শৃঙ্খলবিরোধী বক্তব্য দেয়ায় রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনের এমপি অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদকে শোকজ করেছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটি।

আবুল কালাম আজাদ বাগমারার তাহেরপুর পৌরসভা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিষ্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত শোকজে বলা হয়, শিষ্টাচার বর্হিভূত বক্তব্য আওয়ামী লীগের শৃঙ্খলাবিরোধী। আপনার বক্তব্য আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী শাস্তিযোগ অপরাধ।

৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে জয় লাভের পর রাজশাহী-৪ আসনের নেতাকর্মী সাথে মতবিনিময় সভা করেন। এসময় দলের সর্বোচ্চ নেতা জননেত্রী শেখ হাসিনা ও সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে বিভ্রান্তিকর বক্তব্য দেন। তার এমন বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে কেন্দ্রীয় নেতাদের দৃষ্টিপাত হয়। এরই প্রেক্ষিতে গত ১৯ মার্চ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত এক পত্রে তাকে শোকজ করা হয়।

শিষ্টাচার বহির্ভূতভাবে প্রদত্ত আপনার বক্তব্য সংগঠনের শৃঙ্খলাবিরোধী এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী শাস্তিযোগ্য অপরাধ। এমতাবস্থায়, আপনার বিরুদ্ধে কেনো শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না, তার ব্যাখ্যাসহ আপনার লিখিত জবাব ১৫ (পনের) দিনের মধ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয় (বাড়ি-৫১/এ, সড়ক-৩/এ, ধানমন্ডি, ঢাকা) পাঠাতে সাংগঠনিক নির্দেশক্রমে অনুরোধ জানানো যাচ্ছে।

আবুল কালাম আজাদ এমপির এমন বক্তব্যে মর্মাহত হয়েছে দলের নিবেদীত তৃনমুলের কর্মীরা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক তৃনমুল নেতারা বলেছেন, আবুল কালাম আজাদ এমপি হওয়ার পর থেকে পুরো বাগমারা উত্তপ্ত। বহু আওয়ামী কর্মী এখনও ঠিকমত বাড়িতে ঘুমাতে পারছে না।

মাত্র তিন মাসের ব্যবধানে বাগমারা এলাকার কৃষি জমি ধ্বংস করে তার ক্যাডার বাহিনীরা শত শত বিঘা জমিতে অবৈধ পুকুর খনন করছে। যা বাগমারায় ফসল উৎপাদনে হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। ভাইরাল হওয়া সেই বক্তব্য সাধরাণ না ভেবে, খুব শক্তভাবে বিষয়টি আমলে নিয়ে তার বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নিবেন দলের নীতিনির্ধারনিরা। এমনটায় প্রত্যাশা রাজশাহীর সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

সর্বোচ্চ নেতাকে কটাক্ষ করে বক্তব্য, এমপি কালামকে শোকজ

আপডেট সময় : ০৪:০৩:৩৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০২৪

 

 

দলের সর্বোচ্চ নেতাকে কটাক্ষ করে শিষ্টাচার বহির্ভূত ও সংগঠনের শৃঙ্খলবিরোধী বক্তব্য দেয়ায় রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনের এমপি অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদকে শোকজ করেছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটি।

আবুল কালাম আজাদ বাগমারার তাহেরপুর পৌরসভা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিষ্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত শোকজে বলা হয়, শিষ্টাচার বর্হিভূত বক্তব্য আওয়ামী লীগের শৃঙ্খলাবিরোধী। আপনার বক্তব্য আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী শাস্তিযোগ অপরাধ।

৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে জয় লাভের পর রাজশাহী-৪ আসনের নেতাকর্মী সাথে মতবিনিময় সভা করেন। এসময় দলের সর্বোচ্চ নেতা জননেত্রী শেখ হাসিনা ও সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে বিভ্রান্তিকর বক্তব্য দেন। তার এমন বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে কেন্দ্রীয় নেতাদের দৃষ্টিপাত হয়। এরই প্রেক্ষিতে গত ১৯ মার্চ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত এক পত্রে তাকে শোকজ করা হয়।

শিষ্টাচার বহির্ভূতভাবে প্রদত্ত আপনার বক্তব্য সংগঠনের শৃঙ্খলাবিরোধী এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী শাস্তিযোগ্য অপরাধ। এমতাবস্থায়, আপনার বিরুদ্ধে কেনো শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না, তার ব্যাখ্যাসহ আপনার লিখিত জবাব ১৫ (পনের) দিনের মধ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয় (বাড়ি-৫১/এ, সড়ক-৩/এ, ধানমন্ডি, ঢাকা) পাঠাতে সাংগঠনিক নির্দেশক্রমে অনুরোধ জানানো যাচ্ছে।

আবুল কালাম আজাদ এমপির এমন বক্তব্যে মর্মাহত হয়েছে দলের নিবেদীত তৃনমুলের কর্মীরা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক তৃনমুল নেতারা বলেছেন, আবুল কালাম আজাদ এমপি হওয়ার পর থেকে পুরো বাগমারা উত্তপ্ত। বহু আওয়ামী কর্মী এখনও ঠিকমত বাড়িতে ঘুমাতে পারছে না।

মাত্র তিন মাসের ব্যবধানে বাগমারা এলাকার কৃষি জমি ধ্বংস করে তার ক্যাডার বাহিনীরা শত শত বিঘা জমিতে অবৈধ পুকুর খনন করছে। যা বাগমারায় ফসল উৎপাদনে হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। ভাইরাল হওয়া সেই বক্তব্য সাধরাণ না ভেবে, খুব শক্তভাবে বিষয়টি আমলে নিয়ে তার বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নিবেন দলের নীতিনির্ধারনিরা। এমনটায় প্রত্যাশা রাজশাহীর সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের।