ঢাকা ০১:১৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪

রুমার পর থানচিতে ফিল্মী কায়দায় ২ ব্যাংকে ডাকাতি

গণমুক্তি ডিজিটাল ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৩:১৫:৪৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ এপ্রিল ২০২৪ ১৪৫ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

রাতে রুমায় ব্যাংকের ডাকাতির পর দিনেদুপুরে থানচির সোনালী ব্যাংক ও কৃষি ব্যাংকে ডাকাতির ঘটনা ঘটলো। বুধবার (৩ এপ্রিল) বেলা ১টা নাগাদ থানচি বাজার ঘেরাও করে অস্ত্রধারীরা ব্যাংকে লুপতরাজ চালায়।

এসময় সোনালী ও পাশের কৃষি ব্যাংকে ঢুকে ফিল্মী কায়দায় সবাইকে জিম্মি করে এবং টাকা লুটের সঙ্গে বাজারের বেশ কয়েকজনের মোবাইল ফোন লুটে নিয়ে ফাঁকা গুলি ছুড়তে ছুড়তে চলে যায় তারা।

কৃষি ব্যাংকের থানচি উপজেলার শাখার ব্যবস্থাপক হ্লা সুই থোয়াই বলেন, তারা চোখের পলকে ব্যাংকে ঢুকে সবাইকে জিম্মি করে একটি কক্ষে নিয়ে বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে দেয়। তারা ব্যাংকের কি পরিমাণ টাকা লুট হয়েছে তা সব দেখার পর বলা যাবে।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) রাত ৯টা নাগাদ ৭০-৮০ জন সশস্ত্র সন্ত্রাসী রুমা উপজেলা পরিষদ এলাকা ঘেরাও করে সোনালী ব্যাংকে গিয়ে পাহারারত পুলিশ ও আনসার সদস্যদের অস্ত্র কেড়ে নেয় এবং মারধর করে। ব্যাংকে ঢুকে ভাঙচুর ও লুটপাট চালায়। সেই সঙ্গে ব্যাংকের ম্যানেজারকে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

বান্দরবানের পুলিশ সুপার সৈকত শাহীন জানান, স্থানীয়দের ধারণা এ ঘটনা নব্য বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন কুকিচিন ন্যাশনাল ফ্রন্ট (কেএনএফ) ঘটিয়ে থাকতে পারে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

রুমার পর থানচিতে ফিল্মী কায়দায় ২ ব্যাংকে ডাকাতি

আপডেট সময় : ০৩:১৫:৪৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ এপ্রিল ২০২৪

 

রাতে রুমায় ব্যাংকের ডাকাতির পর দিনেদুপুরে থানচির সোনালী ব্যাংক ও কৃষি ব্যাংকে ডাকাতির ঘটনা ঘটলো। বুধবার (৩ এপ্রিল) বেলা ১টা নাগাদ থানচি বাজার ঘেরাও করে অস্ত্রধারীরা ব্যাংকে লুপতরাজ চালায়।

এসময় সোনালী ও পাশের কৃষি ব্যাংকে ঢুকে ফিল্মী কায়দায় সবাইকে জিম্মি করে এবং টাকা লুটের সঙ্গে বাজারের বেশ কয়েকজনের মোবাইল ফোন লুটে নিয়ে ফাঁকা গুলি ছুড়তে ছুড়তে চলে যায় তারা।

কৃষি ব্যাংকের থানচি উপজেলার শাখার ব্যবস্থাপক হ্লা সুই থোয়াই বলেন, তারা চোখের পলকে ব্যাংকে ঢুকে সবাইকে জিম্মি করে একটি কক্ষে নিয়ে বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে দেয়। তারা ব্যাংকের কি পরিমাণ টাকা লুট হয়েছে তা সব দেখার পর বলা যাবে।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) রাত ৯টা নাগাদ ৭০-৮০ জন সশস্ত্র সন্ত্রাসী রুমা উপজেলা পরিষদ এলাকা ঘেরাও করে সোনালী ব্যাংকে গিয়ে পাহারারত পুলিশ ও আনসার সদস্যদের অস্ত্র কেড়ে নেয় এবং মারধর করে। ব্যাংকে ঢুকে ভাঙচুর ও লুটপাট চালায়। সেই সঙ্গে ব্যাংকের ম্যানেজারকে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

বান্দরবানের পুলিশ সুপার সৈকত শাহীন জানান, স্থানীয়দের ধারণা এ ঘটনা নব্য বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন কুকিচিন ন্যাশনাল ফ্রন্ট (কেএনএফ) ঘটিয়ে থাকতে পারে।