ঢাকা ০১:৩৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪

মিথ্যা তথ্য বা ঘোষণা বহির্ভূত পণ্য আনলে ১ লাখ টাকা জরিমানা

গণমুক্তি ডিজিটাল ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৮:১৭:৫৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ২ জুন ২০২৪ ৬৫ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

নতুন কাস্টমস আইন-২০২৩ ৬ জুন থেকে কার্যকর হচ্ছে। ৩০ মে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে এসব তথ্য ওঠে এসেছে।

তাতে বলা হয়েছে, দেশের বাইরে থেকে আসা কোনো যাত্রী নিজের লাগেজ সম্পর্কে মিথ্যা তথ্য বা ঘোষণা বহির্ভূত পণ্য আনলে ৫০ হাজার থেকে ১ লাখ টাকা জরিমানা গুণতে হবে। লাগেজে থাকা পণ্য রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত হবে। নিষিদ্ধ পণ্য প্রচলতি আইন অনুযায়ী শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে।

কাস্টমস আইনের ১৫৪ ধারায় বলা হয়েছে, বিদেশ থেকে আসা যাত্রীদের কাস্টমসের কাছে তার লাগেজ সম্পর্কে তথ্য জানাতে হবে। যাত্রী বা ক্রু লাগেজে রক্ষিত পণ্য সম্পর্কে কাস্টমস কর্মকর্তার কাছে লিখিত বা মৌখিক ঘোষণা দিতে পারবেন এবং কাস্টমস কর্মকর্তার প্রশ্নের জবাব দিতে হবে।

লাগেজ তল্লাশির আগে যাত্রী যদি রক্ষিত পণ্য সম্পর্কে সঠিক তথ্য দিতে ব্যর্থ হন এবং তল্লাশিকালে ঘোষণা বহির্ভূত পণ্য পাওয়া যায়, তবে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে কাস্টমস কর্মকর্তা সর্বনিম্ন ৫০ হাজার থেকে সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকা জরিমানা করতে পারবেন।

নতুন কাস্টমস আইনে কনটেইনার জট এড়াতে শুল্কায়নের ১০ দিনের মধ্যে শুল্ক-কর পরিশোধ করে বন্দর থেকে পণ্য খালাসের বাধ্যবাধকতা রাখা হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে পণ্য খালাসে ব্যর্থ হলে ১০ শতাংশ হারে সুদ পরিশোধ করতে হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

মিথ্যা তথ্য বা ঘোষণা বহির্ভূত পণ্য আনলে ১ লাখ টাকা জরিমানা

আপডেট সময় : ০৮:১৭:৫৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ২ জুন ২০২৪

 

নতুন কাস্টমস আইন-২০২৩ ৬ জুন থেকে কার্যকর হচ্ছে। ৩০ মে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে এসব তথ্য ওঠে এসেছে।

তাতে বলা হয়েছে, দেশের বাইরে থেকে আসা কোনো যাত্রী নিজের লাগেজ সম্পর্কে মিথ্যা তথ্য বা ঘোষণা বহির্ভূত পণ্য আনলে ৫০ হাজার থেকে ১ লাখ টাকা জরিমানা গুণতে হবে। লাগেজে থাকা পণ্য রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত হবে। নিষিদ্ধ পণ্য প্রচলতি আইন অনুযায়ী শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে।

কাস্টমস আইনের ১৫৪ ধারায় বলা হয়েছে, বিদেশ থেকে আসা যাত্রীদের কাস্টমসের কাছে তার লাগেজ সম্পর্কে তথ্য জানাতে হবে। যাত্রী বা ক্রু লাগেজে রক্ষিত পণ্য সম্পর্কে কাস্টমস কর্মকর্তার কাছে লিখিত বা মৌখিক ঘোষণা দিতে পারবেন এবং কাস্টমস কর্মকর্তার প্রশ্নের জবাব দিতে হবে।

লাগেজ তল্লাশির আগে যাত্রী যদি রক্ষিত পণ্য সম্পর্কে সঠিক তথ্য দিতে ব্যর্থ হন এবং তল্লাশিকালে ঘোষণা বহির্ভূত পণ্য পাওয়া যায়, তবে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে কাস্টমস কর্মকর্তা সর্বনিম্ন ৫০ হাজার থেকে সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকা জরিমানা করতে পারবেন।

নতুন কাস্টমস আইনে কনটেইনার জট এড়াতে শুল্কায়নের ১০ দিনের মধ্যে শুল্ক-কর পরিশোধ করে বন্দর থেকে পণ্য খালাসের বাধ্যবাধকতা রাখা হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে পণ্য খালাসে ব্যর্থ হলে ১০ শতাংশ হারে সুদ পরিশোধ করতে হবে।