ঢাকা ১২:২৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::

৫ বছরেও ভাঙ্গা হয়নি চিহ্নিত ১৩০০ ভবন!

গণমুক্তি রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : ০৮:০৬:৫২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৩ মার্চ ২০২৪ ২০৩ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

২০১৯ সালে অননুমোদিত ও ঝুঁকিপূর্ণ ১৩০০ ভবন চিহ্নিত করা হয়েছিলো। কিন্তু সেইসব ভবন ভাঙা হয়নি। ঢাকার বনানীতে এফআর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার পর তদন্ত শেষে ৬২ জনের বিরুদ্ধে রিপোর্ট দেওয়া হলেও অভিযোগপত্রে অনেকের নাম বাদ দেওয়া হয়। এখানেই শেষ নয়, আজও পর্যন্ত সেই মামলার অভিযোগ পর্যন্ত গঠন হয়নি।

২০২১ সালের ৮ জুলাই বিকালে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে কর্ণগোপ নামক এলাকায় হাসেম ফুড অ্যান্ড বেভারেজের কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আগুনে পুড়ে ৫২ জন শ্রমিক ও কর্মচারী মারা যান।

শ ম রেজাউল করিম বলেন, নারায়ণগঞ্জের এই ফুড ফ্যাক্টরিতে ৫২ জনকে পুড়িয়ে হত্যা করা হলো। এঘটনার পর আসামিরা সবাই জেলে গেলেও বিচার কাজ শুরু হয়নি আজও। এ ধরণের অপরাধের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল করে বিচারের আহ্বান সরকার দলের এই সংসদ সদস্য।

শনিবার (২ মার্চ) জাতীয় সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর ধন্যবাদ প্রস্তাবে অংশ নিয়ে এমন বিস্ফোরক তথ্য উপস্থাপন করেন সাবেক গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

শেখ হাসিনার হাতে দায়মুক্তির সংস্কৃতি ধ্বংস হয়েছে উল্লেখ করে সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, বড় অপরাধীদের বিচারের মাধম্যে দায়মুক্তির সংস্কৃতি থেকে বেড়িয়ে আসা সম্ভব হয়েছে।

শ ম রেজাউল করিম বলেন, সেই সময় চিহ্নিত ১ হাজার ৩০০ ভবন ভাঙা সম্ভব হয়নি, এটাও কিন্তু এক প্রকারের দায়মুক্তি দেওয়া।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

৫ বছরেও ভাঙ্গা হয়নি চিহ্নিত ১৩০০ ভবন!

আপডেট সময় : ০৮:০৬:৫২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৩ মার্চ ২০২৪

 

২০১৯ সালে অননুমোদিত ও ঝুঁকিপূর্ণ ১৩০০ ভবন চিহ্নিত করা হয়েছিলো। কিন্তু সেইসব ভবন ভাঙা হয়নি। ঢাকার বনানীতে এফআর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার পর তদন্ত শেষে ৬২ জনের বিরুদ্ধে রিপোর্ট দেওয়া হলেও অভিযোগপত্রে অনেকের নাম বাদ দেওয়া হয়। এখানেই শেষ নয়, আজও পর্যন্ত সেই মামলার অভিযোগ পর্যন্ত গঠন হয়নি।

২০২১ সালের ৮ জুলাই বিকালে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে কর্ণগোপ নামক এলাকায় হাসেম ফুড অ্যান্ড বেভারেজের কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আগুনে পুড়ে ৫২ জন শ্রমিক ও কর্মচারী মারা যান।

শ ম রেজাউল করিম বলেন, নারায়ণগঞ্জের এই ফুড ফ্যাক্টরিতে ৫২ জনকে পুড়িয়ে হত্যা করা হলো। এঘটনার পর আসামিরা সবাই জেলে গেলেও বিচার কাজ শুরু হয়নি আজও। এ ধরণের অপরাধের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল করে বিচারের আহ্বান সরকার দলের এই সংসদ সদস্য।

শনিবার (২ মার্চ) জাতীয় সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর ধন্যবাদ প্রস্তাবে অংশ নিয়ে এমন বিস্ফোরক তথ্য উপস্থাপন করেন সাবেক গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

শেখ হাসিনার হাতে দায়মুক্তির সংস্কৃতি ধ্বংস হয়েছে উল্লেখ করে সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, বড় অপরাধীদের বিচারের মাধম্যে দায়মুক্তির সংস্কৃতি থেকে বেড়িয়ে আসা সম্ভব হয়েছে।

শ ম রেজাউল করিম বলেন, সেই সময় চিহ্নিত ১ হাজার ৩০০ ভবন ভাঙা সম্ভব হয়নি, এটাও কিন্তু এক প্রকারের দায়মুক্তি দেওয়া।