ঢাকা ০৪:২৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

স্বাধীনতা দিবসে রাজশাহীতে বিচার বিভাগের আলোচনা সভা

রাজশাহী ব্যুরো
  • আপডেট সময় : ১২:৫৭:১৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ মার্চ ২০২৪ ১৩১ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

রাজশাহীতে বিচার বিভাগ আয়োজিত স্বাধীনতা দিবসে আলোচনা সভায় যুক্ত হয়ে জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান বলেছেন, ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চের প্রথম প্রহরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন। এরপর ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মধ্যদিয়ে পৃথিবীর মানচিত্রে লাল-সবুজে খচিত পতাকা স্থান করে নেয়।

মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে জেলা ও দায়রা জজ বলেন, লাখো শহীদের রক্ত আর মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত গৌরবময় স্বাধীনতা দিবসে দাড়িয়ে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ায় প্রত্যায়ে কাজ করে যাবার আহ্বান জানান।

রাজশাহী জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় রাজশাহী আদালতের সকল বিচারক ও ান্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত, রাজশাহীর সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বীর শহীদের আত্মার শান্তি কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

স্বাধীনতা দিবসে রাজশাহীতে বিচার বিভাগের আলোচনা সভা

আপডেট সময় : ১২:৫৭:১৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ মার্চ ২০২৪

 

রাজশাহীতে বিচার বিভাগ আয়োজিত স্বাধীনতা দিবসে আলোচনা সভায় যুক্ত হয়ে জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান বলেছেন, ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চের প্রথম প্রহরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন। এরপর ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মধ্যদিয়ে পৃথিবীর মানচিত্রে লাল-সবুজে খচিত পতাকা স্থান করে নেয়।

মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে জেলা ও দায়রা জজ বলেন, লাখো শহীদের রক্ত আর মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত গৌরবময় স্বাধীনতা দিবসে দাড়িয়ে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ায় প্রত্যায়ে কাজ করে যাবার আহ্বান জানান।

রাজশাহী জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় রাজশাহী আদালতের সকল বিচারক ও ান্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত, রাজশাহীর সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বীর শহীদের আত্মার শান্তি কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়।