ঢাকা ০৬:২১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

বগুড়ায় প্রতি কেজি বেগুন ৬ টাকা!

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:০২:৪৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২০ মার্চ ২০২৪ ৪০৯ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

পবিত্র রমজান মাস শুরু দু’একদিন আগে থেকে ৯২ শতাংশ মুসলমানের বাংলাদেশে বেগুন, শশা, কাঁচামরিচ, লেবুসহ কয়েকটি পণ্যের দাম ক্রেতার প্রায় নাগালের বাইরে চলে যায়।

ভোক্তাদের অভিযোগ মুনাখোর ব্যবসায়ীদের কারসাজির কারণেই এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়ে থাকে। রমজানের সপ্তাহখানের মধ্যে ফের পণ্যে দাম কমতে থাকে।

এবারে রমজান শুরুতে ৬০-৮০ কেজি দরে বেগুন বিক্রি হয়েছে। অথচ ৯ রমজানে এসেই বাংলাদেশের বগুড়ায় প্রতিকেজি বেগুন বিক্রি হচ্ছে ৬টাকা থেকে ১৫ টাকা কেজি দরে।

খুচরা বিক্রেতারা ১৫ টাকা থেকে ২০ টাকা দরে বেগুন বিক্রি করা হচ্ছে। স্থানীয় কৃষকরা জানান, বেগুনের উৎপাদন বেশি হওয়ায় বাজারে সরবরাহ বেড়েছে। এ কারণে দাম কমে এসেছে।

বুধবার (২০ মার্চ) বগুড়ার পাইকারি বাজারে প্রতিকেজি বেগুন বিক্রি হয়েছে ৬ টাকা থেকে ১৫ টাকা কেজিতে। ব্যবসায়ীরা জানান, বিপুল পরিমাণ ফলনে বাজারে বেগুন সরবরাহ বেড়েছে।

মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) রাত থেকে বৈরী আবহাওয়াও এর একটি কারণ মনে করেন ব্যবসায়ী ও কৃষকরা।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

বগুড়ায় প্রতি কেজি বেগুন ৬ টাকা!

আপডেট সময় : ১১:০২:৪৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২০ মার্চ ২০২৪

 

পবিত্র রমজান মাস শুরু দু’একদিন আগে থেকে ৯২ শতাংশ মুসলমানের বাংলাদেশে বেগুন, শশা, কাঁচামরিচ, লেবুসহ কয়েকটি পণ্যের দাম ক্রেতার প্রায় নাগালের বাইরে চলে যায়।

ভোক্তাদের অভিযোগ মুনাখোর ব্যবসায়ীদের কারসাজির কারণেই এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়ে থাকে। রমজানের সপ্তাহখানের মধ্যে ফের পণ্যে দাম কমতে থাকে।

এবারে রমজান শুরুতে ৬০-৮০ কেজি দরে বেগুন বিক্রি হয়েছে। অথচ ৯ রমজানে এসেই বাংলাদেশের বগুড়ায় প্রতিকেজি বেগুন বিক্রি হচ্ছে ৬টাকা থেকে ১৫ টাকা কেজি দরে।

খুচরা বিক্রেতারা ১৫ টাকা থেকে ২০ টাকা দরে বেগুন বিক্রি করা হচ্ছে। স্থানীয় কৃষকরা জানান, বেগুনের উৎপাদন বেশি হওয়ায় বাজারে সরবরাহ বেড়েছে। এ কারণে দাম কমে এসেছে।

বুধবার (২০ মার্চ) বগুড়ার পাইকারি বাজারে প্রতিকেজি বেগুন বিক্রি হয়েছে ৬ টাকা থেকে ১৫ টাকা কেজিতে। ব্যবসায়ীরা জানান, বিপুল পরিমাণ ফলনে বাজারে বেগুন সরবরাহ বেড়েছে।

মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) রাত থেকে বৈরী আবহাওয়াও এর একটি কারণ মনে করেন ব্যবসায়ী ও কৃষকরা।