ঢাকা ১২:১৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪

প্রতিবন্ধীদের তৈরি পণ্যের স্টলে আগ্রহ ক্রেতাদের

স্টাফ রিপোর্টার
  • আপডেট সময় : ১২:২৬:৩৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ৩৫ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

শেষ সময়ে জমে উঠেছে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার ২৮তম আসর। ক্রেতা-দর্শনার্থীর পদচারণায় মুখরিত মেলা প্রাঙ্গণ। সবকিছু ছাপিয়ে এবার ক্রেতাদের বেশি ভিড় লক্ষ্য করা গেছে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের তৈরি মুক্তা ড্রিংকিং ওয়াটার স্টলে। এ স্টলের বিভিন্ন পণ্য কিনতে মেলায় আগত ক্রেতারা হুমড়ি খেয়ে পড়ছেন। গতকাল সোমবার দুপুরে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার মুক্তা ড্রিংকিং ওয়াটার ও মৈত্রী প্লাস্টিক স্টলে সরেজমিন গিয়ে এ চিত্র লক্ষ্য করা গেছে। সরেজমিন দেখা যায়, মেলা উপলক্ষে বিভিন্ন পণ্যসামগ্রীতে নানা অফার দিচ্ছে মুক্তা ড্রিংকিং ওয়াটার ও মৈত্রী প্লাস্টিক। এগুলোর মধ্যে রয়েছে ১৫০ মিলিলিটার পানি ৮ টাকার পরিবর্তে ৫ টাকায়, ২৫০ মিলিলিটার পানি ১৫ টাকার পরিবর্তে ৯ টাকা, এক লিটার পানি ২৫ টাকার পরিবর্তে ২০ টাকা, ৫ লিটার পানি ৭০ টাকার পরিবর্তে ৬০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। এছাড়াও হিট কুকার ৫০০ টাকার পরিবর্তে ৪৫০ টাকায়, প্লাস্টিকের র‌্যাক ৫২৫ টাকার পরিবর্তে ৫০০ টাকায়, ৪০ টাকার প্রতি টিফিন বক্স চারটি কিনলে পাওয়া যাচ্ছে ১০০ টাকায়। মেলায় চার লিটার কনটেইনার একটি কিনলে বিনামূল্যে পাওয়া যাচ্ছে আরেকটি।

২৫০ টাকার জগ বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকায়, সঙ্গে আরেকটি জগ বিনামূল্যে মিলছে। বালতি ৩৫০ টাকার পরিবর্তে ৩২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে, সঙ্গে বিনামূল্যে মগ। রফিক হোসেন নামের এক ক্রেতা জানান, এখানকার সব পণ্য একেবারে কম দামে পাওয়া যাচ্ছে। গত বছরও এখান থেকে অনেক জিনিসপত্র কেনা হয়েছিল। এখানকার পণ্যগুলো বেশ ভালো। তাই এ বছরও কিছু পণ্য কিনে নিয়ে যাচ্ছি। আমিনুল ইসলাম নামের আরেক ক্রেতা জানান, এ স্টলের প্লাস্টিকের পণ্যগুলো বেশ টেকসই। এখান থেকে কিছু জিনিসপত্র কিনবো ভাবছি। স্টলটির ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম বলেন, আমাদের স্টলের প্রতিটি পণ্য প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের হাতের তৈরি। মেলা উপলক্ষে আমরা এসব পণ্যে অফার দিয়েছি। মেলার শুরু থেকেই ক্রেতা-দর্শনার্থীর ভালো সাড়া পাচ্ছি। সবাই আগ্রহ নিয়েই আমাদের স্টলের পণ্যগুলো কিনছেন। আশা করছি গতবারের তুলনায় এবার বিক্রি আরও বেশি হবে। মেলায় এবার যাতায়াতের সুবিধার জন্য মেট্রোরেল ও এলিভেটেট এক্সপ্রেসওয়ের সঙ্গে সংযুক্ত করতে ফার্মগেট থেকে বাসের ব্যবস্থা করা হয়েছে। যাতে উত্তরা বা মতিঝিল থেকে যারা মেলায় আসবেন তারা মেট্রোরেলে এসে ফার্মগেট থেকে বাসে এক্সপ্রেসওয়ে দিয়ে সোজা মেলায় চলে আসতে পারেন সেই সুবিধা রাখা হয়েছে। এছাড়া সাধারণ দর্শনার্থীদের সুবিধার্থে কুড়িল বিশ্বরোড থেকে মেলা পর্যন্ত বিআরটিসি ও কয়েকটি যাত্রীবাহী বাসের ডেডিকেটেড সার্ভিসের ব্যবস্থা করা হয়েছে। মেলা চলাকালীন এ বাস সার্ভিস চালু থাকবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

প্রতিবন্ধীদের তৈরি পণ্যের স্টলে আগ্রহ ক্রেতাদের

আপডেট সময় : ১২:২৬:৩৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

 

শেষ সময়ে জমে উঠেছে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার ২৮তম আসর। ক্রেতা-দর্শনার্থীর পদচারণায় মুখরিত মেলা প্রাঙ্গণ। সবকিছু ছাপিয়ে এবার ক্রেতাদের বেশি ভিড় লক্ষ্য করা গেছে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের তৈরি মুক্তা ড্রিংকিং ওয়াটার স্টলে। এ স্টলের বিভিন্ন পণ্য কিনতে মেলায় আগত ক্রেতারা হুমড়ি খেয়ে পড়ছেন। গতকাল সোমবার দুপুরে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার মুক্তা ড্রিংকিং ওয়াটার ও মৈত্রী প্লাস্টিক স্টলে সরেজমিন গিয়ে এ চিত্র লক্ষ্য করা গেছে। সরেজমিন দেখা যায়, মেলা উপলক্ষে বিভিন্ন পণ্যসামগ্রীতে নানা অফার দিচ্ছে মুক্তা ড্রিংকিং ওয়াটার ও মৈত্রী প্লাস্টিক। এগুলোর মধ্যে রয়েছে ১৫০ মিলিলিটার পানি ৮ টাকার পরিবর্তে ৫ টাকায়, ২৫০ মিলিলিটার পানি ১৫ টাকার পরিবর্তে ৯ টাকা, এক লিটার পানি ২৫ টাকার পরিবর্তে ২০ টাকা, ৫ লিটার পানি ৭০ টাকার পরিবর্তে ৬০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। এছাড়াও হিট কুকার ৫০০ টাকার পরিবর্তে ৪৫০ টাকায়, প্লাস্টিকের র‌্যাক ৫২৫ টাকার পরিবর্তে ৫০০ টাকায়, ৪০ টাকার প্রতি টিফিন বক্স চারটি কিনলে পাওয়া যাচ্ছে ১০০ টাকায়। মেলায় চার লিটার কনটেইনার একটি কিনলে বিনামূল্যে পাওয়া যাচ্ছে আরেকটি।

২৫০ টাকার জগ বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকায়, সঙ্গে আরেকটি জগ বিনামূল্যে মিলছে। বালতি ৩৫০ টাকার পরিবর্তে ৩২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে, সঙ্গে বিনামূল্যে মগ। রফিক হোসেন নামের এক ক্রেতা জানান, এখানকার সব পণ্য একেবারে কম দামে পাওয়া যাচ্ছে। গত বছরও এখান থেকে অনেক জিনিসপত্র কেনা হয়েছিল। এখানকার পণ্যগুলো বেশ ভালো। তাই এ বছরও কিছু পণ্য কিনে নিয়ে যাচ্ছি। আমিনুল ইসলাম নামের আরেক ক্রেতা জানান, এ স্টলের প্লাস্টিকের পণ্যগুলো বেশ টেকসই। এখান থেকে কিছু জিনিসপত্র কিনবো ভাবছি। স্টলটির ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম বলেন, আমাদের স্টলের প্রতিটি পণ্য প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের হাতের তৈরি। মেলা উপলক্ষে আমরা এসব পণ্যে অফার দিয়েছি। মেলার শুরু থেকেই ক্রেতা-দর্শনার্থীর ভালো সাড়া পাচ্ছি। সবাই আগ্রহ নিয়েই আমাদের স্টলের পণ্যগুলো কিনছেন। আশা করছি গতবারের তুলনায় এবার বিক্রি আরও বেশি হবে। মেলায় এবার যাতায়াতের সুবিধার জন্য মেট্রোরেল ও এলিভেটেট এক্সপ্রেসওয়ের সঙ্গে সংযুক্ত করতে ফার্মগেট থেকে বাসের ব্যবস্থা করা হয়েছে। যাতে উত্তরা বা মতিঝিল থেকে যারা মেলায় আসবেন তারা মেট্রোরেলে এসে ফার্মগেট থেকে বাসে এক্সপ্রেসওয়ে দিয়ে সোজা মেলায় চলে আসতে পারেন সেই সুবিধা রাখা হয়েছে। এছাড়া সাধারণ দর্শনার্থীদের সুবিধার্থে কুড়িল বিশ্বরোড থেকে মেলা পর্যন্ত বিআরটিসি ও কয়েকটি যাত্রীবাহী বাসের ডেডিকেটেড সার্ভিসের ব্যবস্থা করা হয়েছে। মেলা চলাকালীন এ বাস সার্ভিস চালু থাকবে।