ঢাকা ০৩:৩৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::

বাংলাশের ভূখন্ডে ঢুকে নারীদের লক্ষ্য করে বিএসএফ’র গুলি

গণমুক্তি ডিজিটাল ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৫:০২:৪৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মে ২০২৪ ৪৩ বার পড়া হয়েছে

বিএসএফের ছোঁড়া গুলি

দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

ভারতীয় সীমান্ত রক্ষীবাহিনী (বিএসএফ) বাংলাশের ভূখন্ডে ঢুকে নারীদের লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়েছে। সৌভাগ্যবশত এ ঘটনায় কেউ হতাহত না হলেও গুলিতে এক বাংলাদেশি ব্যক্তির বসতভিটার ঘরের চাল ফুচে হয়ে গিয়েছে। বিএসএফের ছোঁড়া গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে।

এলাকার বাসিন্দা শাহ আলম মিয়াসহ কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী সংবাদমাধ্যমকে জানান, গত রোববার বিকাল সাড়ে পাঁচটার নাগাদ সীমান্ত এলাকার কয়েকজন নারী রান্নার জন্য কেটে নেওয়া ধান গাছের গোড়ার খড় সংগ্রহে নো-ম্যানসল্যান্ডে প্রবেশ করেন।

এ সময় ভারতীয় নারায়ণগঞ্জ ক্যাম্পের টহলরত এক বিএসএফ সদস্য নারীদের ধাওয়া করে বাংলাদেশের ভূখন্ডের ভেতরে চলে আসে এবং এক পর্যায়ে রাইফেল উঁচিয়ে বাংলাদেশি নারীদের লক্ষ্য করে এক রাউন্ড গুলি করে দ্রুত ভারতের অভ্যন্তরে চলে যান।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গুলিতে কারও হতাহতের ঘটনা না ঘটলেও তা লক্ষ্যচ্যুত হয়ে স্থানীয় নুর আলম বাচ্চুর বাড়ির রান্নাঘরের চালে আঘাত করে এবং চালের টিন ফুটো হয়ে গুলিটি মেঝেতে পড়ে। সে সময় রান্না ঘরে বাচ্চুর পুত্রবধূ থাকলেও ভাগ্যক্রমে তিনি বেঁচে যান।

নুর আলম বাচ্চু বলেন, ওই সময় আমার পুত্রবধূ রান্নাঘরেই ছিল। ভাগ্যিস গুলিটা তার গায়ে লাগেনি। মাঝেমধ্যেই বিএসএফ এভাবে বাংলাদেশে ঢুকে নিরীহ গ্রামবাসীর ওপর অত্যাচার চালায়। আমরা আতঙ্কে থাকি।

জানা গেছে, পতাকা বৈঠকে বিনা উসকানিতে সীমান্তে গুলিবর্ষণের কারণ জানতে চেয়ে বিজিবি কড়া প্রতিবাদ জানালেও পরিষ্কার কোনও ব্যাখ্যা দেয়নি বিএসএফ।

রোববার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে নুর আলম বাচ্চুর বাড়ি পরিদর্শন করে গুলিটি উদ্ধার করে নিয়ে যান। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনায় সোমবার সকালে বিএসএফকে কড়া প্রতিবাদ জানায় বিজিবি। সোমবার সন্ধ্যায় সীমান্তে বিজিবি-বিএসএফের কোম্পানি পর্যায়ে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

বাংলাশের ভূখন্ডে ঢুকে নারীদের লক্ষ্য করে বিএসএফ’র গুলি

আপডেট সময় : ০৫:০২:৪৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মে ২০২৪

 

ভারতীয় সীমান্ত রক্ষীবাহিনী (বিএসএফ) বাংলাশের ভূখন্ডে ঢুকে নারীদের লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়েছে। সৌভাগ্যবশত এ ঘটনায় কেউ হতাহত না হলেও গুলিতে এক বাংলাদেশি ব্যক্তির বসতভিটার ঘরের চাল ফুচে হয়ে গিয়েছে। বিএসএফের ছোঁড়া গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে।

এলাকার বাসিন্দা শাহ আলম মিয়াসহ কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী সংবাদমাধ্যমকে জানান, গত রোববার বিকাল সাড়ে পাঁচটার নাগাদ সীমান্ত এলাকার কয়েকজন নারী রান্নার জন্য কেটে নেওয়া ধান গাছের গোড়ার খড় সংগ্রহে নো-ম্যানসল্যান্ডে প্রবেশ করেন।

এ সময় ভারতীয় নারায়ণগঞ্জ ক্যাম্পের টহলরত এক বিএসএফ সদস্য নারীদের ধাওয়া করে বাংলাদেশের ভূখন্ডের ভেতরে চলে আসে এবং এক পর্যায়ে রাইফেল উঁচিয়ে বাংলাদেশি নারীদের লক্ষ্য করে এক রাউন্ড গুলি করে দ্রুত ভারতের অভ্যন্তরে চলে যান।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গুলিতে কারও হতাহতের ঘটনা না ঘটলেও তা লক্ষ্যচ্যুত হয়ে স্থানীয় নুর আলম বাচ্চুর বাড়ির রান্নাঘরের চালে আঘাত করে এবং চালের টিন ফুটো হয়ে গুলিটি মেঝেতে পড়ে। সে সময় রান্না ঘরে বাচ্চুর পুত্রবধূ থাকলেও ভাগ্যক্রমে তিনি বেঁচে যান।

নুর আলম বাচ্চু বলেন, ওই সময় আমার পুত্রবধূ রান্নাঘরেই ছিল। ভাগ্যিস গুলিটা তার গায়ে লাগেনি। মাঝেমধ্যেই বিএসএফ এভাবে বাংলাদেশে ঢুকে নিরীহ গ্রামবাসীর ওপর অত্যাচার চালায়। আমরা আতঙ্কে থাকি।

জানা গেছে, পতাকা বৈঠকে বিনা উসকানিতে সীমান্তে গুলিবর্ষণের কারণ জানতে চেয়ে বিজিবি কড়া প্রতিবাদ জানালেও পরিষ্কার কোনও ব্যাখ্যা দেয়নি বিএসএফ।

রোববার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে নুর আলম বাচ্চুর বাড়ি পরিদর্শন করে গুলিটি উদ্ধার করে নিয়ে যান। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনায় সোমবার সকালে বিএসএফকে কড়া প্রতিবাদ জানায় বিজিবি। সোমবার সন্ধ্যায় সীমান্তে বিজিবি-বিএসএফের কোম্পানি পর্যায়ে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।