ঢাকা ১১:৩৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo রাজাকার  স্লোগান দিলে আর ছাড় নয়: রাবি ছাত্রলীগ সভাপতি Logo ঢাবিতে সংঘর্ষে আহত হয়ে ঢাকা মেডিকেলে ২২৬, আতঙ্ক Logo শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা: দেশজুড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে মঙ্গলবার বিক্ষোভের ডাক Logo শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার জন্য  প্রাধ্যক্ষরা রাতভর হলে অবস্থান করবেন: উপাচার্য  Logo ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন Logo আন্দোলনকারীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলায় দুই শতাধিক আহতের দাবি Logo সত্য না লিখলে পত্রিকা ডাস্টবিনে ফেলে দিন: প্রধানমন্ত্রী Logo এর জবাব ছাত্রলীগই দেবে: কাদের Logo ঢাবিতে আন্দোলনকারী ও ছাত্রলীগের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া Logo ভিক্ষু ড.এফ দীপংকর মহাথেরুর মৃত্যুর বিষয়টি তদন্ত করছে পুলিশ : পুলিশ সুপার

কোপার কোয়ার্টার ফাইনালে আর্জেন্টিনা

গণমুক্তি ডিজিটাল ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০১:৫৩:২৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৬ জুন ২০২৪ ৪৫ বার পড়া হয়েছে

একমাত্র গোলটি করেছেন মার্টিনেজ 

দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

টান টান উত্তেজনা। হাতে সময় মাত্র দুই মিনিট। মেসির কর্নার থেকে পাওয়া বলে প্রথম শটটি ব্লক করেছিলেন ব্রাভো। সেটি রিবাউন্ড হয়ে কাছে এলে বক্সের মাঝামাঝি থেকে জাল কাঁপিয়েছেন মার্টিনেজ। ৮৮ মিনিটের মাথায় গোলটি করেন বদলি নামা লাউতারো মার্টিনেজ।

তারপরই উত্তেজনায় ফেটে পড়ে স্টেডিয়াম। ফুটবল ভক্তদের উল্লাস দেখলো আর্জেন্টিনা। স্টেডিয়ামে গ্যালারির ৯০ শতাংশ ভক্তই মেসি নাম ও নম্বর গায়ে আর্জেন্টিনার জার্সি পরা।

কোপা আমেরিকায় আর্জেন্টিনার কঠিন পরীক্ষা নিয়েছে চিলি। জয় পেতে অপেক্ষায় থাকতে হয়েছে শেষ পর্যন্ত। তার পরেও বদলি খেলোয়াড় লাউতারো মার্টিনেজের গোলে এসেছে ঘাম ঝরানো কাঙ্ক্ষিত জয়! তাতে চিলিকে ১-০ গোলে হারিয়ে সবার আগে কোপার কোয়ার্টার ফাইনালে চলে গেছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

গ্রুপ -এ থেকে দুই ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে আর্জেন্টিনা শীর্ষে। পেরুকে ১-০ গোলে হারিয়ে ৩ পয়েন্ট নিয়ে কানাডা দুই নম্বরে। তারা নকআউটের আশা এখনও বাঁচিয়ে রেখেছে। চিলি ও পেরুর একটি করে পয়েন্ট।

নিউ জার্সির মেট লাইফ স্টেডিয়ামে আর্জেন্টিনার শুরুটা ছিল বেশ সতর্ক। দক্ষিণ আমেরিকার দুই হেভিওয়েটের লড়াই বলে কথা। এই মাঠেই যে ২০১৬ সালের ফাইনালে টাইব্রেকারে তাদের হৃদয় ভেঙেছিল চিলি। যে ব্যর্থতা মেনে নিতে না পেরে মেসি অবসরের সিদ্ধান্তও নিয়ে ফেলেছিলেন। তার পর অবশ্য সিদ্ধান্ত বদল করেছেন যদিও।

আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে হাজির ছিলেন দর্শকরা।

অফুরান সমর্থনের দিনে আর্জেন্টিনা অবশ্য দর্শকদের হতাশ করেনি। ধীরে ধীরে ম্যাচটাতে আধিপত্য প্রতিষ্ঠা করেছে। স্কোরলাইন সেটার সাক্ষ্য দেয় না যদিও। বল দখলে আর্জেন্টিনা ৬২ শতাংশ এগিয়ে ছিল। গোল করার জন্য শটও নিয়েছে ২১টি। তার মধ্যে লক্ষ্যে ছিল ৮। ৫ বার সুবর্ণ সুযোগ তৈরি করলেও এক পর্যায়ে ড্র সম্ভাব্য মনে হচ্ছিল। শেষ পর্যন্ত ২১তম শটে ভাগ্য বদলেছেন মার্টিনেজ।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

কোপার কোয়ার্টার ফাইনালে আর্জেন্টিনা

আপডেট সময় : ০১:৫৩:২৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৬ জুন ২০২৪

 

টান টান উত্তেজনা। হাতে সময় মাত্র দুই মিনিট। মেসির কর্নার থেকে পাওয়া বলে প্রথম শটটি ব্লক করেছিলেন ব্রাভো। সেটি রিবাউন্ড হয়ে কাছে এলে বক্সের মাঝামাঝি থেকে জাল কাঁপিয়েছেন মার্টিনেজ। ৮৮ মিনিটের মাথায় গোলটি করেন বদলি নামা লাউতারো মার্টিনেজ।

তারপরই উত্তেজনায় ফেটে পড়ে স্টেডিয়াম। ফুটবল ভক্তদের উল্লাস দেখলো আর্জেন্টিনা। স্টেডিয়ামে গ্যালারির ৯০ শতাংশ ভক্তই মেসি নাম ও নম্বর গায়ে আর্জেন্টিনার জার্সি পরা।

কোপা আমেরিকায় আর্জেন্টিনার কঠিন পরীক্ষা নিয়েছে চিলি। জয় পেতে অপেক্ষায় থাকতে হয়েছে শেষ পর্যন্ত। তার পরেও বদলি খেলোয়াড় লাউতারো মার্টিনেজের গোলে এসেছে ঘাম ঝরানো কাঙ্ক্ষিত জয়! তাতে চিলিকে ১-০ গোলে হারিয়ে সবার আগে কোপার কোয়ার্টার ফাইনালে চলে গেছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

গ্রুপ -এ থেকে দুই ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে আর্জেন্টিনা শীর্ষে। পেরুকে ১-০ গোলে হারিয়ে ৩ পয়েন্ট নিয়ে কানাডা দুই নম্বরে। তারা নকআউটের আশা এখনও বাঁচিয়ে রেখেছে। চিলি ও পেরুর একটি করে পয়েন্ট।

নিউ জার্সির মেট লাইফ স্টেডিয়ামে আর্জেন্টিনার শুরুটা ছিল বেশ সতর্ক। দক্ষিণ আমেরিকার দুই হেভিওয়েটের লড়াই বলে কথা। এই মাঠেই যে ২০১৬ সালের ফাইনালে টাইব্রেকারে তাদের হৃদয় ভেঙেছিল চিলি। যে ব্যর্থতা মেনে নিতে না পেরে মেসি অবসরের সিদ্ধান্তও নিয়ে ফেলেছিলেন। তার পর অবশ্য সিদ্ধান্ত বদল করেছেন যদিও।

আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে হাজির ছিলেন দর্শকরা।

অফুরান সমর্থনের দিনে আর্জেন্টিনা অবশ্য দর্শকদের হতাশ করেনি। ধীরে ধীরে ম্যাচটাতে আধিপত্য প্রতিষ্ঠা করেছে। স্কোরলাইন সেটার সাক্ষ্য দেয় না যদিও। বল দখলে আর্জেন্টিনা ৬২ শতাংশ এগিয়ে ছিল। গোল করার জন্য শটও নিয়েছে ২১টি। তার মধ্যে লক্ষ্যে ছিল ৮। ৫ বার সুবর্ণ সুযোগ তৈরি করলেও এক পর্যায়ে ড্র সম্ভাব্য মনে হচ্ছিল। শেষ পর্যন্ত ২১তম শটে ভাগ্য বদলেছেন মার্টিনেজ।